সারা খুলনা অঞ্চলের খবর

12
Spread the love

নগরীতে পুলিশের অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার ৮

স্টাফ রিপোর্টার

মহানগর পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে নগরীর বিভিন্ন থানা এলাকা থেকে

৬৩পিস ইয়াবা ও ১৫০গ্রাম গাঁজাসহ ৮জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন নগরীর গোবরচাকা খালাসীবাড়ীর মাদারবাড়ী গরুর ফার্মের পাশে সেলিম এর বাড়ীর ভাড়াটিয়া মৃত. সোরাব মোল্লার ছেলে মো. সুজন মোল্লা (৩২), পশ্চিম বানিয়াখামার ঈদগাহ স্কুলের পাশের বাসিন্দা মৃত. জয়নাল উদ্দিনের ছেলে আব্দুল আজিজ ওরফে সবুজ (২২), ১৪ ধর্মসভা রোডের মো. মিজানুর রহমানের ছেলে হাফিজুর রহমান  ওরফে শিমুল (২০), শামসুর রহমান রোড, শিব মন্দিরের ভিতরের বাসিন্দা বিশ্বনাথ দত্তের ছেলে  রিপন দত্ত (২৪), খালিশপুর পুরাতন কলোনী হাউজিং এস্ট্রেট বাসা নং-এইচ-০৯, রোড নং-১২৬ এর বাসিন্দা মোঃ নূরুল ইসলামের ছেলে মো. মঞ্জুরুল ইসলাম ওরফে রাব্বী (২৭), ৫নং মাছঘাট গ্রীনল্যান্ড আবাসন ফিসারীর পিছনের বাসিন্দা মো. আব্দুল মান্নান খানের ছেলে মো. মুন্না খান (৩৭), রেলওয়ে ঘাট কলোনীর কবরস্থান মসজিদের পাশের বাসিন্দা মৃত. মোসলেম হাওলাদারের ছেলে ইব্রাহিম হাওলাদার (৪৪) ও সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি থানার আগরদাড়ি গ্রামের মো. আ. মজিদের ছেলে আবু হাসান (২৮)। 

কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) কানাই লাল সরকার জানান, গত ২৪ ঘন্টায় নগরীর বিভিন্ন থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে মহানগর পুলিশ। এসময় ৬৩পিস ইয়াবা ও ১৫০গ্রাম গাঁজাসহ ৮জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় ৯টি মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে।

খুমেকে করোনায় নারীর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (খুমেক) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে  রিমু ইসলাম (৪৫) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। রিমু ইসলাম পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার নুরুল ইসলামের স্ত্রী।

করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ডা. শেখ ফরিদ উদ্দীন আহমেদ জানান, রিমু ইসলাম ২৬জুন করোনা পজিটিভ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। গতকাল দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ নিয়ে খুলনায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৩ জনের মৃত্যু হলো।

ঝিনাইদহে র‌্যাবের অভিযানে ৪০০পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ১

স্টাফ রিপোর্টার

ঝিনাইদহ জেলার সদর থানাধীন তেতুলতলা বাজারে অভিযান চালিয়ে ৪০০ পিস ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন সাতক্ষীরা জেলার কলরোয়া থানার চান্দুরিয়া গ্রামের মো. শাহজাহান সর্দারের ছেলে মো. রুহুল কুদ্দুস (২৫)। 

র‌্যাব-৬ জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে ঝিনাইদহ জেলার সদর থানাধীন তেতুলতলা বাজারে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় তেতুলতলা বাজার থেকে ৪০০ পিস ইয়াবাসহ রুহুল কুদ্দুসকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে ঝিনাইদহ সদর থানায় হ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত মহানগর যুবলীগ নেতা শহীদ আলী দাফন সম্পন্ন: বিভিন্ন মহলের শোক

স্টাফ রিপোর্টার

“চাচা আমি আসছি। তোমার সাথে দেখা হবে। আমি দিনাজপুর থেকে রওনা দিয়েছি। ভোর ৪টার মধ্যে খুলনায় পৌছে যাব, ইনশাল্লাহ।” শেষ লেখাটি লিখেছিলো শহীদ আলী তার ফেসবুক ওয়ালে। খুলনায় ফেরার পথে ঈশ্বরদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় মর্মান্তিক এ মৃত্যু হয় খুলনা মহানগর যুবলীগ নেতা ও সোনাডাঙ্গা থানা যুবলীগ যুগ্ম আহবায়ক শেখ শহীদ আলীর (ইন্নালিল্লাহে ……. রাজেউন)। চাচার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে গতকাল শনিবার দিনাজপুর থেকে খুলনায় ফেরার পথে ঈশ্বরদীতে গাড়ির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। যুবলীগ নেতা শহীদ আলীর মৃত দেহ খুলনার সোলায়মান নগরে আনা হয়। সেখানে এক হৃদয় বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। মরহুমের নামাজে জানাযা বাদ ঈশা সোলায়মান নগর পার্কে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা শেষে মরহুমকে বসুপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়। অপরদিকে শহীদ আলীর মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা শোকাহতদের বাড়ি যান। সেখানে নেতৃবৃন্দ কিছু সময় অবস্থান করে এবং ধৈর্য্য ধারনের জন্য সান্তনা দেন। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, হাফেজ মো. শামীম, এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম, তসলিম আহমেদ আশা, এ্যাড. সরদার আনিসুর রহমান পপলু, অসিত বরণ বিশ্বাস, মনিরুজ্জামান সাগর, শফিকুর রহমান পলাশ, শেখ মো. আবু হানিফ, শেখ শাহজালাল হোসেন সুজন, মুন্সি নাহিদুজ্জামান,কাজী ফয়েজ, মামুন কবির কচি, আব্দুল মালেক, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল, মো. শওকাত হোসেন সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। পরে নেতৃবৃন্দ শহীদ আলীর নামাজে জানাযায় অংশগ্রহণ করেন। এদিকে শহীদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক, শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ, মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী, শফিকুর রহমান পলাশ, শেখ শাহজালাল হোসেন সুজন।

॥ সংসদ সদস্যের শোক ॥

খুলনা মহানগর যুবলীগ নেতা শেখ শহীদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক, শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল।

॥ এস এম কামাল হোসেনের শোক ॥

খুলনা মহানগর যুবলীগ নেতা শেখ শহীদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক, শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কার্যনির্বাহী সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন।

॥ শেখ সোহেলের শোক ॥

খুলনা মহানগর যুবলীগ নেতা শেখ শহীদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক, শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক শেখ সোহেল।

দুই বাংলাদেশিকে নির্যাতনের পর ফেলে গেল বিএসএফ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর সীমান্তে দুই বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়ীকে নির্মমভাবে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের বিরুদ্ধে। শুক্রবার (২৬ জুন) রাতে রক্তাক্ত অবস্থায় ওই দুই গরু ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নির্যাতনের শিকার গরু ব্যবসায়ীরা হলেন, ঠাকুরপুর বাজারপাড়ার মৃত ইছাহাক আলীর ছেলে কদম আলী (৩৫) ও একই এলাকার মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে বাবু ওরফে কালু (৩০)। এদের মধ্যে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কদম আলীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেছে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয়রা জানান, কদম আলী ও বাবু গরু পাচারের সঙ্গে জড়িত। শুক্রবার রাতে গরু আনতে ঠাকুরপুর সীমান্তের ৮১নং মেইন পিলারের পাশ দিয়ে ভারতে প্রবেশ করার সময় তাদেরকে পিটিয়ে জখম করে বাংলাদেশের সীমানায় ফেলে রেখে যায় বিএসএফ সদস্যরা। পরে তাদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরমধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কদম আলীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। আহত দু’জনের শারীরিক অবস্থা জানতে চাইলে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মাহাবুবুর রহমান জানান, আহত কদম আলীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার পিঠে তিনটি ক্ষতের চিহ্ন রয়েছে। তার ডান হাতের কনুইয়ে ক্ষত আছে, ডান পায়ে ক্ষত আছে। তার শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির পরিচালক মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান জানান, আহত বাবু নামের একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রথমে ঠাকুরপুর ক্যাম্পে নিয়ে আসা হয়। সীমান্তের ওপার থেকে গরু আনার বিষয়টি সে স্বীকার করেছে। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর নেপথ্যে অন্য কোনো ঘটনা আছে কি না তা তদন্ত করা হচ্ছে।

৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে কুপ্রস্তাব, ৬০ বছরের বৃদ্ধের জেল

নড়াইলে প্রতিনিধি

নড়াইলের নড়াগাতি থানার পানিপাড়া গ্রামের আইয়ুব আলী খন্দকার নামে (৬০) এক ব্যক্তিকে ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করাসহ নানা অপরাধে তিন মাসের কারাদ- দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। নড়াগাতি থানা পুলিশ অভিযুক্ত আইয়ুব আলীকে আটক করে শুক্রবার (২৬ জুন) দুপুরে কালিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্টেটের ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে তিনি ওই কারাদ- দেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত ব্যক্তি সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীর দিকে কটূক্তি করতো। বর্তমানে করোনাভাইরাসের কারণে বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় ওই ছাত্রী বাড়ি থেকে পাশের বাজারে যাওয়া জন্য আইয়ুব আলীর ভ্যানে উঠে। চলতি পথে আইয়ুব আলী তাকে কুপ্রস্তাব দেয় ও শরীরের আপত্তিকর স্থানে হাত দেয়। পরে মেয়েটি বাড়িতে এসে তার মাকে জানালে পরিবারের পক্ষ থেকে নড়াগাতি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। এরপর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করে। আইয়ুব আলী পানিপাড়া গ্রামের কালা মিয়া খন্দকারের ছেলে। পেশায় তিনি একজন ভ্যানচালক। সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজিবুল আলম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তি নিজের দোষ স্বীকার করায় তাকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদ- দেয়া হয়েছে।

খুলনায় করোনা আক্রান্ত নারীর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রিমু ইসলাম (৪৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। খুলনার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (২৭ জুন) দুপুর পৌনে ১টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তিনি পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার নুরুল ইসলামের স্ত্রী। করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ডা. শেখ ফরিদ উদ্দীন আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, গত ২৬ জুন রিমু ইসলাম করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যু বরণ করেছেন। এনিয়ে খুলনায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৩ জনের মৃত্যু হলো।

সাতক্ষীরায় করোনায় প্রথম মৃত্যু , নতুন ৯ জনসহ মোট ১৫৫ জন করোনায় আক্রান্ত

খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারীর করোনার রিপোর্ট পজেটিভ আসায় সাতক্ষীরায় সরকারি হিসেবে করোনায় প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। মৃতের নাম অনিল বিশ্বাস (৬৮)। তার বাড়ি দেবহাটা উপজেলার রতেœশ্বরপুর এলাকায়। গত ২২ জুন বিকেলে শ্বাসকষ্ট নিয়ে তিনি দেবহাটা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। ওইদিন রাতে তার শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়। ২৩ জুন বেলা ১১টার দিকে তিনি মারা যান। স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে তার মরদেহের সৎকার করা হয় এবং নমুনা সংগ্রহ করা হয়। শুক্রবার তার রিপোর্ট আসে করোনা পজেটিভ। তবে করোনার উপসর্গ নিয়ে এপর্যন্ত ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও হঠাৎ করেই বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরায় নতুন করে আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত মোট ১৫৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। জেলায় এ পর্যন্ত ১হাজার ৮৫৮ জনের নমুনা পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ১হাজার ৪৩৯ জনের রিপোর্ট এসেছে। সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. জয়ন্ত সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ফকিরহাটে ৭২জন ছাত্রীকে বাই সাইকেল বিতরণ

ফকিরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে, উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের তত্বাবধায়নে কন্যা বর্তিকা কর্মসূচীর আওতায় ২০১৯-২০২০অর্থ বছরে ৭২টি ওয়ার্ডের ৭২জন স্কুল ছাত্রীকে বাই-সাইকেল বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ১টায় উপজেলা অডিটোরিয়াম চত্ত্বরে এক অনুষ্ঠানে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশীদ প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে স্কুল ছাত্রীদের মাঝে এই সমস্ত বাইসাইকেল বিতরণ করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ স্বপন দাশ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ শাহানাজ পারভীন ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) রহিমা সুলতানা বুশরা।

উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহুরা খানম এর সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান শেখ আব্দুর রাজ্জাক, সদস্য আবুল কালাম আজাদ (সাহেব মল্লিক), জেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডাঃ লুৎফার রহমান, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ পুষ্পেন কুমার শিকদার, উপজেলা প্রকৌশলী এমএমএ বকর, সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শিরিনা আক্তার, লখপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবুল হোসেন, বাহিরদিয়া-মানসা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রেজাউল করিম ফকির, মুলঘর ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাডঃ হিটলার গোলদার ও শুভদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম সহ ৮টি ইউনিয়নের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি/সম্পাদকবৃন্দ।

সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বালু’র মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

খবর বিজ্ঞপ্তি

দৈনিক জন্মভূমি’র সম্পাদক, খুলনা প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি ও একুশে পদকপ্রাপ্ত নির্ভীক সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বালু’র ১৬তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে খুলনা প্রেসকাবের উদ্যোগে শনিবার সকালে দোয়া মাহফিল ও স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। স্থাস্থ্য বিধি মেনে কাবের হুমায়ুন কবীর বালু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন খুলনা প্রেসকাবের সভাপতি এস এম নজরুল ইসলাম। সভা পরিচালনা করেন কাবের যুগ্ম-সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন। স্মরণসভার শুরুতে সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বালু’র আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ।

সভায় বক্তৃতা করেন খুলনা প্রেসকাবের নির্বাহী সদস্য ও সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহিদ হোসেন ও মো. সাহেব আলী, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও কাবের নির্বাহী সদস্য মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. মোজাম্মেল হক হাওলাদার, কাব সদস্য আব্দুল মালেক, এস এম নূর হাসান জনি ও ইউজার সদস্য প্রবীর কুমার বিশ্বাস।

এছাড়া স্মরণসভায় উপস্থিত ছিলেন  খুলনা প্রেসকাবের সদস্য দেবব্রত রায়, ওয়াহেদ-উজ-জামান বুলু, বাপ্পী খান, সুনীল কুমার দাস, কাবের ইউজার সদস্য রীতা রানী দাস, শশাংক শেখর স্বর্ণকার, শরিফুল ইসলাম বনিসহ অন্যন্য সাংবাদিকবৃন্দ। এর আগে সকালে কাবের শহীদ সাংবাদিক স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বালু’র আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

খুলনায় মানববন্ধনে বামজোট নেতৃবৃন্দ: পটকল বন্ধ নয়, ভুলনীতি-দুর্নীতি-লুটপাট বন্ধ করে পাটশিল্পকে আধুনিয়কায়ন করতে হবে

খবর বিজ্ঞপ্তি

রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকল বন্ধ করার সরকারি সিদ্ধান্ত বাতিল এবং ভুলনীতি-দুর্নীতি-লুটপাট বন্ধ করে পাটশিল্পকে আধুনিকায়নের দাবীতে শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে এক প্রতিবাদী মানববন্ধন করে বাম গণতান্ত্রিক জোট, খুলনা জেলা শাখা। বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ নেতা ও বামজোট খুলনা জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নাণ্টুর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেনÑবাংলাদেশের কমিউনস্ট পার্টি (সিপিবি)’র কেন্দ্রীয় সদস্য ও খুলনা জেলা সভাপতি ডাঃ মনোজ দাশ, কেন্দ্রীয় সদস্য এস এ রশীদ, মহানগর সভাপতি এইচ এম শাহাদাৎ, খুলনা জেলা সাধারণ সম্পাদক এড. রুহুল আমিন, সদস্য মিজানুর রহমান বাবু, বাসদ খুলনা জেলা সদস্য আব্দুল করিম, কোহিনুর আক্তার কণা, টিইউসি খুলনা জেলা সাধারণ সম্পাদক রঙ্গলাল মৃধা, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের খুলনা জেলা সদস্য মোঃ কামাল, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন খুলনা জেলা সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত মুখার্জী, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের খুলনা জেলা সদস্য মাহিলা আক্তার আনিকা, বিজ্ঞান আন্দোলন মঞ্চ খুলনা জেলা সদস্য সঙ্গীতা ম-ল এবং সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেনÑবাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় সদস্য গাজী নওশের আলী, শ্রমিক নেতা মোজাম্মেল হক, ব্যাটারি রিকসা আন্দোলনের নেতা আলমগীর হোসেন বাবু, মোঃ মানিক হোসেন প্রমুখ। নেতৃবন্দ বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ পরিকল্পিতভাবে রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকলগুলোকে ধ্বংস করা হচ্ছে। এখন বিশ্বব্যাপী পাটপণ্যের বর্ধিত চাহিদা কাজে লাগিয়ে ব্যবসায়ীদের মুনাফা করার সুযোগ দিতে এসব পাটকল তাদের হাতে তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। অথচ দেশপ্রেমিক নাগরিকবৃন্দ, রাজনৈতিক দল, শ্রমিক সংগঠনগুলো দীঘদিন যাবৎ এসব পাটকলগুলোকে আধুনিকায়ন ও লাভজনক করার সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা প্রস্তাব করে আসছে। কিন্তু তাদের প্রস্তাবনায় সরকার কর্ণপাত করেনি। হাজার হাজার শ্রমিক ও তাদের পরিবারকে পথে বসিয়ে এবং জাতীয় সম্পদ ধ্বংস করে সরকার মুনাফাবাজদের স্বার্থ দেখতে ব্যস্ত। করোনা মহামারীর এই ভয়বহ পরিস্থিতিকেও সরকার বিবেচনায় নিচ্ছে না। ব্যবসায়ীবান্ধব সরকার শুধু ব্যবসায়ীদের স্বার্থ দেখতে ব্যস্ত। নেতৃবৃন্দ হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, সরকার যদি রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকল বন্ধের অগণতান্ত্রিক স্বৈরচারী সিদ্ধান্ত বাতিল না করে তবে হাজার হাজার পাটকল শ্রমিক ও তাদের পরিবারসহ দেশের আপামর জনগণকে সাথে নিয়ে রাজপথ-রেলপথ অবরোধের মত কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে। সমাবেশ থেকে আগামী ২৮ জুন আটরা শিল্পাঞ্চলে ইষ্টার্ন জুট মিলের সামনে, ২৯ জুন রাজঘাট শিল্পাঞ্চলে জেজেআই জুট মিলের সামনে এবং ৩০ জুন খালিশপুর শিল্পাঞ্চলে প্লাটিনাম জুট মিলের সামনে সকাল সাড়ে ৯টায় বাম গণতান্ত্রিক জোটের উদ্যোগে প্রতিবাদী বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা দেয়া হয়।

স্বচ্ছতার সাথে ত্রাণসমাগ্রী বিতরণ চলছে:সিটি মেয়র

তথ্য বিবরনী

শনিবার থেকে খুলনা মহানগরীর ৩১টি ওয়ার্ডে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ‘মানবিক সহায়তা কর্মসূচির’ আওতায় ষষ্ঠ ধাপের ঘরে থাকা কর্মহীন নি¤œআয়ের শ্রমজীবী, অসহায়, দুস্থ ও হতদরিদ্রদের মাঝে সাত কেজি করে চাল ও সবজি ক্রয়ের জন্য নগদ অর্থসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে।

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক শনিবার সকালে খুলনার দৌলতপুর ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় চত্বরে ঘরে থাকা চারশত ২৮ কর্মহীন নি¤œআয়ের শ্রমজীবীদের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনকালে সিটি মেয়র বলেন, স্বচ্ছতার সাথে তালিকা করে ত্রাণসমাগ্রী বিতরণ চলছে। সরকার অধিক পরিমাণে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছে। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকার সবসময় জনগণের পাশে রয়েছে। তিনি বলেন, কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেলে চলতে হবে। শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং স্বাস্থ্যবিধিগুলো মেনে চললে করোনা প্রার্দুভাব থেকে আমরা রক্ষা পাবো। মেয়র করোনা থেকে মুক্ত হতে নগরবাসীকে ঘরে থাকার আহবান জানান।

ত্রাণসামগ্রী বিতরণকালে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, বিজেএ’র চেয়ারম্যান শেখ সৈয়দ আলী, মুক্তিযোদ্ধা নূর ইসলাম বন্দ, আকাঙ্খা গ্রুপের চেয়ারম্যান শেখ মজনু, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ কবির হোসেন কবু মোল্লা, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ রউফ মোড়ল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ‘মানবিক সহায়তা কর্মসূচির’ আওতায় ষষ্ঠধাপের নগরীর ২৮, ২৬, ৫, ৬, ৭, ও ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের চারশত ২৮ জন করে মোট দুই হাজার  পাঁচশত ৬৮ ঘরে থাকা কর্মহীন নি¤œআয়ের শ্রমজীবীদের মাঝে সাত কেজি করে চাল ও সবজি ক্রয়ের জন্য নগদ একশত করে টাকাসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

পাইকগাছায় সোলাদানায় ১৯৮৭-১৯৯৩ ব্যাচ উদ্যোগে প্রতিবন্ধীদের মাঝে ত্রাণ-সামগ্রী বিতরণ

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছায় সোলাদানা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম এনামুল হকের মাধ্যেমে সোলাদানা ইউনিয়নে পরিষদে শনিবার বিকালে ক্যাডেট কলেজ ১৯৮৭-১৯৯৩ ব্যাচের নৌবাহিনী, আর্মি ও বিভিন্ন দপ্তরে চাকরিরত কর্মকর্তা কর্তৃক ৫০ টি অসহায় হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, আলু, তৈল, পেঁয়াজ, লবণ, সাবান ইত্যাদি বিতরন করেছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য ঠাকুর দাশ সরদার, কল্যানী মন্ডল, আব্দুস সবুর, আবুল কাশেম, কিশোর কুমার মন্ডল, প্রশান্ত কুমার মন্ডল, রকি বিশ্বাস, ইসরাফিল মোড়ল, প্রনব সহ আরো অনেকে। ত্রান বিতরনের সময় ইউপি চেয়ারম্যান এস,এম, এনামুল হক সংশ্লিষ্ট দাতাদেরকে ৫নং সোলাদানা ইউনিয়নবাসির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন।

সাংবাদিকদেরও প্রাণনাশের হুমকি: মোংলায় শ্রমিক সংঘ দখলের চেষ্টায় ভাংচুর, মারপিটের ঘটনায় আটক শাহাবুদ্দিন জেলহাজতে

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

মোংলা বন্দর শ্রমিক কর্মচারী সংঘ দখলের চেষ্টা, আসবাবপত্র ভাংচুর, ত্রাণ লুট, সংঘের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ওমর ফারুক সেন্টুকে মারধর ও হত্যার হুমকিসহ বন্দর অচলের চক্রান্তের ঘটনায় ৪ জননের পরিচয় উল্লেখসহ আরো অজ্ঞাতনামা ১৪/১৫ জনের নামে মামলা দায়ের হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর উত্তেজিত শ্রমিকেরা মামলার ১ নম্বর আসামীকে ধরে পুলিশে দিয়েছে। মামলার বাকী আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: ইকবাল বাহার চৌধুরী। এ সকল আসামীদের বিরুদ্ধে বিগত দিনের অপতৎপরতার ঘটনার বিষয়ে থানায় অন্তত ডজনখানেক সাধারণ ডায়েরীও রয়েছে।

এদিকে এই সংক্রান্ত বিষয়ে গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সংশ্লিষ্ট সংবাদকর্মীদেরকে প্রাণনাশের হুমকিসহ নানা ধরণের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন আসামীরা।

মামলার বিবরণে জানা যায়, শুক্রবার রাতে সংঘের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ওমর ফারুক সেন্টু শ্রমিকদের ত্রাণ দেয়ার জন্য খাদ্য সামগ্রী প্রস্তুত করছিল। এ সময় আসামী একেএম শাহাবুদ্দিন (৫৬), মোঃ মাহাবুবুর রহমান মানিক (৪৮), মোঃ ফরিদুল আলম মজুমদার (৫৭), মোঃ মাহাবুবুর রহমার শেখ (৪৬) সহ আরো অজ্ঞাতনামা ১৪/১৫ জন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র, লাঠি-সোঠা নিয়ে ত্রাণ প্রস্তুতকারীদের উপর হামলা চালিয়ে মারধর, ভাংচুর ও ৩০/৪০ বস্তা ত্রাণের মালামাল লুট করে। এছাড়া আসামীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় বন্দর অচল করে দেয়ার হুমকিসহ সংঘের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ওমর ফারুক সেন্টুকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। এ ঘটনায় সংঘের সাধারণ সম্পাদক বাদী হয়ে মামলা দায়েরের পর মামলার প্রধান আসামী একেএম শাহাবুদ্দিনকে শনিবার বাগেরহাট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। উল্লেখ্য, একেএম শাহাবুদ্দিন বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বিলুপ্ত মোংলা বন্দর শ্রমিক সংঘের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

আর্তমানবতার সেবায় বাংলাদেশ নৌবাহিনী

খবর বিজ্ঞপ্তি

কমান্ডার খুলনা নেভাল এরিয়া এর তত্ত্বাবধানে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ রোধকল্পে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ২৬ মার্চ ২০২০ থেকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর দায়িত্বপূর্ণ এলাকাসহ উপকূলীয় অঞ্চলের ১৯টি উপজেলায় স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা প্রদান, অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ এবং জনগণের সচেতনতার জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ও জনগণের মাঝে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দায়িত্বপ্রাপ্ত এলাকাসমূহে এবং রাস্তার বিভিন্ন মোড়ে কোভিড-১৯ প্রতিরোধ সর্ম্পকিত বিভিন্ন ব্যানার স্থাপন করে নৌ সদস্যরা। জনসমাগম স্থল, উপকূলীয় অঞ্চলের বিভিন্ন শহর এবং গ্রামের পাড়া-মহলায় গিয়ে সচেতনতা তৈরি করে এবং কোভিড-১৯ প্রতিরোধ সর্ম্পকিত বিভিন্ন পাকার্ড এবং ফেস্টুন নিয়ে এলাকা প্রদক্ষিণ করে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। পাশাপাশি সাধারণ জনগণকে কমপক্ষে ৩ ফুট সামাজিক দূরত্ব নিশ্চতকরণ, জরুরী প্রয়োজনে বাড়ীর বাহিরে অবস্থানের ক্ষেত্রে মুখে মাস্ক পরিধান, গণপরিবহন ও মসজিদ ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরকারী নীতিমালা অনুসরণ করতে বলা হয়। এছাড়া নির্ধারিত সময়ের পর সকল বাজার, দোকান-পাট, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান বাধ্যতামূলকভাবে বন্ধ নিশ্চিতকরণ ও নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত ধুতে এবং ঘন ঘন হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করার জন্য সাধারণ মানুষকে বোঝানোসহ নানাবিধ কার্যক্রম পরিচালনা করে নৌবাহিনী। বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা প্রদানের অংশ হিসেবে মোতায়েনকৃত নৌ কন্টিনজেন্ট মোংলা উপজেলার কানাইনগর, দিগরাজ বাজার, বুড়িরডাঙ্গা, কচুবুনিয়া, হাসপাতাল চত্ত্বর ও ফেরিঘাট এলাকায় টহল পরিচালনা করে।

জনগণের মাঝে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় ও বর্জনীয় শীর্ষক লিফলেট বিতরণ করে। এছাড়া মোংলা উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় স্থানীয় প্রশাসনের ৮৩৮টি দুস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণে সহায়তা প্রদান করে। করোনা প্রতিরোধে চলমান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নৌবাহিনী কন্টিনজেন্ট বরগুনা জেলা সদর, বেতাগী ও পাথরঘাটা এলাকায় নিয়মিত সচেতনতামূলক টহল প্রদান করে। পাথরঘাটা উপজেলায় ৫৫৩টি অসহায় পরিবার ও ৮৪০টি দরিদ্র জেলে পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা প্রদান করে। উপজেলাসমূহের বিভিন্ন স্থানে ১৫০টি সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করে। এছাড়া পাথরঘাটা উপজেলার বেশ কয়েকটি মসজিদে ০৪ কেজি বিচিং পাউডার বিতরণ করে।

দোকানের শাটার টানা, তারপরও চলছে ‘হালকা বেচাকেনা’

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনার বড় বাজারের সব দোকানই বন্ধ। শাটারে তালা ঝুলছে। দোকানের বাইরে দাঁড়িয়ে কর্মীরা লোকজনকে ডেকে ডেকে জিজ্ঞাসা করছেন ‘কী লাগবে’। ক্রেতা চাহিদা জানালে দোকানের তালা খুলে শাটার হালকা তুলে প্রয়োজনীয় সামগ্রী দিচ্ছেন তারা। এভাবে ক্রেতা ধরতে পারলে পাবেন কমিশন। ব্যবসায়ীরা বলছেন, সামাজিক দূরত্ব রেখে তারা ‘হালকা বেচাকেনা’ করছেন। প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এভাবেই চলছে খুলনার বড় বাজার বন্ধ রাখা কার্যক্রম। করোনা পরিস্থিতির মধ্যে নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও বড় বাজারের যানজট লেগেই রয়েছে। মোটরসাইকেল পার্টস মার্কেটের প্রবেশ মুখে বড় করে ‘মার্কেট বন্ধ’ লেখা ঝুলিয়ে বাঁশ দিয়ে গলির মুখ আটকে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু দোকানদার ও ক্রেতারা অনায়াসেই বাঁশ ঘেরার ফাঁক দিয়ে যাতায়াত করছেন।

ডাকবাংলা মোড়ে পুলিশ একাধিক মোটরসাইকেল থামিয়ে চালকদের বাজারে যাওয়া থেকে বিরত রাখার চেষ্টা করছেন। ম্যাজিস্ট্রেট ধরলে ২-৫ হাজার টাকা জরিমানা হবে বলেও তাদের সতর্ক করা হচ্ছে। কিন্তু কে শোনে কার কথা। বাজারের প্রতিটি দোকানের সামনেই ব্যবসায়ীদের মোটরসাইকেল সারি সারি রাখা রয়েছে।  মোটরসাইকেল পার্টস গলি মুখে পাওয়া আজিম শেখ বলেন,  ‘প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী ২৫ জুন পর্যন্ত মার্কেট বন্ধ রাখতে হবে। তাই আমরাও কৌশল নিয়ে সামাজিক দূরত্ব ঠিক রেখে হালকা বেচাকেনা চালিয়ে যাচ্ছি। এর মধ্য দিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মানা ও সামাজিক দূরত্ব পালনের একটি মহড়া হচ্ছে। যাতে ২৬ জুন থেকে দোকান বন্ধের ঘোষণা আর না বাড়ানো হয়।’

ডাকবাংলা মোড়ের হার্ডমেটাল গ্যালারির সামনে দাঁড়িয়ে থাকা কর্মীরা জানান, দু-একজন কাস্টমার পেলে কমিশন ভিত্তিতে টাকা পাওয়া যাবে। এছাড়া বেচাকেনা না হলে তো মালিক বেতন ভাতা দেয় না। এখন করেনার মধ্যে তাই কমিশন পদ্ধতি চালু হয়েছে। এ কমিশন পেতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে এভাবেই ক্রেতা খুঁজতে হচ্ছে।

খুলনায় করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির গত ২২ জুনে সভায় সিদ্ধান্ত হয়, ২৬ জুন থেকে খুলনার শপিং মল, দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সপ্তাহে ৩ দিন (রবি, সোম ও মঙ্গলবার) বিকাল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, ২৬ জুন থেকে সপ্তাহে ৩দিন শপিং মল দোকান পাট খুলে দেওয়া হলেও প্রশাসনের মনিটরিং থাকবে। স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব পালনের বিষয়টি কঠোরভাবে দেখা হবে।

খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, জনসাধারণের যথেচ্ছ চলাচলের কারণে খুলনায় করোনা রোগী বেড়েই চলছে। সরকারে নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে পালন ও সামাজিক দূরত্ব ঠিক মতো মানতে পারলে করোনা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে। এক্ষেত্রে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সবাইকে সচেষ্ট হতে হবে।

শ্রমিক সমাবেশ দিয়ে শুরু হবে পাটকল রক্ষায় চার দিনের কর্মসূচি

স্টাফ রিপোর্টার

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল রক্ষায় সংবাদ সম্মেলন ও অবস্থান ধর্মঘট পালনসহ চার দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। সিবিএ-ননসিবিএ সংগ্রাম পরিষদ শুক্রবার (২৬ জুন) রাতে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। পাটকল রক্ষায় প্রয়োজনে আত্মাহুতির দেওয়ার মতো কঠোর কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে বলেও শ্রমিক নেতারা জানিয়েছেন। সন্ধ্যায় ইস্টার্ন জুট মিল সিবিএ কার্যালয়ে খুলনার ৯টি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের সিবিএ-ননসিবিএ এবং পাটকল শ্রমিক লীগের জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ইস্টার্ন জুট মিলের সিবিএর সভাপতি ফরাজী নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় নেতারা মন্ত্রণালয় ও বিজেএমসি কর্তৃক মিলের উৎপাদন বন্ধ ঠেকাতে কর্মসূচি গ্রহণ করেন। কর্মসূচি অনুযায়ী শনিবার (২৭ জুন) সকাল ১০টায় স্ব স্ব মিল গেটে শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। সমাবেশ থেকে কর্মসূচি অবহিত করা হবে। রবিবার (২৮ জুন) সকাল ১১টায় সংবাদ সম্মেলন ও সোমবার (২৯ জুন) সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত শ্রমিক পরিবারের সন্তানদের রাজপথে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হবে। মঙ্গলবার (৩০ জুন) বেলা ২টা থেকে মিল গেটে এবং মিলের অভ্যন্তরে শ্রমিকদের অবস্থান কর্মসূচি পালিত হবে। ইস্টার্ন জুট মিলের সিবিএর সভাপতি ফরাজী নজরুল ইসলাম বলেন, শান্তিপূর্ণ এসব কর্মসূচির মাধ্যমে মিলের উৎপাদন বন্ধের পরিকল্পনা পরিবর্তনের দাবি জানানো হবে। দাবি আদায় না হলে অনশনসহ আত্মাহুতি কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে।

এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল ধ্বংসের চক্রান্তের প্রতিবাদে এবং পাট শিল্পের আধুনিকায়নের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট, খুলনা জেলা শাখার উদ্যোগে রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় মহানগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে। একই সময়ে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রণ্ট-খুলনা জেলা শাখার উদ্যোগেও মানববন্ধন হবে। এ মানববন্ধন কর্মসূচির মাধ্যমে বিজেএমসি আওতাধীন ২৬টি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধের সরকারি সিদ্ধান্ত বাতিল, খালিশপুর জুট মিলের শ্রমিকদের নামে ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার এবং কর্মহীন শ্রমিকদের কর্মসংস্থান ও নগদ সহায়তার জন্য বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবি জানানো হবে।

খুলনায় কিট সংকটে করোনার নমুনা সংগ্রহ বিঘিœত

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনায় করোনা পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক কিটের সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে নমুনা সংগ্রহসহ করোনা পরীক্ষার কার্যক্রম বিঘ্নিত হচ্ছে। খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মুন্সী মো. রেজা সেকান্দার বলেন, ‘খুলনায় কিট স্বল্পতার কারণে নমুনা সংগ্রহ গতি হারাচ্ছে। সিভিল সার্জন দফতর তো সপ্তাহকাল ধরেই কীট সংকটে রয়েছে। মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কিছু কিট থাকার কারণে পরীক্ষা চলছে।’ তিনি বলেন, ‘খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আওতায় শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত ৫০০ কিট রয়েছে। প্রতিদিন ১৫০টি পরীক্ষা করা হয়। সে হিসাবে ৫০০ কিটে ৩ দিন চলবে।’

খুলনা সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহমেদ জানান, কিট সংকটের কারণে নমুনা সংগ্রহ করায় সমস্যা হচ্ছে। কিট না থাকার কারণে শুক্রবার তার আওতাধীন জেনারেল হাসপাতাল থেকে নমুনা নেওয়া সম্ভব হয়নি। শনিবার মেডিক্যাল কলেজ থেকে কিছু কিট সংগ্রহ করার পর সাড়ে ১১টা থেকে নমুনা সংগ্রহ শুরু করা যাবে।

রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকল বন্ধ ঘোষণার প্রতিবাদে সিপিবি’র সভা অনুষ্ঠিত

খবর বিজ্ঞপ্তি

রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকল বন্ধ ঘোষণার সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবীতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) খুলনা জেলা ও মহানগরের উদ্যোগে শনিবার বেলা ১২টায় দলীয় কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জেলা সভাপতি ডাঃ মনোজ দাশের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেনÑকেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এস এ রশীদ, জেলা সাধারণ সম্পাদক এড. রুহুল আমিন, মহানগর সভাপতি এইচ এম শাহাদৎ, সিপিবি নেতা মিজানুর রহমান বাবু, রঙ্গলাল মৃধা, মোস্তাফিজুর রহমান বাবু, জয়ন্ত মুখার্জী, আফজাল হোসেন রাজু, রবিউল ইসলাম ববি, উজ্জ্বল বিশ্বাস প্রমুখ। সভায় বক্তারা বলেন, সরকার পাটকলগুলো আধুনিকীকরণের বাস্তবসম্মত উদ্যোগ গ্রহণ না করে অলাভজনক আখ্যা দিয়ে মিল বন্ধ করার পায়তারা ও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। দেশের মানুষ যখন মহামারী করোনা ভাইরাসে পর্যুদস্ত, মনোযোগ বিপর্যস্ত ঠিক সেই সুযোগ গ্রহণ করতে চাইছে। বক্তারা বলেন, পরিবেশবান্ধব হিসেবে পাটজাত পণ্যের প্রতি বিশ্বের আকর্ষণ বাড়ছে আর এ লাভজনক সুযোগ গ্রহণে উদগ্রীব মুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা। বক্তারা অবিলম্বে পাটকল শ্রমিক-কর্মচারীদের সকল পাওনাদি পরিশোধ করে পাটকলসমূহকে আধুনিকীকরণপূর্বক লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার এবং খালিশপুর জুট মিলের শ্রমিকদের নামে দায়েরকৃত যড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান।

মোংলায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের ফল উপহার দিলেন লায়ন ফরিদ

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

মোংলায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য বিভিন্ন প্রকার ফল উপহার পাঠিয়েছেন বাগেরহাট জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক লায়ন ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম। শনিবার সন্ধ্যায় তার পক্ষ থেকে উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের স্বাস্থ্য কর্মী মুজাহিদুল ইসলাম ও সুন্দরবন ইউনিয়নের স্বাস্থ্য কর্মী কামাল মৃধার বাড়ীতে গিয়ে তাদের পরিবারের হাতে এ ফল তুলে দেন থানা বিএনপি নেতা আবু হোসেন পনি ও পৌর বিএনপি নেতা বাবলু ভূইয়াসহ ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দরা।

এছাড়া পৌর শহরের বাতেন সড়কের ভাড়াটিয়া বাসিন্দা ও ইসলামী ব্যাংকের ক্যাশিয়ার এস এম রিয়াজ আলমগীরের পরিবারের কাছে ফল তুলে দিয়েছেন পৌর ছাত্রদলে সভাপতি মাহমুদ রিয়াজ, থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক এমকে কাশেম, পৌর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মুজিবুর রহমান মঞ্জু, প্রচার সম্পাদক সুমন মল্লিক, কলেজ ছাত্রদল নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন, যুবদল নেতা আলী হোসেন বাচ্চু ও ছাত্রদল নেতা সেলিম রেজা।

বটিয়াঘাটায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের তিন জন গুরুতর জখম হয়ে খুমেক হাসপাতালে ভর্র্তি

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

বটিয়াঘাটায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় কলেজ ছাত্রসহ তিন জন গুরুতর জখম হয়ে খুমেক হাসপাতালে ভর্র্তি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার বিরাট গ্রামে। গুরুতর আহত আছফারুল রশিদ খোকনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগীরা জানায়, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পরিকল্পিত ভাবে বিরাট গ্রামের আমানত-ইবাদত গংরা শুক্রবার সন্ধ্যায় ফিরোজ শেখ (২৩) নামের এক যুবককে বাড়ির আঙ্গিনায় বেদম মারপিট করতে থাকে। তার ডাক চিৎকারে চাচা আছফারুল রশিদ খোকন ছুটে আসলে তাকেও বেদম মারপিট শুরু করে। রক্তাক্ত জখম অবস্থায় খোকন মাটিতে লুটিয়ে পড়লে কলেজ পড়ুয়া ছাত্র অজবীর শেখ (১৬) পিতাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাকেও বেদম মারপিট করা হয়। পরিবারের সদস্য ও স্থানীরা আহতদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে। আহতদের মধ্যে আছফারুল রশিদ খোকনের অবস্থা আশংকাজনক। চিকিৎসকরা জানিয়ছে, তার মাথায় মারাত্বক জখম হওয়ায় একাধিক সেলাই দেওয়া হয়েছে। আহত আছফারুল রশিদ খোকন বলেন, পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আমানত-ইবাদত গংরা আমাদের উপর এ হামলা চালায়। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিলো বলে জানা গেছে। বিষয়য়টি নিয়ে থানার ওসি রবিউল কবির জানান, বিষয়টি শুনেছি অভিযোগ পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পক্ষে পিপিই বিতরণ

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাবেক বিরোধী দলীয় হুইপ শেখ হারুনুর রশিদের পক্ষে গতকাল শনিবার সকাল ১১টায় বটিয়াঘাটা ইউনিয়ন পরিষদে করোনা মোকাবেলায় জনপ্রতিনিধি, পুলিশ, সাংবাদিকদের মাঝে পিপিই ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রদান এবং অস্বচ্ছল ব্যক্তিদের মাঝে সাবান, মাস্ক এবং খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন মন্ডল, ওসি রবিউল কবির, উপজেলা প্রেসকাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ, জেলা সৈনিক লীগের সভাপতি এসএম ফরিদ রানা, খুবি সেকশান অফিসার আজিজুর রহমান, ইউপি সদস্য রবীন বৈরাগী, কিশোর বিশ্বাস, মোঃ নূর আলম ভূইয়া, বিপুল ইজারদার, প্রসেনজিৎ মন্ডল, রমা রানী মন্ডল, জেলা সৈনিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান বিশ্বাস, উপজেলা সৈনিক লীগের সাধারণ সম্পাদক অলোক মল্লিক, গোবিন্দ মন্ডল, কাবেদুল ইসলাম, ইউনুচ শেখ, সাবেক ছাত্রনেতা গাজী রুবেল প্রমূখ।

সাতক্ষীরায় জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে বসত ভিটায় বাস করার আবেদন জানিয়ে সাতক্ষীরা প্রেসকাবে সংবাদ সম্মেলন

খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীর

জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে বসত ভিটায় বাস করার আবেদন জানিয়ে সাতক্ষীরা প্রেসকাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন রাজমিস্ত্রি আব্দুল বারিক। তিনি কলারোয়া উপজেলার গদখালী গ্রামের মৃত মাদার মোড়লের ছেলে। শনিবার (২৭ জুন) দুপুরে প্রেসকাবের আব্দুল মোতালেব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল বারিক জানান, আমার স্ত্রীর ওপর লোলুভ দৃষ্টি পড়ে প্রতিবেশি  আবুল হোসেনের ছেলে মোশারফ হোসেনের। আমার অনুপস্থিতিতে স্ত্রীর

সাথে আশালীন আচরণ করে সে ও তার সহযোগিরা। একপর্যায়ে বিষয়টি নিয়ে কলারোয়া থানায় একটি ইভটিজিং এর মামলা করি। পরে থানায় শালিশের মাধ্যমে মুচলেকা দিয়ে তারা মামলা থেকে অব্যহতি পায়। তিনি বলেন, এরই জের ধরে মোশারফ হোসেন, তার স্ত্রী ডলি বেগম, জিয়াউর রহমান ও তার স্ত্রী ডালিয়া, আকিমুদ্দিনের ছেলে আব্দুর রহিম, আব্দুল গফফারের ছেলে লাল্টু হোসেন ও তার স্ত্রী ময়না বিবি আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের সাথে খারাপ আচরণ করতে থাকে। তিনি বলেন, আমার ঘরের সীমানায় মাটির স্তুপ সরাতে গেলে গত ১৫ জুন সকালে তারা বাঁধা দেয়। এবং আমাকে ও আমার স্ত্রী বিলকিস খাতুনকে লাঠি দিয়ে মারপিট করে। একই সাথে কিল-ঘুষি,চড়-থাপ্পড় দেয়। তারা আমার পকেটে থাকা তিন হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। একই সাথে আমাদের মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরবর্তীতে লোকজনের মাধ্যমে মোবাইল ফোনটি ফেরত দিলেও তিন হাজার টাকা ফেরত দেয়নি। তিনি বলেন, বর্তমানে তারা পায়ে পা দিয়ে ঝগড়া করছে। অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করছে। চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে। পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। একই সাথে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। তিনি বলেন, এরা কলারোয়া মোটর শ্রমিকের লোক হওয়ায় তাদের ভয়ে এলাকায় কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না। এ বিষয়ে তিনি পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শরনখোলায় জামাত নেতার স্ত্রীর মর্যাদা পেতে প্রসাশনের দ্বারস্ত এক নারী!

শরনখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

 বাগেরহাটের শরনখোলয় এক জামাত নেতার স্ত্রীর মর্যাদা পেতে প্রসাশনের দ্বারস্ত হয়েছেন এক নারী । তিনি এ ঘটনায় উপজেলা জামায়াতের সাবেক সেক্রেটারকে দ্বায়ী করে সম্প্রতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও জেলা জামায়াতের আমির সহ বিভিন্ন মহলে একাধিক অভিযোগ দ্বায়ের করেছেন।

উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়নের দক্ষিন কদমতলা গ্রামের বাসিন্দা স্বামী পরিত্যাক্তা মোঃ আয়শা আক্তার (২৭) তার অভিযোগে বলেন, কয়েক বছর পুর্বে উপজেলার নলবুনিয়া গ্রামের জনৈক এক ব্যাক্তির সাথে আমার বিয়ে হলে দু, বছর পর সেখান থেকে তালাক হয়ে যায়। ওই ঘটনার সুত্র ধরে উপজেলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা মোঃ ফজলুল হক মোল্লার ছেলে নিকাহ-রেজিষ্টার (কাজী) ও শরনখোলা উপজেলা জামাতের (সাবেক) সেক্রেটারী মাওলানাঃ- মোঃ- সরোয়ার হোসাইন মোল্লা (ওরফে) বাদল কাজীর সাথে ২০১৯ সালে আমার পরিচয় ঘটে। তার পর থেকেই বাদল আমার পিছু নেয় এবং রাত দিন আমাকে ফোন করতে থাকেন । এক পর্যায়ে আমাকে সহ আমার বৃদ্বা মায়ের হাতে পায়ে ধরে পাঁচ লাখ টাকা দেনমোহরে আমাকে বিয়ের প্রস্থাব দেন। পরে আমাদের বিয়ের সকল কার্যক্রম সারেন বাদল নিজেই। সেই থেকে আমরা স্বামী-স্ত্রী হিসাবে থাকতে শুরু করি। কিন্তু সেই সময় বাদল আমাকে বলেন , তিনি উপজেলা জামাতের বড় নেতা হওয়ায় এবং ইসলামের সঠিক কথা বলার কারনে আওয়ামীলীগরা আমার নামে গত কয়েক বছরে অনেক মিথ্যা মামলা দিয়েছেন। তাই বিয়ের বিষয়টা কিছুদিন গোপন রাখতে হবে।

এছাড়া উপজেলা নির্বাচনে জামায়াতের পক্ষ থেকে তিনি ভাইস চেয়ারম্যান প্রাথী হবেন এবং নির্বাচনের পর আমাকে তার  বাড়িতে নিয়ে যাবেন । তাই বিষয়টি জানাজানি হলে ক্ষতি  আছে । এভাবে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে আমাদের দাম্পত্ব্য জীবন ৮মাস  চলে ।  কিন্তু চলতি বছরের ১৭ এপ্রিল স্থানীয় ব্যাক্তিরা বাদলের কাছে আমাদের বিয়ের কাবিন দেখতে চাইলে তিনি তা দেখাতে পারেন না  । পরে কাবিনের একটি কাগজ বাদল বাসায় নিয়ে আসলে তাতে দেখি দেন মোহর পাঁচ লাখ টাকার পরিবর্তে মাত্র দশ হাজার টাকা। তাও আবার (উসুল) পরিশোধ।

এ সময় আমি বাদলের কাছে কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন , আরে বোকা গ্রামবাসীর হাত থেকে রক্ষা পেতে আপাতত একটি নকল কপি তৈরী করেছি। বিষয়টি নিয়ে তুমি কোন চিন্তা করোনা । কারন পাঁচ লাখ টাকার কাবিনের মুল কপি আমার অফিসে সংরক্ষন আছে । তার কিছুদিন পর বাদল আমাকে ফোন করে বলেন, তুমি আমাকে ভুলে যাও সোনা। তোমার সাথে আমার এখন আর কোন সম্পর্ক নাই। আমি তোমাক তালাক দিয়েছি । তখন আমি বলি আমার দোষ কি? তোমার প্রতারনার বিষয়টি আমি প্রসাশনকে জানাবো  এ কথা বলতেই, বাদল আমাকে হত্যার হুমকি দেয়। এখন আমি ও আমার বৃদ্বা মা নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি। এছাড়া আমি কোন  অন্যায় করিনি, কিন্তু বিনা কারনে বাদল আমাকে তালাক দেবেন কেন? আমি স্ত্রীর মর্যাদা না পেলে আত্মহত্যা করব । আর এ জন্য দ্বায়ী থাকবেন বাদল। তবে ,এ বিষয়ে জানতে চাইলে কাজী সরোয়ার হোসাইন বাদল বলেন , এক সময় সে আমার স্ত্রী ছিল।  কিন্তু  আমার সাথে খারাপ আচারন করায় তাকে তালাক দিয়েছি  এবং দেন মোহরের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে । তাছাড়া স্ত্রী খারাপ আচারন করলে স্বামী তালাক দিতে পারে। সে বিধান ইসলামী শরীয়তে আছে।  অন্যদিকে, তালাকের বিষয়ে জানতে চাইলে রায়েন্দা কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম হাফেজ- মাওলানাঃ- মোঃ মনিরুজ্জামান (মনির) বলেন , তালাক বিষয়টি আল্লাহর কাছে অত্যন্ত ঘৃনীত। কারো স্ত্রী গুরুতর অপরাধ করলেও তা মার্জনা করা সবচেয়ে উত্তম । এছাড়া মন চাইলেই  স্ত্রীকে তালাক দেয়ার বিধান ইসলামী শরীয়তে নেই । তবে, তালাকের  ক্ষেত্রে অবশ্যই স্ত্রীর মতামত থাকতে হবে ।

জানতে চাইলে, উপজেলা জামাতের সহ-সভাপতি এবং খোন্তাকাটা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মাওলানা -মোঃ রফিকুল ইসলাম কবির বলেন , কারো অপকর্মের দ্বায় সংগঠনের নয় । বাদল বির্তকিত কর্মকান্ডে জড়িত হওয়ায় ইতোমধ্যে  তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে এবং সংগঠনের সকল প্রকার কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে, ক্ষতিগ্রস্থ ওই নারী বাদলের নামে মামলা করলে তাতে দলের কোন আপত্তি নেই।  বাগেরহাট জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা-মোঃ রেজাউল করিম জানান, এমন কোন অভিযোগ আমি পাইনি । এবং এটা সংগঠনের কোন বিষয় নয় ,এটা আইনের বিষয়। এছাড়া শরনখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন জানান, ওই জামাত নেতার বিরুদ্বে একটি অভিযোগ পেয়েছি । তবে, আমার কিছু করার নেই । ওই নারীকে আদালতের  যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে ।

দেবহাটায় ইজিবাইক চালককে হত্যার ঘটনায় মামলা, এসপির ঘটনাস্থল পরিদর্শন

কে.এম রেজাউল করিম, দেবহাটা

দেবহাটায় এক ইজিবাইক চালককে শ^াসরোধ করে হত্যা করার ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার বাদী হয়েছেন নিহত মনিরুলের ভাই উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামের মৃত ইসমাঈল গাজীর ছেলে আমিনুর রহমান (২২)। নিহত মনিরুল ছিলেন আমিনুরের বড় ভাই। দেবহাটা থানায় ২৬-০৬-২০২০ ইং তারিখে ৩০২/৩৯৪/৩৪ পেনাল কোড ১৮৬০ ধারায় রুজু হওয়া উক্ত মামলা নং ০৯। এদিকে ঘাতকরা মনিরুলকে হত্যা করে যেখানে ফেলে রেখে গিয়েছিল উক্ত ঘটনাস্থল শুক্রবার রাত ১০ টার দিকে সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম (বার) সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। এসময় দেবহাটা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শেখ ইয়াছিন আলী ও দেবহাটা থানার ওসি বিপ্লব কুমার সাহা উপস্থিত ছিলেন। পুলিশ সুপার এসময় দ্রুত ঘাতকদের খুজে বের করে হত্যার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করতে পুলিশকে নির্দেশনা দেন। দেবহাটা থানায় দায়েরকৃত মামলার এজাহার মতে জানা গেছে, নিহত মনিরুল ২৫-০৬-২০২০ ইং তারিখে দুপুর ৩ টার দিকে তার ইজিবাইক নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। ঐদিন রাত ১০ টা ২৬ মিনিটে মনিরুলের সাথে তার স্ত্রীর ফোনে কথা হয়। কিন্তু পরবর্তীতে মনিরুলের ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেলে তারাসহ আত্মীয়স্বজনরা মনিরুলকে খোজাখুজি করতে থাকে। পরে সকাল সাড়ে ৫ টার দিকে তারা সংবাদ পায় তার ভাই মনিরুলের মৃত দেহ সখিপুরস্থ জনৈক আশিষ মন্ডলের বেগুন ক্ষেতে পড়ে আছে। সেখানে গিয়ে তারা দেখতে পান তার ভাই মনিরুলের মাথার পিছনের অংশে, ডান পাশের ঘাড়ে, পিঠের ডান পাশে, বুকে, বাম হাতের বাহুতে, বাম পায়ের পাতায়, ডান পায়ের বৃদ্ধ আঙুল ও তার পাশের আঙুলের মাঝখানে এবং অন্ডকোষের ডান পাশে কাটা অবস্থায় আছে ও গলায় সাদা রঙয়ের নাইলনের দড়ি পোড়ানো অবস্থায় আছে। এ ঘটনা উল্লেখ করে আমিনুর মামলাটি দায়ের করেন। এদিকে এমন একটি লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের ঘটনায় সাধারন মানুষের মধ্যে একটি ভীতিকর অবস্থা বিরাজ করছে। হত্যাকারীরা শুধুই কি একটি ইজিবাইকের জন্য একটি তরতাজা প্রান কেড়ে নিল নাকি এর মধ্যে অন্য কোন কারন আছে তা নিয়েও সবার মধ্যে উৎকন্ঠা বিরাজ করছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দেবহাটা থানার ওসি (তদন্ত) উজ্জ্বল কুমার মৈত্র জানান, ঘটনাটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর। সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে কিছু বিষয় জানা গিয়েছে তবে মামলার তদন্তের স্বার্থে বলা যাবেনা উল্লেখ করে উজ্জ্বল কুমার মৈত্র জানান, খুব দ্রুত হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে বলে তিনি আশা করেন।

রূপান্তরের আয়োজনে বাগেরহাট জেলায় সিএসওদের সাথে পরামর্শ সভা

খবর বিজ্ঞপ্তি

২৭ জুন সকাল ১০ টায় ধানসিড়ি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড এর নেতৃত্বে ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর অর্থায়নে বাস্তবায়িত ‘পুষ্টি উন্নয়নে অংশগ্রহণমূলক সমন্বিত প্রকল্প’-এর আওতায় রূপান্তরের আয়োজনে প্রফেসর মোজাফফর হোসেন এর সভাপতিত্বে বাগেরহাট জেলায় সিএসও দের সাথে পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়।  ‘পুষ্টি উন্নয়নে অংশগ্রহণমূলক সমন্বিত প্রকল্প’(ঈজঅঅওঘ) -এর লক্ষ্য মা ও শিশু পুষ্টি উন্নয়ন করা। সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন বিভাগ, কমিউনিটি এবং সুশীল সমাজের সক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পুষ্টি, কৃষি, সামাজিক সুরক্ষা এবং পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন এই চারটি খাতকে সম্পৃক্ত করবে এই প্রকল্প। গর্ভবতী ও দুগ্ধদানকারী নারী, শিশু, কিশোরী, প্রজননক্ষমনারী, সুবিধাবঞ্চিত পরিবার, প্রাপ্ত বয়স্ক পুরুষ, বয়স্ক জনগোষ্ঠী ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন জনগোষ্ঠীর পুষ্টির উন্নয়ন উদ্দেশ্যে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে  বাগেরহাট জেলার উপকূলীয় চারটি উপজেলার (কচুয়া, মংলা, মোল্লাহাট ও শরণখোলা) সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠী এই কার্যক্রমের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত হবে। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফরিদা আক্তার বানু, সভাপতি, হেলপ, বাগেরহাট এবং রিজিয়া পারভীন, সভাপতি, মহিলা ফোরাম ও নারী নেত্রী, বাগেরহাট। প্রকল্পের কাজকে বেগবান করা এবং উপকারভোগীদের কাছে নিয়ে যাওয়ার সকল প্রকার সহযোগীতার আশ^াস প্রদান করেন। আগামীতে সমন্বিতভাবে এ কার্যক্রম বাস্তবায়নের অংগীকার ব্যাক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে প্রকল্প সমন্বয়কারী খালেদা হেসেন মুন অংশগ্রহনকারীদের সামনে প্রকল্প উপস্থাপন করেন এবং বাগেরহাট জেলার পুষ্টির অবস্থান এবং সিএসও প্লাটফর্ম গঠনের সার্বিক বিষয় উপস্থাপন করেন এ্যাডভোকেসী সিএসও এন্ড ক্যাম্পেইন কো-অর্ডিনেটর তছলিম আহমেদ টংকার। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শরিফুল বাসার, জেলা সিএসও  মোবিলাইজার। সভায় অংশগ্রহনকারীদের মধ্য থেকে পরামর্শ সভায় বক্তব্য রাখেন, নারীনেত্রী তানিয়া খাতুন ও এ্যাড. পারভীন আহমেদ, অবনিশ কুমার, সভাপতি, কেমিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট এ্যাসোসিয়েশন, আব্দুল কবির খান, সভাপতি, জাতীয় ইমাম পরিষদ, বাগেরহাট, মূখার্জী রবীন্দ্রনাথ, অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক, এ্যাড. মিলন ব্যানার্জী, সম্পাদক, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, কল্লোল সরকার, নির্বাহী পরিচালক, স্বদেশ, মন্জুরুল হক মিলন, নির্বাহী পরিচালক, বাধন প্রমূখ।

অপুষ্টিজনিত সমস্যার সমাধানে সকলের সমন্বয়ে, স্থানীয় পর্যায়ের উদ্ভাবনী ও টেকসই পুষ্টি সুশাসনের মডেল তৈরি করে টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনে এই প্রকল্প ভূমিকা রাখবে বলে অংশগ্রহনকারীরা মতামত ব্যক্ত করেন।

 খুলনা মহানগর ছাত্রদলের গভীর শোক প্রকাশ

খবর বিজ্ঞপ্তি

সরকারি মজিদ মেমোরিয়াল সিটি কলেজ শাখা ছাত্রদলের মেধাবী ছাত্রনেতা জুনায়েদ হোসেন মুন্নার বাবা সামসুর রহমান (৬৭) গতকাল আনুমানিক দুপুর ৩:০০টায় স্ট্রোক করে নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। এশাবাদ মরহুমের জানাজা নামাজের পর রাত ৯:০০ টায় নগরীর টুটপাড়া কবর স্থানে দাফন করা হয়। সিটি কলেজ শাখা ছাত্রদল নেতার পিতার মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সমাপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা মহানগর ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি শরিফুল ইসলাম বাবু, সিনিঃ সহ সভাপতি তারেক হাবিবুল্লাহ, রিয়াজ শাহেদ, ইফতেখার জামান নবীন, শামীম আশরাফ,  শরিফুল ইসলাম সাগর, সাইফুল ইসলাম, আল আমিন তালুকদার প্রিন্স, আব্দুল্লাহ কিমিয়া সাদাত, আব্দুল্লাহ আল মামুন, মল্লিক জাহিদুল ইসলাম, বেল্লাল হোসেন, রবিউল আলম, মোঃ ফিরোজ আহমেদ, হুমায়ুন আজিজ ডাবলু, সৈয়দ আব্দুল্লাহ, আশিকুর রহমান আশিক, মেহেদী হাসান, সোহাগ আহমেদ, রশিউর রহমান রুবেল, আশিকুর রহমান অনি, ইশতিয়াক আহমেদ ইস্তি, শেখ মসফিকুর হাসান অভি, আরিফুর রহমান আরিফ, মাহিম আহমেদ রুবেল, মামুনুর রহমান, রাজিবুল আলম বাপ্পী, উজ্জ্বল হোসেন সুমন, মাহমুদুল হাসান মুন্না, ইমরান হোসেন, আব্দুল আহাদ শাহীন, মাসুদ রানা, রাজু আহমেদ রাজ, জিল্লুর রহমান, আরিফুর ইসলাম, শরীফ চৌধুরী সোহেল, হৃদয় হোসেন রিপন, ফারুক হোসেন, সামুরাই হোসেন মাসুদ, ইমরান হোসেন, মিজানুর রহমান শাকিল, শামীম রেজা, ইবাদুল ইসলাম, আশিক মাহমুদ নকিব, আবু হানিফা সুমন, মোঃ নাজিম উদ্দিন, মশিউর রহমান তুষার, রাজু হাওলাদার জুম্মান, তুহিন ইসলাম, শেখ আল মামুন, জিয়াউর রহমান জুয়েল, এবাদত হোসেন, নাজমুল হোসেন, রাজু আহমেদ, আবু সাহালে শিমুল, মাজহারুল ইসলাম রাসেল, রাব্বি চৌধুরী, আকরাম হোসেন,  ইয়াসিন শেখ ডালিম, রাসেল ফারাজি, শাহাবুদ্দীন শাওন, ইজবুর রহমান ইমুল, আল আমিন হোসেন, মুস্তাহিদুল হক দিহান প্রমুখ।

ইন্দুরকানীতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মিস্টি বানাচ্ছেন আদি মিস্টান্ন ভান্ডার

ইন্দুরকানী(পিরোজপুর)প্রতিনিধি ঃ

 ” স্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার খাই Ñ সুস্থ্য ও সুন্দর জীবন বাচাঁয়” এই প্রতিবাদ্য কে সামনে রেখে ইন্দুরকানীর সদর বাজারে আদি মিষ্টান্ন ভান্ডারে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে মিস্টি তৈরি কারখানা । সাধারন মানুষ নাজেনে না বুঝে মিষ্টি খেয়ে থাকে তাতে এমনিই রোগ ব্যাথি দেখা দেয় । বর্তমানে বাংলাদেশে  ( কোভিট- ১৯) করোনা মহামারিতে আক্রান্ত হওয়ার রোগীদে আইসোলশনে থাকতে হয় । এদিকে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার খেয়ে অসুস্থ হলে বিভিন্ন রোগে দেখা যায় । স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, বৃহস্পতিবার গভির রাতে আদি মিষ্টান্ন ভান্ডার দোকানের পিছনে পাখের ঘরে আগুন লাগে । আমরা খবর পেয়ে আগুন নিবাতে নিয়ন্ত্রনে আনি । তারা আরো জানান তার পাখের ঘরে মিস্টি সিরা চুলাই পড়লে সেখান থেকে আগুন ধরে যায় । এভাবে আরো তার দোকানে পাখের ঘরে প্রায় সময় আগুনে ধরে থাকে । উল্লেখ্য আছে যে ইন্দুরকানী বাজারে ২০০৬ সালে মধ্যগলি সোনার দোকানের কারখানা থেকে আগুন ধরলে প্রায় ৫০/৬০টি দোকান পুড়ে যায় । ২০০৭ সালে ঘুর্ণিঝড় সিডরে অনেক দোকানই সিডরে বিধ্বস্ত হয়ে যায় এবং ২০১৬ সালে আদম আলী রোডে মিস্টি দোকান থেকে আগুন সুত্রপাত হলে সেই আগুনে ৩০/৪০ টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায় তাতে অনেক ব্যবসায়ীদের লক্ষ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়ে থাকে। এভাবে যদি আগুন লাগে বাজারে ব্যবসায়ীরা নিঃশ্ব হয়ে যাবে । আমরা ধার, ঋন নিয়ে ব্যবসা করে স্ত্রী, ছেলে মেয়ে নিয়ে  কোন রকম বেচে আছি । তাই আমরা এই থেকে পরিবার চাই। আদি মিষ্টান্ন ভান্ডারে মালিক রিপন সাহা জানান, আমাকে ইউএনও স্যার বলেন দোকান বন্ধ রেখে পিছনে পাখের ঘর মেরামত করতে বলছে  এবং বাজারে বণিক সমিতিরা বলছে পাকের ঘরটি অন্য স্থানে নিয়ে যেতে। ইন্দুরকানী বাজার বনিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ সোহাগ জানান, আমরা রিপন সাহাকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও বাজার বনিক সমিতি নির্দেশে পরবর্তী নিদের্শ না দেওয়া পর্যন্ত দোকান বন্ধ থাকবে এবং ১সপ্তাহ ভিতরে পাখের ঘর আলাদা নিতে বলছি  । আপনার ঘরে পাশে থাকা ১টি কেমিক্যালের দোকান ও ১টি কেরোসিনের দোকান আছে, আপনার দোকান থেকে প্রায় সময় পাখের ঘরে আগুন লাগে । এভাবে আগুল লাগলে পরবর্তিতে বাজারে বড় একটি দুর্ঘটনা ঘটতে পারে ।

কয়রায় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের চট্রগ্রামের এক ব্যবসায়ীর খাদ্য সামগ্রী বিতরন

কয়রা প্রতিনিধি

ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ কয়রায় অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্র সামগ্রী বিতরণ করলেন চট্রগ্রামের জনৈক বিশিষ্ঠ এক ব্যবসায়ী। পরিচয় গোপন করে উক্ত ব্যবসায়ী তার ঘনিষ্ট বন্ধু খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিএম রেজাউল ইসলামের নিকট এসব খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে খাদ্য সামগ্রী বিতরণের পূর্বে ক্ষতিগ্রস্থদের উদ্যেশে জিএম রেজাউল ইসলাম বলেন, চট্রগ্রামের তার বন্ধু, একজন বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী। তিনি বিভিন্ন মিডিয়ায় সুন্দরবন অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে লবণ পানিতে ভেসে যাওয়া মানুষের খবর জানার পর এসব খাদ্য সামগ্রী পাঠিয়েছেন এবং ভবিষ্যতে তিনি এসব মানুষের সহযোগিতায় আবারও এগিয়ে আসবেন। তিনি আরও বলেন, কোভিড-১৯ শুরু হওয়ার পর সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আকতারুজ্জামান বাবুর উপস্থিতিতে হাজার পরিবারে বন্ধুর সহযোগিতায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছিলাম। বিতরণকালে শনিবার সকাল ১০ টায় কয়রা সদরের সুন্দরবন বালিকা বিদ্যালয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক হুমায়ুন কবির উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতা করেন খুলনা সিটি ব্যাংক ম্যানেজার মইনুল হক (হলি) ও শাহাদাত হোসাইন। জানা গেছে কয়রা, মহারাজপুর ও বাগালী ইউনিয়নে ২৫০ টি পরিবারের মধ্যে চাল, ডাল, আলু পেয়াজ, তৈল, লবণ ও চিড়ি বিতরণ করা হয়েছে। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় কয়রা কপোতাক্ষ কলেজের অধ্যক্ষ অদ্রিশ আদিত্য মন্ডল, সুন্দর বন বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ খায়রুল আলম, কয়রা প্রেস কাবের সভাপতি এসএম হারুন অর রশীদ, অপরাজিতা যুব কল্যাণ সংস্থার সাধারণ সম্পাদ অনুপ কুমার মন্ডল, সাংবাদিক রিয়াছাদ আলী, শাহজাহান সিরাজ, আজিজুল ইসলাম, আশরাফুল, ফতেকাটি একতা যুব সংঘের সহসভাপতি মোঃ রিপন ও সাইদ আফ্রিদী।

বেলায়েত হোসাইন জিয়ার মৃত্যুতে মানবাধিকার কমিশনের শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের খুলনা জেলার সাধারণ সম্পাদক ও প্রাইড সিকিউরিটি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব মোঃ বেলায়েত হোসেন জিয়া গতকাল  ২৬ জুন ২০২০ সকালে নিজবাসাতে ষ্ট্রোক জনিত কারণে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না …. রাজিউন)। মোঃ বেলায়েত হোসেন জিয়া এর মৃত্যুতে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের খুলনা জেলা কমিটি, মহানগর কমিটি ও মহানগর মহিলা কমিটি গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সদর দপ্তরের গভর্ণর ও খুলনা জেলার প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্ব শেখ আব্দুল্লাহ, খুলনা বিভাগীয় গভর্ণর ও মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব শরীফ ফজলুর রহমান, মহানগর উপদেষ্টা ওয়াহিদুজ্জামান খান পল্টু, এম এ রশীদ, খুলনা জেলা সভাপতি প্রকৌশলী রফিকুল আলম সরদার, জেলার নির্বাহী সভাপতি ও মোংলা পৌর মেয়র জুলফিকার আলী, জেলা সহ সভাপতি শাহ মামুনুর রহমান তুহিন, জেলা সহ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেন, সহ সভাপতি গাজী আক্তার হোসেন, মহানগর সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব গাজী অহিদুজ্জামান খোকন, সহ সাধারণ সম্পাদক জিএম ইউনুছ আলী, ইঞ্জি. আল মামুন চৌধুরী, ইঞ্জি. মিজানুর রহমান, ইঞ্জি. মারুফুল হক, মান্নান বাবলু, কাজী তারিক আহমদ, ইশরাত জাহান জিনাত, মহানগর মহিলা কমিটির সভাপতি সাবিহা ইসলাম আঙ্গুরা, নির্বাহী সভাপতি শিরিনা পারভীন, সাধারণ সম্পাদক বাধন রহমান, সোনাডাঙ্গা থানা সভাপতি এম এ রহমান, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, সদর থানা সভাপতি এমডি আশরাফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এস এম নাজমুল হক, হরিণটানা থানা সভাপতি এ্যাড. লিয়াকত আলী, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, খালিশপুর থানা সভাপতি আজিজুল হক স্বপন, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, আড়ংঘাটা থানা সভাপতি কামরুল ইসলাম প্রমূখ।

খুলনা চেম্বারের শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ২৮নং ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার মোঃ মুজিবুর রহমান লুলু (৬৫) মস্তিষ্কের রক্তক্ষরন জনিত কারনে খুলনাস্থ তার নিজ বাসভবনে ২৫ জুন ইন্তেকাল করেছেন। মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের (এমইউজে) খুলনার সাবেক সহ-সভাপতি, খুলনা প্রেস কাবের নির্বাহী সদস্য, দৈনিক মানবজমিনের স্টাফ রিপোর্টার মোঃ রাশেদুল ইসলামের খালাতো ভাই খুলনা জিলা স্কুলের শিক্ষক মোঃ জান্নাতুল ফেরদৌস (৪০) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে খুমেক হাসপতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। খুলনা মহানগর যুবলীগের সাবেক সদস্য ও সোনাডাঙ্গা থানা যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক শেখ শহীদ আলী (৩৫) এক মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় ২৭ জুন, ২০২০ ইং তারিখ রোজ শনিবার ভোরে ইন্তেকাল করেন ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন।

তারা প্রত্যেকেই অত্যন্ত সদালাপী, মিষ্টভাষী ও দানশীল ছিলেন। তাদের এ মৃত্যুতে খুলনার সর্বস্তরের ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে খুলনা চেম্বারের সভাপতি কাজি আমিনুল হক, উর্দ্ধতন সহ-সভাপতি শেখ আসাদুর রহমান,   সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, সহ-সভাপতি মোঃ মোস্তফা জেসান ভূট্টো, পরিচালকবৃন্দ গোপী কিষণ মুন্ধড়া, এম এ মতিন পান্না, জেড এ মাহামুদ ডন, এস এম ওবায়দুল্লাহ, আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, ঠাকুর মোঃ শাহ্ আলম, জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), মোঃ সিরাজুল হক, কাজী মাসুদুল ইসলাম, আলহাজ্ব মোঃ মোশাররফ হোসেন, শেখ আল্লামা ইকবাল তুহিন, মোঃ আবুল হাসান, দীপক কুমার দাস, মোঃ ইসলাম খান, উজ্জ¦ল কুমার গাঙ্গুলী, শেখ মোঃ গাউসুল আজম, খান সাইফুল ইসলাম, মোঃ মনিরুল ইসলাম মাসুম, মোঃ মাহবুব আলম ও চৌধুরী মিনহাজ উজ জামান এবং খুলনা চেম্বারের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করে মরহুমদের রুহের মাগফেরাত কামনা এবং তাঁদের শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

আওয়ামী মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট পরিষদের সভা

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

করোনা মোকাবেলায় কভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহকারী মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট স্বেচ্ছাসেবকদের দুর্নীতিমুক্ত নিয়োগ, প্রনোদনার তালিকা প্রেরণ ও স্বেচ্ছাসেবকদের নিষ্ঠার সাথে দায়ীত্ব পালন সহ বিভিন্ন দাবীতে আওয়ামী টেকনোলজিষ্ট খুলনা জেলা পরিষদের উদ্যোগে এক জরুরী সভা ২৬ জুন বেলা ২টায় ফুলবাড়ীগেটস্থ এমকে ল্যাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট এর সভাপতি শিশিরবরের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমানের পরিচালনায় বক্তৃতা করেন সহ সভাপতি আব্দুর রব শিমুল, দেলোয়ার হোসেন, সোহাগ স্বপন দাস, যুগ্ম সম্পাদক পঙ্কজ মন্ডল, সাইফুল ইসলাম, স্বরজিৎ মন্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক প্রিন্স, স্বরজিৎ বাবু, ইব্রাহিম শিকদার,আব্দুল কুদ্দুস, অভিজিত বাহাদুর, উৎপল, মানব হালদার, জোছনা খাতুন, সালমা বেগম প্রমুখ। সভায় স্বাস্থ্য মহাপরিচালকের নিকট কভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহকারী মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট স্বেচ্ছাসেবকদের দুর্নীতিমুক্ত নিয়োগের দাবী এবং প্রনোদনার তালিকা প্রেরণের জোর দাবী জানান। এছাড়া কভিড-১৯ এর নমুনা সংগ্রহকারী মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট স্বেচ্ছাসেবকদের সঠিক ভাবে দায়ীত্ব কর্তব্য পালনের  জন্য আহ্বান জানান।

ঝিনাইদহে দি ক্রাইম রিপোর্ট পত্রিকার সম্পাদক আশরাফুজ্জামানকে সংবর্ধনা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে দি ক্রাইম রিপোর্ট পত্রিকার সম্পাদক মোঃ আশরাফুজ্জামানকে মনোনিত করায় ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস্ ক্রাইম রিপোটার্স ফাউন্ডেশন ঝিনাইদহ জেলা শাখার পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। গতকাল সকালে ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস্ ক্রাইম রিপোটার্স ফাউন্ডেশন জেলা শাখার আয়োজনে শহরের আরাপপুর অফিস কার্যালয়ের সামনে এ আয়োজন করা হয়। ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস্ ক্রাইম রিপোটার্স ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি আতিকুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস্ ক্রাইম রিপোটার্স ফাউন্ডেশনের মহাসচিব এম এম. ইব্রাহীম দুলাল। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস্ ক্রাইম রিপোটার্স ফাউন্ডেশন জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ মনিরুজ্জামান টিপু।

ঝিনাইদহে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল ছাত্রীসহ ২জন নিহত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় এক স্কুলছাত্রীসহ ২ জন নিহত হয়েছে। শনিবার সকালে ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের কালীগঞ্জের বলিদাপাড়া ও সদর উপজেলার খড়িখালী নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, কালীগঞ্জ উপজেলার বলিদাপাড়া গ্রামের লিটন হোসেনের মেয়ে ও বলিদাপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেনীর ছাত্রী রিমা খাতুন (৮) ও সদর উপজেলার বিষয়খালীর গ্রামের মুরাদ আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৩৫)। ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান জানান, শনিবার সকালের দিকে ঝিনাইদহ-যশোর সড়কের পাশে দাঁড়িয়েছিল রিমা। যশোরগামী একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রিমাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে।

অপর দিকে, সদর উপজেলার বিষয়খালী গ্রামের রাজমিস্ত্রী জাহাঙ্গীর আলম বাইসাকেলে করে বাড়ী থেকে বের হয়ে কাজের সন্ধানে যাচ্ছিল। পথে ঝিনাইদহ-যশোর সড়কের খড়িখালী এলাকায় পৌছালে পিছন দিক থেকে একটি মাইত্রেুাবাস তাকে ধাক্কা দিলে রাস্তার পাশে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ফরিদপুর মেডিকেলে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন।

মণিরামপুরের বিদায়ী ইউএনওকে সংবর্ধনা

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি :

সদ্য পদোন্নতি পাওয়া মণিরামপুরের ইউএনও আহসান উল্লাহ শরিফীকে বিদায়ী সংবর্ধনা দিয়েছেন উপজেলা স্কাউটস। শনিবার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় ইউএনওর কার্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তার হাতে ক্রেস্ট তুলে দিয়ে এই সংবর্ধনা জানানো হয়। দ্রুত সময়ের মধ্যে তিনি এডিসি হিসেবে খুলনা জেলা প্রশাসনকের কার্যালয়ে যোগ দিবেন। মণিরামপুর উপজেলা স্কাউটসের সাধারণ সম্পাদক ও প্রেসকাবের সভাপতি ফারুক আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা স্কাউটসের কমিশনার সুভাষ চন্দ্র সিংহ। সংগঠনটির সহ-সভাপতি প্রধান শিক্ষক আরশাফ আলী , সহ-সভাপতি আহাদ আলী, সহ সম্পাদক মাকসুদ আলম, সহকারী প্রশিক্ষক মুনসুর আলী, প্রধান শিক্ষক আহমেদ  শফিক, সহকারী কমিশনার তিলোকা ভদ্র, অডিটর নাছিমা খাতুন, সদস্য রবিউল ইসলাম প্রমূখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।