খুলনায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে মোট নিহত ৪

2
Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার

মহানগরীর আটরা-গিলাতলা ইস্টার্ন গেট এলাকায় দু’গ্রুপে সংঘর্ষে গুলিতে আহত আরও দু’জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। এ নিয়ে  ৪ জন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মশিয়ালী গ্রাম জুড়ে থমথম পরিবেশ বিরাজ করছে।

খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, গুলিবিদ্ধ সাইফুল ইসলাম (২৭) ও জিহাদ (৫০) খুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ঘটনার সময় গণপিটুনিতে আহত হয়েছিলেন জিহাদ। এর আগে নজরুল ইসলাম (৬০) ও গোলাম রসুল (৩০) গুলিতে নিহত হয়। আহত বাকিরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

হত্যাকারী সন্দেহে মশিয়ালী গ্রামে জাকারিয়া, জাফরিন ও মিলটনের বসতবাড়ি এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জ্বালিয়ে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। রাতে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ ও  স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মলিয়ালী গ্রামের এক ব্যক্তিকে  গুলিসহ আটক করে পুলিশ। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সন্ধ্যার পর কয়েকজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। রাত সোয়া ৮টার দিকে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে ছাত্রলীগের জাফরিন, তার ভাই জাকারিয়া এবং মিল্টনের মশিয়ালীর বাড়িতে হামলা হয়। এ সময় জাফরিন গ্রুপের সঙ্গে গ্রামবাসীর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এক পর্যায়ে এক পক্ষের এলোপাতাড়ি গুলিতে ৯ জন আহত হয়। এর মধ্যে নজরুল ইসলাম, গোলাম রসুল ও সাইফুল ইসলাম মারা যান।

স্বজনদের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশে গুলি রেখে মজিবর শেখ নামের একজনকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় প্রতিপক্ষরা।  ওই ঘটনার জের ধরে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে হাতাহাতি হয়। এ সময় প্রতিপক্ষের অস্ত্রধারীরা গুলি চালালে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

তারা আরও জানায়, মশিয়ালী আলিয়া মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচনে খানজাহান আলী থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক জাকারিয়া সভাপতি পদে পরাজিত হন। এ ঘটনার জের ধরে স্থানীয়দের সঙ্গে বিরোধ বাধে। ঘটনাস্থলে তিনি ও তার ছোট ভাই জাফরিন এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করেন।

নিহত নজরুল ইসলামের আত্মীয় তাসাদ্বর আলী বলেন, ‘সভাপতি নির্বাচনে হেরে গিয়ে আমার খালু (নজরুল) ও এলাকার কয়েকজনকে জীবনে শেষ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন। সেটাই পূরণ করলো ঘাতকরা।’

কেএমপি’র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার সোনালী সেন বলেন, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।