কবরের মধ্যে গিয়ে দেখা যায় কোনো মরদেহ নেই

7
Spread the love


ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি
কুষ্টিয়ার মিরপুরে দাফনের ৩ মাস পর কবর থেকে এক নারীর মরদেহ চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার আমলা ইউনিয়নের কচুবাড়িয়া গ্রামের কবরস্থানে ওই নারীর কবরের মধ্যে গিয়ে দেখা যায় কোনো মরদেহ নেই।

স্থানীয় আমলা পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আবুল কালাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, কচুবাড়িয়া গ্রামের মৃত সাবদার হোসেনের স্ত্রী আনোয়ারা বেগমের (৭৫) মৃত্যু হয়। তিনি বার্ধক্যজনিত কারণে ৩ মাস আগে মারা যান। সকালে আনোয়ারা বেগমের কবর খোঁড়া দেখে স্থানীয়রা তার পরিবারে খবর দেন। পরে গিয়ে দেখা যায় কবরের ভেতর মরদেহ নেই।

স্থানীয় শ্রমিক জাহাঙ্গীর আলম, মো. জসিম উদ্দিন বলেন, আমরা তিনজন কবরস্থানে জঙ্গল পরিষ্কার করার কাজ করছি। মঙ্গলবার সকালে একটি কবর খোঁড়া দেখে সন্দেহ হলে প্রথমে ভেবেছিলাম শিয়ালে গর্ত করেছে। পরে দেখা যায় কবরের মধ্যে কোনো মরদেহ নেই। পরে গ্রামবাসীকে ডেকে এনে বিষয়টি দেখাই।

স্থানীয় যুবক রুবেল হোসেন বলেন, আমি সোমবার দুপুরেও কবরস্থানে এসে কোনো কবর খোঁড়া দেখতে পাইনি। এর আগে এই কবরস্থান থেকে কোনো মরদেহ চুরির ঘটনাও ঘটেনি। তবে সোলার ব্যাটারি, টিউবওয়েলের মাথা চুরি হয়েছে।

আনোয়ারা বেগমের ছেলে রমজান আলী জানান, সকালে মায়ের কবর খোঁড়া দেখে স্থানীয়রা আমার পরিবারকে খবর দেন। পরে গিয়ে দেখি কবর খোঁড়া এবং ভেতরে মরদেহ নেই।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মুন্সি মো. মাসুদ রানা জানান, কবর থেকে মরদেহ চুরি একটি ন্যক্কারজনক ঘটনা। এ ধরনের ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া প্রয়োজন।

স্থানীয় আমলা পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আবুল কালাম বলেন, কচুবাড়িয়া গ্রামে কবরস্থান থেকে মনোয়ারা বেগম নামে এক নারীর মরদেহ চুরির ঘটনা ঘটেছে। গত তিন মাস আগে ওই নারীর মৃত্যু হয়। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।

মিরপুর থানার ওসি মো. মোস্তফা হাবিবুল্লাহ জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।