খুলনায় ইয়াবা দিয়ে শ্যালককে ফাঁসানোর মামলায় ভগ্নিপতি মালেক সরদার রিমান্ডে : দু’আসামির আদালতে আত্মসমর্পণ

24
Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার :

নগরীতে শ্যালক মো. শাহিন মোল্লা (১৯) কে ৬পিস ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর মামলায় ভগ্নিপতি মো. আব্দুল মালেক সরদার (৬২) এর একদিনের রিমা- মঞ্জুর করেছে আদালত।

গতকাল রবিবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহীদুল ইসলাম রিমা-ের আদেশ প্রদান করেছেন। মালেক সরদার খালিশপুর হাউজিং এস্টেট রোড নং-১১৩, বাড়ির নং-১৯ এর বাসিন্দা মৃত. আরশেদ আলি সরদারের ছেলে। শাহিন মোল্লা হরিণটানা থানাধিন জয়কালি গ্রামের মৃত. আনোয়ার মোল্লার ছেলে। অপর দিকে গতকাল এ মামলার পলাতক দু’আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। একই আদালত তাদের জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে। আত্মসমর্পণকারী দু’আসামি হলেন খালিশপুর নয়াবাটি মুন্সি বাড়ি টিংকু মুন্সির বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত. তৈয়ব আলির ছেলে মো. রুস্তুম আলি (৪৫) ও একই বাড়ির মো. আব্দুর রব হাওলাদারের ছেলে মো. টিটন হাওলাদার (৩৫)।

১৭মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. এনামুল হক গ্রেফতার ৩আসামিকে আদালতে হাজির করেন। ওই মুজগুন্নি সিএনজি গ্যাস পাম্পের সামনে রেলের জায়গার বাসিন্দা আব্দুল বারেক ফকিরের ছেলে মো. বিল্লাল ফকির (৪২) ও মুজগুন্নি হাজাম পাড়ার ইদ্রিস ফকিরের বাড়ির ভাড়াটিয়া মো. রজব আলি খন্দকারের ছেলে মো. আব্দুর রাজ্জাক খন্দকার (৩০) আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি প্রদান করেন। পরে মালেক সরদার ৫দিনের রিমা-ের আবেদন করা হয়। এর আগে ১৬মার্চ দুপুর ১টার দিকে গল্লামারি বেগ প্লাজা প্রিন্স টেলিকম এর সামনে থেকে ৬পিস ইয়াবাসহ ইজিবাইক চালক শাহিন মোল্লাকে গ্রেফতার করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে বের হয়ে আসে আসল রহস্য।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ১৬মার্চ দুপুর পৌনে ১টার দিকে রুস্তুম আলি মামলার বাদী এসআই মো. দেলোয়ার হোসেনকে জানায় গল্লামারি পুলিশ বক্সের সামনে আব্দুর রাজ্জাক খন্দকার দাড়িয়ে আছে তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে সে ইয়াবাসহ একজনকে ধরাইয়া দিবে। এসআই মো. দেলোয়ার ১টার দিকে গল্লামারি পৌছালে রুস্তুম আলি বেগ প্লাজা প্রিন্স টেলিকম এর সামনে ইজিবাইক চালক হরিণটানা থানাধিন জয়কালি গ্রামের মৃত. আনোয়ার মোল্লার ছেলে মো. শাহিন মোল্লা (১৯) কে দেখিয়ে দেয়। পরে তার ইজিবাইক তল্লাশি করে ৬পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। শাহিন মোল্লাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ৩/৪ বছর পুর্বে নগরীর খালিশপুর হাউজিং এস্টেট রোড নং-১১৩, বাড়ির নং-১৯ এর বাসন্দা মৃত. আরশেদ আলি সরদারের ছেলে মো. আব্দুল মালেক সরদার (৬২) এর সঙ্গে তার বোন মোছা. নুপুর আক্তার (২২) এর বিয়ে হয়। সম্প্রতি বোন নুপুর ভগ্নিপতি মালেক সরদারকে তালাকের নোটিশ দিলে সে শ্যালক শাহিন মোল্লাকে শায়েস্তা করার জন্য তার ড্রাইভার বিল্লাল ফকিরসহ অন্যান্যরা যোগসাজশে ইজিবাইকে ইয়াবা রেখে ডিবিকে সংবাদ দেয়। এঘটনায় এসআই মো. দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে ৫জনের বিরুদ্ধে সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের করেন যার নং-১৫।