সকল জতীয় সংবাদ

0
22

এক রাতেই ২০ লাখ মোবাইল সিম বন্ধ
আসাদুজ্জামান ইমন,ঢাকা
এক রাতেই বন্ধ হয়ে গেছে ২০ লাখ ৪৯ হাজার ৯৪৭টি মোবাইল সিম। গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাত ১২টা থেকে ভোর ৬টার মধ্যে এসব সিম বন্ধ হয়ে যায়। একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) বিপরীতে নিবন্ধনকৃত ১৫টির অতিরিক্ত সিম ব্যক্তির নামে নিবন্ধন হয়েছে সেগুলো বন্ধ করে দিতে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি দেশের সব মোবাইল অপারেটরকে নির্দেশনা দেয়।
বিটিআরসি’র নির্দেশনা ছিল, একই জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) ১৫টির বেশি নিবন্ধিত সিম রাখা যাবে না। কিন্তু বিটিআরসি দেখেছে একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে এভাবে নিবন্ধন হওয়ার সিমের সংখ্যা ২০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এজন্য অতিরিক্ত সিম কমিয়ে ফেলতে বিটিআরসি তৈরি করেছে ‘সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং প্ল্যাটফর্ম’।
এ ব্যাপারে বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক বলেন, ‘নিরাপদে মোবাইল সিম ব্যবহারে এ প্রচেষ্টা আরও গ্রাহকবান্ধব হবে এবং এই খাত অধিকতর সুশৃঙ্খল হবে। আশা করছি, এর ফলে জনসাধারণ নির্বিঘেœ উন্নত টেলিযোগাযোগ সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।’
বিটিআরসি সূত্রে জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার রাত (রাত ১২টা) জিরো আওয়ার থেকে সিমগুলো বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু হয়। সব সিম বন্ধ হতে ৭-৮ ঘণ্টা সময় লাগে।
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ১২ জুন সরকার একজন গ্রাহকের বিপরীতে ২০টি সিম নির্ধারণ করে দেয়। পরে এই সংখ্যা কমিয়ে ৫টি করা হলেও সেই সিদ্ধান্তও পরিবর্তন হয়। সর্বশেষ ২০১৭ সালে একটি জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে ১৫টি সিম নিবন্ধনের জন্য নির্ধারণ করা হয়।

জানা গেছে, ২০ লাখ ৪৯ হাজার ৯৪৭টি সিমের মধ্যে গ্রামীণফোনের সিম সংখ্যা চার লাখ ৬১ হাজার ২৬১, বাংলালিংকের চার লাখ ৫৫ হাজার ৮৩১, রবি’র চার লাখ ১৯ হাজার ২০২, টেলিটকের চার লাখ ৮৭ হাজার ৮৯২ ও এয়ারটেলের রয়েছে দুই লাখ ২৫ হাজার ৭৬১টি সিম।
বিটিআরসি’র তথ্যমতে, অন্তত এক লাখ জাতীয় পরিচয়পত্রের ক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত নির্দেশনা মানা হয়নি। এই সংখ্যক জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে ১৫টির বেশি সিম নিবন্ধন করা হয়েছে।
এদিকে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর সংগঠন অ্যামটব সিম বন্ধ করতে সরকারের কাছে আরও দুই মাস সময় (২৬ জুন পর্যন্ত) চেয়ে আবেদন করেছে। অ্যামটব মহাসচিব ব্রি. জে. (অব.) এস এম ফরহাদ স্বাক্ষরিত ওই আবেদনে সিম বন্ধ হলে গ্রাহকদের চারটি সমস্যা হবে উল্লেখ করা হয়েছে। এগুলো হলো, সিম বন্ধ হলে সংশ্লিষ্ট নম্বরের বিপরীতে খোলা মোবাইল ব্যাংকিং হিসাব (মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস) বন্ধ হয়ে যাবে, অনলাইন লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যাংক হিসাব বা ক্রেডিট কার্ড ক্ষতিগ্রস্ত হবে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের (বিশেষত ফেসবুক) আইডি নিষ্ক্রিয় হবে এবং ওটিপি-ওভার দ্য টপ (বিভিন্ন অ্যাপসভিত্তিক যোগাযোগ ব্যবস্থা) বাধাগ্রস্ত হবে।

দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ
মির্জা ফখরুল ছাড়া অন্য ৪ জনের অপেক্ষায় জাহিদুর
ঢাকা অফিস
দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলেন বিএনপি দলীয় সাংসদ জাহিদুর রহমান। এ জন্য দল তাঁকে বহিষ্কার করতে পারে। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের এই সাংসদ মোটেই শঙ্কিত নন।
জাহিদুর রহমান বলেন, দল বহিষ্কার করলে করুক। আমি তো আর দলকে ছেড়ে যাচ্ছি না। আমি দলের সঙ্গেই থাকব। ৩৮ বছর ধরেই তো আছি। সুতরাং আমি এই দলেরই লোক।
দলীয় পদবির দিক থেকে জাহিদুর রহমান পীরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি। সংসদের বৃহস্পতিবারের অধিবেশনে যোগ দেবেন না জানিয়ে জাহিদুর বলেন, ‘মহাসচিব ছাড়া দলের বাকি সদস্যরাও শপথ নিতে পারেন। দেখি তারা আসেন কি না। এলে একসঙ্গে যোগ দেব।
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচন বিজয়ী অপর চারজন হলেন, হারুন অর রশিদ, আমিনুল ইসলাম, আবদুস সাত্তার ও মোশাররফ হোসেন।
বিএনপির এই সাংসদ বলেন, জন্মের পর থেকে এই আসনে বিএনপি কখনো জেতেনি। ১৯৯১ সাল থেকেই আমি নির্বাচন করে যাচ্ছি। সংসদ নির্বাচন করেছি মোট চারবার। তাই এলাকার ৯৫ শতাংশ মানুষ আমার শপথ নেওয়ার পক্ষে। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে এই আসনে কখনো বিএনপি জেতেনি। অর্থাৎ ধানের শীষের জন্মের পর আমিই প্রথম জিতলাম।
জাহিদুর রহমান বলেন, এমনিতে আমার আর নির্বাচন করার ইচ্ছা নেই। আমি ক্লান্ত। ১৯৯১ সাল থেকেই তো নির্বাচন করে যাচ্ছি। চারবার সংসদ নির্বাচন এবং একবার পৌর নির্বাচন। বাপের টাকায় রাজনীতি করি। দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে হাজার হাজার মামলা আছে। মামলা চালানোর টাকা তো দল দেয় না। আমাদেরই দিতে হয়।
শপথ নেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে জাহিদুর রহমান বলেন, আমি মনে করি শপথ নেওয়া উচিত। কারণ আমাদের নেত্রী কারাগারে। তিনি অসুস্থ। দলের হাজার হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা চলছে, তারা জেলে আছে। বাইরে থেকে কিছুই হচ্ছে না। সুতরাং বাইরে থেকে লাভ কী? তার চেয়ে ভেতরেই যাই, অন্তত চিৎকার করে কথা তো বলতে পারব।
বিএনপির নেতারা আপনাকে গণদুশমন বলে আখ্যায়িত করেছে। এ বিষয়ে জাহিদুর রহমান বলেন, কয়েক দিন আগে দলের মহাসচিব আমাদের পাঁচজন নির্বাচিত সাংসদকে ডেকেছিলেন। তিনি শপথ না নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু আমি দলের সিদ্ধান্তের বাইরে এসে সংসদে যোগ দিয়েছি। সুতরাং এ কথা তারা বলতেই পারেন। আরও বলবেন। তাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

জাহিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: মির্জা ফখরুল
ঢাকা অফিস
দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে কেউ শপথ নিলে তা ‘সাংগঠনিক অপরাধ’ হিসেবে বিবেচনায় এনে দ্রæত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইমলাম আলমগীর। ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে ধানের শীষের নির্বাচিত সদস্য জাহিদুর রহমান জাহিদ শপথগ্রহণের পর গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিএনপি মহাসচিব দলের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।
তিনি বলেন, দলের সিদ্ধান্ত হচ্ছে, শপথগ্রহণ না করা। এই সিদ্ধান্তকে অমান্য করে যদি কেউ শপথগ্রহণ করে থাকেন তা নিঃসন্দেহে সাংগঠনিক অপরাধ।
তিনি বলেন, অবশ্যই এ রকম ব্যক্তির বিরুদ্ধে দ্রæতই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমি স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই, বিএনপির সিদ্ধান্ত হচ্ছে শপথগ্রহণ না করার। সুতরাং, এখন প্রশ্নই উঠতে পারে না শপথ নেয়ার। সকাল সাড়ে ১১টায় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছ থেকে শপথ নেন জাহিদুর রহমান জাহিদ।

এদিকে দলকে উপেক্ষা করে শপথ নেওয়ায় জাহিদকে গণদুশমন বলেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বরচন্দ্র রায়। একাদশ নির্বাচনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ৬ জন ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়।
বিএনপির ৬ জনের মধ্যে অন্যরা হলেন- ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে জাহিদুর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আমিনুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ হারুনুর রশীদ, বগুড়া-৪ মোশাররফ হোসেন ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে উকিল আবদুস সাত্তার।

তীব্র গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন
খুলনায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
বৈশাখের গরম দেশজুড়েই পড়েছে। এরই মধ্যে তীব্র গরমে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। সূর্যের প্রচÐ উত্তাপে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন খেটে খাওয়া মানুষ। রোদের তেজে ঘর থেকে বের হচ্ছে না অনেকেই। অন্যান্য দিনের তুলনায় গতকাল বৃহস্পতিবার খুলনাসহ সারাদেশে তাপমাত্রা প্রায় ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেড়েছে।
আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ২টার দিকে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল খুলনায় ৩৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় রাজধানী ঢাকার তাপমাত্রা ছিল ৩৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, সারা দেশের ওপর দিয়ে মৃদু দাবদাহ বয়ে যাচ্ছে। এই দাবদাহ আরও কয়েক দিন অব্যাহত থাকতে পারে। তবে আগামী তিন দিনের মধ্যে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।
গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ২টার দিকে ঢাকা বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা ছিল মাদারীপুর জেলায়-৩৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় অন্যান্য বিভাগের মধ্যে ময়মনসিংহে ৩৭ দশমিক ২, চট্টগ্রামের রাঙামাটি, কুমিল্লা ও ফেনীতে ৩৮ দশমিক ৪, সিলেটে ৩৮ দশমিক ৩, পাবনার ঈশ্বরদীতে ৩৮ দশমিক ৫, রংপুর বিভাগের মধ্যে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৩৬ দশমিক ৭ এবং বরিশালে ৩৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল। তবে আট বিভাগের মধ্যে খুলনা বিভাগে গরম বেশি পড়েছে। এই বিভাগের সাতক্ষীরায় ৩৯, যশোরে ৩৯ দশমিক ৩, চুয়াডাঙ্গায় ৩৮ দশমিক ৮ এবং কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
এ বিষয়ে আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক শামছুদ্দীন আহমেদ বলেন, আজ শুক্রবারও তাপমাত্রা আরও কিছুটা বৃদ্ধি পেতে পারে। এ অবস্থায় সাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়ে থাকে। এ মাসের শেষ দিকে মধ্য বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে।
তিনি বলেন, নিম্নচাপটি শক্তিশালী হয়ে ২৮, ২৯ ও ৩০ এপ্রিলের পর ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এরপর সেটি আগামী ৩ মে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হানতে পারে। তবে তার গতিপথ কী হতে পারে, সে-সম্পর্কিত তথ্য নিম্নচাপ সৃষ্টি হওয়ার পর হয়তো জানা যাবে।

নুসরাতের ভিডিও করার কথা স্বীকার ওসি মোয়াজ্জেমের
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
ফেনীর সোনাগাজীর ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তাদের গাফিলতির তথ্য খুঁজে পেয়েছে তদন্ত দল। পুলিশ সদর দফতরের তদন্তে কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠে এসেছে।
তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সোনাগাজী থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন ও ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা সাংবাদিকদের কাছে ঘটনাটি আত্মহনন বলে প্রচারের চেষ্টা চালিয়েছিলেন বলে প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেছে।
ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের মোবাইল ফোন দুটি জব্দ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে মোয়াজ্জেম হোসেন ভিডিও করে- তা ছড়িয়ে দেয়ার কথা অস্বীকার করেছেন। এ কারণে নুসরাতকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় থানায় উপস্থিত সবার মোবাইল ফোন জব্দ করে ফরেনসিক পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছে সূত্র।
এ ছাড়া নুসরাতের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়ায় সারা দেশে তোলপাড় হলেও ফেনীর পুলিশ সুপার (এসপি) জাহাঙ্গীর আলম সরকার ঘটনার চার দিন পর চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) খন্দকার গোলাম ফারুকের সঙ্গে প্রথমবার ঘটনাস্থলে যান।
এসপি, ওসিসহ সংশ্লিষ্ট ১০ পুলিশ কর্মকর্তা, মাদ্রাসার কমিটি, স্থানীয় সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের প্রতিনিধি মিলিয়ে কমপক্ষে ৩৭ জনের বক্তব্য নিয়েছে পুলিশ সদর দফতরের ওই তদন্ত দল।
তথ্য পর্যালোচনা শেষে আগামীকাল শনিবারের পর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে বলে জানা গেছে।
তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পুলিশসহ স্থানীয় বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা সচেষ্ট হলে নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনাটি এড়ানো যেত। এ ক্ষেত্রে প্রত্যেক ব্যক্তির বিতর্কিত ভূমিকাগুলো শনাক্ত করছে তদন্ত দল।
এদিকে নুসরাতের ওপর হামলার আগে (যৌন হয়রানির পর) তার জবানবন্দি ভিডিও চিত্রধারণ এবং অনলাইনে ছড়িয়ে দেয়ার মামলায় ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ এবং তার দুটি মোবাইল ফোন জব্দ করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।
গত মঙ্গলবার বিকালে ঢাকায় পিবিআই সদর দফতরে তিন ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মোয়াজ্জেম হোসেনকে ছেড়ে দেয়া হয়।
তদন্তসংশ্লিষ্টরা বলছেন, মামলার আলামত হিসেবে ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের ফোন দুটি ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। এর মাধ্যমে ফোনে ভিডিও ধারণ, অনলাইনে আপলোড এবং নুসরাতের ঘটনায় মোয়াজ্জেম হোসেনের সংশ্লিষ্টতা পরীক্ষা করে দেখা হবে।
তদন্ত সংস্থা পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার বলেন, ‘সোনাগাজীর সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডেকে কথা বলেছেন। এটি তদন্তের অংশ। কিছু আলামতও জব্দ করা হয়েছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সর্বোচ্চ পেশাদারি বজায় রেখে তদন্ত করছি। এ মামলায় আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে। রহস্য উদ্ঘাটন করে আসামিদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে। তদন্তের বিভিন্ন দিক যাচাই-বাছাই শেষে খুব শিগগির প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে।’ পিবিআই সূত্র জানায়, নুসরাত জাহান রাফিকে জিজ্ঞাসাবাদের জবানবন্দি ভিডিও করে- তা অনলাইনে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে গত ১৫ এপ্রিল ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।
আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন। ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই সদর দফতরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রিমা সুলতানা বিষয়টি তদন্ত করতে সোনাগাজী যান।
সেখানে নুসরাতের পরিবার, পৌর মেয়র ও পুলিশের এক এসআইয়ের জবানবন্দি গ্রহণ করেন। নুসরাতের মৃত্যুর ঘটনা তদন্তের অভিযোগ ওঠার পরই ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে সোনাগাজী থানা থেকে প্রত্যাহার করে ঢাকার আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদর দফতরে সংযুক্ত করে রাখা হয়েছে। তার কর্মকাÐ পুলিশ সদর দফতরের তদন্ত কমিটির পাশাপাশি পিবিআইয়ের তদন্তকারীরাও খতিয়ে দেখছেন।
তদন্ত কমিটির প্রধান এবং পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি এস এম রুহুল আমীন বলেন, ‘বক্তব্য গ্রহণ এবং তদন্তকাজ শেষ হয়েছে। আমরা ১০ জন পুলিশ সদস্যসহ ৩৭ থেকে ৩৮ জনের সঙ্গে কথা বলেছি। এখন পর্যালোচনা শেষে প্রতিবেদন দেব।’
তিনি আরও বলেন, ‘সোনাগাজী থানার সাবেক ওসিসহ পুলিশের কারো কারো ত্রুটি-বিচ্যুতি পাওয়া গেছে। যৌন হয়রানির ঘটনার পর স্থানীয় প্রশাসন, মাদ্রাসা কমিটিসহ অনেকের গাফিলতি ছিল। এটা না হলে মর্মান্তিক ঘটনা এড়ানো যেত।
উল্লেখ্য, গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্র্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি আলিম পরীক্ষা দিতে যান। পরীক্ষার আগে তাকে কৌশলে ছাদে ডেকে নিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। ১০ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নুসরাত মারা যান।
সরাসরি কিলিং মিশনে অংশ নেয় পাঁচ জন। তারা হল- শাহাদাত হোসেন শামীম, জোবায়ের হোসেন, জাবেদ হোসেন, কামরুন নাহার মণি ও উম্মে সুলতানা পপি। এ ঘটনায় ৮ এপ্রিল রাতে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলা ও পৌর কাউন্সিলর মুকছুদ আলমসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন অগ্নিদগ্ধ রাফির বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান।

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর প্রস্তাব নাকচ
ঢাকা অফিস
সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর প্রস্তাব নাকচ হয়েছে। বগুড়া-৭ থেকে নির্বাচিত স্বতন্ত্র এমপি রেজাউল করিম গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে জাতীয় সংসদে সরকারি চাকরিতে ঢোকার বয়সসীমা ৩৫ বছরে উন্নীত করার প্রস্তাবটি এনেছিলেন। কিন্তু তা কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।
রেজাউল করিম তার বক্তব্যে বলেন, দেশে এখন শিক্ষিত বেকার ২৮ লাখের বেশি। আর শিক্ষিত বেকার পরিবারের জন্য বোঝা। চাকরি না পেয়ে অনেক যুবক মাদক, ছিনতাই ও অন্যান্য সামাজিক অপরাধমূলক কর্মকাÐে জড়িয়ে পড়ছে। শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর করা উচিত হবে।
এই প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সংসদে বলেন, বর্তমানে সরকারি চাকরিতে প্রবেশ ও অবসরের যে বয়সসীমা আছে, সেটাকে সবদিক বিবেচনায় সরকার যৌক্তিক বলে মনে করছে।
তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর বিভিন্ন প্রেক্ষাপট বিবেচনায় চাকরিতে প্রবেশে বয়সসীমা ২৫ থেকে ২৭ ও পরবর্তীতে ৩০ করা হয়। কিন্তু এখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সেশনজট নেই। ফলে ২৩ বছর বয়সে স্নাতকোত্তর শেষ করতে পাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। এরপর তারা ছয়-সাত বছর চাকরির প্রস্তুতির জন্য সময় পাচ্ছেন।
জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের সংবিধান ও চাকরির বিধিমালায় আছে, ন্যূনতম ২৫ বছর চাকরি না করলে পূর্ণ পেনশন পাবে না। সুতরাং কেউ যদি ৩৭ বছরে চাকরিতে যোগ দেন। সেক্ষেত্রে ২৫ বছর পূর্ণ করতে হলে তাকে ৬২ অথবা ৬৩ বছর বয়সে অবসরে যেতে হবে। কিন্তু বর্তমানে আমাদের অবসরে যাওয়ার সময় হচ্ছে ৫৯ বছর। সুতরাং তাকে আরও তিন থেকে চার বছর চাকরি করতে হবে। কিন্তু আইন অনুযায়ী সেই সুযোগ নেই।

পটুয়াখালীতে নববধূকে ধর্ষণ
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় এক নববধূকে ধর্ষণ করা হয়েছে। গত বুধবার রাত সাড়ে আটটায় কলাপাড়া উপজেলার বেতমোর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাকে কলাপাড়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাতেই নববধূর স্বামী সুজন হাওলাদার বাদী হয়ে বখাটে রফিকসহ ৪ জনকে আসামি করে কলাপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
মামলার বাদী সুজন হাওলাদার জানান, গত বুধবার বরগুনা জেলার আমতলী থেকে কলপাড়া উপজেলার চাকামাইয়া ইউনিয়নের বেতমোর গ্রামে খালু শ্বশুর বশার খানের বাড়িতে নববধূকে নিয়ে বেড়াতে আসেন তিনি। সন্ধ্যায় স্থানীয় বখাটে রুস্তম ফকিরের ছেলে রফিকে নেতৃত্বে দেলোয়ারের ছেলে রাসেল, এছাহাক হাওলাদারের ছেলে খালেক এবং মন্নান গাজীর ছেলে জাফর ওই বাড়িতে জোর করে প্রবেশ করে ওই দম্পত্তির বিয়ে হয়নি এমন দাবি করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে।
মারধোরসহ পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার ভয়ভীতিও দেখায় তারা। এক পর্যায়ে নববধূর সাথে কথা বলার অজুহাতে তার মুখ চেপে ধরে ঘরের পাশে মাঠের মধ্যে নিয়ে রফিক তাকে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে নববধূ ও পরিবারের সদস্যদের ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে ধর্ষকসহ বখাটেরা পালিয়ে যায়। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।
কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম জানান, মামলা দায়ের করা হয়েছে। ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

শেরপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের গুলিতে কৃষক নিহত
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যানের গুলিতে ইদ্রিস আলী (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার যোগানিয়া কুত্তামারা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোসা উদ্ধার এবং পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তি যোগানিয়া ইউনিয়নের কুত্তামারা গ্রামের ফজল রহমানের ছেলে ইদ্রিস আলী।
নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, গত বৃহস্পতিবার সকালে কুত্তামারা গ্রামের সোহরাব আলী তার জমিতে শ্রমিক নিয়ে ধান কাটতে যায়। এসময় যোগানীয়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যন ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান হবির লোকজন তাদের ধান কাটতে বাধা দেয়। পরে তারা চলে আসে। পরবর্তীতে সোহরাব আলী লোকজন নিয়ে আবার দুপুর একটার সময় ওই জমিতে ধান কাটতে যায়। এসময় চেয়ারম্যানের লোকজন তাদের ধাওয়া করে। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলে। এসময় চেয়ারম্যানের গুলিতে সোহরাব আলীর চাচাতো ভাই ইদ্রিস আলী গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাকে দ্রæত নালিতাবাড়ী হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ইদ্রিসকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদরে পাঠায়। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে আটক করে এবং ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোসা উদ্ধার করে।
নিহতের স্ত্রী দিলরুবা বলেন, চেয়ারম্যান হবি ও তার লোকজন আমার স্বামীরে গুলি কইরা মারছে। আমি আমার স্বামী হত্যার বিচার চাই।
নালিতাবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা. জাহিদ হাসান বলেন, মৃত অবস্থায় ইদ্রিস আলীকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গুলির আঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে। ময়নাতদন্তের মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া যাবে।
নালিতাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল খায়ের বলেন, নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদরে পাঠানো হয়েছে। খবর পেয়েই অভিযান চালিয়ে চারজনকে আটক করা হয়েছে। আর ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোসা পাওয়া গেছে। এখন চেয়ারম্যান এবং তার ছেলে শান্ত দু’জনের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা হবে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্ততি চলছে।

ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ
ঢাকা অফিস
রেজিস্টার্ড চিকিৎসকদের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদেশ পাওয়ার দুই দিনের মধ্যে জেলা প্রশাসক ও সিভিল সার্জনদের প্রতি এ বিষয়ে সার্কুলার ইস্যু করতে ওষুধ প্রশাসনের মহাপরিচালককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
জনস্বার্থে দায়ের করা এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার রুলসহ এ আদেশ দেন বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ।
অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা চেয়ে গত বুধবার রিটটি করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। অ্যান্টিবায়োটিকের স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে ব্রিটিশ দৈনিক ‘দ্য টেলিগ্রাফ’সহ দেশের কয়েকটি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন যুক্ত করা হয় রিটের সঙ্গে।
গত ২২ এপ্রিল দ্য টেলিগ্রাফ ‘বাংলাদেশের আইসিইউতে ১০ মৃত্যুর মধ্যে ৮টি মৃত্যুর জন্যই দায়ী সুপারবাগ’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করে। পরে ওই প্রতিবেদন বাংলায় বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশ হয়।
যেখানে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে গত বছর ৯০০ জন আইসিইউতে ভর্তি হয়েছিল। এর মধ্যে অ্যান্টিবায়োটিকের কারণে মারা গেছেন ৪০০ জন।
রিটকারী আইনজীবী সুমন সাংবাদিকদের বলেন, ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ফার্মেসিতে অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কিন্তু অনেকেই অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ সেবন করেন চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই।
তিনি আর বলেন, যে অ্যান্টিবায়োটিক মানুষের খাওয়ার কথা সেটা খাওয়ানো হচ্ছে পোল্ট্রিকে। যে কারণে এগুলো ইনডাইরেক্টলি মানুষের শরীরে অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্টেন্স তৈরি হচ্ছে। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন রিটকারী নিজেই। আর রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান।

রাজধানীতে পিকআপের ধাক্কায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী নিহত
ঢাকা অফিস
রাইড শেয়ারিং ‘পাঠাও’এর মোটরবাইকে চড়ে বিশ্ববিদ্যালয় যাওয়ার সময় রাজধানী শেরেবাংলা নগর এলাকায় পিকআপের ধাক্কায় নিহত হয়েছেন ফাহমিদা হক লাবণ্য (২১) নামে এক ছাত্রী। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পাশের রাস্তায় দুর্ঘটনাটি ঘটে।
নিহত লাবণ্য ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে (সিএসই) তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। তার বাবার নাম ইমদাদুল হক। তারা শ্যামলীর ৩ নম্বর রোডের ৩৩ নম্বর বাসায় থাকতেন।
শেরেবাংলা নগর থানার এসআই মো. আব্দুর রশীদ জানান, শ্যামলী এলাকার বাসা থেকে পাঠাও বাইকযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ে যাচ্ছিলেন লাবণ্য। পথে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পাশের রাস্তায় তাদেরকে একটি পিকআপ ধাক্কা দেয়। তাৎক্ষণিকভাবে আশপাশের লোকজন লাবণ্যকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের লাশ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এসআই।

ভিডিপি কার্যালয়ে শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে আনসার সদস্য গ্রেফতার
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
ময়মনসিংহের ফুলপুর পৌর শহরে তিন বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে এক আনসার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত বুধবার সন্ধ্যায় তাকে আটক করা হয়। অভিযুক্ত আনসার সদস্যের নাম আবু বকর সিদ্দিক (৪০)। সে উপজেলার ভাইটকান্দির মৃত শহর আলীর ছেলে ও ফুলপুর আনসার ভিডিপি কার্যালয়ে মাস্টার রোলে সদস্য পদে কর্মরত।
পুলিশ জানায়, গত মঙ্গলবার বিকেল কোর্ট ভবনে অবস্থিত ফুলপুর আনসার ভিডিপি কার্যালয়ে তিন বছরের ওই শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে আনসার ভিডিপি সদস্য (মাস্টার রোল) আবু বকর সিদ্দিক পালিয়ে যায়। পরে ওই শিশু ঘটনাটি তার মাকে জানালে তিনি পুলিশকে অবহিত করেন। পুলিশ ঘটনার সত্যতা পেয়ে বুধবার সন্ধ্যায় লম্পট আবু বকর সিদ্দিককে স্থানীয় জনতার সহযোগিতায় গ্রেফতার করে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মো. বদিয়ার রহমান জানান, ‘মঙ্গলবার বিকেলে শিশুটি বাসার পাশে কোর্ট বিল্ডিং মাঠে প্রতিদিনের ন্যায় খেলা করছিল। এ সময় লম্পট আবু বকর শিশুটিকে ফুসলিয়ে অফিসের রুমের ভিতর নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। অভিযুক্ত আবু বক্কর ধর্ষণ চেষ্টার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। এ ব্যাপারে শিশুর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।’
ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মেহেদী হাসান ইত্তেফাককে জানান, ‘আবু বক্কর সিদ্দিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টা আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here