মদ্যপ অবস্থায় গৃহবধূকে শ্লীলতাহানি, আ.লীগ নেতা গ্রেফতার

2
Spread the love

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি:

যশোরের বেনাপোলে মধ্যরাতে মদ্যপ অবস্থায় এক গৃহবধূকে শ্লীলতাহানি ও মারধরের অভিযোগে বাবু সরদার (৪০) নামে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) দিবাগত মধ্যরাতে বেনাপোল পোর্ট থানার ছোটআঁচড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার বাবু সরদার ওই গ্রামের মৃত আকবর আলী ওরফে কে আকবারের ছেলে ও ছোটআঁচড়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। স্থানীয়রা জানান, বাবু সরদারের বিরুদ্ধে গ্রামে নানা অভিযোগ রয়েছে। দলের প্রভাব দেখিয়ে তিনি নিরীহ মানুষের ওপর অত্যাচার করেন। কিন্তু ভয়ে তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে চান না। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে রাত ১টার দিকে ঘরের বাইরে বের হন ওই গৃহবধূ। ফেরার সময় আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা বাবু সরদার মদ্যপ অবস্থায় তাকে কাপড় ধরে টানাটানি করেন। এ সময় ওই গৃহবধূর চিৎকারে তার স্বামী ঘর থেকে বের হয়ে বাবু সরদারকে নিবৃত করতে গেলে তাকে টর্চ লাইট দিয়ে বাবু সরদার আঘাত করেন। ওই গৃহবধূকেও মাথায়ও টর্চ লাইট দিয়ে আঘাত করেন। পরে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে এসে বাবু সরদারকে গণপিটুনি দেয়।

বেনাপোল পৌর পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি শান্তিপদ গাঙ্গুলী বলেন, গভীর রাতে চিৎকার শুনে ঘর থেকে বের হয়ে বলি কী হয়েছে। এ সময় বাবু সরদার দৌড়ে এসে আমার মাথায় টর্চ লাইট দিয়ে আঘাত করে। আমি ঘটনাটি শুনে থানায় ফোন করলে থানা থেকে পুলিশ এসে বাবু সরদারকে আটক করে নিয়ে যায়। বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, রাতে ঘটনা শুনে পুলিশ পাঠিয়ে বাবু সরদারকে আটক করে থানায় আনা হয়। সকাল ১০টার দিকে বেনাপোল পোর্ট থানায় শ্লীলতাহানির শিকার ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে মামলা করেন। শ্লীলতাহানি ও মারপিটের মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বাবু সরদারকে যশোর আদালতে পাঠানো হয়েছে।