খুলনা অঞ্চল থেকে পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি বেড়েছে

33
Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা অঞ্চল থেকে বিশ্ববাজারে পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি বেড়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরের চেয়ে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি বেড়েছে ২৬ ভাগ। আর প্রতিবেশী দেশ ভারতে পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি বৃদ্ধির হার ৯২ ভাগ বেড়েছে। রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো খুলনা অফিস, পাট অধিদফতর ও বাংলাদেশ জুট অ্যাসোসিয়েশন সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো খুলনা অফিস সূত্রে জানা গেছে, খুলনা অঞ্চল থেকে বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস, রাশিয়া, জাপান, বেলারুশ, তুরস্ক, পোল্যান্ড, ইতালি, স্পেন, যুক্তরাজ্য, গ্রিসসহ বিভিন্ন দেশে পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি হচ্ছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে খুলনা অঞ্চল থেকে বিশ্ববাজারে ১৭৪টি সনদে ৪১ লাখ ৩৭ হাজার ৩৮৪ ডলারের পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি হয়। গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে রফতানি হয় ১৫৭টি সনদে ৫৬ লাখ ২৮ হাজার ৪৫৯ ডলারের পাট ও পাটজাত পণ্য। চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে ১১০টি সনদে ৪৬ লাখ ১৮ হাজার ৫৯৬ ডলার মূল্যের পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি হয়েছে। যা ২০১৭-১৮ অর্থবছরের রফতানি আয়কেও ছাড়িয়েছে। পাশাপাশি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ভারতে ৪ হাজার ৩৮২টি সনদে ১৩ কোটি ১৪ লাখ ৯৩ হাজার ৬৪ ডলারের পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি হয়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ভারতে রফতানি হয় ৪ হাজার ৭৬৭টি সনদে ১৬৬ কোটি ৬২ লাখ ৩৯ হাজার ২৫৯ ডলারের পাট ও পাটজাত পণ্য। আর চলতি বছরের প্রথম ৬ মাসে ভারতে রফতানি হয়েছে ৯ কোটি ১৭ লাখ ৪৭ হাজার ৪৩৪ ডলারের পাট ও পাটজাত পণ্য। পাকিস্তানে কেবল কাঁচা পাটই রফতানি হয়। খুলনা অঞ্চল থেকে পাকিস্তানে কাঁচা পাট রফতানি কমেছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৪৬৩টি সনদে ৩ কোটি ১১ লাখ ৯৩ হাজার ৮২১ ডলারের কাঁচা পাট রফতানি হয়েছিল। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ২০৮টি সনদে ১ কোটি ৬৫ লাখ ৭১ হাজার ৩৮২ ডলারের কাঁচা পাট রফতানি হয়। আর চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে ১০০টি সনদে পাকিস্তানে ৬৮ লাখ ৩৯ হাজার ৩২১ ডলারের কাঁচা পাট রফতানি হয়েছে।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো খুলনা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, খুলনা কার্যালয়ের মাধ্যমে সনদ নিয়ে ব্যবসায়ীরা পাট ও পাটজাত পণ্য, কাঁচা পাট রফতানি করে থাকেন। ভারত, পাকিস্তান ছাড়াও বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস, রাশিয়া, জাপান, বেলারুশ, তুরস্ক, পোল্যান্ড, ইতালি, স্পেন,  যুক্তরাজ্য, গ্রিসসহ বিভিন্ন দেশে পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি হচ্ছে। রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো খুলনার তথ্য অনুযায়ী, খুলনা অঞ্চল থেকে গত দেড় বছরে ১৭৯ কোটি ১৬ লাখ ৪৪ হাজার ৪৫৪ দশমিক ২ ডলার মুল্যের কাঁচা পাট ও পাটজাত পণ্য ভারত ও পাকিস্তানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রফতানি করা হয়েছে। যা প্রায় সাড়ে ৮ হাজার সনদের মাধ্যমে রফতানি করা হয়েছে।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো খুলনা থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ভারতে গত ডিসেম্বর মাসে ৪৯০টি সনদের মাধ্যমে ১ কোটি ৩৮ লাখ ৬৯ হাজার ৪৬৫ দশমিক ৮৭ ডলার, নভেম্বর মাসে ৫৯১টি সনদে ১ কোটি ৮৬ লাখ ৪৫ হাজার ৯২৪ দশমিক ৮৯ ডলার, অক্টোবর মাসে ৬১৯টি সনদে ১ কোটি ৮৭ লাখ ৯০ হাজার ১৮ দশমিক ৫৯ ডলার, সেপ্টেম্বর মাসে ৬২৫টি সনদে ১ কোটি ৯১ লাখ ১৮ হাজার ৬৬১ দশমিক ৮৪ ডলার, আগস্ট মাসে ৩৩০টি সনদে ৯১ লাখ ২১ হাজার ২৩৭ দশমিক ৫৭ ডলার ও জুলাই মাসে ৪৫২টি সনদে ১ কোটি ২২ লাখ ২ হাজার ১২৫ দশমিক ৫৪ ডলার মূল্যের পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি হয়। পাশাপাশি পাকিস্তানে গত ডিসেম্বর মাসে ২৮টি সনদে ২১ লাখ ৯ হাজার ৪৮৩ দশমিক ৭৩ ডলার, নভেম্বর মাসে ২১টি সনদে ১২ লাখ ৪১ হাজার ৬৩৪ দশমিক ১২ ডলার, অক্টোবর মাসে ৩৫টি সনদে ২৩ লাখ ৯৯ হাজার ৫৫৬ দশমিক ৩০ ডলার, সেপ্টেম্বর মাসে ৭টি সনদে ৫ লাখ ২২৩ দশমিক ৬১ ডলার, আগস্ট মাসে ৭টি সনদে ৫ লাখ ৪৩ হাজার ৭৪১ দশমিক ৪৬ ডলার ও জুলাই মাসে ১টি সনদে ৪৪ হাজার ৬৮২ দশমিক ৫০ ডলার মূল্যের কাঁচা পাট রফতানি হয়।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের পাট অধিদফতরের খুলনা অফিসের মুখ্য পরিদর্শক রাধেশ্যাম নাথ জানান, খুলনা অঞ্চল থেকে বিশ্ব বাজারে কাঁচাপাট রফতানি আগের চেয়ে কমেছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে খুলনা অঞ্চল থেকে ৮ লাখ ৪ হাজার ৫শ বেল কাঁচাপাট রফতানি হয়। আর ২০১৮-১৯ অর্থবছর এসে কাঁচা পাট রফতানি হয় ৫ হাজার ৪৭৭ বেল। চলতি অর্থবছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত কাঁচাপাট রফতানি হয়েছে ৩ লাখ বেল। প্রতি বেলে ১৮২ দশমিক ২৫ কেজি কাঁচাপাট থাকে।

বাংলাদেশ জুট এসোসিয়েশনের (বিজেএ) তথ্য অনুযায়ী ২০১৬-১৭ অর্থবছরে মংলা বন্দর দিয়ে ১ লাখ ৫ হাজার ৪৯১ বেল ও বেনাপোল বন্দর দিয়ে ৫ লাখ ৮৩ হাজার ৫১৭ বেল কাঁচাপাট রফতানি হয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মংলা বন্দর দিয়ে ২ লাখ ৭৯ হাজার ৭৬৭ বেল ও বেনাপোল বন্দর দিয়ে ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৪৩৯ বেল কাঁচাপাট রফতানি হয়েছে। আর ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মংলা বন্দর দিয়ে ১ লাখ ৫২ হাজার ১৮১ বেল ও বেনাপোল বন্দর দিয়ে ২ লাখ ৭৯ হাজার ৩০০ বেল কাঁচাপাট রফতানি হয়েছে। চলতি অর্থবছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত মংলা বন্দর দিয়ে ৮১ হাজার ৪৩৭ বেল ও বেনাপোল বন্দর দিয়ে ২ লাখ ৫৭ হাজার ১৩১ বেল কাঁচাপাট রফতানি হয়েছে। বিজেএ সূত্রে জানা গেছে, পাকিস্তান, ভারত, চীন, নেপাল, ইউকে, ব্রাজিল, রাশিয়া, জিবুতি, ভিয়েতনাম, হংকং, তিউনিশিয়া, আইভরিকোস্ট, এলসালভেদর, ফিলিপাইন, কিউবা, ইথিওপিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, বেলজিয়ামসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কাঁচাপাট রফতানি করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ জুট অ্যাসোসিয়েশনের (বিজেএ) সভাপতি সৈয়দ আলী বলেন, কাঁচাপাট রফতানিকারকরা সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে। ভারত ও পাকিস্তানসহ বিশ্ববাজারে কাঁচাপাট রফতানি কমেছে।