ডুমুরিয়ার চেয়ারম্যান রবি হত্যা মামলায় আ.লীগ নেতা তারা বিশ্বাসসহ দুইজন ৫দিনের রিমাণ্ডে

154
Spread the love


স্টাফ রিপোর্টার।।
খুলনা জেলার ডুমুরিয়ার শরাফপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম রবি হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার জেলা আওয়ামী নেতা উপজেলা নির্বাচনে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আজগর আলী তারা বিশ্বাস’র ৫দিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। এসময় অপর আসামি গুটুদিয়া গ্রামের ফজলে সরদারের ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম সরদার (৪৫) এরও ৫দিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করে আদালত।


মঙ্গলবার (৯ জুলাই) মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ শাহিনুর রহমান আসামিদের আদালতে হাজির করে ১০দিনের রিমাণ্ডের আবেদন করেন। অতিরিক্ত সিজিএম আদালতের বিচারক ইসরাত জাহান তামান্না দু’জনের ৫দিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা সোমবার বেলা ১১টার দিকে নগরীর রায়ের মহলের মোস্তফার মোড় এলাকায় বিশ্বাস প্রোপার্টিজের অফিসে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। এ সময় তারা বিশ্বাসের ব্যবহৃত শর্টগান, বিপুল পরিমান গুলি ও গুলির খোসা জব্দ করে পুলিশ।


মামলা সুত্রে জানা যায়, ৬ জুলাই রাত পৌঁনে ১০টার দিকে ডুমুরিয়া উপজেলার গুটুদিয়া ওয়াপদার মোড় নামকস্থানে র্দুর্বৃত্তদের গুলিতে শরাফপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা শেখ রবিউল ইসলাম রবি (৪৬) নিহত হন। ঐ দিন তিনি স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ভূমিমন্ত্রী নারায়ণচন্দ্র চন্দের সঙ্গে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। সন্ধ্যায় তিনি ডুমুরিয়া উপজেলা সদরের শহিদ জোবায়েদ আলী মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা শেষে মোটরসাইকেলে একা খুলনার বাসার উদ্দেশে রওনা দেন। রাত পৌঁনে ১০টার দিকে তিনি খুলনা-সাতক্ষীরা সড়কের গুটুদিয়া ওয়াপদার মোড় নামকস্থানে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা তাকে লক্ষ্য করে পেছন দিক থেকে বেশ কয়েকটি গুলি করে পালিয়ে যায়।

এ সময় তার পিঠে ৫টি গুলি বিদ্ধ হয়ে রাস্তার ওপর লুটিয়ে পড়েন। গুলির শব্দ শুনে পরে স্থানীয় লোকজন তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে রাত সোয়া ১০টার দিকে ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত. বলে ঘোষণা করেন। এঘটনায় নিহত চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম রবি’র স্ত্রী বাদী হয়ে ডুমুরিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন যার নং- ৪।