শনিবার থেকে স্টেডিয়ামেই অনুশীলন করতে পারবেন ক্রিকেটাররা

7
Spread the love

ক্রীড়া প্রতিবেদক

রাজধানী ঢাকাসহ ক্রিকেটাররা যাতে সারা দেশের সব প্রতিষ্ঠিত ভেন্যুতে নিজ নিজ উদ্যোগে অনুশীলন করতে পারেন, সে লক্ষ্যে দেশের ক্রিকেটের আটটি আন্তর্জাতিক ভেন্যু সম্পূর্ণ প্রস্তুত করে ফেলা হয়েছে আগেই।
বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান আগেভাগেই জানিয়ে রেখেছিলেন- ঢাকার শেরে বাংলা, ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী, কক্সবাজারের শেখ কামাল, খুলনার শেখ আবু নাসের, সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম, রাজশাহী কামরুজ্জামান স্টেডিয়াম তৈরি রাখা হয়েছে ক্রিকেটারদের জন্য। তারা ইচ্ছে করলেই অনুশীলন করতে পারবেন। অবশ্য ঢাকার বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের অনেকেই ব্যক্তিগত পর্যায়ে অনুশীলন শুরু করেছেন। তবে সেটা কোন প্রতিষ্ঠিত ক্রিকেট ভেন্যুতে নয়, ঢাকার বাইরের জাতীয় ক্রিকেটারদের প্র্যাকটিস চলছে বাড়ির কাছের মাঠ বা খোলা জায়গায়।
এদিকে ভেতরের খবর, এবার সেই সব ভেন্যু ক্রিকেটারদের অনুশীলনের জন্য খুলে দেয়া হচ্ছে। বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানিয়েছেন, আগামী ১৮ জুলাই শনিবার থেকে ঢাকার শেরে বাংলা স্টেডিয়ামসহ সব ভেন্যুতে ব্যক্তিগত পর্যায়ের অনুশীলন করার জন্য খুলে দেয়া হবে। ক্রিকেটাররা ইচ্ছে করলে সে সব ভেন্যুতে নিজ নিজ উদোগে অনুশীলন করতে পারবেন।
আজ মঙ্গলবার পড়ন্ত বিকেলে জাগো নিউজের সাথে আলাপে ডাঃ দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘আমরা ব্যক্তিগত পর্যায়ের অনুশীলন করার সুযোগ করে দিতে চাচ্ছি এবং আগামী শনিবার পর্যন্ত রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন ভেন্যু খুলে দেয়া হবে।’ কিন্তু সবচেয়ে মজার খবর হলো, বিসিবির প্রধান চিকিৎসক ক্রিকেটারদের অনুশীলনের জন্য শেরে বাংলাসহ দেশের সব প্রতিষ্ঠিত ভেন্যুতে ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত পর্যায়ে অনুশীলন করার খবর দিলেও যার সবার আগে এই খবর জানার কথা, সেই আকরাম খান জানালেন তিনি কিছুই জানেন না।
জাতীয় দল পরিচালনা, পরিচর্যা ও তত্ত্বাবধানর দায়িত্বে থাকা ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান মঙ্গলবার জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমি এবং আমরা (বিসিবি) আগেও বলেছি, এখনো বলছি- ক্রিকেটাররা যদি কেউ ব্যক্তিগত পর্যায়ে অনুশীলন করতে চায় তাহলে করতে পারে। তবে করোনার এখনও যে অবস্থা, তাতে ক্রিকেটারদের মাঠে গিয়ে অনুশীলন করা নিরাপদ নয়। তাই আমরা বোর্ড থেকে এখন ক্রিকেটারদের নিরুৎসাহিত করছি। অবস্থা ভালো হলেই কেবল জাতীয় দলের আনুষ্ঠানিক অনুশীলন শুরু হবে।’
আকরাম খান যোগ করেন, ‘এখন মাঠে গিয়ে ক্রিকেটাররা প্র্যাকটিস করবে কি করবে না, সেটা আসলে তাদের ওপর ছেড়ে দেয়াই ভালো। আর শনিবার থেকে যে অনুশীলন শুরুর কথা বলা হয়েছে, আমি তা জানি না। আমি এটুই শুধু জানি, ভেন্যুগুলো অনুশীলনের জন্য তৈরি। কিন্তু বোর্ডের উদ্যোগে আপাতত কোনো অনুশীলন শুরু হচ্ছে না। তারপরও কেউ একান্তই যদি মাঠে গিয়ে অনুশীলন করতে চায়, করতে পারে। তবে আমরা বোর্ড থেকে উৎসাহিত করবো না।’
‘আর স্কিল ট্রেনিংও এখন হবে না। নিজ নিজ উদ্যোগে ফিজিক্যাল ট্রেনিং, জিমওয়ার্ক, রানিং আর হালকা নক করতে পারবে হয়তো। এর বাইরে সত্যিকার প্র্যাকটিস বলতে যা বোঝায়, তা করোনার ভয়াবহতা না কমলে কিছুতেই শুরু হবে না’-বলে শেষ করেন আকরাম।

শিরোপা থেকে মাত্র ২ পয়েন্ট দূরে রিয়াল মাদ্রিদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ম্যাচের বাকি তখন ৫ মিনিট, রিয়াল মাদ্রিদ এগিয়ে ২-১ গোলে। জোরালো এক আক্রমণ করে স্বাগতিক গ্রানাডা। প্রথম চেষ্টায় তা পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া। ফিরতি শটে প্রায় গোল পেয়েই যাচ্ছিল গ্রানাডা, একদম গোললাইন থেকে তা ফিরিয়ে দেন রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও রামোস।
আর এর মাধ্যমেই নিশ্চিত হয় রিয়ালের মূল্যবান ৩টি পয়েন্ট। যা তাদের শিরোপা স্বপ্নকে নিয়ে এসেছে একদম হাতের মুঠোয়। লিগের ৩৬ ম্যাচ শেষে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বার্সেলোনার চেয়ে ৪ পয়েন্টে এগিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ। তাদের সংগ্রহ ৮৩ পয়েন্ট, বার্সার ঝুলিতে রয়েছে ৭৯। ফলে বাকি থাকা দুই ম্যাচে বার্সেলোনা পূর্ণ ৬ পয়েন্ট পেলেও কোন কাজ হবে না, যদি রিয়াল তাদের দুই ম্যাচ থেকে মাত্র ২ পয়েন্ট পেয়ে যায়। অর্থাৎ মাত্র ২ পয়েন্ট পেলেই লিগ শিরোপা নিশ্চিত হয়ে যাবে রিয়ালের। যা হতে পারে বৃহস্পতিবার ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচেই। ঘরের মাঠে সেদিন জয় পেলেই ২০১৬-১৭ মৌসুমের পর ফের লিগ চ্যাম্পিয়ন হবে রিয়াল।
তাদের শিরোপা সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে গ্রানাডার মাঠ থেকে ২-১ গোল জয় নিয়ে ফেরায়। সোমবার রাতের ম্যাচে মাত্র ১৬ মিনিটের মধ্যেই জোড়া গোল করে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। দাপট দেখায় প্রথমার্ধের প্রায় পুরোটা সময়। দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল গ্রানাডা। তবে পারেনি রিয়ালের করা দুই গোলের জবাব দিতে। ম্যাচের ১০ মিনিটের মাথায় একক প্রচেষ্টায় প্রথম গোল করেন ফারল্যান্ড মেন্ডি। এর মিনিট ছয়েক পর লুকা মদ্রিচের বাড়ানো বল থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন করিম বেনজেমা। লিগে এটি তার ১৯তম গোল। প্রথমার্ধে আরও কিছু সুযোগ এসেছিল রিয়ালের সামনে। তবে কাজে লাগাতে পারেনি তারা। দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যেই রিয়ালকে এক গোল শোধ করে দেয় গ্রানাডা। মাঝমাঠে ক্যাসিমেরোর ভুলে বল পান ইয়াঙ্গেল হেরেইরা। তার পাস ধরে কর্তোয়াকে পরাস্ত করেন ডারউইন ম্যাচিস। টানা ৫০৭ মিনিট নিজের অক্ষত রাখার পর গোল হজম করেন কর্তোয়া। এরপর আরও কিছু আক্রমণ করেও গোলের দেখা পায়নি গ্রানাডা।

করোনাকালে ভারোত্তোলন প্রতিযোগিতা


ক্রীড়া প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের থাবায় দেশের ক্রীড়াঙ্গনের সব খেলাই বন্ধ। তবে পরিস্থিতি বিবেচনা করে কোনও কোনও ফেডারেশন প্রস্তুতি নিচ্ছে মাঠে খেলা ফেরানোর। এই যেমন ভারোত্তোলন ফেডারেশন। তারা আগস্টের শেষে আয়োজন করতে চাইছে ‘জাতীয় কাব কম্পিটিশন’।
তবে প্রতিযোগিতাটি এবার একটু ভিন্নভাবে করার ইচ্ছা ফেডারেশনের। আগে যেখানে এক ভেন্যুতে সারাদেশের প্রতিযোগীরা অংশ নিতেন, এবার তা হচ্ছে না। এবার যার যার ভেন্যুতে প্রতিযোগীরা সংশ্লিষ্ট ইভেন্টে অংশ নেবেন। তারপর স্থানীয় জাজ বা কোচেরা সেই ফল ফেডারেশেনে পাঠিয়ে দেবেন। ফেডারেশনের বিচারকরা মিলে তখন বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করবেন। তবে সবকিছুই হবে সামাজিক দূরত্ব মেনে। ১৩ জেলার ১৬ কাবের ২০১ জন ভারোত্তোলক অংশ নেওয়ার কথা আছে জাতীয় কাব প্রতিযোগিতায়। বিজয়ীদের আর্থিক পুরস্কারও দেবে ফেডারেশন।

নগরীর বাস্কেটবল খেলোয়াড়দের অনুদান প্রদান

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বাংলাদেশ বাস্কেটবল ফেডারেশন হতে করোনা (কভিড-১৯) মহামারীকালে অসহায় ও অসচ্ছল খেলোয়াড়দের এককালীন অনুদান হিসেবে খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার মাধ্যমে প্রত্যেক খেলোয়াড়কে নগদ ৩ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় জেলা ষ্টেডিয়াম ভবনে ৮জন বাস্কেটবল খেলোয়াড়কে অনুদানের উক্ত অর্থ প্রদান করা হয়। অনুদানের অর্থ প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক কাজী শামীম আহসান, বাংলাদেশ বাস্কেটবল ফেডারেশনের সদস্য তাওহিদুল ইসলাম, ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী পরিষদ সদস্য এস এম ইনামুল কবীর মন্নু, জেলা বাস্কেটবল প্রশিক্ষক সাইফুল ইসলাম স্বপন। এছাড়া ও ইতিপূর্বে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়াধীন বঙ্গবন্ধু ক্রীড়া সেবী কল্যান ফাউন্ডেশন হতে করোনা (কভিড-১৯) মহামারীকালে এককালীন অনুদান হিসেবে বাস্কেটবল খেলোয়াড় মো. আরিফ হোসেন বাপ্পি, কারাতে খেলোয়াড় জুলিয়া খান জয়, সাইকিং খেলোয়াড় মো. মনিরুল ইসলাম প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকার চেক এবং ভলিবল ফেডারেশন থেকে ভলিবল প্রশিক্ষক মো. মনিরুজ্জামান, খেলোয়াড় মোয়াজ্জেম হোসেন প্রত্যেককে ৫হাজার টাকার চেক খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার মাধ্যেমে প্রদান করা হয়েছে।

অবশেষে করোনামুক্ত মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক

অবশেষে করোনামুক্ত মাশরাফি বিন মর্তুজা। দেশ বরেণ্য এ ক্রিকেটারের করোনামুক্তি নিয়েও বেশ গুঞ্জন ছিল। কয়েকবারই মিডিয়ায় খবর চাউর হয়ে গেছে যে মাশরাফি করোনামুক্ত। আবার করোনা টেস্ট করানো নিয়েও রটেছে রটনা।
পরে মাশরাফি নিজের ফেসবুক ওয়ালে স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছেন প্রকৃত ঘটনা। এরপর মাশরাফি শেষবার করোনা টেস্ট করার আগে জানিয়ে দিয়েছিলেন যে আমি ফেসবুকে জানাবো। অবশেষে গতকাল রাতে জাতীয় দলের এ সফলতম অধিনায়ক নিজের ফেসবুক ওয়ালে স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছেন, আজ রাতেই রিপোর্ট এসেছে। তাতে তার করোনা নেগেটিভ। তবে মাশরাফির রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও তার তার স্ত্রীর করোনা রিপোর্ট এসেছে পজিটিভ। মাশরাফি নিজেই জানিয়েছেন এ তথ্য এবং জানিয়েছে তার স্ত্রী সুস্থই আছেন।

জাতীয় দলে ডাক পাচ্ছেন ফিনল্যান্ড প্রবাসী তারিক


ক্রীড়া প্রতিবেদক

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ দিয়ে আবারও মাঠে ফিরবে বাংলাদেশ ফুটবল দল। আর এই ম্যাচে জাতীয় দলের জার্সিতে দেখা যেতে পারে ফিনল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশি ফুটবলার কাজী তারিক রায়হানকে। ডাক পেতে পারেন পুলিশের উইঙ্গার ম্যাথিউজ বাবলুও।
বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বের জন্য এএফসি’র কাছে পাঠানো ৪৪ জন খেলোয়াড়ের তালিকায় রয়েছে তারিক ও বাবলুর নাম। তবে এই ৪৪ জনের তালিকা থেকে সংখ্যা কমিয়ে ৩৫ জনে আনা হতে পারে। ফিনল্যান্ডের শীর্ষ কাব ইলভেস ট্যাম্পেরের হয়ে ইউরোপা লিগের বাছাইপর্বে খেলার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন তারিক বাংলাদেশ জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে এখনই নিশ্চিত করে কিছু বলতে চান না। তবে কোচ জেমি ডে’র সঙ্গে ইতিবাচক কথা হয়েছে, এটুকুই জানালেন।

বিসিবির উদ্যোগে স্বস্তিতে রুমানা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

করোনা ভাইরাসের কারণে চার মাসেরও বেশি সময় ধরে দেশের ক্রিকেট স্থগিত। তাই ক্রিকেটাররা বাধ্য হয়েই ঘরবন্দি হয়ে পড়েছেন। ক্রিকেট থেকে বাইরে থাকলেও ক্রিকেটাররা ঘরে থেকেই ফিটনেস নিয়ে কাজ করছেন।
তবে বেশির ভাগ ক্রিকেটারের ঘরে নেই ফিটনস নিয়ে কাজ করার জন্য জিমের সরঞ্জাম। তাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) যাদের বাসায় এ্ই সব সরঞ্জাম নেই তাদেরকে বিনামূল্যে সরঞ্জাম দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। জাতীয় নারী দলের ক্রিকেটার রুমানা আহমেদ এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার গণমাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছেন রুমারা। নারী দলের এই ক্রিকেটার ফিজিওকে জানিয়েছেন তার কি কি সরঞ্জাম প্রয়োজন।

জাপান চায় অলিম্পিক হোক

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সব ঠিক থাকলে আর ১০দিন পর এমনিতেই শুরু হয়ে যেতো দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ অলিম্পিক গেমস। এই একটি গেমস আয়োজনের জন্য কত হাজার কোটি টাকা খরচ করেছে জাপান। টোকিওকে গড়ে তুলেছে তিলোত্তোমা নগরী হিসেবে। প্রস্তুতির সব ধাপ যখন শেষ করে এনেছিল তারা, তখনই করোনা মহামারির ভয়াল থাবা। অলিম্পিককে পিছিয়ে দিয়েছে এক বছর।
আগামী বছর ঠিক একই সময়ে অনুষ্ঠিত হবে এবারের অলিম্পিক গেমস। তবে এক বছর পিছিয়ে দেয়া হলেও অলিম্পিক গেমস আগামী বছরও আয়োজন করা সম্ভব হবে কি হবে না তা নিয়ে এখনও চলছে জ্বল্পনা-কল্পনা। কখনো বলা হচ্ছে, আগামী বছরও অলিম্পিক গেমস আয়োজন সম্ভব হবে না, আবার কখনও বলা হচ্ছে অনিশ্চিত।
টোকিওর গভর্নর ইউরিকো কোইকে বলেন, ‘কঠিন পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে এসে সবাই একসঙ্গে মানবতাকে তুলে ধরার চেষ্টা করছে। এক জোট হয়ে দাঁড়াচ্ছে অলিম্পিকের মঞ্চে, এটাই হবে সবচেয়ে বড় ব্যাপার। আর তাই আমরা অলিম্পিক আয়োজন করতে চাই।’

শীর্ষ চারে উঠতে পারল না ম্যানইউ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রিমিয়ার লিগের শীর্ষে চারে উঠার সুবর্ণ সুযোগ ছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সামনে। এ জন্য প্রয়োজন ছিল জয়ের। কিন্তু নিজেদের মাঠে জয় ছিনিয়ে নিতে পারেনি এই ইংলিশ জায়ান্ট। তাই সুযোগটাও কাজে লাগাতে পারেনি রেড ডেভিলরা।
ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইনজুরি টাইমের সমতাসূচক গোলে হৃদয় ভেঙে যায় স্বাগতিকদের। সাউদ্যাম্পটনের সঙ্গে ২-২ গোলের ড্র নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে তাদের। সুযোগ মিস হলেও একটুও দমে যাননি কোচ ওলে গুনার সোলসজায়ের। শিষ্যদের ওপর থেকে আস্থা হারাননি। ম্যানইউ কোচের দৃঢ় বিশ্বাস, তার ফুটবলাররা দলকে লক্ষ্যে পৌঁছে দিবেই।

প্রিমিয়ার লিগে আবারও করোনার থাবা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

চালুর হওয়ার পরেও করোনা মুক্ত থাকতে পারেনি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ। নতুন পরীক্ষায় কোভিড-১৯ পজিটিভ পাওয়া গেছে আরও একজন। গত সপ্তাহে খেলোয়াড় ও স্টাফদের ওপর করানো হয় আরও এক রাউন্ড পরীক্ষা। মে থেকে শুরু হওয়া এই পরীক্ষায় এখন মোট আক্রান্ত পাওয়া গেলো ২০জন।
বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘৬ জুলাই থেকে ১২ জুলাই স্টাফ ও খেলোয়াড় মিলিয়ে ২ হাজার ৭১জনের করোনা পরীক্ষা হয়েছে। সেখান থেকে পজিটিভ এসেছে একজন।’ অবশ্য কে আক্রান্ত হয়েছেন বা তিনি কোন কাব সংশ্লিষ্ট, সেটি পরিষ্কার করে জানায়নি লিগ কর্তৃপক্ষ। মে থেকে এখন পর্যন্ত ১৩ রাউন্ড পরীক্ষা করা হয়েছে।

ইন্টারও ফিরলো স্বরূপে

ক্রীড়া প্রতিবেদক

টানা দুই ম্যাচে পয়েন্ট বিসর্জন দেওয়ার পর এবার এক ঢিলে দুই পাখি শিকার করলো ইন্টার মিলান। ঘরের মাঠে পিছিয়ে পড়েও তোরিনোকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে তারা। সেই সঙ্গে লাৎসিও’কে টপকে সিরি’আ লিগের চলতি মৌসুমের পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ওঠে এসেছে আন্তনিও কন্তের দল।
ইন্টার অবশ্য প্রথমার্ধ শেষ করেছিল ১-০ ব্যবধানে পিছিয়ে থেকে। ১৭তম মিনিটে তোরিনোক এগিয়ে দেন আন্দ্রে বেলোত্তি। বিরতির পর স্বরূপে ফিরে নেরাজ্জুরিরা। ৪৮তম মিনিটে ইন্টারকে সমতায় ফেরান অ্যাশলে ইয়ং। এর তিন মিনিট পরই ব্যবধান ২-১ করেন দিয়েগো গডিন। ৬১তম মিনিটে ইন্টারকে তৃতীয় গোল এনে দেন লওতারো মার্তিনেজ। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড ইন্টারের হয়ে শেষ গোল পেয়েছিলেন ২২ জুন, সাম্পদোরিয়ার বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে জয়ের ম্যাচে। এই জয়ে ৩২ ম্যাচে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে বসেছে কন্তের দল। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকায় তিনে নেমে গেছে লাৎসিও। তাদের চেযে এক পয়েন্ট কম নিয়ে চারে আতালান্তা। ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে শিরোপার সুবাস পাওয়া জুভেন্টাস।

কোয়ারেন্টিন শেষে ডার্বিতে পাকিস্তান দল

ক্রীড়া প্রতিবেদক

করোনাভাইরাস পাল্টে দিয়েছে সব হিসাব-নিকাশ। এখন আর আগের মতো চিন্তার সুযোগ নেই। তবে স্বস্তির কথা ফের মাঠে ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজের রোমাঞ্চ সদ্য শেষ হয়েছে। পাকিস্তান দলও এরইমধ্যে ক্রিকেট খেলতে পা রেখেছে ইংল্যান্ডে। বিশেষ ফাইটে দেশটিতে পা দিয়েই অবশ্য কোয়ারেন্টিনে যেতে হয় বাবর আজমদের।
অবশেষে মঙ্গলবার শেষ হয়েছে পাকিস্তান দলের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন। উস্টারে সেই পর্ব শেষ করে ডার্বিতে পা রেখেছে পাকিস্তান দল। এবার অনুশীলনে নেমে পড়বে সফরকারীরা। ডার্বিতে সতর্ক হয়েই পা রেখেছে পাকিস্তান দলের ক্রিকেটাররা। সবাই ছিলেন মাস্ক পরিহিত। একইসঙ্গে সামাজিক দূরত্বও মেনে চলছেন সবাই। করোনা সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে তাদের জৈব সুরক্ষিত পরিবেশে রাখছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। সফরের শুরুতেই বিশেষ চার্টার্ড বিমানে উড়িয়েই পাকিস্তানকে ইংল্যান্ডে এনেছে তারা। যদিও মাঠের লড়াই আরও কিছুদিন পর। ওল্ড ট্রাফোর্ডে সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু ৫ আগস্ট। তার আগে ডার্বি ছেড়ে ১ আগস্ট পাকিস্তান দল যাবে ভেন্যু শহর ম্যানচেস্টারে। আপাতত ডার্বিতে দলের ২৯ সদস্যকে নিয়েই আছে পাকিস্তান। অনুশীলনের অনুমতিটাও মিলছে তাদের। কারণ করোনার শঙ্কা কাটাতে যে কোয়ারেন্টিন সেটিও শেষ। সব ঠিক থাকলে নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচে খেলবে পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা।
আগস্টের ৫ তারিখে ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে শুরু হবে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানের মধ্যকার প্রথম টেস্ট। এরপর ১৩ আগস্ট শুরু দ্বিতীয় টেস্ট। ২১ আগস্ট থেকে সাউদাম্পটনে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট। এরপরই ২৮ ও ৩০ আগস্ট এবং ১ সেপ্টেম্বর ম্যানচেস্টারে অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের তিনটি ম্যাচ।