শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে আইপিএলের রেকর্ড চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই

0
9

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১রানের নাটকীয় জয়ে আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। রবিবারের ফাইনালে গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে তারা জিতেছে শেষ বলে। তাতে রেকর্ড চারবার এই শিরোপা জিতলো মুম্বাই। এর আগে তারা চ্যাম্পিয়ন হয় ২০১৩, ২০১৫ ও ২০১৭ সালে। সবচেয়ে বেশি শিরোপা জয়ে তারা তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইকে পেছনে ফেলেছে।
হায়দরাবাদে আগে ব্যাট করতে নেমে কিয়েরন পোলার্ডের ব্যাটে ৮ উইকেটে ১৪৯ রান করে মুম্বাই। এরপর শেন ওয়াটসনের দুরন্ত এক ইনিংসে জয়ের সম্ভাবনা জাগায় চেন্নাই। কিন্তু শেষ ওভারে আর পেরে ওঠেনি তারা। ২০ ওভারে ৭ উইকেটে চেন্নাই করে ১৪৮ রান।। শেষ ওভারে ৯ রান দরকার ছিল চেন্নাইয়ের। ক্রিজে ওয়াটসনের সঙ্গে ছিলেন রবীন্দ্র জাদেজা। কিন্তু ৪ রান দূরে থাকতে চতুর্থ বলে দুটি রান নিতে গিয়ে রানআউট হন ওয়াটসন। ৫৯ বলে ৮ চার ও ৪ ছয়ে ৮০ রান করেন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান। নেমেই শারদুল ঠাকুর দুটি রান নিলে ম্যাচের উত্তেজনা গড়ায় শেষ বলে, দরকার ছিল ২রান। কিন্তু লাসিথ মালিঙ্গার ইয়র্কারে শারদুল এলবিডাবিøউ হলে শ্বাসরুদ্ধকর জয় পায় মুম্বাই। ৪ ওভারে ১৪ রান দিয়ে ২উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন মুম্বাই পেসার জসপ্রীত বুমরাহ।
এই আইপিএলের সবচেয়ে ভ্যালুয়েবল (সিরিজসেরা) খেলোয়াড় হয়েছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের আন্দ্রে রাসেল। সেরা স্ট্রাইক রেটের পুরস্কারও উঠেছে ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডারের হাতে। সর্বোচ্চ ২৬উইকেট নিয়ে পারপল ক্যাপ পেয়েছেন চেন্নাইয়ের স্পিনার ইমরান তাহির। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ৬৯২ রান করে জিতেছেন অরেঞ্জ ক্যাপ। তার দল পেয়েছে ফেয়ার প্লে অ্যাওয়ার্ড। সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় হয়েছেন কলকাতার শুভমান গিল।

ওয়ানডে সিরিজেও বাংলাদেশের কিশোরদের
ক্রীড়া প্রতিবেদক
সফরকারী পাকিস্তান অনুর্ধ্ব-১৬ দলের বিপক্ষে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ওয়ানডে সিরিজও জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৬ ক্রিকেট দলের কিশোররা। গতকাল সোমবার নগরীর শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ১৭ রানের জয় পায় কিশোর টাইগাররা। এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৬ দল নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭উইকেট হারিয়ে ২৫৯রান সংগ্রহ করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান অনুর্ধ্ব-১৬ ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪২রান তুলতে সমর্থ হয়। এর আগে শনিবার একই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৮৯ রানের জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ কিশোররা।
টসে জিতে এদিন আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় স্বাগতিক বাংলাদেশ দল। প্রথম ম্যাচের মতো এ ম্যাচেও বাংলাদেশ কিশোরদের শুরুটা ভালো হয়নি। দলীয় ১১ রানেই প্রথম উইকেট হারায় তারা। তবে দ্রæত বিপদ বাড়তে দেননি মফিজুল ইসলাম রবিন ও সাকিব শাহরিয়ার। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে এ দু’জন যোগ করেন ৪৯ রান। ভালো খেলতে থাকা সাকিব শাহরিয়ার ২৪ রান করে প্রতিপক্ষের অধিনায়ক ওমর ইনামের স্ট্যাম্পের ফাঁদে ধরা দেন। এরপর দ্রæত আরেকটি উইকেট হারিয়ে আবারও বিপদের শঙ্কা জাগে স্বাগতিক শিবিরে। তবে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান রবিন ও আইচ মোল­া মিলে দলের বিপর্যয় সামাল দিয়ে দলকে ভালো সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন। এই জুটিতে যোগ হয় ৯৬ রান। সেঞ্চুরির সম্ভাবনা তোলা রবিন অবশ্য আলিয়ানের বলে আউট হলে এ জুটি ভাঙে। ততক্ষণে নিজের নামের পাশে ৬৯ রানের ঝকঝকে ইনিংস লিখে ফেলেছেন বিকেএসপি থেকে উঠে আসা রবিন। ১০২ বলে ৩টি বাউন্ডারি ও ২টি ওভার বাউন্ডারি ছিল তার ইনিংসে। রবিন আউট হলেও পথ হারায়নি বাংলাদেশ। এরপরে আরও দু’টি মাঝারি জুটিতে নির্ধারিত ওভার শেষে ২৫৯ রানের সম্মানজনক স্কোর পায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ দল। এর মধ্যে অর্ধশতক তুলে নেন আইচ মোল্লা। ৫৬ বলে ২টি বাউন্ডারি ও ৩টি ওভার বাউন্ডারির সাহায্যে ৫২ রান করেন তিনি। সিরিজের প্রথম ম্যাচে দারুণ অর্ধশত রান তুলে ম্যাচসেরা হওয়া রাব্বি এ ম্যাচেও ছুটছিলেন অর্ধশতরে পথেই। তবে তার আগেই শেষ হয়ে যায় ইনিংস। মাত্র ৩৪ বল খেলে ৩টি বাউন্ডারি ও একটি ওভার বাউন্ডারির সাহায্যে তিনি অপরাজিত থাকেন ৪৪ রানে। ৩২ রান যোগ হয় অধিনায়ক রিহাদ খানের ব্যাট থেকে। পাকিস্তান অনুর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে এদিন আসীর মুঘল ও আলিয়ান মাহমুদ ২টি করে উইকেট নেন।
জবাবে ব্যাট করতে নেমে ধীরে শুরু করে সফরকারীরা। ৫৪ রানের উদ্বোধনী জুটিতে শুরুটা একেবারে খারাপ হয়নি তাদের। এরপর দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ উইকেট জুটিতে সম্ভাবনা জাগিয়ে রাখে সফরকারী দলের ব্যাটসম্যানরা। মূলত এই তিনটি জুটিতেই ম্যাচে ছিল তারা। তিনটি জুটিতেই তারা রান তুলেছে কিছুটা স্লথ গতিতে। ফলে শেষের দিকে এসে রানের সাথে পাল্লা দিয়ে আর পেরে ওঠেনি। উল্টো নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৩৮ রান তুলতে সমর্থ হয় তারা। পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান সামির সাকিবের শুরুতে দারুণ ব্যাটিংয়ে তোলা অর্ধশত রান ব্যার্থ হয়। ৮৭ বলে ৩টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৫৫ রান করেন তিনি। এছাড়া মোহাম্মদ ওয়াক্কাস ৩৮, অধিনায়ক ওমর ইনাম ৩৪, কাশিফ আলী ২৮ রান করেন। বলার মতো রান করতে পারেননি দলের আর কেউ। আগের ম্যাচের মতো এ ম্যাচেও বোলিংয়ে দারুণ সফল মাহফুজুর রহমান রাব্বী। ৫০ রান খরচায় প্রতিপক্ষের ৩ ব্যাটসম্যানকে প্যাভিলিয়ানে পাঠিয়েছেন তিনি। এছাড়া আশিকুর রহমান ২টি এবং মুশফিক হাসান, আজিজুল হাকিম ও আইচ মোল্লা একটি করে উইকেট নিয়েছেন। গত ম্যাচের মতো এ ম্যাচেও ব্যাটে বলে জয়ের নায়ক মাহফুজুর রহমান রাব্বী। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতলেন তিনি। কাল বুধবার একই ভেন্যুতে দুই দলের মধ্যে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

প্রিমিয়ার বিভাগ ক্রিকেটে নিরালা ইউনাইটেড ক্লাবের জয়
ক্রীড়া প্রতিবেদক
খুলনা প্রিমিয়ার বিভাগ ক্রিকেট লিগে জয় পেয়েছে নিরালা ইউনাইটেড ক্লাব। গতকাল সোমবার সকাল ৯টায় খুলনা জেলা ষ্টেডিয়াম মাঠে অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে তারা ৬উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে পঞ্চবীথি ক্রীড়া চক্রকে।
টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পঞ্চবীথি ক্রীড়া চক্র ৩৫দশমিক ৪ওভারে ১০৫রান সংগ্রহ করে। দলের নিরব সবোর্চ্চ ২৭রান করেন। এছাড়া সাঈদ ১৯ ও সুব্রত ১১ রান করেন। ১০৬রানের ছোট টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ২৬ওভারে ৪উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষে পৌছে যায় নিরালা ইউনাইটেড ক্লাব। দলের নাহিদ ৪৯ ও ইমরান ২১ রানে অপরাজিত থাকেন। পঞ্চবীথি’র পারভেজ একাই নেন ৩টি উইকেট। খেলায় আম্পায়ার ছিলেন শাহআলম ও সাজিদুল হক শামীম। স্কোরার ছিলেন মনির। আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টায় জেলা ষ্টেডিয়ামে প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে মুখোমুখি হবে ইয়ং জনতা ক্রীড়া চক্র ও ন্যাশনাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন।

আফ্রিদিকে টপকে ক্যালিসের পেছনে সাকিব
ক্রীড়া প্রতিবেদক
একের পর এক রেকর্ডের খাতায় নাম লিখিয়ে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান। দেশ সেরা এই অল-রাউন্ডার ছাড়িয়ে যাচ্ছেন এক সময়ের সেরা খেলোয়াড়দের। গতকাল সোমবার যেমনটা ছাড়ালেন পাকিস্তানি সাবেক অল-রাউন্ডার শহীদ আফ্রিদিকে।
অল-রাউন্ডারদের তালিকায় উইকেট শিকারিদের মধ্যে দুই নম্বরের অবস্থানটা নিয়ে নিলেন ৩২ বছর বয়সী এই তারকা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের পঞ্চম ম্যাচে ১০ ওভার বোলিং করে নেন মাত্র ১টি উইকেট। তাতেই উঠে আসেন অল-রাউন্ডারদের মধ্য তিন ফরম্যাট মিলিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় দুই নম্বরে। সাকিবের উপরে আছেন দক্ষিণ আফ্রিকান কিংবদন্তি জ্যাক ক্যালিস। ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান ফ্যাবিয়ান অ্যালেনের উইকেট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের উইকেট সংখ্যা হয়ে গেল ৫৪২। সাকিবের পর আফ্রিদির উইকেট সংখ্যা ৫৪১। তবে একটি দিক দিয়ে আফ্রিদির চেয়ে অনেক এগিয়ে সাকিব। এতগুলো উইকেট পেতে আফ্রিদির লেগেছিল ৫২৩ ম্যাচ, আর সাকিবের লাগল মাত্র ৩২৩ ম্যাচ। সামনে ৫৭৭ উইকেট নিয়ে আছেন কিংবদন্তি অল-রাউন্ডার জ্যাক ক্যালিস।

শিরোপার লক্ষ্যে নেপাল যাচ্ছে হুইলচেয়ার ক্রিকেট দল
ক্রীড়া প্রতিবেদক
চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্য নিয়েই টুর্নামেন্ট খেলবেন জানান অধিনায়ক মহসিন, ‘আমাদের লক্ষ্য থাকবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। এই টুর্নামেন্টের জন্য আমরা অনেক দিন ধরেই অনুশীলন করছি। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠে ৪দিনের অনুশীলন ক্যাম্প হয়েছে। সব মিলিয়ে ভালো অবস্থায় আছে দল। আমি আত্মবিশ্বাসী চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ব্যাপারে।’
টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে হতে যাওয়া এ টুর্নামেন্ট হবে নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে। বাংলাদেশ ছাড়াও ৪জাতির এ টুর্নামেন্ট খেলবে ভারত, পাকিস্তান ও নেপাল। কাল বুধবার থেকে শুরু হবে এই প্রতিযোগিতা। উদ্বোধনী ম্যাচে নেপাল ও ভারত মুখোমুখি হবে। আর পাকিস্তানকে মোকাবিলা করবে বাংলাদেশ।

মুস্তাফিজের দুর্দান্ত ফেরা
ক্রীড়া প্রতিবেদক
আয়ারল্যান্ডের উদ্দেশে দেশ ছাড়ার আগেই নিজের ফর্মে ফেরার কথা জানান দিয়েছিলেন মোস্তফিজুর রহমান। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে শাহিনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে বল হাতে দ্যুাতি ছড়িয়েছিলেন তিনি। এবার আয়ারল্যান্ডে বিরুদ্ধে আবহাওয়াতেও জাতীয় দলের জার্সিতে মোস্তফিজের দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তণ দেখছে টাইগার ভক্তরা।
ত্রিদেশীয় সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয়ের দিনে ২ উইকেট পেয়েছিলেন মোস্তফিজুর রহমান। ওই ম্যাচে দুটি উইকেট পেলেও রান দেওয়ার ক্ষেত্রে একটু বেহিসেবী ছিলেন বাঁহাতি এ পেসার। পরের ম্যাচটি স্বাগতিক আয়াল্যান্ডের বিপক্ষে বৃষ্টির কারণে অনুষ্ঠিত হয়নি। তবে আজ শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে ধারালো রূপে দেখা গেছে এ কাটার মাস্টারকে। এ ম্যাচে ৯ওভার বোলিং করে ১মেডেনে ৪৩রান দিয়ে ৪টি উইকেট নেন মোস্তাফিজ।

রঙিন পোশাকে রাহীর অভিষেক
ক্রীড়া প্রতিবেদক
বিশ্বকাপের স্কোয়াডে থাকা আবু জায়েদ রাহীর গতকাল সোমবার ওয়ানডে অভিষেক হয়েছে। ওয়ালটন ত্রিদেশীয় সিরিজে পিঠের সমস্যায় ভুগতে থাকা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের পরিবর্তে তাকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।
বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে ১৩১তম খেলোয়াড় হিসেবে তার ওয়ানডেতে অভিষেক হয়েছে। এর আগে অবশ্য টি-টোয়েন্টি ও টেস্টে অভিষেক হয়েছিল তার। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তার টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়। একই বছরের জুলাইতে নর্থ সাউন্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হয়েছিল টেস্ট অভিষেক। সেই থেকে বাংলাদেশের হয়ে তিনি পাঁচটি টেস্ট ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন।

বার্সার জয়ের রাতে রিয়ালের শোচনীয় পরাজয়
ক্রীড়া প্রতিবেদক
স্প্যানিশ লা লিগার শিরোপা নিষ্পত্তি হয়েছে আগেই। তবু নিয়মরক্ষার খাতিরে নিজেদের আত্মবিশ্বাস ধরে রাখতে মৌসুমের বাকি ম্যাচগুলোও খেলতে হচ্ছে সব দলের। যেখানে বড় ধাক্কাই খেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ, তবে জয়ে ফিরেছে চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা।
সবধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে নিজেদের শেষ দুই ম্যাচেই হেরেছিল বার্সেলোনা। লিগে সেল্টা ভিগোর কাছে ০-২ গোলে হারের পর, চ্যাম্পিয়নস লিগে লিভারপুলের কাছে তারা পরাজিত হয় ০-৪ ব্যবধানে। এ হারের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে রবিবার রাতে গেতাফেকে ২-০ গোলে হারিয়েছে আর্নেস্ত ভালভার্দের দল। তবে খুব একটা জ্বলে উঠতে পারেননি মেসি, কৌতিনহো, রাকিটিচ, বুসকেটসরা। দলের জয়ে ১গোল করেন মিডফিল্ডার আর্তুরো ভিদাল। অন্য গোল এসেছে গেতাফের মিডফিল্ডার মাউরো আরামবারি। দিনের অন্য ম্যাচে রিয়েল সোসিয়াদের কাছে হেরে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। লিগের প্রথম লেগের ম্যাচে একই প্রতিপক্ষের কাছে ০-২ গোলে হেরেছিল তারা। ফিরতি লেগে তাদের পরাজয়ের ব্যবধান ১-৩ গোলের।

মাদ্রিদ ওপেনের শিরোপা জোকোভিচের
ক্রীড়া প্রতিবেদক
ফ্রেঞ্চ ওপেন শুরুর আগে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব আরেকবার জানান দিলেন নোভাক জোকোভিচ। স্টেফানোস সিসিপাসকে হারিয়ে মাদ্রিদ ওপেনের শিরোপা জিতেছেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ বাছাই এ তারকা।
সেমিফাইনাল রাফায়েল নাদালকে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট পেয়েছিলেন গ্রীক তরুণ সিসিপাস। কিন্তু শিরোপা নির্ধারণী লড়াইয়ে অভিজ্ঞ জোকোভিচের সঙ্গে শেষ রক্ষা হয়নি তার। ফাইনালে তাকে ৬-৩ ৬-৪ সেটে হারিয়েছে জোকোভিচ। ক্লে কোর্টে শিরোপা জিততে তরুন সিসিপাসের সঙ্গে ৯৪ মিনিট লড়াই করেন তিনি। এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো মাদ্রিদ ওপেনের শিরোপা জিতেছেন জোকোভিচ। মাদ্রিদ ওপেনের শিরোপা নিশ্চিত করার সঙ্গে সঙ্গে ৩৩তম মাস্টার্স শিরোপও জেতা হয়ে গেছে তার। তাতে সার্বিয়ান এই তারকা ছুঁয়েছেন আরেকটি মাইলফলক। রাফায়েল নাদালের সঙ্গে সর্বকালের সর্বাধিক মাস্টার্স জেতার তালিকায় যৌথভাবে শীর্ষে উঠলেন তিনি।

রোমার মাঠে জুভেন্টাসের হার
ক্রীড়া প্রতিবেদক
নতুন জার্সিতে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোরা। কিন্তু মাঠের পারফরম্যান্সে নেই তেমন ধার। সিরিআ লিগ নিশ্চিতের পর অনেকটাই দাপট কমে এসেছে জুভেন্টাসের।
টানা দুই ড্রয়ের পর এবার রোমার মাঠে হারের তিক্ত স্বাদ পেতে হল জুভেন্টাসকে। শেষ মুহূর্তের ২-০ ব্যবধানে ম্যাচ হেরেছে জুভেন্টাস। ম্যাচ হারলেও এখনও জুভেন্টাস ধরা ছোঁয়ার বাইরে। ৩৬ ম্যাচে ২৮ জয়, ৫ ড্র ও ৩ পরাজয় নিয়ে ৮৯ পয়েন্ট জুভেন্টাসের। দুইয়ে থাকা নাপোলির থেকে ১৩ পয়েন্ট এগিয়ে তারা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৪৮ রানের লক্ষ্যটা ছোট হলেও বেশ সময় লেগেছে বাংলাদেশের। ৪টি অর্ধশত রানের জুটিতে আয়েশী জয় নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। আয়ারল্যান্ডের ম্যালাহাইডে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে ১৬বল হাতে রেখে উইন্ডিজকে ৫উইকেটে হারিয়েছে মাশরাফি বাহিনী।
শুরুতে তামিম, সাকিব এবং সৌম্য তিনজনই সাজঘরে ফেরেন অ্যাশলে নার্সের ঘূর্ণির ফাঁদে পড়ে। ১০৭ রানে ৩ উইকেট যাওয়ার পর মুশফিক ও মিঠুন জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় টাইগাররা। বাংলাদেশ দলকে বেশ ভোগান নার্স। ২৪৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৫৪ রানের ওপেনিং জুটি ভাঙেন নার্স। ২১ রানে বোল্ড হয়ে ফেরেন তামিম। এরপর একই ওভারে সাকিব ও সৌম্যকে ফেরান নার্স। ৩৫ বলে ২৯ রান করেন সাকিব এবং ৬৭ বলে ৫৪ রান করে ফেরেন সৌম্য। এরপর মুশফিক-মিঠুন জুটি দলের হাল ধরে জয়ের পথ দেখান। ১৯০ রানে যখন মিঠুন ফিরে গেলেন ততক্ষণে জুটি ৮৩ রান উপহার দিয়ে গেছে। পরে মাহমুদউল­াকে নিয়ে দলের জয় প্রায় নিশ্চিত করে ৯ রান দূরে থাকতে সাজঘরে ফেরেন ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’ মুশফিক। ৬২ রানে ফিরে যান তিনি। এরপর সাব্বিরকে নিয়ে দেখেশুনেই জয়ের বন্দরে তরী নোঙর করেন রিয়াদ।
এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে মোস্তফিজ-মাশরাফিদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে ২৪৭ রান তোলে ক্যারিবীয়রা। যদিও বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিয়েছিল জেসন হোল্ডারের দল। কিন্তু সাকিবের রান টেনে ধরা, মাশরাফির ব্রেক থ্রু আর মোস্তাফিজের টপাটপ উইকেটে দেখেশুনে খেলতে বাধ্য হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে চোখ রাঙানি দিয়ে ৮৭ রান করেন শাই হোপ। এছাড়া দলনায়ক হোল্ডার করেন ৬২ রান।
বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে ২৭ রানে একটি উইকেট শিকার করেন সাকিব। কিন্তু অভিষিক্ত রাহীর শুরুটা ভালো হয়নি। বরং ভুলেই যেতে চাইবেন ওডিআই জার্সি পরে মাঠে নামার শুরুর দিনটা। ৯ ওভারে ৫৬ রান দিয়ে কোন উইকেট পাননি। মোস্তফিজ ৪টি এবং মাশরাফি ৩টি উইকেট নেন। আরেকটি উইকেট নেন মিরাজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here