শীর্ষে ম্যানসিটি, রিয়ালের চেয়ে এগিয়ে বার্সা

9
Spread the love

স্পোর্টস ডেস্ক

গত মৌসুমে ট্রেবল জিতেছে ম্যানচেস্টার সিটি। প্রথমবার ঘরে তুলেছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা। নতুন মৌসুমে সিটিজেনরা শক্তি হারায়নি। বরং নতুন ফুটবলার দলে টেনে শক্তি বাড়িয়েছে। অন্যদিকে রিয়াল মাদ্রিদ বেনজেমাকে হারিয়েছে। বার্সেলোনা বড় তারকা কিনতে না পারলে ইলকে গুন্ডোগান, জোয়াও ফেলিক্স ও জোয়াও কেনসেলো দলটির শক্তি বাড়িয়েছে।

যার ওপর ভিত্তি করে সংবাদ মাধ্যম গোল নতুন মৌসুম ঘিরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পাওয়ার র‌্যাঙ্কিং প্রস্তুত করেছে। যেখানে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের সম্ভাবনায় শীর্ষে আছে ম্যানসিটি, বায়ার্ন মিউনিখ আছে দুইয়ে। রিয়াল মাদ্রিদকে চারে ঠেলে বার্সেলোনা তিনে জায়গা করে নিয়েছে। আর্সেনাল পাঁচে এবং পিএসজি চলে গেছে নয়ে।

ম্যানসিটি: ট্রেবল জিতে ইলকে গুন্ডোগান ম্যানসিটি ছেড়েছেন। তবে পেপ গার্দিওয়ালা ডিফেন্সে জোসকো গার্ডিওলকে এনেছে। তরুণ জেরোমি ডকুতে বাজি ধরেছে। আর্লিং হ্যালন্ড, বেনার্ড সিলভারা তো আছেনই। তবে কেভিন ডি ব্রুইনির ইনজুরিতে পড়া দলটির জন্য একটি ধাক্কা। যদিও সহজ গ্রুপ পর্ব পার হওয়া ম্যানসিটির জন্য কঠিন হবে না।

বায়ার্ন মিউনিখ: গত মৌসুমে ম্যানসিটির কাছে শেষ ষোলোয় হেরেছিল বায়ার্ন মিউনিখ। রক্ষণ ও আক্রমণে শক্তির অভাব যার অন্যতম কারণ ছিল। এবার রক্ষণে কিম মিন জে ও আক্রমণে হ্যারি কেন দলটিকে আবার ইউরোপ সেরা হওয়ার লড়াইয়ে ফেবারিট বানিয়েছে।

বার্সেলোনা-রিয়াল মাদ্রিদ: গুন্ডোগান বার্সাকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফেবারিট মানছেন না। সেই অর্থে লেভানডভস্কি, ফ্রেঙ্কি ডি জং, রাফিনহা, ফেলিক্সদের নিয়ে দলটি আসরের ডার্ক হর্স। রিয়াল মাদ্রিদ পাওয়ার র‌্যাঙ্কিংয়ে পিছিয়ে যাওয়ার কারণ দলটির ইনজুরি ধাক্কা। থিবো কর্তোয়া ও মিলিতাও ইনজুরিতে। বেনজেমা ক্লাব ছেড়েছেন। তবে জুড বেলিংহ্যাম-রদ্রিগোর জুটিতে রিয়াল এবারও বাজিমাত করতে পারে।

সেরা দশে যারা: গত মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগে দুর্দান্ত ফুটবল খেলেছে আর্সেনাল। চলতি মৌসুমেও ভালো ছন্দে আছে দলটি। সেটাই তাদের পাঁচে জায়গা করে দিয়েছে। ছয়ে আছে গত মৌসুমের রানার্স আপ ইন্টার মিলান। যারা এবারও চমক দিতে পারে। সাতে থাকা অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ পাওয়ার র‌্যাঙ্কিংয়ের সঙ্গে সুবিচার করতে পারবে কিনা দেখার বিষয় থাকবে। ভিক্টর ওসিমহেন ও কাভারাস্তখেলিয়ার নাপোলি আছে আটে। পিএসজির নয়ে থাকা একটু বেমানান। কিন্তু কঠিন গ্রুপ পর্ব পার হতে পারলে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগোবে তারা। দশে আছে গত মৌসুমে দারুণ ফুটবল খেলা বেনফিকা।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ১৯ এ: পাওয়ার র‌্যাঙ্কিংয়ে পোর্ত ১১ ও বরুশিয়া ডর্টমুন্ড আছে ১২তে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এক সময়ের জায়ান্ট এসি মিলান আছেন ১৫তে। দুর্দান্ত ফুটবল খেললেও ইউরোপের পরিবেশ অপরিচিত হওয়ায় নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে রাখা হয়েছে ১৬তে। তাদের চেয়েও তিনধাপ পিছনে ম্যানইউ।