পাতানো খেলা রোধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি বাফুফের

3
Spread the love

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ফুটবল কেবল বিনোদনই নয়, বিশাল বাণিজ্যও। করোনাভাইরাস বিশ্ব ফুটবলকে দাঁড় করিয়েছে বড় এক চ্যালেঞ্জের মুখে। খেলা ঠিকমতো না হওয়ায় অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তায় বিশ্বের বড় বড় কাবও।
করোনা পরবর্তীতে ফুটবল শুরু হলে নিজেদের অর্থনৈতিক ক্ষতি কাটিয়ে তুলতে সক্রিয় হতে পারে ফুটবলের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দুষ্টচক্র। নানা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ফুটবলের নীতিকে নষ্ট করতে সক্রিয় হতে পারে তারা। যা নিয়ে শঙ্কিত ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ফিফাও। দুষ্টচক্র যাতে ফুটবলের সততা নষ্ট করতে না পারে, সে বিষয়ে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) ইতিমধ্যেই সদস্য দেশগুলোকে সতর্ক থাকতে এবং কিছু গাইডলাইন মেনে চলার নির্দেশনা দিয়েছে। তাই বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) পরবর্তী মৌসুমে পাতানো খেলা রোধে ‘জিরো টলারেন্স নীতি’ অবলম্বনের ঘোষণা দিয়েছে।
এএফসির গাইডলাইন প্রসঙ্গে বাফুফের সিনিয়র সহসভাপতি ও প্রফেশনাল লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আবদুস সালাম মুর্শেদী বলেছেন, ‘করোনাভাইরাস মহামারি ফুটবল অঙ্গনকে এক চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করিয়েছে। এর মধ্যে পাতানো খেলার মাধ্যমে ফুটবলের সততা নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি অন্যতম। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ফুটবল খেলা বিঘ্ন হওয়ায় যে অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে, তাতে ফুটবল খেলা ম্যানুপুলেশন করার জন্য বিভিন্ন সিন্ডিকেট এই সুযোগ নেয়ার চেষ্টা করবে।’
করোনার পর খেলা শুরু হলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাতানো খেলা বেড়ে যেতে পারে আশঙ্কা করছে সবাই। যে কারণে পুনরায় ফুটবল মাঠে গড়ালে পাতানো খেলা রোধের চেষ্টা প্রত্যেকটি ফেডারেশনের দায়িত্ব বলে মনে করছে এএফসি। সদস্য দেশগুলোকে নিজ নিজ ঘরোয়া ফুটবল খেলা পরিচালনার ক্ষেত্রে পাতানো খেলা রোধকল্পে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসরণ করার নির্দেশনা দিয়েছে এশিয়ার ফুটবলের অভিভাবক সংস্থাটি। খেলোয়াড় ও সংগঠকসহ ফুটবল খেলার সাথে সংশ্লিষ্টদের কিছু নৈতিক দায়বদ্ধতামূলক পরামর্শ দিয়েছে এএফসি। বাফুফের সিনিয়র সহসভাপতি জানিয়েছেন, সেই পরামর্শগুলোর মধ্যে রয়েছে-ফুটবল খেলার সাথে সংশ্লিষ্ট কোনো খেলোয়াড়-কর্মকর্তা খেলার ফলাফলকে অনৈতিকভাবে প্রভাবিত করার চেষ্টা করবে না।
ফুটবলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা কোনো প্রকার বেটিংয়ে নিজে অথবা অন্য কাউকে উৎসাহিত করবে না। ফুটবল খেলার সাথে সংশ্লিষ্ট কেউ নিজের অথবা অন্যের সুবিধার জন্য এমন কোনো তথ্য প্রকাশ করবে না যাতে ফুটবলের সততা নষ্ট হয়।

স্প্যানিশ লা লিগা চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মঞ্চটা প্রস্তুতই ছিলো। অপেক্ষা ছিলো রিয়াল মাদ্রিদের শিরোপা হাতে নেয়ার আনুষ্ঠানিকতা। ঘরের মাঠে ভিয়ারিয়ালকে হারাতে কোন ভুল করেনি সার্জিও রামোসের দল। যার ফলে দুই বছর পর স্প্যানিশ লা লিগার শিরোপা জিতে নিয়েছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।
বৃহস্পতিবার রাতে রিয়ালের সমীকরণটা ছিলো জিতলে আজই নিশ্চিত শিরোপা, হারলে বা ড্র করলে অপেক্ষা করতে হবে রোববার রাতের ম্যাচের। দ্বিতীয় কোন পথের জন্য অপেক্ষা করেনি স্পেনের সফলতম কাবটি। ভিয়ারিয়ালকে ২-১ গোলে হারিয়েই নিজেদের ৩৪তম লিগ শিরোপা নিশ্চিত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ।স্পেনের সফলতম কাব তারা আগেই ছিল। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার (২৬) চেয়ে ৭টি বেশি লিগ শিরোপা জেতা ছিল তাদের। চলতি মৌসুমের লা লিগা জিতে ব্যবধানটা আরও বাড়িয়ে নিল লস ব্লাঙ্কোসরা। ঘরের মাঠে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচে শুরু থেকেই জয়ের জন্য বাড়তি উদ্যমী দেখা যায় রিয়ালকে। মিনিট দশেকের মধ্যেই তৈরি করে দুইটি দারুণ সুযোগ। তবে কাজে লাগাতে পারেনি সেগুলো। ফলে পাওয়া হয়নি গোল, বাড়তে থাকে অপেক্ষা। সেই অপেক্ষা বেশি বাড়তে দেননি ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা। ম্যাচের ২৯ মিনিটে লুকা মদ্রিচের পাস থেকে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে চলতি লিগে নিজের ২০তম গোলটি করেন এ ফরাসি তারকা। পরে তার পা থেকেই আসে জয়সূচক গোলটিও। ম্যাচের ৭৭ মিনিটের সময় করা গোলটি ছিল ঘটনাবহুল। ডি-বক্সের মধ্যে রামোস ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় রিয়াল। স্বভাবতই শট নিতে এগিয়ে যান রামোস। তবে তিনি গোলবারে না মেরে আলতো টোকায় পাস বাড়িয়ে দেন বেনজেমার উদ্দেশ্যে, সেটি জালেও জড়ান বেনজেমা। কিন্তু প্রতিপক্ষের আপত্তির মুখে বাতিল হয়ে যায় গোলটি। কেননা রামোস শট করার আগে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন বেনজেমা। ফলে আবার নিতে হয় পেনাল্টি শট। এবার স্পটকিক নেন বেনজেমা নিজেই। লিগে নিজের ২১তম গোলের মাধ্যমে দলের জয়টাও একপ্রকার নিশ্চিত করে ফেলেন তিনি।
তবে ম্যাচের শেষদিকে উজ্জীবিত ফুটবল খেলতে শুরু করে ভিয়ারিয়াল। ৮৩ মিনিটের সময় একটি গোল শোধ করেন ভিসেন্তে ইবোরা। এর মিনিট পাঁচেক পর জোড়া সুযোগ নষ্ট করে তারা। না হয় বাড়তে পারতো রিয়ালের শিরোপার অপেক্ষা। তা হয়নি। ফলে ম্যাচ শেষে শিরোপা উল্লাসে মাতে স্পেনের রাজধানীর কাবটি।

বাছাইয়ে চ্যাম্পিয়ন নিয়াজ মোর্শেদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

কিছু দিন আগেই হয়ে গেছে এশিয়ান অনূর্ধ্ব-২০ জুনিয়র অনলাইন দাবা চ্যাম্পিয়নশিপ। অনলাইনে এবার সিনিয়র দাবাড়ুদের নিয়েও হচ্ছে বয়সভিত্তিক এই প্রতিযোগিতা। সেখানে বাছাইপর্বে সাফল্যের দেখা পেয়েছেন বাংলাদেশের দাবাড়ুরা। এশিয়ান জোন-৩.২-এর বাছাই পর্বের ঊর্ধ্ব-৫০ গ্রুপে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন বাংলাদেশের প্রথম গ্র্যান্ডমাস্টার নিয়াজ মোর্শেদ।
গতকাল শুক্রবারের র‌্যাপিড পদ্ধতির এই প্রতিযোগিতায় নিয়াজ ৭ খেলাতে পেয়েছেন সাড়ে ছয় পয়েন্ট। একই গ্রুপে নেপালের ছত্রি রাম বাহাদুর পাঁচ পয়েন্ট নিয়ে রানার-আপ হয়েছেন। আর বাংলাদেশের মো. মহসিন জামাল ৫ পয়েন্ট নিয়ে হয়েছেন তৃতীয়। এছাড়া ওপেন বিভাগে ঊর্ধ্ব-৬৫ গ্রুপের বাছাইয়ে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক মহিলা মাস্টার রানী হামিদ রানার-আপ হয়েছেন। তার অর্জন ৭ খেলাতে ৬ পয়েন্ট। এই বিভাগে চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তানের মুহাম্মদ আফজাল মেনগান।

আজ খুলছে মিরপুর স্টেডিয়াম

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত প্রশিক্ষণের জন্য আজ শনিবার থেকে খুলে যাচ্ছে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
কয়েকদিন আগে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘শনিবার থেকে ক্রিকেটাররা প্রশিক্ষণ শুরু করতে পারে। আমরা তাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ প্রস্তুত করেছি।’ তিনি আরো বলন, ‘ব্যক্তিগত প্রশিক্ষণে কতজন ক্রিকেটার অংশ নেবে আমরা তা জানার চেষ্টা করছি। এটা পরিকল্পনা সাজাতে কাজে দেবে। এখন থেকে ক্রিকেটাররা শুধু তাদের ফিটনেস নিয়ে কাজ করতে পারবে এবং আমরা সেজন্য সবকিছু প্রস্তুত করেছি।’

এএফসি কাপের সেরা পাঁচে জীবনের গোল

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক ফুটবল অঙ্গনে সাফল্য পেয়েছে আবাহনী লিমিটেড। বাংলাদেশের প্রথম কাব হিসেবে এএফসি কাপের জোনাল সেমিফাইনালে খেলেছে ঐতিহ্যবাহী কাবটি। এই প্রতিযোগিতায় দলটির স্ট্রাইকার নাবীব নেওয়াজ জীবনের গোল জায়গা পেয়েছে সেরার তালিকায়।
ফিক, ট্রিকস ও ব্যাকহিলের ওপর ভিত্তি করে গত কয়েক বছরের সেরা পাঁচ গোল নির্বাচন করেছে এএফসি। এরমধ্যে রয়েছে জীবনের গোল। ২০১৯ সালে ১৭ এপ্রিল ভারতের মিনার্ভা পাঞ্জাবের বিপক্ষে গোলটি করেছিলেন আবাহনী স্ট্রাইকার। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ওই ম্যাচটি ড্র হয়েছিল ২-২ গোলে। ম্যাচের ২০ মিনিটে হাইতির কেরভেন্স বেলফোর্টের কাটব্যাক থেকে জীবন ব্যাকহিল থেকে করেছিলেন বুদ্ধিদীপ্ত গোলটি। এর আগে এএফসি কাপে মামুনুল ইসলাম ও সোহেল রানার গোল জায়গা পেয়েছিল সেরার তালিকায়।

নারী ক্রীড়াবিদ সান্তানকে ১০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

ক্রীড়া প্রতিবেদক

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার সংগ্রামী নারী ক্রীড়াবিদ সান্ত¡না রানী রায়কে (৩৬) ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার বিকেলে নিজ কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তার হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।
ক্রীড়াবিদ সান্ত¡না রানী রায় উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের হরিদাস গ্রামের সুবাশ চন্দ্র রায় ও যমুনা রানী রায় দম্পতির মেয়ে। তিনি তায়কোয়ান্দোর আন্তর্জাতিক আসরে বেশ কয়েকটি পুরস্কার অর্জন করে খ্যাতি অর্জন করেন। ২০১১ সালে প্রথমবারের মতো জাতীয় আইটিএফ তায়কোয়ান্দো চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিয়ে রৌপ্য পদক পান সান্ত¡না। এরপর ২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত পাঁচটি আসরে স্বর্ণ জিতে নিজেকে দেশসেরা প্রমাণ করেন তিনি। এভাবে টানা সাফল্যের পর জায়গা করে নেন বিশ্বকাপ দলে। ২০১৭ সালে উত্তর কোরিয়ায় অনুষ্ঠিত ২০তম বিশ্ব তায়কোয়ান্দো প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ব্রোঞ্জ পদক অর্জন করেন। এ ছাড়াও ৫টি ঘরোয়া প্রতিযোগিতা ও দুটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ৫টি স্বর্ণ এবং একটি করে রৌপ্য ও ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছেন সংগ্রামী এ নারী ক্রীড়াবিদ।

প্রয়াত ক্রিকেটার কাজলের পরিবারের পাশে খুলনার ক্রিকেটাররা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সদ্য প্রয়াত খুলনা জেলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক কাজী রিয়াজুল ইসলাম কাজলের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে ক্রিকেট ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন (কোয়াব) খুলনা শাখার নেতৃবৃন্দ। বৃহস্পতিবার কোয়াব খুলনার নেতৃবৃন্দ কাজলের মা রোকেয়া বেগম, সন্তান ফাহমিদা এবং স্ত্রী আফরিনা আক্তারের হাতে আর্থিক অনুদানের টাকা তুলে দেন। খুলনার ক্রিকেটাররা নিজস্ব উদ্যোগে এ টাকা সংগ্রহ করেন।
এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কোয়াব খুলনার সভাপতি জিয়াউর রহমান জনি, সহ-সভাপতি সগির হোসেন পাভেল, রবিউল ইসলাম রবি, নাহিদুল ইসলাম ও আফিফ হোসেন ধ্রুব, সাধারণ সম্পাদক নুরুল হাসান সোহান, যুগ্ম সম্পাদক মেহেদী হাসান মিরাজ, মেহেদী হাসান, শাহেদ আদনান ও আল ইমরান, কোষাধ্যক্ষ অমিত মজুমদার, অফিস সম্পাদক আসলাম খান, সহ-অফিস সম্পাদক আরাফাত হোসেন, প্রকাশনা সম্পাদক মাহমুদুল হাসান সেতু প্রমুখ।

ইংল্যান্ডের ইনিংসে হঠাৎ ধস

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বেন স্টোকস আর ডম সিবলি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের রীতিমত কাঁদিয়ে ছাড়ছিলেন। সেখান থেকে দারুণভাবে লড়াইয়ে ফিরেছে ক্যারিবীয়রা। ৩ উইকেটে ৩৪১ থেকে হঠাৎ ধসে ৭ উইকেটে ৩৯৫ রানে পরিণত হয়েছে ইংল্যান্ড। অর্থাৎ ৫৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়েছে জো রুটের দল।
ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে ইংল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে মুখে চওড়া হাসি ফুটেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের। টেস্টের বৃষ্টিবিঘিœত প্রথম দিনের প্রথম দুই সেশনে যে ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের বেশ বিপদের মুখেই রেখেছিলেন ক্যারিবীয় বোলাররা। ২৯ রানে ২ আর ৮৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল ইংল্যান্ড। চতুর্থ উইকেটে এসে সব হিসেব নিকেশ নিমেষেই পাল্টে দেন ডম সিবলি আর বেন স্টোকস। আগের দিনই হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন দুজন। ৩ উইকেটে ২০৭ রান নিয়ে প্রথম দিন শেষ করে স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় দিনে দুজনই পেয়েছেন সেঞ্চুরি। তাতে বড় সংগ্রহের পথটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ডের। কিন্তু ফের কাঁটা বিছিয়ে দিলেন ক্যারিবীয় বোলাররা। স্টোকসের সঙ্গে ২৬০ রানের জুটি গড়া ডম সিবলিকে হারানোর পরই বিপদ শুরু হয় ইংলিশদের।

এসএসসির চেয়ারম্যান হলেন মাহেলা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শ্রীলঙ্কান গ্রেট মাহেলা জয়াবর্ধনের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শুরুর ব্রেক দিয়েছিল সিংহলিজ ক্রিকেট কাব (এসএসসি)। ১৭ বছর বয়সে কাবটির হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে পদচারণা শুরু হয় জয়াবর্ধনের। এবার সেই কাবের চেয়ারম্যানের গুরুদায়িত্ব দেওয়া হলো শ্রীলঙ্কান এই কিংবদন্তিকে।
শ্রীলঙ্কা ঘরোয়া ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল দল সিংহলিজের এই কাবটি। দেশটির ঘরোয়া ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ৩২ বার প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতেছে এসএসসি। এই কাবের মাধ্যমে শ্রীলঙ্কা দল পেয়েছে অসংখ্য প্রতিভাবান ক্রিকেটার। তবে সর্বশেষ ২০১৬-১৭ মৌসুমের পর শিরোপার দেখা নেই কাবটিতে। আর তাই জয়াবর্ধনের কাছে দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে।

অক্টোবরেই স্টেডিয়ামে দর্শক

ক্রীড়া প্রতিবেদক

করোনাকালে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ মাঠে গড়ালেও তাতে নেই কোনও দর্শক। এমনকি ক্রিকেটও চলছে বন্ধ স্টেডিয়ামে। তবে নতুন মৌসুমে সেই বিধিনিষেধ হয়তো থাকবে না। শুক্রবার এমনই ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ইংল্যান্ডে দর্শকরা স্টেডিয়ামে ফিরতে পারবেন অক্টোবর থেকেই।
অক্টোবর থেকে দর্শকদের ফেরানোর আগে পরিস্থিতি কেমন হতে পারে তার একটা পরীক্ষা চালানো হবে বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী, ‘স্টেডিয়ামে আমরা ১ আগস্ট থেকে পরীক্ষামূলকভাবে বৃহৎ আকারে দর্শকদের জড়ো হতে দিবো। এমনটা করার উদ্দেশ্যই হচ্ছে শরতে যেন আরও ব্যাপক আকারে স্টেডিয়ামগুলো উন্মুক্ত করা যায়।’ পরীক্ষামূলক প্রকল্পের আতওায় স্বল্প সংখ্যক টুর্নামেন্টে দর্শকদের প্রবেশের অনুমতি থাকবে। সেগুলো হলো- কাউন্টি ক্রিকেটের দুটি প্রীতি ম্যাচ, বিশ্ব স্নুকার চ্যাম্পিয়নশিপ ও গুডউডের ঘোড় দৌড় উৎসব।

অবসরে বিশ্বকাপজয়ী তারকা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বয়স মাত্র ২৯ বছর। ফুটবলারদের অনেকে এই বয়সে এসে ক্যারিয়ারের সেরা সময় পার করেন। অথচ জার্মানির আন্দ্রে শুর্লে কিনা পেশাদার ফুটবল থেকে অবসর নিলেন ২৯ বছর বয়সেই।
তিনি ২০১৪ সালে জার্মানির বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্যও ছিলেন। ২০১৪ বিশ্বকাপ ফাইনালে তার পাস থেকেই গোল করে আর্জেন্টিনার হৃদয় ভেঙে জার্মানিকে বিশ্বকাপ এনে দিয়েছিলেন মারিও গোটজে। বর্তমানে জার্মানির কাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে খেলছিলেন এই জার্মান ফরোয়ার্ড। সিগন্যাল ইদুনা পার্কের কাবটির সঙ্গে আরও এক বছর চুক্তি বাকি ছিল শুর্লের। কিন্তু পারস্পরিক সমঝোতায় সেটা শেষ করে দিচ্ছে দুই পক্ষই। এরপর পেশাদার ফুটবলকেই বিদায়ের ঘোষণা দিয়েছেন শুর্লে।

ইংল্যান্ডকে হারাতে আত্মবিশ্বাসী আয়ারল্যান্ড

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শক্তিতে এগিয়ে থাকা দলকে আগেও হারিয়েছে আয়ারল্যান্ড। নিজেদের সেরাটা খেলতে পারলে এবারও না পারার কোনো কারণ নেই। সামর্থ্যরে পুরোটা দিতে পারলে ওয়ানডে সিরিজে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হারানোর সুযোগ দেখছেন আইরিশ অধিনায়ক অ্যান্ড্রু বালবার্নি।
সাউথ্যাম্পটনে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ওয়েন মর্গ্যানের দলের মুখোমুখি হবে আয়ারল্যান্ড। ২০২৩ সালের বিশ্বকাপ বাছাই প্রক্রিয়ার অংশ এই সিরিজ। বালবার্নির কাছে তাই এবারের ইংল্যান্ড সফর পাচ্ছে বাড়তি গুরুত্ব। এখন পর্যন্ত ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০ ওয়ানডে খেলে একটিতে জিতেছে আয়ারল্যান্ড। একটি ম্যাচ হয়েছে পরিত্যক্ত। ইংল্যান্ড জিতেছে বাকি আটটি। ইংল্যান্ড-আয়ারল্যান্ডের সিরিজটি শুরু হবে আগামী ৩০ জুলাই। বাকি দুটি ম্যাচ হবে ১ ও ৪ অগাস্ট। সবগুলি ম্যাচই হবে সাউথ্যাম্পটনের ‘জীবাণুমুক্ত’ পরিবেশে।