নগরীতে আল আমিন হত্যাকান্ডে গ্রেপ্তার ৩ : ৫ দিনের রিমাণ্ডের আবেদন

168
Spread the love


স্টাফ রিপোর্টার ।।
নগরীর ২৭নং ওয়ার্ডের পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেট এলাকায় দুর্বৃত্তের হামলায় মো. আল আমিন শেখ (৪৫) নিহত হওয়ার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) নিহতের পিতা শেখ মো. জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে খুলনা সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন।


সোমবার রাতে পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে মামলার এজহারভুক্ত ৩ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আসামিরা হলেন পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেট ৯ম গলির মৃত. মোকাদ্দেস বিশ^াসের ছেলে মো. মামুন (৪৫), পূর্ব বানিয়াখামার বিকে ইষ্ট রোডের মো. নজরুল শিকদারের দু’ছেলে ইব্রাহিম শিকদার (৩০) ও ইসমাইল শিকদার (২৫)। মঙ্গলবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সুকান্ত দাশ গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের আদালতে হাজির করে ৫দিনের রিমাণ্ডের আবেদন করেন। অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. আনিচুর রহমান রিমাণ্ড শুনানির দিন বুধবার ধার্য করে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ প্রদান করেছেন।
মামলায় ১৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৪/৫জনকে আসামি করা হয়েছে। আসামিরা হলেন পূর্ব বানিয়াখামার চৌধুরী গলির মৃত. সেকেন্দার শেখের দু’ছেলে মিজান শেখ (৪৫) ও মিরাজ শেখ (৩৮), বাগমারা জব্বার সড়কের নাহারের ছেলে নাঈম (২৫), বাগমারা রসুলবাগের আমীর আলীর ছেলে শাওন (২৬), বাগমারা মেইন রোডের নজরুল ইসলামের ছেলে মনি ( ২৩), মিস্ত্রিপাড়া টাওয়ার গলির মৃত. বাবুল শেখের ছেলে রিয়াজুল (৩৫), বাগমারা ঈদগাহ লেনের মৃত. মালেকের ছেলে চান্দু ( ৪৫), পূর্ব বানিয়াখামার রাস্তার মাথার মৃত. গোলামের ছেলে অপু (৩২), পূর্ব বানিয়াখামার চৌধুরী গলির হেলাল (২৭), পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেটের সেকেন্দার পাটোয়ারীর ছেলে সোহাগ পাটোয়ারী (৪০), পূর্ব বানিয়াখামার আহাদের গলির নাছিরের ছেলে তরিক (৪৫), পূর্ব বানিয়াখামার বিকে ইষ্ট রোডের মো. নজরুল শিকদারের দু’ছেলে ইব্রাহিম শিকদার (৩০) ও ইসমাইল শিকদার (২৫), পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেটের ইউনুসের ছেলে আতা (২৬), পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেট জব্বার সড়কের বাবুলের ছেলে আবু সাঈদ (২৫), পূর্ব বানিয়াখামার চৌধুরী গলির নাজু গাজীর ছেলে হৃদয় গাজী (২৫), পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেট ৯ম গলির মৃত. মোকাদ্দেস বিশ^াসের ছেলে মো. মামুন (৪৫), একই গলির করিমের ছেলে শাহ আলম (৪৫) ও পূর্ব বানিয়াখামার কাঠালতলা মোড়ের বেল্লালের ছেলে মোস্ত (২৪)।


মামলা সুত্রে জানা যায়, নগরীর পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেট ৯ম গলির বাসিন্দা শেখ মো. জাহাঙ্গীরের বড় ছেলে নিহত আল আমিনের পুর্ব শত্রুতা ছিল। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে পূর্ব বানিয়াখামার বড় মসজিদের সামনে থেকে সোহাগ ও তরিক আল আমিনকে ডেকে নিয়ে যায় পূর্ব বানিয়াখামার লোহার গেট মামুনের গ্যারেজে। এসময় পুর্ব থেকে হাজির থাকা আসামিরা হত্যার উদ্দেশ্যে চাইনিজ কুড়াল ও চাপাতি দিয়ে আল আমিনকে কোপাতে থাকে। তার ডাকচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে আসামিরা পালিয়ে যায়। পরে তাকে ইজিবাইকে করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত. ঘোষণা করেন। এঘটনায় নিহত আল আমিনের পিতা শেখ মো. জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে খুলনা সদর থানায় মামলা দায়ের করেন যার নং- ১১।


খুলনা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. কামাল খান বলেন, আলামিনকে গত ২মাস পূর্বে পুলিশ আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মিস্ত্রিপাড়া এলাকা থেকে দেশী তৈরি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। গতমাসে কারাগার থেকে জামিনে বের হয় আলামিন। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১০টি মামলা রয়েছে।