সারা খুলনা অঞ্চলের খবর

17
Spread the love

রূপসায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে অপর বন্ধু খুন

স্টাফ রিপোর্ট

গাঁজা সেবন নিয়ে বিরোধের জের ধরে রূপসায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে সুমন শেখ (২৫) নামে অপর বন্ধু খুন হয়েছে। গতকাল শনিবার রাত  ৮টার দিকে নৈহাটী মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সুমন নৈহাটী গ্রামের আবজাল হোসেন শেখের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গত একমাস পূর্বে গাঁজা সেবন নিয়ে সুমন ও মাহমুদুলের (২২) সঙ্গে কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। ওই ঘটনার জের ধরে গতকাল রাত ৮টা ৪০ মিনিটে নৈহাটী মোড়ের বসিরের দোকানের সামনে তারা আবারো বিবাদে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে মাহমুদুল উত্তেজিত হয়ে সুমনের পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে সুমন মারাত্মকভাবে আহত হয়। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন স্থানীয়দের সহায়তায় রক্তাক্ত জখম অবস্থায় সুমনকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার মৃত্যু হয়।

রূপসা থানার অফিসার ইনচার্জ মোল্লা জাকির হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, নিহত সুমনের মরদেহ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

দৌলতপুরে জামাল হত্যা মামলায় হিরু ও বিপ্লবের আদালতে স্বীকারোক্তি

স্টাফ রিপোর্টার

নগরীর দৌলতপুরে ম্যাচ নিয়ে মাদক সেবনকারীদের মারামারিতে জামাল ওরফে টুটে জামাল (৩৫) হত্যা মামলার দু’আসামি দৌলতপুরের মহেশ্বরপাশা সেনপাড়ার হিরু ও বিপ্লব স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন।

গতকাল শনিবার তাদের দেয়া ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারার জবানবন্দি মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ড. আতিকুস সামাদ রেকর্ড করেছেন। ১৬জুলাই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই অমিত কুমার বাগচী আসামিদের আদালতে হাজির করে ৭দিনের রিমা-ের আবেদন করেন। ওই দিন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহীদুল ইসলাম আসামিদের ২দিনের রিমা-র মঞ্জুর করেছিলেন। রিমা- শেষে গতকাল তাদের আদালতে হাজির করলে তারা ১৬৪ ধারার জবানবন্দি  প্রদান করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ১৪জুলাই  রাত ২টার দিকে বিড়ি খাওয়ার জন্য ম্যাচ নিয়ে কয়েকজন মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে মারপিঠের ঘটনা ঘটে। এতে জামাল মারা যান। পরে বুধবার ভোর ৪টার দিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে মৃত. অবস্থায় আনা হয়। এ ঘটনায় দৌলতপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের হয় যার নং-১২। নিহত জামাল ওই এলাকার শামসুর ছেলে। তিনি পেশায় ট্রাকের হেলপার ছিলেন। একইসঙ্গে গোডাউনে শ্রমিকের কাজও করতেন।

নগরীর আবাসিক হোটেল রেদোয়ান ও খুলনা গার্ডেন ইন সিলগালা : অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে ১১জনের কারাদন্ড

স্টাফ রিপোর্টার

নগরীর আবাসিক হোটেল রেদোয়ান ও খুলনা গার্ডেন ইন-এ অভিযান চালিয়ে  অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে ১১জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে বিভিন্ন মেয়াদে  কারাদ- দেয়া হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুর ১২টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইসমাইল হোসেন অভিযুক্তদের সাজা ও হোটেল দু’টি সিলগালা করার আদেশ প্রদান করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইসমাইল হোসেন জানান, মোবাইর কোর্ট দ-বিধি ১৮৬০ এর ২৯১ ধারায় ও ২৬৮ ধারায় বিরক্তি উদ্রেক ও শান্তি বিনষ্টের দায়ে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন ২০০৯ এবং খুলনা মেট্রোপলিটন অধ্যাদেশ ১৯৮৬ এর বিভিন্ন ধারায় আটককৃত ১১জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদ- প্রদান করা হয়। হোটেলের মালিককে খুঁজে না পাওয়ায় সহকারী ম্যানেজারকে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। ইতোপুর্বেও এ দু’টি হোটেল ও সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে এ অপরাধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছিল। অপরাধ পুনরাবৃত্তি হওয়ায় হোটেল দু’টি আগামী ৩১ডিসেম্বর পর্যন্ত সিলগালা করা হয়। 

নগরীতে পুলিশের অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার ৮

স্টাফ রিপোর্টার

মহানগর পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে ৪৫ বোতল ফেন্সিডিল ও ১১১ পিস ইয়াবাসহ ৮মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন ৬৩ আহসান আহম্মেদ রোডের ডা. মশিউর রহমান এর বাড়ির ভাড়াটিয়া হানিফ শেখের ছেলে মো. কল্লোল শেখ (২৭),  খালিশপুর হাউজিং পুরাতন কলোনী বাসা নং-আর/৫৯ এর মৃত. আ. মান্নানের ছেলে মো. নজরুল ইসলাম (২৮), দৌলতপুর দেয়ানা মধ্যপাড়া বকুল তলা মোড়ের মৃত. মোদাচ্ছের হোসেন মধুর ছেলে মিজানুর রহমান ওরফে হাত কাটা মির্জা (৫৮), পাবলা সবুজ সংঘ মাঠের পাশের মো. রাজু শেখের ছেলে মো. রাহাত শেখ (২৩), শিববাড়ী মোড়স্থ সোনালী ব্যাংক ভবনের ৬ষ্ট তলার ভাড়াটিয়া মৃত. হাসেম হাওলাদারের ছেলে মো. রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিক (৪৩), কৃষ্ণনগর মোড়স্থ মনির এর দোকানের পাশের বাসিন্দা মো. দোলন মিয়ার ছেলে মো. মিলন (১৯), কৃষ্ণনগর চরার মো. কামাল মোল্যার ছেলে  মো. মাহাফুজুর রহমান (১৭), খালিশপুর নয়াবাটি মোড় রোড নং-১৯, বাসা নং-৩০ রেশমার বাড়ীর ভাড়াটিয়া মো. আব্দুস সত্তারের ছেলে মো. আমীনুল ইসলাম ওরফে মিন্টু (৪১)। 

কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) কানাই লাল সরকার জানান, গত ২৪ ঘন্টায় নগরীর বিভিন্ন থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে মহানগর পুলিশ। এসময় ৪৫বোতল ফেন্সিডিল, ১১১ পিস ইয়াবাসহ ৮ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় ৮টি মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে।

নগরীর লবণচরায় র‌্যাবের অভিযানে ১৪৫পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ১

স্টাফ রিপোর্টার

নগরীর লবণচরা থানাধীন ওয়াজেদ নগর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৪৫ পিস ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। গতকাল শনিবার দুপুর ২টার দিকে গোপন সংবাদের মাধ্যমে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন রায়পাড়া ৯নং ক্রস রোডের মো. মোক্তার হোসেনের বাড়ির ভাড়াটিয়া সুমন্ত কুমার মৃধার ছেলে সুকান্ত কুমার মৃধা (৩৯)। 

র‌্যাব-৬ জানায়, গতকাল শনিবার দুপুর ২টার দিকে নগরীর লবণচরা থানাধীন ওয়াজেদ নগর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় রুপা পেট্রোলিয়াম এন্ড সিএনজি পাম্প এর সামনে  থেকে ১৪৫ পিস ইয়াবা ও একটি মোটরসাইকেলসহ সুকান্ত কুমার মৃধাকে গ্রেফতার করা হয়। সে দীর্ঘদিন যাবত নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গোপনে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে। তার বিরুদ্ধে লবণচরা থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

তালায় র‌্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ গ্রেফতার ১

স্টাফ রিপোর্টার

সাতক্ষীরা জেলার তালা থানাধীন শিবপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে ৮৯০গ্রাম গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে  গোপন সংবাদের মাধ্যমে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন সাতক্ষীরা জেলার তালা থানার ফকরাবাদ গ্রামের মো. হাফিজুল গাজী (৩২)। 

র‌্যাব-৬ জানায়, গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সাতক্ষীরা জেলার তালা থানাধীন শিবপুর গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় শিবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে  ৮৯০গ্রাম গাঁজাসহ হাফিজুল গাজীকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে তালা থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

সাতক্ষীরায় র‌্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

স্টাফ রিপোর্টার

সাতক্ষীরা জেলার তালা থানাধীন শুভাষিনী গ্রামে অভিযান চালিয়ে ১ কেজি ৪৪০ গ্রাম গাঁজাসহ দু’মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে গোপন সংবাদের মাধ্যমে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার দু’মাদক ব্যবসায়ী হলেন সাতক্ষীরা জেলার তালা থানার মদনপুর গ্রামের তারা পদ দাসের ছেলে মঙ্গল দাস (২৫) ও  মৃত. কার্তিক দাসের ছেলে   বিপুল দাস (২৬)। 

র‌্যাব-৬ জানায়, গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে  সাতক্ষীরা জেলার তালা থানাধীন শুভাষিনী গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় ওই গ্রামের নীল কোমল সরকার এর বাড়ি হতে ১ কেজি ৪৪০ গ্রাম গাঁজাসহ  মঙ্গল দাস ও বিপুল দাসকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে তালা থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

মাগুরায় র‌্যাবের অভিযানে এককেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ১

স্টাফ রিপোর্টার

মাগুরা জেলার সদর থানাধীন রাউতড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে এক কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে গোপন সংবাদের মাধ্যমে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন মাগুরা জেলা সদরের রাউতড়া গ্রামের মৃত. আব্দুল গণি লস্করের ছেলে মো. মুক্তার লস্কর (৫৫),

র‌্যাব-৬ জানায়, গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মাগুরা জেলার সদর থানাধীন রাউতড়া গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় ওই গ্রামের মিকাইল হোসেনের বাড়ির সামনে মাগুরা-ঝিনাইদহ মহাসড়কের পাকা রাস্তার উপর থেকে  এক কেজি গাঁজাসহ মুক্তার লস্করকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মাগুরা সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

পল্লীবন্ধু এরশাদের প্রথম মৃত্যৃবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল

খবর বিজ্ঞপ্তি

৯ বছরের সফল সাবেক রাষ্ট্রপতি, বাংলাদেশের উন্নয়নের কারিগর, রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের প্রবর্তক, উপজেলা-গুচ্ছগ্রাম প্রতিষ্ঠাকারী, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাতা জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে রূপসা উপজেলার পালেরহাট জামে মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন রূপসা উপজেলার ২নং ইউনিয়নের জাপা সভাপতি আঃ ছালাম হাওলাদার। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ মোড়ল। বিশেষ অতিথি ছিলেন জাপা নেতা চৌধুরী মাহাতাব উদ্দিন। আরো উপস্থিত ছিলেনÑএশারুল সেখ, এমদাদুল সেখ, সাহিদ ঢালী, তায়জুল ইসলামসহ স্থানীয় জাপা নেতৃবৃন্দ। দোয়া পরিচালনা করেন মসজিদের ইমাম মাওলানা আকরাম হোসেন। অপরদিকে সদ্য প্রয়াত জাতীয় পার্টি নেতা শওকত হোসেনের রুহের মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

সৌদিতে জি-২০ দেশের বৈঠক কেন্দ্র করে মোংলায় বিক্ষোভ

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

সৌদিতে জি-২০ দেশ সমূহের অর্থমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্ণরদের  বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ মোকাবেলায় প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণার সিদ্ধান্তমূলক বৈঠককে কেন্দ্র করে মোংলায় বিভিন্ন দাবীতে প্লাকার্ড-ব্যানার হাতে মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ করেছে কয়েকটি পরিবেশবাদী সংগঠন। শনিবার সকালে মোংলার সুন্দরবন সংলগ্ন চিলা এলাকার পশুর নদীর পাড়ে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), পশুর রিভার ওয়াটারকিপার এবং ওয়াটারকিপার বাংলাদেশ’র আয়োজনে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়।

সকাল সাড়ে ১১ টায় মানববন্ধন চলাকালে পরিবেশ কর্মীরা ‘সবার জন্য স্বাস্থ্য সেবা’, ‘আমার টাকা আমার ভবিষ্যৎ’, ‘স্টপ কোল, স্টপ নিউকিয়ার’, ‘জাস্ট রিকভারি’, ‘পশুর নদী বাঁচাও, সুন্দরবন বাঁচাও’, ‘জলবায়ুর উষ্ণতা থেকে বাঁচতে চাই’সহ বিভিন্ন শ্লোগান লেখা প্লাকার্ড-ব্যানার হাতে নিয়ে মানববন্ধন করেন স্থানীয়রা। মানববন্ধন চলাকালে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন ( বাপা ) বাগেরহাট জেলার আহ্বায়ক মোঃ নূর আলম শেখ।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাপা নেতা গীতা হালদার, নাজমুল হক, মনির হোসেন, পশুর রিভার ওয়াটারকিপার ভলান্টিয়ার আব্দুর রশিদ হাওলাদার, কমলা সরকার, মাহারুফ বিল্লাহ প্রমূখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ইন্টারন্যাশনাল ইনষ্টিটিউট ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট’র (আইআইএসডি) গবেষণায় বলছে মহামারিকালে জীবাস্ম জ্বালানী এবং অন্যান্য দূষণকারী শিল্পের জন্য ১৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বক্তারা বলেন, জি-২০ দেশের বৈঠকে করোনাকালের প্রণোদনা দেয়ার জন্য ৭৫০ বিলিয়ন ইউরো এবং শত শত কোটি মার্কিন ডলার পাবলিক মানি অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। এসব অর্থ বরাদ্দ অন্তত একদশক জুড়ে বিশ্ববাসীকে নানাভাবে প্রভাবিত করবে। তাই বক্তারা অর্থ বরাদ্দ দেয়ার ক্ষেত্রে  গ্রীণ রিকভারি, গ্রীণ জব্স এবং সবার জন্য স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে জি-২০ দেশসমূহের প্রতি আহ্বাণ জানান। এছাড়া বক্তারা পশুর নদী এবং সুন্দরবন রক্ষাসহ মানুষ এবং পৃথিবীনামক গ্রহ রক্ষায় ফসিল ফুয়েল ব্যবহারের বন্ধের দাবী জানান।

সামেক হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে দুই জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত  ১১ জন

খান নাজমুল হুসাইন

করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকালে তারা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে মারা যান।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন, সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার মৃত ওমর আলীর ছেলে করোনা আক্রান্ত নজরুল ইসলাম (৭৫) ও যশোর জেলার শার্শা উপজেলার বাগআচড়া গ্রামের মৃত ফরাজ তুল্লাহ’র ছেলে ঈসমাইল হোসেন (৬০)। তিনি করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান। এনিয়ে, সাতক্ষীরায় করোনা আক্রান্ত হয়ে আজ পর্যন্ত মারা গেছেন আরো ১২ জন। আর করেনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আরো ৩৩ জন।

 সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, গত ১০ জুলাই জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন বৃদ্ধ নজরুল ইসলাম। পরদিন তার নমুনা সংগ্রহ করে যশোর প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে পাঠানো হয়। গতকাল শুক্রবার সকালে তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপর আজ ভোরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এদিকে, শনিবার ভোরে করোনার উপসর্গ নিয়ে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন বাগআচড়ার ঈসমাইল হোসেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে মারা যান। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানান। তিনি আরো জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে তাদের লাশ দাফনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের বাড়ি লক ডাউন করা হয়েছ।

এদিকে, গত ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরায় নতুন করে এক ব্যাংক কর্মকর্তা, এক পুলিশ সদস্য ও এক স্বাস্থ্যকর্মীসহ  ১১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।  এ নিয়ে জেলায় আজ পর্যন্ত ৪৭৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ জয়ন্ত সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আজ পর্যন্ত এ জেলা থেকে মোট ৩ হাজার ১৬১ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। ইতিমধ্যে ২ হাজার ২৫৬ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট সিভিল সার্জন কার্যালয়ে এসে পৌছেছে। এর মধ্যে ৪৭৯ জনের করোনা পজিটিভ ও বাকীদের সব নেগোটভ রিপোর্ট এসেছে।

মশিয়ালি হত্যাকান্ডে জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে হবে: আ’লীগ নেতৃবৃন্দ

খবর বিজ্ঞপ্তি

সম্প্রতি নগরীর মশিয়ালিতে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ জন নিহত হওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ এবং ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির প্রদানের জন্য আহবান জানিয়েছেন খুলনা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, মশিয়ালি হত্যাকা-ে জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে হবে। মশিয়ালিতে সংঘটিত ঘটনা দলীয় কোন বিষয় না। ঘটনাটি শুধুমাত্র ব্যক্তি কেন্দ্রিক, যার দায়ভার শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট ওই সকল ব্যক্তির; দলের নয়। দল কোন ব্যক্তির অপকর্মের দায়ভার বহন করবে না। জাফরিনের কর্মকা-ের কারনে আগেই তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আর সম্প্রতি মশিয়ালিতে সাধারণ মানুষকে গুলি করে হত্যার সাথে সম্পৃক্ত থাকায় জাকারিয়াকে খানজাহান আলী থানা আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, আওয়ামী লীগ কোন সন্ত্রাসী বা সন্ত্রাসী কর্মকা-কে প্রশ্রয় দেয় না। সুতরাং জাকারিয়া, জাফরিন ও মিলটনের মত চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের তো প্রশ্রয় দেয়ার প্রশ্নই আসে না। আওয়ামী লীগ সব সময়ই ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় কাজ করে থাকে। সুতরাং মশিয়ালিতে সংঘটিত ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে এই ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের আহবান জানান। নেতৃবৃন্দ অনতিবিলম্বে জাকারিয়া, জাফরিন ও মিলটনসহ এই ঘটনার সাথে জড়িতেদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে এলাকায় শান্তি ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান। বিবৃতিদাতারা হলেন- শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, জেলা আওয়মাীলীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার ্আধিক সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃর্ন্দপীরা।

রামপালে নতুন ৫  করোনারোগী সনাক্ত

রামপাল (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

রামপালে শনিবার নতুন আরো ৫ জনের করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তরা হলেন, উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মামুন ( ৩৬) ও তার স্ত্রী উম্মে কুলসুম বেগম (২৭), ফয়লাহাট এলাকার হানিফ গাজী, সগুনা গ্রামের প্রনব পাল (২৬), তেলিখালী গ্রামের শেখ হাসিবুর রহমান।

রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সুকান্ত কুমার পাল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গত ১২ ও ১৪ জুলাই ৩২টি নমুনা পাঠানো হয়েছিলো। আজ শনিবার (১৮ই জুলাই) রিপোর্টে তাদের করোনা পজিটিভ এসেছে। আক্রান্তরা বর্তমানে হোম আইসোলেশনে আছেন। এ পর্যন্ত সর্বমোট রামপালে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তর সংখ্যা ৩০ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ১৭ জন। হোম আইসোলেশনে আছেন ১৩ জন।

ফকিরহাটে করোনাক্রান্ত একশো: নতুন সনাক্ত ১২ জন

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ

বাগেরহাটের ফকিরহাটে নতুন করে আরো ১২  জন করোনায় সনাক্ত হয়েছে। শনিবার ১৮ জুলাই দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্র থেকে এ তথ্য জানানো   হয়েছে। এ নিয়ে ফকিরহাট উপজেলায় করোনায় মোট সনাক্ত হলো ১১০ জন। এ পর্যন্ত উপজেলায় বাবা-ছেলে সহ ০৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে ১জন ডাক্তার, ১জন চা বিক্রেতা, ১জন পল্লী চিকিৎসক, ১জন বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মী ও ১জন গ্রাম পুলিশ। করোনায় সনাক্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ৬১ জন সুস্থ হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ কঃ কর্মকর্তা ডা: অসিম কুমার সমাদ্দার।

খুলনায় সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল এমপি’র জন্মদিনে দোয়া

খবর বিজ্ঞপ্তি

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভ্রাতুষ্পুত্র প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল এমপি’র জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল করেছে আওয়ামী লীগ। গতকাল শনিবার বিকাল ৫টায় দলীয় কার্যালয়ে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা’র সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারি। খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, হাফেজ মো. শামীম, রনজিত কুমার ঘোষ, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, এস এম আসাদুজ্জাামান রাসেল, খান সাইফুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম, কাজী কামাল হোসেন, মো. তাজুল ইসলাম তাজু, মো. শওকাত হোসেন, মেহেদী হাসান মোড়ল, রাশিদুল ইসলাম রিপন, অভিজিৎ চক্রবর্তী দেবু, মাসুমুর রশীদ, ইলিয়াছ হোসেন লাবু, জহির আব্বাস, মাহামুদুর রহমান রাজেশ সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েলের সুস্থ্যতা ও দীর্ঘায়ূ কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

জামাল উ্িদ্দন বাচ্চু সকলের কাছে দোয়া প্রার্থী

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এবং সাবেক ছাত্রনেতা জামাল উদ্দিন বাচ্চু’র করনারীতে অস্ত্রপচার করা হবে আজ রবিবার। তিনি দীর্ঘদিন হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রথমে খুলনায় পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তার করনারীতে ব্লক ধরা পড়ায় চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী রবিবার তার শরীরে অস্ত্রপচার করা হবে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। তিনি বন্ধু বান্ধব, দলের নেতাকর্মী, আত্মীয় স্বজন সহ সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

এদিকে জামাল উদ্দিন বাচ্চু’র সুস্থ্যতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল এমপি, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী।

মোড়েলগঞ্জ ৯০ পিচ ইয়াবাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬

মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি

র‌্যাব-৬ খুলনা বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার বারইখালী ইউনিয়নের চৌধুরী কাছারী বাড়ি এলাকায় শনিবার বিকেলে অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হল সুতালড়ী শেখপড়া গ্রামের মৃত.আব্দুল রশিদ আকনের ছেলে সিদ্দিকুর রহমান(৫০) ও একই ইউনিয়নের পায়লাতলা গ্রামের নুরুজ্জামান গাজীর ছেলে ইমরান হোসেন রনি(২০)। কাছারী বাড়ি ব্রিজের পশ্চিম পাশে রাসেল টেলিকমের সামনে কতিপয় ব্যক্তি মাদকদ্র্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে । এ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৬ অভিযান চালিয়ে ৯০ পিচ ইয়াবা সহ তাদের গ্রেফতার করে। এ ঘটনায়  মোড়েলগঞ্জ থানায় মাদবদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে  মামলা প্রস্তুতি চলছে।

নড়াইলের পুলিশ সুপার করোনায় আক্রান্ত

নড়াইল প্রতিনিধি

নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন (পিপিএম) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার (১৮ জুলাই) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. আবদুল মোমেন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন বলেন, ‘শারীরিকভাবে মোটামুটি ভালো আছি। বাসায় হোম আইসোলেশনে থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় এবং করোনা মোকাবিলায় জেলা পুলিশ বিভাগকে নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছি। নড়াইলবাসীর সেবা করতে যেয়ে আমি আক্রান্ত হয়েছি তাই আমি আমার মনোবল হারায়নি। সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিরাপদে থাকুন, এটাই আমার প্রত্যাশা।’ এদিকে, শনিবার পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৫০৯ জন। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২১২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন আট জন।

সাবেক হুইপ আশরাফ হোসেন আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার

সাবেক সংসদ সদস্য সাবেক হুইপ আশরাফ হোসেন আর নেই (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। শুক্রবার (১৭ জুলাই) রাত ৩টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর গুলশান-২ এ ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।  গত ২০ দিন ধরে তিনি গুলশান-২ এর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

মরহুমের বড় ছেলে মঈন উদ্দিন আশরাফ জানান, শনিবার বাদ জোহর রাজধানীর নিকুঞ্জ-২ এর বড় মসজিদে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর আশরাফ হোসেনের অসিয়ত অনুযায়ী তাকে কুমিল্লার গ্রামে নিয়ে দ্বিতীয় জানাজা শেষে তার বাবা মায়ের পাশে সমাহিত করা হয়।

প্রসঙ্গত,  খুলনা-৩ আসন থেকে চারবার নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য আশরাফ হোসেন দীর্ঘদিন রাজনীতি নিষ্ক্রিয় ছিলেন। তিনি এক সময় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ছিলেন। জোট সরকারের ক্ষমতার শেষ দিকে তিনি বিএনপিতে ‘পরিবারতন্ত্র’ এবং দলের চেয়ারপারসনের একক ক্ষমতার অবসান চেয়ে বিভিন্ন বিবৃতি প্রদান করেন। কঠোর ভাষায় তারেক রহমানেরও সমালোচনা করেন। ২০০৮ সালের ৩ সেপ্টেম্বর বিএনপি চেয়ারপারসন তাকে দল থেকে বহিষ্কার করেন। এরপর থেকে রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় তিনি। এক সময়ে খুলনা-যশোরের শিল্পাঞ্চলের শ্রমিক রাজনীতির মুকুটহীন সম্রাট ছিলেন আশরাফ হোসেন। নিউজপ্রিন্ট মিলের সিবিএ নেতা হিসেবে খুলনায় রাজনীতিতে অবস্থানকে সুদৃঢ় করেন। তিনিও মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর নেতৃত্বাধীন ন্যাপের খুলনা অঞ্চলের শীর্ষ নেতা ছিলেন। জন্মলগ্ন থেকেই বিএনপির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। বিএনপির টিকিটেই খুলনা-৩ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

দুই বছরে রাজার ওজন ৫৬০ কেজি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

প্রতিদিন বিভিন্ন মানুষ ‘রাজাকে’ দেখতে ভিড় করে বাড়িতে। কারণ দুই বছরে খেয়েদেয়ে রাজার ওজন এখন ১৪ মণ। এজন্য তাকে ঘিরে উৎসুক জনতার ভিড়। শখ করে গরুটির নাম রাজা রেখেছেন তার মালিক। অবশ্য এর আগে ১৪ মণ ওজনের গরু দেখেননি এখানকার মানুষ। এজন্য অনেকে মোবাইলে ছবি ধারণ করে রাখছেন। রাজার দাম চার লাখ টাকা। এবারের কোরবানির ঈদে চার লাখ টাকা হলে রাজাকে বিক্রি করবেন তার মালিক।

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার নগরঘাটা গ্রামের মাজেদ বিশ্বাস গত দুই বছর দুই মাস ধরে লালন-পালন করছেন একটি সিন্ধি জাতের গরু। বর্তমানে লাল রঙয়ের গরুটির উচ্চতা ৫০ ইঞ্চি আর লম্বা ৯০ ইঞ্চি। ওজন ১৪ মণ।

নগরঘাটা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা মাজেদ বিশ্বাস বলেন, এবারের কোরবানির ঈদে রাজাকে বিক্রি করব বলে দুই বছর দুই মাস ধরে লালন-পালন করছি। ফিতা দিয়ে রাজার উচ্চতা মেপেছি। উচ্চতা ৫০ ইঞ্চি আর লম্বা ৯০ ইঞ্চি। ওজন ১৪ মণ। চার লাখ টাকা হলে রাজাকে বিক্রি করব। তবে এখনও ক্রেতা আসেনি। রোববার ক্রেতা আসবে।

তিনি বলেন, অনলাইনে গরুটি আমি বড় কোনো ব্যবসায়ী বা কোরবানির জন্য বড় কোনো ক্রেতার কাছে বিক্রি করতে চাই। তবে এখনও কেউ যোগাযোগ করেনি। গরুটি এখনও পশুর হাটে নিয়ে যাইনি। বড় গরু তাই পশুর হাটে নিয়ে যাব না। বাড়িতে রেখেই বিক্রি করব। মাজেদ বিশ্বাসের ছেলে তৌহিদুজ্জামান বলেন, বাড়িতে আরও পাঁচটি গাভি গরু রয়েছে আমাদের। ষাড় একটাই। তাই নাম দিয়েছি রাজা। তাকে বিক্রির জন্য অনলাইনে ছবি দেয়া হয়েছে। রাজাকে দেখতে এসে সবাই ছবি তুলছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সাতক্ষীরায় এবার কোরবানির চাহিদা রয়েছে ৫২ হাজার ৩০০ পশুর। এর মধ্যে গরুর সংখ্যা ৩০ হাজার ৫৬০ ও ছাগলের সংখ্যা ২১ হাজার ৭৪০। কোরবানির জন্য প্রস্তুত রয়েছে ৫৯ হাজার ২৩৭ গরু ও ছাগল। সাতক্ষীরা জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, জেলায় খামারির সংখ্যা ১২ হাজার ৭৬১ জন। এবারের কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে অনলাইনের মাধ্যমে পশু বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া ১১টি পশুর হাট বসছে। কোনো খামারি যদি পশু বিক্রি করতে ব্যর্থ হন তবে পরবর্তীতে আমরা ব্যবস্থা নেব।

৩০ হাজারে শুরু, এখন মাসে আয় ২০ হাজার টাকা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

দুই বছর আগে মাশরুম চাষ শুরু করেছিলেন সাদ্দাম হোসেন। তিনি সাতক্ষীরার প্রথম মাশরুম চাষি। এরই মধ্যে সফল হয়েছেন তিনি। তাকে অভাব জয়ের পথ দেখাল মাশরুম। গত তিন মাসে মাশরুম বিক্রি করে আয় করেছেন ৬০ হাজার টাকা। তার সাফল্য দেখে জেলার অনেকেই এখন মাশরুম চাষে আগ্রহী।

সাতক্ষীরা শহরতলীর পারকুকরালী এলাকার বাসিন্দা সাদ্দাম হোসেন। সদর উপজেলা কৃষি অফিসের ন্যাশনাল সার্ভিসে চাকরির সুবাদে সাদ্দামের সঙ্গে পরিচয় হয় কৃষি কর্মকর্তা আমজাদ হোসেনের। তার মাধ্যমে জানতে পারেন মাশরুম চাষের সুফল। এটি চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়ার সুযোগ রয়েছে জেনে চাকরির পাশাপাশি মাশরুম চাষ শুরু করেন। সাতক্ষীরা শহরের মুনজিতপুর এলাকায় টিনশেডের দুটি রুম ভাড়া নেন সাদ্দাম। সেখানে বাড়ির মালিক মোদাসেরুজ্জামান টুটুলের সঙ্গে যৌথভাবে শুরু করেন মাশরুম চাষ।

দুই বছর আগে মাশরুম চাষ শুরু করলেও গত এক বছর থেকে বাণিজ্যিকভাবে মাশরুম চাষ করছেন সাদ্দাম। এরই মধ্যে চাষ পদ্ধতি, পরিচর্যা ও বাজারজাতকরণের প্রক্রিয়া আয়ত্ত করে নিয়েছেন তিনি। গত এক বছর ধরে ওয়েস্টার জাতের মাশরুম বাণিজ্যিকভাবে চাষ করছেন সাদ্দাম। গত তিন মাসে বিক্রি হয়েছে ৬০ হাজার টাকার মাশরুম। এখনও তার কাছে তিন লাখ টাকার মাশরুম রয়েছে।

মাশরুম চাষি সাদ্দাম হোসেন বলেন, আমি এখন বাণিজ্যিকভাবে মাশরুম চাষ করছি। বর্তমানে আমার কাছে মাশরুমের ২০০ স্পন প্যাকেট রয়েছে। যা থেকে ৪০০ কেজি পর্যন্ত মাশরুম উৎপাদন সম্ভব। প্রতিকেজি মাশরুম ৩০০ টাকায় বিক্রি হয়। এক বছর ধরে এর পেছনে সময় দিয়েছি। এখন চাষপদ্ধতি জানি। মার্কেটিং করার জন্য ভালো ক্রেতাও পেয়েছি। এখন বিক্রি করতে কোনো অসুবিধা হয় না।

গত শীত মৌসুমে এক লাখ টাকার মাশরুম বিক্রি করেছি উল্লেখ করে সাদ্দাম হোসেন বলেন, ৩০ হাজার টাকা খরচ করে মাশরুম চাষ শুরু করেছিলাম। এখন প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা আয় হয়।

মাশরুম চাষে অল্প খরচে অধিক লাভ জানিয়ে তিনি বলেন, সাভারের মাশরুম গবেষণা ইনস্টিটিউট থেকে বীজ সংগ্রহ করি। ৫০০ গ্রামের এক প্যাকেট বীজ সংগ্রহ করতে খরচ হয় ৪০ টাকা। ২৫০ গ্রামের প্যাকেটে খরচ হয় ৩০ টাকা। মাশরুম খুবই জনপ্রিয় ও সুস্বাদু। তবে মাশরুমের বিষয়ে প্রচারণা কম। এর উপকারিতা ও ব্যবসায় লাভ সম্পর্কে প্রচারণা প্রয়োজন। আমার এখান থেকে ব্যাংকার, শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ মাশরুম কেনেন।

সাদ্দাম হোসেনের পরামর্শ নিয়ে মাশরুম চাষ শুরু করেছেন শহরের আলিয়া মাদরাসা এলাকার উম্মে হাবিবা, জেলার পাটকেলঘাটা থানার বল্ডফিল্ড এলাকার সোলায়মান হোসেন ও মির্জাপুর এলাকার নিভাষ সরকার।

পাটকেলঘাটা থানার বল্ডফিল্ড মোড় এলাকার মৃত সহিল উদ্দিনের ছেলে সোলায়মান হোসেন বলেন, মাশরুম রান্না করে খেতে খুব সুস্বাদু। গত ২৮ ডিসেম্বর থেকে আমি মাশরুম চাষ শুরু করি। বর্তমানে আমার ফলন এসেছে। স্থানীয় কয়েকজন মাশরুমের জন্য ইতোমধ্যে অর্ডার দিয়েছেন। তাদের কাছে বিক্রি করব। এছাড়া সাতক্ষীরায় মাশরুমের অনেক ক্রেতা রয়েছেন। আমি ৩৫০টি আড়াই কেজি ওজনের স্পন প্যাকেট করেছি। আশা করছি ৭০০ কেজি মাশরুম উৎপাদন হবে।

পাটকেলঘাটা থানার মির্জাপুর এলাকার নিহির পালের ছেলে নিভাষ পাল বলেন, ৫০ হাজার টাকা খরচ করে এবার প্রথম এক হাজার স্পন প্যাকেট মাশরুম চাষ করেছি। আশা করছি মাশরুম বিক্রি করে আড়াই লাখ টাকা আয় হবে আমার।

সাতক্ষীরার ন্যাশনাল ব্যাংকের জুনিয়র কর্মকর্তা (ক্যাশ) মশিউর রহমান। তিনি নিয়মিত মাশরুম খেয়ে থাকেন। মশিউর রহমান বলেন, চাকরির সুবাদে ঢাকায় থাকার সময় মাশরুম খাওয়া শুরু করেছিলাম। সাতক্ষীরায় আসার পর প্রথম দিকে মাশরুম খুঁজে পাইনি। পরে জানতে পারি শহরের এক তরুণ মাশরুম চাষ করেন। তার কাছ থেকে এখন নিয়মিত সংগ্রহ করি। আমার অনেক সহকর্মীও তার কাছ থেকে নিয়মিত মাশরুম কেনেন।

মাশরুমের ঔষধি গুণের বিষয়ে শহরের জজকোর্ট এলাকার চিকিৎসক তহিবুল ইসলাম বলেন, মাশরুম সম্পূরক খাদ্য। নিয়মিত মাশরুম খেলে অ্যাজমা, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে। নিয়মিত মাশরুম খেলে বাতব্যথা ও শ্বাসকষ্ট দূর হয়।

সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক নুরুল ইসলাম বলেন, জেলার মাশরুম চাষিদের বিষয়ে কোনো জরিপ আপাতত আমাদের কাছে নেই। মাশরুম একটি ঔষধি গুণ সম্পন্ন সবজি। মাশরুম চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়ার সুযোগ রয়েছে। যারা মাশরুম চাষ করছেন কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে তাদের খামার পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেয়া হবে।

স্কুলের মাঠ নাকি পুকুুর!

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

চারদিকে পানি আর পানি। দেখলে মনে হবে পুকুর। তবে এটি আসলে একটি স্কুল। কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ধুবইল ইউনিয়নের সিংপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে খেলার মাঠের চিত্র এটি। বছরের বেশির ভাগ সময়ই বিদ্যালয়ের এই খেলার মাঠটি জলে ভরে থাকে। সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে যায়। আর বর্ষা মৌসুম এলে তো কথাই নেই।

মাঠের এ অবস্থার জন্য বন্ধ থাকে শিশু-কিশোরদের খেলাধুলা। নিয়মিত খেলতে না পারায় হতাশ প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থী ও মহল্লার খেলোয়াড়রা। পানি মাড়িয়েই শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আসতে হয়। শুধু এই স্কুল মাঠই নয় ওই ইউনিয়ন পরিষদ এলাকার সব কয়টি স্কুল মাঠেরই একই চিত্র।

স্থানীয়রা জানান, প্রতিবছর খেলার মাঠ উন্নয়নের জন্য টাকা বরাদ্দ এলেও কোনো কাজ হয় না। সব টাকায় দুর্নীতিবাজদের পকেটে ঢুকে যায়। ২০১৯-২০ অর্থবছরে স্থানীয় এমপির টিআর বরাদ্দকৃত ৪৩ হাজার টাকা বরাদ্দ আসে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। মাঠ শুকনো থাকলে যুবসমাজ ব্যস্ত থাকে খেলাধুলায়। ফলে মাদকের ছোবল থেকে তারা রক্ষা পায়। যত বেশি ক্রীড়াচর্চা হবে ততবেশি যুবসমাজ মাদক থেকে দূরে থাকবে। কিন্তু এই মাঠের পানি দেখলে মনে হয় এটি একটি পুকুর। এই মাঠটি সংস্কার করা না হলে এলাকার যুবসমাজ মাদকের দিকে ঝুঁকে পড়তে পারে। তাই কর্তৃপক্ষের কাছে মাঠটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানান স্থানীয়রা।

সিংপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুফিয়া খাতুন বলেন, স্কুল মাঠে মাটি ভরাটের জন্য ২০১৯-২০ অর্থবছরে স্থানীয় এমপির টিআর বরাদ্দকৃত ৪৩ হাজার টাকা বরাদ্দ পাওয়া গিয়েছিল। কিন্তু সেই টাকার কাজ হয়নি। নামমাত্র কয়েক ট্রলি বালু ফেলে সব টাকা আত্মসাৎ করেছেন জাসদ নেতা জালাল। এ ব্যাপারে স্থানীয় জাসদ নেতা জালাল বলেন, আমি কিছু কাজ করেছি।

মিরপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাসুদ রানা বলেন, আমি বিষয়টা শুনেছি। সেইসঙ্গে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে লিখিতভাবে বিষয়টি জানানোর জন্য বলা হয়েছে।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল খালেক বলেন, বিদ্যালয়ের খেলার মাঠটি প্রতিবছরই বর্ষার সময় পানিতে ডুবে যায়। ইতোপূর্বে মাঠটি ভরাট করা হয়েছিল। তবে তা যথেষ্ট হয়নি। ভালো করে ভরাট করা প্রয়োজন। ধুবইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান মামুন বলেন, বিদ্যালয়টি পানিতে তলিয়ে গেছে। জরুরিভাবে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা হবে।

মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাস জানান, এটা আমার জানা ছিল না। তবে দ্রুত এ জলাবদ্ধতা দূরীকরণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পাইকগাছার গড়ইখালী ইউনিয়নে সংঘর্ষে আহত ৩ : আটক ২

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছার গড়ইখালী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ও প্যানেল চেয়ারম্যান গ্রুপের মধ্যে সৃষ্ট সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ৩জন গুরুতর আহত হয়েছে। এলাকাবাসী ২জনকে আটক করে রাখলে পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় থানায় পৃথক ২টি মামলা হয়েছে। আহতদের খুলনা ও পাইকগাছা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, উপজেলার গড়ইখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বিশ্বাস ও প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম কেরুর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। সম্প্রতি জেলে কার্ডের চাল বিতরণ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ প্রকাশ্য রূপ নিয়েছে। এ ঘটনার জের ধরে শুক্রবার রাতে প্যানেল চেয়ারম্যান কেরুর ছেলে শারফুল আলম ও জনি শান্তা বাজার থেকে বাড়ী ফেরার পথে চেয়ারম্যনের ড্রাইবার তাদের মারধর করে । এসময় তাদের ঠেকাতে গেলে স্থানীয় লাভলু গাজী ও হাফিজুল  আহত হয়। আহতরা  খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন আছে বলে প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম কেরু জানান।

 অপরদিকে, চেয়ারম্যানের রুহুলামীন বিশ্বাস জানান, আমার গাড়ী চালক শাহাবুদ্দীন সরদার শান্তা বাজারে বসে ছিল প্যানেল চেয়ারম্যানের ছেলে সহ ৯/১০ জন তার উপর হামলা চালিয়ে  হাতুড়ী পেটা করে গুরুতর জখম করে। এলাকা বাসির প্রতিবাদের মুখে তারা পালিয়ে যায় এবং ২জন এলাকাবাসি অটকে রেখে পুলিশের কাছে হস্তন্তর করে এবং আহতকে  পাইকগাছা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  এ ঘটনায় আতারুল গাইন বাদী হয়ে চেয়ারম্যান গ্রুপের ৯জন ও চেয়ারম্যান গ্রুপের বাবর আলী গাজী বাদী হয়ে প্যানেল চেয়ারম্যান গ্রুপের ৯জনের নামে পৃথক মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ হেফাজতে থাকা শারফুল ও জনিকে আটক দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে ওসি এজাজ শফী জানান।

মনিরামপুরে রফিকুল হত্যা: অস্ত্রসহ ৫ চরমপন্থী আটক

মণিরামপুর প্রতিনিধি

যশোরের মণিরামপুরের ইজিবাইক চালক রফিকুল ইসলাম (৫০) হত্যার ঘটনায় পাঁচ চরমপন্থীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। একইসাথে হত্যাকা-ে ব্যবহুত একটি দোনলা বন্দুক উদ্ধার করা হয়েছে। শুনবার (১৮ জুলাই) দুপুরে যশোরের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন তার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান। পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন বলেন, ‘মামলাটি চাঞ্চল্যকর। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ, কোতয়ালী, অভয়নগর ও মণিরামপুর থানা যৌথ অভিযান পরিচালনা করে গতকাল শুক্রবার (১৭ জুলাই) অভয়নগর ও মণিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে হেলাল ভূঁইয়া (২০), মো. সেলিম (২২), হাসান আলী, সমীরণ পাঁড়ে (৫৪) ও তাপস মোড়ল (৩৮) নামে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে। একইসঙ্গে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত একটি দোনলা বন্দুক, দুই রাউন্ড কার্তুজ ও তাদের ব্যববহৃত পাঁচটি মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করা হয়।’

পুলিশ সুপার জানান, গ্রেফতারকৃতরা নিজেদের চরমপন্থী সংগঠন ‘নিউ পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি’র সদস্য পরিচয় দিয়ে এলাকায় ঘের দখল, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্ম করে আসছিলেন। নিহত রফিকও একসময় তাদের সদস্য ছিলেন। ঘটনার দিন তাকে টাকা ও মোবাইল ফোন সেট দেওয়ার কথা বলে পরিকল্পিতভাবে ঘটনাস্থলে ডেকে এনে গুলি করে ও গলা কেটে হত্যা করে সহযোগীরা। পুলিশ সুপার বলেন, ‘মনিরামপুরের হরিদাসকাঠি ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রকাশ দত্ত হত্যাসহ এলাকায় চাঁদাবাজি নিয়ে রফিকের সাথে আটক আসামিদের বিরোধের কারণেই তাকে হত্যা করা হয়।’

প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যদের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম, সালাহউদ্দিন শিকদার, অপু সরোয়ার, ডিবি পুলিশের ইনসপেক্টর মারুফ আহমেদসহ পুলিশ অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত, গত ৯ জুলাই দুপুরে মণিরামপুর উপজেলার কুচলিয়া এলাকায় নৃশংসভাবে খুন করা হয় রফিকুল ইসলামকে। তিনি একই উপজেলার মধুপুর গ্রামের আমারত বিশ্বাসের ছেলে।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী শিরিনা আক্তার অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মণিরামপুর থানায় একটি মামলা (নম্বর ০৬/০৯.০৭.২০২০) করেন।

রূপসায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে বন্ধু খুন

রূপসা প্রতিনিধি

গাঁজা সেবন নিয়ে বিরোধের জের ধরে রূপসায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে সুমন শেখ (২৫) নামে অপর বন্ধু খুন হয়েছে। শনিবার (১৮ জুলাই) রাত  ৮টার দিকে নৈহাটী মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সুমন নৈহাটী গ্রামের আবজাল হোসেন শেখের ছেলে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গত একমাস পূর্বে গাঁজা সেবন নিয়ে সুমন ও মাহমুদুলের (২২) সঙ্গে কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। ওই ঘটনার জের ধরে আজ রাত ৮টা ৪০ মিনিটে নৈহাটী মোড়ের বসিরের দোকানের সামনে তারা আবারো বিবাদে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে মাহমুদুল উত্তেজিত হয়ে সুমনের পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে সুমন মারাত্মকভাবে আহত হয়। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন স্থানীয়দের সহায়তায় রক্তাক্ত জখম অবস্থায় সুমনকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার মৃত্যু হয়। রূপসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা জাকির হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, নিহত সুমনের মরদেহ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

জাতীর জনকের জন্ম শতবার্ষিকীতে মোড়েলগঞ্জে যুবলীগের বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি

এম.পলাশ শরীফ, মোড়েলগঞ্জ

 জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলা ও পৌর যুবলীগ বৃক্ষ রোপন কর্মসূচীর উদ্বোধন করেছে। শনিবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম, যুগ্ম আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট তাজিনুর রহমান পলাশ, মাষ্টার মাহফিজুর রহমান হিরু, পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান বিপু, যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফুল ইসলাম আরিফ আনুষ্ঠানিকভাবে এ কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন।

নেতৃবৃন্দ সরকারি এসএম কলেজ চত্বরে বিভিন্ন জাতের ফলদ ও বনজ গাছের চারা রোপন করে কর্মসূচীর সূচনা করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা অধ্যাপক শামীম আহ্সান পলাশ, ছাত্রলীগ নেতা মহিদুজ্জামান মহিদ প্রমুখ। যুবলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

যুবলীগ নেতৃবৃন্দ বলেন, মোড়েলগঞ্জ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডসহ ১৬টি ইউনিয়নের প্রতিটি ইউনিয়নে ২ শতাধিক বিভিন্ন প্রজাতির চারা যুবলীগ নেতাকর্মীরা বিভিন্নস্থানে রোপন করে এ কর্মসূচিকে সফল করবেন।

কেশবপুরে এবার ইউএনও’র গাড়ী চালক করোনায় আক্রান্ত

আলমগীর হোসেন,কেশবপুর

কেশবপুরে এবার ইউএনও’র গাড়ী চালক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এই নিয়ে গত ৩ দিনে কেশবপুরে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ১৬ জনে। ড্রাইভারের করোনা আক্রান্তের খবরে গোটা উপজেলা প্রশাসনের মধ্যে এক ধরনের করোনা আতংক বিরাজ করছে।

কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  কর্মকর্তা ডাঃ আলমগীর হোসেন  জানান, গতকাল শনিবার  কেশবপুরে নতুন করে  উপজেলা  নির্বাহী অফিসারের গাড়ী চালক কেশবপুর সদর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের  আবু সাঈদ করোনায় আক্রান্ত  হয়েছে। এর আগে গত শুক্রবার  পুলিশ অফিসার ও মহিলা  ডাক্তারসহ আরো ০৬ ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়। আক্রান্ত ৬ ব্যক্তি হলো-   কেশবপুর এলজিইডির কর্মকর্তা  আব্বাস আলী,, কেশবপুর  ডাঃ শারমিন সুলতানা। তার কর্মস্থল খুলনা রেরওয়ে হাসপাতাল,  হাসপাতাল মসজিদের মুয়াজ্জিন আব্দুল্লাহ আল মামুন, ভেরচী পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী ইনচার্জ এ.এস.আই রতন কুমার হাজরা,  রচনা বেগম  ও গড়ভাঙ্গা কমিনিটি কিনিকের আশরাফ আলী।

এছাড়া বৃহস্পতিবার ০৯   ব্যক্তি  আক্রান্ত হন।  তারা   হলেন,  কেশবপুর পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের একই পরিবারের সামসুন্নাহার, আব্দুল মজিদ ও শেখ শহিদুল ইসলাম, কেশবপুর হাসপাতালের স্টাফ আব্দুল মান্নান,তার গ্রামের বাড়ী মনিরামপুর উপজেলায়, কেশবপুর পল্লি বিদ্যুৎ অফিসের উত্তম কুমার, মজিদপুর ইউনিয়নের জায়েদা বেগম, ভোগতি গ্রামের মেহদী  হাসান, কোমরপোল গ্রামের আসাদুজ্জামান ও ভালুকঘর গ্রামের আলমগীর হোসেন। কেশবপুরে  মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৬  জন, সুস্থ হয়েছেন ৪৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ জনের।   আক্রান্ত  ব্যক্তি  ও তার আত্মীয় স্বজনদের বাড়ীও  লক ডাউনের আওতায় আনা  হয়েছে বলেও  তিনি এই প্রতিনিধিকে জানান।

বটিয়াঘাটায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের কার্যক্রমের চাবি হস্তান্তর

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

বটিয়াঘাটায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের কার্যক্রমের চাবি হস্তান্তরের শুভ উদ্বোধন গতকাল শনিবার বিকাল ৪টায় স্থানীয় বাসস্ট্যান্ড মোড় এলাকায় নিজস্ব কার্যালয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সমাজ সেবা কর্মকর্তা অমিত সমাদ্দার, প্রকৌশলী প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী, ইউপি চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন ম-ল, উপজেলা প্রেসকাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ, সাধারণ সম্পাতক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ আফজাল হোসেন, বিনয় কৃষ্ণ সরকার, সরদার আব্দুল মান্নান, ডাঃ প্রশান্ত গোলদার, কার্ত্তিক চন্দ্র বিশ^াস, নির্মল অধিকারী, জগদীশ মল্লিক, দয়াল বিশ^াস, সত্যজিৎ জোয়ার্দ্দার, প্রাণকৃষ্ণ মল্লিক, মোঃ আব্দুর সালাম, মোঃ হালিম মোল্ল্যা, মোঃ আকরাম হোসেন, থানা প্রতিনিধি এস,আই প্রকাশ, সাংবাদিক শাহীন বিশ^াস, নির্মল মন্ডল প্রমুখ।

অভয়নগরে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কার : পাকাকরণের দাবি

সৈয়দ রিপানুর ইসলাম, অভয়নগর

যশোরের অভয়নগরে স্বেচ্ছাশ্রমে চার কিলোমিটার রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু করেছেন গ্রামবাসী। নিজেদের অর্থায়নে সম্পন্ন করেছে প্রায় দুই কিলোমিটার রাস্তা। আট গ্রামের জনগণ রাস্তাটি পাকাকরণের দাবি করেছেন।

জানা গেছে, উপজেলার প্রেমবাগ ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা, আমডাঙ্গা, রামসরা, রাজাপুর, মাগুরা, বাহিরঘাট, বনগ্রাম ও চাঁপাতলা এই আট গ্রামের মধ্যে ধলিয়ার বিল অবস্থিত। বিলটিতে জমির পরিমান প্রায় ২ হাজার ৩০০ বিঘা। এই বিলে কৃষকের উৎপাদিত ফসল ও পণ্য বহনের জন্য রয়েছে একটি মাত্র রাস্তা। দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় একটু বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় রাস্তাটি। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়ে কৃষক।

শনিবার সকালে সরেজমিনে ধলিয়ার বিলে গিয়ে দেখা যায়, স্বেচ্ছাশ্রমে শতাধিক গ্রামবাসী খ- খ- হয়ে চার কিলোমিটার রাস্তা সংস্কারের কাজ করছেন। তারা মাটি কেটে তলিয়ে যাওয়া রাস্তাটির সংস্কার কাজ করছেন। সংস্কার কাজের দেখভাল করছেন, স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন, মৎস্য চাষি ছামিদ মোল্যা, আব্দুল্লাহ বিশ্বাস, মহন সরকার, কৃষক ইউসুফ বিশ্বাস, ইউনুস শিকদার, মারুফ হোসেন, কামল শিকদার প্রমুখ।

এ কাজের উদ্যোক্তা সমাজসেবক ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা শফি কামাল জানান, আমাদের এই ধলিয়ার বিলে আট গ্রামের কৃষক ধান, পাট ও মাছ চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে। বিলে যাতায়াতের একটিই মাত্র রাস্তা। যার দৈর্ঘ্য প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার। রাস্তাটি দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে তলিয়ে যায়। ফলে কৃষক তাদের উৎপাদিত পণ্য বাড়িতে আনতে ও বাজারজাত করতে চরম বিড়ম্বনার শিকার হয়।

স্থানীয় মৎস্য চাষি ও সমাজসেবক নাজিম উদ্দিন মোল্যা জানান, নিজেদের অর্থায়নে স্বেচ্ছাশ্রমে আমরা রাস্তাটির সংস্কারের কাজ শুরু করেছি। ইতোমধ্যে প্রায় দুই কিলোমিটার মাটি ভরাটের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। বাকি কাজ চলমান আছে। রাস্তাটি পাকাকরণ হলে কৃষি ও মৎস্য ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য আসবে এবং চেঙ্গুটিয়া রথখোলা মন্দির সংলগ্ন সড়কের সাথে সংযুক্ত হয়ে যশোর-খুলনা মহাসড়কের সাথে যুক্ত হবে।

প্রেমবাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজ উদ্দিন জানান, ধরিয়ার বিলের রাস্তা সংস্কারের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। অর্থ বরাদ্ধ না পাওয়ায় সংস্কার কাজ করা সম্ভব হয়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাজমুল হুসেইন খাঁন বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। সরেজমিনে গিয়ে রাস্তাটির বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

গ্রামবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কার কাজ করায় সাধুবাদ জানিয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহ্ ফরিদ জাহাঙ্গীর বলেন, বর্তমান সরকার কৃষি বান্ধব সরকার। কৃষকের ভাগ্যেন্নয়নে এ উপজেলায় অর্থ বরাদ্দ হলে রাস্তাটি পাকাকরণ করা হবে বলে তিনি আশ্বাস প্রদান করেন।

শরণখোলা প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি করোনায় আক্রান্ত

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ঃ

বাগেরহাটের শরণখোলা প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি দৈনিক যুগান্তর ও দৈনিক পূর্বাঞ্চল প্রত্রিকার প্রতিনিধি বাবুল দাস (৫৫) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার সকালে তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট শরণখোলায় এসে পৌছালে বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ ফরিদা ইয়াসমিন জানান, বাবুল দাস কয়েকদিন ধরে জ্বর ও মাথা ব্যাথায় ভুগছিলেন। এরপর গত ১৪ জুলাই তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য খুলনার পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। শনিবার সকালে সেখান থেকে তার করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে। বর্তমানে তিনি তার বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেরও নমুনা পরীক্ষার জন্য বলা হয়েছে। বাবুল দাসের সুস্থ্যতা কামনা করেছেন শরণখোলা প্রেসকাবের সভাপতি ইসমাইল হোসেন লিটন, সাধারণ সম্পাদক মহিদুল ইসলামসহ তার সহকর্মী সাংবাদিক ও শুভাকাঙ্খীরা।

শরণখোলায় সাত দিনব্যাপী ফুটবল প্রশিক্ষণ শুরু

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ঃ

বাগেরহাটের শরণখোলায় সাত দিনব্যাপী ফুটবল প্রশিক্ষণ ক্যাম্প শুরু হয়েছে। গত শুক্রবার থেকে রায়েন্দা সরকারি পাইলট হাই স্কুল মাঠে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৪০ জন প্রশিক্ষণার্থী এতে অংশগ্রহন করছে। রায়েন্দা ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দকৃত স্থানীয় সরকার সহায়তা প্রকল্পের (এলজিএসপি) অর্থায়নে প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।

প্রথমদিনে প্রত্যেক অংশগ্রহনকারীর হাতে একটি করে ফলদ গাছের চারা তুলে দিয়ে প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন। রায়েন্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলনের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদ, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আওয়ামীলীগ নেতা এম সাইফুল ইসলাম খোকন প্রমূখ।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) বাগেরহাট প্রতিনিধি অমিত রায় প্রধান প্রশিক্ষক এবং বাফুফের দ্বিতীয় শ্রেণির রেফারি শাহিন পঞ্চায়েত ও শরণখোলার তরুণ খেলোয়াড় আ. কাদের সহকারী প্রশিক্ষক হিসেবে ক্যাম্প পরিচালনা করছেন। প্রতিদিন সকাল-বিকাল দুইবেলা প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হবে।

ফুটবল প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের উদ্যোক্তা রায়েন্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় ছাত্র ও যুবকদের মধ্যে মাদক ও মোবাইল আশক্তি বেড়ে যায়। যুবসমাজ যাতে বিপতগামী না হয় সেই জন্য এই প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এক সপ্তাহর প্রশিক্ষণ শেষে ৪০জনের মধ্য থেকে সেরা ১৮জনকে নিয়ে উপজেলা ফুটবল টিম গঠন করা হবে। শরণখোলা উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক এম সাইফুল ইসলাম খোকন বলেন, করোনার কারণে ক্রীড়াঙ্গনে একটা অচল অবস্থার সৃষ্টি হয়। এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে খেলার মাঠের প্রাণ ফিরে আসবে।

বিপিজেএ খুলনা শাখার দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন বিএফইউজে ও এমইউজে খুলনার একাংশ

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন খুলনার দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি পদে দৈনিক পূর্বাঞ্চল ও দৈনিক সমকালের মো. জাহিদুল ইসলাম, সহ-সভাপতি পদে দৈনিক জন্মভূমির দেবব্রত রায় ও (দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন ও দৈনিক নওয়াপাড়ার বাহাউদ্দিন বাহার, সাধারণ সম্পাদক পদে দৈনিক প্রবর্তনের নাজমুল হক পাপ্পু, যুগ্ম-সম্পাদক পদে দৈনিক জন্মভূমির কাজী ফজলে রাব্বী শান্ত ও পাঠকের পত্রিকার মো. হেলাল মোল্লা, কোষাধ্যক্ষ পদে (দৈনিক তথ্য’র সাগর সরকার, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে দৈনিক খুলনাঞ্চল’র মো. সোহেল রানা, নির্বাহী সদস্য পদে বার্তা ২৪ ডট কম’র মাঞ্জারুল ইসলাম নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন বিএফইউজে ও মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন (এমইউজে) খুলনার একাংশ নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিদাতারা হলেন-এমইউজে খুলনার সভাপতি মো. আনিসুজ্জামান, সহ-সভাপতি এহতেশামুল হক শাওন, সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) আবুল হাসান হিমালয় ও কোষাধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক রানা, বিএফইউজের সাবেক সহ-সভাপতি ড. মো. জাকির হোসেন, সাবেক নির্বাহী সদস্য শেখ দিদারুল আলম ও এহতেশামুল হক শাওন।

মোড়েলগঞ্জ-শরণখোলায় সুন্দরবন লর্ড প্রজাস্বত্ত্ব এস্টেট জারিপ কার্য শুরু

মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি

সুন্দরবন লর্ড প্রজাস্বত্ত্ব এস্টেটের সাবেক সিএস খতিয়ান মোতাবেক বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা উপজেলায় এসএ ও বিআরএস রেকর্ড জরিপ কার্য পরিচালনার জন্য এস্টেটের মালিক সামাদ হাওলাদার জেলা প্রশাসকের বরাবরে আবেদন করেছেন।

আবেদনে প্রেক্ষিতে শনিবার দুপুরে তার অস্থায়ী কার্যালয়ে তিনি জানান, সুন্দরবন লর্ড ১৯২৮ সালের বঙ্গিয় প্রজাতন্ত্র আইনে(সংশোধনী)সিএস জরিপের সকল নামের জেএলনং মৌজার মানচিত্র সিট নক্সার রাইট মোতাবেক নতুনভাবে বিআরএস জরিপ সহ নতুনভাবে বন্দোবস্তের স্বত্বের হস্তান্তর ও প্রচার করতে হবে। আর এ আবেদনের প্রেক্ষিতে তিনি প্রশাসনের সহায়তায় মাইকিং, ব্যানার ও মিডিয়ার মাধ্যমে প্রচারের অনুমতি পান। ইতোমধ্যে এসএ ও বিআরএস রেকর্ড জরিপসহ বন্দোবস্ত স্বত্ত্বের হস্তান্তরের প্রত্রিুয়া পরিচালনার জন্য মাইকিং করেছেন।

সুন্দরবন লর্ড প্রজাস্বত্ত্ব এস্টেটের মালিক দাবিদার আব্দুস সামাদ হাওলাদার জানান, ভূমি অফিস থেকে যেসব মিউটেশন দেয়া হচ্ছেতা সিএস খতিয়ান মোতাবেক দেয়া হচ্ছেনা। যা সম্পূর্ণ অবৈধ। এসএ রেকর্ড দিয়ে যেসব মিউটেশন ও রেজিষ্ট্রি করা হচ্ছে তা অবৈধ। সুন্দরবন লর্ড প্রজাস্বত্ত্ব এস্টেটের নামে নামজারীর জন্য প্রায় ১৪শ’ সদস্য প্রশাসনের মাধ্যমে আবেদন  করেছে।

পাইকগাছার লতায় বৈদ্যুতিক সামগ্রী বিতরণ

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক লতা ইউনিয়নের আবাসন প্রকল্পের ৬৬ পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে বিদ্যুুৎ সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে। শনিবার বেলা ১১ টায় আবাসন প্রকল্পের সভাপতি জলিল গাজীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বিদ্যুৎ সামগ্রী বিতরন করেন লতা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান কাজল কান্তি বিশ্বাস। উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য আলমগীর খলিফা, লতা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য দিলীপ রায়, মদন মহন মন্ডল, আজিজ সরদার, আশুতোষ মন্ডল, সুবোধ সরদার, জগোবন্ধু সরকার, হরিচাদ শিকারী, উত্তম মন্ডল, পরিমল মন্ডল, লিটন গাজী, মিজান সানা, অমৃত সরদার প্রমূখ

করোনা সচেতনতায় শৈলকুপায় সাংবাদিক পুলিশ ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের শৈলকুপা প্রেসকাবের উদ্যোগে ও মানবাধিকার কর্মী ও সমাজ সেবক শাহিবুল ইসলাম (এশিয়া)”র সহযোগিতায় জনগনের মাঝে অতীমারি করোনা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরীর এক ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে।

শনিবার সাপ্তাহিক হাটের দিন সাধারণ জনগনের মাঝে করোনার ছোবল থেকে বাঁচতে ও সুরক্ষা পেতে কি কি করণীয় সে বিষয়ে জনসাধারণকে সচেতন করা হয়। এ ছাড়াও মাস্ক বাদে হাটে আগত জনসাধারণ কে মাস্ক বিতরণ করা হয় এবং মাস্ক ছাড়া বাইরে বের না হতে অনুরোধ করা হয়। প্রেসকাব সভাপতি এম হাসান মুসা ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন আক্তার পলাশের নেতৃত্বে এ কার্যক্রমে আরো উপস্থিত ছিলেন শৈলকুপা থানার এস আই আমিরুজ্জামান ও প্রেসকাবের সদস্যবৃন্দ। উপজেলার পুলিশ ও সাংবাদিকদের শত ব্যাস্ততার পাশাপাশি এ ধরনের উদ্যোগকে সচেতন মহল সাধুবাদ জানিয়েছে।

ঝিনাইদহে ২৩ কিলোমিটার রাস্তা নির্মানে ঘাপলা: ইউএনও কাজ বন্ধ করে দিলেও গায়ের জোরে করছেন ঠিকাদার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের ডাকবাংলাবাজার ত্রীমোহনী থেকে কালীগঞ্জ পর্যন্ত ২৩ কিলোমিটার সড়ক ও ২১২ মিটার আর,সি,সি পাকা  ড্রেন নির্মাণে চরম অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নি¤œমানের কাজের খবর পেয়ে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বদরুদোজা শুভ রাস্তা ও ড্রেনের নির্মান কাজ বন্ধ করে দেন। কিন্তু একদিন না যেতেই উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশ অমান্য করে সেই কাজ শুরু করেছে ঝিনাইদহ সড়ক ও জনপথ বিভাগ ও ঠিকাদার। এ নিয়ে এলাকায় চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বদরুদ্দোজা শুভ জানান, সরোজমিন পরির্দশনে দেখেছি অত্যান্ত নিন্মমানের রড, পাথর, বালি সিমেন্ট ব্যবহার করে সড়কটির পাশে ড্রেন নির্মাণ করা হচ্ছে। ঘটনাস্থল থেকে আমি ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জিয়াউল হায়দারের মোবাইল ফোন করে বিষয়টি জানালে তিনি আমাকে সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলীর সাথে কথা বলতে বলেন। ইউএনও বলেন, আমি তাৎক্ষনিক ভাবে নির্মান কাজ বন্ধ করে দিয়েছি। ইউএনও অবিযোগ করেন, আমার নির্দেষ অমান্য করে সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মুকুল জ্যোতি বসু ও ঠিকাদার মিলে আবারো নিন্মমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ শুরু করেছেন। এদিকে ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মুকুল জ্যোতি বসু অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সিডিউল মোতাবেক নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, পিএমপি প্রকল্পের অধিন ঝিনাইদহের ডাকবাংলাবাজার-কালীগঞ্জ সড়কের ২৩ কিলোমিটার মজবুতি করণসহ ওয়ারিং কোর্সের কাজ চলছে।

খুলনার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মোজাহার এন্টারপ্রাইজ প্রাইভেট লিমিটেড কাজটির প্রকৃত ঠিকাদার। তবে কাজটি করছেন ঝিনাইদহের ঠিকাদার মিজানুর রহমান মাসুম। এ সড়কটির নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ২০ কোটি টাকার উপরে। তিনি বলেন সড়কের পানি নিস্কাশনের জন্য ডাকবাংলা বাজার এলাকায় ২১২ মিটার আরসিসি পাকা ড্রেন নির্মাণ করা হচ্ছে। এ কাজের জন্য আলাদা ভাবে প্রায় ২৯ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। ড্রেনটি নিমার্ণ কাজের জন্য আমিনুল হক এন্টার প্রাইজ নামের অপর এক ঠিকাদারকে নিয়োগ করা হয়েছে। উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মুকুল জ্যতি বসু জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজ বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। তবে তার দাবি সড়কের পাশে স্তুপ করে রাখা নিন্মমানের পাথরসহ নির্মাণ সামগ্রী আগে থেকেই বাতিল ঘোষনা করা হয়েছে। ডাকবাংলা বাজারের মানুষ অভিযোগ করেছেন, ডাকবাংলা ত্রীমোহনি থেকে কালীগঞ্জ সড়ক নির্মানের সময় ট্রাকটর দিয়ে রাস্তায় চাষ করা হয়েছে। সড়কে ব্যবহার করা হচ্ছে নিন্মমানের রাবিস ইটের খোয়াসহ ধুলা-বালি। গত ( ২০১৯-২০)অর্থ বছরে কাজটি শুরু করা হয়েছে। অনুসন্ধানে জানা যায় ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের ওর্য়াক চার্জ (অস্থায়ী) হিসেবে এক কর্মচারীকে দিয়ে এসও এর কাজ করানো হচ্ছে। এ কারণে সড়ক বিভাগের প্রায় সকল কাজই দুর্ণীতি করা হচ্ছে।

৭ সন্তান নিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে এক মা, নেই মাথা গোঁজার ঠাঁই

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

জঙ্গলে ঘেরা খালের ধারে নড়বড়ে বাড়িতে ৬ সন্তান নিয়ে বসবাস রাবেয়া খাতুনের। বাড়িতে প্রবেশের রাস্তা নেই। নেই বাড়িতে বিদ্যুৎ সযোগ। অনিরাপত্তায় বসবাস। একে একে ছয় মেয়ে সন্তানের পর এক ছেলে সন্তান যেন এই দুঃখি পরিবারের সব কষ্ট ভুলিয়ে দিয়েছে। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের হতদরিদ্র এই পরিবারের বসবাস। স্বামী শামসুল ইসলামের কিছুই নেই। পিতার দেওয়া ভিটেবাড়িতে ৭ সন্তান নিয়ে থাকেন রাবেয়া খাতুন। অতি কষ্টের সংসার তার। প্রায় দিন ঘরে খাবার থাকে না। ৭ সন্তানের মুখে খাবার তুলে দিতে হিমশিম খান দিনমজুর শামসুল। সকালে কাধে গামছা, হাতে দা নিয়ে গ্রামে গ্রামে ঘুরে নারকেল গাছ সাফ করেন। কোন দিন কাজ হয় আবার কোন দিন হয় না। এদিকে স্ত্রী রাবেয়া খাতুন পিতার বাড়িতেই বাচ্চাকাচ্চা সামলান। কখনো সন্তানের মুখে দুমুঠো ভাত তুলে দিতে পরের বাড়িতে ঝি এর কাজ করেন। রাবেয়া খাতুন জানান, আগে লক্ষিপুর আবাসন প্রকল্পের ঘরে বসবাস করতেন। এখন আর করেন না। এদিকে আম্ফান ঝড়ে তাদের বসবাস করার একমাত্র ঘরটি ভেঙ্গে গেছে। সন্তান নিয়ে নিজ ঘরে বসবাস আর বেঁচে থাকার লড়াই করতে করতে পরিবারটি এখন কান্ত। তাদের দূরাবস্থার জানতে পেরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গান্না ইউনিয়ন বিচিত্রা রাবেয়ার দুগ্ধপোষ্য শিশুকে প্রয়োজনীয় ওষুধ ও খাবার পৌছে দিয়েছে। তবে এই সহায়তা পরিবারটির জন্য খবুই অপ্রতুল। বেঁচে থাকার জন্য তাদের সরকারী সহায়তা প্রয়োজন। রাবেয়া খাতুন জানান, “আমাগের ঘড়ডা যদি কেও ভাল করে দিত, আর কিছু নগদ টাকা পাইতাম তবে ৭ সন্তান নিয়ে বাঁচতে পারতাম। এ ব্যাপারে গান্না ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন মালিথা জানান, এমন পরিবারের খোঁজ আমাকে কেও দেয়নি। কারণ আমি গান্না ইউনিয়নের প্রতিটি অসহায় দুস্থ পরিবারকে সরকারী কার্ড করে দিয়েছি। তিনি পরিবারটি খুজে বের করে আর্থিক সহায়তা করবেন বলে জানান। পরিবারটির সাথে যোগাযোগঃ মামুন সোহাগ, শিক্ষার্থী ও সংবাদকর্মী চন্ডিপুর, গান্না ০১৮৮৬৫৭৯৩৩৩।

কোটচাদপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে বিআরবি কর্মকর্তার মৃত্যু: নতুন আক্রান্ত ৩৪ জন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের কোটচাদপুর উপজেলার কুশনা ইউনিয়নের মামুনশিয়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে আলাউদ্দিন (৩০) নামের এক বিআরবি কর্মকর্তা করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে। গত ১৫ ই জুলাই করোনা উপসর্গ নিয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসাপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি হন তিনি। চিকিৎসারত অবস্থায় শনিবার ভোর রাতে তিনি মারা যান। এছাড়াও জেলায় নতুন করে করোনায় আরও ৩৪ জন আক্রান্ত হয়েছে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য মতে জানা যায়, শনিবার করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত আলাউদ্দিনের করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে।

ঝিনাইদহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক আব্দুল হামিদ খান জানান, করোনা উপসর্গ মৃত ব্যক্তির জানাজা শেষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন গঠিত কমিটির সদস্যগণ তার লাশ দাফন সম্পন্ন করেছে। এনিয়ে জেলায় ২৬ টি লাশ দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

খুলনার রূপসায় ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করতে গিয়ে নষ্ট করছে সরকারী রাস্তা, ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি

রূপসা প্রতিনিধি

রূপসায় প্রভাব ঘাটিয়ে ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করতে গিয়ে নষ্ট করছে সরকারী রাস্তা। চলাচলে হচ্ছে বাধাগ্রস্থ। কে শুনে কার কথা। এব্যাপারে এলাকাবাসি বাধা প্রদান করলেও হুমকি দিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ঘাটভোগ ইউনিয়নের  সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইউনুচ আলী শিকদার। যান চলাচল বন্ধ করে ব্যক্তিগত কাজ করায় স্থানীয়রা পড়েছে বিপাকে।

সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়,রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের  আলাইপুর গ্রামের শেখ পাড়া হয়ে পুটিমারি অভিমুখে পিচের রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন শত শত লোক চলাচলা করে।রাস্তায় শত লোক চলাচল করলেও আজ কাউকে দেখা যায় না চলাচল করতে। রাস্তাটি বন্ধ থাকায় কয়েক কিলোমিটার ঘুরে কর্মক্ষেত্রে যেতে হচ্ছে এলাকাবাসিকে। গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি নষ্ট হওয়ার ফলে হতাশার মধ্যে রয়েছে এলাকাবাসি। এছাড়া আলাইপুর-তেরখাদা প্রধান সড়ক দিয়ে চলাচলের ও হয়েছে ঝুকিপূর্ণ। পরিবহনে করে ভাটায় মাটি আনা নেওয়ার ফলে রাস্তায় পড়ে তা কাদাযুক্ত হয়েছেন। যে কারনে এই ব্যস্ততম রাস্তা দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে গিয়ে ঘটছে প্রতিনিয়ম ছোট বড় দূর্ঘটনা। ভাটার পাশের জমি থেকে মাটি নেওয়ার ফলে রাস্তা ধসে পড়েছে। অপর দিকে আলাইপুর গ্রামে ওয়াবদা সরকারী রাস্তা দখল করে নিমার্ণ করেছে ইবিএম ইটভাটা। এমনকি চলেগেছে হিন্দু সম্প্রদায়ের পূজা দেওয়ার স্থানটিও।

আলাইপুর কলেজের পাশ দিয়ে পুটিমারি অভিমুখে ইটের সলিং রাস্তাটিও দিলে ফেলেছে ইউনুচ আলী শিকদার। ক্ষত বিক্ষত করেছে শিকদারের ইট ভাটায় চলাচলের এ রাস্তাটি। ইটভাটার গাড়ি চলাচলের কারনে আজ রাস্তায়  ইটের পরিবর্তে রয়েছে মাটি। যার কারনে রাস্তাটি দিয়ে চলাচল করতে পারছে না কেউ।

রাস্তাটির এই অবস্থার কথা ভাটা মালিক ইউনুচ আলী শিকদারের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন,মাটি নেওয়া শেষ হলে রাস্তাটি মেরামত করে দিব। যান চলাচল বন্ধ রাখার কথা বললে সঠিক কোন উত্তর দিতে পারেনি।

এ ব্যাপারে স্থানীয় বাসিন্দা কামরুজ্জামান জুয়েল বলেন, ইউনুচ আলী শিকদার প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়ায় সরকারী রাস্তা নষ্ট করে যাচ্ছে। তার ভয়ে এলাকায় কেউ কথা বলতে চাই না। রাস্তা নষ্ট হওয়ার ফলে জনগনের দূভোর্গেও শেষ নেই। উপজেলা প্রশাসনকে জানার পরও কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

তবে উপজেলা প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান বলেন,  বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে রাস্তা নষ্ট করার অধিকার তার নেই। তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন আকতার বলেন, কেউ সরকারী রাস্তা নষ্ট করলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না। বিষয়টি সরোজমিন পরিদর্শন করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মনিরামপুরের রফিকুল হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন

মণিরামপুর প্রতিনিধি

মণিরামপুরে চাঞ্চল্যকর রফিকুল ইসলাম (৫০) হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনের দাবি করেছে পুলিশ।

‘ঘটনায় জড়িত’ কথিত পাঁচ চরমপন্থীকে গ্রেফতারের পর যশোরের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন শনিবার দুপুরে তার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানিয়েছেন।

গত ৯ জুলাই দুপুরে সন্ত্রাসীরা রফিকুলকে গুলি করে ও কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী শিরিনা আক্তার অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মণিরামপুর থানায় মামলা (নম্বর ০৬/০৯.০৭.২০২০) করেন।

পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন বলেন, মামলাটি চাঞ্চল্যকর ও লোমহর্ষক হওয়ায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ, কোতয়ালী, অভয়নগর ও মণিরামপুর থানা যৌথ অভিযান পরিচালনা করে শুক্রবার অভয়নগর ও মণিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে হেলাল ভূঁইয়া (২০), মো. সেলিম (২২), হাসান আলী, সমীরণ পাঁড়ে (৫৪) ও তাপস মোড়ল (৩৮) নামে পাঁচজনকে গ্রেফতার করে। একইসঙ্গে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত একটি দোনলা বন্দুক, দুই রাউন্ড কার্তুজ ও তাদের ব্যববহৃত পাঁচটি মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার করা হয়।

তিনি জানান, গ্রেফতারকৃতরা নিজেদের চরমপন্থী সংগঠন ‘নিউ পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি’র সদস্য পরিচয় দিয়ে এলাকায় ঘের দখল, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্ম করে আসছে। নিহত রফিকও একসময় তাদের সদস্য ছিলেন। ঘটনার দিন তাকে টাকা ও মোবাইল ফোন সেট দেওয়ার কথা বলে পরিকল্পিতভাবে ঘটনাস্থলে ডেকে এনে গুলি করে ও গলা কেটে হত্যা করে সহযোগীরা।

গ্রেফতার পাঁচজনকে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেওয়ার জন্যে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানানো হয়।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যদের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম, সালাহউদ্দিন শিকদার, ডিবি পুলিশের ইনসপেক্টর মারুফ আহমেদসহ পুলিশ অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন।

গত ৯ জুলাই দুপুরে মণিরামপুর উপজেলার কুচলিয়া এলাকায় নৃশংসভাবে খুন করা হয় রফিকুল ইসলামকে। তিনি একই উপজেলার মধুপুর গ্রামের আমারত বিশ্বাসের ছেলে।

যশোরে নতুন ৭১জনের করোনা শনাক্ত

যশোর অফিস

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারে শনিবার যশোর জেলায় ২০২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৬৭টি পজেটিভ রিপোর্ট শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া খুলনা মেডিকেল থেকে শনিবার ৪টি পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে।

এনিয়ে যশোর জেলার মোট ২০৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ৭১টি পজেটিভ ফল পাওয়া যায়। শনিবার সিভিল সার্জন অফিস থেকে ২০৬টি নমুনা রিপোর্টের ভিত্তিতে ৭১টি পজেটিভ রিপোর্ট নিশ্চিত হওয়া গেছে।

যশোরের যে ২০৬টি নমুনা পজেটিভ ফল দিয়েছে তার মধ্যে সদর উপজেলার ৩৯টি, অভয়নগর উপজেলার ৭ টি, কেশবপূর ১টি, চৌগাছা উপজেলায় ৫টি, ঝিকরগাছা উপজেলায় ৯টি,মনিরামপুর ১টি, শার্শা উপজেলায় ৯টি, নতুন করে পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা.আবু মাউদ বলেন, আজ ২০৬টি নমুনার মধ্যে নতুন ৭১জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত। স্থানিয় প্রশাসন করোনা পজেটিভ শনাক্ত ব্যাক্তি দের ঠিকানা শনাক্ত করে আইনগত ব্যাবস্থা নেবেন।

মহেশপুরে মাতৃভাষা গনগ্রন্থাগারের ১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ

হাটি হাটি পা পা করে এম কে টুটুলের ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় অজপাড়াগায়ে গড়ে ওঠা প্রতিষ্ঠিত মাতৃভাষা গনগ্রন্থগারটি আজ ১৯তম বছরে পদার্পন করেছে।

সে উপলক্ষে শুক্রবার বিকালে জাতীয় সংগিতের মধ্য দিয়ে লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কালুহুদা গ্রামে গনগ্রন্থগার প্রাঙ্গনে ১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃক্ষ রোপন কর্মসুচী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃক্ষ রোপন কর্মসুচী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাতৃভাষা গনগ্রন্থগারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম কে টুটুল, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি ও সাহিত্যিক দীপক সাহা,অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহেশপুর সাহিত্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক নিখিল পাল,বাথানগাছী বিদ্যাকানন গনগ্রন্থগারের সহ-সভাপতি হারুন আর রশিদ,আলমগীর হসেন ও আরিফুজ্জান বিপাশ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও গনগ্রন্থগারের পাঠকদের মাঝে বিভিন্ন ধরনের গাছের চারা বিতরন করা হয়।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন গনগ্রন্থগারের ক্রিড়া ও সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক হাসানুর রহমান।   

অ্যাওসেড পরিবারের শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনার কৃতি সন্তান, গণমানুষের নেতা, সংগঠক, রাজনীতিবীদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, পাইকগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী  মৃত্যুতে অ্যাওসেড’র চেয়ারম্যান মো: রফিকুল ইসলাম খোকন, অ্যাওসেড’র নির্বাহী পরিচালক  শামীম আরফীন, ট্রেজারার নূরুল ইমাম খান ও অ্যাওসেড পরিবারের সকল কর্মীরা এক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করেছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা, গাজী মোহাম্মদ আলী খুলনার নিজস্ব বাসভবনে ৪/৫ দিন জ্বরে ভুগছিলেন। অবস্থার অবনতি হলে খুলনার গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা টেস্ট করতে দেন। করোনার রিপোর্ট আসার আগেই ১৭ জুলাই ২০২০ তারিখ বিকাল ৪.৩০ মিনিট এ স্ট্রোক করে মৃত্যুবরন করেন। পরে বসুপাড়া কবর স্থানে দাফন করা হয়। বিবৃতিতে প্রয়াত গাজী মোহাম্মদ আলী  এর শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ ও সমবেদনা জানানো হয়।

খুলনা চেম্বারের অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন

খবর বিজ্ঞপ্তি

মামনীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে খুলনায় একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় এ সংক্রান্ত আইনের খসড়া অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে ‘শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আইন, খুলনা-২০২০’ এর নীতিগত অনুমোদন দেওয়ায় খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালনা পরিষদ  এতদাঞ্চলের সকল শ্রেণীর ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বাংলাদেশের চিকিৎসা ক্ষেত্রে উচ্চশিক্ষা, গবেষণা, সেবার মানোন্নয়ন এবং সুযোগ-সুবিধা সম্প্রসারণে সরকার যুগোপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তারই অংশ হিসেবে খুলনা জেলায় এই মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হচ্ছে। চিকিৎসা শিক্ষায় উচ্চ শিক্ষিত বিশেষজ্ঞ ও গবেষক তৈরি করার লক্ষ্যে স্নাতকোত্তর পর্যায়ের চিকিৎসা শিক্ষা, গবেষণা এবং স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় মেডিকেল কলেজগুলোর শিক্ষার মান সংরক্ষণ ও উন্নয়নই প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মূখ্য উদ্দেশ্য হবে; এছাড়াও খুলনা বিভাগে উন্নত চিকিৎসা সেবা সম্প্রসারিত হবে বলে আশা প্রকাশ করে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর স্বর্ণকন্যা জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি কাজি আমিনুল হক, উর্দ্ধতন সহ-সভাপতি শেখ আসাদুর রহমান, সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, সহ-সভাপতি মোঃ মোস্তফা জেসান ভুট্টো, পরিচালকবৃন্দ গোপী কিষণ মুন্ধড়া, এম এ মতিন পান্না, জেড এ মাহামুদ ডন, এস এম ওবায়দুল্লাহ, আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, ঠাকুর মোঃ শাহ্ আলম, জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), মোঃ সিরাজুল হক, কাজী মাসুদুল ইসলাম, আলহাজ্ব মোঃ মোশাররফ হোসেন, শেখ আল্লামা ইকবাল তুহিন, মোঃ আবুল হাসান, দীপক কুমার দাস, মোঃ ইসলাম খান, উজ্জ্বল কুমার গাঙ্গুলী, শেখ মোঃ গাউসুল আজম, খান সাইফুল ইসলাম, মোঃ মনিরুল ইসলাম মাসুম, মোঃ মাহবুব আলম, চৌধুরী মিনহাজ উজ জামান।       

খুলনা চেম্বারের শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

মহামান্য রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট মোঃ আবদুল হামিদ এর ছোট ভাই ও তার সহকারী একান্ত সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবদুল হাই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকাস্থ সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) এ চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৬জুলাই, ২০২০ তারিখ দিবাগত আনুমানিক রাত ০১:১৫ টায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। তিনি অত্যন্ত সদালাপী, মিষ্টভাষী ও দানশীল ছিলেন। তার এ মৃত্যুতে খুলনার সর্বস্তরের ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে খুলনা চেম্বারের সভাপতি কাজি আমিনুল হক, উর্দ্ধতন     সহ-সভাপতি শেখ আসাদুর রহমান, সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, সহ-সভাপতি মোঃ মোস্তফা জেসান ভূট্টো, পরিচালকবৃন্দ গোপী কিষণ মুন্ধড়া, এম এ মতিন পান্না, জেড এ মাহামুদ ডন, এস এম ওবায়দুল্লাহ, আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, ঠাকুর মোঃ শাহ্ আলম, জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), মোঃ সিরাজুল হক, কাজী মাসুদুল ইসলাম, আলহাজ্ব মোঃ মোশাররফ হোসেন, শেখ আল্লামা ইকবাল তুহিন, মোঃ আবুল হাসান, দীপক কুমার দাস, মোঃ ইসলাম খান, উজ্জল কুমার গাঙ্গুলী, শেখ মোঃ গাউসুল আজম, খান সাইফুল ইসলাম, মোঃ মনিরুল ইসলাম মাসুম, মোঃ মাহবুব আলম ও চৌধুরী মিনহাজ¦-উজ-জামান এবং খুলনা চেম্বারের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করে তার রুহের মাগফেরাত কামনা এবং মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

পাইকগাছা উপজেলা চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে ডুমুরিয়া উপজেলা আ’লীগের শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান নেতা পাইকগাছা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন ডুমুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতা নেতৃবৃন্দ হলেন সাবেক মন্ত্রী ডুমুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শাহনেওয়াজ হোসেন জোয়াদ্দার, মোকলেছুর রহমান বাবলু, এ বি এম শফিকুল ইসলাম, এড. রবিন্দ্রনাথ মন্ডল, মোস্তফা কামাল খোকন, আবু সাঈদ সরদার, আলহাজ্ব শেখ হেফজুর রহমান, শেখ নাজিবুর রহমান, কাজী নুরুল ইসলাম, সরদার আবু সালেহ, প্রভাষক জি এম ফারুক হোসেন, কাজী আলমগীর হোসেন, গোপাল চন্দ্র দে, শোভা রানী হালদার, গাজী তৌহিদ, সরদার আব্দুল গনি, মঞ্জুর রশিদ রনো, এড. কামরুল আহসান, মোল্লা সোহেল রানা, নুর আহম্মেদ মুকুল, এস এম জাহাঙ্গীর আলম , আছফার হোসেন জোয়দ্দার, শওকত শেখ প্রমুখ।

ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের নবনির্বাচিতদের ওয়ার্কার্স পার্টির অভিনন্দন

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, খুলনা শাখার নবনির্বাচিত সভাপতি মোঃ জাহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক পাপ্পুসহ সকলকে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, খুলনা জেলা ও মহানগর কমিটির পক্ষে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন Ñ খুলনা জেলা সভাপতি কমরেড এড. মিনা মিজানুর রহমান, মহানগর সভাপতি কমরেড শেখ মফিদুল ইসলাম, জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড আনসার আলী মোল্লা, মহানগর সাধারণ সম্পাদক কমরেড এস এম ফারুখ-উল ইসলাম।

পাইকগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী’র মৃত্যুতে ওয়ার্কার্স পার্টির গভীর শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, মুক্তিযোদ্ধা গাজী মোহম্মদ আলী’র মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, খুলনা জেলা ও মহানগর কমিটির পক্ষে খুলনা জেলা সভাপতি কমরেড এড. মিনা মিজানুর রহমান, মহানগর সভাপতি কমরেড শেখ মফিদুল ইসলাম, জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড আনসার আলী মোল্লা, মহানগর সাধারণ সম্পাদক কমরেড এস এম ফারুখ-উল ইসলাম।

দাকেপে ভূমিদস্যু কর্তৃক ভূমি দখলের পায়তারা

স্টাফ রিপোর্টার

দাকোপের কৈলাশগঞ্জ ইউনিয়নের হরিণটানা গ্রামের চিত্তরঞ্জন বিশ্বাসের জমি অনিতা সরকার ও তার সহযোগিতার দখল করে নেওয়ার পায়তারা করছে। চিত্তরঞ্জন বিশ্বাসের নামে গত ১২ জুলাই খুলনা প্রেসকাবে মিথ্যা অভিযোগ এনে অনিতা সরকার এক সংবাদ সম্মেলন করে। এ সম্মেলনে উত্থাপিত অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় খুলনা প্রেসকাবের হুমায়ুন কবির বালু মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে চিত্তরঞ্জন বিশ্বাসের পুত্র জ্যোতিপ্রকাশ বিশ্বাস এ অভিযোগ করে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন হরিণটানা মৌজার সিএস-১২৮ নং খতিয়নে তৎপর ২০ নং খতিয়ানের ১২.৫৫ একর জমি নিয়ে সিনিয়র সহকারি জজ সদর আদালতে দেঃ ১৫৬/০১ নং মোকদ্দমার রায় ডিক্রী হতে দেঃ আদেশ ১০৯/৬ নং মোকদ্দমায় গত ২০০৮ সালের ১১ মে চিত্তরঞ্জন বিশ্বাস ডিক্রীপ্রাপ্ত হন। এ রায়ের বিরুদ্ধে অনিতা সরকার মহামান্য হাইকোর্টের সিভিল রিভিশন ২৭৮৫/০৮ নং মোকদ্দমা দায়ের করেন। যা বিচারাধিন রয়েছে।

তিনি সম্মেলনে বলেন, চিত্তরঞ্জন বিশ্বাস খুলনার প্রথম মুনসেফী আদালতের ১৩৭/১৯৪৩ নং খাজনা মোকদ্দমার ডিক্রী আনতে জারী ১১১/১৯৪৪ নং মামলায় চিত্তরঞ্জন বিশ্বাসের ঠাকুর দাদা দ্বারিকানাথ বিশ্বাস নিলাম খরিদ করে ভোগদখল করছেন।  ১৯১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি অনিতা সরকারে নামীয় মিস নামপত্তন মামলা বাতিল হয়ে যায়। গত ১২ জুলাই অনিতা সরকার সংবাদ সম্মেলনে যে সকল অভিযোগ করেছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন। ভূমিদুস্য অনিতা সরকার ও তার সহযোগীরা জোরপূর্বক আমাদের জমি দখল করার চেষ্টা করছেন। তিনি পরিবারগণের স্বত্বদখলীয় বাস্তবাড়ী ভূমিদুস্যদের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য প্রশাসনে প্রতি জোর দাবি জানান।

এসময় চিত্তরঞ্জন বিশ্বাস, তপন বিশ্বাস ও সুকান্ত বর্মন উপস্থিত ছিলেন।

সাংবাদিক লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার

নগরীর হরিণটানা থানা এলাকায় দৈনিক অনির্বাণ সাংবাদিক অমলেন্দু বিশ্বাসকে মাদক ব্যবসায়িরা লাঞ্চিত করে তার কাছে থাকা ছিনতাই করে নিয়েছে। ঘটনার সপ্তাহ পার হলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে আটক করতে পারে নি। গতকাল শনিবার দুপুর ১২টায় খুলনা প্রেসকাবের হুমায়ুন কবির বালু মিলনায়তনে তিনি এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন।

সম্মেলনে তিনি বলেন, ২০১৯ সালে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ি বিকাশ কুমার দে ওরফে আঙ্গুল কাটা বিকাশ র‌্যাবের সাথে বন্ধুক যুদ্ধে নিহত হবার পর এই মাদক ব্যবসার দায়িত্ব গ্রহণ করে বটিয়াঘাটা উপজেলার উত্তর শৈলমারি গ্রামের তার নিত্যানন্দ বৈরাগী ও তার সহযোগি অমল মন্ডল, অনিন্দ বৈরাগী ও রবীন্দ্রনাথ মল্লিক। গত ১২ জুলাই ২০২০ রবিবার বিকাল ৫টায় জয়খালী গ্রামে নিজ বাড়ীর হতে খুলনায় আসার পথে হরিণটানার ঘোলা নামক স্থালে পৌছালে এই মাদকব্যবসায়ীরা পুর্ব শত্রুতার জের ধরে তার মোটর সাইকেলের গতি রোধ করে বেধরক মারধর এবং তার কাছে থাকে জমি রেজিস্ট্রি করার ১লাখ ৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এর নের্তৃত্ব দেয় নিত্যানন্দ বৈরাগী। এ ঘটনায় হরিণটানা থানায় ঐদিন রাতে ৪জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করলেও এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি। আসামীরা অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন ভয়-ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। এসময়  শেখ সাইফুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

সাবেক হুইপ আশরাফ হোসেনের মৃত্যুতে সেনপাড়া জহির উদ্দিন গণবিদ্যাপিট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শোক

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

জাতীয় সংসদের মাবেক হুইপ, খুলনা ৩ আসনের সাবেক এমপি ও সেনপাড়া জহির উদ্দিন গণবিদ্যাপিট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা মোঃ আশরাফ হোসেনর মৃত্যুতে স্কুল কমিটি শিক্ষক শিক্ষিকা ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিবৃতি দিয়েছেন, কেসিসি ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্কুল কমিটির সভাপতি আলহাজ¦ মোঃ শাহাবুদ্দিন আহম্মেদ, কাউন্সিলর মোঃ সাইফুল ইসলাম, সহ-সভাপতি আব্দুল জলিল হাওলাদার, প্রধান শিক্ষক তাসলিমা খাতুন,মোঃ শাহজাহান মাষ্টার, মোস্তাফিজুর রহমান মানিক, শাহানা আক্তারসহ সকল শিক্ষক প্রতিনিধি।

সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের শোক বিবৃতি

খবর বিজ্ঞপ্তি

১৯ নং ওয়ার্ড আওয়মীলীগের সভাপতি মোঃ জাহিদুল হকের মাতা রিজিয়া বেগম (৮২) ব্রেইন স্ট্রোক করে আজ বিকাল আনুমানিক ৪ঃ১৫ মিনিট সময় খুলনা ডক্টরস পয়েন্টে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।ইন্নালিলাহ………………রাজিউন।তার মৃত্যুতে শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানিয়ে শোক বিবৃতি প্রদান করেন সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতি দাতারা হলেন সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা তসলিম আহম্মেদ আশা,শাহজাহান পারভেজ, মোঃ আমির হোসেন, মোঃ মোজাফফার হোসেন, জান্নাতুল ফেরদৌস পিকুল, রফিকুল ইসলাম পিটু, জাহাঙ্গির আলী মন্টু, আঃ কাইয়ুম গোরা, এস এম রাজুল হাসান রাজু, এস এম কবির উদ্দিন বাবলু, টি এম আরিফ, কাউন্সিলর আমেনা হালিম বেবী, শরীফ এনামুল কবীর, মোক্তার হোসেন, এজাজ পারভেজ বাপ্পি, কামরুজ্জামান, এড এনামুল হক, আলী আকবর, মোঃ রুহুল আমীন খান, এড শামীম আহম্মেদ পলাশ, আইয়ুব আলী, মেহেজাবিন খান, তোতা মিয়াঁ ব্যাপারী, ইঞ্জিনিয়ার আঃ জব্বার, খাজা মঈনুদ্দিন, শিপন চৌধুরী, খান হুমায়ুন কবীর, এড সোহেল পারভেজ, তৌহিদুর রহমান দিপু, শাহাদাৎ হোসেন, মঈন খান সেলিম, কাজী রকিবুল হক পলাশ, আসাদুজ্জামান মিলটন, নাসরিন ইসলাম, হায়দার আলী খোকন, মোঃ রাজ্জাক হোসেন, আরজুল ইসলাম আরজু, মুন্সি আইয়ুব আলী, চম মুজিবুর রহমান, শেখ নুর ইসলাম, শেখ আবিদ উলাহ, শেখ আব্দুল আজিজ,মোঃ জাহিদুল ইসলাম,সরদার আঃ হালিম,শেখ হাসান ইফতেখার চালু, ইউসুফ আলী খান, হাজি মোতালেব মিয়াঁ, শেখ রুহুল আমিন, মীর মোঃ লিটন, জাকির হোসেন হাওলাদার,রেজাউল করিম, মোঃ সবুর হোসেন,শেখ কুদ্দুস হোসেন, মহাদেব সাহা, মোস্তাক আহম্মেদ টুটুল, সোহেল চৌধুরী, আলী রেজা হায়দার রনি, আনিসুর রহমান, মীর মাসুদ আলী, রকিবুল ইসলাম রকি, এম এম সিপার হায়দার, শেখ সিদ্দিকুর হক, মোঃ মামুন উকিল, মাহবুব মম, জিয়াউর রহমান বাবু সাহেব, এড রাকিবুল ইসলাম, এ এম আল মামুন চৌধুরী, এস এম মনির হোসেন, মশিউজ্জামান খান মশি, এড জসিমউদ্দিন খান লিটন প্রমুখ।

২৪নং ওয়ার্ড আ’লীগ সাবেক দপ্তর সম্পাদকের মৃত্যু নেতৃবৃন্দের শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

২৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক শেখ মো. জাহিদ আলী (৫৫) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে ……….. রাজেউন)। নানাবিধ জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন অসুস্থ্য থেকে তিনি গতকাল শনিবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে এক মেয়ে আত্মীয় স্বজন ও অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। শেখ জাহিদ আলী মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মঈনুল ইসলাম নাসির, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান রাজু, যুবলীগ নেতা কাজী কামাল হোসেন শোকাহতদের পাশে যান। সেখানে নেতৃবৃন্দ সেখানে নেতৃবৃন্দ কিছু সময় অবস্থান করেন। পরে নেতৃবৃন্দ জাহিদ আলী জানাযায় অংশগ্রহণ করেন। মরহুমের নামাজে জানাযা বাদ এশা বাগমারা চেয়ারম্যান বাড়ি জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা শেষে মরহুমকে নিরালা কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে জাহিদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক, শোকাহত পরিবারে প্রতি সমবেদনা ও মরহুমের বিদহীার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল এমপি, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী।