নিখোঁজের ১৪ মাস পর এনজিও কর্মীর লাশ উদ্ধার

6
Spread the love

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে নিখোঁজের ১৪ মাস পর রায়চরণ নামে এক এনজিও কর্মীর লাশ উদ্ধার করেছে সিআইডি পুলিশ। মঙ্গলবার সন্ধ্যার আগে উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামের একটি কলা বাগান থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। মুকসুদপুর থানার ওসি মীর্জা আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এনজিও কর্মী (আশা) রায়চরণকে ২০১৮ সালের ২৩শে ডিসেম্বর খুনের পর বস্তাবন্দী করে কলাবাগানে পুঁতে রাখে একই গ্রামের মাহমুদুল হাসান সেন্টু। সেন্টু দুর্গাপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। নিখোঁজ রায়চরণ গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া উপজেলার ভৈরবনগর গ্রামের বিশ্বনাথ বিশ্বাসের ছেলে। তিনি মুকসুদপুরে আশা এনজিওর মাঠকর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। লাশ উত্তোলনের সময় দায়িত্ব পালন করেন গোপালগঞ্জ জেলা সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ ইউসুফ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন গোপালগঞ্জ সিআইডির সিনিয়র এএসপি জাহাঙ্গীর আলম, মুকসুদপুর থানার ওসি মীর্জা আবুল কালাম আজাদ, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোপালগঞ্জের সিআইডির এএসআই রবিউল ইসলামসহ সিআইডি ও মুকসুদপুর থানা পুলিশ।

গোপালগঞ্জ সিআইডি পুলিশের ইন্সপেক্টর ফাতেহ মোহাম্মদ ইফতেখার আলম জানান, ঘটনার প্রেক্ষিতে আসামি সেন্টুকে নজরদারীতে রাখা হয়েছিল। পরবর্তীতে এনজিও কর্মীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের আইএমি নাম্বার ট্রেস করে লাশের সন্ধান পাওয়া যায়।