বকেয়া মজুরি প্রদানসহ ৯ দফা দাবিতে রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকলে ধর্মঘট পালন

0
60

স্টাফ রিপোর্টার
খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকলে ৯ টি পাটকলে ৯ দফা দাবিতে ২৪ ঘন্টা ধর্মঘট পালন করেছে শ্রমিকরা। বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিকলীগের আহবানে গতকাল মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে মিলের উৎপাদন বন্ধ করে এ কর্মসূচী পালন করেছে খুলনা যশোর অঞ্চলের প্রায় অর্ধলাখ শ্রমিক। আগামী ১৯ ও ২০ মার্চ ৪৮ ঘন্টা ধর্মঘট সহ ২ ঘন্টা রাজপথ অবরোধ কর্মসূচী পালন করবে আন্দোলনকারীরা।
উৎপাদন বন্ধ রেখে ২৪ ঘন্টা ধর্মঘট চলাকালে সন্ধ্যায় ক্রিসেন্ট ও খালিশপুর জুট মিলে শ্রমিক সমাবেশ আয়োজন করে পাটকল শ্রমিকলীগের নেতারা। সমাবেশে ৪৮ ঘন্টা ধর্মঘট পালনে শ্রমিকদের রাস্তায় থাকার আহবান জানান শ্রমিক নেতারা। চপাটখাতে প্রয়োজনীয় অর্থবরাদ্দ, বকেয়া মজুরী- বেতন পরিশোধ, জাতীয় মজুরী ও উৎপাদনশীলতা কমিশনের রোয়েদাদ ২০১৫ কার্যকর, অবসর প্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ ও গ্র্যাচুইটির অর্থ পরিশোধ,চাকুরীচ্যুত শ্রমিক-কর্মচারীদের পূর্নবহাল ও সকল মিলে সেটআপের অনুকুলে শ্রমিক-কর্মচারীদের শুন্য পদের বিপরীতে নিয়োগ ও স্থায়ী সহ ৯ দফা দাবিতে ২৫ ফ্রেব্রæয়ারি সকালে বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয় । এ সভায় বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ, ধর্মঘট ও রাজপথ অবরোধ সহ ৭ দিনের কর্মসূচির ডাক দেয়া হয়। পাটকল শ্রমিকলীগের কর্মসূচীর ৫ম দিনে খালিশপুরের ক্রিসেন্ট, প্লাটিনাম, খালিশপুর, দৌলতপুর, দিঘলিয়ার ষ্টার, আটরা শিল্পা এলাকার আলীম, ইষ্টার্ণ, নওয়াপাড়া শিল্প এলাকার জেজেআই ও কার্পেটিং জুট মিলের শ্রমিকরা গতকাল মঙ্গলবার ভোর ৬টায় নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগ না দিেেয় ভোর ৬টায় স্ব স্ব মিল গেটের সামনে সমবেত হয়। সেখানে বিক্ষোভ করে মিল ধর্মঘটে অংশ নেয়। পরে খালিশপুর, দিঘলিয়,আটরা ও নওয়াপাড়া শিল্প এলাকার স্ব স্ব মিল গেটের সামনে দফায় দফায় চলতে থাকে শ্রমিক বিক্ষোভ । সন্ধ্যা ৬টায় খালিশপুর, দিঘলিয়া, আটরা ও নওয়াপাড়া শিল্প এলাকায় স্ব স্ব পাটকলের শ্রমিকদের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
প্লাটিনাম মিলের সমাবেশে বক্তৃতা করেন পাটকল শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সরদার মোতাহার উদ্দীন, কাওসার আলী মৃধা, খলিলুর রহমান, তরিকুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম,সেলিম আকন।
ক্রিসেন্ট মিলের শ্রমিক সমাবেশে বক্তৃতা করেন পাটকল শ্রমিকলীগের খুলনা যশোর অঞ্চলের আহবায়ক মুরাদ হোসেন, প্রধান বক্তা ছিলেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাওঃ হেমায়েত উদ্দিন আজাদী, বক্তৃতা করেন পান্নু মিয়া, সাবেক সভাপতি দ্বীন ইসলাম, আবু জাফর, আবু হানিফ, এস এম আজম, জাহিদ হোসেন জাহাঙ্গীর, বাচ্চু মিয়া, সোহরাব হোসেন হাওলাদার, ওমর ফারুক, মিজানুর রহমান,ইউনুস হাওলাদার, চান মিয়া সেলিম, হামিদ ফরুক, সরোয়ার হোসেন, আবুল হোসেন হারুন, আঃ সাত্তার, মাফুজুর রহমান, জাকির হোসেন।
খালিশপুর জুট মিলের সমাবেশ সভাপতিত্ব করেন সিবিএ’র সভাপতি আবু দাউদ দ্বীন মোহাম্মদ , প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিকলীগের সভাপতিদ সরদার মোতাহার উদ্দিন। এ সময় বক্তৃতা করেন সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ ইব্রাহীম, শওকত মোড়ল, সেলিম শিকদার, মিজানুর রহমান মানিক, সরদার আলী আহমেদ, মোঃ আশরাফ আলী, আঃ রহিম হাওলাদার, আব্দুল মজিদ বকুল, গাজী মোশারেফ হোসেন, সেন্টু মিয়া, আব্দুল্লা আল মামুন, মোঃ জাহিদ, মোঃ মনির, পিল্টন মোল্যা মোঃ সাহিদুল ইসলাম সাহিদ।
দিঘলিয়ার ষ্টার জুট মিলে গেটের সামনে সমাবেশে বক্তৃতা করেন সিবিএ”র সভাপতি মোঃ বেল্লাল মল্লিক। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখে সিবিএ”র সাধারন সম্পাদক আঃ মান্নান, পাটকল শ্রমিকলীগ নেতা মাহমুদুল হাসান, আইয়ুব আলী, বেলায়েত হোসেন ও আবু হানিফ।
আটরা শিল্প এলাকার আলীম মিলের শ্রমিক সমাবেশ বক্তব্য রাখেন সিবিএ”র সভাপতি সাইফুল ইসলাম লিঠু, সাধারন সম্পাদক আঃ হামিদ সরদার, আঃ সালাম, আঃ রশীদ, মুজিবর রহমান, মকবুল হোসেন। ইষ্টার্ন জুট মিলের সমাবেশে বক্তৃতা করেন সিবিএ”র সভাপতি মোঃ আলাউদ্দীন, সাধারন সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন, তবিবর রহমান, আলমগীর হোসেন, সিরাজুল ইসলাম লিয়াকত হোসেন ।
নওয়াপাড়া শিল্প এলকার জেজেআই ও কার্পেটিং মিলের সমাবেশে বক্তৃতা করেন পাটকল শ্রমিকলীগের সাধারন সম্পাদক এস এম কামরুজ্জামান, মোঃ মজিবর রহমান, জাহিদুল ইসলাম ও নজরুল ইসলাম ফরাজী।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, পাট মৌসুম শেষ হলেও অর্থ অভাবে পাট ক্রয় না করায় মিলগুলো বন্ধ এবং শ্রমিক, কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের বেকার হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। পাটকলে শ্রমিক, কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের জন্য ঘোষিত মহার্ঘ ভাতা বাস্তবায়ন করতে হবে। চাকরিচ্যুত শ্রমিক, কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের পিএফ গ্রাচুয়্যাটির অর্থ প্রদান করতে হবে। এ ছাড়া শ্রমিক-কর্মচারীদের সকল পাওনা পরিশোধের জন্য বিজেএমসি কর্তৃপক্ষের প্রতিজোর আহবান জানান শ্রমিক নেতারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here