ধর্ষণের সব অভিযোগ থেকে বিশ্বকাপজয়ী তারকার মুক্তি

9
Spread the love

স্পোর্টস ডেস্ক।।

অবশেষে দীর্ঘদিন ধরে চলা মামলা থেকে মুক্তি পেলেন বেঞ্জামিন মেন্দি। ফ্রান্সের হয়ে ২০১৮ বিশ্বকাপজয়ী এই তারকা ডিফেন্ডার একটি ধর্ষণ ও আরেকটি ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ থেকে রেহাই পেলেন। খবর বিবিসির।

ধর্ষণের একের পর এক মামলায় জর্জরিত হয়ে গত প্রায় দুই বছরের ভীষণ কঠিন সময় পার করেছিলেন মেন্দি। অবশেষে এখন স্বস্তির শ্বাস নেওয়ার সুযোগ মিলেছে ম্যানচেস্টার সিটির সাবেক এই ফুটবলারের।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সবশেষ চলমান এই মামলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, ২০২০ সালের অক্টোবরে চেশায়ার শহরের মাট্রাম সেন্ট অ্যান্ড্রু নিজের বাসায় ২৪ বছর বয়সী এক নারীকে ধর্ষণ করেছিলেন মেন্দি। আর ২৯ বছর বয়সী এক নারী অভিযোগ করেন, দুই বছর আগে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছিলেন ফরাসি এই ফুটবলার।

এর আগে সর্বপ্রথম ২০২১ সালের অগাস্টে তার বিরুদ্ধে চারটি ধর্ষণ ও একটি যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনেছিল চেশায়ার কনস্টাবুলারি। সেসময় থেকে পুলিশি হেফাজতে থাকার মধ্যেই ওই বছরের নভেম্বরে তার বিরুদ্ধে আরও দুটি ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়। এরপর গত বছর আরেক জন তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ করেন।

তবে গত জানুয়ারিতে ছয়টি ধর্ষণ ও একটি যৌন নির্যাতনের মামলায় মুক্তি পান মেন্দি। এবার বাকি দু্টি অভিযোগে নির্দোষ প্রমাণিত হলেন ২৮ বছর বয়সী এই লেফট-ব্যাক।

চেস্টার ক্রাউন কোর্টে ছয় জন পুরুষ ও ছয় জন নারীর সমন্বয়ে গড়া জুরি বোর্ডের সামনে তিন সপ্তাহ ধরে চলে এই বিচার প্রক্রিয়া। সবশেষে প্রায় সোয়া তিন ঘণ্টার আলোচনা শেষে শুক্রবার রায় ঘোষণা করেন জুরি ফোরম্যান। রায় ঘোষণায় নির্দোষ প্রমাণিত হয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন মেন্দি।

মেন্দি ফ্রান্সের হয়ে ১০ ম্যাচ খেলে ২০১৮ সালে পেয়েছেন বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ। তিনি ২০১৭ সালে মোনাকো থেকে রেকর্ড ৫ কোটি ২০ লাখ পাউন্ডের বিনিময়ে যোগ দেন সিটিতে। সে সময় তিনিই ছিলেন বিশ্বের সবচেয়ে দামি ডিফেন্ডার।

এদিকে ম্যানচেস্টারের দলটির হয়ে এই লেফট-ব্যাক জিতেছেন তিনটি প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা। তবে প্রথম দফায় অভিযুক্ত হওয়ার পরই তাকে বহিষ্কার করেছিল প্রিমিয়ার লিগের দলটি।