স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনায় মৃত চিকিৎসকের দাফন দিলেন স্বেচ্ছাসেবীরা

1
Spread the love

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি :

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার ল্যাব এইড হাসপাতালে মারা যাওয়া ডা. আব্দুল ওহাবের (৭৮) দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২জুলাই) দুপুরে তাকওয়া ফাউন্ডেশন মণিরামপুর শাখার উদ্যোগে দুইদফা জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়।
এটা ফাউন্ডেশনটির মণিরামপুরে করোনায় মৃত দ্বিতীয় রোগীর দাফন। আজকের (বৃহস্পতিবারের) দাফনকাজে স্বেচ্ছাসেবক টিমটির প্রধান মাওলানা আশরাফ ইয়া‌ছিন, টিমের সমন্বয়কারি না‌ছিম খান, মাওলানা হাসান আল মামুন, মাওলানা মুহিবুল্লাহ, মাওলানা সামছুজ্জামান, মাহমুদুল হাসান, সাইফুল আতাউল্লা ও আজাদ অংশ নেন।


এরআগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা থেকে অ্যাম্বুলেন্সযোগে ডা. আব্দুল ওহাবের মরদেহ মণিরামপুরের হাঁসাডাঙায় তার গ্রামের বাড়িতে পৌঁছায়।
এরপর দুপুর দুইটার দিকে নাগরঘোপ হাইস্কুল ও হাজি মতিউল্লাহ হাফিজিয়া মাদরাসা মাঠে দুইদফা তার জানাজা সম্পন্ন হয়।
সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি, সাবেক চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান, স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদসহ নিহতের স্বজন এবং এলাকাবাসী জানাজায় অংশ নেন।
ডাক্তার আব্দুল ওহাব হাঁসাডাঙা গ্রামের মৃত ফজলুল করিমের ছেলে।
হৃদরোগ ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসক টানা ৩৬ বছর ঢাকা হলি ফ্যামিলি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করে অবসরে যান। এরপর তিনি ধানমন্ডি এলাকায় ডক্টরস ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়মিত রোগী দেখতেন।


পরিবার নিয়ে ধানমন্ডিতে থাকতেন ডা. আব্দুল ওহাব। করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসায় গত শনিবার (২৭ জুন) তাকে ধানমন্ডির ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার (১ জুন) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে সেখানে আইসিইউতে মারা যান তিনি।
তাকওয়া ফাউন্ডেশনের মণিরামপুর শাখার সমন্বয়ক নাসিম খান বলেন, করোনাকালীন দুর্যোগে যখন দেখলাম করোনায় মৃতদের দাফন কাপনে কেউ এগিয়ে আসছেন না। মৃতদেহ রেখে স্বজনরা বা এলাকাবাসী পালিয়ে যাচ্ছেন, তখন মানবিক দিক বিবেচনা করে তাকওয়া ফাউন্ডেশনের অংশ হিসেবে মণিরামপুরে আমরা ২০ সদস্যর সমন্বয়ে একটি স্বেচ্ছাসেবী দল গঠন করি। যারা বিনা পারিশ্রমিকে করোনায় মৃতের দাফন কাফন করবেন। আমাদের টিমে দুই জন নারী সদস্য আছেন। যদি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মণিরামপুরে কোন নারীর মৃত্যু হয় তাহলে তাদের গোসলসহ কাফন পরানোর কাজ আমাদের নারী সদস্যরা করবেন।