বন্যা প্রতিরোধে খুলনার দু’উপজেলায় ৮৫০ কোটি টাকার প্রকল্প

0
69

স্টাফ রিপোর্টার
খুলনার উপকূলবর্তী উপজেলা দাকোপ ও বটিয়াঘাটায় বন্য প্রতিরোধে ৮৫০ কোটি টাকার বেড়ী বাঁধ নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। টেকসই সমাধানে প্রাকৃতিক দূর্যোগ থেকে রক্ষা করতে পানি উন্নয়ন বোর্ড এ প্রকল্প গ্রহণ করে। ফণীর পূর্বে দাকোপের বানিশান্তায় বেড়ী বাঁধ ভেঙ্গে দু’টি গ্রাম প্লাবিত হয়। ২০০৯ সালের ২৬ মে আইলা নামক প্রাকৃতিক দুর্যোগে দাকোপে পঞ্চাশ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের সূত্র জানান, দাকোপ উপজেলায় ৩১নং পোল্ডারে এবং বটিয়ঘাটা উপজেলায় ৩০ ও ৩৪/২ পোল্ডারে পুন:সংস্কারের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। উল্লেখিত দু’টি পোল্ডারের আওতায় ২৬ কিলোমিটার বাঁধ নির্মাণ করা হবে। এছাড়া ঢাকি, কাজিবাছা ও চুনকুড়ি নদীর ২০কিলোমিটার তীর সংরক্ষণ, দাকোপের ৩১ পোল্ডারের খনা ও ঝালবুনিয়ায় দেড় কিলোমিটার বেড়ী বাঁধ ও ৩টি রেগুলেটর নির্মাণ করা হবে।
পানি উন্নয়ন বোর্ড-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী (অ: দা:) পলাশ কুমার ব্যানার্জি জানান, এ প্রকল্প বাস্তবায়নে ৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় জমি অধিগ্রহণ, অফিস ও কলোনী ভবনও রয়েছে। এ বছরের শেষ নাগাদ এ প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানান, বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে নলিয়ান ও সুতারখালী এলাকায় বাঁধ নির্মাণের কাজ চলছে। ফণীর আঘাতে বটিয়াঘাটা উপজেলার আমিরপুর ইউনিয়নের ৩৪ পোল্ডার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। জেলা উন্নয়ন কমিটির সভায় বটিয়াঘাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম খান উল্লেখ করেন কচুবুনিয়া, বারোআড়িয়া ও বড়ইতলা ভেঙ্গে যেকোন সময় বিচ্ছিন্ন হতে পারে। দাকোপ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আবুল হোসেন গত মার্চের সভায় উল্লেখ করেন, উপজেলার ৩২ ও ৩৩ নং পোল্ডারে বাঁধ নির্মাণের কাজ ধীর গতিতে চলছে। উপজেলায় বাঁধের ২৭টি পয়েন্ট খুব ঝুঁকিপূর্ণ। ৩১নং পোল্ডারে কয়েকটি পয়েন্ট ঝুঁকিপূর্ণ।
এ ছাড়া কয়রা, পাইকগাছা ও রূপসা উপজেলায় ২৫ কিলোমিটার বেড়িবাধ ঝুঁকিপূর্ণ ফণীর আঘাতে দাকোপের আট কিলোমিটার বাঁধ বিধ্বস্ত হয়। বটিয়াঘাটা উপজেলার আমিরপুর ইউনিয়ন বাঁধ ভেঙ্গে প্লাবিত হয়। সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলায় প্রতাপনগর ইউনিয়নের কুড়িকাহুনিয়া, কোলা, সুভদ্রকাটি, চাকলা এলাকা ঝুঁকিপূর্ণ। ২০০৯ সালে আইলায় কয়রা ও আশাশুনির মোট ৬টি ইউনিয়ন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আকতারুজ্জামান বাবু কয়রা ও পাইগাছা উপজেলায় ৫৫ কিলোমিটার টেকসই বেড়িবাধ নির্মাণের জন্য সংসদের প্রথম অধিবেশনে দাবি তোলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here