বাণিজ্যমন্ত্রীকে ব্যক্তিগতভাবে আমি খুব পছন্দ করি : রুমিন

4
Spread the love

ঢাকা অফিস

বিএনপির সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ রুমিন ফারহানা বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিকে পছন্দ করেন মন্তব্য করায় সংসদে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। মঙ্গলবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে কোম্পানি (সংশোধন) বিল-২০২০ পাসের আগে আনীত জনমত যাচাই-বাছাই ও সংশোধনী প্রস্তাবের ওপর আলোচনাকালে এ ঘটনার সৃষ্টি হয়।

ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেন, ‘বাণিজ্যমন্ত্রীকে ব্যক্তিগতভাবে আমি খুব পছন্দ করি। এই কথা বলা মাত্র সংসদ সদস্যরা টেবিল চাপড়ে হাসতে থাকেন।’ এ সময় বক্তব্য থামিয়ে হেসে ওঠেন রুমিন ফারহানাও। এরপরই তিনি বলেন, উনি (বাণিজ্যমন্ত্রী) চমৎকার কথা বলেছেন। টাকা পাচার নিয়ে উনি একটা কথা বলেছেন, মুশকিল হলো, যতক্ষণ অপরের দিকে তাকিয়ে থাকব, ততক্ষণ পর্যন্ত আয়নায় নিজের মুখ দেখব না, এটাই স্বাভাবিক। বাণিজ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করব উনি যদি একটু আয়নার দিকে তাকান এবং গ্লোবাল ফাইন্যান্স ইউকিউটি রিপোর্ট দেখেন, তাহলে স্পষ্ট হয়ে যাবে টাকা পাচারের বিষয়টা কী।’

জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘আমাকে আয়নায় চেহারা দেখতে বলেছেন। আমার যা রঙ, চেহারাও আমার সুবিধার নয়। সেটা আমি খুব ভালো করেই জানি। টাকা পাচারের ব্যাপারে সরকার অত্যন্ত সচেতন।’ এদিকে কচুরিপানা খাওয়া বিষয়ে পরিকল্পনামন্ত্রীর ব্ক্তব্যের সমালোচনা করেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ। এর জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আজ থেকে ৪০-৪৫ বা ৫০ বছর আগে ঢাকায় কেউ কচুরলতি খেত না। কিন্তু আজকে কচুরলতি একটা সুস্বাদু এবং প্রয়োজনীয় তরকারি হিসেবে চালু হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা চা খাই চা পাতা দিয়ে। নতুন কনসেপ্ট এসেছে পাটের পাতা থেকে। চা পাতার মতো এক ধরনের ড্রিংকস তৈরি হচ্ছে। হয়তো একথা আগে বললে বলা হতো, এটা আবার কেমন কথা! দিন তো বদলাচ্ছে। প্রতিদিন নতুন নতুন চিন্তা নতুন নতুন উদ্ভাবনী শক্তি আসছে। আগে মাশরুম দেখলে বলা হতো হারাম খাবার ব্যাঙের ছাতা। হয়তো এমন দিন আসবে কচুরিপানা থেকে খাবার বের হবে, যার ফ্রুট ভ্যালু অনেকখানি ভালো। অপেক্ষা করি তার জন্য। নেক্সট ওয়েট ফর দ্যাট।’