সারা খুলনা অঞ্চলের খবর

19
Spread the love

চুয়াডাঙ্গায় র‌্যাবের অভিযানে ৯৫০ গ্রাম গাঁজাসহ গ্রেফতার ১

স্টাফ রিপোর্টার

চুয়াডাঙ্গা সদর থানাধীন সরোজগঞ্জ নতুন ভান্ডার দোয়ার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৯৫০ গ্রাম গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। ১৪ জুলাই সকাল পৌনে ৯টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন চুয়াডাঙ্গা সদর থানাধীন সরোজগঞ্জ নতুন ভান্ডার দোয়ার এলাকার মো. আবু তালেব মিয়ার ছেলে মো. রিয়াজ আলী (১৯)।

র‌্যাব-৬ জানায়, চুয়াডাঙ্গা সদর থানাধীন সরোজগঞ্জ নতুন ভান্ডার দোয়ার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় ৯৫০ গ্রাম গাঁজাসহ রিয়াজ আলীকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

খুলনায় মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বৃহত্তর আমরা খুলনাবাসীর অভিনন্দন

খবর বিজ্ঞপ্তি 

বিভাগীয় শহর খুলনায় স্থাপিত হচ্ছে ‘শেখ হাসিনা মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়’।   ১৩ জুলাই মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি জ্ঞাপনের পর অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভা বিভাগের সম্মেলন কক্ষে বিটিভিকে দেওয়া এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

বৃহত্তর আমরা খুলনাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল খুলনায় মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের। সে দাবি পুরণ হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছন বৃহত্তর আমরা খুলনাবাসীর নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দরা হলেন সংগঠনের সভাপতি ডা. মো. নাসির উদ্দিন, সহ-সভাপতি জিএম মহিউদ্দিন, আলহাজ্ব ইমতিয়াজ আলি খোকন, ডা. সৈয়দ মোসাদ্দেক হোসেন বাবুল, কবি সৈয়দ আলি হাকিম,   এ্যাড. আমিনুল ইসলাম মিঠু, আ. সালাম আকন শিমুল, মো. সিরাজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান খোকন, যুগ্ম-সম্পাদক মোহাম্মদ আলি, ডা. আব্দুস সালাম, হেদায়েত হোসেন হিদু, এম এ জলিল ও মো. মনির হোসেন,  সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাকিল আহমেদ রাজা, ইসরাত হারা হিরা, সাজেদা ইসলাম, মুন্সি আহমেদ হোসেন, আবুল ফজল, সবুজুল ইসলাম, জমসের আলি খান খোকন, মিকাইল হোসেন, মোস্তাফিজ শেখ, আরিফ আহমেদ, ফিরোজ আহমেদ, মাসুদুল হক, বিপ্লব, আলাউদ্দিন প্রমুখ।      

মোংলায় ত্রাণ বিতরণে নৌবাহিনীর সহায়তা প্রদান

খবর বিজ্ঞপ্তি

মঙ্গলবার  করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সদস্যরা দায়িত্বপূর্ণ এলাকাসমূহে টহল, জীবাণুনাশক ছিটানো, অসহায় ও দরিদ্রের ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌছানোসহ জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসের সংক্রমণরোধে উপকূলীয় অঞ্চলের উপজেলাসমূহে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা প্রদান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সর্ম্পকিত বিভিন্ন ব্যানার স্থাপন, সাধারণ জনগণের মাঝে লিফলেট বিতরণ এবং জনসচেতনতামূলক বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে নৌ সদস্যরা। কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধকল্পে চলমান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ও বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে মোতায়েনকৃত নৌ কন্টিনজেন্ট বরগুনা জেলা সদর, বামনা ও বেতাগী ইউনিয়নে সচেতনতামূলক টহল পরিচালনা করে। উপজেলাসমূহের বিভিন্ন এলাকায় করোনা প্রতিরোধ সর্ম্পকিত ১৮০টি লিফলেট বিতরণ করে। অপরদিকে নৌবাহিনী কন্টিনজেন্ট মোংলা উপজেলার সোনাইতলা, দিগরাজ বাজার, বুড়িরডাঙ্গা, আপাবাড়ি, হাসপাতাল চত্ত্বর, ফেরিঘাট এলাকায় নিয়মিত সচেতনতামূলক টহল প্রদান করে। উপজেলাসমূহের বিভিন্ন স্থানে  কোভিড-১৯ প্রতিরোধমূলক লিফলেট বিতরণ করে। সোনাইতলা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ১৮৩টি দরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা প্রদান করে। পাশাপাশি সাধারণ জনগণকে কমপক্ষে ৩ ফুট সামাজিক দূরত্ব নিশ্চতকরণ, গণপরিবহন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরকারী নীতিমালা অনুসরণ এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়ে মাস্ক ব্যবহার করতে বলা হয়।

করোনায় মৃত্যু নেতৃবৃন্দে মাগফেরাত এবং অসুস্থ্য নেতৃবৃন্দের সুস্থতা কামনায় জেলা ও মহানগর আ’লীগের দোয়া

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় সভাপতি ম-লীর সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যথাক্রমে মোহাম্মদ নাসিম এমপি, সাহারা খাতুন এমপি, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, কেন্দ্রিয় সদস্য বদরউদ্দিন কামরান-এর আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জাতীয় কমিটির সদস্য এ্যাড. শেখ মো. নুরুল হক, এ্যাড. রজব আলী সরদার, এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সরদার শাহাবুদ্দিন জিপ্পি, শেখ আলী আকবর, কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, এ্যাড. জেসমিন সুলতানা জলি, কামরুল ইসলাম টিপু, এ্যাড. কে এম ইকবাল, এ্যাড. এনামুল হক, এ্যঅড. লিয়াকত আলী মোল্লা, এ্যাড. মো. সাইদুর রহমান টুটুল, জামাল উদ্দিন বাচ্চু’র সুস্থ্যতা কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টায় খুলনা জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ে এ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মোল্লা জালাল উদ্দিন-এর সভাপতিত্বে দোয়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়মী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী। মহানগর আওয়ামী লীগ সাবেক দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগের পরিচালনায় দোয়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড. কাজী বাদশা মিয়া, বি এম এ সালাম, সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, কামরুজ্জামান জামাল, এ্যাড. ফরিদ আহমেদ, জোবায়ের আহমেদ খান জবা, এ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান, রফিকুর রহমান রিপন, মোকলেসুর রহমান বাবলু, এ্যাড. শাহ আলম, অধ্যা. আশরাফুজ্জামান বাবুল, মালিক সরোয়ার উদ্দিন, এ্যাড. আব্দুল লতিফ, চৌধুরী রায়হান ফরিদ, অজিত বিশ্বাস, ফরিদ রানা, জামিল খান, পারভেজ হাওলাদার, মো. ইমরান হোসেন, মো. আব্দুল আজিজ সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী।

পল্লীবন্ধু এরশাদের প্রথম মৃত্যৃবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন মসজিদে দোয়া-দরুদ পাঠ ও তবারক বিতরণ

খবর বিজ্ঞপ্তি

৯ বছরের সফল সাবেক রাষ্ট্রপতি, বাংলাদেশের উন্নয়নের কারিগর, রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের প্রবর্তক, উপজেলা-গুচ্ছগ্রাম প্রতিষ্ঠাকারী, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাতা জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার জাপা’র কেন্দ্রীয় সদস্য ও খুলনা মহানগর জাতীয় পার্টি’র সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য এ্যাড. এস এম মাসুদুর রহমানের উদ্যোগে খুলনা সদর ও সোনাডাঙ্গার বিভিন্ন মসজিদে পল্লীবন্ধুর আত্মার মাগফেরাত কামনায় আছর বাদ দোয়া-দরুদ পাঠ করা হয় এবং দোয়া শেষে তোবারক বিতরণ করা হয়। এ সময়ে বিভিন্ন মসজিদে উপস্থিত ছিলেনÑজাতীয় পার্টি খুলনা মহানগর নেতা শাহ মোঃ লায়েক উল্লাহ, মোঃ কালাচাঁন, এস এম দেলোয়ার হোসেন, বাবুল হাসান রাজু, মোঃ জামির হোসেন, বাবুল বিশ্বাস, মেঃ জমির উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন লালু, এ্যাড. খন্দকার মোঃ মহসিন, মোঃ মনির হোসেন, অমিত হাসান অয়ন, আল আমিন আমান, ছাত্র নেতা অপু রায়হান, কবির হোসেন, আবুল খায়ের, বাবুল হাওলাদার, মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন, আলাউদ্দিন মুন্সী, লতিফ ফারাজিম হানিফ শেখ প্রমুখ।

নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে প্লাটফরম গঠন

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনায় নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ, বাল্যবিবাহ এবং শিশু নির্যাতন বন্ধে খুলনা মহানগর প্লাটফরম গঠন করা হয়। প্লাটফরম গঠন অনুষ্ঠানটি মঙ্গলবার সকালে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা রূপান্তরের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আমেনা হালিম বেবি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রূপান্তরের নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার গুহ। অতিথিরা বলেন, নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে নারী-পুরুষ সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। করোনাকীলন এ দুর্যোগের সময়ে অনেকে তাদের কাজ হারিয়ে মানসিকচাপে ভুগছেন। গৃহবন্দী অবস্থায় অনেক পরিবারে নারী ও শিশু নির্যাতনের প্রবণতা বেড়ে চলেছে। সংকটকালীন এই সময়ে কর্মহীন মানুষগুলোকে আবার অর্থনৈতিক কর্মকান্ডের সাথে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমেও নারী ও শিশু নির্যাতন হ্রাস করা সম্ভব হবে বক্তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা রূপান্তর, আভাস ও রাইটস যশোর যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এ প্লাটফরম নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে নারী ও শিশুদের শারীরিক, যৌন, মানসিক এবং অন্যান্য নির্যাতন এবং বৈষম্য থেকে রক্ষা ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সামাজিক সংগঠনগুলোর সাথে সমন্বয় করে কাজ করবে। দেশের বিদ্যমান আইন ও নীতিমালায় কোন সীমাবদ্ধতা থাকলে তা খুঁজে বের করা এবং নাগরিকদের পরামর্শ নিয়ে নীতিনির্ধারকদের সাথে জেলা পর্যায়ে অ্যাডভোকেসির আয়োজন করাও এই প্লাটফরমের অন্যতম উদ্দেশ্য। প্লাটফরমের কার্যক্রমগুলো টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার পাঁচ নম্বর গোল অর্জনে ভূমিকা রাখবে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন রূপান্তরের ইনফরমেশন অফিসার এমএ হালিম। সভায় মাসাস’র নির্বাহী পরিচালক অ্যাডভোকেট শামীমা সুলতানা শিলুসহ সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তা, আইনজীবী, শিক্ষক, ইমাম, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও গণমাধ্যমকর্মীরা অংশ নেন। পরে খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল ফিতা কেটে রূপান্তরের করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক প্রচার কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

কেএমপি সদর দপ্তরে দুস্বার বাংলাদেশের পক্ষ হতে করোনা ভাইরাস সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান

খবর বিজ্ঞপ্তি

কোভিড-১৯ চলমান এই মহামারিতে দেশের গণ-মানুষের সুরক্ষা ও সু-সাস্থ নিশ্চিতকরণে জনসাধারণকে নিরাপদে রাখেতে যারা দিন রাত অকান্ত পরিশ্রম করে করোনা দুর্যোগ কালিন সময়ে জনসাধারণকে সামনে থেকে আগলে রেখে এক বিরল উদাহরন সৃষ্টি করেছেন সে সকল পুলিশ সদস্যবৃন্দের সেবায় , দুঃস্থ স্বার্থ রক্ষা (দুস্বার) বাংলাদেশের উদ্যোগে  একদল তরুণন সেচ্ছাসেবক এর পক্ষ থেকে মঙ্গলবার সকালে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে কেএমপি  কমিশনার জনাব খন্দকার লুৎফুল কবির মহোদয়ের পক্ষ্যে ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর) জনাব, মোহাম্মদ এহসান শাহ্ এবং সহকারী পুলিশ কমিশনার জনাব সালাউদ্দিন এর নিকট করোনা ভাইরাস সুরক্ষা সামগ্রী হস্তান্তর করেন দুস্বার বাংলাদেশ এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মোয়াম্মের আব্দুল্লাহ, দপ্তর সম্পাদক মামুনুর রহমান ও নির্বাহী সদস্য আবুল বাশার।

পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যৃবার্ষিকী জাপা খুলনা জেলা ও মহানগরের উদ্যোগে পালিত

খবর বিজ্ঞপ্তি

মঙ্গলবার সাবেক রাষ্ট্রপতি, বাংলাদেশের উন্নয়নের কারিগর, জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী জাতীয় পার্টি খুলনা জেলা ও মহানগরের উদ্যোগে দিনব্যাপী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয়। প্রয়াত পল্লীবন্ধু এরশাদ স্মরণে পার্টির ডাকবাংলাস্থ কার্যালয়ে কোরআন খতম এবং মাগরিব বাদ কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও খুলনা জেলা জাপা’র সভাপতি শফিকুল ইসলাম মধুর সভাপতিত্বে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক আলোচনা সভায় অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেনÑজাপা’র কেন্দ্রীয় সদস্য ও জেলা সাধারণ সম্পাদক এম হাদিউজ্জামান, কেন্দ্রীয় সদস্য এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন, এড. এস এম মাসুদুর রহমান, তোবারক হোসেন তপু, এস এম এরশাদুজ্জামান ডলার, আব্দুল ওয়াদুদ মোড়ল, জাপা নেতা শেখ সাদি, তৈমুর হোসেন শাহীন, জি এম বাবুল, অধ্যাপক গাউসুল আজম, শাহাজাহান আলী সাজু, প্রিন্স হোসেন কালু, মোল্লা সাইফুল ইসলাম, দেশ আহমেদ রাজু, বাবুল বিশ্বাস, আলাউদ্দিন ফকির, জমির উদ্দিন, এজাজ আহমেদ, শহিদ হাওলাদার, মাজহার জোয়ার্দ্দার পান, অমিত হাসান অয়ন, গাজী মোশারফ হোসেন, মিণ্টু হাওলাদার, কামাল আকন্দ, মোঃ নূরুল হক, আফতাব হোসেন, ছাত্র নেতা অপু রায়হান প্রমুখ। বক্তারা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জীবনের বিভিন্ন কর্মকা-ের উপর আলোচনা করেন। আলোচনা শেষে তাঁর আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয় এবং তাবারক বিতরণ করা হয়।

স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠকারী শাহজাহান সিরাজের ইন্তেকাল : বিএনপির শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠকারী, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, স্বাধীনতাপুর্ব ছাত্র রাজনীতির কিংবদন্তি ব্যক্তিত্ব ও বিএনপির সাবেক বন ও পরিবেশ মন্ত্রী শাহজাহান সিরাজ ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না…..রাজিউন)। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছিলেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

শাহজাহান সিরাজ ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি তিন বার জাসদের মনোনয়নে এবং এক বার বিএনপির মনোনয়নে সংসদ সদস্য নিবাচিত হয়েছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় যাদের ‘চার খলিফা’ বলা হতো শাহজাহান সিরাজ ছিলেন তাদেরই একজন। ১৯৭১ সালের ২ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন আ স ম আবদুর রব। সেখান থেকেই পরবর্তী দিনে স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠের পরিকল্পনা করা হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩ মার্চ ১৯৭১ পল্টন ময়দানে বিশাল এক ছাত্র জনসভায় বঙ্গবন্ধুর সামনে স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠ করেছিলেন শাহজাহান সিরাজ। এরপর সশস্ত্র যুদ্ধ শুরু হলে তিনি বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স (বিএলএফ) বা মুজিব বাহিনীর কমান্ডার হিসেবেও দায়ত্ব নেন।

শাহজাহান সিরাজের ইন্তেকালে তার রুহের মাগফেরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন নগর বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দরা হলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ভাষাসৈনিক এম নুরুল ইসলাম, নগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, মীর কায়সেদ আলী, শেখ মোশাররফ হোসেন, জাফরউলাহ খান সাচ্চু, জলিল খান কালাম, সিরাজুল ইসলাম, এড. ফজলে হালিম লিটন, স ম আব্দুর রহমান, শেখ ইকবাল হোসেন, শেখ জাহিদুল ইসলাম, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, শেখ আমজাদ হোসেন, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, মো. মাহবুব কায়সার, নজরুল ইসলাম বাবু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, এসএম আরিফুর রহমান মিঠু ও ইকবাল হোসেন খোকন প্রমুখ। অপর দিকে ১নং ওয়ার্ড বিএনপির নেতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলি (৫৮) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না…..রাজিউন)। সোমবার গভীর রাতে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় মানিকতলা মসজিদুল মেরাজ প্রাঙ্গণে মরহুমের নামাজে জানাযা শেষে তাকে মহেশ্বরপাশা কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। তার রুহের মাগফেরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন নগর বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ।

কল সেন্টারের সেবা কার্যক্রম নিয়ে নগর বিএনপির সভা

খবর বিজ্ঞপ্তি

গত ১৩জুলাই সদর থানা ও ১৪জুলাই সোনাডাঙ্গা থানার ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দের সঙ্গে নগর বিএনপির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২টায় নগরীর ৫৭, স্ট্যান্ড রোডের রহমান ভিলার অস্থায়ী কার্যালয়ে করোনা আক্রান্ত গুরুতর অসুস্থ রোগীদের মানবিক চিকিৎসা সহয়তার উদ্দেশ্যে সদ্য প্রতিষ্ঠিত ‘কল সেন্টার’ এর সেবা কার্যক্রম গতিশীল করার লক্ষে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় নগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, এবং সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র মনিরুজ্জামান আলোচনা করেন। সভায় ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দদের করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের তথ্য সংগ্রহ, প্রয়োজনীয় সেবা সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে কল সেন্টারে জমা দেয়ার জন্য বলা হয়। পাশাপাশি খাদ্য, ওষুধ, এ্যাম্বুলেন্স ও অনান্য প্রয়োজনীয় জিনিস-পত্র দরকার কিনা তার খোঁজ-খবর রাখার জন্য  ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দদের বলা হয়। সভয় উপস্থিত ছিলেন রেহেনা ঈশা,  আরিফুজ্জামান অপু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, মেহেদী হাসান দিপু, সাজ্জাদ হোসেন পরাগ, বদরুল আনাম,  শেখ জামিরুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম রবি, আফসার মাস্টার, ইসহাক  তালুকদার, মেজবাহ উদ্দি মিজু, ওহেদুর রহমান দিপু, সরদার রবিউল ইসলাম রবি, জাহিদ কামাল টিটু, মহিউদ্দিন টারজান, আবু সাইদ শেখ, আসলাম হোসেন, মোস্তফা কামাল, মেহেদী হাসান সোহাগ, আব্দুল আলিম, তৌহিদুর রহমান খোকন, জাহাঙ্গীর হোসেন, লিটু পাটোয়ারী, আনিসুজ্জামান, কাওসারী জাহান মঞ্জু প্রমুখ।

হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মাকে হত্যার অভিযোগ

নড়াইল প্রতিনিধি

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার মঙ্গলহাটা গ্রামে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মা আসমা বেগমকে (৪৫) হত্যার অভিযোগ উঠেছে ছেলে সাব্বির মোল্যার বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) বিকাল ৩টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। নিহত আসমা মঙ্গলহাটা গ্রামের রাজমিস্ত্রি আব্দুর রাজ্জাক মোল্যার স্ত্রী। লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। পুলিশ ও নিহতের স্বজন সূত্রে জানা যায়, মানসিক সমস্যাগ্রস্ত ছেলে সাব্বির মোল্যা (১৯) মঙ্গলবার বিকালে কথা কাটাকাটির জের ধরে মা আসমা বেগমকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে। গুরুতর অসুস্থ আসমাকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার সময় মৃত্যু হয়। তিন ছেলে এবং এক মেয়ের মধ্যে সাব্বির মেজ সন্তান। এসএসসি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছে সে। ওসি আরও জানান, লাশের ময়নাতদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযুক্ত সাব্বিরকে আটকের চেষ্টা চলছে।

করোনা জয় করলেন মাশরাফি, স্ত্রীর এখনো পজিটিভ

নড়াইল প্রতিনিধি

সময়ের হিসাবে করোনার সঙ্গে ২৪ দিন পার করার পর প্রাণঘাতি এই ভাইরাস জয় করলেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তবে এখনো করোনা পজিটিভ তার স্ত্রী সুমনা হক সুমির। এমন তথ্য নিজের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে জানিয়েছেন স্বয়ং মাশরাফি। গত ২০ জুন করোনায় আক্রান্ত হন মাশরাফি। তিন দিন ধরে জ্বরে আক্রান্ত থাকার পর জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার করোনা পরীক্ষা করেন। তখনই করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে তার। এসময় জ্বরের পাশাপাশি শরীরে এবং মাথায় ব্যাথা ছিল সাবেক এই সফল ওয়ানডে অধিনায়কের। এরপর থেকে ঢাকায় মিরপুরে নিজের বাসায় কোয়ারেন্টাইন পালন করেন জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার। পরবর্তী সময়ে মাশরাফির ভাই এবং স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়ে পড়েন। ভাই মোরসালিন বিন মুর্তজা সুস্থ হয়ে ওঠেন এই দুজনের আগে। মাশরাফি এবং তাঁর স্ত্রীর করোনা রিপোর্টের জন্য উদ্বিগ্ন ছিল ভক্ত সমর্থকরা। গত ১১ জুন মাশরাফি ফেসবুকের এক বার্তায় জানান, করোনা টেস্টের রিপোর্ট হাতে পাওয়া মাত্র নিজের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে জানাবেন তিনি। সেই ধারাবাহিকতায় আজ তিনি তার সুস্থ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মাশরাফি নিজের বিবৃতিতে লেখেন, ‘আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সবাই ভালো আছেন। আলহামদুলিল্লাহ। আল্লাহর রহমতে ও আপনাদের সবার দোয়ায় আমার কনোরাভাইরাস পরীক্ষার ফল এসেছে নেগেটিভ। আজকে রাতেই ফল জানতে পেরেছি। এই পুরো সময়টায় যারা পাশে ছিলেন, দোয়া করেছেন, অনেকে উদ্বিগ্ন ছিলেন ও নানা ভাবে খোঁজ নিয়েছেন বা নেওয়ার চেষ্টা করেছেন, সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা। শনাক্ত হওয়ার পর দুই সপ্তাহের বেশি পেরিয়ে গেলেও আমার স্ত্রীর করোনাভাইরাস পরীক্ষার ফল এখনও পজিটিভ। তবে সবার দোয়ায় সে ভালো আছে। তার জন্য দোয়া প্রার্থনা করছি। বাসায় থেকে চিকিৎসা নিয়েই আমি সেরে উঠেছি। যারা আক্রান্ত হয়েছেন, সবাই সাহস রাখবেন। আল্লাহর ওপর ভরসা রাখবেন। নিয়ম মেনে চলবেন। সবাই নিরাপদে থাকবেন, ভালো থাকবেন। একসঙ্গে থেকে করোনাভাইরাসের সঙ্গে আমাদের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।

কেসিসি’র বাজেটে শিশু ও যুব কল্যাণে বরাদ্দের দাবিতে সুপারিশ

স্টাফ রিপোর্টার

করোনা মহামারীকালীন শিশু ও যুব কল্যাণে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের বাজেটে অর্থ বরাদ্দের দাবিতে মেয়র বরাবর সাত দফা সুপারিশ করেছে খুলনা শিশু ও যুব ফোরাম। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) এক স্মারকলিপিতে এ সুপারিশ করা হয়। সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেন। সুপারিশগুলো হলো- খুলনা সিটি কর্পোরেশনে শিশুদের সুরক্ষার জন্য খাতভিত্তিক সুনির্দিষ্ট বাজেট বরাদ্দ অব্যাহত রাখা, খুলনা সিটি কর্পোরেশনে অবস্থিত জনগণের মাঝে কোভিড-১৯ বিষয়ক সচেতনতাসহ বাল্যবিবাহ ও শিশুশ্রম বন্ধে মাইকিং এবং সচেতনতামূলক কার্যক্রমের ব্যবস্থা করা, খুলনা সিটি কর্পোরেশনে শিশুদের জন্য আলাদা আলাদা ডাটাবেজ প্রণয়ন, সামাজিক সুরক্ষা বেষ্টনী প্রকল্পের আওতায় শিশুশ্রমে নিয়োজিত শিশু পরিবার, প্রতিবন্ধী ও ঝুঁকিপূর্ণ শিশু পরিবারের জন্য বরাদ্দের পরিমাণ বৃদ্ধি, মহামারীকালীন স্বাস্থ্যখাতে শিশুদের জন্য আলাদা বাজেট বরাদ্দ রাখা, যাতে করোনা মহামারীকালীন কোনো শিশুই স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত না হয়, যুবকদের জন্য প্রশিক্ষণখাতে বিশেষ বরাদ্দ রাখা এবং এই সময়ে যুবকরা যাতে ঘরে বসে উপার্জন করতে পারে সেজন্য বিশেষ অনলাইন ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা। স্মারকলিপি প্রদানকালে শিশু ও যুব ফোরামের পক্ষে নিশাত আরা মিম, খুলনা যুব ফোরামের প্রেসিডেন্ট এবং মো. মাহমুদুল হাসান, যুব ফোরামের সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের রিজওনাল অ্যাডভোকেসি এন্ড চাইল্ড প্রটেকশান কোর্ডিনেটর সুরভী বিশ্বাস, রিজওনাল কমিউনিকেশন কোর্ডিনেটর সুবর্ণ চিসিম এবং ওয়ার্ল্ড ভিশন জীবনের জন্য প্রজেক্টের অ্যাডভোকেসি এন্ড ট্রেনিং অফিসার স্টিফেন বিশ্বাস।

সহায় সম্বল নিয়ে বাড়ি ফিরছে খুলনার অসহায় শিক্ষার্থীরা

স্টাফ রিপোর্টার

স্কুল, কলেজ, কোচিং সবই বন্ধ। বাড়ি বাড়ি গিয়ে টিউশনি করাও বন্ধ। কবে খুলবে এসব, তাও জানে না কেউ। বাড়ি থেকে টাকা আসারও আর তেমন কোনো উপায় নেই। বিকল্প আয়েরও কোনো উৎস নেই। গত চার মাসেরও বেশি সময় ধরে চলছে এমন পরিস্থিতি। আর তাই শহরে বসবাস করার মতো এখন আর সঙ্গতি নেই। বাসাভাড়া দিতে না পারায় বাড়িওয়ালাও প্রতিনিয়ত চাপ দিচ্ছে। ফলে বাধ্য হয়েই গ্রামে ফিরতে শুরু করেছে খুলনায় বসবাস করা অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রী। বই, ব্যাগ গুছিয়ে বাড়ির পথে চলছেন এমন দৃশ্য খুলনায় এখন প্রতিনিয়তই দেখা যাচ্ছে। সূত্রে জানা গেছে, খুলনার বসুপাড়া, বাইতিপাড়া, বিএল কলেজ রোড, নিরালা আবাসিক এলাকা, জব্বার সরণি, ছোট মির্জাপুর, রায়েরমহল, দৌলতপুরের দেয়ানা, পাবলা, কবির বতটলা, মিয়াপাড়াসহ নগরীর প্রায় প্রতিটি এলাকাতেই রয়েছে ছাত্রদের মেস। এসব মেসে বসবাস করা অধিকাংশ ছাত্রছাত্রীই খুলনার বাইরে থেকে এসে খুলনার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে লেখাপড়া করছেন। লেখাপড়ার পাশাপাশি নিজের খরচ চালাতে কেউ করছেন টিউশনি।

কেউ কোচিং সেন্টার পার্টটাইম শিক্ষকতাও করছেন। আবার অনেকে বিভিন্ন দোকানেও কাজ করছেন। কিন্তু তাদের সেই সব কিছুই আজ বন্ধ হয়ে গেছে। নিজেদের লেখাপড়াও বন্ধ হয়ে গেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়া। শুধু খুলনা শহরে এমন পরিস্থিতি তা নয়। সবখানেই একই অবস্থা বিরাজ করছে। ফলে বাড়ি থেকেও আর আর্থিক সহযোগিতা তেমন আসছে না। ফলে মেসের ভাড়ার পাশাপাশি প্রতিদিনের তিন বেলার খাবারও অনেক সময় ঠিকমতো পাচ্ছেন না তারা। খুলনার বিএল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের (হিসাব) ছাত্র নাজমুল হোসাইন বলেন, ‘খুলনার পাইকগাছা উপজেলার সরল গ্রামের বাসিন্দা তিনি। খুলনার বিএল কলেজের সুনাম খুলনায় সবচেয়ে বেশি। তাই সেখানেই ভর্তি হন। খুলনায় এসে তিনটি টিউশনি জোগাড় করেছিলেন দুই বছর আগে। তা দিয়েই তার ভালোই চলছিল। বাড়ির অবস্থা খুব ভালো না হলেও কোনো সমস্যা হচ্ছিল না। কিন্তু সেই টিউশনিগুলো গত চার মাস ধরে বন্ধ। ফলে জমানো যে কয়টা টাকা ছিল তাও শেষ হয়ে গেছে। এখন বাধ্য হয়েই বাড়ি ফিরে যেতে হবে’।

করোনা কবে যাবে, আদৌ যাবে কিনা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে নাজমুল বলেন, ‘জানি না আবার কবে খুলনায় ফিরতে পারব’। মির্জাপুর রোডের ছাত্রী মেসের বাসিন্দা পাইওনিয়র সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী শায়লা তাবাচ্ছুম বলেন, সাতক্ষীরা থেকে খুলনায় লেখাপড়া করতে এসেছেন তিনি। খুলনায় আসার পর একটা কোচিং সেন্টারে ইংরেজি কাস নিতেন। আর দুইটা টিউশনি করতেন। বাড়ি থেকে তাই কোন কিছু আনার প্রয়োজন হত না। কিন্তু এখন আর কোনো উপায় নেই। বাবা-মা বাড়ি ফিরে যেতে বলেছেন আরও আগে। কিন্তু তিনি থেকে গেছেন আরও কিছুদিন। নগরীর একাধিক কোচিং সেন্টার মালিক বলেন, কোচিং সেন্টারগুলো অনেক ছাত্রছাত্রীর আয়ের একটা বড় উৎস ছিল। কিন্তু তা বন্ধ থাকায় কোচিং মালিকরাই এখন মহা বিপদে রয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কোচিং সেন্টার মালিক বলেন, ‘খুলনার প্রায় ৯৫ ভাগ কোচিং সেন্টার ভাড়া বাড়িতে। কোনো আয় না থাকলেও গত কয়েক মাস ভাড়া দিতে হচ্ছে। ফলে অনেক কোচিং সেন্টারও বন্ধ হয়ে গেছে। করোনা প্রকোপ না কমলে কি পরিস্থিতি হবে তা বলা মুশকিল’।

নগরীর আফিলগেট এলাকা থেকে ৫০ গ্রাম গাঁজাসহ ১ জন গ্রেফতার

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

নগরীর খানজাহান আলী থানা পুলিশের একটি টিম আফিলগেট এলাকায় মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও বিশেষ অভিযান চালিয়ে ১৩ জুলাই সন্ধায় আফিলগেট এলাকা থেকে যোগীপোল ৯নং ওয়ার্ডের শেখ জালাল আহম্মদের পুত্র শেখ জান্নাতুল ফেরদাউস(২২)কে ৫০ গ্রাম গাঁজা সহ গ্রেফতার করেছে। এব্যপারে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা হয়েছে। যার নং-০৮, তারিখ-১৩/০৭/২০২০।

খানজাহান আলী থানা এলাকা মাদকমুক্ত করতে সকল পদক্ষেপ গ্রাহন করা হবে-ওসি শফিকুল

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

খানজাহান আলী থানা এলাকাকে মাদকমুক্ত ঘোষণা করতে পুলিশ সকল ধরনের পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। থানা এলাকায় হয় পুলিশ থাকবে না হয় মাদক ব্যবসায়ী থাকবে এমন কঠোর হুশিয়ারী দিলেন খানজহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম। তিনি সরকারের মাদকের বিরুদ্ধে জিরোটলারেন্স ঘোষণার অংশহিসাবে মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান আরো কঠোর এবং চিহিৃত মাকদ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অব্যাহত অভিযানে থানাকে মাদকমুক্ত ঘোষনার অঙ্গিকার করেন এবং মাদক ব্যবসায়ীদের আটকের ব্যাপারে এলাকার সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। ১৪ জুলাই মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ফুলবাড়ীগেট বাজার বণিক সমিতির পক্ষ থেকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক প্রচার আমাদের করোনীয় বিষয়ে বক্তৃতায় এ কথা বলেন। এসময় ফুলবাড়ীগেট বাজার বণিক সমিতির সভাপতি বেগ লিয়াকত আলীসহ বাজার বণিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ও বাজারের ব্যবসায়ীগণ উপস্থিত ছিলেন।

ফুলতলায় আওয়ামীলীগ নেতা জিপ্পীর সুস্থতা কামনায় সাবেক ছাত্রলীগ বন্ধু ফোরামের দোয়া অনুষ্ঠান

ফুলতলা প্রতিনিধি

ফুলতলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফুলতলা বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সরদার শাহাবুদ্দিন জিপ্পী’র সুস্থতা কামনায় সাবেক ছাত্রলীগ বন্ধু ফোরাম এর উদ্যোগে মঙ্গলবার বাদ আছর দলীয় কার্যালয়ে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। প্রমুখ। মাওঃ রফিকুল ইসলামের পরিচালনায় দোয়া অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগ নেতা মৃনাল হাজরা, আবু তাহের রিপন, সাহিদুল মোল্যা, এস কে আলী ইয়াছিন, এস কে মিজানুরর রহমান, বেগম শামসুন্নাহার, শাপলা সুলতানা লিলি, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মঈনুল ইসলাম নয়ন, তাসমীর হাসান, ইকতিয়ার উদ্দিন সুমন, শাহিন মোল্যা, মাকিদ সরদার, ইমরানুর রহমান রাজীব, হিমেল শেখ, সৈয়দ তুরান, সোহাগ সরদার, মোক্তার হোসেন, মশিয়ার রহমান সরদার, প্রভাষক মোস্তফা চৌধুরী কামাল, মশিয়ার রহমান মোল্যা, দিনার হোসেন, শরিফুল ইসলাম, নাজমুল হোসেন, তরুন চক্রবর্তী প্রমুখ।

ফুলতলায় জাপা চেয়ারম্যান এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালন

ফুলতলা প্রতিনিধি

জাতীয় পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট এইচ এম এরশাদ এর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার বিকালে জাতীয় পার্টি ফুলতলা শাখার উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল জাপা কার্যালয়ে সকালে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং বিকালে দামোদর কলোনী জামে মসজিদে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শাখার সভাপতি সাঈদ আলম মোড়ল, সাধারণ সম্পাদক আঃ আজিজ, জাপা নেতা ওলিয়ার রহমান, রইচ মল্লিক, রফিকুল ইসলাম, সালাউদ্দিন, ওবেদ আলী, আসলাম খান. আনোয়ার হোসেন, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ। 

দেবহাটায় উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সভা

কে এম রেজাউল করিম দেবহাটা

দেবহাটায় উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে উপজেলার গুরুত্ব পুর্ন স্থানের নজরদারী বাড়াতে পারুলিয়া থেকে নলতা অভিমুখে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের  সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনা ভাইরাসের সতর্কতা অবলম্বন করে মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীনের সভাপতিত্বে জুম কাউড মিটিং’র মাধ্যামে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় করোনা মোকাবেলায় হাট-বাজার, হোটেল-রেস্তরাসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান গুলোর মানূষের মাস্ক ব্যবহার, সাবান দিয়ে হাত ধোওয়া, হাট-বাজারে এক পাশ দিয়ে ঠুকে অন্য পথে বাহির হওয়ার ব্যবস্থা করার বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এ ছাড়া করোনার মধ্যে কেহ অবৈধ ভাবে ভারতে গেলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তাছাড়া নাশকতাকারী ও চেয়ারম্যান রতন হত্যা চেষ্টাকারীদের প্রশ্রয়দানকারী ব্যক্তিদের বিষয়ও গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়। জুম কাউড মিটিং’র মাধ্যামে সংযুক্ত হয়ে সভায় বক্তব্য রাখেন, দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার সাহা,উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও নওয়াপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মজিবুর রহমান,সাধারন সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি,সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন,উপজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুর লতিফ, জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব আল-ফেরদৌস আলফা, দেবহাটা সদর চেয়ারম্যান আবুবকর গাজী, কুলিয়া ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আছাদুল ইসলাম,দেবহাটা প্রেসকাবের সভাপতি আব্দুর রব লিটু, ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার মনির হোসেন। এ সময় সংযুক্ত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জিএম স্পর্শ, পারুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মবর্তা শফিউল বশারসহ উপজেলাস্ত বিজিবি’র বিভিন্ন ক্যাম্প কমান্ডার ও আইন শৃংখলা কমিটির অন্যান্য সদস্য বৃন্দ।

ঝিনাইদহে আরও ৩৭ জন করোনায় আক্রান্ত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে আরও করোনায় নতুন করে আরো ৩৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ৪৮৯ জন। করোনায়  এ পর্যন্ত জেলায়  মারা গেছেন ১১ জন। সিভিল সার্জন অফিসের করোনা বিষয়ক মুখপাত্র ডাঃ প্রসেনজিৎ বিশ্বাস জানান, কুষ্টিয়ার ল্যাব থেকে ৮৮ টি নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে ৩৭ টি রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। গতকালও ৩৭ জন আক্রান্ত হয়েছিল। এদিকে জেলায় করোনা প্রতিরোধ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। হাট বাজার গুলোতে আগের মত ভিড় দেখা যাচ্ছে। অনেকে মাক্স পরছে না। হাটবাজারগুলোতে গায়ের সাথে গা ঘেষে কেনাকাটা করছে। সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম বলেন, মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। স্বাস্থ্য সচেতন না হওয়ায় সংক্রমন বেড়েছে।

মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধ সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে যাওয়ার সময় নারী-শিশুসহ ১৬জন আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধ ভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে যাওয়ার সময় ১শিশু, ৪ নারী এবং ১১ পুরুষসহ ১৬জনকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি)। গতকাল রাত সাড়ে ৯টার দিকে  পলিয়ানপুর এলাকা থেকে আটক করা হয়। ৫৮ বিজিবির পক্ষে সহকারী পরিচালক মো: নজরুল ইসলাম খান জানান, গত রাতে পলিয়ানপুর গ্রামের হঠাতপাড়া এলাকা থেকে অবৈধ ভাবে ভারতে যাবার প্রস্তুতিকালে  তাদের আটক করা হয়। এর মধ্যে  জাকির খান, পারভীন,নাজমা বেগম, হাসান ফরাজি, তানিয়া আক্তার, মো: হাফিজ, মিলন হাওলাদার, সালমা খাতুন, শাহ আলম হ্ওালাদার, মারুফ হাওলাদার, রফিকুল ইসলাম,রুবেল, মানজারুল, আসাদ,রাসেল খান, মুন্না হাওলাদারকে আটক করা হয়। তাদের অধিকাংশের বাড়ি বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ,শরণখোলা,পিরোজপুর এলাকায়। আটককৃত বাংলাদেশী নাগরিকদের অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করার দায়ে বাংলাদেশ পাসপোর্ট অধ্যাদেশ ১৯৭৩ এর ১১(১) (গ) ধারায় ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর থানায় সোপর্দ করা করা হয়েছে। মামলা নম্বর-২৫ তারিখ-১৪ জুলাই ২০২০।

ঝিনাইদহে এলাকা ভিত্তিক লকডাউন শুরু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

করোনায় সংক্রমন বৃদ্ধি পাওয়ায় ঝিনাইদহ শহরে এলাকা ভিত্তিক লকডাউন শুরু করেছে প্রশাসন। মঙ্গলবার দুপুরে শহরের আদর্শপাড়ার ৩ টি এলাকা প্রশাসনের পক্ষ থেকে লকডাউন করা হয়। ওই ৩ টি এলাকার মোড়ের রাস্তা বন্ধ করা হয়েছে। আগামী ৭ দিন প্রাথমিকভাবে এলাকা লকডাউন থাকবে। এসময় ওই এলাকা থেকে কেউ বেরুতে বা প্রবেশ করতে পারবেন না বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। লকডাউনকৃত এলাকায় পৌরসভার স্বেচ্ছাসেবক দল কাজ করবে। আগামীতে শহরের অন্যান্য এলাকা ও কালীগঞ্জ উপজেলার কয়েকটি এলাকা পর্যায়ক্রমে লকডাউন করা হবে।

এসময় জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, পৌর মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বদরুদ্দোজা শুভসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাগেরহাটে জেষ্ঠ্য সাংবাদিকের স্ত্রীর মৃত্যুতে শোক

বাগেরহাট প্রতিনিধি.

বিটিভি ও ইত্তেফাকের জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাট প্রেসকাবের সহসভাপতি জেষ্ঠ্য সাংবাদিক নীহার রঞ্জন সাহার সহধর্মিণি ও বাগেরহাট বহুমুখি কলেজিয়েট স্কুলের সহকারি শিক্ষিকা পলি রাণী সাহা (৫৩) পরলোকগমণ করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। তিনি দীর্ঘদিন ধরে লিভার ও কিডনির সমস্যায় রোগভোগ করছিলেন। মঙ্গলবার বিকেলে বাগেরহাট শহরের কেন্দ্রীয় মহাশ্মশানে তার অন্তষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। মৃত্যুকালে তিনি স্বামী, দুই মেয়ে জামাতাসহ অসংখ্য শুভানুধ্যায়ী রেখে গেছেন।

তার এই অকাল মৃত্যুতে বাগেরহাট প্রেসকাব, বাগেরহাট পৌরসভা, বাগেরহাট ফাউন্ডেশন ও সদর উপজেলা পরিষদ, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা বাগেরহাট শাখা, শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। তারা হলেন, বাগেরহাট প্রেসকাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট মোজাফফর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাকি তালুকদার, বাগেরহাট পৌর মেয়র খান হাবিবুর রহমান, বাগেরহাট ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক আহাদ উদ্দিন হায়দার, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সরদার নাসির উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া পারভীন জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার সভাপতি এম হেদায়েত হোসেন লিটন, সাধারন সম্পাদক সৈয়দ শওকত হোসেন, প্রমূখ।

বাগেরহাটে করোনায় আক্রান্ত হয়ে শ্রমিক লীগ নেতার মৃত্যু

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে কাশেম খলিফা (৫৫) নামে শ্রমিক লীগের এক নেতার মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার সময় উপজেলা সদরের রায়েন্দা বাজারে নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়। গত ৭ জুলাই শরণখোলা উপজেলা সদর রায়েন্দা বাজারের মো. রহিম খলিফার ছেলে মো. কাশেম খলিফার (৫৫) জ্বর ও শর্দি-কাশি নিয়ে শরণখোলা হাসপাতালে যান। এসময় কর্তব্যরত ডাক্তার তার নমুনা সংগ্রহ করে খুলনার পিসিআর ল্যাবে পাঠান। সেখান থেকে রবিবার তার করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। পরে তিনি তার বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছিল। সোমবার দুপুরের পর থেকে তার শ্বাস কষ্ট বেড়ে গিয়ে সন্ধ্যা পৌনে ৬ টায় তার মৃত্যু হয়। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত কাশেম খলিফা উপজেলা শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি ও আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক ছিলেন। করোনা করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে উপজেলা সেচ্ছাসেক কমিটি লাশ দাফনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করেছে। রায়েন্দা ইউনিয়নের উত্তর তাফালবাড়ি তার গ্রামের বাড়িতে রাতে লাশ দাফন দেয়া হবে। এনিয়ে বাগেরহাট জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ৭ জনের মৃত্যু হরো।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির এতথ্য নিশ্চিত করে জানান, বাগেরহাট জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ১২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। নতুন আক্রান্তের মধ্যে রয়েছেন সদর উপজেলায় ৮ জন, শরণখোলা উপজেলায় ২ জন ও মোংলা উপজেলায় ২জন। এই নিয়ে বাগেরহাট জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩২৩ জনে। এরমধ্যে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ১৯০ জন সুস্থ্য হয়েছেন। অন্যরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

পাইকগাছায় নবাগত ইউএনও এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী’র যোগদান

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছায় নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন। তিনি মঙ্গলবার বিদায়ী ইউএনও জুলিয়া সুকায়নার নিকট থেকে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। ৩৩তম বিসিএস-এর এ কর্মকর্তা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। যোগদানকালে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ আরাফাতুল আলম। পরে সকল দপ্তরের কর্মকর্তাদের সাথে তিনি মতবিনিময় করেন।

পাইকগাছায় করোনা উপসর্গ নিয়ে এ্যাড. আব্দুল কাদিরের মৃত্যু

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির সদস্য এ্যাড. আব্দুল কাদির করোনা উপসর্গ নিয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে মারা গেছেন (ইন্নানিল্লাহি………..রাজিউন)। দীর্ঘদিন ধরে তিনি জ্বর, শ্বাস কষ্ট ও কিডনী সমস্যা জনিত রোগে ভুগছিলেন। ঢাকার কুর্নিটোলা হাসপাতালে মঙ্গলবার ভোর ৫টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ্যাড. আব্দুল কাদির ইতোপূর্বে খুলনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পাইকগাছা জোনাল শাখার পরিচালক ছিলেন। তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন পাইকগাছা আইনজীবী সমিতি।

পাইকগাছায় সোলাদানা ইউনিয়নে ৩২২ জেলে পরিবারের ৫৬ কেজি করে চাল বিতরণ

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছায় সোলাদানা ইউনিয়ন পরিষদে ৩২২ জন জেলে পরিবারের মাঝ ৫৬ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবা দুপুরে চেয়ারম্যান এনামুল হক এ চাল বিতরণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য মোঃ আবুল কাশেম, ঠাকুর দাশ সরদার, মোঃ আবু সাইদ মোল্লা, আব্দুস সবুর, মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক শিকারী, মোঃ আনিছুর রহমান সহ অত্র এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার জনগন।

পাইকগাছায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছায় জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, সাবেক রাষ্ট্রপতি পল্লী বন্ধু আলহাজ্ব হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ১ম মৃত্যু বার্ষিকী পাইকগাছা উপজেলা জাতীয় পার্টি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে। মঙ্গলবার বিকালে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, জেলা শাখার সহ-সভাপতি, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক সামছুল আলম খোকন, পৌরসভা শাখার সভাপতি গাজী আব্দুস সামাদ, সম্পাদক রবিউল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন, জাপা নেতা কৃষ্ণ রায়, আঃ রহিম, আশিক মাহমুদ, খায়রুল ইসলাম, জি এম আহাদুজ্জামান বাবলা, জি,এম, বাবুল, মাহফুজুল ইসলাম, শুকুর আলী, আঃ ওয়াদুদ, ফারুক হোসেন, শেখ আব্দুল, মুনছুর আলী, আঃ রহমান, রবিউল ইসলাম প্রমুখ। দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা ইব্রাহীম খলিল।

পাইকগাছায় সাবেক এমপি নুরুল হকের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল

পাইকগাছা প্রতিনিধি

খুলনা ৬ (পাইকগাছা-কয়রা) সাবেক সংসদ সদস্য আ’লীগ নেতা এ্যাডঃ আলহাজ্ব শেখ মোঃ নুরুল হক করোনা আক্রান্ত হয়ে সংকটাপন্ন অবস্থায় ঢাকার স্পেশালাইসড হাসপাতালে চিকিৎসাধী থাকায় রোগ মুক্তি কামনায় ইউনিয়ন আ’লীগের নেতৃবৃন্দ ও এলাকাবাসীর দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে গজালিয়া উদয়ন সংঘে উপজেলা আ’লীগ নেতা জি,এম, ইকরামুল ইসলামের সার্বিক পরিচালনায় দোয়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, আ’লীগ নেতা উপজেলা আ’লীগের সাবেক সদস্য আঃ সামাদ সরদার, গাজী শফিকুল ইসলাম, শেখ গোলাম রাব্বানী, বাবুল আক্তার, এস এম নুরুল ইসলাম, মনজুরুল ইসলাম সরদার, রফিকুজ্জামান মিনু, এম এম নুরুল ইসলাম, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি এস এম নুরুল ইসলাম, যুবলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম, প্রভাষক দেলয়ার হোসেন, মঞ্জুরুল ইসলাম, বাবলু ইসলাম, খাইরুল ইসলাম, জি এম বাসারুল ইসলাম, জি এম রেজাউল ইসলাম। দোয়া ও মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করেন মাওলানা আব্দুল মালেক।

পাইকগাছায় দেলুটি ইউনিয়নে ৩ হাজার ৫শ পরিবারের মাঝ চাউল বিতরণ

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছা দেলুটি ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার প্রদত্ত ১০ কেজি করে চাউল ৩ হাজার ৫শ ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মধ্যে বিতরন করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে দেলুটি ইউনিয়ন পরিষদে এ চাউল বিতরণ করেন চেয়ারম্যান রিপন কুমার মন্ডল। উক্ত ত্রান সামগ্রী বিতরন কালে উপস্থিত ছিলেন, ট্যাগ অফিসার মোঃ আমিনুল ইসলাম, ইউ পি সচিব নিরাপদ মল্লিক, ইউ পি সদস্য প্রীতিলতা ঢালী, রবীন্দ্র নাথ মন্ডল, কিংশুক রায় সহ অন্যান্য ইউপি সদস্য ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

ডুমুরিয়ায় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এরশাদ’র মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

ডুমুরিয়ায় উপজেলা জাতীয়পার্টির আয়োজনে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধু হুসাইন মুহম্মদ এরশাদ’র ১ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।গতকাল মঙ্গলবার সকালে জাপা নেতা গাজী গওহরের সভাপতিত্বে দলের অস্থায়ী কার্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আয়োজিত সভায় বক্তব্যদেন জাপা নেতা শেখ আমজাদ হোসেন দাদাভাই,কাজী সামছুর রহমান,ডা: মোহাম্মদ আলী,সামছুর রহমান গাজী,মাহাবুর রহমান, বদরুজ্জামান খন্দকার,আ: মজিদ শেখ,বাবর আলী ফকির,মো: কাফি খান,শ্যামাপ্রসাদ বসাক,কাজী পিপলুর রহমান, আসাদুজ্জামান লিটু,ইলিয়াজ হোসেন, সিরাজুল ইসলাম শেখ, আ: হান্নান শেখ,আ: মান্নান শেখ,মো: লিটন মল্লিক,মফিজুর রহমান,পীর মোহম্মদ,সিরাজুল ইসলাম,নুরুন্নবী,মুনছুর আলী,জাকির গোলদার,ফজর আলী মোড়ল,কামরুল ইসলাম,আ: আজিজ,আব্দুর রহিম মীর,নজরুল ইসলাম,সানি শেখ,এজাহার আলী,মিন্টু শেখ,মন্টু রায় প্রমূখ।সভা শেষে মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন হাফেজ মোহাম্মদ আব্দুল জলিল।

ডুমুরিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় ৪ ফায়ার সার্ভিস কর্মী আহত

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

ডুমুরিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় ৪ ফায়ার সার্ভিস কর্মী আহত ও ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের একটি রেসকিউ গাড়ী দুমড়ে মুচড়ে ৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশসের সামনে এ দূর্ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন অফিসার যুগল বিশ^াস জানান,একটি দূর্ঘটনার খবর শুনে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছানোর লক্ষে খুলনা মেট্ট্রো ছ-১১-০০৬৭ নং রেসকিউ গাড়ীটি সাইরেন বাজিয়ে মহাসড়কে উঠতেই সাতক্ষীরা অভিমুখে বেপরোয়া গামী যাত্রীবাহি টাঙ্গাইল গ-১১-০০০১ নং গাড়ীটি ফায়ার সার্ভিসের গাড়ীটিকে সজোরে আঘাত করে। এতে গাড়ীতে থাকা ফায়ার সার্ভিস কর্মী তোহিদুল ইসলাম,আব্দুস সামাদ,খায়রুল ইসলাম ও বিল্লাল হোসেন আহত হয়।এছাড়া রেসকিউ গাড়ীটি দুমড়ে মুচড়ে ৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং ঘাতক বাসটি জব্দ করেছে পুলিশ।

চিতলমারীতে অরেন্টভুক্ত আসামী মাদক স¤্রাট গ্রেফতার

চিতলমারী  প্রতিনিধি:

বাগেরহাটের চিতলমারীতে অরেন্ট ভুক্ত আসমাী মৃত: নুরমোহাম্মদ মোল্লার ছেলে মাদক স¤্রাট মাকসুদ মোল্লা( ৪০) কে গতকাল মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বড়বাড়িয়া ফাড়ি পুলিশের  সহকারী উপ পরিদর্শক মো: সামীমের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে পরানপুর বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে।  পুলিশ জানায় গ্রেফতার কৃত মাকসুদ মোল্লার বিরুদ্ধে মাদকের দুটি মামলায় আদালতের গ্রেফতারী পরোয়ানা রয়েছে। সে এলাকায় মাদক স¤্রাট নামে পরিচিত। মো: কামরুজ্জামান

তেরখাদায় পল্লীবন্ধু হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদ এর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী উদযাপন

তেরখাদা প্রতিনিধি

তেরখাদা উপজেলা জাতীয় পার্টির উদ্যেগে গতকাল ইখড়ী দাখিল মাদ্রাসা মাঠ প্রঙ্গনে আছর বাদ সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ আলী সরদার এর সভাপতিত্বে ও মোঃ বিল্লাল হোসেন এর পরিচালনায় সাবেক রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধ ুহোসাইন মোহাম্মদ এরশাদ এর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠিত সভায় তার জীবনী আলোচনা করেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক আহবায়ক কে, এম শাহ মিরাজ কায়নাত, সাচিয়াদাহ ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ হাসমত আলী, ছাগলাদাহ ইউনিয়নের সভাপতি আঃ কুদ্দুস মোল্যা, সহ সভাপতি আবু তালেব, সাধারন সম্পাদক আশরাফ আলী, বারাসাত ইউনিয়নের সভাপতি রহমাত আলী, সহ সভাপতি দুলু শেখ, তেরখাদা ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক ডাঃ মাহাবুবুর রহমান, মধুপুর ইউনিয়নের সভাপতি নজীর আলী মীর সহ উপস্থিত স্থানীয় সুধি সমাজ। আলোচনা সভা ও মৃত্যু বার্ষিকীতে দোয়া পরিচালনা করেন ইখড়ী দাখিল মাদ্রাসার হাফেজ মোঃ মুরছালিন।

সাতক্ষীরায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করায় নারী সাংবাদিককে প্রকাশ্যে জীবন নাশের হুমকি

খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীরা

 সাতক্ষীরায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করায় প্রকাশ্য দিবালোকে এক নারী সাংবাদিককে জীবন নাশের হুমকি দিয়েছে কলারোয়া আলাইপুর গ্রামের মৃত আকবর আলীর পুত্র নুরুল খান, গদখালী গ্রামের ভোলার পুত্র ফিরোজ জোয়ার্দ্দার,  আলাইপুর গ্রামের আবুল কালাম লালটুর স্ত্রী কামরুন নাহার ও মৃত আবুল হাসানের পুত্র আরিফ খান। সাতক্ষীরার কলারোয়ায় পৈত্রিক জমি ভাগবাটোয়ারা নিয়ে সৃষ্ট বিরোধকে কেন্দ্র করে উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে ‘দৈনিক আজকের বসুন্ধরা’ পত্রিকার সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি ও ‘সাতক্ষীরা জেলা ক্রাইম রিপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশন’র মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ও ‘সাপ্তাহিক মুক্তস্বাধীন’ পত্রিকার মহিলা আইন বিষয়ক সম্পাদিকা সাবিনা ইয়াসমিন পলিকে নিয়ে একটি কুচক্রী মহল কুৎসা রটনা করে, ও সাংবাদিকদের একটি মহলকে ভুল বুঝিয়ে কোন রকম সত্যতা যাচাই না করে মনগড়া, মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ পরিবেশন করে। যার পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিক সাবিনা ইয়াসমিন পলি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কয়েকজনকে নাম উল্লেখ করে দুটি সিআর মামলা করেন। মামলা নং-১৪৮/১৯, ৪৪১/১৯ যা বর্তমানে বিচারাধীন আছে। এরই মধ্যে গত সোমবার  সাতক্ষীরা বাসটার্মিনালের সামনের মেইন রাস্তায় পথিমধ্যে বিবাদীদের সাথে দেখা হলে প্রকাশ্য দিবালোকে উগ্রও আগ্রাসীভাবে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য তাকে শাসিয়ে যায়। তা না হলে অন্ধ ও প্রয়োজনে দিনে দুপুরে স্বপরিবারে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সাবিনা ইয়াসমিন পলি জীবনহানীর আশঙ্কায় ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায়  গত সোমবারই একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। ডায়রী নং – ৭১২, তাং ১৩/০৭/২০২০ ইং। ডায়রী করার পরের দিন মঙ্গলবার নুরুল গং এর প্রধান হাতিয়ার ফিরোজ জোয়াদ্দার এর সাথে সাতক্ষীরা সদরের পাসপোর্ট অফিসের সামনে দেখা হলে পুনরায় তিনি শেষবারের মতো মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দেন ও বলেন যে ‘কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান লালটু সাহেবের সাথে তোর বিষয়ে কথা হয়েছে তোকে আর বাঁচিয়ে রাখবো না’। পরবর্তীতে আমাদের সংবাদদাতা কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লালটু কে ফোন দিলে তিনি বলেন ,  ফিরোজ জোয়াদ্দার আমার নাম ভাঙিয়ে নানা রকম আপকর্ম করে যাচ্ছে। এ বিষয়ের সাথে আমার কোন রকম সংশ্লিষ্টতা নেই।’

বটিয়াঘাটা উপজেলা মাসিক আইন-শৃংঙ্খলা কমিটির সভা

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

বটিয়ঘাটা উপজেলা মাসিক আইন-শৃংঙ্খলা কমিটির এক সভা গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় স্থানীয় পরিষদ সম্মেলন কক্ষে নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ রাশেদুজ্জামান, ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় নিতাই গাইন ও চঞ্চলা মন্ডল, থানার ওসি মোঃ রবিউল কবীর, লবনচরা থানার ওসি সমীর সরকার, হরিনটানা থানার ওসি মনিরুল ইসলাম, উপজেলা প্রেসকাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ, অধ্যক্ষ অমিতেষ দাশ, ইউপি চেয়ারম্যান যথাক্রমে মনোরঞ্জন মন্ডল, শেখ হাদীউজ্জামান হাদী, ইসমাইল হোসেন বাবু, গোলাম হাসান, আব্দুল হাদী সর্দার, মিলন গোলদার, প্রধান শিক্ষক আনন্দ মোহন বিশ^াস, অধ্যাপক মনোরঞ্জন মন্ডল, সুপার বোরহান আক্তার, ডাঃ আবু হোসেন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাঁসি রানী, সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম, সহকারী আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা শামসুন্নাহার প্রমূখ। সভায় উপজেলার সার্বিক আইনশৃংঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বিষদ আলোচনা করা হয়।

শরণখোলায় মাক্স ব্যবহার না করায় ১২ হাজার টাকা জরিমানা

শরণখোলা (বগেরহাট) প্রতিনিধি ঃ

বাগেরহাটের শরণখোলায় মাক্স ব্যবহার না করায় বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। অভিযানের পাশাপাশি গরীব ও অসহায় ভ্যান চালকদের গাড়ী থামিয়ে মাক্স বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা সদর রায়েন্দা হাসপাতাল গেট ও পাঁচরাস্তা এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করেন  শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন। এসময় মাক্স ব্যবহার না করায় ১২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ১২জন ব্যবসায়ীকে এক হাজার টাকা করে মোট ১২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এছাড়াও একই সময় রাস্তায় চলাচলকারী ভ্যান ড্রাইভার ও অসহায় মানুষদের মাঝে মাক্স বিতরণ করা হয়েছে ।

অভিযানকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, একেবারে যারা সচেতন না আমরা তাদেরকে সচেতন করতেছি। এছাড়া সচেতনতার জন্য মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে একটা নিয়মের আওতায় আনার চেষ্টা করছি যাতে তারা নিজেরা সচেতন হয় এবং অন্যদের সচেতন করে। সচেতনতার জন্য আমাদের এ অভিযান অব্যহত থাকবে ।

মহেশপুরে এক শিক্ষককে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলহাজতে পাঠানোর অভিযোগ

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহ মহেশপুর উপজেলার নেপা ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর মাঠপাড়া গ্রামের ওহিদুল ইসলাম মাস্টার কে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলহাজতে পাঠানোর অভিযোগে ফুঁসে উঠেছে এলাকাবাসী। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়  ২১ নং বাউলি মৌজার আর এস ১৬৯০খতিয়ানের ৫২৩২ দাগে ৬৩ শতক জমি ওহিদুল ইসলাম মাস্টার মহেশপুর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে ইংরেজি  ১৯/০১/২০১২তারিখে তারিখে ৪৪৪ দলিলে প্রাপ্ত হইয়া নিজ নামে হাল রেকর্ড করে  দীর্ঘদিন ধরে এই জমিতে চাষাবাদ করে আসছিলো। কিন্তু একই ইউনিয়নের কুল্লা গ্রামের মৃত মতলেব মন্ডলের ছেলে আব্দুর রহমানের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিযয়ে ওই জমিতে থাকা ২০০ আম গাছের চারা ও ৪০০কলা গাছ লাগানো বাগানটি কেটে  জোর করে জমি দখলের চেষ্টা করে, সে সময় ওহিদুল ইসলাম মাস্টার বাধা দিলে তাকে সহ  তার আত্মীয়-স্বজনদেরকে মারধর করে পালিয়ে যায়। স্থানীয় গ্রামের বাসিন্দা সাহাবুল, ফারুক সহ বেশ কয়েকজন জানান বহুদিন থেকে জমিটি ক্রয় করে তারা শান্তিপূর্ণভাবে চাষাবাদ করছিল কিন্তু  গতমাস ইংরেজি ২৯/০৬/২০ তারিখে পার্শ্ববর্তী কুল্লা গ্রামের আব্দুর রহমানের আত্মীয় স্বজনরা জোর করে মারধর করে জমি দখলের চেষ্টা করে এবং তাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। তাই আমরা  এলাকাবাসী এই মিথ্যা মামলা ও ইসলাম মাস্টারের পরিবারকে নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।

মণিরামপুরে কাঁচা রাস্তায় বাঁশের সাঁকো !

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি :

যশোরের মণিরামপুরে গ্রামীণ একটি কাঁচা রাস্তা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন গ্রামবাসী। বর্ষা মৌসুমে রাস্তাটি পানিবন্দি থাকায় স্থানীয়রা বাঁশের সাঁকো তৈরি করে পারাপার হচ্ছেন। দীর্ঘদিনের ভোগান্তি কমাতে গ্রামবাসী বারবার জনপ্রতিনিধিদের দুয়ারে ঘুরলেও ফল আসেনি। রাস্তাটির অবস্থান উপজেলার খেদাপাড়া ইউপির দীঘিরপাড় গ্রামে। দীঘিরপাড় জামতলা মোড় হতে বসন্তপুর গ্রামের সংযোগ রাস্তাটির বউ বাজার নামক স্থানে মাত্র দেড়শো ফুট রাস্তা পানিতে তলিয়ে গেছে। অন্য বছর গুলোতে এলাকাবাসী পানি মাড়িয়ে রাস্তাটি পার হলেও চলতি মৌসুমে তারা নিজেরা বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে পারাপার হচ্ছেন।

স্থানীয় সেলিম রেজা নামে এক যুবক বলেন, রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন বহু মানুষ যাতায়াত করেন। এই রাস্তা দিয়ে গ্রামবাসী ছাড়াও দীঘিরপাড় মহিলা দাখিল মাদরাসার শিক্ষার্থীরা যাওয়া আসা করে। এছাড়া বসন্তপুর, হরিহরনগর, গালদা তালতাল এলাকার মানুষের সংক্ষিপ্ত যাতায়াতের পথ এটি। জন্মলগ্ন থেকে দেখছি মানুষজন রাস্তার উপর থাকা হাঁটু পানি মাড়িয়ে যাওয়া আসা কেরছেন। আমাদের দুর্ভোগে কেউ এগিয়ে আসেননি। রুহুল কুদ্দুস নামে অপর যুবক বলেন, এই রাস্তায় চলাচলে দুর্ভোগ কমাতে আমাদের বাপ চাচাদের দেখেছি জনপ্রতিনিধিদের পিছপিছ ঘুরতে। সবাই আশ্বাস দিয়েছেন কিস্তু রাস্তা করে দিতে কেউ আগাননি। দীঘিরপাড় এলাকার ইউপি সদস্য মাহাবুর রহমান বলেন, ওই রাস্তাটির পাশে একটি পুকুর আছে। রাস্তা উুঁচু করতে অনেকবার মাটি দিয়েছি। সব মাটি পুকুরে ধসে পড়েছে। খেদাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হক বলেন, রাস্তাটির কিছু অংশে ইটের সলিং বসানো হয়েছে। জলাবদ্ধ অংশ সংস্কারে দ্রুত চেষ্টা চালাচ্ছি। রাস্তাটি সংস্কারে আমি স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের শোক বিবৃতি

খবর বিজ্ঞপ্তি

মঙ্গলবার আনুমানিক ৬ ঘটিকার সময় সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আলী আকবর এর মা বার্ধক্যজনিত কারনে দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর শেখপাড়া নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। ইন্না…………রাজিউন।শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সমবেদনা জানিয়ে শোক বিবৃতি প্রদান করেন থানা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ। বিবৃতি দাতারা হলেন খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি কেসিসি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আঃ খালেক, খুলনা ২ আসনের সাংসদ শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল, খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা তসলিম আহম্মেদ আশা,শাহজাহান পারভেজ, মোঃ আমির হোসেন, মোঃ মোজাফফার হোসেন, জান্নাতুল ফেরদৌস পিকুল, রফিকুল ইসলাম পিটু, জাহাঙ্গির আলী মন্টু, আঃ কাইয়ুম গোরা, এস এম রাজুল হাসান রাজু, এস এম কবির উদ্দিন বাবলু, টি এম আরিফ, কাউন্সিলর আমেনা হালিম বেবী, শরীফ এনামুল কবীর, মোক্তার হোসেন, এজাজ পারভেজ বাপ্পি, কামরুজ্জামান, এড এনামুল হক, মোঃ রুহুল আমীন খান, এড শামীম আহম্মেদ পলাশ, আইয়ুব আলী, মেহেজাবিন খান, তোতা মিয়াঁ ব্যাপারী, ইঞ্জিনিয়ার আঃ জব্বার, খাজা মঈনুদ্দিন, শিপন চৌধুরী, খান হুমায়ুন কবীর, এড সোহেল পারভেজ, তৌহিদুর রহমান দিপু, শাহাদাৎ হোসেন, মঈন খান সেলিম, আসাদুজ্জামান মিলটন, নাসরিন ইসলাম, হায়দার আলী খোকন, মোঃ রাজ্জাক হোসেন, আরজুল ইসলাম আরজু, মুন্সি আইয়ুব আলী, চম মুজিবুর রহমান, শেখ নুর ইসলাম, শেখ জাহিদুল হক, শেখ আবিদউলাহ, শেখ আব্দুল আজিজ,মোঃ জাহিদুল ইসলাম,সরদার আঃ হালিম,শেখ হাসান ইফতেখার চালু, ইউসুফ আলী খান, হাজি মোতালেব মিয়াঁ, শেখ রুহুল আমিন, মীর মোঃ লিটন, জাকির হোসেন হাওলাদার,রেজাউল করিম, মোঃ সবুর হোসেন,শেখ কুদ্দুস হোসেন, মহাদেব সাহা, মোস্তাক আহম্মেদ টুটুল, সোহেল চৌধুরী, আলী রেজা হায়দার রনি, আনিসুর রহমান, মীর মাসুদ আলী, রকিবুল ইসলাম রকি, এম এম সিপার হায়দার, শেখ সিদ্দিকুর হক, মোঃ মামুন উকিল, মাহবুব মম, জিয়াউর রহমান বাবু সাহেব, এড রাকিবুল ইসলাম, এ এম আল মামুন চৌধুরী, এস এম মনির হোসেন, মশিউজ্জামান খান মশি, এড জসিমউদ্দিন খান লিটন প্রমুখ।

আল ফালাহ একাডেমি স্কুলের শিক্ষকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত অনুদানের চেক বিতরণ

খবর বিজ্ঞপ্তি

চলমান করোনা সংকটকালে খুলনা জেলা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে শিক্ষা বান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত অনুদানের চেক আল ফালাহ একাডেমি স্কুলের শিক্ষক কর্মচারিদের মাঝে গতকাল সকালে স্কুল প্রাঙ্গণে বিতরণ করা হয়।

আল ফালাহ একাডেমি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা কারী মোঃ ইউনুস খানের সভাপতিত্ত্বে ও প্রধান শিক্ষক মো রমজান আলীর সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের প্রচার ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এস এম নূর হাসান জনি, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের পর্ষদ সাদাকাত হোসেন, খুরশিদ আলম, আনোয়ার হোসেন মুন্না, সাংবাদিক মোহাম্মদ মিলন প্রমুখ।

করোনায় মৃত গ্রাম পুলিশ ছালামের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

ফকিরহাট সদর ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ  করোনায় মৃত আঃ ছালাম এর পরিবারকে আর্থিক সহায়তা হিসেবে নগদ ২৫০০০ টাকা দেয়া হয়েছে। মংগলবার ১৪ জুলাই সকাল দশটায়  সদর ইউপি চত্বরে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহায়তার এ টাকা পরিবারের হাতে তুলে দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ শাহনাজ পারভীন,উপজেলা চেয়ারম্যান স্বপন দাশ এবং ইউপি চেয়ারম্যান শিরীনা আক্তার কিসলু। মৃত আঃ ছালামের পরিবারের পক্ষ থেকে সহায়তার টাকা গ্রহন করেন তার স্ত্রী, পুত্র, ও জামাতা।গত ১১ জুলাই শনিবার করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু বরন করার পর আজ উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, মৃত সালাম করোনায় পজিটিভ ছিলেন। 

ফকিরহাটে করোনাক্রান্ত নতুন করে ০৭ জন

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

বাগেরহাটের ফকিরহাটে নতুন করে আরও ০৭ জন করোনায় সনাক্ত হয়েছে। আজ মংগলবার ১৪ জুলাই সকাল দশটায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্র থেকে এ তথ্য জানানো   হয়েছে। এ নিয়ে ফকিরহাট উপজেলায় করোনায় মোট সনাক্ত হলো ৯৮জন। এ পর্যন্ত উপজেলায় বাবা-ছেলে সহ ০৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে ১জন ডাক্তার, ১জন চা বিক্রেতা, ১জন পল্লী চিকিৎসক, ১জন বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মী ও ১জন গ্রাম পুলিশ। করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু বরন করা গ্রাম পুলিশ আঃ সালাম করোনায় পজিটিভ ছিলেন বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ কঃ কর্মকর্তা ডা: অসিম কুমার সমাদ্দার।

খুলনায় ‘করোনা নেগেটিভ’ সার্টিফিকেট বিক্রি হচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার

করোনাভাইরাসের কারণে বিপর্যস্ত দেশ। এটির মোকাবেলায় এবং জনগণকে রক্ষায় সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছে সরকার। তবুও এই আতঙ্ককে পুঁজি করে কিছু অসাধু মানুষের জালিয়াতি যেন থামছেই না। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গড়ে উঠেছে একটি জালিযাতির শক্তিশালী সিন্ডিকেট। তারা সুযোগ বুঝে বিভিন্ন উপায়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা আদায় করছে।

অনুসন্ধানে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লিফটম্যান পদে কর্মরত নওশাদ নামক ব্যক্তির মাধ্যমে করোনা নেগেটিভ সনদ প্রদানের বিষয়টি প্রকাশ্যে এসেছে। তবে এই সিন্ডিকেটের রাঘব বোয়ালরা রয়েছে সম্পুর্ণ ধরাছোয়ার বাইরে। নওশাদ গং নগরীর ২৬ বিকে রায় ক্রস রোডস্থ করোনা পজিটিভ তানিয়া নামক গৃহীনিকে করোনা গত ১২ জুলাই তাকে নেগেটিভ সনদ প্রদান করে। ওই গৃহিনীর নেগেটিভ রিপোর্টে স্যাম্পল আইডি নম্বর উল্লেখ করা হয়েছে কেএমসি-২০০২৩ এবং স্যাম্পল গ্রহনের তারিখ ০৭/২০ জুলাই টেস্টের তারিখ ১২ জুলাই/২০ উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া নগরীর পশ্চিম বানিয়াখামার ঠিকানায় শামীম আহমেদ নামক ব্যক্তি ০৮ জুলাই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফু কর্ণারের স্যাম্পল টেস্টে পজেটিভ রিপোর্ট আসলেও নওশাদ গং একদিন আগের তারিখে অর্থাৎ ০৭/২০ জুলাই তারিখে আইডি নম্বর কেএমসি-১৯০৩১ দেখিয়ে পজেটিভ রিপোর্টকে নেগেটিভ করে প্রদান করেছে।

শামীম আহমেদ ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে (০১৯৪৪-২৩৪৬৫৬) যোগাযোগ করলে তিনি জানান, নওশাদ তার পরিচিত ছোট ভাই। তার মাধ্যমেই নেগেটিভ রির্পোট পেয়েছেন। এটি একটি নকল রিপোর্ট তা-কি আপনার জানা আছে প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন আমি ব্যবসায়ী কাজে চুকনগরে আছি। আমি খুলনায় গিয়ে খোঁজ নিবো। একইভাবে কথা হয় গৃহবধূ তানিয়ার সাথে তার ব্যবহৃত ( ০১৭২৭-২১২৪১৩) মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, হাসপাতালেই নওশাদের সাথে তার পরিচয় হয় সেই পরিচয়ের মাধ্যমেই তার কাছ থেকে তিনি রিপোর্ট পেয়েছেন। সঠিক না নকল রিপোর্ট তা তার জানা নেই।

এদিকে খুমেক হাসপাতাল আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ও আইসোলেশন ইউনিটের মুখপাত্র ডা. মিজানুর রহমান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি অনুসন্ধান করে খুলনাঞ্চলকে জানান, কেএমসি-১৯০৩১ এবং কেএমসি-২০০২৩ স্যাম্পল আইডি নম্বর দুটোই ভুয়া। এই নম্বরে কোন রিপোর্ট নেই। তিনি অসাধু চক্রের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন। কথা হয় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক রেজা সেকেন্দারের সাথে। হাসপাতালে কর্মরত একজন লিফটম্যান কিভাবে জাল সনদ প্রদান করছে প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার বিষয়টি জানা নেই। তবে অনুসন্ধানে সত্যতা পেলে অবশ্যই এই দুষ্টচক্রকে পুলিশে সোর্পদ করবো।

এ ব্যাপারে বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শেখ আশরাফ-উজ-জামান বলেন, এ চক্রের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনের আওতায় আনা উচিৎ। সাধারণ মানুষের মৌলিক অধিকার চিকিৎসা সেই চিকিৎসা নিয়ে যারা বানিজ্য করেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া উচিৎ। নওশাদের ব্যবহৃত (০১৯২৫-৪৩০৩৭৪) মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি রিপোর্ট প্রদানের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

করোনা পরীক্ষা নিয়ে অনিয়ম সহ্য করা হবে না: কাদের

ঢাকা অফিস

করোনা পরীক্ষা নিয়ে কোন ধরনের অনিয়ম সহ্য করা হবে না জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, করোনা পরীক্ষার ভুয়া সনদ যেমন উদ্বেগ বাড়িয়েছে, তেমনি বিদেশে দেশের ইমেজ নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। তাই এ ধরনের অপকর্ম নিন্দনীয় ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ভবিষ্যতে আর কোন প্রতিষ্ঠান যেন এ ধরনের অপরাধ করতে না পারে, সেজন্য সংশ্লিষ্টদের নজরদারি বাড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছি। মঙ্গলবার তার সংসদ ভবনের সরকারী বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত এক ভিডিও বার্তায় তিনি এসব কথা বলেন। করোনার নমুনা পরীক্ষা আরও বাড়ানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘গত কয়েক দিনে আমরা লক্ষ্য করেছি করোনার নমুনা পরীক্ষা ক্রমশ কমছে। আবার পরীক্ষিত নমুনা বিবেচনায় আক্রান্তের শতকরা হার বেশি। যা আগের হিসাবে প্রায় চার ভাগের একভাগ নমুনা পরীক্ষার বাইরে আক্রান্ত রোগী থাকা অধিকতর ঝুঁকিপূর্ণ এবং সংক্রমণ ছড়াতে পারে দ্রুত। তাই আমি নমুনা পরীক্ষা আরও বাড়ানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করছি। ল্যাবগুলোর সক্ষমতা অনুযায়ী নমুনা পরীক্ষার প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রেরণে স্বাস্থ্য বিভাগের কার্যকর ও দ্রুত উদ্যোগ প্রত্যাশা করছি।’ এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, করোনার নমুনা পরীক্ষা ক্রমশ কমছে। আবার পরীক্ষিত নমুনা বিবেচনায় আক্রান্তের শতকরা হার বেশি। মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য বিভাগের মাঝে সমন্বয়ের অভাব আছে বলে গণমাধ্যমের খবর বেরিয়েছে। সেই অনুযায়ী করোনার চিকিৎসা, সংক্রমণ রোধ এবং অন্যান্য রোগের চিকিৎসা অব্যাহত রাখতে সুসমন্বয় প্রতিষ্ঠা জরুরী। দলীয় নেতাকর্মীদের বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশের প্রায় ১৫ জেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে। এছাড়া অন্য জেলায়ও বন্যা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী আওয়ামী লীগ ঐতিহ্যগতভাবেই দুর্যোগে অসহায় মানুষকে সহায়তা করে আসছে। সেই ধারাবাহিকতায় দলের নেতাকর্মীদের বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছি।

ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সপ্তাহে ৫ দিন আপীল বিভাগে শুনানি চলবে

স্টাফ রিপোর্টার

আগামী ১৯ জুলাই রবিবার থেকে সপ্তাহে ৫ দিনই ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগে শুনানি চলবে। এই ৫ দিন সকাল ১০টা থেকে সোয়া একটা পর্যন্ত শুনানি গ্রহণ করা হবে। আপীল বিভাগের ভার্চুয়াল কোর্টে জরুরী বিষয়ে শুনানি সংক্রান্ত মামলার দৈনন্দিন কার্যতালিকা (কজলিস্ট) যথারীতি সুপ্রীমকোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে এবং ভার্চুয়াল (মিটিং) শুনানি সংক্রান্ত যোগাযোগ ই-মেইল থেকে জানা যাবে। মঙ্গলবার আপীল বিভাগের রেজিস্ট্রার মোঃ বদরুল আলম ভূঞা এ বিষয়ে এক বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রধান বিচারপতি দেশব্যাপী করোনা সংক্রমণ রোধকল্পে এবং শারীরিক উপস্থিতি ছাড়া আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার আইন, ২০২০ (২০২০ সনের ১১নং আইন) এবং অত্র কোর্ট কর্তৃক প্রণীত প্র্যাকটিস ডাইরেকশন অনুসরণ করে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে শুধু ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে বাংলাদেশ সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগের ভার্চুয়াল কোর্টের মাধ্যমে স্বাভাবিক বিচারকার্য পরিচালিত হবে মর্মে অনুমোদন প্রদান করেছেন। আপীল বিভাগের ভার্চুয়াল কোর্টে আগামী জুলাই হতে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সপ্তাহের রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা হতে দুপুর ১টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত শুনানি গ্রহণ করা হবে এবং উক্ত দিনগুলোতে সুপ্রীমকোর্টের দৈনন্দিন নিয়মিত স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, আপীল বিভাগের ভার্চুয়াল কোর্টে জরুরী বিষয়ে শুনানি সংক্রান্ত মামলার দৈনন্দিন কার্যতালিকা (কজলিস্ট) যথারীতি সুপ্রীমকোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে এবং ভার্চুয়াল (মিটিং) শুনানি সংক্রান্ত যোগাযোগ ই-মেইল থেকে জানা যাবে। এর আগে গত ১২ জুলাই আপীল বিভাগের ভার্চুয়াল বেঞ্চ প্রতি সপ্তাহের সোম ও বৃহস্পতিবার পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সুপ্রীমকোর্ট প্রশাসন। তবে গত সোমবার প্রধান বিচারপতি আপীল বিভাগের মামলা পরিচালনাকালে জানিয়েছিলেন, ভার্চুয়াল বিচার ব্যবস্থা কার্যকর ভূমিকা পালন করলে সপ্তাহে ৫ দিনই কার্যক্রম চলবে। এরই ধারাবাহিকতায় এ ঘোষণা আসল।

এর আগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ জনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সাধারণ ছুটি চলাকালে গত ৯ মে আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ জারি করে সরকার। ফলে অডিও-ভিডিও বা অন্য কোন ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শারীরিক উপস্থিতি ছাড়া ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে বিচারকাজ পরিচালনার সুযোগ তৈরি হয়। অধ্যাদেশটি গত ৯ জুলাই আইনে পরিণত হয়েছে। অধ্যাদেশের বিধান অনুসারে, আপীল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের ক্ষেত্রে ভার্চুয়াল কোর্টের জন্য পৃথক প্র্যাকটিস ডাইরেকশন, আইনজীবীদের জন্য ভার্চুয়াল কোর্ট রুম ব্যবহার ম্যানুয়াল, অধস্তন আদালত ও ট্রাইব্যুনালে ভার্চুয়াল শুনানি করতে বিশেষ প্র্যাকটিস নির্দেশনা প্রকাশ করা হয়। প্র্যাকটিস ডাইরেকশনসহ ম্যানুয়ালে ব্যবহারিক দিক-নির্দেশনা রয়েছে। গত ১১ মে থেকে ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর থেকে হাইকোর্টের পৃথক ১৩টি বেঞ্চে এবং আপীল বিভাগের চেম্বার কোর্টে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বিচার কার্যক্রম চলে আসছে। এ অবস্থায় ১৪ জুলাই মঙ্গলবার ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে আপীল বিভাগের বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনার সিদ্ধান্ত সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি এলো। এর মধ্য দিয়ে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে বিচার কার্যক্রম শুরু হতে হলো। যা দেশের বিচার বিভাগের ইতিহাসে প্রথম। গত ৮ জুলাই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ফুল কোর্ট সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয় করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত উচ্চ আদালতে ভার্চুয়াল কোর্ট চলবে। একইসঙ্গে ভার্চুয়াল বেঞ্চের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। একক বেঞ্চের পাশাপাশি ডিভিশন (দ্বৈত) বেঞ্চও গঠন করা হবে। ঈদের পর পরবর্তী ফুলকোর্ট সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। ওইদিন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনে এর সভাপতিত্বে ফুলকোর্ট সভায় এ সকল সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর সমাহিত হবেন আজ

খুলনাঞ্চল রিপোর্ট

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে ৯ দিন থাকার পর আজ ১৫ জুলাই বুধবার রাজশাহীতে চির সমাহিত হবেন দেশের সঙ্গীত জগতের অন্যতম সেরা তারকাকণ্ঠ প্লেব্যাক স¤্রাট খ্যাত এন্ড্রু কিশোর। সকাল ১০টায় স্থানীয় চার্চে নেয়া হবে এন্ড্রুর মরদেহ। এরপর তাকে নেয়া হবে রাজশাহীর কালেক্টরেট মাঠের পাশে খ্রীস্টানদের কবরস্থানে। সেখানে বাবা-মায়ের কবরের পাশেই চিরনিদ্রায় হবেন এন্ড্রু কিশোর। ইতোমধ্যে এন্ড্রু কিশোরের শেষ বিদায়ের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নিজের দেখান স্থানেই তাকে সমাধিস্থ করা হবে। মৃত্যুর পর কী কী করতে হবে সব পরিকল্পনা নিজেই করে গেছেন তিনি। আজ শেষ হবে তারই বাস্তবায়ন। শেষ শ্রদ্ধার জন্য এন্ড্রু কিশোরকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারে নেয়ার পরিকল্পনা করা হলেও চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সেই সিদ্ধান্ত বাতিল করেছে। গত ৬ জুলাই সন্ধ্যা ৬টা ৫৫ মিনিটে ভক্ত সতীর্থ সবাইকে কাঁদিয়ে চিরদিনের জন্য না ফেরার দেশে চলে গেছেন বাংলা গানের জনপ্রিয় কণ্ঠস্বর সবার প্রিয় এন্ড্রু কিশোর। মৃত্যুর পর অস্ট্রেলিয়ায় থাকা দুই সন্তানের জন্য হিমঘরে রাখা হয়েছিল তাকে। বাবার মৃত্যু সংবাদ শুনে দেশে ফিরেছেন তারা। করোনার কারণে তাদের দেশে ফিরতে বিলম্ব হয়েছে।

বর্ষা মৌসুমে তরমুজ চাষে কৃষকের ভাগ্য বদল মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট’র সফলতা

হারুন-অর-রশীদ

চলছে বর্ষা ঋতু। তরমুজ চাষের সময় না হলেও এখন চলছে বর্ষাকালীন তরমুজ চাষ। এতে কৃষকের ভাগ্য বদল হচ্ছে। তাদের মুখে ফুটছে হাসি। মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের উদ্ভাবনী প্রযুক্তি ব্যবহার করে কৃষকের এই সফলতা। এ বছর দ্বিতীয়বারের মতো চাষ করা হচ্ছে লবনাক্ত জমিতে অসময়ের বর্ষাকালীন তরমুজ। গত বছর খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা ও ডুমুরিয়ায় তিনজন কৃষক প্রথমবারের মতো পরীক্ষামূলকভাবে তরমুজ চাষ করে সফলতা অর্জন করেন। তাদের দেখাদেখি এবছর ১৫জন কৃষক ৭শ ৫০শতক জমিতে বর্ষাকালীন তরমুজ চাষ করেছেন। গত ১৩ জুন এই তরমুজের রোপন কাজ শুরু হয় এবং আগামী মাসের শেষের দিকে এ তরমুজ কাটা হবে বলে জানিয়েছেন কৃষকরা। প্রতিটি লতার ডগায় ঝুলছে বড় বড় তরমুজ। চারদিকে সবুজের সমারোহ।

মৃত্তিকা সম্পদক উন্নয়ন ইনস্টিটিউট গোপালগঞ্জ-খুলনা-বাগেরহাট-সাতক্ষীরা ও পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প (এসআরডিআই অংগ) সূত্র জানায়, এ বছর খুলনার ডুমরিয়া-চাঁদগড় গ্রামে ৪টি, বটিয়াঘাটা বায়ারভাঙ্গা গ্রামে ৫টি, গোপালগঞ্জ সদরে ৪টি এবং বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলায় ২টি করে মোট ১৫টি গবেষনা প্লট স্থাপন করা হয়। প্রতি প্লটে ১জন করে মোট ১৫ জন কৃষক ৫০ শতক জমিতে বর্ষাকালীন অসময়ের তরমুজ চাষ করে সফলতা পেয়েছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় বাম্পার ফলন হয়েছে। এতে রয়েছে অপার সম্ভাবনা। কৃষকরা হয়েছে লাভবান। মাচা পদ্ধতিতে এই তরমুজের চাষ করা হয়েছে।

মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট মাটি, সার ও পানি ব্যবস্থাপনা, কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছে নতুন নতুন উদ্ভাবনী প্রযুক্তি। এ প্রকল্প লবনাক্ত এলাকায় পুকুর ও ঘেরের পাশে পতিত জমিতে অসময়ের বর্ষাকালীন তরমুজ চাষ করার জন্য কৃষককে উদ্বুদ্ধ করে। মাটি ও পানি পরীক্ষা করে এর তরমুজের চাষ করা হয়।

মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট লবনাক্ততা ব্যবস্থাপনা ও গবেষনা কেন্দ্র ঘের ও পুকুর পারের মাটি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রযুক্তির উৎকর্ষতা সাধনের আরও গবেষনা অব্যাহত রেখেছে এবং কয়েকটি প্রযুক্তির উদ্ভাবন করে।

গতবছর প্রথমবারের মত এ তরমুজ চাষে কৃষকরা সফলতা পেয়েছেন। খুলনার মানুষের চাহিদা পুরণ করে বাইরের জেলাগুলোতেও তরমুজ বিক্রি করা হয়। প্রতি কেজি তরমুজ ৭০-৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে বলে জানান কৃষকরা। এরই ধারাবাহিকতায় এবছর আরও ব্যপক আকারে বিভিন্ন জেলায় কৃষকদের মাঝে এই অসময়ের বর্ষাকালীন তরমুজ চাষের প্রবনতা দেখা গেছে। হাইব্রিড নম্বর-১ ও টকসুইট নামের দুটি জাত চাষ করা হয়েছে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ, কীটনাশক, সার, বীজ, মাচা তৈরীর করার প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম, নগদ অর্থ এবং মাস্ক বিতরণ করা হয়। সূত্র জানায় গোপালগঞ্জ-খুলনা-বাগেরহাট-সাতক্ষীরা ও পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প (এসআরডিআই অংগ) আমন ধান কাটার পর পতিত জমিতে লবনাক্ত এলাকায় তরমুজ ও ভুট্টা চাষ করার জন্য কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করে থাকেন। ইতোমধ্যে এ প্রকল্প ডুমুরিয়ার খর্নিয়া, গুটুদিয়াসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের জনবসতীপূর্ণ এলাকায় প্রদর্শনের জন্য ‘সার সুপারিশ বোর্ড’ সেটে দিয়েছেন। যাতে কৃষকরা এই বোর্ড দেখে নিজেরাই জমিতে সার প্রয়োগ করতে পারে।

ডুমুরিয়ার চাঁদগড় গ্রামের চাষি জয়ন্ত বিশ্বাস ও বটিয়াঘাটার বয়ারভাঙ্গা গ্রামের দিবাকর মন্ডল ও রতন মন্ডল বলেন, ঘেরের পারে গ্রষ্মকালে তরমুজের বাম্পার ফলন পাওয়া গেছে। এখন বর্ষাকালীন তরমুজেরও বাম্পার ফলন হয়েছে। এবছরও সব ঠিক থাকলে আমরা লাভবান হতে পারবো। কৃষকের যথাযথ প্রশিক্ষণ এবং মাটি ও সার ব্যবস্থাপনার ফলে এই প্রকল্পে তরমুজের বাম্পার ফলন সম্ভব হয়েছে। কৃষকরা এ প্রকল্পের সফলতা কামনা করেন।

মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট গোপালগঞ্জ-খুলনা-বাগেরহাট-সাতক্ষীরা ও পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প (এসআরডিআই অংগ)’র পরিচালক সচীন্দ্র নাথ বিশ্বাস বলেন, ঘের ও পুকুর পাড়ে এই তরমুজ চাষ করায় বর্ষাকালে সেচের প্রয়োজন হয় না। পর্যাপ্ত পরিমান পানি পাওয়া যায়। ফলে কৃষকের সমস্যা হয় না। তরমুজ চাষ হতে পারে কৃষকের ভাগ্যো উন্নয়নের চাবিকাঠি। ঘেরে যেহেতু মাছ চাষ করা হয় তাই কৃষকগণ আইপিএম (ওষুধ ব্যবহার না করে) পদ্ধতিতে  ফসল আবাদ করছেন। ফলে পোকা মাকরের আক্রমন কম হচ্ছে। তিনি বলেন, ঘেরের পারে আইলে তরমুজের চাষ সম্প্রসারিত করা গেলে কৃষিতে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে। তাই মাঠ পর্যায়ে আরও বেশি সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেওয়ায় কৃষকদের ভূমিকা রাখার জন্য অনুরোধ জানানো হয়।