সকল জাতীয় সংবাদ

0
34

অগ্নিঝরা মার্চ
স্টাফ রিপোর্টার
আজ ১৪ মার্চ। ১৯৭১ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে অসহযোগ আন্দোলনের দুই সপ্তাহ অতিবাহিত হয়ে গেছে। এদিন জাতীয় পরিষদ অধিবেশনে যোগদানের প্রশ্নে বঙ্গবন্ধুর ৪ দফা পূর্বশর্ত মেনে নেয়ার দাবিতে রাজধানী ঢাকায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও ছাত্র-শ্রমিক, পেশাজীবী সংগঠন এবং যুব, মহিলা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে সভা-সমাবেশ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সকালে আওয়ামী লীগ প্রধান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ন্যাপ নেতা খান আবদুল ওয়ালী খান বৈঠকে মিলিত হন। বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে রুদ্ধদ্বার কক্ষে প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী আলোচনাকালে জাতীয় পরিষদে আওয়ামী পার্লামেন্টারি দলের উপনেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এএইচএম কামরুজ্জামানসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বঙ্গবন্ধু বলেন, স্বাধীনদেশে স্বাধীন নাগরিক হিসেবে জীবন-যাপনের জন্যই আমাদের সংগ্রাম।
এদিন রাতে বঙ্গবন্ধু এক বিবৃতিতে অসহযোগ আন্দোলন অব্যাহত রাখার আহŸান জানিয়ে নতুন নির্দেশ ঘোষণা করেন। দীর্ঘ বিবৃতিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণের মুক্তির আকাঙ্ক্ষাকে নির্মূল করা যাবে না। আমরা অজেয়, কারণ আমরা মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত।
বঙ্গবন্ধুর অসহযোগ আন্দোলনের সমর্থনে সংবাদপত্র প্রেস কর্মচারী ফেডারেশনের উদ্যোগে সকালে বায়তুল মোকাররম প্রাঙ্গণে সমাবেশ শেষে মিছিলসহ বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে গিয়ে তার হাতে একটি আবেদনপত্র দেয়া হয়। তাতে নেতারা যে কোন নির্দেশ পালনের অঙ্গীকার ব্যক্ত করে অবিলম্বে একটি জাতীয় সরকার গঠন ও স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ ঘোষণার জন্য বঙ্গবন্ধুর প্রতি অনুরোধ জানান।
করাচিতে নিশাত পার্কে পাকিস্তান পিপলস পার্টির উদ্যোগে জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। জনসভায় দলের চেয়ারম্যান জুলফিকার আলী ভুট্টো পাকিস্তানের দুই অংশের দুই সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রস্তাব করেন। তিনি পশ্চিম পাকিস্তানের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা হিসেবে তার সঙ্গে সংলাপ শুরু করার জন্য বঙ্গবন্ধুর প্রতি আহŸান জানান।
বরিশালে এক জনসভায় বাংলা জাতীয় লীগ প্রধান আতাউর রহমান খান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি অস্থায়ী সরকার গঠন করার আহŸান জানান। ১১৫ নম্বর সামরিক নির্দেশের প্রতিবাদে দেশরক্ষা বিভাগের বেসামরিক কর্মচারীরা ঢাকায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। পরে তারা বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে দেখা করে তার আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করেন।
এদিন বাংলাদেশের জন্য খাদ্যশস্যবাহী ‘মন্টেসেলো ভিক্টরি’ নামের আর একটি জাহাজের গতিপথ পরিবর্তন করে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে করাচি নিয়ে যাওয়া হয়। ‘ওসান এন্ডুরাস’ নামের সমরাস্ত্রবাহী আর একটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরের ১০ নম্বর জেটিতে নোঙ্গর করে। বন্দর শ্রমিকদের অসহযোগিতার কারণে ৯ মার্চ ১৬ নম্বর জেটিতে সমরাস্ত্রবাহী অপর জাহাজ ‘সোয়াত’-এর সমরাস্ত্র খালাসের চেষ্টা করে কর্তৃপক্ষ ব্যর্থ হয়। স্বাধীন বাংলা কেন্দ্রীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ দেশ থেকে সম্পদ পাচার প্রতিরোধের উদ্দেশ্যে ঢাকার বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট স্থাপন করে।

শিক্ষা নিয়ে অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধ করুন: প্রধানমন্ত্রী
ঢাকা অফিস
সন্তানের ভালো ফলাফলের জন্য অভিভাবকদের অসুস্থ প্রতিযোগিতা থেকে বিরত থাকার আহŸান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, শিশুরা হাসি-খেলার মধ্য দিয়ে শিখবে। তাদের ওপর কোনো চাপ দেওয়া যাবে না। কিন্তু শিশুদের মধ্যে প্রতিযোগিতা না থাকলেও অনেক মায়েদের ও বাবাদের প্রতিযোগিতায় লিপ্ত থাকতে দেখা যায়। এটা অসুস্থ প্রতিযোগিতা। সব শিক্ষার্থীর মেধা সমান থাকবে না, সবাই সমানভাবে শিখতে পারবে না। স্বাভাবিকভাবে যে যতটুকু শিখতে পারবে, ততটুকুর জন্যই তাকে সহযোগিতা করতে হবে যেন শিক্ষাকে আপন করে নিয়ে শিখতে পারে।
গতকাল বুধবার সকালে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।
অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা প্রাথমিক শিক্ষায় বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি। এরই মধ্যে প্রাক-প্রাথমিকও চালু করেছি কিন্তু শিশুদের শিক্ষার জন্য অতিরিক্ত চাপ দেওয়া উচিত নয়। কিন্তু অনেক দেশ আছে, যেখানে ৭ বছর বয়স থেকে বাচ্চাদের স্কুলে পাঠানো হয়, তার আগে নয়। আসলে শিশুদের জন্য এমনভাবে পড়ালেখার ব্যবস্থা তৈরি করতে হবে, যেন তারা খেলতে খেলতে, হাসতে হাসতে নিজের মতো করে শিখতে পারে। চাপ দিলে শিক্ষার প্রতি তাদের আগ্রহ কমে যাবে, ভীতি তৈরি হবে। সেই ভীতি যেন শিশুদের মধ্যে তৈরি না হয়, সেদিকে দৃষ্টি দেওয়ার জন্য শিক্ষক ও অভিভাবকদের অনুরোধ করব।
শিক্ষাকে সহজ করে ছেলেমেয়েদের কাছে পৌঁছে দেয়ার আহŸান জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, ‘বাচ্চাদের নিকটবর্তী স্কুলে ভর্তি করাতে হবে। প্রাথমিকে স্কুলে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা বন্ধ করতে হবে।’
শিক্ষাকে শিশুদের কাছে আকর্ষণীয় করতেই ডিজিটাল পদ্ধতি, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুমের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, শিশুদের যেন কেবল বই পড়েই শিখতে না হয়, তারা দেখেও শিখবে।

ঢাকা-কলকাতা লঞ্চ সার্ভিস চালু হচ্ছে ২৯ মার্চ
কেবিন ভাড়ার হার নিম্নরূপ- ফ্যামিলি স্যুট (দুজন) ১৫ হাজার টাকা, প্রথম শ্রেণি (যাত্রীপ্রতি) ৫ হাজার, ডিলাক্স শ্রেণি (দুজন) ১০ হাজার টাকা, ইকোনমি চেয়ার (যাত্রীপ্রতি) ৮ হাজার টাকা এবং সুলভ শ্রেণি/ডেক (যাত্রীপ্রতি) ১৫০০ টাকা।

খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
এয়ার, রেল ও বাসের পর এবার ঢাকা-কলকাতা যাত্রীদের জন্য চালু হচ্ছে নৌযান যাত্রীসেবা। এখন থেকে কলকাতা যাওয়া যাবে নৌপথে। গতকাল বুধবার বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগামী ২৯শে মার্চ থেকে ঢাকার পাগলা মেরিএন্ডারসন জেটি থেকে রাত ৯ টায় এমভি মধুমতি জাহাজটি ছেড়ে যাবে। জাহাজটি বরিশাল-মংলা-সুন্দরবন-আংটিহারা-হলদিয়া রুট হয়ে কলকাতায় প্রবেশ করবে।আগামী ২৯ মার্চ বাংলাদেশ থেকে কলকাতার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে এমভি মধুমতি জাহাজ। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, বাংলাদেশ-ভারত নৌপ্রটোকল চুক্তির আওতায় বাংলাদেশ-ভারত ভ্রমণে ইচ্ছুক পর্যটকদের যাতায়াতের সুবিধার্থে বিআইডবিøউটিসির নিজস্ব অত্যাধুনিক নৌযান দ্বারা সরকারি নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে পরীক্ষামূলকভাবে ঢাকা-কলকাতা যাত্রীবাহী সার্ভিস চালু করতে যাচ্ছে। এছাড়া আগামী ২৯ মার্চ হতে বিআইডবিøউটিসির এমভি মধুমতি জাহাজটি নারায়ণগঞ্জের পাগলা মেরিএন্ডার হতে বরিশাল-মোংলা-সুন্দরবন-আন্টিহারা-হলদিয়া রুট হয়ে কলকাতার উদ্দেশে যাত্রা করবে।
বিজ্ঞপ্তিতে যাত্রী ভাড়ার তালিকা হচ্ছে: ঢাকা-কলকাতা কেবিন ভাড়ার হার নিম্নরূপ- ফ্যামিলি স্যুট (দুজন) ১৫ হাজার টাকা, প্রথম শ্রেণি (যাত্রীপ্রতি) ৫ হাজার, ডিলাক্স শ্রেণি (দুজন) ১০ হাজার টাকা, ইকোনমি চেয়ার (যাত্রীপ্রতি) ৮ হাজার টাকা এবং সুলভ শ্রেণি/ডেক (যাত্রীপ্রতি) ১৫০০ টাকা।
উল্লেখ্য, গত বছর ঢাকা-কলকাতা যাত্রীবাহী জাহাজ পরিবহনের বিষয়ে সম্মত হয় ভারত ও বাংলাদেশ। এ সংক্রান্ত চুক্তিতে সই করেন বাংলাদেশের নৌপরিবহন সচিব আবদুস সামাদ ও ভারতের জাহাজ মন্ত্রণালয়ের সচিব গোপাল কৃষ্ণ। নৌযান চালুর ফলে ভারতের গঙ্গা এবং বাংলাদেশের যমুনা ও ব্রহ্মপুত্র এই তিন নদী নৌযোগাযোগে সংযুক্ত হবে বলেও জানানো হয়েছে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

বড় এক দলের নির্বাচন বয়কটে ভোটার আসেনি: সিইসি
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
বড় একটি দল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন বয়কট করায় ভোটার আসেনি, এ মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।
সিলেটের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও নির্বাচন-সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে এসব কথা বলেন সিইসি। গতকাল বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সভা হয়।
উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে ৭৮টি উপজেলায় গত রোববার ভোট নেওয়া হয়। পরে নির্বাচন কমিশন থেকে বলা হয়, ওই দিন ৪৩ শতাংশের বেশি ভোট পড়ে। উপজেলা নির্বাচন এবার বর্জন করেছে বিএনপি।
প্রথম ধাপে ভোটার উপস্থিতি অতীতের তুলনায় কম হওয়ার কারণ সম্পর্কে সাংবাদিকদের সিইসি কে এম নূরুল হুদা বলেন, বড় দল নির্বাচনে বয়কট করায় নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়নি। এটাও একটা কারণ হতে পারে।
প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর হয়েছে মন্তব্য করে কে এম নূরুল হুদা বলেন, দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনও সুষ্ঠু করে তুলতে এবং ভোটারদের নিরপেক্ষভাবে ভোট প্রদানে সহযোগিতা করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও নির্বাচন-সংশ্লিষ্টরা প্রতিশ্রæতি দিয়েছেন। যার কারণে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন উপহার দেওয়া হবে।
উপজেলা নির্বাচনের চতুর্থ ও পঞ্চম ধাপে ইভিএম ব্যবহার করা হবে জানিয়ে সিইসি কে এম নূরুল হুদা বলেন, ‘সিলেটে আমরা ইভিএম ব্যবহার করতে পারিনি। উপজেলা নির্বাচনের চতুর্থ ও পঞ্চম ধাপে ১০টি উপজেলায় ইভিএমের ব্যবহার করা হবে। ভবিষ্যতে সংসদ উপনির্বাচনের প্রয়োজন হলে সেগুলোতেও ইভিএম ব্যবহার করা হবে।’
রাতে সিল মারা রোধ করতে ইভিএম ব্যবহারের বক্তব্য প্রসঙ্গে ইসি বলেন, ‘নির্বাচনে ব্যালট বাক্স ছিনতাই, আগুন লাগানো ও জোরপূর্বক সিল দেওয়ার ঘটনা এক দিনের ও একটি ঘটনা না। এটা বহু পুরোনো। আগে ব্যালট বাক্স ছিল টিনের। পরে আমার স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স চালু করেছি। অন্যদিকে, ইভিএম চালু হলে অনেক সমস্যার সমাধান হবে।’
আজকের মতবিনিময় সভায় সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সিইসি কে এম নূরুল হুদা।

আইসিইউ থেকে কেবিনে কাদের
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে তাকে আইসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়।
সিঙ্গাপুরে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা সমন্বয়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) পরিচালক অধ্যাপক আবু নাসার রিজভী আজ সকালে এ তথ্য জানান।
অধ্যাপক আবু নাসার রিজভী বলেন, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা ভালো। সকাল থেকে তাঁকে নরম খাবার দেওয়া হচ্ছে। আগামী সপ্তাহে সুবিধাজনক সময়ে তাঁর বাইপাস সার্জারির প্রস্তুতি নিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।
এর আগে কার্ডিও থোরাসিক সার্জন সিবাস্টিন কুমার সামি মন্ত্রীর চিকিৎসার সর্বশেষ অগ্রগতি পরিবারের সদস্যদের জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা কাদের ও সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান।
ওবায়দুল কাদের ৩ মার্চ হঠাৎ অসুস্থ হয়ে বিএসএমএমইউতে ভর্তি হন। তাঁর হার্টে তিনটি বøক ধরা পড়ে। তাঁর চিকিৎসা বিষয়ে পরামর্শ দিতে ঢাকায় আসেন ভারতের স্বনামধন্য হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি। উন্নত চিকিৎসার জন্য ৪ মার্চ ওবায়দুল কাদেরকে ঢাকা থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। মন্ত্রীর চিকিৎসার জন্য গঠন করা হয় মেডিকেল বোর্ড।

৩১ মার্চের মধ্যে আবার নির্বাচনের দাবি ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপির
ঢাকা অফিস
সব পদেই আবার নির্বাচন চেয়েছেন ডাকসুর নবনির্বাচিত সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক। গতকাল বুধবার দুপুর পৌনে তিনটার দিকে হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এ কথা বলেন।
নুরুল হক বলেন, ‘শত কারচুপির পরও আমাকে এবং আখতার হোসেন আমার প্যানেল থেকে হারাতে পারেনি। তবে অন্যদের হারিয়ে দিতে পেরেছে তারা নীলনকশা করে। এখন আমরা দেখছি যে ছাত্রলীগ বাদে অন্য সব সংগঠন পুননির্বাচন চাইছে এবং সে লক্ষ্যে তারা আন্দোলন করছে। আজ (বুধবার) ভিসি স্যারকে তিন দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছে। আমি তাদের প্রতিনিধি হিসেবে, এত কারচুপির মধ্যেও যেখানে নির্বাচিত হয়েছি, আমি তাদের নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে তাদের দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করছি। আমিও চাই, প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন বাতিল করে ৩১ মার্চের মধ্যেই পুনরায় নির্বাচন দিতে হবে।’
গত সোমবার নির্বাচনের দিন রোকেয়া হলে নিজের ওপর হামলার বিষয়ে নুরুল হক বলেন, রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ জিনাত হুদা ছাত্রলীগের প্রেসিডেন্ট-সেক্রেটারিকে ফোন দেন এবং তারা আমার ওপর হামলা চালিয়েছিল। তাদের লেডি মাস্টার বাহিনী রয়েছে, শোভন ভাইয়ের নেতৃত্বে তারা আমার ওপর হামলা চালিয়েছিল।’
ডাকসুর নবনির্বাচিত সহসভাপতি নুরুল হক হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি হয়েছে জানিয়ে নুরুল হক বলেন, ‘ছেলেদের হলগুলোয় যেটা দেখেছি, বিশেষ করে, প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের জোর করে লাইনে দাঁড় করিয়ে রেখেছিলেন তাঁরা, যাঁরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো অলিখিতভাবে ইজারা নিয়েছেন, সেই ক্ষমতাসীন দলের ছাত্রসংগঠন। তাদের বলেছে, তারা প্রত্যেকে যেন ভোট দিতে গিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট সময় নষ্ট করে। এ ধরনের অনিয়ম আমরা দেখেছি।

ডাকসুতে পুননির্বাচন দাবিতে অনশনরত শিক্ষার্থী অসুস্থ
ঢাকা অফিস
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদে পুননির্বাচনের দাবিতে অনশনরত এক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। অনিন্দ্য মÐল নামের ওই শিক্ষার্থীকে গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
দর্শন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের পড়া অনিন্দ্য জগন্নাথ হলের শিক্ষার্থী। হল সংসদে বাম জোটের প্যানেলে সদস্য প্রার্থী ছিলেন তিনি।
অনশনে থাকা ভূতত্ত¡ বিভাগের শিক্ষার্থী আল মাহমুদ ত্বাহা বলেন, অসুস্থ হয়ে হঠাৎ সে কাঁপতে থাকলে তাকে দ্রæত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এর আগে অনিন্দ্য বলেন, ডাকসু ও হল ইউনিয়ন নির্বাচনে কারচুপি করা হয়েছে। নির্বাচনের নামে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একটি নাটক মঞ্চস্থ করেছেন।
এছাড়াও অনশনে রয়েছেন পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শোয়েব মাহমুদ, জনসংখ্যা বিজ্ঞানের দ্বিতীয় বর্ষের মাঈনউদ্দীন, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তাওহীদ তানজিম ও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের রাফিয়া তামান্না।
তাওহীদ স্বতন্ত্র জোটের প্যানেল থেকে ডাকসুর পরিবহন সম্পাদক পদে এবং শোয়েব ও মাইন হল সংসদের বিভিন্ন পদে প্রার্থী ছিলেন।

আবার নির্বাচনের সুযোগ নেই:ভিসি
ঢাকা অফিস
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েল ভিসি আকতারুজ্জামান বলেছেন, কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদে পুননির্বাচনের যে দাবি উঠেছে সেটি সম্ভব নয়। গতকাল বুধবার দুপুরে উপাচার্য কার্যালয় থেকে বের হওয়ার সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।
ড. আখতারুজ্জামান বলেন, রীতিনীতি অনুযায়ী সময়মতো ডাকসুতে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের শপথ অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় আন্দোলনকারীদের সতর্ক করে তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা করা হলে তা মেনে নেয়া হবে না।
তিনি আরো বলেন, ডাকসু নির্বাচন সফল করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৫০ শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীর শ্রম-সময় ও মেধার যে খরচ হয়েছে, তার প্রতি অসম্মান জানাতে পারি না। তাদের শ্রমকে অসম্মান করার এখতিয়ার আমার নেই।
প্রসঙ্গত গত ১১ মার্চের নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম, কারচুপি ও জালভোটের অভিযোগ তুলে তা বর্জন করে ছাত্রদল, বামজোট, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদসহ পাঁচ প্যানেল। তারা পুনঃতফসিল বাতিল চেয়ে আন্দোলন করছে।

রাজধানীতে বায়ু দূষণ
পরিবেশ অধিদফতরের ডিজিকে হাইকোর্টে তলব
ঢাকা অফিস
ঢাকার বায়ু দূষণরোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নেয়ায় হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে হাইকোর্ট। এ বিষয়ে জানাতে আগামী ১০ এপ্রিল পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালককে (ডিজি) তলবও করেছে আদালত।
বায়ু দূষণ নিয়ে দায়ের করা এক রিটের শুনানিতে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল বুধবার এ আদেশ দেয়।
ঢাকার বায়ু দূষণের মাত্রা পরিমাপ করে এবং দূষণ রোধে কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তা আগামী ১০ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিবেদন আকারে দাখিল করতে পরিবেশ অধিদফতরের ডিজি’কে নির্দেশও দেয় আদালত। আদালত বলেন, বায়ু দূষণ রোধে নেওয়া পদক্ষেপ আমাদের হতাশ করেছে। আমরা ক্ষুব্ধ।
রিটের শুনানিতে আদালত আরও বলেন, মেট্রোরেল ও এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ যেসব এলাকায় চলছে, সেসব এলাকায় প্রচুর ধুলা-বালি পরিবেশকে দূষিত করছে। আমাদের মেট্রোরেল প্রয়োজন। কিন্তু একইসঙ্গে বায়ুদূষণ রোধও জরুরি। আমাদের সন্তানদের রক্ষা করতে হলে এসব (বায়ু দূষণ) বন্ধ করতে হবে।
ঢাকার বায়ু দূষণ রোধে পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনা চেয়ে মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে গত ২৭ জানুয়ারি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিটটি দায়ের করা হয়।
আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

১২ এপ্রিল থেকে সব সিনেমা হলে ধর্মঘট
ঢাকা অফিস
বিদেশি ছবি আমদানির নীতিমালা শিথিল করার পাশাপাশি দেশীয় ছবি নির্মাণ বাড়ানোর উদ্যোগ না নিলে ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সব প্রেক্ষাগৃহ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে হল মালিকদের সংগঠন চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি। গতকাল বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করে প্রদর্শক সমিতির পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়।
সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, সিনেমা হল চালানোর মত পর্যাপ্ত চলচ্চিত্র দেশে হচ্ছে না। দর্শকরা সিনেমা দেখছে না। হল মালিকরা দিনের পর দিন লোকসান গুনছে। এভাবে চলতে পারে না।
প্রদর্শক সমিতির উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস, প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক মিয়া আলাউদ্দিনসহ সংগঠনের জ্যেষ্ঠ নেতারা উপস্থিত ছিলেন এ সংবাদ সম্মেলনে।
সুদীপ্ত কুমার দাস সংবাদ সম্মেলনে সভাপতির পক্ষে একটি লিখিত বিবৃতি পড়ে শোনান।
তিনি বলেন, যখন থেকে আমরা উপমহাদেশীয় ছবি আমদানির দাবি করে আসছি, তখন থেকে আমাদের আশ্বস্ত করতে বলা হচ্ছে, ভালো পরিচালক আসছেন। আমাদের দেশীয় চলচ্চিত্র শিল্প ঘুরে দাঁড়াচ্ছে।তার উদাহরণ কি সিনেমা হলের সংখ্যা কমে ১৭৪ হওয়া? গত বছর দেশীয় ছবির নির্মাণ সংখ্যা ৩৫–এ নেমে আসা?
সিনেমা হল মালিকরা লোকসানের মুখে আছেন জানিয়ে প্রদর্শক সমিতির উপদেষ্টা বলেন, …উচ্চহারের বিদ্যুৎ বিল, শ্রমিক-কর্মচারীর বেতনসহ অন্যান্য খরচের মাত্রা দিন দিন বাড়তে থাকায় প্রতিটি সিনেমা হল মালিকদের লোকসানের পরিমাণ বাড়ছে।
প্রেক্ষাগৃহের পরিবেশ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, এটা ঠিক সিনেমা হলগুলোর পরিবেশ ভালো না। তবে ব্যবসা বাড়লে মালিক হলের উন্নয়ন করবে। কিন্তু হল ভালো হলেই যে মানুষ সিনেমা দেখতে আসবে, তা নয়। ভালো সিনেমা নির্মিত হলে মানুষ মাটিতে বসেও সিনেমা দেখবে।
‘বেদের মেয়ে জোসনা’, ‘মনপুরা’র সিনেমার উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, মানুষ নিচে বসেও সিনেমা দেখেছে। কনটেন্ট ভালো হলে মানুষ হলে আসবে।
দেশের চলচ্চিত্র শিল্পের চাকা সচল করতে ভারতীয় চলচ্চিত্র আমদানির নীতিমালা শিথিল করার দাবি জানিয়ে নওশাদ বলেন, “অনেক ধৈর্যের পর প্রদর্শক সমিতি এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সরকার সমস্যার সমাধান না করা পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে।

৩৭তম বিসিএস নন ক্যাডার ফলাফল
প্রথম শ্রেণিতে ৫৭৮ জনকে নিয়োগের সুপারিশ
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
৩৭তম বিসিএস পরীক্ষায় ক্যাডার পদে সুপারিশপ্রাপ্ত নন, এমন প্রার্থীদের মধ্য থেকে নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির (৯ম গ্রেড) পদে সুপারিশের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেলে কমিশনের ওয়েবসাইটে এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়। এতে ৫৭৮ জনকে প্রথম শ্রেণিতে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে।
প্রথম শ্রেণির নন-ক্যাডার পদে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক সমাজসেবা অধিদপ্তরের সমাজসেবা অফিসার পদে ১৫০ জন, খাদ্য অধিদপ্তরের উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক পদে ৫২ জন, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসার পদে ২৩ জন, নিবন্ধন পরিদপ্তরের সাব-রেজিস্ট্রার পদে ৪০ জন, পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক পদে ৩১ জনসহ সর্বমোট ৭৮ ক্যাটাগরির ৫৭৮টি পদের জন্য সুপারিশ করে ফলাফল প্রকাশ করে পিএসসি।

রাজশাহীতে ছাত্রলীগ নেতা রবি হত্যায় তিনজনের যাবজ্জীবন
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অ্যান্ড কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি রবিউল ইসলাম রবি হত্যা মামলায় তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদÐ দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদÐ প্রদান করা হয়েছে। এ মামলায় খালাস পেয়েছেন সাতজন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহীর দ্রæত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার এ রায় ঘোষণা করেন।
দÐপ্রাপ্তরা হলেন, রাজশাহী মহানগরীর মেহেরচÐি এলাকার হাসান হকারের ছেলে সেতু ইসলাম (৩০), বাবু কশাইয়ের ছেলে মো. বাবলা (২৭) ও বাবলু ড্রাইভারের ছেলে মো. সোহাগ (২৬)।
আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু জানান, পূর্বশত্রæতার জের ধরে ২০১৩ সালের ১৪ এপ্রিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বৈশাখী মেলায় মেহেরচÐি পূর্বপাড়া এলাকার নসু মিয়ার ছেলে রবিউল ইসলামকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
এ ঘটনায় রবিউলের ভাই শফিকুল ইসলাম থানায় মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ১০ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এরপর গত বছরের মার্চে মামলাটি দ্রæত বিচার ট্রাইব্যুনালে হস্তান্তর করা হয়। মামলার ২৩ সাক্ষীর মধ্যে ১৯ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করে আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।
এন্তাজুল হক বাবু জানান, রায় ঘোষণার সময় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত সেতু ছাড়া সব আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পর সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামিকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

স্বামীকে মারধরের অভিযোগে স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
ময়মনসিংহে স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে এসে মারধরে শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন স্বামী মোর্শেদ আলী। গতকাল বুধবার দুপুরে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী স্বামী।
মামলায় স্ত্রী রিপা আক্তারসহ তিনজনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামিরা হলেন- শ্বশুর জয়নাল আবেদীন ও শ্বাশুড়ি জোসনা বেগম।
ভুক্তভোগী মোর্শেদ আলীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুস সোবহান সুলতান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, গত ১১ মার্চ স্ত্রী রিপা আক্তারের দায়ের করা একটি মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে আসেন রিপার স্বামী মোর্শেদ আলী। ওইদিন দুপুরে মোর্শেদকে আদালত এলাকায় একা পেয়ে মারধর করে আহত করেন স্ত্রী রিপাসহ অন্যরা। এ সময় মোর্শেদের কাছে থাকা একটি মোবাইল ফোন ও নগদ ২৯ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।
তিনি আরও জানান, জেলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে কোর্ট পরিদর্শককে ঘটনা তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

নেত্রকোনায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদÐ
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
নেত্রকোনার পূর্বধলায় স্ত্রী লাভলী আক্তারকে হত্যার দায়ে স্বামী ফারুক মিয়াকে মৃত্যুদÐ দিয়েছে আদালত। এ মামলার লাভলীর শ্বাশুড়ি মাজেদা বেগমকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে প্রধান আসামির অনুপস্থিতিতে নেত্রকোনা জেলা ও দায়রা জজ কে এম রাশেদুজ্জামান রাজা এ রায় প্রদান করেন।
মৃত্যুদÐপ্রাপ্ত ফারুক মিয়া নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলার আগিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ কালডোয়ার গ্রামের মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। ফারুক মিয়া পলাতক রয়েছে।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে প্রকাশ, বিয়ের কয়েক মাস পার হতে না হতেই পারিবারিক কলহের জের ধরে বিগত ২০০৯ সালের ১ সেপ্টেম্বর ভোররাতে ফারুক মিয়া তার স্ত্রী লাভলী আক্তারকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। রাতেই লাশ ঘরের আড়ায় ঝুলিয়ে রেখে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে লাভলী আত্মহত্যা করেছে বলে অপপ্রচার চালায়।
পরদিন সকালে খবর পেয়ে লাভলীর বাবা জয়নাল আবেদীন পুলিশ নিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে নিহত লাভলীর বাবা জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে ২ সেপ্টেম্বর জামাতা ফারুক ও তার মা মাজেদা বেগমসহ মোট ৫ জনকে আসামি করে পূর্বধলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১২ সালের ৩১ জুলাই ফারুক মিয়া ও তার মা মাজেদার বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে।

জ্বালানি তেলের দাম কমানো হচ্ছে না কেন : হাইকোর্ট
ঢাকা অফিস
বিশ্ববাজারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে জ্বালানি তেলের দাম কেন কমানো হচ্ছে না তা জানতে চেয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার হাইকোর্টে করা রিটের শুনানির সময় এ পশ্ন করেন বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের বেঞ্চ।
এর আগে গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে গণশুনানি স্থগিত চেয়ে কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।
শুনানিতে ক্যাবের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া এবং বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) পক্ষে আইনজীবী ছিলেন মেজবাহ উদ্দীন।
আদালত জানায়, বিশ্ববাজারে যখন তেলের দাম বেড়েছে তখন দেশের বাজারেও তেলের দাম বেড়েছে। কিন্তু যখন বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমেছে তখন আর দেশের বাজারে কমেনি তেলের দাম। বিশ্ববাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে দাম বাড়ানো হলেও বিশ্ববাজারে কমলেও দেশের বাজারে দাম এখন কমানো হচ্ছে না কেন?
বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রসঙ্গে এসময় আদালত বলেন, বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে গ্যাসের দাম বাড়ানো হলে বিশ্ববাজারে এর বিরূপ প্রভাব পড়বে। কারণ দেশের বেশিরভাগ পোশাক কারখানা উৎপাদনের ক্ষেত্রে গ্যাসের উপর নির্ভরশীল। গ্যাসের দাম বাড়ানো হলে তাদের উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে। খরচ বাড়লে প্রতিযোগিতার বিশ্বে পিছিয়ে পড়বে বাংলাদেশের পোশাক শিল্প। যা গোটা রপ্তানি শিল্পের উপর প্রভাব ফেলবে। এসময় আদালত গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিষয়ে বিইআরসি’র শুনানিতে কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন।

কাঁঠালিয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলায় পারভীন বেগম (৪৫) নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী শহিদুল ইসলাম জোমাদ্দার। গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার পশ্চিম চেচরী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পারভীন কাঁঠালিয়া উপজেলার পশ্চিম চেচরী গ্রামের কৃষক শহিদুল ইসলাম জোমাদ্দারের স্ত্রী।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, স্ত্রী ও সন্তান থাকার পরও কৃষক শহিদুল স¤প্রতি দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এ নিয়ে পারিবারিক কলহ দেখা দিলে গতকাল বুধবার দুপুরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে শহিদুল ক্ষিপ্ত হয়ে দা দিয়ে কুপিয়ে স্ত্রীকে আহত করে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
কাঁঠালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনামুল হক জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছে পুলিশ। পাশাপাশি অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ওই গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী শহিদুলকে আটকদের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি এনামুল।

কেরানীগঞ্জ যাচ্ছেন খালেদা!
খুলনাঞ্চল রিপোট
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। তবে সেখানে তাকে কবে নেয়া হবে তা এখনো ঠিক হয়নি। কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশেই মহিলাদের একটি আলাদা কারাগার হচ্ছে। সেখানেই তাকে রাখা হবে বলে নিশ্চিত করেছে একাধিক সূত্র। এ বিষয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুব আলম বলেন, প্রায় ৩০০ নারী বন্দীর জন্য একটি কারা কম্পাউন্ড তৈরি হচ্ছে। এর কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। সেটা যেহেতু আলাদা জেল সেখানে আলাদা অ্যাডমিনিস্ট্রেশন থাকবে, আলাদা জেলার থাকবে আলাদা সুপার থাকবে।
তিনি বলেন, জেলের মধ্যে যেকোনো বন্দী থাকতে পারে। খালেদা জিয়া থাকবে কিংবা অন্য কেউ থাকবে না বিষয়টা এমন নয়। যেহেতু মহিলাদের একটা জেল হচ্ছে সেখানে উনাকে রাখা হতেই পারে। এখন যদি তাকে কাশিমপুরের মহিলা জেলে পাঠানো হয় তাকে কাশিমপুরও যেতে হতে পারে।
৩০০ জন ধারণক্ষমতা সম্পন্ন জেলটির নির্মাণকাজ ২০১৮ সালের জুনে শেষ হওয়ার কথা। তবে আট মাস পেরিয়ে গেলেও কাজ সম্পন্ন হয়নি। দ্রæত কাজ সম্পন্নের জন্য ফেব্রæয়ারিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন সচিব জেলখানা পরিদর্শন করেন। এরপর থেকেই শোনা যাচ্ছিল খালেদাকে সরিয়ে নেয়ার গুঞ্জন। এছাড়াও পুরান ঢাকার কারাগারটিতে পুরান ঢাকাবাসীর জন্য বিনোদনকেন্দ্রে পরিণত করার কাজটিও এখনো সম্পন্ন হয়নি খালেদার কারণে।
গত ৮ ফেব্রæয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজা ঘোষণার দিন থেকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া। আদালতের অনুমতি নিয়ে খালেদার সঙ্গে থাকছেন ফাতেমা বেগম (৩৫)। ফাতেমা দীর্ঘদিন ধরে খালেদা জিয়ার গৃহপরিচারিকা হিসেবে কাজ করছেন। কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে একই সেলে থাকছেন তিনি।
অসুস্থতার কারণে খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) দুইবার চিকিৎসা করানো হয়। সর্বশেষ গত রোববার দুপুরে তাকে বিএসএমএমইউতে নেয়ার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও সেখানে যেতে অনীহা প্রকাশ করায় খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নিতে পারেনি কারা কর্তৃপক্ষ।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজের কোটা খালি, নিবন্ধনের আহŸান
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
চলতি বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীর নির্ধারিত কোটা এখনও খালি রয়েছে। হজে যেতে আগ্রহীদের নিবন্ধনের আহবান জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ২০১৯ সালে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে আগ্রহী ব্যক্তিরা এখনও প্রাক-নিবন্ধন ও নিবন্ধন করে হজ পালনের সুযোগ গ্রহণ করতে পারেন। বিজ্ঞপ্তিতে ২০১৯ সালে সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধনের ক্রমিক ২২৭৬৫ থেকে পরবর্তী প্রাক-নিবন্ধিত ক্রমিক নম্বরধারী ব্যক্তিকে আগামী ২১ মার্চ পর্যন্ত নিবন্ধনের জন্য সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। যথাসময়ে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের সুবিধার্থে হজের নিবন্ধন করতে ইচ্ছুক হজ যাত্রীদের আগামী ২০ মার্চের আগে সংশ্লিষ্ট রেজিষ্ট্রেশন কেন্দ্রে প্রাক-নিবন্ধন সনদসহ পাসপোর্ট দাখিল করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।
ইতোপূর্বে সরকারি ব্যবস্থাপনার প্রাক-নিবন্ধিত ২২৭৬৪ ক্রমিকের মধ্যে যারা কোন কারণে নিবন্ধন করতে পারেননি অথচ তারা এ বছর হজ পালনে আগ্রহী, তাদেরকে পরিচালক, হজ অফিস, ঢাকা বরাবর লিখিত আবেদন ঢ়ৎঢ়@যধলল.মড়া.নফ; সড়ৎধযধলংবপঃরড়হ@মসধরষ.পড়স ই-মেইলে অবহিত করতে অথবা ০৯৬০২৬৬৬৭০৭ এ ফোন করে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীকেই পুরস্কার দিয়ে গেলো ছোট্ট পিয়াসা
ঢাকা অফিস
টাঙ্গাইল সদরের জোবায়দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী পিয়াসা সরকার। ছবি আঁকার হাত খুবই ভালো। ছবি আঁকায় জাতীয় পর্যায়ের পুরস্কারও পেয়েছে শিশুটি। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা তার স্বপ্নের মানুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এ বিষয়ে পোস্ট দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেসসচিব আশরাফুল আলম খোকন জানিয়েছেন, গত আড়াই মাস চেষ্টা করে পিয়াসা বঙ্গবন্ধু কন্যার একটি পোট্রেট আঁকেন। তার মা তাপসী রানী সরকার জানাল, মেয়েটা অনেক পরিশ্রম করেছে। মুখ মেলে তো চোখ মেলে না। চুল মেলে তো ভ্রূ মেলে না। আড়াই মাস চেষ্টার পর বঙ্গবন্ধু কন্যার ছবি নিয়ে পিয়াসার সন্তুষ্টি আসে। উদ্দেশ্য একটাই, যেকোনোভাবেই হোক ছবিটি সে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দেবে। তার সেই স্বপ্ন সফল হয়েছে।
খোকন লিখেছেন, কীভাবে স্বপ্নটা সত্যি হলো আসি সেই গল্পে। জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ছবিটি নিয়ে তিনদিন আগে তারা ঢাকায় আসে। শিক্ষায় অবদান রাখার জন্য মোট ১০৮ জনকে এই অনুষ্ঠানে পুরস্কৃত করা হবে, পিয়াসা এই ভাগ্যবানদের মধ্যে একজন। গত দুইদিন তারা অনেক চেষ্টা করেও ছবিটি প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়ার কোনো সুযোগ খুঁজে পায়নি। নিরাপত্তা বিভাগ থেকেও বলে দেওয়া হয়েছে, অতিরিক্ত কোনো কিছু সঙ্গে নিয়ে অনুষ্ঠানে প্রবেশ করা যাবে না।
পুরাপুরি হতাশ হয়েই আজ মা’কে সঙ্গে নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে আসে পিয়াসা। কাগজে মোড়ানো ছবিটি নিয়ে বাইরে দাঁড়িয়ে থাকেন বাবা শংকর চন্দ্র সরকার। মা-মেয়ে অনুষ্ঠানস্থল থেকে বের হলেই তারা ছবিটি সঙ্গে করে নিয়েই টাঙ্গাইল চলে যাবেন। কিন্তু ১১ বছরের যেই শিশুটির স্বপ্নের মানুষ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা তার সাহস নিশ্চয়ই কম নয়। যথারীতি নাম ডাকা হলে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে গিয়ে পুরস্কার নেয় পিয়াসা সরকার। প্রধানমন্ত্রীর শিশুসুলভ আন্তরিকতায় আরও সাহসী হয়ে ওঠে পিয়াসা। সে বলেই ফেলে ছবিটির কথা। কান্না করে দেয়। তাকে যে আনতে দেওয়া হয়নি সেটিও বলতে ভোলেনি।
সঙ্গে সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ব্যক্তিগত কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন ছবিটি নিয়ে আসার জন্য। তৎপর হয়ে ওঠেন সবাই। পিয়াসার কাছ থেকে তার বাবার ফোন নাম্বার নিয়ে তারা যোগাযোগ করেন। বাইরে ছবি নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা বাবাকে ভেতরে নিয়ে আসেন। অনুষ্ঠানের শেষের দিকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভালোবাসায় আঁকা পোট্রেটটি তুলে দেন পিয়াসা। আশরাফুল আলম খোকন ফেসবুক পোস্টে জানান, বিকেলে যখন পিয়াসার বাবা-মায়ের সঙ্গে ফোনে কথা হয় ততক্ষণে তারা টাঙ্গাইলে চলে গেছেন। তারা জানালেন, স্বপ্ন পূরণের আনন্দ আর খুশিতে তখন কাঁদছিলেন পিয়াসা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here