খুলনায় বেসরকারিভাবে করোনা হাসপাতাল চালুর উদ্যোগ

3
Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনায় ১০০ শয্যার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ঠাঁই নেই। কয়েক দিন ধরেই হাসপাতালের বাইরে ফটকে ঝুলছে ‘শয্যা খালি নাই’ সাইনবোর্ড। সরকারিভাবে খুলনা জেনারেল হাসপাতালে ৪২ শয্যার আলাদা ইউনিট করার কথা থাকলেও সেখানে অবকাঠামো নির্মাণে সময় লাগবে আরও দেড় মাস। এ অবস্থায় করোনা আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে ‘খুলনা ব্লাড ব্যাংক’ নামের স্বেচ্ছাসেবী একটি প্রতিষ্ঠান। সংগঠনের কর্মীরা করোনা রোগীর চিকিৎসায় ১০০ শয্যার ‘খুলনা ব্লাড ব্যাংক অনল দ্রোহী হাসপাতাল’ চালুর উদ্যোগ নিয়েছে। এরই মধ্যে হাসপাতালের জন্য নগরীর সোনাডাঙ্গা বাইপাসে ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ফোর বরাদ্দ নেওয়া হয়েছে।

সংগঠনের সদস্যরা বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র ও বিসিবির পরিচালক শেখ সোহেল, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন ও করোনা চিকিৎসায় জড়িত চিকিৎসকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তারা ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন। এর আগে মুমূর্ষু রোগীর সেবায় সংগঠনের পক্ষ থেকে খুলনায় অক্সিজেন ব্যাংক চালু করা হয়। বিনামূল্যে অসহায় পরিবারের কাছে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেয় তরুণ সদস্যরা।

সংগঠনের সভাপতি সালেহ উদ্দিন সবুজ বলেন, শয্যা সংকটে খুলনায় সরকারি হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা নিতে পারছেন না মানুষ। বেসরকারি হাসপাতাল-কিনিকে এ চিকিৎসা ব্যয় অত্যন্ত বেশি। এ কারণে খুলনায় বিনামূল্যে করোনা চিকিৎসার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জরুরি চিকিৎসায় এরই মধ্যে অক্সিজেন সিলিন্ডার আনা হয়েছে। আগামী ১৫-২০ দিনের মধ্যে পুরোদমে চিকিৎসা শুরু হবে। সংগঠনের সদস্য শাহ জিয়াউর রহমান বলেন, ১০০ শয্যার করোনা হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় ডেল্টা লাইফ ভবন কর্তৃপক্ষও ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন।