সারা খুলনা অঞ্চলের খবর

9
Spread the love

খুলনায় ট্যাংকলরী শ্রমিকদের পুর্নদিবস কর্ম বিরতি

স্টাফ রিপোর্টার

সিলেট বিভাগীয় ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইকবাল হোসেন রিপন হত্যার প্রতিবাদে খুলনায় পুর্নদিবস কর্ম বিরতি পালন করেছে ট্যাংকলরী শ্রমিকরা। বাংলাদেশ ট্যাংকলরী মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে এ কর্ম বিরতি পালন করা হয়। কর্ম বিরতি চলাকালে পদ্মা, মেঘনা, যমুনা তিনটি তেল ডিপো থেকে কোন প্রকার তেল উত্তোলন করেনি শ্রমিকরা, তারা ট্যাংকলরী চলাচলও বন্ধ রাখে। এ সময় খুলনা ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়ন চত্বরে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ইকবাল হোসেন রিপনের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্ঠান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান মালিক, শ্রমিকরা। খুলনা বিভাগীয় ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শেখ নুর ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করা না হলে অনিদৃষ্টকালের কর্ম বিরতির আল্টিমেটাম প্রদান করেন নের্তৃবৃন্দ। প্রতিবাদ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন সাধারণ সম্পাদক আলী আজিম, মিজানুর রহমান মিজ, সাবেক সভাপতি মীর মোকেসেদ আলী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এনাম মুন্সি। উল্লেখ্য, গত ১০ জুলাই সিলেট বিভাগীয় ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইকবাল হোসেন রিপন সন্ত্রাসীদের ছরিকাঘাতে নিহত হয়।

খালিশপুর হাউজিং বাজারে বাপ্পি হত্যা মামলায় প্রকৃত আসামীদের গ্রেফতারের দাবি এলাকাবাসীর

স্টফি রিপোর্টার

খালিশপুর হাউজিং বাজার ১ নং বিহারী ক্যাম্পের সুমন হোসেন বাপ্পি হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ তদন্ত চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে নিহত বাপ্পির পরিবার। গতকাল খুলনা প্রেস কাবে সংবাদ সম্মেলন বাপ্পির মায়ের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মোঃ ইকবাল হোসেন। সংবাদ সম্মেলনের লিখিত কাগজে মামলায় ১৪ জন আসামীসহ গুরুত্বপুর্ন আসামীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে। এদিকে বাপ্পির পরিবার থেকে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন ও নিরিহ মানুষকে মামলায় জড়ানোর ঘটনায় নানা প্রতিক্রিয়া ও আলোচনা, সমালোচনা শুরু হয়েছে। নিরিহ মানুষকে হয়রানি না করার জন্য প্রশাসনসহ বিভিন্ন দপ্তরে আর্জি করেছ এলাকার সাধারণ মানুষ। ঘটনার বিবারনে জানাযায়, গত ১৬ জুন ৭ নং ক্যাম্পের কাছে হাউজিং বাজারের ওষুধ ব্যবসায়ী সুজন ও সুমনকে মারধোর করে ১ নং বিহারী ক্যাম্পের মোঃ সবুজের পুত্র বাপ্পি। পরেরদিন সকালে আবারো ৭ নং বিহারী ক্যাম্পে দেশয়ী অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয় বাপ্পি। এ সময় ক্যম্পের বাসিন্দারা তাকে ধাওয়া দেয়। এ ঘটনায় বাপ্পি তার কোমেরে থাকা চাপাতি দিয়ে ক্যাম্পের লোকজনের উপর হামলা চালালে ক্যাম্পের বাসিন্দরা সংবদ্ধ হয়ে বাপ্পির কাছ থেকে চাপাতি কেড়ে নিয়ে তাকে জখম করে। গুরুত্বর জখম অবস্থায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে বাপ্পির অবস্থা অবনতি ঘটলে ওইদিন রাতে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। ৪ দিন পর ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাপ্পির মৃত্যু হয়। এর আগে ১৮ জুন বাপ্পির স্ত্রী রানি খাতুন বাদী হয়ে ১২ জনের নামে খালিশপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। সে অভিযোগটি এখন হত্যা মামলায় হিসেবে তদন্ত করছে খালিশপুর থানার পুলিশ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক কাজী বাবুল হোসেন মামলার ১০ জন এজাহার নামীয় আসামীকে আলমনগর মোড় থেকে আটক করে আদালাতে পাঠান। শাবানা ও নাদিম নামে দুই আসামী পলাতক রয়েছে। মামলায় ১২ জন এজাহার নামীয় আসামী থাকলেও সংবাদ সম্মেলনে ১৪ জনের নাম উল্লেখ্য করার বিষয়ে খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাব্বিরুল আলম জানান, মামলায় ১২ জনের নাম উল্লেখ্য ও অজ্ঞাতনামা কয়েকজনরে বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। অহেতুক কোন নিরিহ মানুষকে মিথ্যা মামলায় জড়ানো হবেনা বলে তিনি জানান। তিনি আরো বলেন বাপ্পি খালিশপুর থানার একজন তালিকা ভুক্ত সন্ত্রাসী, তার নামে মাদক, চাঁদাবাজী, হত্যা, মারামারিসহ ১০ টি মামলা রয়েছে। সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কারনে এলাকাবাসীর সাথে বাপ্পির সম্পর্ক ভালো ছিলনা। এলাকাবাসী ও হাউজিং বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ নাদিম জানান, বাপ্পি বখাটে ছিল, ক্যাম্পের অনেককে মারধোর, তাদের মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়া এবং মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল। প্রতিবেশী গৃহিনী নুসরাত বেগম জানান, বাপ্পি বদমেজাজী ও বখাটে ছিল, এলাকায় প্রায় নিরিহ মানুষের সাথে মারামারি করতো। এদিকে বাপ্পি মারা যাওয়ার পর তার পরিবারের বিরুদ্ধে নিরিহ মানুষকে মামলায় জড়ানো ভয়ভিতি দেখানো এবং বাপ্পির দোসররাসহ বর্তমান একটি কুচক্রি মহল মিথ্যা মামলায় জড়ানোর ভয় দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ তোলে এলাকাবাসী। ১২ নং ওয়ার্ড যুবলীগের আহবায়ক ও শিক্ষক হোসাইন সবুজ জানান তার দায়ের করা একটি মামলার আসামী ছিল নিহত বাপ্পি। গত কয়েকদিন আগে মামলার বাদী ও তার পরিবার মামলায় নাম দেয়া হবেনা বলে তার কাছে ২ লাখ টাকা দাবি করে। তিনি টাকা দিতে অপরগতা প্রকাশ করায় তাকে প্রতিনিয়ত মামলায় জড়ানোর হুমকি দেয়া হচ্ছে। এ বিষয়টি তিনি থানার ওসিকে জানিয়েছেন বলে তিনি জানান। এ ঘটনায় গত ২৭ জুন খুলনা প্রেস কাবে সংবাদ সম্মেলন করে ৭ নং ক্যাম্পের বাসিন্দরা। ১ ও ৭ নং ক্যাম্পের নিরিহ বাসিন্দারা নিরিহ মানুষকে বাচাঁতে এবং ঘটনার সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত আপরাধীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন তারা।

আ’লীগ নেতা শিল্পপতি শেখ মজনু ও ২৩নং ওয়ার্ড সহ-সভাপতি অনি’র সুুস্থ্যতা কামনায় নেতৃবৃন্দের বিবৃতি

খবর বিজ্ঞপ্তি

৬নং ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার বিশিষ্ট শিল্পপতি আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব শেখ মজনু হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এছাড়া ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনিছুর রহমান অনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। নেতৃবৃন্দের সুস্থ্যতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী, নুর ইসলাম বন্দ, খুলনা সদর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, দৌলতপুর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ সৈয়দ আলী, খুলনা সদর থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম, দৌলতপুর থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বন্দ, ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি চৌধুরী মিনহাজ উজজামান সজল, সাধারণ সম্পাদক ফয়েজুল ইসলাম টিটো সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

বটিয়াঘাটার আমানাত হোসেনের মৃত্যু মারপিটের কার নেই!

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

বটিয়াঘাটা উপজেলার হেতালবুনিয়া গ্রামের আমানাত হোসেনের মৃত্যু স্বাভাবিক মৃত্যু নয় বরং মারপিটের কারনেই মৃত্যু হয়েছে  দাবী করে থানায় সাধারন ডায়েরী হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তার পুত্র মোঃ রায়হান হোসেন গত ১০ জুলাই ৩৫২ নং জিডি এন্ট্রি করেছেন। জিডি সূত্রে প্রকাশ, উপজেলার বিরাট গ্রামের মনিরুলের বাড়ীর সামনে গত ২৬ জুন সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই একই এলাকার মৃতঃ ইদ্রিস মৌলভীর পুত্র মোঃ খোকন(৪৫) গংদের সাথে মারামারির ঘটনা ঘটে। ওই মারামারিতে আমানাত হোসেন সহ অন্যান্যরা মারপিটে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ীতে আসে। এ নিয়ে গত ৪ জুলাই থানায় ০২ নং মামলা রুজু হয়। গত ১০ জুলাই সকাল ৯ টার দিকে আমানতের বুকে ব্যথা অনুভব হলে স্হানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ নিয়ে মৃতের পুত্র শেখ মোঃ রায়হান হোসেন মারপিটের কারনে পিতার মৃত্যু হয়েছে দাবী করে গত ১০ জুলাই ৩৫২ নং জিডি এন্ট্রি করে। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ লাশটি ময়না তদন্তের জন্য খুমেক হাসপাতালে প্রেরণ পূর্বক পরিবারের নিকট  অতঃপর হস্তান্তর করে। থানার ওসি রবিউল কবির জানান, মারামারির ঘটনায় উভয় পক্ষের দুটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে পৃথকভাবে দুটি মামলা রুজু করা হয়েছে। একটি পক্ষের মামলার আসামী আমানাত হোসেন বুকে ব্যথার অনুভব নিয়ে হাসপাতালে গিয়ে মারা গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করলে তার পুত্র বাদী হয়ে একটি জিডি এন্ট্রি করে। উক্ত জিডি এন্ট্রির প্রেক্ষিতে লাশটির ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

শরণখোলায় গত দু দিনে করোনায় আক্রান্ত-৫

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

বাগেরহাটের শরণখোলায় গত দু দিনে করোনায় ৫জন আক্রান্ত হয়েছে। এনিয়ে শরণখোলা আক্রান্তের সংখ্যা হলো ২৭। তবে, সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছে ২২জন। উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ ফরিদা ইয়াসমিন জানান, গত ১ সপ্তাহ আগে এদের নমুনা সংগ্রহ খুলনার পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। গতকাল রোববার ৩ জন ও শনিবার ২জনের করোনা পজেটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায়। এরা হচ্ছেন উপজেলার রায়েন্দা গ্রামের হাসেম খলিফা (৫৫), মোস্তফা হাওলাদার (৫৫), উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ষ্টাফ আঃ মান্নান (৫৫), উপজেলা স্বাস্থ্য সহকারী রিনা চক্রবর্তী, জানেরপাড় গ্রামের আঃ কাদের সওদাগরের ছেলে শাহজাহান সওদাগর (৪৫)। করোনায় আক্রান্তরা নিজ নিজ বাড়ীতে আইসোলেশনে রয়েছেন। শরণখোলায় এ পর্যন্ত ২৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন এবং ২২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন বলে তিনি জানান।

শরণখোলায় বাড়ি বাড়ি পৌছে দিল স্কুল ফিডিং বিস্কুট

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

বাগেরহাটের শরণখোলায় করোনা ভাইরাস সংক্রমনের কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুল ফিডিং পুষ্টি বিস্কুট বাড়ি বাড়ি পৌছে দিয়েছে বাস্তবায়নকারী সংস্থা আরআরএফ। রবিবার সকালে ৩১ নম্বর টিটি এন্ড ডিসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়।

রুরাল রিকনষ্ট্রাকশন ফাউন্ডেশনের (আরআরএফ) মাঠ তত্ত্বাবধায়ক রমেশ মন্ডল জানান, করোনার কারণে স্কুল ছুটিকালীন সময়ে শরণখোলা উপজেলার ১২,২৪৭ জন ছাত্র-ছাত্রীকে ৪০ প্যাকেট করে এ পুষ্টি বিস্কুট বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌছে দেয়া হবে। রবিবার থেকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এ সময় ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক সেলিনা আক্তার ও সহকারী শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় বিল থেকে কৃষকের মরদেহ উদ্ধার

খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটার একটি বিল থেকে এক কৃষকের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে পাটকেলঘাটা থানার সরুলিয়া ইউনিয়নের তৈলকুপি গ্রামের একটি বিল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত কৃষকের নাম রাশেদুল ইসলাম সরদার (৪০)। তিনি তৈলকুপি গ্রামের মৃত মিরাজ উদ্দীন সরদারের ছেলে।

নিহতের স্বজনরা জানান, শনিবার রাতে রাশেদুল তার বাড়ির পাশে তৈলকুপি গ্রামের ডুরির বিলে তার সবজি ও মৎস্য খামারে যান। রোববার সকালে তিনি বাড়ি না ফেরায় তার পরিবারের লোকজন তাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখঁজি শুরু করেন। একপর্যায়ে দুপুরে স্থানীয় অন্যান্য কৃষকরা তার রক্তাক্ত মরদেহ ডুরির বিলে পড়ে থাকতে দেখে প্রথমে তার পরিবারের লোকজনকে খবর দেন। পরে তার পরিবারের লোকজন তাকে দেখার পর পুলিশে খবর দেন। এরপর পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করেন।

পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী ওয়াহেদ মুর্শেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, নিহতের গায়ের কয়েকটি স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, ময়না তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার আসল তথ্য জানা যাবে। তবে, হত্যার রহস্য উদঘাটনে পুলিশ ইতিমধ্যে মাঠে নেমেছেন।

করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক বৃদ্ধার মৃত্যু

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক বৃদ্ধা নারীর মৃত্যু হয়েছে। রোববার ভোর ৫টার দিকে মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের আইসোলেশনে তিনি মারা যান। মৃত ওই বৃদ্ধা নারীর নাম হোসনে আরা খাতুন (৬০)। তিনি কলারোয়া উপজেলা সদরের আবুল হোসেনের স্ত্রী।

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন ওই বৃদ্ধা নারী। এরপর রোববার ভোর ৫টার দিকে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ জয়ন্ত কুমার সরকার জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে তার লাশ দাফনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তার বাড়ি লক ডাউন করা হয়েছে।

এদিকে, এনিয়ে সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গ নিয়ে এ পর্যন্ত মোট ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৬ টি রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন সাতক্ষীরার স্বাস্থ্য বিভাগ।

ঝিনাইদহে মরমী কবি পাগলা কানাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকী পালন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

‘মরণের আগে মর, সমনকে শান্ত কর, যদি তাই করতে পার, ভব পারে যাবিরে মন রসনা’ এমন হাজারো মরমী গানের শ্রষ্টা ঝিনাইদহের মরমী কবি পাগলা কানাইয়ের ১শ’ ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে রোববার সকালে সদরের বেড়বাড়ি গ্রামে কবির মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় পাগলা কানাই স্মৃতি সংরক্ষণ সংসদ।

পরে সেখানে বিশেষ দোয়া ও সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এসময় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. আব্দুল রশীদ, নির্বাহী কর্মকর্তা বদরুদ্দোজা শুভ, পাগলাকানাই ইউপি চেয়ারম্যান এ. কে এম নজরুল ইসলামসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে মরমী কবির জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা করেন বক্তারা। শেষে পরিবেশিত হয় কবির রচিত গান।

খুলনায় রেডজোনে ১৬ জুলাই থেকে লকডাউন শিথিল হচ্ছে

তথ্য বিবরণী

খুলনায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে ঘোষিত সিটি কর্পোরেশনের ১৭ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ড এবং রূপসার আইচগাতি ইউনিয়নের লকডাউন আগামী ১৬ জুলাই থেকে শিথিল হ”েছ। ইতোমধ্যে এসব এলাকায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার অনেকাংশে কমে এসেছে। খুলনা জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এসকল তথ্য জানানো হয়। খুলনা জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা রবিবার সকালে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। জুম অ্যাপের মাধ্যমেও কমিটির সদস্যরা যুক্ত হন। খুলনার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হেলাল হোসেন এতে সভাপতিত্ব করেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ক্রমাগত বৃদ্ধি পেতে থাকায় সিটি কর্পোরেশনের ১৭ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ড এবং রূপসার আইচগাতি ইউনিয়নকে রেডজোন ঘোষণা করে গত ২৫ জুন থেকে লকডাউন করা হয়। দুই সপ্তাহ শেষে দেখা যায় উক্ত তিনটি এলাকায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ অনেকাংশে কমে এসেছে। ফলে ১৬ জুলাই থেকে আর লকডাউন কার্যকর থাকবে না। কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য দ্রুত একটি হাই ফো ন্যাজাল ক্যানোলা স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে সভায় জানানো হয়। সভায় আরও জানানো হয়, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত আইনের প্রয়োগ অব্যাহত থাকবে। কোরবানির পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশু কেনাবেচা হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হবে। সেসাথে অনলাইনে কোরবানির পশু ক্রয়ের জন্য প্রচার চালানো হবে। পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখাতে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। করোনার সুযোগ নিয়ে মাদক কারবারীরা যাতে তৎপর না হতে পারে সেদিকে তীক্ষè নজর রাখা হবে এবং মাদকবিরোধী অভিযান বাড়ানো হবে।

দাকোপে এক কেজি গাঁজাসহ দুই ব্যবসায়ী গ্রেফতার

দাকোপ (খুলনা) প্রতিনিধি 

খুলনার দাকোপে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এক কেজি গাঁজাসহ দুই ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করেছে। এঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে থানায় মামলা দায়ের করেছে।

থানা পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি টিম গতকাল রবিবার রাত প্রায় ১টার দিকে উপজেলার বাজুয়া বেড়েরখাল এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানে এক কেজি গাঁজাসহ ওই এলাকার প্রশান্ত স্বর্ণকারের ছেলে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী প্রদীপ স্বর্ণকার (৩৭) ও অমর মৈত্রের ছেলে বিচিত্র মৈত্র (৩৬) গ্রেফতার হয়। এসময় বিচিত্র এ এস আই মনিরুল ইসলামের বাম হাতে কামড়ে গুরুতর আহত করে। এঘটনায় পুলিশের এস আই জয়ন্ত কুমার হোড় বাদী হয়ে মাদক আইনে মামলা দায়ের করেছে যার নম্বর ০২/২০। থানা অফিসার ইনচার্জ সফিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

নিম্নআয়ের শ্রমজীবীদের মাঝে সিটি মেয়রের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

তথ্য বিবরণী

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেডের উদ্যোগে রবিবার সকালে নগরীর ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় চত্বরে ঘরে থাকা একশত নি¤œআয়ের শ্রমজীবী, অসহায়, দুস্থ ও হতদরিদ্রদের মাঝে চাল, ডাল, লবণ, আলু, সাবানসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন। খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে সিটি মেয়র বলেন, করোনা সহনীয় পর্যায়ে না আসা পর্যন্ত খাদ্যসামগ্রী বিতরণ চলমান থাকবে। কোভিড-১৯ প্রতিরোধে সকলকে সরকারি নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।

খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর এসএম মোজাফফর রশিদী রেজা, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট ফারুক শেখ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শিহাব উদ্দিনসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক নগরীর ৩১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে একশত কর্মহীন এবং ২৯ ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় চত্বরে একশত কর্মহীন নি¤œআয়ের শ্রমজীবী, অসহায়, দুস্থ ও হতদরিদ্রদের মাঝে চাল, ডাল, লবণ, আলু, সাবানসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

ফকিরহাটে করোনাক্রান্ত নতুন করে ১০জন

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

বাগেরহাটের ফকিরহাটে নতুন করে আরও ১০জন করোনায় সনাক্ত হয়েছে। আজ রবিবার  ১২ জুলাই সকাল দশটায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্র থেকে এ তথ্য জানানো   হয়েছে।

এ নিয়ে ফকিরহাট উপজেলায় মোট সনাক্ত হলো ৯১জন।

এ পর্যন্ত উপজেলায় বাবা-ছেলে সহ ৪জন করোনা আক্রান্ত হয়ে ও একজন করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে ১জন ডাক্তার, ১জন চা বিক্রেতা, ১জন পল্লী চিকিৎসক, ১জন বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মী। করোনার উপসর্গ নিয়ে যিনি মারা গেছেন তিনি ১জন গ্রাম পুলিশ। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৬জন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ কঃ কর্মকর্তা ডা: অসিম কুমার সমাদ্দার।

পাইকগাছায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী আটক

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে সাজাপ্রাপ্ত এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে। জানা গেছে, উপজেলার রামনগর গ্রামের আফতাব গাজীর ছেলে কহিনুর গাজী পাইকগাছা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নারী শিশু মামলার ৩ মাসের সাজাপ্রাপ্ত আসামী। শনিবার রাতে পাইকগাছা থানা পুলিশের এএসআই গোপাল সাহা ও এএসআই আশরাফ হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে রামনগর গ্রামের কহিনুর ইসলামকে গ্রেফতার করে। রবিবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে ওসি এজাজ শফী জানান।

খুলনায় করোনায় যুবদল নেতার মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে খুলনা মহানগর যুবদলের সহ-সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন আরাফাত মাসুম (৩৪) মারা গেছেন। রোববার (১২ জুলাই) ভোর ৪টায় মহানগরের করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে তিনি মারা যান।  মাসুম মহানগরের আইজারমোড় এলাকার শামসুল বারী লালুর ছেলে। তিনি খুলনা সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্যকর্মী ছিলেন। খুলনা মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর বলেন, মাসুম করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর শনিবার (১১ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টায় হাসপাতালে ভর্তি হন। রোববার ভোর ৪টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এদিকে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন বিএনপি ও যুবদলের নেতাকর্মীরা।

ডুমুরিয়ায় বজ্রপাতের বিকট শব্দে কৃষকের মৃত্যু

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায় বজ্রপাতের বিকট শব্দ শুনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ওয়াহেদ মোল্লা (৪৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। রোববার (১২ জুলাই) বিকেলে উপজেলার শোলগাতিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের আব্দুল মোল্লার ছেলে। তিনি পেশায় একজন কৃষক।

রুদাঘরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানের মো. মোস্তফা কামাল খোকন বলেন, বিকেল ঝড়-বৃষ্টির সময় ওয়াহেদ মোল্লা তার ঘেরে মাছের খাবার দিচ্ছিলেন। এ সময় বজ্রপাতের শব্দ শুনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা গেছেন। আগে থেকেই তার হৃদরোগ ছিল।

খুলনায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২৯০০ ছাড়াল

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনায় করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৯৩৮ জনে দাঁড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলা ও মহানগরীতে নতুন করে ৮৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মোট আক্রান্তের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৬৯৯ জন, মারা গেছেন ৪৩ জন। শুক্রবার রাতে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে। খুলনা মেডিকেল কলেজের (খুমেক) উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, শুক্রবার খুমেকের আরটি-পিসিআর মেশিনে মোট ২৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। যার মধ্যে খুলনার নমুনা ছিল ২৬৭টি। এর মধ্যে মোট ৮৪ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। যার মধ্যে ৮০ জন খুলনা জেলা ও মহানগরীর। এ ছাড়া বাগেরহাটের ৩ জন ও নড়াইলের একজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তারা খুলনাতেই বসবাস করেন। খুলনা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, খুলনায় এখন পর্যন্ত ২ হাজার ৯৩৮ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। যার মধ্যে ৬৯৯ জন সুস্থ হয়েছেন। মারা গেছেন ৪৩ জন।

খুলনা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. শেখ সাদিয়া মনোয়ারা ঊষা জানান, শুক্রবার সকাল পর্যন্ত খুলনায় করোনা আক্রান্ত ছিলেন ২ হাজার ৮৫৮ জন। তাদের মধ্যে সর্বাধিক রোগী খুলনা মহানগরীর। প্রায় ২৩০০ রোগী রয়েছে নগরে। এ ছাড়া দাকোপে ৫৯ জন, বটিয়াঘাটায় ২৯, রূপসায় ১১৩, তেরখাদায় ৩৪, দিঘলিয়ায় ৬৯, ফুলতলায় ১৩০, ডুমুরিয়ায় ৬৩, পাইকগাছায় ৪৬ ও কয়রায় ১৬ জন রোগী রয়েছেন।

তিনি আরও জানান, খুলনায় মোট আক্রান্তের ১ হাজার ৮৭৫ জন পুরুষ, ৮৩১ জন নারী ও ১৫২ জন শিশু। অর্থাৎ মোট শনাক্তের ৬৬ শতাংশ পুরুষ, ২৯ শতাংশ নারী ও ৫ শতাংশ শিশু।

সাতক্ষীরায় বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল ৩ ছাত্র-ছাত্রী

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটি, পুলিশ ও শিক্ষকের হস্তক্ষেপে দুই ছাত্রী ও এক ছাত্র বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল। রোববার সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আগড়দাঁড়ি ও তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নে এসব বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল।

সাতক্ষীরা বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটির প্রশাসনিক প্রধান সাকিবুর রহমান জানান, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আগড়দাঁড়ি ইউনিয়নের সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি গত শুক্রবার খবর পান। বিষয়টি তিনি ওই দিনই সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি), জেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। বেলা দেড়টার দিকে সাতক্ষীরা সদর থানার উপপরিদর্শক শিমুল হোসেন, সহকারী উপপরিদর্শক নজরুল ইসলাম ও ওই ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ শহিদুল ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে সাকিবুর রহমান ওই বাড়িতে হাজির হন। ওই বাড়িতে তখন বিয়ের আয়োজন চলছিল। বর এলেই শুরু হবে বিয়ের অনুষ্ঠান। এ সময় পুলিশ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে সাকিবুর রহমান কনের বাবার কাছে মেয়ের জন্মসনদ দেখতে চান। জন্মসনদে দেখা যায়, কনের বয়স ১৪ বছর। বিয়েবাড়িতে পুলিশ এসেছে জেনে বরপক্ষ মাঝপথ থেকে ফিরে যায়। পরে ছাত্রীর মা-বাবা মেয়েকে ১৮ বছরের আগে বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকা দেন।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দেবাশীষ চৌধুরী জানান, তাঁকে জানিয়ে পুলিশসহ বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটির সদস্যরা ছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করেছেন। সাকিবুর রহমান আরও জানান, তালা উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের ১৬ বছর বয়সের দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রের সঙ্গে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বেনেরপোতা গ্রামের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন চলছিল। আজ রোববার বিয়ের দিন ধার্য ছিল। এ জন্য ছাত্রের গ্রামে গোপনে বিয়ের আয়োজন করা হয়।

বিয়ে উপলক্ষে ছাত্রীকে গতকাল শনিবার ওই গ্রামে অন্য একজনের বাড়িতে নিয়ে তোলা হয়। খবর পেয়ে গতকাল ছাত্রের গ্রামে যান বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটির সদস্য মামুন রেজা ও উদয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান। তাঁরা ছাত্রদের বাড়িতে পৌঁছালে বাড়ির লোকজন গা-ঢাকা দেন। এ সময় মেয়ের জন্মনিবন্ধনে দেখা যায় বয়স ১৪ বছর। পরে মেয়ের মামা ভাগনিকে নিয়ে মেয়েটির নিজ গ্রামে ফিরে যান। সাকিবুর আরও জানান, রোববার বিকেলে ছেলের বাবা তালা উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তার দপ্তরে হাজির হয়ে বিয়ের এ উদ্যোগের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন। ছেলেকে ২১ বছরের আগে বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকাও দেন তিনি। তালা উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা নাজমুন নাহার এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

যুবদল নেতা মাসুম ও বিএনপি নেতা জাহিদুল ইসলামের  জামাতার ইন্তেকাল : বিএনপি’র শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

মহানগর যুবদলের সহসাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন আরাফাত মাসুম (৩৪) ও  মহানগর বিএনপির সহসভাপতি শেখ জাহিদুল ইসলামের জামাতা সৈয়দ মুনসুরুল হক আজাদ (৪২) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না…..রাজিউন)। গতকাল রবিবার বাদ জোহর হাজী মুনসুর আলি জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে ইয়াসিন আরাফাত মাসুমের নামাজে জানাযা শেষে তাকে গোয়ালখালি সরকারি কবরস্থানে দাফন করা হয়। অপর দিকে সৈয়দ মুনসুরুল হক আজাদকে গোপালগঞ্জে জানাযা শেষে দাফন করা হয়েছে।

ইয়াসিন আরাফাত মাসুম ও সৈয়দ মুনসুরুল হক আজাদের ইন্তেকালে তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন নগর বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দরা হলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ভাষাসৈনিক এম নুরুল ইসলাম, নগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, মীর কায়সেদ আলী, শেখ মোশাররফ হোসেন, জাফরউলাহ খান সাচ্চু, জলিল খান কালাম, সিরাজুল ইসলাম, এড. ফজলে হালিম লিটন, স ম আব্দুর রহমান, শেখ ইকবাল হোসেন, শেখ জাহিদুল ইসলাম, অধ্য তারিকুল ইসলাম, শেখ আমজাদ হোসেন, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, মোঃ মাহবুব কায়সার, নজরুল ইসলাম বাবু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, এসএম আরিফুর রহমান মিঠু ও ইকবাল হোসেন খোকন প্রমুখ।

অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সাংবাদিকদের পিপিই প্রদান

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নওয়াপাড়া প্রেসকাবের সাংবাদিকদের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সামগ্রী (পিপিই) প্রদান করা হয়েছে। রোববার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে চিকিৎসকদের সুরক্ষায় এ পিপিই প্রদান করা হয়। নওয়াপাড়া প্রেসকাবের সভাপতি ও দৈনিক নওয়াপাড়া পত্রিকার প্রকাশক-সম্পাদক আসলাম হোসেন ও প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক মোজাফফর আহম্মেদ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এস এম মাহমুদুর রহমান রিজভীর নিকট পিপিইগুলো হস্তান্তর করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নওয়াপাড়া প্রেসকাবের আইসিটি সম্পাদক তারিম আহম্মেদ ইমন, সদস্য সাকিব জিকো, জাকির হোসেন হৃদয়, সৈয়দ রিপানুর ইসলাম (রিপন), রাকিবুল ইসলাম রুবেল, শেখ সুমন, সাংবাদিক মো.আলমগীর হোসেন, শেখ আহাদুজ্জামান আহাদ প্রমূখ। সাংবাদিক সৈয়দ রিপানুর ইসলামে রিপনের আত্মীয় শহিদুল ইসলামের পৃষ্ঠপোষকতায় ২৫টি পিপিই প্রদান করা হয়।

অভয়নগরে মৃত নূর হোসেনসহ করোনা পজিটিভ ৬ জন

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি

করোনা উপসর্গ নিয়ে ঢাকার এনাম মেডিকেলে মৃত্যুবরণকারী মশরহাটি গ্রামের নূর হোসেনসহ অভয়নগরে ৬ জনের করোনা পজিটিভ শণাক্ত হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত অন্যরা হলেন- উপজেলার পায়রাহাট এলাকার ফারজানা মিন্তি (২৩), ফাহিম (১৬),আনসার আলী (৫০),সিদ্দিপাশার সোহেল সাজ্জাদ (৩৮), মোহাম্মদ (৩৪)। ১২জুলই রোববার এ তথ্য নিশ্চিত করেন অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা ইউনিটের দায়িত্ব প্রাপ্ত মেডিকেল অফিসার। অভয়নগর উপজেলায় এ পর্যন্ত মোট ভাইরাস টিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ২০৫ জন। এই ভাইরাসে উপজেলাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ জন।

ফুলতলায় ওয়ার্কার্স পার্টি’র নেতার পিতার ইন্তেকালঃ শোক প্রকাশ

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধি

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা কমঃ আঃ লতিফ মহলদারের পিতা আঃ মতলেব মহলদার (১০১) শনিবার গভীর রাতে ফুলতলার গাড়াখোলাস্থ নিজ বাড়িতে বার্ধক্য জনিত কারণে ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহী রাজেউন)। রোববার বেলা ১১টায় মহলদারবাড়ি জামে মসজিদ চত্ত্বরে মহুমের জানাযা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। মৃত্যুকালে তিনি ৩পুত্র, ৩কন্যাসহ বহু আত্মীয় স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে যান। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ওয়ার্কার্স পার্টি ফুলতলা শাখার নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন সভাপতি কমঃ সন্দীপন রায়, সাধারণ সম্পাদক কমঃ আরিফুজ্জামান বাবলু, সদস্য কমঃ আঃ হামিদ মোড়ল, আঃ মজিদ মোল্যা, গৌতম কুন্ডু, জাহাঙ্গীর আলম, রেজোয়ান হোসেন রাজা, সিরাজুল ইসলাম, খান রেজোয়ান আলী, নারায়ণ চন্দ্র মন্ডল, রোকেয়া বেগম প্রমুখ।

ডুমুরিয়া প্রেসকাবে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ সন্ত্রাসী সাকি বাহিনীর তান্ডবে মান্দ্রা এখন আতংকিত

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

ডুমুরিয়া উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল মান্দ্রা ময়নাপুর। এ এলাকার সাকি ওরফে ইউনুস একটি আতংকিত নাম। যার রয়েছে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। এ বাহিনী এলাকায় ঘের দখল, চাঁদাবাজি, নারী নির্যাতন, লুটপাটসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত। তার বিরুদ্ধে ডুমুরিয়া, পাইকগাছা, মনিরামপুরসহ বিভিন্ন থানায় কমপক্ষে অর্ধ ডজন মামলা রয়েছে। আজ সকাল ১১ টায় ডুমুরিয়া প্রেসকাবে সংবাদ সম্মেলেেন এ সকল অভিযোগ করেন অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক আব্দুস সামাদ গাজী। লিখিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন সাকি বাহিনী গত ৪ জুলাই দিন দুপুরে আমার বাড়ি তান্ডব চালায়।  এ ঘটনায় পরের দিন ডুমুরিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা করার অপরাধে ৫ জুলাই বিকেলে আমার ছেলে জিয়াউর রহমানের ওপর সন্ত্রাসী  হামলা চালায়।  এলাকাবাসী মৃতপ্রায় আমার ছেলেকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। আমার ছেলের অবস্থা এখন আশংকাজনক। সাকিকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।  কিন্তু তার বাহিনীর অত্যাচার এখন অব্যাহত আছে।  তার বাহিনীর ভয়ে এখনও এ অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষককের পরিবার বাড়িছাড়া বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়।        

তালায় বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ২০ জনের মাঝে চেক বিতরণ

ইলিয়াস হোসেন,তালাঃ 

তালায় কিডনি, ক্যান্সার, লিভার সেরোসিস, ষ্টোকেপ্যাারালাইসিস, জন্মগতহৃদরোগ ও থ্যালাসেমিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ২০ জনকে পঞ্চাশ হাজার টাকা করে এবং ৮টি মসজিদের উন্নয়নে এককালীন আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণসহ নগদ টাকা বিতরণ করা হয়। রবিবার (১২ জুলাই) সকালে তালা উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের পক্ষ থেকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উক্ত চেক বিতরণ করেন সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনের সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সরদার মশিয়ার রহমান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাজমুন নাহার, তালা রির্পোর্টাস কাবের সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য মীর জাকির হোসেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের প্রাক্তন কমান্ডার মোঃ মফিজ উদ্দীন, সমাজসেবা অফিসের সুপারভাইজার  মোঃ এনামুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার শেখ আব্দুল আউয়াল। এ সময় বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ২০ জন অসুস্থ রোগীর মাঝে ৫০ হাজার টাকা করে মোট ১০ লক্ষ চেক বিতরণ করা হয়।

ঝিনাইদহে করোনা উপসর্গে আরও ২ জনের মৃত্যু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে করোনা উপসর্গে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তিরা হলেন, পৌর এলাকার খাজুরা জোয়ার্দ্দারপাড়া এলাকার মৃত নাসিম উদ্দিনের ছেলে। তিনি শহরের মুন্সি মার্কেটে দর্জির কাজ করতেন। সে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন অসুখে থাকা অবস্থায় করোনা উপসর্গ নিয়ে নিজ বাড়িতে মারা যান। এদিকে গেল রাতে শহরের চাকলাপাড়ার মসলেম শেখের ছেলে সামছুল আলী করোনা উপসর্গ নিয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। সে শহরের পোস্ট অফিস মোড়ের আলী গার্মেন্টস এর মালিক। ঝিনাইদহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক আব্দুল হামিদ খান জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত ব্যক্তিদের জানাজা শেষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন গঠিত কমিটির সদস্যগণ তাদের লাশ দাফন সম্পন্ন করেছে। কমিটি এ পর্যন্ত জেলায় ২৩ জন করোনা আক্রান্ত ও করোনা উপসর্গে মৃত ব্যক্তির লাশ দাফন সম্পন্ন করেছে বলে জানান তিনি।

জেপির বিবৃতি

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা জেলা জাতীয় পার্টি (জেপির) সাধারন সম্পাদক মোঃ মোশারেফ হোসেন হাওলাদার এক বিজ্ঞপ্তিতে ১৪ দলীয় জোট নেত্রী মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদক, ভূমি দস্যু ও সন্ত্রাসের প্রতি জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেছেন। তিনি বলেছেন ভূমি দস্যু যে দলের হোক না কেন তাদেরকে গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে। দিঘলিয়া বটিয়াঘাটা, দাকোপ ও তেরখাদায় অনেক ভূমি দস্যু বিদ্যমান। ভূমি দস্যুরা যদি জাতীয় পার্টি (জেপির) লোক হয়ে থাকে তাদেরকে গ্রেফতার করলে আমাদের কোন আপত্তি নাই। প্রমানিত হলে দলচ্যুত হবে তবে জেপির কোন নিরীহ লোকের জমা জমি রাজনৈতিক ক্ষমতা বলে কেহ কোন লোক জবর দখল করে থাকলে জবর দখল কারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ভাবে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের প্রতি উদ্ধাত আহবান জানাই। বিশেষ করে খুলনা জেলা জাতীয় পার্টি (জেপির) সিনিয়র সহ-সভাপতি ড. এস এম জাকারিয়া (জাকির) এর দিঘলিয়া উপজেলায় তাঁর ও তাঁর স্ত্রী হাসনা হেনার অনেক সম্পত্তি ভূমি দস্যুরা জবর দখল করেছে। আইনগত ভাবে উদ্বারের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর সুপারিশ করছি।

ডুমুরিয়ায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

খুলনার ডুমুরিয়ায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে গতকাল রবিবার সকালে ডুমুরিয়া প্রেসকাবে এক পাল্টা সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সন্ত্রাসী সাকি ওরফে ইউনুচের অপকর্ম তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, মান্দ্রা গ্রামের অবঃপ্রাপ্ত শিক্ষক আব্দুস সামাদ গাজী।

তিনি বলেন, পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে উপজেলার ধামালিয়া ইউনিয়নের মান্দ্রা গ্রামের শিক্ষক আব্দুস সামাদ গাজী ও তার পরিবার সন্ত্রাসী সাকি ইউনুচ ও তার বাহিনীর হামলার স্বীকার হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হওয়ার পর সাকিকে থানা পুলিশ গ্রেফতার করলেও তার বাহিনীরা ওই পরিবারের উপর আরো বেপোরোয়া হয়ে ওঠে। একপর্যায়ে তাদের জুলুম ও নির্যাতনে গ্রাম ছাড়তেও বাধ্য হয়। এদিকে বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করতে সাকির পরিবার কথিত ডুমুরিয়া উপজেলা প্রেসকাব নামে সংবাদ সম্মেলন করে। যাহা কয়েকটি অনলাইনে প্রকাশিত হয়।

ডুমুরিয়ায় ইউপি সদস্যের উপর হামলা-মামলার আসামী গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

খুলনার ডুমুরিয়ায় সাবেক এক ইউপি সদস্য অনুকুল মন্ডলের উপর সন্ত্রাসী সজল বাবু কর্তৃক বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে এবং আসামীদের গ্রেফতারের দাবীতে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার সকালে মাগুরখালীর নির্যাতিত এলাকাবাসীর আয়োজনে আলাদিপুর, শিবনগর ও আমুড়বুনিয়া বাজারে এ মানববন্ধন কর্মসুচিতে বক্তব্যদেন ইউপি চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ সানা, ইউপি সদস্য সরস্বতী মন্ডল, ভবেন্দ্রনাথ বালা, বাবর আলী গাজী, শিক্ষক সুব্রত মন্ডল, শিক্ষক দেবব্রত মন্ডল, দিপংকর মন্ডল, আহতের কন্যা তানিয়া মন্ডল, ইউনুচ সরদার, সঞ্জয় সানা, তরুন কান্তি মিস্ত্রি, বিপন্ন সানা, পরিতোষ জোয়াদ্দার, অমরেন্দু রায়, স্বপন মিস্ত্রি, ডাবলু মন্ডল প্রমুখ। বক্তারা বলেন, গত ৩ জুলাই আমুড়বুনিয়া বাজারে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী সজল বাবু ও তার বাহিনী কর্তৃক সাবেক ইউপি সদস্য অনুকুল মন্ডলকে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে জখম করে। এ ঘটনায় আহতের স্ত্রী মিতা রানী মন্ডল বাদী হয়ে সজলসহ ৮জনের নামে মামলা করে। কিন্তু মামলার ১০দিন অতিবাহিত হলেও আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও অদৃশ্য কারণে পুলিশ গ্রেফতার করেনি। এ প্রসঙ্গে থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আমিনুল ইসলাম বিপ্লব বলেন, ঘটনার পর থেকে আসামীরা পলাতক রয়েছে। তবে তাদেরকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যহত রয়েছে।

খুলনা চেম্বারের শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ভ্রাতুষ্পুত্র সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন এর বেয়াই এবং শেখ বেলাল উদ্দিন বাবু’র শ্বশুর গোলম কিবরিয়া খোকন গতকাল শনিবার বিকাল ৩-০০টায় ঢাকায় পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রজিউন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, সন্তান, অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।  সর্বস্তরের ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি কাজি আমিনুল হক, উর্দ্ধতন সহ-সভাপতি শেখ আসাদুর রহমান, সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, সহ-সভাপতি মোঃ মোস্তফা জেসান ভুট্টো, পরিচালকবৃন্দ গোপী কিষণ মুন্ধড়া, এম এ মতিন পান্না, জেড এ মাহামুদ ডন, এস এম ওবায়দুল্লাহ, আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, ঠাকুর মোঃ শাহ্ আলম, জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), মোঃ সিরাজুল হক, কাজী মাসুদুল ইসলাম, আলহাজ্ব মোঃ মোশাররফ হোসেন, শেখ আল্লামা ইকবাল তুহিন, মোঃ আবুল হাসান, দীপক কুমার দাস, মোঃ ইসলাম খান, উজ্জ্বল কুমার গাঙ্গুলী, শেখ মোঃ গাউসুল আজম, খান সাইফুল ইসলাম, মোঃ মনিরুল ইসলাম মাসুম, মোঃ মাহবুব আলম, চৌধুরী মিনহাজ উজ জামান ও খুলনা চেম্বার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। খুলনা চেম্বারের পরিচালনা পরিষদ ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ মরহুমে বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন।

বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ্ব শেখ মজনু’র আশু সুস্থতা কামনা: খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সাবেক পরিচালক, মাহাবুব ব্রাদার্স (প্রাঃ) লিমিটেড এর ব্যবস্থপনা পরিচালক শেখ মাহাবুব রহমান এর পিতা খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সম্মানীত সদস্য পূবালী ট্রেডার্স এর স্বত্তাধিকারী এবং এতদাঞ্চলের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ্ব শেখ মজনু ঢাকায় একটি সনামধন্য হাসপাতালে অসুস্থ্য হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। তার আশু সুস্থতা কামনা করে খুলনা ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালনা পরিষদ মহান আল্লাহ পাকের নিকট দোয়া প্রার্থনা করেন যাতে তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারেন। বিবৃতিদাতারা হলেন খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সভাপতি কাজি আমিনুল হক, উর্দ্ধতন সহ-সভাপতি শেখ আসাদুর রহমান, সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, সহ-সভাপতি মোঃ মোস্তফা জেসান ভুট্টো, পরিচালকবৃন্দ গোপী কিষণ মুন্ধড়া, এম এ মতিন পান্না, জেড এ মাহামুদ ডন, এস এম ওবায়দুল্লাহ, আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, ঠাকুর মোঃ শাহ্ আলম, জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), মোঃ সিরাজুল হক, কাজী মাসুদুল ইসলাম, আলহাজ্ব মোঃ মোশাররফ হোসেন, শেখ আল্লামা ইকবাল তুহিন, মোঃ আবুল হাসান, দীপক কুমার দাস, মোঃ ইসলাম খান, উজ্জ্বল কুমার গাঙ্গুলী, শেখ মোঃ গাউসুল আজম, খান সাইফুল ইসলাম, মোঃ মনিরুল ইসলাম মাসুম, মোঃ মাহবুব আলম, চৌধুরী মিনহাজ উজ জামান ও খুলনা চেম্বার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

তালায় বাংলাদেশ কিন্ডার গার্টেন শিক্ষকদের বিভিন্ন দাবিতে মানববন্ধন

ইলিয়াস হোসেন,তালা

সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় শনিবার(১১জুলাই) বাংলাদেশ কিন্ডার গার্টেন ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে উপজেলা ২৪টি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শিক্ষকদের বিভিন্ন দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। তালা উপজেলা কিন্ডার গার্টেন এসোসিয়েশনের সভাপতি সাংবাদিক নুর ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শিমুল বিল্লাল বাপ্পির সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,তালা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তালা প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক সরদার মশিয়ার রহমান।

এসময় বক্তব্য রাখেন, এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা সাবিনা ইয়াসমিন,শিক্ষক দিলীপ কুমার ভট্রাচার্য, কামরুজ্জামান শেখ আব্দুল হালিম,নিমাই,আশকর আলী গাজী,দিপঙ্কর,হাফিজুর রহমান,মাহফুজুর রহমান,পলাশ,আলমগীর,আনিচুর রহমান প্রমুখ। এসময় নেতৃবৃন্দ বলেন,প্রানঘাতি করোনার কারণে কিন্ডার গার্টেন স্কুলগুলোর শিক্ষক মন্ডলীরা মানবেতর জীবন যাপন করছে। তালা উপজেলার ২৪টি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের প্রায় ২৫০জন শিক্ষক শিক্ষিকা ৩হাজারেরও বেশী কোমলমতি শিক্ষার্থীকে সরকারের বাধ্যতামুলক প্রাথমিক শিক্ষা প্রদান করে যাচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে প্রত্যেকে কোন না কোন প্রনোদনা পেলেও কিন্ডার গার্টেনের বেলায় তেমন কিছু দেখা যাচ্ছে না। উপজেলা পর্যায়ের কিন্ডার গার্টেনের শিক্ষকগণ সামান্য বেতনের চাকুরী করেন। প্রায় সকল শিক্ষক এ বছর এখনো একটি টাকাও বেতন পাননি। অসহায় আর দৈন্যতার মধ্য দিয়ে দিন পার করতে হচ্ছে । আমাদের দাবী করোনা স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত করোনা শুরু থেকেই মাস ওয়ারী বেতনের ব্যবস্থা করা ও রেজিষ্ট্রশন প্রাপ্ত কিন্ডার গার্টেন স্কুলগুলোকে সরকারী সকল সুযোগ সুবিধা দিতে হবে। রেজিষ্ট্রেশন বিহীন স্কুলগুলোকে রেজিষ্ট্রশনের আওতায় আনতে হবে।

মহসেন জুট মিলের ষ্টাফ জলিল বাবুর ইন্তেকাল

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা) প্রতিনিধি

ব্যক্তিমালিকানাধীন মহসেন  জুট মিলের  ম্যাকানিক্যাল বিভাগের টাইম কিপার আঃ জলিল হাওলাদার (৫৫)  শনিবার রাত পৌনে ৯টায় গিলাতলা পশ্চিম শেখ পাড়া নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেছেন। ( ইন্নাল্লি………. রাজিউন )। তিনি দির্ঘদিন ধরে কিডনি সহ নানা রোগে ভুগছিলেন ।  মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে ও ২ মেয়ে সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন ।  রবিবার সকাল ১০ টায় গিলাতলা মাদ্রাসায় জানাযা শেষে গিলাতলা কবরস্থানে দাফন করা হয় । জানাযায় উপস্থিত ছিলেন গিলাতলা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ মনিরুল ইসলাম,ফুলতলা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ নাজমুস সাকিব শাহিন,  সহকারি কৃষি কর্মকর্তা কাজী নজির হোসেন, উপ সহকারি কৃষি অফিসার সাইদুল ইসলাম, মোঃ মহসিন আলী,  ৩৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আঃ হক,  ইউপি সদস্য হাফেজ গোলাম মোস্তফা ,মহসেন জুট মিলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক খান গোলাম রসুল, গিলাতলা যুব সংঘের সভাপতি সাংবাদিক সাইফুল্লাহ তারেক, মামুন মোল্লা সহ মহসেন মিলেরশ্রমিক কর্মচারী ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। মরহুম জলিল বাবুর  স্বজনেরা  জানান দির্ঘদিন মহসেন জুট মিলে কাজ করেছেন অর্থাভাবে সুচিকিৎসাও তিনি করাতে পারেননি। তার স্ত্রী , ছেলে মেয়েরা একাধিক বার মিলের মালিক ও সিবিএ নেতাদের কাছে চিকিৎসার জন্য তার পাওনা টাকা থেকে কিছু অর্থ চাইলেও মালিক পক্ষ কোন টাকা দেয়নি

সন্ত্রাসী হামলায় আহত দৌলতপুর থানা যুবলীগ নেতা নান্টু মোল্যাকে প্রাণ নাশের হুমকী

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা) প্রতিনিধি

নগরীর দৌলতপুর থানার সেন পাড়া এলাকার মৃত নূর ইসলামে পুত্র দৌলতপুর থানা যুবলীগ নেতা নান্টু মোল্যাকে সম্প্রতি পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রহমানের নেতৃত্বে ৬/৭ জন সন্ত্রাসীরা মানিকতলা একটি চায়ের দোকানের সামনে বেদম প্রহার করে পালিয়ে যায়। এঘটনায় দৌলতপুর থানায় নান্টু মোল্যা বাদী হয়ে রহমান, ডালিম, খোকন, বাকের, বাবু সহ আরোও অজ্ঞাত ৩/৪ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে। মামলা করায় আসামীরা বিভিন্নভাবে প্রাণনাশের হুমী অব্যাহত রেখেছে। এব্যপারে দৌলতপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মোশারফ হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আসামীদের আটকের ব্যপারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

কমরেড লতিফ মহদারের পিতার মৃত্যুতে জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, ফুলতলা উপজেলা নেতা কমরেড আঃ লতীফ মহলদারের পিতা আঃ মতলেব মহলদার (১০১) গতরাত ২:৩০ টায় ২নং দামোদর ইউনিয়নের গাড়াখোলা গ্রামের নিজ বাড়িতে বার্ধক্যজনিত কারণে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর নামাজে জানাজা আজ বেলা ১১টায় গাড়াখোলা মসজিদ প্রাঙ্গণে শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাঁক দাফন করা হয়। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন পার্টির জেলা সাধারণ সম্পাদক আনসার আলী মোল্লা, সদস্য আঃ হামিদ মোড়ল, ফুলতলা থানা সভাপতি কমরেড সন্দীপন রায়, সাধারণ সম্পাদক কমরেড আরিফুজ্জামান বাবলু প্রমুখ। এদিকে কমরেড আঃ লতীফ মহলদারের পিতার মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেনÑখুলনা জেলা সভাপতি কমরেড এড. মিনা মিজানুর রহমান, জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড আনসার আলী মোল্লা, সম্পাদকম-লীর সদস্য কমরেড দেলোয়ার উদ্দিন দিলু, কমরেড গৌরাঙ্গ প্রসাদ রায়, কমরেড শেখ মিজানুর রহমান, নির্বাহী সদস্য কমরেড শেখ সাহিদুর রহমান, কমরেড রেজাউল করিম খোকন, কমরেড আঃ হামিদ মোড়ল, কমরেড গৌরী ম-ল প্রমুখ। অনুরূপ বিবৃতি দিয়েছেনÑফুলতলা থানা সভাপতি কমরেড সন্দীপন রায়, সাধারণ সম্পাদক আরিফুজ্জামান বাবলু, থানা নেতা প্রভাষক রেজোয়ান রাজা, প্রভাষক জাহাঙ্গীর আলম, প্রভাষক গৌতম কু-ু, আঃ মজিদ মোল্যা, রেজোয়ান আলী খান প্রমুখ।