সেই পাপিয়ার ৪ কোটি টাকার ‘অবৈধ সম্পদ’

1
Spread the love

খুলনাঞ্চল রিপোর্ট:

নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী আলোচিত শামীমা নূর পাপিয়ার প্রায় চার কোটি টাকার ‘অবৈধ সম্পদের’ সন্ধান পেয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) তদন্তকারীরা। তবে অনুসন্ধানের কাজ আরো কিছুটা বাকি রয়েছে। সেগুলো শেষ হলেই পাপিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করবে দুদক। এমনটাই জানিয়েছেন দুদকের উপ পরিচালক শাহীন আরা মামতাজ।

এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানকে ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে ঢাকা ও নরসিংদীতে পাপিয়ার বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। দুই জায়গাতেই বিপুল সম্পদের খোঁজ পাওয়ার কথা জানায় র‌্যাব।

গ্রেপ্তারের পরই পাপিয়া ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করে র‌্যাব। একটি মামলা জাল নোটের কারবারে। অপর দুটি মামলা অস্ত্র ও মাদক আইনে পৃথকভাবে করা হয়। এছাড়া মুদ্রা পাচার প্রতিরোধ আইনে সিআইডি আরেকটি মামলা করে তাদের বিরুদ্ধে।

এসব মামলার তদন্ত শুরু হলে পাপিয়ার অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধানে নামে দুদক। গ্রেপ্তারের সময় র‌্যাব জানিয়েছিল, গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেল ভাড়া নিয়ে ‘অসামাজিক কার্যকলাপ’ চালিয়ে পাপিয়া যে আয় করতেন, তা দিয়ে হোটেলে বিল দিতেন কোটির টাকার উপরে। এসব বিষয় আমলে নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করেছিল দুদক।

দুদকের উপ পরিচালক শাহীন আরা মামতাজ জানিয়েছেন, বর্তমানে অন্য একটি সংস্থা পাপিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হলেই দুদকের পক্ষে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এরপর তার বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।