মোংলায় যন্ত্রচালিত নৌকা মাঝি সমিতির সভাপতি বাবুলের বিরুদ্ধে অর্ধ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

1
dav
Spread the love
  • মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি


মোংলায় যন্ত্রচালিত নৌকা মাঝি সমবায় সমিতির সভাপতি বাবুলের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে দুর্নীতি ও প্রায় অর্ধ কোটি টাকার বেশি আত্মাসাৎতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সমিতির সভাপতি মোঃ বাবুল হোসেন ওরফে সুদি বাবুলের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেছেন ওই সমিতিরই বেশির ভাগ সদস্যরা।
তার বিরুদ্ধে সমিতির ঘর ভাড়া বাবদ ৩ লাখ৭৫ হাজার, সমিতির বাকী ৫ রুম ভাড়া বাবদ ৪ লাখ ৩২ হাজার, ৭টি ট্রলার থেকে ৭২ মাসে ১৫ লাখ ১২ হাজার, ৭০ জন সদস্যদের সঞ্চয় আদায় বাবদ ৭ লাখ ৫৬ হাজার, সদস্যদের কাছ থেকে জোর পূর্বক জরিমানা আদায় বাবদ ৩ লাখ, বিদ্যুৎ বিল বাবদ ভাড়াটিয়া থেকে আদায় করা ৩০ হাজার, সদস্যদের কাছ থেকে আদায় পৌর ঘাট ডাক বাবদ ২০ লাখ, সমিতির এক সাবেক নেতার নিকট থেকে চেকের মাধ্যমে নেওয়া ৩৬ হাজার এবং পৌরসভার ঘাট ইজারা বাতিলের জন্য সদস্যদের কাছ থেকে আদায় ৫ লাখ টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ আনেন সমিতির সদস্যরা।
উপজেলা প্রশাসনের কাছে সদস্যদের লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, অদৃশ্য শক্তির ছায়ায় লোক দেখানো নির্বাচনের নামে ক্ষমতার দাপটে বাবুল হোসেন ওরফে সুদি বাবুলকে ২০১১ সালে মোংলা স্থায়ী ও অস্থায়ী বন্দর পারাপার যন্ত্রচালিত নৌকা মাঝি সমবায় সমিতির সভাপতি করা হয়। ক্ষমতা পেয়ে ওই সুযোগেই বেপরোয়া দুনীর্তি ও অনিয়ম করে বাবুল সমিতির অর্ধ কোটিরও (৫৯ লাখ ৪১ হাজার) বেশি টাকা আত্মসাৎ করে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ রাহাত মান্নান বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এদিকে অর্থ আত্মসাৎতের অভিযোগে বাবুলের বিরুদ্ধে বাগেরহাট জেলা সমবায় কর্মকর্তার কাছে ৮৪ ধারায় তহবিল তছরুপের বিষয়টি তদন্ত করার জন্য আবেদন করা হয়।
অর্থ আত্মসাৎতের বিয়য়ে মোংলা স্থায়ী ও অস্থায়ী বন্দর পারাপার যন্ত্রচালিত নৌকা মাঝি সমবায় সমিতির সভাপতি মোঃ বাবুল হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মোবাইলে এ বিষয়ে কথা বলবো না, সাক্ষাতে কথা বলবো বলে ফোন কেটে দেন।