চার দিনের সফরে প্রধানমন্ত্রী ইতালি যাচ্ছেন মঙ্গলবার

10
Spread the love

  • ঢাকা অফিস

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ কোঁতের আমন্ত্রণে আজ চার দিনের সরকারি সফরে রোমের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহ্সানুল করিম গতকাল জানান, সফরকালে প্রধানমন্ত্রী ৫ ফেব্রুয়ারি জিউসেপ কোঁতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি বিমানে আগামীকাল সকালে ইতালির রাজধানী রোমের উদ্দেশে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যাত্রা করবে। বিমানটি স্থানীয় সময় বিকেল সোয়া ৪টায় রোমের ফিয়ামিসিনো বিমানবন্দরে অবতরণ করবে। মিনিস্টার প্লেনিপোটেনসিয়ারি অব ইটালিয়ান ফরেন মিনিস্ট্রি এবং ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান সিকদার প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানাবেন। বিমানবন্দরে আনুষ্ঠানিকতা শেষে, মোটর শোভাযাত্রা সহকারে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে পার্কো দেই প্রিন্সিপি গ্র্যান্ড হোটেল অ্যান্ড স্পায় নিয়ে যাওয়া হবে। ইতালির রাজধানীতে সফরকালে তিনি সেখানে অবস্থান করবেন।

শেখ হাসিনা একই দিন সন্ধ্যায় পার্কো দেই প্রিন্সিপি গ্র্যান্ড হোটেল অ্যান্ড স্পায় তাঁর সম্মানে আয়োজিত একটি সংবর্ধনায় যোগ দিবেন।

আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি সকালে তিনি রোমের ভায়া ডেল’এন্টারটাইড এলাকায় বাংলাদেশ দূতাবাসের চ্যান্সরি ভবন উদ্বোধন করবেন। বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিউসেপ কোঁতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করবেন এবং ইতালির প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন পালাজো চিগিতে এক আনুষ্ঠানিক মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেবেন। দুই শীর্ষ নেতা সম্মেলনে দ্বিপক্ষীয় সার্বিক ইস্যুগুলোর পাশাপাশি আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

পরে, ইতালীয় ব্যবসায়িক সংস্থাগুলোর প্রতিনিধিগণ পার্কো দেই প্রিন্সিপি গ্র্যান্ড হোটেল অ্যান্ড স্পায় তাঁর হোটেলের সভাকক্ষে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করবেন। প্রধানমন্ত্রী পরে পার্কো দেই প্রিন্সিপি গ্র্যান্ড হোটেল অ্যান্ড স্পায় ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আয়োজিত নৈশভোজে অংশ নেবেন। আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি সকালে শেখ হাসিনা পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী দুপুর ১২ টা ৫০ মিনিটে ট্রেনে করে রোম থেকে ইতালির মিলান শহরের উদ্দেশে যাত্রা করবেন এবং স্থানীয় সময় বিকেল চারটায় সেখানে পৌঁছে যাবেন। মিলান সফরের সময় তিনি এক্সেলসিয়ার হোটেল গালিয়ায় অবস্থান করবেন।

আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি, প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে আমিরাত এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে মিলান মালপেন্সা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দেশের উদ্দেশে রওনা হবেন।

শেখ হাসিনা ৮ ফেব্রুয়ারি দুবাই হয়ে বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টা ১০ মিনিটে ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছবেন।

  • টোকিও অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যাবেন প্রধানমন্ত্রী

খুলনাঞ্চল রিপোর্ট

আগামী জুলাই মাসে ২০২০ টোকিও অলিম্পিক গেমসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখার আমন্ত্রণ পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির (আইওসি) আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রী জাপান যাবেন।

সোমবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) সভাপতি ও সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ ও বিওএ মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা আইওসির আমন্ত্রণ পৌঁছে দেন তাকে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এসে বিওএ মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা বলেছেন, ‘আইওসির আয়োজক কমিটির আমন্ত্রণ এটা। আজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাপানে যাওয়ার বিষয়টা নিশ্চিত করেছেন। এটা একটা রাষ্ট্রীয় সফর। তিনি সেখানে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকবেন।’

আগামী ১-১০ এপ্রিল হবে বাংলাদেশ গেমস। এই গেমস নিয়েও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন বিওএ মহাসচিব, ‘বাংলাদেশ গেমস আয়োজনের ব্যাপারে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এছাড়া এসএ গেমসের সাফল্যেও জন্যও বিওএকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। ভবিষ্যতে সাফল্যের ধারাবাহিকতা যাতে ধরে রাখতে পারি সেই পরামর্শ দিয়েছেন।’ এবারের বাংলাদেশ গেমসের জন্য সরকারের কাছে ৩৮ কোটি ৫০ লাখ টাকার বাজেট দিয়েছে বিওএ।