করোনা সন্দেহে ঢাকায় আইসোলেশন ও কোয়ারেন্টাইনে ৩ জন

5
Spread the love

ঢাকা অফিস

কোভিড-১৯ এর সন্দেহজনক হিসেবে বর্তমানে ৩ ব্যক্তি আইসোলেশন ও কোয়ারেন্টাইনে আছেন। তবে এদের মধ্যে বিদেশি কেউ নেই বলে জানিয়েছে সরকারের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। শুক্রবার (৬ মার্চ) কোভিড-১৯ নিয়ে রাজধানীর মহাখালীতে আইইডিসিআর সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফোরা। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এ এস এম আলমগীর।

সংবাদ সম্মেলনে মোংলা সমুদ্রবন্দরে আসা জাহাজের যাত্রীদের কী অবস্থা জানতে চাইলে সেব্রিনা ফোরা বলেন, জাহাজে তিন আরোহীর জ্বর থাকলেও দুজনের জ্বর সেরে গেছে। একজনের জ্বর রয়েছে। তাদেরকে জাহাজের ভেতরেই আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে কিনাÍপ্রশ্নে তিনি বলেন, আমরা তাদের নমুনা সংগ্রহ করিনি। তাদের নিবিড় পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। যদি দেখা যায়, জ্বর রয়েছে সেটা কন্টিনিউ করছে এবং তাদের মধ্যে আরও লক্ষণ-উপসর্গ দেখা যাচ্ছে তাহলে নমুনা সংগ্রহ করা হবে। জাহাজটি গভীর বন্দরে রয়েছে, আমাদের বন্দরে ভেড়েনি বলেও মন্তব্য করেন অধ্যাপক সেব্রিনা ফোরা।

ঢাকার বিভিন্ন হোটেলগুলোকে বিদেশ থেকে আসা অতিথিদের বিষয়ে অবগত করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। কয়টি হোটেল এ বিষয়ে তথ্য দিয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত কোনও হোটেল রেসপন্স করেনি।

করোনা ভাইরাসে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই মন্তব্য করে সেব্রিনা ফোরা বলেন, কোভিড-১৯ ছোঁয়াচে। কিন্তু এতে মৃত্যুর ঝুঁকি বা জটিলতার ঝুঁকি খুব কম। আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক এবং সচেতন হতে হবে। করোনা ভাইরাসের জন্য যেহেতু কোনও প্রতিষেধক নেই, তাই সঠিক জীবনাচরণই একে প্রতিরোধ করতে পারে। স্বাস্থ্য বিভাগের অন্যান্য সহযোগী সংগঠন এবং সহযোগী মন্ত্রণালয়গুলোর উদ্দেশে তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রে কোন রোগীকে সন্দেহজনক করোনা রোগী বলে মনে করা হবে সেটা কেবল স্বাস্থ্য বিভাগই করবে। কাউকে হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য অথবা নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করার জন্য অন্য কোনও বিভাগের বা কোনও অতি উৎসাহী ব্যক্তি আমাদের ওপর চাপ দেবেন না। যদি করোনার কোনও লক্ষণ-উপসর্গ না থাকে তাহলে পরীক্ষা করলেও কিন্তু তার মধ্যে করোনা শনাক্ত করা যাবে না। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ জনসহ মোট ১০৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, তাদের কারও মধ্যে কোভিড-১৯ এর উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।