সারা খুলনা অঞ্চলের খবর

14
Spread the love

দাকোপে কৃষক প্রশিক্ষণ ও বিনা মূল্যে সবজির চারা বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার

মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের গোপালগঞ্জ- খুলনা- বাগেরহাট-সাতক্ষীরা-পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় মাটির নমুনা সংগ্রহ পদ্ধতি, সুষম সার ব্যবহার ও ভেজাল সার সনাক্তকরণ বিষয়ক  দিন ব্যাপী কৃষক প্রশিক্ষণ  গতকাল বুধবার খুলনা জেলার দাকোপ উপজেলার পানখালি ইউনিয়নের কৃষকদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষক হিসেবে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন গোপালগঞ্জ-খুলনা-বাগেরহাট-সাতক্ষীরা-পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প (এসআরডিআই অংগ) এর প্রকল্প পরিচালক শচীন্দ্রনাথ বিশ্বাস, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন কর্মকর্তা অমরেন্দ্রনাথ বিশ্বাস ও বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শামসুন নাহার রতœা। প্রশিক্ষণে ৩০জন  কৃষাণ কৃষাণী অংশ গ্রহণ করে। তাদের মাটির নমুনা সংগ্র্রহ পদ্ধতি, সুষম সার ব্যবহার ও ভেজাল সার সনাক্তকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

সভায় প্রশিক্ষকবৃন্দ বলেন, ফসলের খাদ্য ভান্ডার হলো মাটি। কিন্তু অপরিকল্পিত ব্যবহারের কারণে মাটির উর্বরতা শক্তি ক্রমেই কমে যাচ্ছে। ফলে ফসলের ফলন ও উৎপাদন আশানুরূপ হচ্ছে না। এমতাবস্তায় প্রয়োজন মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি ও সংরক্ষণ করা। এজন্য মাটির উর্বরতা সংরক্ষণসহ ফসলের কাঙ্কিত ফলন বৃদ্ধির জন্য মাটি পরীক্ষা করে সুষম সার প্রয়োগ করতে হবে। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী বৈশ্বিক মহামারী করোনায় খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের লক্ষে এসআরডিআই এর মহাপরিচালক মহোদয়ের পরিকল্পনা ও নির্দেশনা মোতাবেক প্রশিক্ষণ পরবর্তী কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে ১০টি করে পেঁপে ও ২০ টি করে বেগুন চারা বিতরণ করা হয়।

নিরাপদ সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কৃষকদের মাঝে চারা বিতরণ করা হয়। উক্ত কৃষক প্রশিক্ষণ ও বিনামূল্যে সবজির চারা বিতরণ কর্মসূচিতে কৃষকদের সংগঠিত করার ব্যাপারে সহযোগিতা প্রদান করেন ইকো-কোঅপারেশন (দি সল্ট সল্যুশন প্রকল্প) এর প্রকল্প সমন্বয়কারী অরুন গাঙ্গুলী এবং ইকো-কোঅপারেশন এর কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. জয়নাল আবেদীন, এনজিও কোডেক এর অঞ্চল সমন্বয়কারী ফোরকান আহমেদ এবং মাঠ কর্মকর্তা গাজী ফারুক হোসেন।

একমাসের মধ্যে শিপইয়ার্ড বাইপাস সড়কের কাজ দৃশ্যমান করতে হবে: আ’লীগ নেতৃবৃন্দ

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনার মানুষের যাতায়াত ও যোগাযোগ ব্যবস্থাকে সহজ ও উন্নত করণের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনা শিপইয়ার্ড বাইপাস সড়কে তৃতীয় বারের মত অতিরিক্ত অর্থ বরাদ্দ করায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন খুলনা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও সংসদ সদস্য। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কেডিএ) গাফলতিতে দীর্ঘদিন যাবৎ ধীরগতিতে শিপইয়ার্ড বাইপাসের কাজ হয়নি। নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ না করায় তিনদফা অর্থ বরাদ্দ করতে হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনার মানুষের প্রতি সহানুভূতিশীল ও আন্তরিক বলেই তৃতীয় বারের মত এই অর্থ বরাদ্দ দিয়েছেন। অথচ খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সে বিষয়ে কোনও গুরুত্ব কাজ করছে না। নেতৃবৃন্দ খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, কোন ওযুহাত খুলনার মানুষ শুনতে চায়না, খুলনার মানুষ চায় সঠিক কাজ। এতদিন গড়িমসি করে নানান তালবাহানা করা হয়েছে, এবার রাষ্ট্রের টাকা যথাসময়ে যথাযথভাবে খরচ করতে হবে। আর সেটি আগামী একমাসের মধ্যে শিপইয়াড বাইপাস সড়কের কাজ দৃশ্যমান না হলে খুলনার মানুষকে সাথে নিয়ে এর উপযুক্ত জবাব দেয়া হবে। বিবৃতিদাতারা হলেন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী, জাতীয় সংসদের হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাস এমপি, নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমডি, আকতারুজ্জামান বাবু এমপি, আব্দুস সালাম মুর্শিদী এমপি।

দারিদ্র বিমোচন ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে মৎস্য সম্পদ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে: এমপি বাবু

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু বলেছেন, সুস্থ’্য সবল জাতি গঠনে মাছ উৎপাদনের কোন বিকল্প নাই এ জন্য বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার মৎস্য খাতকে অধিক গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি বলেন, দারিদ্র বিমোচন ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে মৎস্য সম্পদ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। অথচ আওয়ামী লীগের আগে যারা দেশ পরিচালনা করেছে তাদের সময় গুরুত্বপূর্ণ এই খাতটি উপেক্ষিত ছিল। ওই সময় উৎপাদনও কম ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার মৎস্য সম্পদ উন্নয়নে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করায় গত কয়েক বছরের ব্যবধানে দেশে বার্ষিক মৎস্য উৎপাদন রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে। বর্তমানে মাছের জাতীয় উৎপাদন ৪৩.৮৪ লক্ষ মেট্রিকটন উল্লেখ করে এমপি বাবু বলেন, বর্তমান সরকার খাদ্যের পাশাপাশি মৎস্য উৎপাদনেও স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। গত বছর ৪ হাজার ৩০৯ কোটি টাকার মৎস্য ও মৎস্যজাত পণ্য রপ্তানী করা হয়েছে। ইলিশ সংরক্ষণ ও উৎপাদনেও সরকার সফল হয়েছে। ফলে ইলিশ আহরণে বিশ্বে আমাদের অবস্থান শীর্ষে রয়েছে। করোনার মধ্যেও উৎপাদন বৃদ্ধি এবং মিঠা পানির মাছের উৎপাদন হারে বিশ্বে আমাদের অবস্থান দ্বিতীয়। মোট প্রাণিজ আমিষের চাহিদার প্রায় ৬৩ ভাগ মাছ থেকেই আসে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মৎস্য সম্পদ করোনা কালের বেকারত্ব দূরীকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। তিনি বিলুপ্ত প্রায় মাছের বিভিন্ন প্রজাতি সংরক্ষণ ও উৎপাদন বৃদ্ধিতে নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনে মৎস্য বিজ্ঞানীদের প্রতি আহ্বান জানান। একই সাথে তিনি মাঠ পর্যায়ের চাষাবাদে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করার জন্য চাষীদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে বুধবার (২২ জুলাই) বিকালে পাইকগাছা উপজেলা মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন কমিটি কর্তৃক আয়োজিত মাছের পোনা অবমুক্তকরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। ইউএনও এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস। বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আরাফাতুল আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার ইকবাল মন্টু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লিপিকা ঢালী, অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান কওছার আলী জোয়াদ্দার, সহকারী মৎস্য অফিসার এসএম শহিদুল্লাহ, পাইকগাছা প্রেসকাবের সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল আজিজ, যুবলীগ নেতা এমএম আজিজুল হাকিম ও ছাত্রলীগ নেতা রায়হান পারভেজ রনি। অনুষ্ঠান শেষে এমপি বাবু উপজেলা পরিষদের পুকুরে বিভিন্ন প্রজাতির মাছের পোনা অবমুক্ত করেন।

চামড়ার ন্যায্যমূল্য প্রদান করুন ও কওমী মাদ্রাসা গুলি খুলে দিন মানববন্ধনে আইম্মা পরিষদ নেতৃবৃন্দ

খবর বিজ্ঞপ্তি

বুধবার সকাল ১১ টায় জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ খুলনা মহানগর সভাপতি মুফতী গোলামুর রহমান-এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক মুফতী আব্দুল্লাহ ইয়াহইয়ার সঞ্চালনায় পিকচার প্যালেস মোড়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্যে আইম্মা পরিষদ নেতৃবৃন্দ বলেন, কুরবানির পশুর চামড়ার দাম চার পাঁচ বছর নিন্মগামি যেখানে সব পন্যের দাম উর্দগামি, যে চামড়া আগে দুই  হাজার টাকায় বিক্রি হতো সে চামড়া এখন দুইশত টাকা দিয়েও ব্যবসায়িরা কিনতে চায়না। গার্মেন্টস ও পাটশিল্পের মতো চামড়া শিল্পের বাজারও অন্য দেশের হাতে চলে যাচ্ছে, যার কারণে দেশের মাদ্রাসা গুলি শুধু ক্ষতির মুখে পড়বে এরকম না, বরং সামগ্রিক ভাবে দেশের অর্থনীতি হুমকির দিকে যাচ্ছে। এ অবস্থা থেকে চামড়াশিল্প রক্ষার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন সাথে সাথে অসাধু ট্যানারি মালিক ও ব্যাবসায়িদের সিন্ডিকেট মুক্ত চামড়া ব্যাবসার আহবান জানান। আরও বলেন দেশের কওমী মাদ্রাসা গুলি হলো খালেছ দিনি প্রতিষ্ঠান, এ প্রতিষ্ঠান থেকে ইসলামের সঠিক ও বিশুদ্ধ দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়। কওমী মাদ্রাসা বন্ধ থাকলে জাতি আল্লাহর রহমত থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। মাদ্রাসা গুলি খুলে দিলে সাস্থবিধি মেনে আমরা প্রতিষ্ঠান গুলিকে পরিচালিত করবো, সরকার ও প্রশাসন আমাদের দাবী দুটিকে গুরুত্বের সাথে নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন। প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব মুফতী আমানুল্লাহ, বক্তব্য রাখেন মুফতী মুমতাজুল করিম, মুফতী মাহবুবুর রহমান, মুফতী আলী আহমাদ, মুফতী জাকির আশরাফ, মুফতী মাশহুদুর রহমান, মুফতি ফখরুল হাসান কাসেমী, মুফতী জাকির হুসাইন, মুফতী মানযুর আহমাদ, মুফতী রবিউল ইসলাম রাফে, মাওলানা আবুল হাসান, মাওলানা ইলিয়াস মাঞ্জুরী, মুফতী শেখ আমীরুল ইসলাম, মুফতী আবু সালেহ, মাওলানা আব্দুল কাদের, মাওলানা সিরাজুল ইসলাম, মাওলানা জুনাইদ মাহমুদ, মাওলানা মনিরুল ইসলাম, মাওলানা আবু বকর সিদ্দিক, আলহাজ্ব মোঃ আবু তাহের, মুফতী আব্দুল্লাহ, মাওলানা আবু জাফর, মাওলানা আসাদুজ্জামান, হাফেজ সালাহ উদ্দিন, মাওলানা ইকবাল, মোঃ ফেরদাউস গাজী সুমন, হাফেজ মোঃ হাসান, মোঃ নাসিব ইসলাম, সামছুর রহমান বাবুল প্রমূখ নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন মাদ্রাসা ছাত্ররা উপস্থিত ছিলেন।

বাগেরহাটে একদিনে সর্বোচ্চ ৪২ জনের করোনা শনাক্ত

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটে একদিনে সর্বোচ্চ ৪২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং যশোরের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় এদের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এই নিয়ে বাগেরহাটে মোট করোনা আক্রন্তের সংখ্যা ৪‘শ ৭৫ জনে দাড়ালো । করোনা ভাইরাসে আক্রন্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেছে  ১০ জন। বুধবার দুপুরে সিভিল সার্জন ডা. একে এম হুমায়ুন কবির এসব তথ্য জানিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, আক্রান্তরা সবাই সুস্থ-স্বাভাবিক রয়েছেন। বাগেরহাট জেলায় এই নিয়ে মোট ৪৭৫ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হল। এর মধ্যে ২৬০ জন সুস্থ হয়েছেন। জেলায় এ পর্যন্ত মারা গেছে নারীসহ দশজন।

এদিকে রামপাল উপজেলার দলদা (ফয়লা বাজারের পাশে) গ্রামের শাহিন হোসেনের মৃত্যুর চারদিন এবং নমুনা সংগ্রহের ১০ দিন পরে জানা গেছে তিনি করোনা পজেটিভ ছিলেন। ১৮ জুলাই যশোর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) এ মারা যায় শাহিন হোসেন। এর আগে করোনা উপসর্গ থাকায় ১২ জুলাই শাহিন হোসেনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ১৭ জুলাই শ^াসকষ্ট হলে শাহিনকে যশোর সিএমএইচে ভর্তি করা হয়।

রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সুব্রত কুমার পাল বলেন, করোনা উপসর্গ থাকায় ১২ জুলাই শাহিনসহ ২৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। বুধবার দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে পাঠানো রিপোর্টে ১১ জনের পজেটিভ রিপোর্ট আসে। এর শাহিন হোসেন করোনা পজেটিভ। আমরা শাহিনের পরিবার ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানতে পারি ১৮ তারিখ সে মারা গেছেন। বাগেরহাট সদর উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের একটি বাড়িতে ওইদিনই তার দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। তার দাফন কাজে অংশগ্রহনকারী চারজনের মধ্যে তিনজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আরও বলেন, ১৭ তারিখ শাহিন হোসেন জানিয়েছিলেন তার শ^াসকষ্ট হচ্ছে। তখন আমরা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সের আইসোলেশনে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেই। কিন্তু পরবর্তীতে তার ছেলে সেনাবাহিনীতে চাকুরী করার সুবাদে যশোর সিএমএইচে ভর্তি করে।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. একে এম হুমায়ুন কবির বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং যশোরের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় এই ৪২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর মধ্যে খুলনার পিসিআর ল্যাবে ৩১ এবং যশোরে ১১ জন রয়েছেন। এটা একদিনে বাগেরহাটে সর্বোচ্চ। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সবাইকে আরও সচেতন হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে ব্যাস্ততা বাড়ছে বাগেরহাট জেলা কামারশালায়

বাগেরহাট প্রতিনিধি

পবিত্র কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে ব্যাস্ত হয়ে উঠতে শুরু করেছে বাগেরহাট জেলা কামার শালায়। কিন্তু এ বছর করোনা ভাইরাসের কারনে কাজের চাপ অন্য বছরের চেয়ে অনেক কম। তাই কাজ চলছে ধীর গতিতে। বাগেরহাট শহরের কামার পট্রিতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে কামার শিল্পীরা দা, বটি, চাকু, চাপাতিসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি তৈরি করতে এখন ব্যস্ততা বাড়ছে। কাজের চাপ থাকলেও মজুরি নিয়ে সন্তুষ্ট নন তারা। বাগেরহাট শহরের কামার পট্রিতে,সদর উপজেলার যাত্রাপুরসহ বিভিন্ন হাটবাজার কামারদের বাড়িতে কুরবানির ঈদকে সামনে রেখে দা, বঁটি, চাকু, চাপাতিসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম তৈরি করছেন কামাররা। এসব ব্যাবহার্য জিনিস জেলা শহরের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি বিভিন্ন হাটবাজারের পাইকারি ব্যবসায়ীরা নিতে শুরু করেছে। স্থানীয় বাজার থেকে লোহা কিনে সেগুলো পুড়ে দা, বঁটি, চাপাতি, চাকুসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র তৈরি করছেন কামাররা। বর্তমান আধুনিক যন্ত্রাংশের প্রভাবে কামার শিল্পের দুর্দিন চললেও ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে জমতে শুরু করেছে এ শিল্প।

শহরের কামার পটির শংকর কর্মকার এ প্রতিনিধিকে বলেন, মেশিনের সাহায্যে বর্তমানে আধুনিক যন্ত্রপাতি তৈরি হচ্ছে ফলে আমাদের তৈরি যন্ত্রপাতির প্রতি মানুষ আকর্ষণ হারাচ্ছে। হয়তোবা এক সময় এই পেশা আর থাকবে না। তবে কুরবানির ঈদের সময় আমরা একটু আশাবাদী হই। আমাদের বাপ দাদার পেশা বলে শত কষ্টের মধ্যেও ধরে রেখেছি। সারা বছর তেমন কোনো কাজ না থাকলেও কুরবানির সময় আমাদের কাজের চাহিদা বেড়ে যায়। তবে এ বছর করোনার ভাইরাসের কারনে আমাদের সেটাও সম্ভব হবেনা বলে জানান।

শৈলেন কর্মকার হোসেন বলেন, আমরা সারা বছর অলস সময় পার করলেও কোরবানীর ঈদ আসলেই অধিক শ্রম দিয়ে বেশি আয়ের স্বপ্ন দেখি। কিন্তু কয়লা ও লোহার দাম বেশি হওয়ায় আমাদের সেই স্বপ্ন ভেঙ্গে যেতে বসেছে। ছুরি, বটিসহ লোহার বিভিন্ন রকমের যন্ত্রপাতি তৈরীতে আমাদের ব্যায় বেশি হলেও উপযুক্ত মূল্যে কিনছেন না ক্রেতারা। ঈদের আর মাত্র কয়েক দিন বাকী থাকলেও আমাদের তৈরী যন্ত্রপাতির বিক্রি নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়ছি আমরা।

কামার শ্রমিক আনন্দ কর্মকার অভিযোগ করে বলেন, বছরে এই সময় চাপাতি, ছুরি, বটির চাহিদা বেশি থাকে। লোহা, কয়লার দাম বৃদ্ধি এবং পরিশ্রমও করতে হয় বেশি। সেই তুলনায় মজুরি অনেক কম। সারা দিন আগুনের পাশে বসে থাকতে হয়। ফলে বিভিন্ন ধরেনের সমস্যা শরীরে তৈরি হয়। যে কারনে এখন অনেক কর্মকাররা এগুলো বানাতে উৎসাহ হারাচ্ছেন।

বাগেরহাটে সন্ত্রাসী হামলায় সাবেক ইউপি সদস্য সহ আহত ২

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের শরণখোলায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পূর্ব পরিকল্পিত হামলায় সাবেক ইউপি সদস্য সহ তার ভাইকে কুপিয়ে জখম করেছে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী দল। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের তাফালবাড়ী বাজার এলাকায়।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে ও আহতদের কাছ থেকে জানা গেছে, সাউথখালী ইউনিয়নের উত্তর তাফালবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা সাবেক ইউপি সদস্য ফজলুল হক টুকুর সাথে প্রতিবেশী ইউসুফ আলী হাওলাদারের পুত্র সাগর (৩৭), শাহজাহান হাওলাদার (৫০), তৈয়ব আলী হাওলাদারের পুত্র সাবেক জলদস্যু ইব্রাহিম ওরফে টাকু ইব্রাহিম (৪২), আলী আকবর হাওলাদারের পুত্র শহিদুল (৪০) এবং রুহুল আমিন (৬০) গং দের সাথে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এঘটনায় বিভিন্ন সময়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিগন শালিশ মিমাংসার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। ঘটনার দিন মঙ্গলবার তাফালবাড়ী বাজারে শালিশ মিমাংসার জন্য বসার পর শালিশ ব্যবস্থা অমান্য করে প্রতিপক্ষের লোকজন চলে যায়। ওই সময় সাবেক ইউপি সদস্য নিজ বাড়িতে যাবার উদ্দেশ্যে তাফালবাড়ী বাজারের কাঠের পোলের কাছে পৌছলে পুর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী দা, চাকু, লাঠি-সোটা নিয়ে পিছন থেকে অতর্কিত হামলা কওে এবং সাবেক ইউপি সদস্য ফজলুল হক টুকু (৫৮)কে চাকু দিয়ে ডান চোখের নিচে ও বাহুতে রক্তাক্ত জখম করে। তার ভাই সফিকুল ইসলাম (৩৫)কে মাথায় কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। তাদের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে তাদের সহায়তায় আহতদের উদ্ধার করে ওই দিন দুপুরে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সে ভর্তি করা হয়।

শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সে চিকিৎসাধীন সাবেক ইউপি সদস্য ফজলুল হক টুকু বলেন, প্রতিপক্ষরা সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। আইন, শালিশ বিচার এরা মানেনা এর আগে গত ২০মে আমার ভাই শফিকুলের উপর সস্ত্রাসী হামলা এবং এর কয়েকদিন পরে আমার আরেক ভাই আলামিনের উপর একই কায়দায় হামলা করে। এছাড়াও বিগত দিনে সাগর ও টাকু ইব্রাহিম গংদের বিরুদ্ধে চুরি-ডাকাতি, মাদক ও সন্ত্রাস সহ একাধিক মামলা রয়েছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস.কে আব্দুল্লাহ আল সাঈদ বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত আছি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাগেরহাটে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন

বাগেরহাট প্রতিনিধি

‘মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধি করি, সুখী সমৃদ্ধ দেশ গড়ি’ এ প্রতিপাদ্যের আলোকে বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০২০ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা পরিষদের দিঘীর পানিতে মাছের পোনা অবমুক্ত করণের মধ্যদিয়ে উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন-উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিনুল আলম ছানা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাফ্ফারা তাসনীন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম রেজা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আবুল হাসান, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাজ কুমার বিশ্বাস প্রমূখ।

বাগেরহাটে ক্রেতা শূন্য কোরবানির হাট নিয়ে দুশ্চিন্তায় খামারিরা

বাগেরহাট প্রতিনিধি

কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে বাগেরহাটের হাটগুলোতে পর্যাপ্ত পশু থাকলেও তেমন বেচাকেনা নেই। করোনার কারণে জেলার বাইরের ব্যবসায়ীরা পশু কিনতে আসছেন না। আদৌ হাট জমবে কিনা, ক্রেতারা আসবে কিনা- এ ধরণের নানা চিন্তা পেয়ে বসেছে তাদের। এছাড়া করোনা পরিস্থিতিতে তারা লাভবান হতে পারবেন কিনা- সে চিন্তাও মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে। সব মিলিয়ে দুশ্চিন্তা পিছু ছাড়ছে না খামারি ও পশু ব্যবসায়ীদের।

মঙ্গলবার দুপুরে বাগেরহাট জেলার অন্যতম বৃহৎ পশুরহাট বেতাগা হাটে প্রচুর পরিমান পশু দেখা যায়। পশুর সাথে হাটে মানুষের সংখ্যাও কম নয়। কিন্তু ক্রয় বিক্রয় নেই। হাট ইজারাদারের পক্ষ থেকে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি পালনের প্রচেষ্টা থাকলেও ক্রেতা বিক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই। খামারিরা বলছেন, সারাবছর গরু লালন-পালন করি। কোরবানি উপলক্ষে গরু বিক্রির করার জন্য। এবার করোনা আসার পরে গোখাদ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার পরেও বাধ্য হয়ে খাবার খাইয়েছি। কিন্তু হাটে গরু নিয়ে আসছি। ব্যবসায়ী ও ক্রেতা নেই বললেই চলে। যারা আছে তারা গরুর প্রকৃত দামের অর্ধেকও বলে না। কোরবানির আছে মাত্র কয়েকদিন। এখন ভাল দামে না বিক্রি করতে পারলে আর কি করব। এবার লোকসানের আর শেষ নেই আমাদের।

রবিউল নামের এক খামারি বলেন, পশু খাদ্যের অতিরিক্ত মূল্য। এছাড়া অন্যান্য খরচ মিলে গরুর লালন-পালনে ব্যয় বেড়েছে। হাটে ক্রেতা সমাগম না হলে লোকসান হবে বলে মনে করছেন তিনি।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, কোরবানি উপলক্ষে এবছর যে গরু কিনেছি। তাতে আমাদের লস হবে। প্রত্যেকটি গরু দাম ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা কম বলছে বাজারে। বাজারে ক্রয়-বিক্রয় একদম কম। তার উপর খাজনা গেল বারের থেকে বেশি। এই অবস্থা থাকলে আমাদের লসে পরতে হবে।

গরু ব্যবসায়ী আলামিন আলম বলেন, তার কোরবানিযোগ্য ১০টি গরু রয়েছে। কিন্তু করোনার পরিস্থিতির কারণে এবার গরু কেনায় আগ্রহী কোনো ব্যাপারির দেখা পাওয়া যাচ্ছে না। এতে করে পশুর হাটে ক্রেতার অভাবে দাম পড়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।

এদিকে খামারের সাথে সংশ্লিষ্ট অনেকেই বলেছেন, করোনার কারণে সঙ্কটে রয়েছেন মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষেরা। যারা সাধারণতঃ একাধিক ভাগে কোরবানি দিয়ে থাকেন। ফলে তাদের অনেকেই চলতি বছর কোরবানি দিতে পারবেন কিনা- তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। এতে করে কোরবানির পশু বিক্রি কমে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে। হাট ইজারাদাররা বলছেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে গেল বছরের থেকে এবছর ক্রয় বিক্রয় অনেক কম। আমরা চেষ্টা করছি হাটে শতভাগ স্বাস্থ্য বিধি বজায় রাখতে। বাগেরহাট জেলার ৯ উপজেলায় ২০টি স্থায়ী পশুর হাট রয়েছে। এবছর কোন অস্থায়ী ও মৌসুমী হাট বসবে না বাগেরহাটে।

জেলা প্রাণি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ডাঃ লুৎফর রহমান জানান, করোনা পরিস্তিতিতে পর্যাপ্ত নিয়োম- শৃঙ্খলা মানার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। প্রত্যকটি হাটে গরু অসুস্থ হলে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দেয়ার জন্য ব্যবস্থা নিয়েছি। একই সাথে স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য সকলকে সতর্ক করা হচ্ছে। খামারীদের স্বার্থ রক্ষার সর্বোচ্চ চেষ্টা করার কথা জানান তিনি।

করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিন জনের মৃত্যু, তিনজন সাংবাদিকসহ নতুন আক্রান্ত ২৯ জন

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে দুই জন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অইসোলেশনে ও এক জন মেডিকেলে ভর্তির আগেই মারা গেছেন। বুধবার দিবাগত রাত থেকে ভোর ৬ টার মধ্যে তাদের মৃত্যু হয়।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ওবায়দুরনগর গ্রামের মৃত আছিরউদ্দিন মোড়লের ছেলে আব্দুর রহিম (৭০), সদর উপজেলার ব্রক্ষরাজপুর গ্রামের মৃত নেতাই চন্দ্রের ছেলে সুভাষ চন্দ্র (৬৪) ও দেবহাটা উপজেলার কুলিয়া শ্রীরামপুর গ্রামের দাউদ আলীর ছেলে আলাউর কবির (৫০)। সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, গত ১৮ জুলাই জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন আব্দুর রহিম। এরপর বুধবার ভোর ৪টার দিকে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এদিকে, গতকাল ২১ জুলাই জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন সুভাষ চন্দ্র। এরপর বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে তিনিও মারা যান।

অপরদিকে, করোনার উপসর্গ নিয়ে ভোর ৬ টার সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসেন আলাউর কবির। সেখানে ভর্তি হওয়ার আগেই তিনি মারা যান। ডাঃ রফিকুল ইসলাম আরো জানান, মারা যাওয়ার পর তাদের তিন জনেরই নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাা লাশ দাফন ও সৎকারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এ পর্যন্ত সাতক্ষীরায় করেনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন অন্তত ৪০ জন। আর করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ১৩ জন।

এদিকে, গত ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরায় নতুন করে তিন সাংবাদিক, এক কলেজ শিক্ষিকা ও এক র‌্যাব সদস্যসহ ২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।  এ নিয়ে জেলায় আজ পর্যন্ত মোট ৫৬৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনা আক্রান্তরা হলেন, সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত দৈনিক সাতনদী পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক হাবিবুর রহমান হাবিব, আশাশুনি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক অসিম বরন চক্রবর্তী, তার স্ত্রী ছফুরুন নেছা মহিলা কলেজের শিক্ষিকা পম্পাবতী মূখার্জি, দৈনিক ভোরের কাগজের জেলা প্রতিনিধি এড. দিলিপ কুমার দেব ও এক র‌্যাব সদস্যসহ মোট ২৯ জন।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ জয়ন্ত সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বুধবার দুপুরে পিসিআর ল্যাব থেকে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে উক্ত ২৯ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। তিনি আরো জানান, স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের বাড়ি লক ডাউনের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

ঝিনাইদহে কৃষকের বাড়ি থেকে ডাকাতি হওয়া গরু উদ্ধার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বিষয়খালী গ্রামের বাপ্পি নামের এক কৃষকের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা পর ১ টি বাছুর ও ১টি গাভী উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা এলাকা থেকে গাভী ও বাছুর দুটিকে উদ্ধার করা হয়। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আব্দুল বাশার এর তত্তাবধানে ওসি অপারেশন আবুল খায়ের এ অভিযান পরিচালনা করেন।

ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আবুল বাশার জানান, গত ১৪ জুন রাত আড়াই টার দিকে ট্রাক ও পিকআপ নিয়ে একদল ডাকাত সদর উপজেলার বিষয়খালী গ্রামের কৃষক সুলতান মিয়ার বাড়িতে ঢোকে। এসময় তারা বাড়ির ৭ সদস্যকে জিম্মি করে একটি কক্ষে আটকে রাখে। পরে গরুসহ বেশ কিছু মালামাল নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগি বাপ্পি নামে এক ব্যক্তি বাদি হয়ে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পরে মামলার সূত্র ধরে মঙ্গলবার কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা থেকে ১ টি গাভী ও ১ টি বাছুর গরু উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, ইতিমধ্যে লুন্ঠিত একটি মোবাইল এবং ঘটনার সাথে জড়িত দুই জন ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তারা বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবান বন্দি প্রদান করেছে।

উদ্ধারকৃত গরু বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে মালিকের কাছে হস্তান্তর করার সময় উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান (পিপিএম), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আবুল বাশার, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, ঝিনাইদহ প্রেসকাবের সভাপতি এম রায়হান, ওসি তদন্ত এমদাদুল হক প্রমুখ।

পবিত্র ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা

খবর বিজ্ঞপ্তি

পবিত্র ঈদ-উল আযহা উপলক্ষ্যে আগামী ২৬ জুলাই থেকে ৬ আগস্ট পর্যন্ত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। ছুটি শেষে আগামী ৯ আগস্ট রোববার পুনরায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হবে। রেজিস্ট্রার অফিস থেকে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দুই মাসে পাঁচ টন বোরো সংগ্রহ

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের মণিরামপুরে সরকারিভাবে বোরো ধান সংগ্রহ এগুচ্ছে না। গত দুই মাসে মাত্র পাঁচ মেট্রিকটন ধান সংগ্রহ করতে পেরেছে গুদাম কর্তৃপক্ষ। ফলে নির্ধারিত সময়ে চলতি মৌসুমে এই অঞ্চল থেকে কাঙ্খিত বোরো ধান সংগ্রহ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। বৈরি আবহাওয়া ও খোলা বাজারে ধানের চড়া দাম থাকায় কৃষক গুদামে ভিড়ছেন না বলে দাবি খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার। তবে, কৃষক বলছেন, ধান দেওয়া সমস্যা না। গুদামে গেলে আমাদের নানাভাবে হয়রানি করা হয়। সেই জন্য আমরা ধান দিচ্ছি না।

চলতি বোরো মৌসুমে লটারির মাধ্যমে মণিরামপুর থেকে চার হাজার এক টন ধান ও দুই হাজার ৬৮০ টন চাল সংগ্রহের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। গত ২৬ এপ্রিল থেকে ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু লটারি সম্পন্নসহ প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সেরে প্রায় একমাস পর ২০ মে দুই টন ধান ও এক টন চাল সংগ্রহের মাধ্যমে ক্রয় কাজের উদ্বোধন করা হয়।

ধান সংগ্রহের শুরুতে তালিকাভুক্ত কৃষকদের পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মাধ্যমে পাঁচ শতাংশ লাভে ২০ হাজার টাকা করে ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সমবায় মন্ত্রণালয়। সেই হিসেবে মণিরামপুরে এই পর্যন্ত ২৯ জন কৃষক ২০ হাজার টাকা করে ঋণ নিয়েছেন বলে জানান উপজেলা পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের জুনিয়র কর্মকর্তা আবু মাসউদ। কিন্তু বুধবার পর্যন্ত পাঁচজন কৃষক গুদামে ধান দিয়েছেন।

মণিরামপুরে বোরো ধান সংগ্রহের শুরুতে উপজেলা খাদ্য অফিসের মাধ্যমে মাইকিং করে ব্যাপক প্রচারণার সিদ্ধান্ত নেন ক্রয় কমিটি। কিন্তু কমিটির সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কোন উদ্যোগই নেয়নি এই দপ্তরটি। শুধুমাত্র স্ব স্ব ইউপি’র দেওয়ালে তালিকা সেঁটে দায়িত্ব শেষ করেছেন তারা।

লটারির তালিকাভুক্ত কৃষক মাহমুদকাটি গ্রামের আবুল ইসলাম বলেন, সরকার ধানের মণপ্রতি দেবে একহাজার ৪০ টাকা। গুদামে ধান দিতে গেলে নানা অজুহাত দেখিয়ে কৃষকদের ঘুরানো হয়। কিন্তু আমরা বাড়িতে বসে সাড়ে নয়শ থেকে একহাজার টাকায় ধানের মণ বিক্রি করতে পারছি। সেইক্ষেত্রে ধানের আদ্রতা মাপার দরকার হচ্ছে না; চিটা থাকলেও সমস্যা নেই।

বর্তমানে খোলাবাজারে ধানের মণ ৯৩০ টাকা থেকে ৯৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে বলে জানান টেংরামারী বাজারের আড়ৎদার ফয়েজ উদ্দিন।

এদিকে গুদামে বোরো ধানের চাল দেওয়ার ক্ষেত্রে অহীনা দেখানোয় জেলা খাদ্য অফিস ইতিমধ্যে মণিরামপুরে তালিকাভুক্ত মিলারদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন। তারপরও কাঙ্খিত চাল সংগ্রহ হয়নি। বুধবার পর্যন্ত মাত্র ২৭০ টন চাল সংগ্রহ হয়েছে।

মণিরামপুর চালকল মালিক সমিতির সভাপতি আরিফুল ইসলাম বলেন, আমাদের হাতে এখনো একমাস সময় আছে। এই সময় পার হলে আরো একমাস সময় বাড়তে পারে। তারমধ্যে আমরা গুদামে নির্ধারিত চাল দিতে পারবো।

মণিরামপুর উপজেলা খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: সেলিম বলেন, আবহাওয়া অনুকুলে না থাকায় এবং বাজারে ধানের দাম চড়া হওয়ায় কৃষক গুদামে ধান দিচ্ছেন না। তবে চাল সংগ্রহ বাড়ছে। ইতিমধ্যে ২৭০ টন চাল সংগ্রহ হয়েছে। সামনে আরো একমাস সময় আছে।

রামপালে একদিনে  নতুন ৫  করোনারোগী সনাক্তে রেকর্ড

রামপাল (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

রামপালে নতুন আরো ১১ জনের করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে। একই পরিবারের ৪ জন তারা হলেন, উপজেলার ভরসাপুর এলাকার জাকিয়া বেগম (৩৫), ঐশি (১৬), আমজাদ আলী (৩৭), মোঃ শওকত (৬০), আক্কাস আলী হাওলাদার (৮০), নজরুল ইসলাম (৩৩), হাওলাদার মহাশিন আলী (৫৪), রেশমী আক্তার (৪৪), আশিকুল ইসলাম (২৫),মাসুমা খাতুন (৫২), এরমধ্যে গত ১৮ জুলাই করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান মৃত শাহিন শেখ (৫৭) আজ পিসিআর ল্যাবের রিপোর্ট অনুযায়ী তিনি পজিটিভ ছিলেন।

রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সুকান্ত কুমার পাল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গত ১২ জুলাই ২৩টি নমুনা পাঠানো হয়েছিলো। আজ বুধবার (২২শে জুলাই) রিপোর্টে তাদের করোনা পজিটিভ এসেছে। আক্রান্তরা বর্তমানে হোম আইসোলেশনে আছেন। এ পর্যন্ত সর্বমোট রামপালে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তর সংখ্যা ৪০ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ২০ জন। হোম আইসোলেশনে আছেন ১৯ জন।

ফকিরহাটের নলধা-মৌভোগ ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান আজহার মোড়লের দাফন সম্পন্ন

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার নলধা-মৌভোগ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আজহার মোড়লের (৫৮) দাফন কার্যাদি সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার ২২ জুলাই বাদ-জোহর মৌভোগ মধ্য পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নামাজে জানাজা শেষে তাকে তার পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। জানাজায় বিভিন্ন স্থান থেকে আসা রাজনীতিবিদ ব্যাবসায়ী সহ ফকিরহাটের বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

নলধা- মৌভোগ ইউপির বারবার নির্বাচিত এ সাবেক চেয়ারম্যান মঙ্গলবার বিকেলে হঠাত  অসুস্থ হয়ে পড়লে চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনার একটি হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

তার মৃত্যুর খবর পেয়ে ওই সময় তার বাড়ীতে ছুটে যান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ,সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও সাধারন সম্পাদক শিরিনা আক্তার কিসলু, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান কাজি মো: মহসিন, ইউপি চেয়ারম্যান মো: রেজাউল করিম ফকির, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, ব্যাবসায়ী সহ নানা শ্রেনী পেশার মানুষ ও এলাকার সর্বস্তরের লোকজন। সাবেক চেয়ারম্যান আজহার মোড়ল ওই এলাকার তিন বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই পুত্র ও এক কন্যা সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তার অকাল মৃত্যুতে রাজনৈতিক অংগনসহ ফকিরহাটে  শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

পৌর ৯নং ওয়ার্ড ভূমিহীন সমিতির মহিলা শাখার আহবায়ক কমিটি গঠন

খবর বিজ্ঞপ্তি

ভূমির অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে পৌর ৯নং ওয়ার্ড ভূমিহীন সমিতির মহিলা শাখার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বিকালে সাতক্ষীরা অনলাইন প্রেসকাবে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন সমিতির মহিলা শাখার সভানেত্রী শাহিদা আক্তার ময়না এর সভাপতিত্বে অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ, সাতক্ষীরা অনলাইন প্রেসকাবের সভাপতি মুনসুর রহমান, সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন উন্নয়ন সমিতির সভাপতি আব্দুস সাত্তার, সাতক্ষীরা জেলা ভূমিহীন সমিতির সহ-সভাপতি আরমান আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো: আশরাফুল ইসলাম, পৌর ভূমিহীন সমিতির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন। পৌর ভূমিহীন সমিতির সভাপতি হোসেন মাহমুদ ক্যাপ্টেন এর সঞ্চালনায় জান্নাতুল, পলি, বিলকিস, নমেছা, লাকি প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা শেষে ময়না খাতুন (পুতুল) কে আহবায়ক, মনিরা খাতুনকে যুগ্ম আহবায়ক ও বিলকিস খাতুনকে সদস্য সচিব করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট পৌর ৯নং ওয়ার্ড ভূমিহীন সমিতির মহিলা শাখার আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। সাতক্ষীরার ভূমিহীনদের বিভিন্ন সমস্যা ও সমাধানের উপর আলোচনার পাশাপাশি প্রয়াত ভূমিহীন নেত্রী জাহেদা খাতুন এর মৃত্যু বার্ষিকী পালনের সিদ্ধান্ত আলোচনায় গৃহীত হয়। নেতৃবৃন্দ ভূমির অধিকার আদায়ে সকল ভূমিহীনদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান।

দেবহাটায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস কাম স্টোর রুমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন

কে এম রেজাউল করিম

দেবহাটায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস কাম স্টোর রুমে বুধবার  (২২জুলাই) জুম কাউড অ্যাপস এর মাধ্যমে ভিডিও কনফারেন্সে ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষনা করেন প্রধান অতিথি সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সাতক্ষীরা ০৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. আ.ফ.ম রুহুল হক, এমপি। পরে ফিঁতা কেটে ভবনের উদ্বোধন করেন দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন। এসময় উপস্থিতসহ অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নওয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুজিবর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, সখিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন.   উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান সবুজ,উপজেলা  স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল লতিফ, দেবহাটা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রনজিৎ কুমার রায়সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

শরণখোলায় প্রতিবন্ধি বান্ধব প্রকল্প সচেতনতা মূলক  কর্মশালা

শরণখোলা প্রতিনিধি

বাগেরহাটের শরণখোলায় প্রতিবন্ধি বান্ধব দূর্যোগ ঝুকিঁ ব্যবস্থাপনা ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সিডিডি আইডিআরএম এ্যন্ড সিসিএ  প্রকল্পের সচেতনতা মূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২২জ্লুাই বুধবার সকালে উপজেলার ৪নং-সাউথখালী ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। ফিজিও থেরাপিস্ট মোঃ শফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু রাজ্জাক আকন, উপজেলা এনজিও ফোরামের সভাপতি মীর সরোয়ার হোসেন, যুবলীগ নেতা ইমরান হোসেন রাজীব। কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন  ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর মোঃ শহিদুল ইসলাম। বাংলাদেশের মূল ধারার উন্নয়ন কর্মকান্ডে প্রতিবন্ধি ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করার জন্য উন্নয়ন সংস্থা সেন্টার ফর ডিজএ্যাবিলিটি ইন্ ডেভেলপমেন্ট ( সিডিডি)  কাজ করছে। ৪নং-সাউথখালী ইউনিয়নের ৯ টি ওয়ার্ডে এ প্রতিবন্ধি বান্ধব এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পটিতে ৭,০৩০ জন ব্যক্তি সুবিধা ভোগী হবেন। অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধি ব্যক্তি ছাড়াও  উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষক শহিদুল ইসলাম খান,  ইউপি সদস্য মোঃ বাচ্চু মুন্সী, ওবায়দুল হক, আব্দুল হালিম শাহ্, জাকির হাওলাদার, স্থানীয় বাজার ব্যাবস্থাপনা কমিটির সাধারন সম্পাদক শানু জোমাদ্দার, প্রকল্পের মাঠ কর্মী বেলাল হোসেন, রিপা খানম ও সোনিয়া আক্তার প্রমুখ।

বটিয়াঘাটায় সংবাদ

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

বটিয়াঘাটার জলমা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি নিত্যানন্দ বৈরাগী সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দের নামে জয়খালী গ্রামের চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যু, সন্ত্রাসীচক্রের মদদদাতা, মাদক ব্যবসায়ীর সহযোগী, কথিত নারীলোভী ও হলুদ সাংবাদিক নকুল বিশ্বাসের পুত্র অমলেন্দু বিশ্বাস চাকুরীর নামে বিভিন্ন ব্যক্তির নিকট থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় এলাকার প্রগতিশীল আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ তার প্রতিবাদ করায় তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা সাংবাদিক সম্মেলন করে কুৎসা রটানোর প্রতিবাদে ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় সহ-সভাপতি মোঃ শাহাজাহান হাওলাদারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সুনীল বৈরাগীর পরিচালনায় এক প্রতিবাদ সভা স্থানীয় দলীয় কার্যালয়ে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তৃতা করেন আ’লীগ নেতা মনোয়ারুল ইসলাম মনি, জিন্নাত সরদার, শিমুল মল্লিক, যুবলীগ নেতা ও ইউপি সদস্য কার্ত্তিক টিকাদার, তরিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা মনিরুল ইসলাম রিংকু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আওয়াল মুন্সি, সন্তোষ অধিকারী, আজহারুল ইসলাম, সৗমেন প্রমুখ। বক্তারা অমলেন্দু বিশ্বাসের কার্যকলাপের কারনে এলাকার পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে দাবী করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন বটিয়াঘাটায়

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্যাপন উপলক্ষ্যে বটিয়াঘাটা উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরের আয়োজনে গতকাল বুধবার বিকাল ৩টায় পরিষদের পুকুরে মাছের পোন অবমুক্ত করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আশরাফুল আলম খান। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান চঞ্চলা মন্ডল, কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ রবিউল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আমীর আলী, উপজেলা প্রেসকাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ, অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, কোষাধ্যক্ষ মোঃ মনিরুজ্জামান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহীন বিশ্বাস, এ্যাড. মোঃ মোস্তফা বিল্লাহ, ক্ষেত্র সহকারী মোঃ আসলাম হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা সঞ্জয় মোড়ল, স্বেচ্ছাসেবক লীগনেতা মিজানুর রহমান মিজান, শশাঙ্ক রায়, প্রশান্ত মল্লিক, ইসমাইল হোসেন প্রমুখ। পরবর্তীতে বাজারের মৎস্য সেক্টরের অগ্রগতি বিষয়ক প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

ফুলতলায় মোবাইল টাওয়ারের ১৪৪ পিচ চোরাই ব্যাটারীসহ আটক ৪

ফুলতলা প্রতিনিধি

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ মঙ্গলবার রাতে ফুলতলার বেজেরডাঙ্গা বাসষ্টান্ড এলাকা থেকে ট্রাকভর্তি মোবাইল টাওয়ারের ১৪৪ পিচ ব্যাটারী আটক করে। এ সময় আন্তঃজেলা চোরাই মোবাইল টাওয়ারের চোরাই ব্যাটারী ক্রয়-বিক্রয় দলের সক্রিয় ৪ সদস্যকে আটক হয়। এ ব্যাপারে ফুলতলা থানায় মামলা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক সেখ কনি মিয়ার নেতৃত্বে পুলিশ খুলনা-যশোর মহাসড়কের ফুলতলা বেজেরডাঙ্গা বাসষ্টান্ডের ১নং স্প্রিড ব্রেকারে অবস্থান নেয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যশোরগামী ট্রাক (নং- ফরিদপুর ট-১১-০২২৮) কে দাড় করিয়ে তল্লাসী চালানো হয়। ত্রিপলে ঢাকা মোবাইল টাওয়ারের চোরাই ৪৩টি সাদা রং এর ব্যাটারী, ৯০টি পাউডার ব্যবহৃত বিভিন্ন সাইজের ব্যাটারী ও ১১টি পানি ব্যবহৃত বিভিন্ন ব্যাটারী জব্দ করা হয়। এ সময় ট্রাকে অবস্থানকারী অভয়নগরের সিদ্দিপাশা গ্রামের মৃতঃ শামচুর রহমানের পুত্র জিয়াউর রহমান (৪৩), হানিফুর রহমানের পুত্র মোঃ আসাদুজ্জামান রনি (৩৫), ফরিদপুরের আম্বিকাপুরের সিদ্দিক মোল্যার পুত্র নাজিম মোল্যা (২৫) ও আইয়ুব খানের পুত্র জুয়েল খান (২৪) কে আটক করে। আটককৃতরা আন্তঃজেলা চোরাই মোবাইল টাওয়ারের চোরাই ব্যাটারী ক্রয়-বিক্রয় দলের সক্রিয় সদস্য বলে পুলিশ জানিয়েছে। এ ব্যাপারে এসআই রাজিউল আমিন বাদি হয়ে ফুলতলা থানায় মামলা (সং-০৮) দায়ের করেন।

ফুলতলায় জুয়ার আসর থেকে টাকা ও সরঞ্জামসহ ৯ জুয়াড়ি আটক

ফুলতলা প্রতিনিধি

থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে মঙ্গলবার বিকালে ফুলতলা সরকারি মহিলা কলেজ গেট এলাকা থেকে নগদ টাকা, জুয়া খেলার তাসসহ ৯ জুয়াড়িকে আটক করা হয়। এ ব্যাপারে ফুলতলা থানায় মামলা হলে আটককৃতদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, ফুলতলা সরকারি মহিলা কলেজ গেটের পাশে জাহিদের চায়ের দোকানের ভিতরে জুয়া খেলা হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে থানার ওসি (তদন্ত) মোস্তফা হাবিবুল্লাহ’র নেতৃত্বে বুধবার বিকাল ৩ টায় পুলিশ অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ জুয়া খেলার নগদ ৩৯ হাজার ৬শ’ ৭০ টাকা, ৬ সেট তাসসহ ৯ জুয়াড়িকে আটক করে। আটককৃতরা হলো ফুলতলার আলকা গ্রামের আইনাল ব্যাপারীর পুত্র মোঃ জাহাঙ্গীর আলম (৪০), আঃ রউফ মোল্যার পুত্র বিল্লাল মোল্যা (৩৫), ডুমুরিয়া হাসানপুর গ্রামের মোঃ আমিরুল মোড়লের পুত্র মোঃ জুয়েল মোড়ল (২৭), আলকা গ্রামের মৃতঃ আমজাদ মোল্যার পুত্র মিলন মোল্যা (৩৪), আব্দুল খালেক শেখের পুত্র আঃ রহিম শেখ (৪০), মোঃ ইসারাত শেখের পুত্র মোঃ পারভেজ শেখ (২৬), গাড়াখোলা গ্রামের মোঃ হযরত আলীর পুত্র মোঃ মাঈনুল ইসলাম মিঠু (২৮), আলকা গ্রামের বিশ্বনাথ বাড়ই’র পুত্র বিজয় বাড়ই (৩০) ও হাকিম ফারাজির পুত্র ও চায়ের দোকানদার মোঃ জাহিদুল ফারাজি (২৮)।  এসআই জাহিদুর রহমান জুয়া আইনে বাদি হয়ে ফুলতলা থানায় মামলা (নং-৯) দায়ের করেন।

শরণখোলায় প্রতিবন্ধি বান্ধব প্রকল্প অবহিত করন কর্মশালা

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ঃ

বাগেরহাটের শরণখোলায় প্রতিবন্ধি বান্ধব দূর্যোগ ঝুকিঁ ব্যবস্থাপনা ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সিডিডি আইডিআরএম এ্যন্ড সিসিএ  প্রকল্পের অবহিত করণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১ টায় উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। ফিজিও থেরাপিস্ট মোঃ শফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু রাজ্জাক আকন, উপজেলা এনজিও ফোরামের সভাপতি মীর সরোয়ার হোসেন, যুবলীগ নেতা ইমরান হোসেন রাজীব। কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন  ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর মোঃ শহিদুল ইসলাম। বাংলাদেশের মূল ধারার উন্নয়ন কর্মকান্ডে প্রতিবন্ধি ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করার জন্য উন্নয়ন সংস্থা সেন্টার ফর ডিজএ্যাবিলিটি ইন ডেভেলপমেন্ট (সিডিডি)  কাজ করছে। সাউথখালী ইউনিয়নের ৯ টি ওয়ার্ডে এ প্রতিবন্ধি বান্ধব এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পটিতে ৭,০৩০ জন ব্যক্তি সুবিধা ভোগী হবেন। অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধি ব্যক্তি ছাড়াও  উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষক শহিদুল ইসলাম খান,  ইউপি সদস্য মোঃ বাচ্চু মুন্সী, ওবায়দুল হক, আব্দুল হালিম শাহ্, জাকির হাওলাদার, স্থানীয় বাজার ব্যাবস্থাপনা কমিটির সাধারন সম্পাদক শানু জোমাদ্দার, প্রকল্পের মাঠ কর্মী বেলাল হোসেন, রিপা খানম ও সোনিয়া আক্তার প্রমুখ।

অভয়নগরে নতুন করে ৪ জন করোনায় আক্রন্ত

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি

অভয়নগরে নতুন করে ৪ জন করোনায় আক্রন্ত। ২২ জুলাই বুধরান আক্রান্তরা হলেন, পুজা রানী(১৩) তালতলা, লক্ষীরানী মুস্তাফি(৩০) তালতলা, ইমদাদ উদ্দিন(৪২) নওয়াপাড়া, রেজওয়ান আলী মোল্লা(৫০) গুয়াখোলা। এ পর্যন্ত অভয়নগরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৩২জন। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৭২ জন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন ৪৯ জন। ভাইরাস টিতে মারা গেছেন ৭ জন। ২২জুলাই বুধবার তথ্যটি নিশ্চিত করেন অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা বিষয়ক মেডিকেল অফিসার ডা: মাহামুদুর রহমান রিজভি ।

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে প্রেমবাগ গুচ্ছো গ্রাম পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্ত

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে সাত দিন ব্যাপী (২১ থেকে২৭জুলাই) কর্মসূচির অংশ হিসাবে প্রেমবাগ গুচ্ছো গ্রাম পুকুরে রুই, কাতল, মৃগেল মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। গতকাল ২২জুলাই বুধবার সকালে উপজেলার প্রেমবাগ ইউনিয়নের স্কুল জামে মসজিদ এর সংলগ্ন গুচ্ছো গ্রামের সুবিধা ভোগীদের জন্য এই মৎস্য অবমুক্ত করেন, উপজেলা পরিষদেও চেয়ারম্যান পীরজাদা শাহ্ ফরিদ জাহাঙ্গীর। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো.নাজমুল হুসাইন খাঁন, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ফারুক হোসেন সাগর, এফ এ আব্দুর রউফ, প্রেমবাগ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মফিজ উদ্দিন, স্থানীয় সমাজসেবক ফরিদ হোসেন, মশিয়ার রহমান, ফারুখ হোসেন, সুবিধা ভোগী মৎস্য কমিটির সভাপতি মো.ইদ্রীস আলী, সাধারণ সম্পাদক মো.জুলফিকার হোসেন। আয়োজনে অভয়নগর উপজেলা মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন কমিটি।

ডুমুরিয়ায় ফলন্ত সিমগাছ কেটে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

ডুমুরিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুই কৃষকের ২ শতাধিক ফলন্ত সিমগাছ কেটে দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলার পাচুড়িয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক আনোয়ার হোসেন বিশ্বাস ও মাহতাব গাজী একই এলাকার প্রতিপক্ষ ইসমাইল শেখকে অভিযুক্ত করে থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করেছে।অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,উপজেলার পাচুড়িয়া এলাকার আনোয়ার হোসেনের সাথে একই এলাকার ইসমাইল শেখের জমি-জমা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত পূর্ব শত্রুতা চলে আসছে। তারই জের ধরে ঘটনার দিন দুপুরে আনোয়ারের মৎস্য ঘেরের ভেঁড়ীতে রোপিত ২ শত ফলন্ত সিমগাছ প্রতিপক্ষ ইসমাইল শেখ কেটে সাবাড় করে দেয়। এতে ক্ষতিগ্রস্থ ওই কৃষকের দেড় লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি জানান।অপরদিকে গত মঙ্গলবার একই ব্যক্তি কৃষক মহাতাব গাজীর জমিতে থাকা রোপিত শতাধিক সিমগাছের চারা উপড়ে ফেলে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করা হয়েছ্ েবলে অভিযোগ এনে আরও একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনা প্রসঙ্গে ওসি মোঃ আমিনুল ইসলাম বলেন,পৃথক দুটি অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ডুমুরিয়ায় ভূমিহীন পরিবারে প্রভাবশালীর হানা !

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

ডুমুরিয়ায় এক ভূমিহীন পরিবারে একমাত্র সম্বল একখন্ড জমি জবর দখলের পাঁয়তারায় মেতে উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালী প্রতিপক্ষ। উপজেলার মাগুরখালী ইউনিয়নের খোরেরাবাদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। উপায়ন্ত না পেয়ে খুলনা জেলা পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হয়েছে ওই ভূমিহীন পরিবারটি। এলাকাবাসি ও পুলিশ সুপার কার্যালয়ে দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,উপজেলার খোরেরাবাদ এলাকার কনেক চন্দ্র মন্ডলের ছেলে দেবাশীষ মন্ডল ডিসিআর মুলে ৫০ শতাংশ জমির মালিক হইয়া বাড়ি-ঘর নির্মান করে প্রায় দুই যুগ ধরে বসবাস ও চাষাবাদ করে আসছে। সম্প্রতি একই এলাকার প্রভাবশালী প্রতিপক্ষ তুষার মন্ডল,তারক মন্ডল ও হরেন মন্ডল তার ওই দখলীয় জমিতে হানা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারই জের ধরে গত মঙ্গলবার সকালে প্রতিপক্ষে ১০/১২জন দা,লাঠিসোটা নিয়ে ওই জমি জবর দখলের চেষ্টা চালায়।্ তাৎক্ষনিক ভাবে বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করা হলে পুলিশের হস্তক্ষেপে তা বন্ধ করা হয়। এ প্রসঙ্গে জেলা পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ বলেন,অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে : পাইকগাছা উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের শোক সভা

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য আকতারুজ্জামান বাবু। উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আরাফাতুল আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার, ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু, লিপিকা ঢালী, ওসি এজাজ শফী, মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস, প্রকল্প কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস, খাদ্য কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম সিদ্দিকী ফিরোজ, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আনোয়ার ইকবাল মন্টু সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ।

পাইকগাছায় উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটি’র মাসিক  সভা

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী’র সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আকতারুজ্জামান বাবু। সভায় উপস্থিত ছিলেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আরাফাতুল আলম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লিপিকা ঢালী, ওসি মোঃ এজাজ শফী, উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার, কৃষিবিদ এএইচএম জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার ইকবাল মন্টু, অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) মিহির বরণ মন্ডল, অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ বিষ্ণুপদ বিশ্বাস, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাশ, ইউপি চেয়ারম্যান কওছার আলী জোয়াদ্দার, রিপন কুমার মন্ডল, এস এম এনামুল হক, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জয়নাল আবদীন, শিক্ষা অফিসার খান মোহাম্মদ আলমগীর, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাজমুল হক, পরিসংখ্যান কর্মকর্তা মোজাফফর হাসান, সমবায় কর্মকর্তা আব্দুস সাত্তার, পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা আলী নূর হোসেন, দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা বিপ্লব কান্তি বৈদ্য, বন কর্মকর্তা প্রেমনন্দ রায়, সমাজসেবা কর্মকর্তা সরদার আলী আহসান, কাউন্সিলর এসএম ইমদাদুল হক।

পাইকগাছায় জুয়া খেলা অবস্থায় ৫ জুয়াড়ী আটক

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছায় জুয়া খেলা অবস্থায় ৫ জুয়াড়ীকে পুলিশ আটক করেছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার ফতেপুর গ্রামের আজিজুর রহমানের ঘরের মধ্যে জুয়া খেলা অবস্থায় পুলিশ সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে টাকা ও জুয়া খেলার সরঞ্জামসহ আটক করে। আটককৃতরা হলো, ফতেপুর গ্রামের মৃত গনি সানার ছেলে মহাসিন সানা (৩০), মনিরুল সরদারের ছেলে রাহানুর রহমান (২১), মৃত নছিম গাজীর ছেলে আজিজুর গাজী (৩৫), জাহান আলী গাজীর ছেলে ডালিম সরদার (৩০), আবু বকর মিস্ত্রীর ছেলে সিফাত উল্লাহ (২২)। এ সময় পুলিশ নগদ ১২শ ৭০ টাকা ও তাস উদ্ধার করে। ওসি এজাজ শফী জানান, ধৃতদের নামে জুয়া আইনে মামলা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মহেশপুরের দোবিলা বিল নিয়ে আবারও সংঘর্ষের আশঙ্কা

মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার আজমপুর ইউনিয়নের দোবিলা বিল নিয়ে আবারও সংঘর্ষের আসংখ্যা দেখা দিয়েছে। সরকারের দেওয়া বিলের সর্বচ্চো দর দাতা হয়েও এখনও বিলটি না বুঝিয়ে দেওয়ার করনেই এই সংঘর্ষের আসংখ্যা দেখা দিয়েছে। বিলটি বর্তমানে সরকারের খাস আদায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকার মৎস্য জীবিরা।

মৎস্য জীবিরা জানান, আজমপুরের দোবিলা মৎস্য জীবি সমবায় সমিতি সরকারের দেওয়া বিলটি ডাকের সর্বচ্চো দরদাতা হয়েও এখও পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে বিলটি সমিতির কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি।

তারা আরো জানান,মহেশপুর হালদারপাড়া মৎস্য জীবি সমিতির ব্যনারে কিছু অসাধূ ব্যাক্তি দোবিলার বিলটি নিতে সরকারের উপর মহলে দোড় ঝাপ শুরু করেছে। যেখানে আজমপুর দোবিলা বিল থেকে মহেশপুরের হালদারপাড়া মৎস্য জীবি সমিতির দুরুন্ত ১৫ কিলোমিটার। তার পরও বিলটি নেওয়ার জন্য হালদারপাড়া মৎস্য জীবি সমিতির পেছন থেকে কলকাটি নারছেন কোটচাঁদপুরের কবির হোসেন নামের এক ব্যক্তি। কবির হোসেন একজন মৎস্য জীবি না হয়েও তিনি হয়েছেন বাজে বাউনদা মৎস্য জীবি সমিতির সভাপতি।

বাজে বাউনদা মৎস্য জীবি সমিতির সভাপতি কবির হোসেনের নামে রয়েছে মহেশপুরের স্বরুপপুর ইউনিয়নের উখরির বিল,কোটচাঁদপুরের চ-ির বিলও। সরকারের উপর মহলের কর্তাদেরকে ভুল বুঝিয়ে একজন মৎস্য জীবি না হয়েও নিজের নামে বিল দু’টি করে নিয়েছেন। এভাবেই তিনি মহেশপুর ও কোটচাঁদপুরের বিল গুলো নিজের নামে করে নেওয়ার চেষ্টা করছেন।

এলাকাবাসী জানান, দোবিলা বিল নিয়ে গেলো রোজার মধ্যে তারাবি নামাজের সময় দু’ পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে বেশ কয়েক জন গুরুতর ভাবে আহত হয়। এ নিয়ে থানা পুলিশও হয়ে গেছে। তার পরও আবার নতুন করে বিল নিয়ে সংঘর্ষের আসংখ্যা দেখা দিয়েছে।  

আজমপুর দোবিলা মৎস্য জীবি সমবায় সমিতির সভাপতি ইদ্রিস আলী জানান, আমরা বিলের সর্বচ্চো দরদাতা। তার পরও এখনও আমাদের বিলচি বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি। তিনি আরো জানান, সরকারের নিয়ম নিতিতেই রয়েছে বিল এলাকার নিকট বর্তী মৎস্য জীবি সমিতিই হচ্ছে বেশী অগ্রাধীকার। কিন্তু তার পরও আমরা বিলটি ডাকের দিক থেকে প্রথম রয়েছি।

মহেশপুর হালদারপাড়া মৎস্য জীবি সমিতির সভাপতি সাধন হালদার জানান, দোবিলার বিলটি নেওয়ার জন্য আমরা প্রজেক্ট জমা দিয়েছি।

ঝিনাইদহে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে চীফ জুডিসিয়াল আদালত প্রাঙ্গণে বৃক্ষরোপন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-

ঝিনাইদহে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে চীফ জুডিসিয়াল আদালত প্রাঙ্গণে বৃক্ষরোপন করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে গ্রীণ এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্ট জেলা শাখার উদ্যোগে ফলজ, বনজ ও ঔষধি গাছের চারা রোপন করা হয়। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আবু আহসান হাবিব। সেসময় বৃক্ষরোপন কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মাসুদ আলী, বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিজানুর রহমান, গৌতম কুমার ঘোষ, তানিয়া বিনতে জাহিদ, কামরুজ্জামান জনি, বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারি জজ মোঃ তরিকুল ইসলাম, সুমন হোসেন, সহকারি জজ আয়েশা সিদ্দিকা, বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারি জজ মোঃ রিপন হোসেন, বিজ্ঞ সহকারি জজ রিয়াজ হোসেন, জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি এ্যাডঃ খান আকতারুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. জাকারিয়া মিলন, এ্যাডঃ আমিনুর ইসলাম, এ্যাডঃ বাচ্চু মিয়া, এ্যাডঃ আজাদ রহমান, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নাজির মোঃ সোহেল হোসেন, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি সাজেদুল ইসলাম সোম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এম এস উজ্জল, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিব হাসান, আওয়ামীলীগ নেতা মোশাররফ হোসেন বল্টু, যুবলীগ নেতা মোজাফফর হোসেন পল্টু, গ্রীণ এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্ট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস। বৃক্ষরোপন কর্মসুচীর আয়োজক হিসাবে সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন গ্রীন এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্ট জেলা শাখা সভাপতি এ্যাডঃ আব্দুল খালেক সাগর।

কপিলমুনির বিশিষ্ট জুয়েলার্স ব্যবসায়ীর পরলোক গমন

স্টাফ রিপোর্টার, কপিলমুনি ঃ

কপিলমুনির প্রবীণ জুয়েলার্স ব্যবসায়ী জ্ঞানেন্দ্র নাথ সিংহ (৯০) পরলোক গমন করেছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৪ টার দিকে তিনি বার্ধক্য জণিতকারণে নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মৃত্যুতে ব্যবসায়ীদের মাঝে শোকের ছায়া নেনে আসে। তিনি স্ত্রী, ৫ ছেলে ও ১ কন্যাসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে যান। বুধবার দুপুরে কাশিমনগর মহা শ্মশানে শেষ কৃত্য সম্পন্ন করা হয়। কপিলমুনি (বিনোদগঞ্জ) জুয়েলার্স ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষ থেকে বুধবার সারাদিন সকল দোকান বন্ধ রেখে শোক প্রকাশ করা হয়। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন সভাপতি মানিক লাল সিংহ, সহ-সভাপতি দিপংকর দত্ত, সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ সরকার, সহ-সাধারণ সম্পাদক পলাশ কর্মকার, কোষাধ্যক্ষ বিপ্লব দত্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক কার্ত্তিক সাধু, দপ্তর সম্পাদক সুপ্রভাত দত্ত, ক্রিড়া সম্পাদক পলাশ দে, কার্যকরী সদস্য দীপ্ত চন্দ্র, জ্যোতি দে প্রমুখ।

ঝিনাইদহে করোনা আক্রান্ত হয়ে ২ জনের মৃত্যু, নতুন করে আক্রান্ত ১৮

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি-

ঝিনাইদহে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সাজ্জাদুল ইসলাম নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। সে পৌর এলাকার আরাপপুর পশ্চিমপাড়ার আবেদ আলীর ছেলে ও শহরের মুন্সি মার্কেটের নবীন কথ ষ্টোরের স্বত্তাধিকারী। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে জ্বর, সর্দি, শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। সে ঝিনাইদহ কোভিড-১৯ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে তিনি মঙ্গলবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। অপরদিকে ঝিনাইদহের শৈলকুপা কৃষি ব্যাংকের কর্মকর্তা বিপুল গাঙ্গুলি করোনায় আক্রান্ত হয়ে বুধবার সকালে মারা যান। সে সদর উপজেলার বিজয়পুর গ্রামের বাসুদেব গাঙ্গুলির ছেলে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।

ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন অফিসের মেডিক্যাল অফিসার করোনা সেলের মুখপাত্র ডা. প্রসেনজিৎ বিশ্বাস পার্থ জানান, বুধবার জেলায় নতুন করে আরও ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত আক্রান্তে সংখ্যা ৬৮২ জনে দাড়িয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থ্য হয়েছেন ২৫০ জন। ঝিনাইদহ কোভিড-১৯ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ২১ জন এবং মোট মৃতের সংখ্যা ১৩ জন।

ঝিনাইদহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক আব্দুল হামিদ খান জানান, জেলায় করোনা উপসর্গ এবং আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ২৮ জনের লাশ দাফন করেছে ইফা কমিটি।

সিএসডি খাদ্য গুদামের সর্দার জামাল হত্যাকান্ডের মূল আসামী আমিরসহ চার আসামী জেল হাজতে

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

মহেশ^রপাশা খাদ্য গুদামের সর্দার, খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য জামাল হত্যাকান্ডের মুল আসামী মো. আমির হোসেনকে নওয়াপাড়া থেকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত প্রধান আসামী হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বিকার করেছে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় মোট ৪জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে অপর একজনের সম্পৃক্ততা পাওয়ায় পুলিশ তাকে খুচ্ছে।

এ ব্যাপারে দৌলতপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোশারফ হোসেন জানিয়েছেন, মামলার মুল আসামী আমির হোসেনকে অভয়নগর থানা এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ও হত্যার কারণ এবং জড়িতদের নাম প্রকাশ করেছে। ২২ জুলাই বুধবার তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়। আদালতে আমির হোসেনের ১৬৪ ধারা জবানবন্দি রেকর্ড করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। তিনি বলেন এই মামলায় এজাহার ভুক্ত আসামী সকলকে গ্রেফতার করতে আমরা সক্ষম হয়েছি। গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তিতে একজনের নাম উঠে আসায় তাকে গ্রেফতারের চ্ষ্টো চলছে।

ওয়েভ ফাউন্ডেশনের গ্রাম আদালত ও করোনা সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ(২য় পর্যায়) প্রকল্প এর সহযোগিসংস্থা ওয়েভ ফাউনেডশনের পরিচালনায় ২২ জুলাই দিঘলিয়া উপজেলার ৮নং ওয়ার্ডে গ্রাম আদালত ও করোনা সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন দিঘলিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম। সভাপতিত্ব করেন ওয়েভ ফাউন্ডেশনের জেলা সমন্বয়কারী মো, হাফিজুর রহমান এবং পরিচালনা করেন গ্রাম আদালত সহকারী মোছা. রিক্তা খাতুন। অনুষ্ঠানে ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষ ছাড়াও ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশ উপস্থিত ছিলেন। করোনা প্রাদূর্ভাবে সামাজিক দুরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে গ্রাম আদালতের সকল কার্যক্রমের পাশাপাশি সচেতনতামূলক উঠান বৈঠক করা যেতে পারে। তবে উঠান বৈঠকে অংশগ্রহনকারীদের কোন প্রকার খাদ্য বিতরণ করা যাবে না।

দাকোপে কোভিড ১৯ নিয়ে এসডিজি ফোরামের ভ্যার্চুয়াল সভা

দাকোপ (খুলনা) প্রতিনিধি

বেসরকারী এনজিও রুপান্তরের সহযোগীতায় উপজেলা এসডিজি ফোরামের উদ্যোগে করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সরকারের পাশাপাশি নাগরিক সমাজের করনীয় বিষয়ে এক এক ভ্যার্চুয়াল মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় উপজেলা এসডিজি ফোরামের আহবায়ক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান, প্রধান শিক্ষক সঞ্জয় কুমার রায়ের সভাপতিত্বে ও রুপান্তরের প্রজেক্ট অফিসার গোলাম মোস্তফার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন উপজেলা ইউসি কর্মকর্তা মনীষ কুমার রায়। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন প্রেসকাব সভাপতি ও উপজেলা এসডিজি ফোরামের সদস্য সচিব শচীন্দ্রনাথ মন্ডল। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন এসডিজি সদস্য সাংবাদিক বিধান চন্দ্র ঘোষ, জিএম রেজা, মোজাফ্ফার হোসেন, মামুনুর রশিদ, সমাজসেবক দেবব্রত বিশ্বাস, সাবেক ইউপি সদস্য বুলু মন্ডল। এসময়ে সভায় উপস্থিত ছিলেন রুপান্তরের প্রজেক্ট অফিসার বিপুল রায়, ধনঞ্জয় সাহা বাপি, মাসুদ রানা প্রমুখ। সভা শেষে উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে জেলা স্বাস্থ্য প্রশাসনের কাছে স্বারকলিপি দেয়া হয়।

যশোরে ১৮শ পিস ইয়াবাসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক

যশোর অফিস

যশোর মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সদস্যরা ১৮শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেসহ সাহেদা বেগম (৫৪) নামে এক নারী মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে। আটক সাহেদা যশোর শহরের চাঁচড়া রায়পাড়া মাদ্রাসা রোড কয়লাপট্টি এলাকার সেকেন্দার খাঁ’র স্ত্রী। জেলা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর ক সার্কেলের পরিদর্শক মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন, বুধবার (২২ জুলাই) সকাল নয়টার দিকে গোপন সূত্রে সংবাদ পেয়ে সাহেদার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। পরে তার ঘর তল্লাশি করে রান্না ঘরের জ্বালানীর মধ্যে থেকে ৬টি পলিথিনের ব্যাগে ৩শ’ পিস করে মোট ১ হাজার ৮শ’ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়। এই ঘটনায় কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে।

যশোরে নতুন ৪১জনের শনাক্ত

যশোর অফিস

যশোরে নতুন আরো ৪১জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সেন্টারে বুধবার (২২ জুলাই) যশোর জেলার মোট ১৪৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৪১টি পজেটিভ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। এছাড়া যশোরসহ চার জেলায় ৭৬টি নমুনাকে পজেটিভ হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ২১ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয় জিনোম সেন্টারে মোট ২৬৫টি নমুনা পরীক্ষা করে বুধবার এই ফলাফল ঘোষণা করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের এনএফটি বিভাগের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. শিরিন নিগার জানান, এদিন যশোর জেলার মোট ১৪৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৪১টি পজেটিভ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়া মাগুরা জেলার ৪৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ১২টি, সাতক্ষীরায় ৫১টির মধ্যে ১২টি ও বাগেরহাটে ২৫টির মধ্যে ১১টি নমুনা পরীক্ষা করে পজেটিভ ফল দেয়। পরীক্ষা সংক্রান্ত তথ্যাদি সকালেই সংশ্লিষ্ট সিভিল সার্জনের অফিসে পাঠানো হয়েছে। যশোরের পজেটিভ নমুনাগুলোর মধ্যে কতটি নতুন আর কতটি ফলোআপ তা এখনো জানা যায়নি। এর আগের দিন মঙ্গলবার যশোর জেলায় মোট শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল এক হাজার ৪১৯। এদের মধ্যে মারা গেছেন ২০ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬১৫ জন।

যশোরে প্রতিপক্ষের হামলার ঘটনায় মামলা, পিতা-পুত্র আসামি

যশোর অফিস

যশোর সদর উপজেলার বাদিয়াটোলা দক্ষিণপাড়ায় প্রতিপক্ষের হামলার আকিদুল ইসলাম (৪২) এক ব্যক্তি জঘমের ঘটনায় কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। আসামি করা হয়েছে পিতা-পুত্রকে। আসামিরা হলো, ওই গ্রামের সাইফুল ইসলাম (৫৫) ও তার দুই ছেলে অমিত হাসান (২০) ও মেহেদী হাসান (২৫)। আকিদুল ইসলামে স্ত্রী রোকসানা বেগম এজাহারে উল্লেখ করেছেন, পৈত্রিক জমি নিয়ে আসামিদের সাথে তার স্বামীর পূর্ব বিরোধ ছিলো। তারা নানা ভাবে তার স্বামীকে হুমকি দিতে থাকে। গত ১৬ জুলাই সন্ধ্যা সাতটার দিকে আসামিরা তার বাড়িতে ঢোকে এবং স্বামীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। তিনি প্রতিবাদ করলে জিআই পাইপ দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে। তিনি মাটিতে পড়ে গেলে তিন আসামি একত্রে বেধড়ক মারপিট করে জখম করে ফের হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি সুস্থ্য হয়ে বাড়িতে ফেরার পর থানায় অভিযোগ দেন।

সুদে কারবারসহ নানা অপকর্মের অভিযোগ: যশোরের সাড়াপোল রুপদিয়ায় থ্রিস্টার সিন্ডিকেটের আর্বিভাব

যশোর অফিস

যশোর সদরের সাড়াপোল রুপদিয়া এলাকায় থ্রিস্টার সিন্ডিকেটের আর্বিভাব ঘটেছে। এরা হেন কাজ নেই যে করছে না। তাদের কাছে এলাকার নিরীহ মানুষ জিম্মি হয়ে পড়েছে। থ্রিস্টার সিন্ডিকেটের কাজ মানুষকে বিপদে ফেলে চাঁদা আদায়, অন্যের জমি দখলমুক্ত করার নামে, পাওনা টাকা আদায়ের নামে উৎকোচ নেয়া ও সুদে কারবার করে অসহায় মানুষকে জিম্মি করে ফেলা। দীর্ঘদিন ধরে এই সিন্ডিকেট এধরণের কার্যক্রম চালালেও রয়েছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে।

এলাকার ভুক্তভোগীরা জানিয়েছে, সাড়াপোল রুপদিয়া বাজারে থ্রিস্টার গ্রুপের সদস্য আকরুম আলী, বাবলু ও মোটা শহিদুল একটি ঘর ভাড়া নিয়ে অফিস বানিয়ে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি তারা কয়েকজনের কাছ থেকে নানা অভিযোগ তুলে হাতিয়ে নিয়েছে হাজার হাজার টাকা।  রুপদিয়া বাজারের কাপড়ের দোকানদার মাসুমের কাছ থেকে তারা ১১ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। মাসুম তার জমি থেকে মাটি ট্রাকে ভরে শহরে বিক্রি করার কারণে ওই টাকা হাতিয়ে নেয়। টাকা না দিলে তার মাটির ট্রাক শহরে ঢুকতে দেবে না বলে হুমকি দেয়। উপায় না পেয়ে এ টাকা তাদের হাতে তুলে দেয়। এছাড়া ওই গ্রামের টেপা রবিউলের জমি আজিবরের দখলে ছিল। ওই জমি উদ্ধার করার নামে রবিউলের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা নিয়েছে চক্রটি। এলাকার সাইফুলের কাছ থেকে ৯১ হাজার টাকা আদায় করে রানাকে দিয়েছে। এতে কমিশন হাতিয়ে নিয়েছে তারা। এরপাশাপাশি থ্রিস্টার সিন্ডিকেট সুদে কারবার চালিয়ে যাচ্ছে। কেউ অর্থকষ্টে পড়লে নানা ছুতোয় তাদের টাকা দিয়ে চড়া সুদ আদায় করছে। কেউ কম সুদ বা টাকা দিতে দেরি হলে তাদের হুমকি ধামকি দেয়া হয়। সূত্র জানায়, অফিস বানিয়ে তারা বিনা লাইসেন্সে এ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য মনিরুল ইসলাম জানান, তারা গোপনে কিছু করে থাকলে তা আমার অজানা। মাটি বহনের বিষয়ে তিনি বলেন, মাসুম মসজিদের সভাপতি আকরাম আলীকে টাকা দিয়েছিল। ওই টাকা মসজিদের কাজে লাগানো হয়েছে কিনা আমার জানা নেই।

শাস্তিমুলক বদলী নিয়ে নানা প্রশ্ন

১৫ লক্ষ পুরাতন বস্তা গুদামে প্রতিস্থাপন করে প্রায় সাত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন সিবিএ দাপুটে নেতা আশরাফুজ্জামান

যশোর অফিস

খাদ্য বিভাগের ইতিহাসে দুর্নীতির এক বিস্ময়কর ঘটনা ঘটেছে। নতুন বস্তার পরিবর্তে ১৫ লক্ষ পুরাতন বস্তা গুদামে প্রতিস্থাপন করে প্রায় সাত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন সিবিএ এর দাপুটে এক নেতা।  ঘটনা ফাঁস হয়ে যাওয়ায় সর্বত্র তোড়পাড় চলছে। দুই দফা তদন্তের পর ঘটনার সাথে জড়িত যশোর সদর গুদামের ভারপ্রাপ্ত খাদ্য কর্মকর্তা  আশরাফুজ্জামানকে বদলী করা হলেও নানা প্রশ্ন উঠেছে।

সংশ্লিষ্টসুত্রে জানা গেছে, যশোর সদর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত খাদ্য কর্মকর্তা  আশরাফুজ্জামান খাদ্য পরিদর্শক সমিতির খুলনা বিভাগীয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক। আর এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে তিনি খুলনার আয়ান জুট মিল কর্তৃপক্ষের সাথে যোগসাজস করে  থেকে ১৫ লক্ষ পুরাতন বস্তা নিয়ে তা বিভাগের বিভিন্ন জেলার খাদ্য গুদামে প্রতিস্থাপনের সুযোগ করে দিয়েছেন। এর মধ্যে  দুই লক্ষ বস্তা আগে একবার ব্যবহার করা হয়েছিল।  বাকি ১৩ লক্ষ বস্তা ব্যবহার করা না হলেও তা ২০১৪ সালের লোগো সম্বলিত। মোট ১৫ লক্ষ পুরাতন বস্তার বিনিময়ে আশরাফুজ্জামান হাতিয়ে নিয়েছে প্রায় ৭ কোটি টাকা। চলতি বছরে বোরে ধান- চাল সংগ্রহ উপলক্ষে এ বস্তা খুলনা বিভাগের বিভিন্ন খাদ্যগুদামে কাজে লাগানো হয়েছে।

গত ৪ জুলাই যশোর সদর  খাদ্য গুদামে নতুন বস্তা সরিয়ে পুরাতন বস্তা মজুদ করা হচ্ছে এমন একটি অভিযোগ  খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অবগত হন। তিনি আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক খুলনা কে তদন্ত করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক খুলনা  ৫ জুলাই ঢাকা থেকে বিমান যোগে যশোর পৌছান। সকাল ১০-টায় তিনি যশোর সদর গুদামে উপস্থিত হন। এর আগে সকালে খুলনা থেকে সহকারী রসায়নবিদ ইকরা কবীর সেখানে উপস্থিত ছিলেন। যশোর ৬নং গুদামের বস্তার মজুদ পরিক্ষা করে পুরাতন বস্তা চটের মোড়কে লোহার পাত দিয়ে বেল করা দেখতে পেলেন। প্রতিটি বেল এ ৪০০ পিস বস্তা যার সবই পুরাতন এবং ব্যবহৃত। একই অবস্থা শংকরপুর ২ নং ক্যাম্পাসের গুদামে। তথ্য নিয়ে জানা যায় সরকার কতৃক সংগ্রহ কাজে ব্যবহারের জন্য মিল থেকে নতুন বস্তা প্রতিটি ৭৯/- টাকা দরে ক্রয় করা হয়েছে। ওসিএলএসডি নতুন বস্তা না নিয়ে  মিলারের সাথে যোগসাজসে পুরাতন বস্তা গুদামে গ্রহন করেছেন। পুরাতন বস্তার প্রতিটির মূল্য ২৫/-টাকা। এভাবে ২ লক্ষ ব্যয় প্রায় ১.০৮ কোটি টাকা সরকারের আর্থিক ক্ষতি সাধন করে নিজেরা লাভবান হয়েছেন। এর আগে জুন মাসের শেষার্ধে ৩টি বস্তার ট্রাক গুদামে আনলোডের জন্য আসে। শ্রমিকরা বস্তা খালাসের সময় দেখতে পায় বস্তা পুরাতন এবং একাধিক বার ব্যবহৃত। উপস্থিত শ্রমিক,  চালকল মালিক এবং হতদরিদ্র ডিলার,ত্রানের খাদ্যশস্য গ্রহনকারী জনপ্রতিধিদের প্রবল আপত্তির মুখে বস্তা খালাস বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু ট্রাক ফেরত পাঠানো হয় না। ৩ দিন পর সন্ধ্যায় বস্তা আনলোড করা হয়। এভাবে একের পর এক পুরাতন বস্তার ট্রাক আসতে থাকে। ওসিএলএসডি বিভিন্ন মিলে সংগ্রহের জন্য এই বস্তা দিয়েছেন। সমঝোতার ভিত্তিতে কিছু বস্তা ঝিকরগাছা এবং নাভারন  এলএসডিতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া পুরাতন ত্রানের চাল সংগ্রহ দেখিয়ে বিভিন্ন খামালের মধ্যে রাখা আছে। চারিপাশে নতুন চালের বস্তা দিয়ে সাজিয়ে রাখা হয়েছে। বাইরে থেকে বুঝা যায় না। আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক বস্তা পরিক্ষা করে এলএসডিতে লাঞ্চ সেরে খুলনা ফিরে যান। খুলনা ফিরে তিনি ৩ সদস্যের একটি কমিটি করে দেন। কমিটির আহবায়ক খুলনা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তানভীর হোসেন ,সহকারী রসায়নবিদ সদস্য ইকরামুল কবির,এবং কারিগরী টিসিএফ মো: হাফিজুর রহমান। কমিটি তদন্তে না এসে যশোর  ওসিএলএসডিকে আলামত সরানোর জন্য প্রায় ঘটনার ১ সপ্তাহ পরে তদন্তে আসেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এর মধ্যে ওসিএলএসডি এবং ধুরন্ধর উপ খাদ্যপরিদর্শক আলাউদ্দিন বিশ্বাস অনেক বস্তা চালকলে সরবরাহ করেন। একটি ট্রাক ৫০ বেল বস্তা লোড দিয়ে  ২ দিন পর কেশবপুর পাঠিয়ে দিয়েছে কোন কাগজপত্র ছাড়াই (ট্রাক নং যশোর ট-০২৩৪ চালক: মো:রেজাউল)। শুরু থেকেই বস্তার মান নিয়ে অনেক লুকোচুরি হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। পুরাতন বস্তা চিহ্নিত হওয়ার পরেও সময়ক্ষেপন করে বস্তা পাল্টানো কিংবা রাইসমিলে সরবরাহ করে আলামত লোপটের সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। একইভাবে পুরাতন চাল আড়াল করার চেষ্টা করা হয়েছে। কতৃপক্ষের সাথে দফারফায় সুযোগ প্রদান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন খাদ্যপরিদর্শক জানিয়েছেন আয়ান জুট মিলের সাথে যশোর সদর ওসিএলএসডি আশরাফুজ্জামানের সাথে ১৫ লক্ষ বিনির্দেশ বহির্ভূত বস্তা খুলনা বিভাগের বিভিন্ন কেন্দ্রে সরবরাহ করার জন্য ডিল হয়। আশরাফুজ্জামান পরিদর্শক সমিতির নেতা হিসেবে সকল ওসিএলএসডিকে বলে দিয়েছেন নিম্নমানের বস্তাগুলো গ্রহন করে দ্রুত চলমান  সংগ্রহ কাজে ব্যবহার করার জন্য। খুলনা বিভাগে আয়ান জুট মিল থেকে যত বস্তা সরবরাহ করা হয়েছে তার একটিও মানসম্মত ছিল না। কিছু বস্তা ব্যবহৃত পুরাতন। কিছু বস্তা অব্যবহৃত তবে সেগুলোও পুরাতন। বস্তার গায়ে লাগানো ছাপা তার বড় প্রমান। চুক্তিপত্র অনুযায়ী সরবরাহ আদেশের সনের উৎপাদিত হতে হবে। কিন্তু ৩০ কেজির বস্তায় উৎপাদন সাল ২০১৩/১৪ সনের ছাপ দেওয়া আছে। সদ্য বছরে উৎপাদিত বস্তার গায়ে ৬/৭ বছর আগের ছাপ নিশ্চয় কেউ লাগাবে না। তদন্ত কমিটি আংশিক দেখেছেন,পুরোটাই দেখেননি বলে অভিযোগ রয়েছে। কমিটি যশোর এলএসডি কেন্দ্রিক ৫০ কেজির ১ লক্ষ বস্তার হিসাব মিলিয়েছেন ,৩০ কেজির মানহীন বস্তার হিসাব অতটা গুরুত্ব দেন নি। করোনার কারনে কর্মকর্তাদের চলাচল সীমিত হওয়ার কারনে ওসিএলএসডিগণ এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছেন। যশোর জেলার অপর দুই সুবিধাভোগী নাভারন এবং ঝিকরগাছা ওসিএলএসডির বিরুদ্ধে দৃশ্যত কোন ব্যবস্থা গ্রহন রা হয়নি। ঝিকরগাছা এলএসডিতে কিছুদিন আগে দত্তনগর এলএসডি থেকে আমন চাল আসে। এতে ২/১টি বস্তায় বিনির্দেশ বহির্ভূত চাল থাকায় তিনি ট্রাক দাড় করিয়ে রেখে চাল পরিবর্তন করিয়ে তবে আনলোড করেছেন। অথচ পুরাতন বস্তা আনলোড করার সময় কোন উচ্চবাচ্য হয়নি এমনকি কতৃপক্ষকে অবহিত করা হয়নি। অনৈতিক বোঝাপড়া হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। একই কাজ নাভারন ওসিএলএসডি করেছেন।কিন্তু রহস্যজনক ভাবে কতৃপক্ষ ব্যবস্থা গ্রহনে বিরত থেকেছেন। কিছু বান্ডিলে খারাপ থাকলে অগোচরে হতে পারে। কিন্তু যখন পুরো কনসাইনমেন্ট খারাপ তখন কি অগোচরে নাকি স্বজ্ঞানে তা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে। রিপোর্ট প্রদানে বিলম্ব এবং ওসিএলএসডিকে প্রত্যাহারের আদেশ প্রদানে কিছু শর্ত চয়নে কতৃপক্ষের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়।  অভিযোগ রয়েছে, আশরাফুজ্জামান তদন্ত কমিটিকে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ম্যানেজ করে ফেলেছেন। যার কারণে তদন্তে পুরাতন বস্তা প্রমাণ পাওয়ার পরও তাকে সাময়িক অব্যাহতির সুপারিশ না করে শুধু বদলী করা হয়েছে। গত ১৯/০৭/২০২০ তারিখের আদেশে ওসিএলএসডি সদর  আশরাফুজ্জামানকে প্রশাসনিক কারনে তেরখাদা উপজেলায় বদলী করা হয়। তার স্থলে দেয়া হয়েছে আবুল কালাম আজাদকে। ২ বছরের আগে গুদামের দায়িত্ব পরিত্যাগ শাস্তিমুলক। কিন্তু আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক খুলনার আদেশ পর্যালোচনা করলে দেখা যায়,২৭ জুলাই/২০ তারিখে দায়িত্ব প্রদান করতে হবে, অন্যথায় ২৮ জুলাই/২০ তারিখে কর্মবিমুক্ত গন্য হবেন। ওসিএলএসডি যশোর, আশরাফুজ্জামান এর কর্মকাল ২৭জুলাই/২০ তারিখে ২ বছর পূর্ণ হবে। কাজেই ওসিএলএসডির কালিমা থাকবে না। ২ বছর পার করার পরই তাকে দায়িত্ব প্রদান করতে হচ্ছে। আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক মাহবুবুর রহমান এর নিকট এ বিষয় জানতে চাওয়া হলে তিনি আশরাফুজ্জামানকে বিলম্বে বদলীর কোন সন্তোষজন উত্তর দিতে পারেন নাই। তবে তাকে শাস্তিমুলক বদলীর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

পাইকগাছা উপজেলা আইন শৃংখলা, সাধারণ ও শোক সভা

খবর বিজ্ঞপ্তি

পাইকগাছা উপজেলা আইন শৃংখলা ও সাধারণ সভা এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২২ জুলাই) সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু। উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আরাফাতুল আলম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বুলু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লিপিকা ঢালী, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার, ওসি এজাজ শফী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার ইকবাল মন্টু, অধ্যক্ষ মিহির বরণ মন্ডল, রবিউল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান কওছার আলী জোয়াদ্দার, রিপন কুমার মন্ডল, এসএম এনামুল হক, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ বিষ্ণুপদ বিশ্বাস, কৃষি অফিসার এএইচএম জাহাঙ্গীর আলম, সিনিয়র মৎস্য অফিসার পবিত্র কুমার দাস, উপজেলা প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস, শিক্ষা অফিসার খান মোঃ আলমগীর, সমাজসেবা অফিসার সরদার আলী আহসান, সমবায় অফিসার আব্দুস সাত্তার, খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনিরুল ইসলাম সিদ্দিকী ফিরোজ, দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা বিপ্লব কান্তি বৈদ্য, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ম্যানেজার জয়া রানী রায়, আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা আশালতা খাতুন, প্রোগ্রাম অফিসার শেফালী খাতুন, প্যানেল মেয়র এসএম ইমদাদুল হক, প্যানেল চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন লিটন, পাইকগাছা প্রেসকাবের সহ-সভাপতি তৃপ্তি রঞ্জন সেন ও মোঃ আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক এম মোসলেম উদ্দীন আহমেদ, যুগ্ম-সম্পাদক এন ইসলাম সাগর, যুবলীগনেতা এমএম আজিজুল হাকিম, তথ্য আপা তম্বী দাশ ও রাজিব গাঙ্গুলী। সভায় নদী খনন, পৌর অভ্যন্তরে লবণ পানি উত্তোলন বন্ধ, সরকারি জায়গার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, ওয়াপদার বাঁধে পাইপ বসিয়ে পানি উত্তোলন বন্ধ, প্রধান সড়কে ১০ চাকার মালবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ, বজ্রপাত রোধে তাল গাছ রোপন, জুয়া, চুরি ও মাদক ব্যবহার বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ সহ গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। অপরদিকে সদ্য প্রয়াত উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাওঃ শামছুদ্দীন।

নারী ও শিশু পাচার প্রতিরোধে বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে হবে

বাগেরহাট প্রতিনিধি

শিশু পাচার একটি অবৈধ প্রক্রিয়া। বাংলাদেশে নারী ও শিশু পাচার প্রতিরোধে নানা পদক্ষেপ গ্রহন করা হলেও কিছুতে এটা নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হচ্ছে না। পাচারকারীরা নতুন নতুন পদ্ধতি অবলম্বন করে সরকারের চোখ ফাকি দিয়ে অনৈতিকভাবে নারী ও শিশু পাচার করছে। পাচারকারীরা শিশুদের বিয়ে করে বৈধ ভাবে দেশের বাইরে নিয়ে অনৈতিক কাজের জন্য বিক্রি করে দিচ্ছে। এটা খুবই অমানবিক ব্যাপার। তাই  নারী ও শিশু পাচার প্রতিরোধে বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে হবে। বাল্যবিবাহ বন্ধ করলে শিশু পাচার অনেকাংশে কমবে।

বুধবার দুপুরে বাগেরহাট শহরের উদয়ন কার্যালয়ে আয়োজিত নারী ও শিশু পাচার নিরসনে কাজী, বিবাহ নিবন্ধক ও সমাজসেবকদের ভূমিকা শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।

সেমিনারে বক্তব্য দেন বাগেরহাট জেলা কাজী সমিতির সভাপতি মাওলানা মোঃ আবুয হানিফ, নিরাপদ সড়ক চাই বাগেরহাটের সভাপতি সাংবাদিক আলী আকবর টুটুল, উদয়ন বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক শেখ আসাদ, সোহরাব হোসেন রতন প্রমুখ।

উদায়ণ বাংলাদেশ ও রেডিও ভৈরবের পরিচালক ইসরাত জাহানের সভাপতিত্বে সেমিনারে সমাজ সেবক, ইমাম, সাংবাদিক, শিক্ষার্থী ও শিশুরা অংশগ্রহন করেন।

বাগেরহাটে বীমার টাকা পেলেন পৌরসভার পরিচ্ছন্নতাকর্মী

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাট পৌরসভার পরিচ্ছন্নতাকর্মী লোকমান মীনার জীবন বীমার টাকা চেক প্রদান পৌর মেয়র খান হাবিবুর রহমান। গত মঙ্গলবার (২১ জুলাই) সকালে তিনি এ লোকমান মীনার নমীনি আনজিরা বেগমের হাতে তুলে দেন। এসময় বাগেরহাট পৌরসভার ময়লা সংগ্রকারী শ্রমজীবী সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি মোঃ সেলিম ও কর্মজীবী নারীর সকল কর্মী বৃন্দসহ উন্নয়ন সংস্থা কর্মজীবির নারীর কমকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের অর্থায়নে, প্র্যাকটিক্যাল এ্যাকশন সহযোগিতায় ও কর্মজীবী নারীর বাস্তবায়নে মর্যাদাপূর্ন জীবনযাত্রার আওতায় বাগেরহাট পৌরসভার সকল পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের ডেলটা লাইফ ইন্সুইরেন্স এর মাধ্যমে জীবন বীমা করে দেয়া হয়। এরই মধ্যে গত ১৮ ফ্র্রেুয়ারী পৌরসভার ময়লা সংগ্রহকারী শ্রমজীবী সমবায় সমিতি লিঃ এর সদস্য লোকমান মীনা মৃত্যুবরণ করেন। যার ফলশ্ররুতিতে কর্মজীবী নারী কার্যালয়ে গত ১৫ জুলাই বীমার এ চেকটি পৌছালে পৌর মেয়র এর মাধ্যমে তা প্রদান করা হয়।

দৌলতপুরে গলায় ফাঁস লেগে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা মহানগরীর দৌলতপুরের রেলিগেট এলাকায় রূপা আক্তার (১১) নামে এক শিক্ষার্থীর গলায় ফাঁস লেগে মৃত্যু হয়েছে। বুধবার বিকেলে খেলতে যেয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। রূপা মহেশ্বরপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দৌলতপুর থানাধীন রেলিগেট এলাকার বাসিন্দা মফিজ শিকদার এর মেয়ে রূপা আক্তার। বিকাল ৫টায় রেলিগেট রেল কলোনীতে প্রতিবেশি ছেলেদের সাথে খেলতে যেয়ে ওড়নায় শ্বাস রোধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে। পরে মেয়েটির ভাই ও স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।