সকল আঞ্চলিক সংবাদ

0
109

সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহম্মদ হত্যার প্রতিবাদে প্রতিবাদ সমাবেশ
খবর বিজ্ঞপ্তি
কুষ্টিয়া সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহম্মদকে কুপিয়ে হত্যার প্রতিবাদে এবং অনতিবিলম্বে খুনীদের গ্রেফতারপূর্বর বিচার দাবিতে গতকাল বুধবার বেলা খুলনা জেলা ও সদর রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
খুলনা জেলা রেজিস্ট্রার বীর জ্যোতি চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তৃতা করেন, সদর সাব-রেজিস্ট্রার শাহীন হাসান, বাংলাদেশ দলিল লেখক সমিতির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব মোঃ মোশাররফ হোসেন, সদর দলিল লেখক সমিতির সিনিয়র সভাপতি কাজল কৃষ্ণ দে, সদর দলিল লেখক সমিতির উপদেষ্টা ও জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক মানিক-উজ-জামান অশোক প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহম্মদ হত্যার বিচার দাবি করেন। সমাবেশে রেজিস্ট্রেশন বিভাগের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারী, দলিল লেখক ও স্ট্যাম্প ভেন্ডরদের উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, গত সোমবার (০৯ অক্টোবর) রাত ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের বাবর আলী গেট এলাকার একটি ভাড়া বাড়িতে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহম্মদকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

রূপসার কাজদিয়া গ্রামে রহস্যজনক চুরি
রূপসা প্রতিনিধি
রূপসা উপজেলার কাজদিয়া গ্রামের একটি পরিবারে খাবারে চেতনা নাশক দ্রব্য মিশিয়ে সর্বস্ব লুট করে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় পরিবারের ৫ জন সদস্য অসুস্থ হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তবে বিষয়টি নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায় গত ৯ অক্টোবর রাতে কে বা কারা কাজদিয়া গ্রামের ডিস ব্যবসায়ী শেখ আরাফাত হোসেনের বাড়ীর খাদ্য দ্রব্যে সু-কৌশলে চেতনা নাশক দ্রব্য মিশিয়ে রাখে। সন্ধ্যায় আরাফাতের বোন ইভা ইয়াসমিন ও তার পুত্র রাফিত (৭) উক্ত খাবার খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরবর্তীতে রাতে একই খাবার উক্ত পরিবারের বাকী সদস্য আরাফাত হোসেন (৩৫), মাতা রিলিফা বেগম (৬০), স্ত্রী তানজিলা বেগম (২৫) খেয়ে তারাও অসুস্থ্য হয়ে পড়ে বলে জানা যায়। তাদেরকেও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার পর গভীর রাতে আরাফাতের বাড়ীতে দুর্বৃত্তরা ছাদের দরজা দিয়ে প্রবেশ করে নগদ টাকা, স্বর্নালংকার ও ২ টি মোবাইল নিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে থানায় কোন মামলা হয়নি।

মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ আজ
খবর বিজ্ঞপ্তি
রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ক্ষমতাসীনদের প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের যাবজ্জীবন দন্ডাদেশ দেয়া হয়েছে। এ প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। সমাবেশে মহানগর, ওয়াড, ইউনিয়ন থানা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপস্থিত থাকার আহŸান জানিয়েছেন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর সভাপতি সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু এবং সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি।

ক্ষমতাসীনদের প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার
জন্য এ রায় দেওয়া হয়েছে: খুলনা বিএনপি
খবর বিজ্ঞপ্তি
২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে যাবজ্জীবন দন্ডাদেশ প্রদানের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে নগর বিএনপি। গতকাল এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ক্ষমতাসীনদের প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য এ রায় দেওয়া হয়েছে। ‘বিএনপি মনে করে, এ রায় রাজনৈতিক প্রতিহিংসার রায়। আমরা এ রায় ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি। এটি ক্ষমতাসীনদের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার নোংরা প্রকাশ।’
এদিন সকাল থেকে নগরীর কেডি ঘোষ রোডস্থ দলীয় কার্যালয়কে পুলিশী ঘিরে রাখে। এছাড়া নগরীতে ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে। এদিকে রায়কে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ৭ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার বন্ধ ও অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানানো হয় বিবৃতিতে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, দৌলতপুর থানা বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, ২৫ নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা কাজী সোহেল, ৩নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা রিয়াদুল ইসলাম, ৪নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা শহিদুল ইসলাম, আড়ংঘাটা থানা বিএনপি নেতা নারায়ন, ১২নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মোঃ বাদশা, খানজাহান আলী থানা বিএনপি নেতা আঃ হান্নান।
বিবৃতিদাতারা হলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাই, সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক কেসিসির মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, সৈয়দা নার্গিস আলী, শেখ মোশারফ হোসেন, মীর কায়সেদ আলী, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, সিরাজুল ইসলাম, জলিল খান কালাম, ফখরুল আলম, এড. ফজলে হালিম লিটন, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, শেখ আমজাদ হোসেন, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, ইকবাল হোসেন খোকন, আসাদুজ্জামান মুরাদ প্রমুখ।

ছাত্রলীগ-বিসিএল (জাসদ) ও জাতীয় যুব জোটের যৌথসভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
১৩ অক্টোবর শনিবার ১৪ দলের খুলনা বিভাগীয় মহাসমাবেশ সফল করতে বাংলাদেশের ছাত্রলীগ-বিসিএল (জাসদ), খুলনা মহানগর এবং জাতীয় যুব জোট, খুলনা মহানগর শাখার উদ্যোগে গতকাল বিকেল ৩টায় জাসদ খুলনা মহানগর শাখার অস্থায়ী কার্যালয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ১৪ দলের মহাসমাবেশ সফলের লক্ষ্যে বিস্তারিত সাংগঠনিক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি জাসদ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মহানগর সভাপতি রফিকুল হক খোকন। বিশেষ অতিথি ছিলেন ছাত্রলীগ (বিসিএল) কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মোঃ হাসান, জাতীয় যুব জোট নগর সভাপতি মোঃ মাসুদ রানা। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনÑখালিশপুর থানা যুব জোট সভাপতি মোঃ রানা, সদর থানা সভাপতি মোঃ নাদিম, মহানগর যুব জোট নেতা শেখ ফাহিম, মোঃ জসীম, আব্দুর রশীদ ভোলা, ছাত্রলীগ বিসিএল (জাসদ), নগর সভাপতি মোঃ আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুজন শেখ, সহ-সভাপতি মোঃ স¤্রাট, দপ্তর সম্পাদক অশ্বিন কুমার, স্কুল বিষয়ক সম্পাদক মোঃ জিশান প্রমুখ।

ডুমুরিয়ায় চেয়ারম্যানের নির্দেশে মৎস্যজীবীদের ইজারা নেয়া খালে লুটপাট
স্টাফ রিপোর্টার
জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার ১৪ নম্বও মাগুরখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ সানার নির্দেশে তার সাঙ্গপাঙ্গরা হাতিটানা নদীতে মাছ লুট ও নিরাপত্তা জাল কেটে ও লুট করে নিয়ে গেছে। মঙ্গলবার ভোরে তারা লুটপাট করে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত মৎস্যজীবীরা ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহি অফিসারের নিকট প্রতিকার চেয়ে আবেদন করেছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট দেয়া াভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ডুমুরিয়া উপজেলার হাতিটানা মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির পক্ষ থেকে মাগুরখালী ইউনিয়নের হাতিটানা নদীটি (বন্ধ) বিগত ১৪২৩, ১৪২৪ ও ১৪২৫ বাংলা বছরের জন্য জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সায়রাত কেস নম্বর- ১৩/২০১৬ ইং মূলে ইজারা গ্রহণ করে। তারা সরকারী নিয়ম অনুযায়ী প্রতি বছর খাজনা সহ অন্যান্য খাতে অর্থ পরিশোধ করে থাকে। হাতিটানা নদীর প্রাকৃতিক মৎস্য আহরণের মাধ্যমে আমার পরিবারের ভরণ-পোষণ চলে। কিন্তু স্থানীয় চেয়ারম্যানের লোক হিসেবে চিহ্নিত কোড়াকাটা গ্রামের সঞ্জয় সানা, উদয় সানা আরো কয়েকজন ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ সানার সহযোগীতায় আমাদের ইজারাকৃত নদীতে অবৈধ ভাবে জাল দিয়ে মাছ ধরে আসছিলো। বিষয়টি নিয়ে গত ১৬ সেপ্টেম্বর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অভিযোগ জানালে তিনি বিষয়টি তদন্ত করে অবৈধ দখলদারদের কিছু উচ্ছেদ করার পদক্ষেপ নেন। কিন্তু চেয়ারম্যানের সাঙ্গপাঙ্গরা খালের মুখে এখনও বেআইনীভাবে প্রায় ৩০ বিঘা জমি বাঁধ দিয়ে চিংড়িসহ অন্যান্য মাছ চাষ করে আসছে। অবৈধ দখলদাররা সে দখল ছাড়েনি।
এদিকে খাল থেকে চেয়ারম্যানের দখলবাজদেও উচ্ছেদ করা হলে মৎস্যজীবীরা ওই খালে রুই, কাতলাসহ বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় প্রজাতির মাছের পোনা ছাড়েন। পোনা মাছ নদীর বাইরে যাতে চলে না যেতে পারে তার একটি ভেন্ডি জাল ( বড় ছিদ্রযুক্ত) পেতে রাখি। পূর্বের অবৈধ দখলদাররা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে গত মঙ্গলবার বিধান সানাসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজন আমাদের জাল উঠিয়ে নেওয়ার জন্য হুমকি দিয়ে আসে। অন্যথায় তারা জাল কেটে তছনছ করে দেবে বলে জানায় ও প্রাণ নাশের হুমকি দেয়।
তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার ভোরে বিধান সানা, মিলন বালা, ভূষণ সানা, উদয় সানা, দিপংকর সানা, বিমল মন্ডল, জামিনি বালা, কুমারেশ ওরফে বাঘা বালা, সুজিত মন্ডল, সুশান্ত বিশ্বাস, বাবলু মন্ডল, দেব প্রসাদ মন্ডল, সিদ্ধার্থ মন্ডল, কৌশিক মন্ডলসহ অজ্ঞাত ২০/২৫জন খালে লুটপাট চালায়। এসময়ে তারা মৎস্যজীবী সমিতির সদস্য যোতিন বাছাড়, তপন মন্ডল ও অমল সানাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ, ভয়ভীতি ও জীবনণাশের হুমকি দিয়ে মাছ, মাছ ধরা জাল, নৌকা ও হাতে থাকা মুঠোফোন লুটপাট করে নিয়ে যায়। যার আনুমানিক ক্ষতি দেড়লাখ টাকা।
এ বিষয়ে ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোছাঃ শাহানাজ বেগম বলেন জলাশয়ে মৎস্যজীবী সম্প্রদায়ের অধিকার প্রতিষ্ঠায় অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করা হয়। হাতিটানা মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির পক্ষ থেকে হাতিটানা নদী থেকে মাছ লুটের ও জাল কেটে দিয়ে ক্ষতি করা হয়েছে বলে একটি অভিযোগ পেয়েছি। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে চেয়ারম্যান বিমল সানাসহ অন্যদেরকে হাজির হতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বেআইনীভাবে যদি তারা কিছু কওে অবশ্যই তাদেও বিরুদ্ধে শাস্মিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দৌলতপুর থানা আ’লীগের আনন্দ মিছিল
দৌলতপুর প্রতিনিধি
তিন বারের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে অগ্রযাত্রার ধারাবাহিকতার রক্ষায় দৌলতপুর থানা আ’লীগের নেতৃত্বে এক বিশাল আনন্দ মিছিল গতকাল বুধবার বিকেলে রেলীগেট থেকে শুরু করে দৌলতপুর বেবী টেক্সি স্টান্ডে এসে পথসভার মাধ্যমে শেষ হয়।
দৌলতপুর থানা আ’লীগের সভাপতি ও বিজেএ’র চেয়ারম্যান শেখ সৈয়দ আলী সভাপতিত্বে অনু্িষ্ঠত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও খুলনা-৩ আসনের এমপি বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি মেয়র ও মহানগর আ’লীগের সভাপতি আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক।
উপস্থিত ছিলেন ও বক্তৃতা করেন মহানগর আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, নগর আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশরাফুল ইসলাম, নগর আ’লীগের সদস্য মোজাম্মেল হক হাওলাদার, মুক্তিযোদ্ধা মাকসুদ আলম খাজা, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও আ’লীগ নেতা শেখ মোহাম্মাদ আলী, আলহাজ্ব এস এম আব্দুল হক, শেখ মফিজুর রহমান হীরু, আব্দুর রউফ মোড়ল, আসিফুর রশিদ আসিব, জাহাঙ্গীর মোড়ল, হারুন-অর-রশিদ, আলহাজ্ব শেখ আবু জাফর, সাবেক কাউন্সিলর মাকসুদ হাসান পিকু, এস এম ওয়াজেদ আলী মজনু, সোহেল সরদার, আবু জাফর মিয়া, মহিলা কাউন্সিলর সাহিদা বেগম, জেসমিন সুলতানা, মিতা বাগচী, ফারহানা পারভেজ নিপু, খুলনা বিভাগীয় ট্রাক শ্রমিকের ইউনিয়ের সিনিঃ সহ-সভাপতি আবুল হোসেন কার্ফু, এস এম শাহআলম, মিজানুর রহমান ফিরোজ, এস এম নুরুল হক নুরু, মুক্তিযোদ্ধা ওয়াদুল্লাহ রনো, মুক্তিযোদ্ধা মোশারেফ হোসেন, জাহিদ হাসান জাকির, উপাধক্ষ্য সদরুজ্জামান সবুর, রানা পারভেজ সোহেল, মাসুদ বন্দ, শফিকুল ইসলাম বন্দ, মোঃ রুহুল আমীন, কবির হোসেন, আকরাম হোসেন, নুর ইসলাম ভাংরী, মামুন গাজী, শেখ কওছার আলী, শেখ সরোয়ার, মোস্তফা কামাল, শামসুল হক, মোস্তফা কামাল, শরিফুল ইসলাম খোকা, কলম সরদার, মোঃ রেজা, জাফর ইকবাল মিলন,ঝর্না বেগম, রাবেয়া বেগম, বিনু ইসলাম, সালমা বেগম, বাচ্চু মোড়ল, জামিরুল বন্দ, শ্রমিকলীগ নেতা মিজানুর রহমান মিলটন, মেহেদী হাসান মোড়ল, রাকিব মোড়ল, নিশাত ফেরদাউস অনি, মোঃ সোহাগ, মামনুর রহমান, ইব্রাহিম মোড়ল সহ আ’লীগের সকল অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বক্তরা ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামালার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন ও অতি দ্রæত সময়ে মধ্যে রায় কার্যকর করার দাবি জানান।

বটিয়াঘাটায় দরিদ্র পরিবারের উপর হামলা-মামলা ও উচ্ছেদের অভিযোগ
স্টাফ রিপোর্টার
বটিয়াঘাটায় নব্য এক কোটিপতির নির্দেশে চলছে হামলা-মামলা, কারাগার অতপর উচ্ছেদ। এমন সব ঘটনা ঘটেছে উপজেলার সুরখালী গ্রামে দরিদ্র শুকুর আলীর পরিবারের উপর। বুধবার সরজমিনে যেয়ে দেখা যায় বটিয়াঘাটা-বারোআড়িয়া রাস্তার পার্শ্বেই পানি উন্নয়ন বোর্ডের সীমানায় শুকুর আলীর মাটির দেয়াল আর টিনের ছাউনি দ্বারা তৈরী করা বসত ঘর ভাংচুর করা হচ্ছে। উঠানের পার্শ্বেই একটি কবর। ওখানেই ৫/৭ বছর আগেই ঘুমিয়ে আছে তার স্ত্রী। ৪ সন্তান নিয়ে প্রায় ৩০ বছর যাবত ওই স্থানে বসবাস করে দারিদ্র শুকুর আলী। কিন্তু সম্প্রতি ওই জায়গার পার্শ্বের মালিক এলাকার নব্য কোটিপতি হিসেবে খ্যাত মোতাহার হোসেন শিমু’র চোখে পড়ে। তার চাপে এবং ভয়ে ইতোমধ্যে মান্নান, রবিউল, খালেক এবং মালেক গাজী বসতভিটা ছেড়ে চলে গেছে। আজও তাদের বসতভিটার চিহ্ন রয়ে গেছে। কিন্তু একমাত্র বসতভিটা ছেড়ে যেতে নারাজ শুকুর আলী। শুরু হয় তাকে উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র। সোমবার সন্ধ্যা রাতে বাড়িতে ফেরার সাথে সাথেই পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী শুকুর আলীর উপর হানা দেয় শিমু বাহিনী। বেদম মারপিট করে মাছ চুরীর অপরাধ দিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। অল্পক্ষণে বটিয়াঘাটা থানা পুলিশ হাজির হয়ে তাকে নিয়ে যায়। পরের দিন একটি মামলায় কারাগারে প্রেরণ করা হয়। আর এই সুযোগেই ভাঙচুর করা হচ্ছে শুকুর আলীর বসতঘর।
বুধবার সকাল ৮টার দিকে সরজমিনে দেখা যায়, শিমু বাহিনীর ডান হাত, বাম হাত হিসেবে খ্যাত মহিদুল, আলম, শহিদুলসহ ৫/৬ জন ভাংচুর করছে ঘরবাড়ি। উঠানে বসা বাকরুদ্ধ শুকুরের কন্যা ইশারায় মায়ের কবর দেখাচ্ছে, শালিকা চিৎকার করে কান্নাকাটি করে বলছে ওখানেই( এই মাটিতে) আমার বোনের কবর। ভ্যান বোঝায় মালামাল নিয়ে যাচ্ছে শুকুর আলীর পুত্র আছাবুর শেখ। প্রশ্ন করতেই চোখের পানি ছেড়ে বললো আর কত মার খাবো ওদের (শিমু বাহিনীর) কাছে। প্রতিবেশী পাপিয়া বেগম জানালো ১শ টাকা খরচ করে শুকুর আলীকে জেলখানায় দেখতে যাওয়ার সুযোগ নেই তার পরিবারের। কিন্তু কেন তাদের উপর এত অন্যায়, অত্যাচার-নির্যাতন।
মোতাহার হোসেন শিমুর ব্যবহৃত ০১৭৮৭৪৬৩৫৪৯ মোবাইল নম্বরে ফোন করলে তিনি রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে তার সহযোগী হিসেবে পরিচিত আলম গাজী বলেন, ওই জায়গা শিমু সাহেবের বাপ-দাদার। আপনি কেন ঘরবাড়ি ভাংচুর করছেন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, আমি শ্রমিকদের সহযোগীতা করছি মাত্র।
শুকুর আলীর ভাই নিথুর শেখ বলেন, আমার ভাই কয়েক যুগ আগে শিমুর দাদা মৃত জহর গাজীর কাছ থেকে টাকার বিনিময়ে স্ট্যাম্পের মাধ্যমে লিখে নিয়েছে। ৩০ বছর এখানে বসবাস করছে, আজ সেখান থেকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে। আমি প্রতিবাদ করলে আমাকেও জেলে যেতে হবে।
সুরখালী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক মেম্বর মুক্তিযোদ্ধা আকরাম হোসেন বলেন, শিমু বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকার সাধারণ মানুষ। দরিদ্র শুকুর আলী তার রোসানলের শিকার হয়ে কারাগারে, সেই সুযোগে তার ৩০ বছর যাবত বসবাস করা বসতঘর ভাঙচুর করা হচ্ছে।
এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, বিষয়টি অত্যান্ত দুঃখজনক। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গ্রেনেড হামলার রায় প্রত্যাখান ও যুবদলের মিছিলে হামলায় জেলা বিএনপির নিন্দা
খবর বিজ্ঞপ্তি
২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার ফরমায়েশি রায় প্রত্যাখ্যান করে খুলনা জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ বলেছেন, এ রায় উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে অনির্বাচিত সরকার আদালকে ব্যবহার করে আরেকটি ন্যাক্কারজনক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন এবং আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এ রায়ের মোকাবেলা করা হবে বলে ঘোষণা দেন তারা। বিবৃতিতে বিএনপি নেতারা বলেন, মুফতি হান্নানকে ১০০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি আদায় করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সহ শীর্ষ নেতাদের আসামী করা হয়। আর অবসরে যাওয়া আওয়ামীলীগের মনোনয়ন দাবিদার পুলিশ কর্মকর্তা আব্দুল কাহহার আখন্দকে ফিরিয়ে এনে তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করে সাজানো চার্জশিট দেওয়া হয়। খুলনা জেলা বিএনপি এ রায়ের প্রতিবাদে রাজপথে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করবে।
এদিকে রায়ের প্রতিবাদে নগরীতে যুবদল-ছাত্রদলের মিছিলে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সশস্ত্র হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিদাতারা হলেন জেলা বিএনপি’র সভাপতি এ্যাড. শফিকুল আলম মনা, সাধারণ সম্পাদক আমীর এজাজ খান, ডাঃ গাজী আব্দুল হক, গাজী তফসির আহমেদ, খান জুলফিকার আলী জুলু, এ্যাড. এমএ আজিজ, শেখ আব্দুর রশিদ, এস এম মনিরুল হাসান বাপ্পী, মোস্তফা উল বারী লাভলু, জিএম কামরুজ্জামান টুকু, আশরাফুল আলম নান্নু, শামসুল আলম পিন্টু, আলী আসগর, এ্যাড. একেএম শহিদুল আলম, মুর্শিদুর রহমান লিটন, ওয়াহিদুজ্জামান রানা প্রমুখ।

অধ্যাপক বাবুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের নিন্দা
প্রেস বিজ্ঞপ্তি
বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ খুলনার অন্যতম কো-কনভেনর অধ্যাপক মনিরুল হক বাবুলের বিরুদ্ধে দিঘলিয়া থানায় নাশকতা ও ৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এহেন বানোয়াট, গায়েবী ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত মামলা দায়েরের তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ এবং অবিলম্বে রাজনৈতিক হয়রানিমূলক এ মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন সম্মিলিতি পেশাজীবী পরিষদ খুলনার আহবায়ক অধ্যক্ষ মাজহারুল হান্নান এবং সদস্য সচিব অধ্যাপক ডাঃ সেখ মোঃ আখতার উজ জামান।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, অধ্যাপক মনিরুল হক বাবুল বাংলাদেশ কলেজ কলেজ শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় অতিরিক্ত মহাসচিব এবং শিক্ষক কর্মচারী ঐক্য জোট খুলনা জেলা শাখার সভাপতি। একজন প্রথিতযশা শিক্ষকই কেবল নন, তিনি যে একজন দক্ষ সংগঠক, এসকল পদ-পদবী তারই পরিচায়ক। বিবৃতিতে অবিলম্বে গায়েবী মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।

রূপান্তরের শিশুবান্ধব নগরী বিষয়ক আলোচনা সভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
বেসরকারি সংস্থা রূপান্তর’র উদ্যোগে শিশুবান্ধব নগরী বিষয়ক আলোচনা সভা বুধবার খুলনা সার্কিট হাউস মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।
ইউনিসেফ-এর সহায়তায় এ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার গুহ। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন কেএমপি’র সহকারী অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সোনালী সেন, ঢাকা ম্যাচ ইন্ডাজট্রিজ স্কুল-এর প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন গাজী। শিশুবান্ধব নগরী গড়তে করণীয় বিষয়ক আলোচনা করেন ইউনিসেফ, খুলনা’র শিশুসুরক্ষা কর্মকর্তা জামিল হাসান, প্রতিযোগীদের পক্ষ থেকে অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন সরকারি এম এম সিটি কলেজের শিক্ষার্থী জাসিয়া ইসলাম মিম। স্বাগতঃ বক্তৃতা করেন রূপান্তর-এর নির্বাহী পরিচালক রফিকুল ইসলাম খোকন।
অনুষ্ঠানে রচনা, কবিতা, গল্প লিখন, চিত্রাঙ্কন, আন্তঃকক্ষ ক্রীড়া ও ক্যুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।

আজ দুপুরে খুলনা উপক‚লে আঘাত হানতে পারে: পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় তিতলী আজ বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে খুলনা উপক‚লীয় এলাকায় আঘাত হানতে পারে বলে খুলনা আবহাওয়া অধিদপ্তর।
খুলনা আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিরুল আজাদ রাতে দৈনিক খুলনাঞ্চলকে বলেন, বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ঘুর্ণিঝড় তিতলী মোংলা বন্দর থেকে দক্ষিণে অবস্থান করছিল। ঘুর্ণিঝড়টির ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে ঘন্টায় বাতাসের গতিবেগ ১২০/ ১৪০ কিলোমিটার বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার ঘুর্ণিঝড়টি ভারতের উড়িষ্যা উপক‚ল অতিক্রম করতে পারে। পরে ঘুর্ণিঝড় স্থলে অবস্থান নিয়ে দুপুর নাগাদ খুলনা ও সুন্দরবন সংলগ্ন উপক‚লে আঘাত হানতে পারে। এ সময় ভারী ও মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে।

বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলা
বাগদাদ ট্রেডিংয়ের দু’কর্মচারীর ১৪বছর সশ্রম কারাদÐ
স্টাফ রিপোর্টার
নগরীর স্টেশন রোডের বাগদাদ ট্রেডিংয়ে পোকায় আক্রান্ত খাবার অনুপযোগী ৯মেট্রিক টন ডাল মজুদ রাখার অপরাধে বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় ওই প্রতিষ্ঠানের দু’কর্মচারীর প্রত্যেককে ১৪বছর সশ্রম কারাদÐ, ১০হাজার টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরো এক বছরের কারাদÐের আদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে বিভাগীয় দ্রæত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এমএ রব হাওলাদার এ রায় ঘোষণা করেছেন।
দÐপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার মজুমদার পাড়ার মৃত. চিত্ত রঞ্জন সাহার ছেলে দিলিপ কুমার সাহা (৩৬) ও নড়াইল জেলা সদরের গোবরা এলঅকার মৃত. প্রফুল্ল কুমার খাঁর ছেলে প্রশান্ত কুমার খাঁ (৩৮)। প্রশান্ত নগরীর পৈপাড়া পূজা মন্দিরের পাশে ননী গোপালের বাড়ির ভাড়াটিয়া। রায় ঘোষণাকালে আসামিরা পলাতক ছিলেন।
আদালতের উচ্চমান বেঞ্চ সহকারী ফকির মো. জাহিদুল ইসলাম নথীর বরাত দিয়ে জানান, ২০০৭ সালের ২ফেব্রæয়ারি বিকেল পৌনে ৪টার দিকে নগরীর স্টেশন রোডের মেসার্স বাগদাদ ট্রেডিংয়ের গুদামে অভিযান পরিচালনা করে সেনাবাহিনী। এসময় ওই গুদাম থেকে পোকায় আক্রান্ত খাবার অনুপযোগী ৭মেট্রিক টন খেসাড়ীর ডাল, ২মেট্রিক টন মুগ ডাল ও ৬৫ কেজি ডিএসপি সারসহ বাগদাদ ট্রেডিংয়ের মালিক মো. আমিন ওরফে হাজি মো. আমিন ও তার ২কর্মচারীকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় খুলনা থানার এসআই মো. মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ৪জনের বিরুদ্ধে ১৯৭৪সনের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেন যার নং-০৭। ওই বছরের ৩০এপ্রিল খুলনা থানার এসআই কেশব লাল চক্রবর্তী ওই ৪জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। আদালতে চার্জ গঠণের সময় উচ্চ আদালতে আপিল করে এ মামলার অপর দু’আসামি বাগদাদ ট্রেডিংয়ের মালিক মো. আমিন ওরফে হাজি মো. আমিন (৩৮) ও নগরীর ২৩, বাইতি পাড়ার মৃত অধীর কুমার সাহার ছেলে প্রশান্ত কুমার সাহা (৩৪) অভিযোগপত্র থেকে অব্যাহতি পান। রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট এনামুল হক ও অ্যাডভোকেট শাকেরিন সুলতানা।

নগরীতে জাল জালিয়াতির মামলায় আ’লীগ নেতাসহ ১১জনের আত্মসমর্পণ
স্টাফ রিপোর্টার
জমি ক্রয়-বিক্রয়ের জাল দলিল তৈরি করার অভিযোগে আদালতে দায়ের হওয়া মামলায় নগরীর ৩১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব পিটু মোল্ল¬াসহ ১১জনকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল বুধবার তারা ওই মামলায় আদালতে জামিন চেয়ে আত্মসমর্পণ করলে অতিরিক্ত মূখ্য মহানগর হাকিম সুমি আহমেদ জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন।
আদালতের নির্দেশে কারাগারে প্রেরণকৃতরা হলেন নগরীর ৩১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব পিটু মোল্ল¬া, আবুল হাসেম শেখ (দলিল লেখক), মো, আজিজুল গাজী, মো. বোরহান উদ্দিন মোল্ল¬া, মঞ্জুরুল হক, আব্দুস সালাম খান, এসএম হাসান, মো. মোস্তফা শেখ, মো. ইলিয়াছ হোসেন, মো. শাহ আলম ব্যাপারী ও মো. মাজেদুল ইসলাম।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৭ সালে খুলনার মূখ্য মহানগর হাকিমের আমলী আদালত ‘ক’ অঞ্চলে ৬১,খানজাহান আলী রোডের মৃত রবিউল ইসলামের স্ত্রী জামিলা বেগম বাদী হয়ে দন্ডবিদির ৪১৯, ৪২০, ৪৬৭, ৪৬৮ ও ৪৭১ ধারায় মামলা দায়ের করেন যার নং সিআর ১০৫২। মামলার অভিযোগে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজসে বাদীর স্বাক্ষর জাল করে ২০১৪ সালের ৯মার্চ খুলনা সদর রেজিষ্ট্রি অফিস থেকে একটি জাল দলিল তৈরি করেছে। পরবর্তিতে বিষয়টি জানতে পেরে বাদী এ মামলা দায়ের করেন।

নগরীর ধর্মসভা মন্দিরে চুরি মামলার আসামি জুবায়ের রিমান্ডে
স্টাফ রিপোর্টার
নগরীর আর্য্য ধর্মসভা মন্দিরে চুরি মামলায় মো. জুবায়ের মল্লি¬ক (২৭) কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। পুলিশের ১০দিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল বুধবার অতিরিক্ত মূখ্য মহানগর হাকিম সুমি আহমেদ ২দিন মঞ্জুর করেছেন।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. আশরাফুল আলম জানান, গত সোমবার রাত ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নগরীর সাত রাস্তার মোড় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। জুবায়ের চাঁনমারি বাজার বড় হুজুরের গলির আমিরের বাড়ির ভাড়াটিয়া শাহাজাহান মল্লিকের ছেলে। গত মঙ্গলবার তাকে আদালতে একই আদালত কারাগারে প্রেরণের আদেশ দিয়েছিলেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ১৫ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর আর্য্য ধর্মসভা মন্দির থেকে দেব-দেবীর গায়ের স্বর্ণের গহনা চুরির ঘটনা ঘটে। এসময় দুর্বৃত্তরা মন্দিরের দেবীর প্রায় ৫ভরি স্বর্নালঙ্কার চুরি করে নিয়ে যায়। এঘটনায় মন্দির কমিটির সভাপতি চিত্তরঞ্জন সাহা (৬৫) বাদী হয়ে খুলনা থানায় মামলা দায়ের করেন যার নং-২৬।

আবু নাসের হাসপাতালে ওষুধ চুরির মামলায় ফার্মাসিস্ট গৌতমের আত্মসমর্পণ
স্টাফ রিপোর্টার
নগরীর শহিদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের ওষুধ চুরির ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার আসামি ফার্মাসিস্ট গৌতমকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল বুধবার মহানগর দায়রা জজ আদালতে গৌতমের জামিন আবেদন করে তার আইনজীবীরা। মহানগর দায়রা জজ মো. শহীদুল ইসলাম জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২১ আগস্ট শহিদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতাল থেকে সরকারি বিক্রি নিষিদ্ধ ওষুধ চুরি করে মুজগুন্নীর রাস্তা দিয়ে হেরাজ মার্কেটের বিভিন্ন ওষুধের দোকানে বিক্রি করতে নিয়ে যাওয়ার সময় দেব প্রসাদ ও তার শ্যালক দিপংকরকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছে থাকা ব্যাগে থেকে ২০ হাজার পিস ঈওচজঙঋখঙঢঅঈওঘ ঞঅইখঊঞ ৫০০ সম ও ১৭ হাজার পিস ঊংড়সবঢ়ৎধুড়ষব ২০ সম ঞধনষবঃ ঊঝঙজঅখ (ইসোরাল) আটক উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের স্বীকারোক্তিতে ইমা ড্রাগস এর মালিক রকিবুল আবেদীনকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশকে ঘুষ দেয়ার চেষ্টাকালে তাদের কাছ থেকে সাড়ে ৯ লাখ টাকও জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় এএসআই টমাস মন্ডল বাদী হয়ে গ্রেফতারকৃত তিন জনের বিরুদ্ধে খালিশপুর থানায় ১৬২, ৪০৬, ৪০৯, ১০৯ পেনাল কোর্ড তৎসহ ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা দালে করেন (নং-৩৪)।

জেলা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের পৃথক অভিযানে আটক ৩: দুইজনকে সাজা
স্টাফ রিপোর্টার
জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় মাদক বিরোধী পৃথক অভিযান চালিয়ে ৩জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছেন। মঙ্গলবার ও গতকাল বুধবার পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে রূপসা ও তেরখাদা পৃথক অভিযান চালিয়ে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে গাঁজা উদ্বার করা হয়েছে।
আটককৃতরা হলেন মো. আল আমিন (২৫), মো. দুলাল মাতব্বর (২৫) ও মো. ইসলাম শেখ (২৮)। আসামিদের মধ্যে আল আমিন ও দুলাল মাতব্বরকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. লিটন আলী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয় সূত্র মতে, সংস্থার উপ-পরিচালক মো. রাশেদুজ্জামানের তত্ত¡াবধায়নে ‘ক’ ও ‘খ’ সার্কেল এবং গোয়েন্দা শাখা পরিদর্শক সমন্বয়ে পৃথক মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে ‘খ’ সার্কেলের পরিদর্শক মো. সাইফুর রহমান রানার নেতৃত্বে তেরখাদা উপজেলা দেয়ারা পূর্বপাড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় ওই এলাকার বাসিন্দা ইসহাক জমাদ্দার এর ছেলে মো. আল আমিনকে ২৫ গ্রাম গাজাসহ আটক করেন। একই উপজেলায় শেখপাড়া বাজার এলাকা থেকে আলমগীর মাতব্বর এর ছেলে মো. দুলাল মাতব্বরকে ৩শ’ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করেন। পরবর্তীতে তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. লিটন আলী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে আল আমিন ও দুলালকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদÐ প্রদান করেন। অপর অভিযানে গতকাল বুধবার ‘ক’ সার্কেলের পরিদর্শক হাওলাদার সিরাজুল ইসলাম ও গোয়েন্দা পরিদর্শক পারভীন আক্তার সমন্বয়ে একটি টিম নগরীর দৌলতপুর এলাকায় অভিযান চালান। এ সময় ওই এলাকার বাসিন্দা মৃত আমীর হোসেনের ছেলে মো. ইসলাম শেখকে ১৫০ গ্রাম গাঁজাসহ আটক করেন। এ ব্যাপারে আটক মাদক বিক্রেতার বিরুদ্ধে সংশি¬ষ্ট থানায় মাদকের আইনের মামলা দায়ের করা হয়।

ধেঁয়ে আসছে তিতলি, জেলা প্রশাসন সর্তকর্তামুলক ব্যবস্থা গ্রহণ
মোংলা বন্দরে জাহাজ আগমন-নিগর্মন বন্ধ, সুন্দরবন থেকে পর্যটকদের সরিয়ে আনা হচ্ছে
স্টাফ রিপোর্টার
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় তিতলি ধেঁয়ে আসায় আতংক ছড়িয়ে পড়েছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকার মানুষের মধ্যে। ঘূর্ণিঝড় তিতলি’র প্রভাবে মোংলা সমুদ্র বন্দরকে ৪ নং স্থানীয় হুশিয়ারী সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। ঘূর্ণিঝড় সতর্কতার কারণে মোংলা বন্দরে বিদেশী জাহাজ আগমন ও নিগর্মন বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে বন্দওে বোঝাই খালাস কাজ স্বাভাবিক রয়েছে। সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে খুলনা জেলা প্রশাসন সর্তকর্তামুলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।
আমাদেও বাগের হাট প্রতিনিধি জানান, ঘূর্ণিঝড় তিতলি’র প্রভাবে বুধবার সকাল থেকে বাগেরহাটসহ মোংলা বন্দর আশপাশ উপকূলীয় এলাকায় বৃষ্টি শুরু হয়েছে। জেলার অভ্যন্তরীন রুটে সকল লঞ্চ চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। এদিকে বঙ্গোপসাগরে আছড়ে পড়ছে বিশাল বিশাল ঢেউ। সুন্দরবনের সকল পর্যটকদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া কাজ শুরু করেছে বন বিভাগ। সুন্দরবনের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বাগেরহাটের সকল উপজেলাসহ প্রাকৃতিক দূর্যোগ কবলিত শরণখোলা,মোংলা, মোড়েলগজ্ঞ ও রামপালের স্থানীয় প্রশাসন বুধবার বিকেলে জরুরী বৈঠক করে সকল আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রেখেছে। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাষ্টার কমান্ডার মো. দুরুল হুদা জানান, ৪ নং স্থানীয় হুশিয়ারী সংকেত জারির পর বুধবার দুপুরে প্রস্তুতিমূলক সভা করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। বন্দরে ঘোষনা করা হয়েছে রেড এলার্ট-২। ঘূর্ণিঝড় সতর্কতার কারণে বন্দরে বিদেশী জাহাজ আগমন ও নিগর্মন বন্ধ রাখা হয়েছে। জাহাজগুলোকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে র্নিদেশ দেয়া হয়েছে। তবে বর্তমানে বন্দর জেটিতে অবস্থানরত সকল বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজের পণ্য বোঝাই-খালাস কাজ দ্রæত শেষ করা হচ্ছে।
বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা(ডিএফও) মো. মাহমুদুল হাসান জানান, ঘূণিঝড়ের আগাম সর্তকতা হিসেবে সুন্দরবনের সকল পর্যটকদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া কাজ শুরু করেছে বন বিভাগ। সুন্দরবনের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের ঘূর্ণিঝড় তিতলি তান্ডব থেকে বাচতে নিরাপদ আশ্রয়ে বলা হয়েছে। বন বিভাগের সকল নৌযান নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।
এদিকে ঘূর্ণিঝড় তিতলি প্রভাবে মোংলা বন্দরসহ উপকূলীয় নদ-নদী উত্তাল হয়ে পড়ায় সকল ধরণের নৌযান চলাচলে সাবধানতা অবলম্বন করতে বলা হয়েছে। দেশের প্রধান মংলা বন্দরসহ তিনটি সমুদ্রবন্দর ও ক্সবাজার সমুদ্র সৈকত এলাকায় ২নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থিত মাছ ধরার ফিশিং ট্রলার ও নৌকা সমুহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকুলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলেছে আবহাওয়া অফিস।
আবহাওয়া অফিস সূত্র জানয়ি, ঘূর্ণিঝড় তিতলি মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮১৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তর অথবা উত্তর-পশ্চিমে অগ্রসর ও ঘনীভূত হতে পারে। বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের দক্ষিণ উড়িষ্যা ও উত্তর অন্দ্রপ্রদেশে আঘাত হানতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসে একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার, যা দমকা ও ঝোড়ো হাওয়া আকারে ৬০ কিলোমিটার পর্য্যন্ত বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কিন্তু এর প্রভাব পড়তে পারে মোংলা, খুলনা, বাগেরহাট সহ উপকূলীয় এলাকা জুড়ে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের কাছে সাগর প্রচন্ড উত্তাল রয়েছে।
আমাদের মোংলা প্রতিনিধি আবু হাসান সুমন জানান, ঘূর্ণিঝড় তিতলি’র প্রভাবে মোংলা সমুদ্র বন্দরকে ৪ নং স্থানীয় হুশিয়ারী সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। এর প্রভাবে বুধবার সকাল থেকে মোংলাসহ আশপাশ উপকূলীয় এলাকায় আকাশ মেঘলা রয়েছে। কোন ধরণের ঝড়ো হাওয়া না থাকলেও মাঝে মাঝে সামান্য গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। মোংলা বন্দর হতে অভ্যন্তরীণ সকল রুটে নৌযান চলাচল স্বাবাকি রয়েছে।
মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাষ্টার কমান্ডার মো: দুরুল হুদা জানান, ৪ নং স্থানীয় হুশিয়ারী সংকেত জারির পর বুধবার সকালে সতর্কতা ও প্রস্তুতিমূলক সভা করেছে কর্তৃপক্ষ। এছাড়া বন্দর কর্তৃপক্ষের বিশেষ সতর্ক বার্তা এলার্ট-২ ঘোষণা করা হয়েছে। হারবার মাষ্টার দুরুল হুদা বলেন, ঘূর্ণিঝড় সতর্কতার কারণে বন্দরে বিদেশী জাহাজ আগমন ও নিগর্মন বন্ধ রাখা হয়েছে। এদিকে বন্দরে অবস্থানরত সকল বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজের পণ্য বোঝাই-খালাস কাজ স্বাভাবিক রয়েছে। মোংলা বন্দর হতে নৌপথে পণ্য পরিবহণও চলছে। এছাড়া সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় বুধবার দুপুরে জরুরী প্রস্তুতি সভা করেছে উপজেলা প্রশাসনও।
আবহাওয়া অফিস সূত্র জানায়, ঘূর্ণিঝড় তিতলি মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮১৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। এটি বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের দক্ষিণ উড়িষ্যা ও উত্তর অন্দ্রপ্রদেশে আঘাত হানতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। কিন্তু এর প্রভাব পড়তে পারে মোংলা, খুলনা, বাগেরহাটসহ উপকূলীয় এলাকা জুড়ে।
এদিকে ঘূর্ণিঝড় তিতলি প্রভাবে মোংলা বন্দরসহ উপকূলীয় নদ-নদী উত্তাল হয়ে পড়ায় সকল ধরণের নৌযান চলাচলে সাবধানতা অবলম্বন করতে বলা হয়েছে।
খুলনায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা : এদিকে খুলনা জেলার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা গতকাল বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে তার সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় জানানো হয় যে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় তিতলীর কারণে আবহাওয়া দপ্তর মোংলা ও পায়রা বন্দরকে চার নম্বর হুশিয়ারী সংকেত দেখাতে বলেছে। সম্ভাব্য দুর্যোগ মোকাবেলায় খুলনা জেলায় ২৪২টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা ও উপজেলায় মেডিকেল টিমের সদস্যরা প্রস্তুত আছে। ফায়ার সার্ভিসের সদস্য, সরকারি, বেসরকারি সংস্থার সেচ্ছাসেবকরা সর্তক আছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। খুলনা জেলা প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের টেলিফোন নম্বর ০৪১-৭২০৩৬৯। সভায় জরুরি পরিস্থিতিতে দুর্যোগ মোকাবেলায় সরকারি বেসরকারি দপ্তরগুলো তাদের প্রস্তুতির চিত্র তুলে ধরে। যেকোন সম্ভাব্য দুর্যোগে সমন্বিত কার্যক্রমের মাধ্যমে ত্বরিত পদক্ষেপ গ্র্রহণ করে উদ্ধার কার্যক্রম, ক্ষয়ক্ষতি হ্রাস, ত্রাণ ও পুনর্বাসনের জন্য সবাইকে প্রস্তুত থাকতে সভায় আহŸান জানানো হয়।
সভায় খুলনা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সাবির্ক) জিয়াউর রহমান, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আজিজুল হক জোয়ার্দ্দার সহ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলী’ মোকাবেলায় বাগেরহাটের উপকূলীয় উপজেলা মোরেলগঞ্জে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। উপজেলার ৭৫টি সাইক্লোন শেল্টার খুলে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, সকল চেয়ারম্যানদেরকে স্বস্ব এলাকায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে আলোচনা ও প্রস্তুত থাকার জন্য বলা হয়েছে।
উপজেলা ত্রান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা মো. নাসির উদ্দিন বলেন, কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। ৪ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত চলছে। সংকেত ৫ হলেই নদীর তীরবর্তী গ্রামগুলোর নারী, শিশু, প্রতিবন্ধী ও বৃদ্ধ লোকজন যাতে নিরাপদে আশ্রয় নিতে পারে সে জন্য সাইক্লোন শেল্টার খুলে রাখা হয়েছে।
প্রসংগত, ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর রাতে সুপার সাইক্লোন সিডর’র আঘাতে মোড়েলগঞ্জে ৯৩ জন লোকের প্রানহানিসহ ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটে।

ফলোআপ : ইউনিয়ন পরিষদে ধরে নিয়ে আ.লীগের দু’ নেতাকে খুন
মোড়েলগঞ্জে চেয়ারম্যানে টর্চারসেলে পুলিশের অভিযান, অস্ত্র উদ্ধার
বাগেরহাট ও মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি
বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে দলীয় কোন্দলে আওয়ামী লীগের দুই কর্মী খুনের প্রধান আসামি চেয়ারম্যান শহিদুল ফকিরের কক্ষে আদালতের অনুমতি নিয়ে বুধবার বেলা ১টার দিকে মোড়েলগঞ্জ থানা পুলিশের একটি দল তল্লাশী চালিয়েছে। কক্ষ থেকে ৫টি রাম দা, ৩টি চাপাতি, ১টি হাতুড়ি, ১টি ড্যাগার, পাইপ, দড়ি ও কয়েকটি ভারি লাঠি উদ্ধার করেছে পুলিশ।
মোড়েলগঞ্জ থানার ওসি কেএম আজিজুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান শহিদুল ফকিরের কক্ষে অস্ত্র থাকতে পারে এমন সন্দেহে কক্ষ তল্লাশীর জন্য আদালতের অনুমতি নিয়ে আজ পরিষদের সচিব মো. জাহিদুল ইসলাম, চৌকিদার, ইউপি সদস্য ও স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে তালা ভেঙ্গে তল্লাশী করা হয়। ওই কক্ষে বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র পাওয়া গেছে।
মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজিজুল ইসলাম বলেন, ১ অক্টোবর বিকেলে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তার সহযোগিদের নিয়ে দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী দিহিদার ও সাবেক যুবলীগ নেতা শুকুর শেখকে হত্যা করে। এ ঘটনার পরই ইউনিয়ন পরিষদটি বন্ধ করে দেয়া হয়। এ ঘটনায় ৪ অক্টোবর রাতে ৩১ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। মামলার তদন্তের স্বার্থে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে তল্যাসি চালিয়ে ধারালো অস্ত্র ও রক্ত মাখা লাঠি সোটা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান শীহদুল ফকির ইসলাম, ইউনিয়ন পরিষদের দফাদারসহ এজাহারভুক্ত ১৩ জনকে আটক করা হয়েছে। অন্য আসামীদের আটক করতে অভিযান অব্যাহত আছে।

সমাবেশে আ’লীগের নেতৃবৃন্দ
রায়ের মাধ্যমে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে
স্টাফ রিপোর্টার
খুলনা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ বলেছেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের মধ্য দিয়ে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। রায়ের প্রতি সম্মান জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্রেনেড হামলার ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী তারেক জিয়ার যাবজ্জীবন কারাদÐের পরিবর্তে ফাঁসি আদেশ প্রত্যাশা করেছিলো দেশবাসি। তারেক জিয়ার ফাঁসির আদেশের জন্য উচ্চাদালতে আপিল করার জন্য রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীর প্রতি আহবান জানান নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, দেশকে উন্নত বিশ্বে পরিণত করতে হলে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আর আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হলে সকল হত্যা ক্যু আর ষড়যন্ত্রের রাজনীতি আইনের মাধ্যমে চিরতরে বন্ধ করতে হবে। তাহলে দেশ যেমন এগিয়ে যাবে উন্নত বিশ্বের দিকে তেমনি দ্রæত প্রতিষ্ঠিত হবে গণতন্ত্র। সেজন্যে দলের নেতাকর্মীদের আরো ত্যাগ স্বীকার করে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে চতুর্থ বারের মত রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এনে দেশে স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্ম শত বার্ষিকী উদযাপন করতে হবে।
গতকাল বুধবার গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের প্রতি সম্মান জানিয়ে এবং তারেক জিয়ার ফাঁসির দাবিতে সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন। মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি, আওয়ামী লীগ নেতা এমডিএ বাবুল রানা, কামরুজ্জামান জামাল, আকতারুজ্জামান বাবু, শ্যামল সিংহ রায়, মফিদুল ইসলাম টুটুল, এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, তসলিম আহমেদ আশা, হাজী মো. নুরুজ্জামান, রনজিত কুমার ঘোষ, শেখ মো. আবু হানিফ, শফিকুর রহমান পলাশ, শেখ শাহজালাল হোসেন সুজন, পারভেজ হাওলাদার। সভা পরিচালনা করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ।
এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা শেখ হায়দার আলী, রফিকুর রহমান রিপন, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, শেখ নুর মোহাম্মদ, মাহাবুবুল আলম বাবলু মোল্লা, মালিম সরোয়ার উদ্দিন, খান সাইফুল ইসলাম, সাব্বির আহমেদ শুভ, চৌধুরী মিনহাজ উজ্জামান সজল, ফেরদৌস হোসেন লাবু, আব্দুল হাই পলাশ, জাহিদুল খলিফা, মো. মোতালেব মিয়া, শেখ এশারুল হক, ফয়েজুল ইসলাম টিটো, আতাউর রহমান শিকদার রাজু, মো. শিহাব উদ্দিন, শেখ মো. রুহুল আমিন, এস এম আকিল উদ্দিন, আমির হোসেন, মুন্সি নাহিদুজ্জামান, এস এম হাফিজুর রহমান হাফিজ, কামরুল ইসলাম, মোর্শেদ আহমেদ রিপন, জাহিদুল খলিফা, সোহেল বিশ্বাস, রনবীর বাড়ৈ সজল, সোহান হোসেন শাওন, জব্বার আলী হিরা, ঝলক বিশ্বাস, রেদওয়ান মারুফ, আলিমুল জিয়া, জোয়েব সিদ্দিকী, চয়ন বালা সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।
সমাবেশ শেষে এক বিশাল মিছিল নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।

রায়ের প্রতিবাদে যুবদল-ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল : ছাত্রলীগের হামলা
স্টাফ রিপোর্টার
তারেক রহমানসহ বিএনপির নেতাদের বিরুদ্ধে একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায় প্রদানের প্রতিবাদে নগরীতে বিক্ষোভ করেছে খুলনা জেলা যুবদল ও ছাত্রদল। সংগঠনের নেতাকর্মীরা গতকাল বুধবার দুপুরে তাৎক্ষণিক খুলনা রয়্যাল মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে। মিছিলটি নগরীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মর্ডান ফার্নিচার হয়ে পিটিআই মোড়ে যাওয়ার আগে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মিছিলের পিছন দিক দিয়ে হামলা চালায়। এতে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।পরে পুলিশ ও র‌্যাব পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংগঠনের নেতাদের দাবি হামলায় তাদের ১১জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে।
আহতরা হলেন জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইবাদুল হক রুবায়েদ, সহ-সভাপতি শেখ কচি, দপ্তর সম্পাদক জি এম রাসেল, যুগ্ম সম্পাদক হাবিবুর রহমান বেলাল, যুবদল নেতা হেমায়েত রশিদ, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আব্দুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা তুহিন, সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী শহিদুল ইসলাম, সমাজ সেবা সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, ছাত্রনেতা ইমতিয়াজ সুজন ও মহানগর ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জাফর ইকবাল।
জেলা যুবদলের দফতর সম্পাদক জিএম রাসেলের দাবি, তাদের মিছিলে পুলিশের সামনে ছাত্রলীগ লাঠি-শোটা, রড ও অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে এগারো নেতা-কর্মী আহন হন। তাদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।
মিছিলে উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবদলের সভাপতি এস এম শামীম কবির, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইবাদুল হক রুবায়েদ, সাংগঠনিক সম্পাদ জাবীর আলী, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আব্দুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা তুহিন, সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী শহিদুল ইসলাম, বিএনপি নেতা ওহেদুজ্জামান রানা, আসলাম পারভেজ, রফিকুল ইসলাম বাবু, জেলা যুবদল সহ-সভাপতি শেখ কচি, মোল্লা রিয়াজুল ইসলাম, মোল্যা মশিউর রহমান, শফিকুল ইসলাম বাচ্চু, জি এম রাসেল ইসলাম, আফজাল ফরাজি, মমিনুর রহমান সাগর, ইয়ারুল রিপন, হাবিবুর রহমান বেলাল, মোঃ মাহামুদুল হাসান মিঠু, শরিফুল ইসলাম, মশিউর রহমান লিটন, হেমায়েত রশিদ খান, মফিদুল ইসলাম সোহাগ, মাসুম বিল্লাহ, মোঃ মোস্ত, আবুবকর সিদ্দিকী নিরু, আবু জাফর, বাহাদুর মুন্সী, শফিকুল মোল্যা শফিক, মোঃ শাহীন মোল্যা, জাহিদুল ইসলাম, মোঃ শান্ত, জাফর ইকবাল, বদিয়ার রহমান, রাজু আহমেদ, মোঃ হান্নান ছাত্রনেতা ইমতিয়াজ সুজন, সজল শেখ প্রমুখ।

নানা আয়োজনে এসএম সুলতানের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
ফরহাদ খান, নড়াইল
নানা আয়োজনে বরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে বুধবার (১০ অক্টোবর) সকালে শিল্পীর সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন নবাগত জেলা প্রশাসক আঞ্জুমান আরা। এদিকে এসএম সুলতান ফাউন্ডেশন, নড়াইল প্রেসক্লাব, এসএম সুলতান বেঙ্গল চারুকলা মহাবিদ্যালয়, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও শিল্পীর সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়। এছাড়া কোরআনখানি, কবর জিয়ারত, দোয়া মাহফিল, শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণের আয়োজন করা হয়।
এসব অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম, স্থানীয় সরকার বিভাগ নড়াইলের উপ-পরিচালক মনিরুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইয়ারুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কাজী মাহবুবুর রশিদ, এসএম সুলতান বেঙ্গল চারুকলা মহাবিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক অশোক কুমার শীল, সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজিম উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবাস চন্দ্র বোস, এসএম সুলতান ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব আশিকুর রহমান মিকু, নড়াইল পৌরসভার প্যানেল মেয়র রেজাউল বিশ্বাস, নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি আলমগীর সিদ্দিকী, শিক্ষাবিদ ইউসুফ আলী, চিত্রশিল্পী বলদেব অধিকারী, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মলয় কুমার কুন্ডু, সাধারণ সম্পাদক শরফুল আলম লিটু, এসএম সুলতান শিশু চারু ও কারুকলা ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোহাম্মদ হানিফ, জেলা শিল্পকলা একাডেমির যুগ্মসম্পাদক আসাদ রহমান, নারীনেত্রী রাবেয়া ইউসুফ, আঞ্জুমান আরা প্রমুখ। এসএম সুলতান ফাউন্ডেশন ও জেলা প্রশাসন এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
১৯৯৪ সালের ১০ অক্টোবর অসুস্থ অবস্থায় এসএম সুলতান যশোর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। নড়াইলের কুড়িগ্রামে তাকে শায়িত করা হয়। চিত্রা নদীপাড়ের লাল মিয়া, গণমানুষের এসএম সুলতান ১৯২৪ সালের ১০ আগস্ট নড়াইলের মাছিমদিয়ায় বাবা মেছের আলী ও মা মাজু বিবির ঘরে জন্মগ্রহণ করেন।
চিত্রশিল্পের খ্যাতি হিসেবে ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘ম্যান অব দ্য ইয়ার’, নিউইয়র্কের বায়োগ্রাফিক্যাল সেন্টার থেকে ‘ম্যান অব অ্যাচিভমেন্ট’ এবং এশিয়া উইক পত্রিকা থেকে ‘ম্যান অব এশিয়া’ পুরস্কার পেয়েছেন। এছাড়া ১৯৮২ সালে একুশে পদকসহ ১৯৯৩ সালে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হন। ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ সরকারের রেসিডেন্ট আর্টিস্ট স্বীকৃতি এবং ১৯৮৬ সালে ‘বাংলাদেশ চারুশিল্পী সংসদ সম্মাননা’ পেয়েছেন তিনি

খুলনাকে বসবাস উপযোগী সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে হবে: সিটি মেয়র
খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সংকট মোকাবেলা করে খুলনাকে বসবাস উপযোগী সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, বৈশি^ক জলবায়ুর পরিবর্তনের ফলে দক্ষিণÑপূর্ব এশিয়ার সর্বাপেক্ষা নাজুক অবস্থায় শিল্প নগরী খুলনা। জলবায়ুর বিরূপ প্রভাবের কারণে বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপক‚লীয় এ অঞ্চলের পরিবেশ বিপর্যয়সহ জলাবদ্ধতা, পানি নিষ্কাশন সমস্যা ও সুপেয় পানি সরবরাহ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। বিশ্বের অন্যতম ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল হওয়ায় উদ্বুত পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাংলাদেশ সরকার ইতোমধ্যে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণে সমর্থ হয়েছেন। ফলশ্রæতিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও প্রধানমন্ত্রীর আহবানে উদ্বুদ্ধ হয়ে আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন।
সিটি মেয়র গতকাল বুধবার সকালে নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে ‘‘ওয়াটার এ্যাজ লিভারেজ ফর (রিজিলিয়েন্ট সিটিস) খুলনা’’ শীর্ষক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন। গভর্ণমেন্ট অব দি নেদারল্যান্ডস এ সেমিনারের আয়োজন করে। বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্র নেদারল্যান্ডস পানিকে মূল প্রতিপাদ্য বিবেচনা করে নগরীর সামগ্রিক উন্নয়নে কার্যকর প্রকল্প উদ্ভাবন ও বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া চিহ্নিত ও এ বিষয়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করায় সে জন্য সিটি মেয়র নেদারল্যান্ডস সরকারকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান।
সিটি মেয়র আরো বলেন, বৈশি^ক জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে খুলনা মহানগরী ও সংলগ্ন এলাকার পরিবেশ যেভাবে বিপর্যস্ত হতে চলেছে তা আমাদের সকলকে ভাবিয়ে তুলেছে। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার চাপে আমাদের কৃষিজ উৎপাদন বৃদ্ধির চাপ উপেক্ষা করা যাচ্ছে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার জনগণের ভাগ্যের উন্নয়নে নানাবিধ উন্নয়ন কর্মকান্ড জোরদার করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। তাই পানি সম্পদ অবলম্বনে আমাদের সার্বিক উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনার ওপর অধিকতর গুরুত্ব দিতে হবে। এই কর্মশালার মাধ্যমে বিদ্যমান পানি সম্পদ কেন্দ্রিক উন্নয়ন প্রক্রিয়ার অম্বেষন তৎপরতা সাফল্য লাভ করবে বলে সিটি মেয়র উল্লেখ করেন। তিনি সুষ্ঠু পানি ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে ভৈরব ও রূপসা নদী ড্রেজিং ও অভ্যন্তরীণ খান খননের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্ম সচিব) পলাশ কান্তি বালা’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন নেদারল্যান্ড রাজতন্ত্রের আন্তর্জাতিক পানি সম্পদ বিষয়ক বিশেষ দূত হেন্ক অভিন্ক, খুলনা ওয়াসার উপ-পরিচালক কামাল উদ্দিন আহমেদ ও খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান। অন্যান্যের মধ্যে পরামর্শক সংস্থা সিডিআর ইন্টারন্যাশনাল লিঃ এর প্রতিনিধি হ্যারি ল্যাবোইরি, স্টিভেন টি ¯øা, লরেন্স পোয়েলহেক, এ্যানি লোয়েস নিলেসেন, আলজিরা স্কেফ ও ওয়াইস বেফস, ঢাকাস্থ ডেভ কনসালট্যান্ট-এর পানি সম্পদ প্রকৌশলী মোঃ মনিরুজ্জামান ও পানি সরবরাহ বিশেষজ্ঞ মফিজ উদ্দিন আহমেদ সহ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষজ্ঞগণ কর্মশালায় বক্তৃতা করেন ও উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় কেসিসি’র কাউন্সিলর, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর, কর্মকর্তা, নাগরিক নেতৃবৃন্দ ও সংবাদকর্মীগণ অংশগ্রহণ করেন। কর্মশালায় বিষয় ভিত্তিক প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন কেসিসি’র চীফ প্লানিং অফিসার আবির উল জব্বার, বাংলাদেশ ডেল্টা প্লানের ডেপুটি টীম লিডার গিয়াসউদ্দিন চৌধুরী ও নেদারল্যান্ড দূতাবাসের ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট বিশেষজ্ঞ পিটার ডি ভ্যারিস।
সেমিনারে বক্তারা বলেন, ইতোপূর্বে নগরীতে ছোট বড় অনেক পুকুর ও জলাশয় ছিল। প্রাকৃতিকভাবেই বিরাজমান ছিল অসংখ্য খাল ও নালা। কালক্রমে এ সব জলাধর ও খালগুলোর বহুলাংশ আমাদের অপরিনামদর্শী আচরণের কারণে বিলুপ্ত ও অকেজো হয়ে গেছে। নদÑনদীগুলো পলি সঞ্চাচলনের ফলে ভরাট হয়ে আসছে। অন্যদিকে বিশে^র তাপÑমাত্রা বৃদ্ধির ফলে সাগরে পানির উচ্চতা বৃদ্ধি তথা লোনা পানির অনুপ্রবেশ আমাদের এ অঞ্চলে এক দু:সহ অবস্থার সৃষ্টি করেছে। এর থেকে রক্ষা পেতে সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ ব্যাতিরেকে আমাদের সামনে আর কোন পথ খোলা নাই।

দাকোপে পূজা উদ্যাপনে ব্যাপক প্রস্তুতি
দাকোপ প্রতিনিধি
সারা দেশের ন্যায় এবারও খুলনার দাকোপ উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৭৮টি পুজা মন্ডপে হিন্দুধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয়া দূর্গা পূজা উদ্যাপনে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। তাই আড়ম্বরের সহিত দূর্গা পূজা অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা ভাস্কাররা।
আগামী ২৮ আশ্বিন ও ১৫ অক্টোবর ষষ্ঠী তিথিতে দেবী দুর্গার ঘোটকে আগমনের মধ্য দিয়ে শ্রী শ্রী শারদীয়া দূর্গাদেবীর এ উৎসব শুরু হবে এবং আগামী ২৯ অক্টোবর মহাবিজয় দশমীতে বির্ষজনে দেবীর দোলায় গমনে এউৎসবের সমাপ্তী ঘটবে। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে স্থায়ী ও অস্থায়ী এসব সার্বজনীন মন্ডপ তৈরী করে পূজার ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে বলে উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে। প্রতিমা তৈরিতে মাটির কাজ প্রায় শেষ, অধিকাংশ মন্ডপে চলছে রং, তুলি দিয়ে প্রতিমা সাজ সজ্জার কাজ। পাশাপাশি আলোক সজ্জা, প্যান্ডেল তৈরি, মন্ডপ ও তার আশে পাশে সাজ সজ্জার কাজসহ নানা কাজেও ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন পূজার সাথে সংশ্লিষ্টরা। সাথে সাথে অন্যরাও পূজার কেনাকাটা করতে শুরু করেছেন। পাইকগাছা উপজেলার বগুড়ারচক এলাকার প্রতিমা তৈরী ভাস্কার নিরাপদ সরকার বলেন প্রতিমা তৈরীতে মাটির কাজ শেষ এখন চলছে রং তুলি দিয়ে প্রতিমা সাজ সজ্জার কাজ। এবার তিনি ৪টি মন্ডপে প্রতিমা তৈরী করেছেন। এতে তিনি প্রায় ৬০ হাজার টাকা পাবেন। তিনি জানান মালামালের দাম বেশি হওয়ায় এবার তার লোকসান হবে। থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোকাররম হোসেনু বলেন শান্তিপূর্ণ দূর্গোৎসব পালনের লক্ষে উপজেলার পূজা মন্ডপ গুলোতে যথাযথ নিরাপত্তা দিতে এবং আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে পুলিশ, ব্যাটিলিয়ান আনসার, সাধারণ আনসারসহ মোবাইল টিমের প্রায় পাঁচ শতাধিকেরও বেশী সদস্য মোতায়নে প্রক্রিয়াধীন আছে। উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি ও খুলনা-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ননী গোপাল মন্ডল ও সাধারণ সম্পাদক অসিত বরণ সাহা জানান গোটা উপজেলায় মোট ৭৮টি পূজা মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠানের লক্ষে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। এর মধ্যে ১টি মন্ডপ ব্যক্তিগত। সকল অপশক্তি রুখে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বজায় রেখে সবাই মিলে মিশে শান্তিপূর্ণ দূর্গোৎসব পালন করব।

ইসলামী আন্দোলনের জেলার জরুরী বৈঠক
খবর বিজ্ঞপ্তি
গতকাল বুধবার বেলা ৪টায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা জেলা শাখার এক জরুরী বৈঠক জেলা সভাপতি মাওলানা আব্দুল¬াহ ইমরান এর সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী শেখ হাসান ওবায়েদ করিম এর পরিচালনায় জেলা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা সহ-সভাপতি মাওলানা রেজাউল করিম, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পীর সাহেব চরমোনাই মনোনীত খুলনা-১ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মাওলানা আবু সাঈদ, জয়েন্ট সেক্রেটারী ইঞ্জি: এজাজ মানসুর হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আব্দুল¬াহ আল মামুন, সম্পাদক মাওলানা হারুন-অর-রশিদ, জি. এম. নওশের আলী, মাওলানা সাত্তার হাওলাদার, মাওলানা মনিরুজ্জামান হেলাল, মাওলানা এবাদুল হক, মোঃ মাসুম বিল¬াহ, হাফেজ মোস্তাফিজুর রহমান, মুফতী জালাল উদ্দিন, মাওলানা জালাল উদ্দিন, মোঃ আবুল কালাম আজাদ, হাফেজ বেলাল হোসাইন মাওলানা আব্দুর রউফ খান, মুফতী গোলামুর রহমান, মাওলানা মনিরুজ্জামান, মাওলানা আব্দুস সাকুর সাহেব, ডাঃ নাসির উদ্দিন, মাওলানা সাদেকুর রহমান, হাফেজ জাহিদুর রহমান, মাওলানা জালাল উদ্দিন, আলহাজ্ব শহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, মুফতী জাকারিয়া, মোঃ জাহিদুল ইসলাম, ইঞ্জি: গোলাম সরোয়ার, মাও: ইলিয়াস মোল¬া, মাষ্টার রফিকুল ইসলাম প্রমূখ।

গ্রেনেড হামলা মামলায় ফাঁসিরদন্ডপ্রাপ্ত ১৯ জনের দু’জন ঝিনাইদহের
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
গ্রেনেড হামলা মামলায় ফাঁসিরদন্ডপ্রাপ্ত ১৯ জনের মধ্যে ২ জনের বাড়ি ঝিনাইদহে। তারা হলো- শৈলকুপা উপজেলার গাড়াগঞ্জের আবুল কালাম আজাদ বুলবুল ও ঝিনাইদহ শহরের পবহাটি এলাকার বেলাত আলীর ছেলে উজ্জল ওরফে রতন।
আবুল কালাম আজাদ বুলবুলের বাড়ি শৈলকুপা উপজেলার বকসিপুর গ্রামে। একসময় মেয়ে সেজে যাত্রাদলে নর্তীকির কাজ করতো। স্থানীয় গাড়াগঞ্জ এলাকায় বিয়ের পর দর্জির দোকান দেয়। সেখান থেকে মুফতি হান্নানের সাথে তার পরিচয় হয়। বুলবুলের দোকানে মুফতি হান্নানের নিয়মিত আসা যাওয়া ছিল। ২০০৭ সালে তার দোকান থেকে র‌্যাব তাকে গ্রেফতার করে।
উজ্জল ওরফে রতন ঝিনাইদহ শহরে বাই সাইকেল মেকারের কাজ করত। এলাকার কিংকন ও আরিফ বিল্যাহ’র সাথে তার পরিচয় হয়। তাদের মাধ্যমে মুফতি হান্নানের সাথে যোগাযোগ হয়। ২০০৭ সালে মাগুরার শ্রীপুর থেকে র‌্যাব তাকে আটক করে। এরপর তার পরিবার জানতে পারে রতন গ্রেনেড হামলা মামলার আসামী।

ঝিনাইদহে মোটর সাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চান্দুয়ালী গ্রামে মোটর সাইকেলের ধাক্কায় মসলেম মন্ডল (৭০) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। বুধবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মসলেম উদ্দিন বেড়াশুলা গ্রামের মৃত তরফ মন্ডলের ছেলে।
ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, সকালে বৃন্ধ মসলেম মন্ডল বাড়ি থেকে মাঠে যাচ্ছিল। এসময় একটি দ্রæতগামী মোটর সাইকেল তাকে ধাক্কা দিলে রাস্তার উপর ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয়। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্য মামলার প্রস্তুতি চলছে।

কন্যা শিশু দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ
তথ্য বিবরণী
‘থাকলে কন্যা সুরক্ষিত: দেশ হবে আলোকিত’ এ প্রতিপাদ্য নিয়ে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস ও বাল্যবিবাহ নিরোধ দিবস উপলক্ষে কন্যা শিশু সমাবেশ, মানববন্ধন, পথনাটক, আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান গতকাল বুধবার সকালে খুলনা শিশু একাডেমী চত্ত¡রে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের পিপি অলোকানন্দা দাস।
জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ আবুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আসুমা বেগম এবং মৈত্রী ¯œাল।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, এ শিশুরাই দেশ ও জাতির ভবিষ্যৎ। তারাই আগামীতে দেশ পরিচালনায় নেতৃত্ব দেবে। আজকের কন্যাশিশু আগামী দিনের নারী। তাই সকল কন্যাশিশুর অধিকার ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সকলের কর্তব্য। শিশুর অধিকার বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে পিতা-মাতা, পরিবার ও সমাজের সকলের ভ‚মিকা অপরিসীম। শিশুদের উন্নয়নে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। পরে শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

জাতীয় পার্টি সদর থানার সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি অনুমোদন
খবর বিজ্ঞপ্তি
অধ্যাপক মোঃ গাউসুল আজমকে আহŸায়ক ও শেখ মোঃ মাসুম হায়দারকে সদস্য সচিব নির্বাচিত করে জাতীয় পার্টি খুলনা মহানগরের অন্তর্ভুক্ত সদর থানায় ৪১ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। কমিটির অন্যান্য সদস্যগণ যথাক্রমে যুগ্ম আহŸায়ক কাজী হাসানুর রশিদ রাসেল, এ্যাড. এ এ এম মমিনুজ্জামান, মোঃ আলাউদ্দিন ফকির, মোঃ হাফেজ ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ, এ্যাড. খন্দকার মহসিন, সাইফুল ইসলাম মোল্লা, সদস্য দেলোয়ার হোসেন লালু, ইঞ্জিঃ মোঃ মনিরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সাহ আলম, অপূর্ব দত্ত নেকু, মোঃ আব্দুস সালাম, মোঃ আব্দুল মালেক, গাজী খোকন, মোঃ আব্দুল হাকিম মাস্টার, মোঃ আব্দুল জব্বার মাস্টার, মোঃ আব্দুল মালেক, মোঃ আব্দুল লতিফ, মোঃ সরোয়ার হোসেন, এস এম রানা, মোঃ রুহুল আমীন, মোঃ রেজাউল ইসলাম, মোঃ সাগর হোসেন, শেখ মোঃ তারেখ, মোঃ রুবেল হোসেন, মোঃ বেলায়েত হোসেন, মোঃ মাসুদ, মোঃ মুনসুর, মোঃ মোশারফ হোসেন, মোঃ মাজহারুল, মোঃ জসিম, মোঃ খোকন গাজী, মোঃ রবিউল ইসলাম, মোঃ শুকুর আলী, মোঃ নূরু, মোঃ মহসিন, মোঃ আল আমিন, মোঃ মিরাজ, মোঃ মামুন শেখ, মোঃ মহারাজ। উক্ত কমিটিকে আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট থানাসহ সকল ওয়ার্ডের সম্মেলন সম্পন্ন করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

অধিকার’র ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আলোচনা সভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
দেশের অন্যতম শীর্ষ মানবাধিকার সংগঠন ‘অধিকার’র ২৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে খুলনায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ১০ অক্টোবর বুধবার বিকেলে প্রেসক্লাব খুলনা মিলনায়তনে সংগঠনের খুলনা ইউনিট এ সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন অধিকার খুলনা ইউনিটের ফোকাল পার্সন মুহাম্মদ নূরুজ্জামান।
সভায় জানানো হয়, জনগণের নাগরিক, রাজনৈতিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার রক্ষার লক্ষ্য নিয়ে ১৯৯৪ সালের ১০ অক্টোবর ‘অধিকার’ প্রতিষ্ঠিত হয়। এরপর থেকে অধিকার’র নিরলস সংগ্রাম অব্যাহত রয়েছে। অধিকার বাংলাদেশের মানবাধিকার আন্দোলনকে নিছকই রাষ্ট্রের হাতে মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার ‘ব্যক্তি’কে রক্ষার ব্যাপার মাত্র বলে মনে করে না; বরং ব্যক্তির নাগরিক ও মানবিক মর্যাদা প্রতিষ্ঠার লড়াইকে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গঠনের আন্দোলন ও সংগ্রামের সঙ্গে অবিচ্ছেদ্য বলে মনে করে।
সভায় বক্তৃতা করেন ও উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী কেএম জিয়াউস সাদাত, সেখ ইউসুফ আলী, ডিএম রেজা সোহাগ, মো. জামাল হোসেন, হারুন-অর-রশীদ, জি.এম. রাসেল ইসলাম, আহাদ আলী, মো. শহিদুল ইসলাম, মো. আকবর হোসেন প্রমুখ।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে আর্থিক অনুদান চান
কপিলমুনির আজিজুরের এবারের উদ্ভাবন ভার্মি কম্পোস্ট সার
পলাশ কর্মকার, কপিলমুনি
কৃষি উদ্ভাবক মোঃ আজিজুর রহমান ভার্মি কম্পোষ্ট দ্বারা কম্পোস্ট মিশ্র সার ও মাছের জৈব খাদ্য উদ্ভাবন করেছেন যা কৃষি ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন বয়ে আনবে। এই সার ব্যবহারে কৃষি জমির উর্বর শক্তি বৃদ্ধি পাবে।
জানাযায়, পাইকগাছার কপিলমুনির কাজিমূছা গ্রামের মোঃ আনছার আলী মোড়লের ছেলে ক্ষুদে কৃষি উদ্ভাবক মোঃ আজিজুর রহমান আজিজ নানান প্রতিক‚লতার মধ্যদিয়ে দীর্ঘদিন ধরে একের পর এক উদ্ভাবন করে চলেছেন পরিবেশ বান্ধব কীটনাশকসহ পরিবেশ বান্ধব সার। কিন্তু আজও তাঁর ভাগ্যে জোটেনি কোন সরকারী-বেসরকারি আর্থিক সহযোগিতা। এবার ভার্মি সার দ্বারা কম্পোজ মিশ্র সার ও মাছের খাদ্য উদ্ভাবন করেছেন, যা দেশের কৃষি ক্ষেত্রে কৃষকদের জন্য অত্যন্ত শুভকর।
ভার্মি কম্পোষ্ট সার ব্যবহার করলে জমিতে টিএসপি, ফসফেট সার খুব কম ব্যবহার করে কৃষক ফসল ফলাতে পারবে। এতে কৃষক ও দেশ লাভবান হবে। সরকারিভাবে যদি বাংলাদেশের প্রতিটা কৃষককে ব্যবহার নিশ্চিত করা যায় তাহলে কম্পোষ্ট মিশ্র সার তৈরি করতে বাংলাদেশের কৃষকদের কাছ থেকে কেঁচো সার ক্রয় করা যাবে। এতে করে বেকার ও দারিদ্রতা দূর হবে। কম্পোজ মিশ্র সার জমিতে ব্যবহার করা অত্যন্ত জরুরী। জমিতে জৈব সার না থাকার কারণে কৃষক অধিক পরিমাণ ইউরিয়া সার ব্যবহার করছে। এতে কৃষক ও সরকারের ক্ষতি। জৈব সার মাটির প্রাণ। কেঁচো সার দিয়ে মাছের খাদ্য উদ্ভাবন করেছে যা মাছ চাষের জন বিশেষ প্রয়োজন। সম্প্রতি তিনি মেহগুনি ফল থেকে তেল বের করতে সক্ষম হয়েছেন। এই তেলের সঙ্গে অন্যান্য উপাদান মিশিয়ে সিম, আমের ঔষধ ও ধানের স্প্রে ঔষধ উদ্ভাবন করেছেন। এছাড়া তিনি আরও অনেক কিছু উদ্ভাবন কার্যক্রম চালাচ্ছেন, যেমন কেঁচো সার, কুইক কম্পোষ্ট, জৈব গরুর খাদ্য ছাড়াও তার আরও অনেক উদ্ভাবন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
আজিজুরের উদ্ভাবন কার্যক্রম সম্প্রতি পরিদর্শন করেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা লতিফা বেগম ও উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল হোসেন মোল্লা। সম্প্রতি তিনি প্রধানমন্ত্রী বরাবর বিশেষ কোটায় আর্থিক অনুদান পাওয়ার জন্য আবেদনও করেছেন। মোঃ আজিজুর রহমানের প্রযুক্তি ব্যবহার করে উপকৃত হয়েছেন কপিলমুনির নগর শ্রীরামপুরের চারা বিক্রেতা মজিদ হাজরা, দক্ষিণ সলুয়ার মোঃ সফিকুল ইসলাম মাষ্টার মনিরুল ইসলাম, হরিদাসকাটীর মাছ ব্যবসায়ী সলেমান ফকির, হাউলীর কৃষক মৃত্যুঞ্জয় মন্ডল, প্রতাপকাটীর হোসেন আলী গাজী প্রমুখ।
উপকারভোগীরা মোঃ আজিজুর রহমানকে সরকারী স্বীকৃতিসহ সমাজ, দেশ ও জাতির স্বার্থে আরও ভালো কিছু করার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে সহযোগিতা কামনা করে জোর দাবি জানান।
উদ্ভাবক আজিজুর রহমান এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘জীবনের একটা বড় সময় পার করলাম এই কৃষি উদ্ভাবন নিয়ে। আমার উদ্ভাবন কৃষি খাত তথা দেশের উপকারে আসলেও আমি পাইনি কোন সরকারি স্বীকৃতি, পাইনি কোন সরকারি সহায়তা। আমার বিশ্বাস সরকারি একটু সহায়তা আমার গবেষনায় আরো সফলতা আনতে পারতো। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সু-দৃষ্টি কামনা করছি।’

ডুমুরিয়ায় নদীখননের পর অবশিষ্ট জমি পেতে চান শতাধিক ভূমিহীন পরিবার
ডুমুরিয়া প্রতিনিধি
ডুমুরিয়ায় ভদ্রানদী খননের পর নদীর দু’পাশে বনায়নের কার্যক্রম শুরু করেছে উপজেলা সামাজিক বনায়ন অফিস।এতে শত শত ভূমিহীন পরিবার তাদের পূর্বের দখলীয় ও দলিলকৃত জমি ওই বনায়নের আওতায় পড়ায় ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে পরিবারগুলি।আশু খননের পর অবশিষ্ট জায়গা ফিরে পেতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সরনাপন্ন হয়েছে শতাধিক পরিবার।
ভূমিহীন পরিবারের দাখিলকৃত আবেদন সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালে উপজেলার মরা ভদ্রানদী খনন কার্যক্রম শুরু হয়। এতে সরকারের দেয়া বন্দোবস্ত কৃত শত শত হেক্টর জমি ও বাড়ীঘর খননের আওতায় পড়ে নদীতে পরিনত হয়।উপায়ন্ত না পেয়ে গৃহহীন হয়ে শত শত ভূমিহীন পরিবার আশ্রয় নেয় রাস্তার উপর। নদী খননের পর থাকা অবশিষ্ট জায়গাটুকু দেখে তাদের চোখেমুখে ফুঁটে ওঠে সোনালী স্বপ্ন। কিন্তু বনায়ন কার্যক্রম শুরু দেখে সে স্বপ্নও আজ বিলিন হতে চলেছে। উপায়ন্ত না পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দারস্থ হয়েছে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলি। ভূমিহীন সন্তোষ মল্লিক, কাশেম গাজী, শ্যামল মল্লিক, কার্ত্তিক সরকার, মাখম কর্মকার, চন্দ্রকান্ত বসাকসহ অনেকে জানান, নদী খননের ফলে আমরা গৃহহারা হয়ে রাস্তায় উঠেছি। এবার অবশিষ্ট জায়গাটুকু কেড়ে নিলে আমরা সর্বশান্ত হয়ে যাবো।
এবিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা সামাজিক বনকর্মকর্তা মোঃ ফোরকানুল আলম বলেন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নদীর দু’পাড় বনায়নের আওতায় আনা হয়েছে। যেখানে ইতোমধ্যে ফলজ,বনজসহ বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষ রোপন করা হয়েছে এবং এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ শাহনাজ বেগম বলেন, গৃহ নির্মাণ নয়, বনায়নের ফাঁক দিয়ে পূর্বের মালিকেরা সব্জির আবাদ করতে চাইলে সেক্ষেত্রে কোন আপত্তি থাকবে না।

ডুমুরিয়ায় শ্বশুর-জামাইসহ বিএনপির ৬ নেতা আটক
ডুমুরিয়া প্রতিনিধি
ডুমুরিয়ায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৬ বিএনপি নেতকর্মীকে আটক করে জেল-হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে নিজ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। পুলিশ জানায়, ডিবি পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে উপজেলার মঠবাড়ীয়া এলাকার ব্এিনপি নেতা আব্দুল গাজী (৫৬), থুকড়ার এসএম জিহাদ (৪৮),চাকুন্দিয়ার আবু শাহামা শেখ (৫৮),শোভনা এলাকার সাজ্জাদ আলী (৫৫), আব্দুর রশিদ শেখ (৫০) ও তার শ্বশুর আব্দুর রাজ্জাক খান (৭৩) কে আটক করা হয়। তাদেরকে নাশকতা মামলায় জেল-হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

কুয়েটে ‘আইইইই দিবস ২০১৮’ উদ্্যাপিত
খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) আইইইই স্টুডেন্ট ব্রাঞ্চের আয়োজনে ‘আইইইই দিবস ২০১৮’ উদ্্যাপিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টায় স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার সেন্টারে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মহিউদ্দিন আহমাদ এবং আইইইই বাংলাদেশ সেকশনের এডুকেশনাল এক্টিভিটিস কোঅর্ডিনেটর ও ইসিই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. এ বি এম আওলাদ হোসেন। শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে বক্তৃতা করেন আইইইই স্টুডেন্ট ব্রাঞ্চের জাবির আল নাজি এবং তাহনিয়া নাজনিন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুয়েটের আইইইই স্টুডেন্ট ব্রাঞ্চের কাউন্সিলর ও ইইই বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ নূরুন্নবী মোল্লা।
উদ্বোধনী পর্ব শেষে টেকনিক্যাল সেশনে ‘ইট-বাই-ফোন ঃ স্মার্টফোন ইন্সট্রুমেন্ট ফর ফুড হেল্থ সেফটি’, ‘আইইইইএক্সট্রিম এন্ড আইইইইম্যাডসি’ এবং ‘আইইইই মেম্বারশীপ ড্রাইভ’ বিষয়ে বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে ইইই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মোঃ আরাফাত হোসেন; কুয়েটের এসজিআইপিসি’র সাবেক সভাপতি তন্ময় দত্ত এবং আইইইই স্টুডেন্ট ব্রাঞ্চ কুয়েটের সাবেক সভাপতি মাহমুদুল হাসান। অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ অংশগ্রহন করেন।

শরণখোলায় ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে হামলা
প্রধান শিক্ষকের পা ভেঙ্গে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা
শরণখোলা প্রতিনিধি
বাগেরহাটের শরণখোলায় পূর্ব শত্রæতার জের ধরে এক প্রধান শিক্ষকে বেধাড়ক পিটিয়ে পা ভেঙ্গে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। ঘটনার পর স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে মূমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ১০ অক্টোবর (বুধবার) দুপুরে উপজেলার বাধাল গ্রামে।
হাসপাতাল ও বিদ্যালয় সুত্র জানায়, মোড়েলগঞ্জ উপজেলার উত্তর সুতালড়ি গ্রামের নুর মোহাম্মদ খানের ছেলে ও শরণখোলা উপজেলার আমড়াগাছিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সরোয়ার হোসেন খান (৫৫) প্রতিদিনের ন্যায় স্কুল ছুটি শেষে বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। এসময় নলবুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত: শাহবুদ্দিন আকনের পুত্র ও ইউপি সদস্য জোসেফ আকন (৩৫) বাড়ী যাওয়ার উদ্দেশ্যে প্রধান শিক্ষকের মটর সাইকেলে ওঠেন। পথিমধ্যে বাধাল এলাকায় পৌছালে মটর সাইকেলটি থামাতে বলেন। পরে কথা আছে বলে পার্শবর্তী একটি পরিত্যাক্ত বিদ্যালয়ের কক্ষে নিয়ে যায়। সেখানে পূর্ব থেকে অবস্থানরত নলবুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা সফেজ উদ্দিন মাতুব্বরের পুত্র শাহ আলম মাতুব্বর (৫৫) ও রফিজ উদ্দিন তালুকদারের জামাত শহিদুল ইসলাম (৪৩) ওই প্রধান শিক্ষকের হাত-পা ও মুখ বেধে ফেলে। পরে তাকে বেধাড়ক পিটিয়ে ডান পা ভেঙ্গে ফেলে। পরে তার ব্যবহৃত বাগেরহাট-হ-১১৫২৩৬ নম্বরের মটরসাইকেল, নগদ ৫০ হাজার টাকা, বিদ্যালয়ের চাবি, মোবাইল ফোন ও হাত ব্যাগে থাকা গুরুত্ব পূর্ণ কাগজপত্র নিয়ে পালিয়ে যায়। তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য জোসেফ আকনের সাথে ০১৯২৭৩৭২৯০২ নং মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোনটি রিসিফ করেননি। আমড়াগাছিয়া বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলহাজ্জ শহিদ হোসেন বাবুল বলেন, নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ের জের ধরে প্রতিপক্ষরা এ ঘটনা ঘটাতে পারে।

বাঘারপাড়া প্রেসক্লাব সভাপতিকে আটকের প্রতিবাদে মানববন্ধন
যশোর অফিস
যশোরের বাঘারপাড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক স্পন্দনের সাংবাদিক ইকবাল কবীরকে পুলিশ কর্তৃক আটক ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বাঘারপাড়া প্রেসক্লাবের উদ্যোগে গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় প্রেসক্লাব যশোরের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বাঘারপাড়া উপজেলা ও যশোরের সর্বস্তরের সাংবাদিকগণ অংশ নেন। এদিকে সাংবাদিক ইকবালের রিমান্ড ও জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।
মানববন্ধনে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, সাংবাদিক ইকবাল কবীরের বিরুদ্ধে থানা কম্পাউন্ডে ঢুকে চার পুলিশকে মারপিট, সা¤প্রদায়িক উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলার অভিযোগ আনা হয়েছে, যা ভিত্তিহীন। বর্তমান সময়ে পুলিশ ত্রাস সৃষ্টি করে রেখেছে অথচ তাদের দাবি তারা মার খেয়েছেন; এমন হাস্যকর ঘটনা আর দ্বিতীয়টি হয় না। এজন্য প্রহসন ও ষড়যন্ত্রের এ মামলা প্রত্যাহার করে সাংবাদিক ইকবালের মুক্তির দাবি জানান নেতৃবৃন্দ। অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা হুশিয়ারী দেন নেতৃবৃন্দ।
মানববন্ধনে প্রেসক্লাব যশোরর সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সাধারণ সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান, বাঘারপাড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চন্দন দাসসহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
এদিকে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় শুনানি শেষে সাংবাদিক ইকবাল কবীরের রিমান্ড ও জামিন না মঞ্জুর করেছেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গৌতম মল্লিক। পুলিশ তাকে জীজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিল।

বেনাপোল সীমান্তে ফেনসিডিল উদ্ধার
যশোর অফিস
যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের বেনাপোল ক্যাম্পের সদস্যরা বুধবার ভোরে সীমান্তে অভিযান চালিয়ে ৫৯৪ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। এ সময় কোন পাচারকারীকে আটক করতে পারেনি।
বিজিবি বেনাপোল কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার মনির হোসেন জানান, গোপন সংবাদে জানতে পারি চোরাচালানীরা ভারত থেকে বিপুল পরিমান ফেনসিডিল এনে শিকড়ি পীরবাড়ি মোড় অবস্থান করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে নায়েক তরিকুল ইসলাম, সিপাহী মিজানুর রহমান, সিপাহী মোর্শেদ, সিপাহী মাসুম ও সিপাহী উমর ফারুক সেখানে অভিযান চালিয়ে ৫৯৪ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেন।
বিজিবি উপস্থিতি টের পেয়ে পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। আটক ফেনসিডিল যশোর ব্যাটালিয়নে পাঠানো হবে।

যশোরে বাসের ধাক্কায় কৃষক নিহত
যশোর অফিস
যশোরের চৌগাছায় বাসের ধাক্কায় আব্দুল আজিজ নামে এক কৃষক মারা গেছেন। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। আব্দুল আজিজ (৫৫) চৌগাছার বিশ্বাস পাড়ার মৃত জুড়ন বিশ্বাসের ছেলে।
নিহতের ভাতিজা আশিকুর রহমান জানান, আব্দুল আজিজ সকালে মাঠে কাজ করতে যায়। সেখান থেকে বাই সাইকেল যোগে বাড়িতে ফিরছিল। চৌগাছা ডিগ্রি কলেজের সামনে পৌছুলে চৌগাছাগামী একটি বাস (নম্বর ০০২৪) তাকে ধাক্কা দেয়।
ঘটনাস্থলে তিনি পড়ে গেলে গুরুতর আহত হন। সেখান থেকে চৌগাছা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার উন্নতি না হলে ডাক্তার তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করে।
যশোর জেনারেল হাসপাতালের সার্জারী বিভাগের ইন্টার্নী ডাক্তার সৈকত তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সেখান থেকে নেয়ার আগে তার মৃত্যু হয়। ডাক্তার সৈকত কৃষক আব্দুল আজিজের মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন।
ঘটনার প্রতিবাদে ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী বাসটি আটক করে পুলিশে সংবাদ দেয়। চৌগাছা থানা পুলিশ বাসটিকে থানায় নিয়ে গেছে।চৌগাছা থানার ওসি শামীম উদ্দিন বাসটি জব্দ করা এবং কৃষক আব্দুল আজিজ নিহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন।

চৌগাছায় কাউন্সিলরসহ বিএনপির সাত নেতাকর্মী আটক
চৌগাছা প্রতিনিধি
চৌগাছায় বিএনপি-জামায়াতের সাত নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা নাশকতা মামলার আসামি বলে দাবি করছে পুলিশ।
গ্রেফতার নেতাকর্মীরা হলেন, চৌগাছা পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও পৌর যুবদলের প্রস্তাবিত কমিটির সভাপতি ইছাপুরের শহিদুল ইসলামের ছেলে আনিছুর রহমান, পৌর যুবদলের প্রস্তাবিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাটগড়া ডা. সাইফুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহ-অধ্যাপক ও পৌর এলাকার বিশ্বাসপাড়ার মুন্তাজ আলীর ছেলে হাফিজুর রহমান, বিএনপি কর্মী চৌগাছা মালোপাড়ার মৃত আব্দুস সামাদ সেরেজের ছেলে আল মামুন শিবলী, স্বরূপদাহ ইউনিয়নের সাঞ্চাডাঙ্গা ওয়ার্ড জামায়াতের সভাপতি মমিন খার ছেলে আব্দুর রহিম (৪৯), একই গ্রামের জামায়াত নেতা মৃত শামছুল হকের ছেলে আবুল কাশেম (৪৭) ও আব্দুস সাত্তারের ছেলে আবুল হোসেন (৫০) এবং জগদীশপুর ইউনিয়নের জগদীশপুর গ্রামের জামায়াত কর্মী মৃত আব্দুশ শুকুর মন্ডলের ছেলে জামাত আলী। তাদের সবাইকে বুধবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
চৌগাছা থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক এসএম আকিকুল ইসলাম গ্রেফতারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ভারতে পাচারকালে সাতক্ষীরা সীমান্ত থেকে নারী ও শিশুসহ আটক ৭ রোহিঙ্গা

মনিরুজ্জামান মনি, সাতক্ষীরা
ভারতে পাচারের সময় সাতক্ষীরার আবাদেরহাট সীমান্ত এলাকা থেকে নারী ও শিশুসহ ৭ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার ভোরে সাতক্ষীরা সদও উপজেলার আবাদেরহাট সীমান্ত এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলেন, মিয়ানমারের কুতুপপালং এলাকার মো. সেলিমের স্ত্রী নুর বেগম (৪৫) তার মেয়ে রশিদা বেগম (৫), জান্নাত আরা বেগম (৩) ও ছেলে মো. সাগর (১), একই এলাকার আজিজুল হকের স্ত্রী হাছিনা বেগম (২২) ও তার মেয়ে রোজিনা বেগম (৪) এবং বৃদ্ধা উসুন জাহান (৭৫)।
রোহিঙ্গা নারী নুর বেগম জানান, দুই দালালের মাধ্যামে সাতক্ষীরার আবাদেরহাট সীমান্তে আসে তারা ভারতে যাওয়ার জন্য। দালালরা তাদেরকে কোলকাতায় ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে নিয়ে আসে। পথি মধ্যে তারা আবাদের হাট এলাকায় পৌঁছালে স্থানীয় লোকজন তাদের আটক করে পুলিশে দেয়।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ভারতে পাচারের উদ্দেশ্য নিয়ে আসা নারী ও শিশুসহ ৭ রোহিঙ্গাকে স্থানীয় জনতা আবাদেরহাট এলাকা থেকে আটক করে পুলিশে দেয়। তারা দালালের মাধ্যমে ভারতে পাচার হচ্ছিল বলে ওসি আরো জানান। তবে, এ সময় দালালরা পালিয়ে যাওয়ায় পুলিশ তাদের আটক করতে সক্ষম হননি।

তালায় এমপিও শিটে নাম না আসায় এক শিক্ষকের আত্মহত্যা
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
সাতক্ষীরার তালায় এমপিও শিটে (মাসিক বেতন শিটে) নাম না আসায় লোকলজ্জার ভয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বিধান চন্দ্র ঘোষ (৪২) নামে এক শিক্ষক। মঙ্গলবার রাতে তিনি বিষপান করলে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানেই তিনি বুধবার সকালে মারা যান।
বিধান চন্দ্র ঘোষ তালা উপজেলার ধানদিয়া ইউনিয়নের সেনেরগাঁতী বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) এবং দৌলতপুর গ্রামের মৃনাল কান্তি ঘোষের ছেলে।
বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক শহিদুল ইসলাম ও তার স্বজনরা জানান, তিনি ২০০২ যোগদান করে অদ্যাবধি সুনামের সাথে শিক্ষকতা করে আসছিলেন। কিন্তু ২০১৬ সালে বিদ্যালয়ের মিনিস্ট্রি অডিটের সময় তাঁর সনদ সংক্রান্ত ত্রæটি দেখা যায়। তিনি নিয়মিত বেতনও উত্তোলন করে আসছিলেন। কিন্তু চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসের এমপিও শিটে তার নাম না থাকার বিষয়টি জানাজানি হলে মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে অভিমান ও লোক লজ্জার ভয়ে তিনি বিষপান করেন। পরিবারের লোকজন তাৎক্ষণিক তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সকাল ৮ টার দিকে তার মৃত্যু হয়। এদিকে, তার মৃত্যুর সংবাদে এলাকার সাধারণ মানুষ ও শিক্ষক সমাজে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

ফুলবাড়ীগেটে মানববন্ধন
শিমু হত্যার দ্রæত বিচারের দাবি
খানজাহান আলী থানা প্রতিনিধি
কুয়েট ক্যাম্পাসস্থ উন্মেষ সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী যোগিপোল ৭ নং ওয়ার্ডের জব্বারের বাড়ীর ভাড়াটিয়া ট্রাক ড্রাইভার হালিম হাওলাদারের কন্যা সাদিয়া আক্তার শিমু(৮)কে ধর্ষণ করে নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদে গতকাল বুধবার আছরবাদ এলাকাবাসীর উদ্যোগে খুলনা যশোর মহাসড়কের ফুলবাড়ীগেটের বাসস্টান্ডে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেন। ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধনে নির্মম এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত নরপশুদের দ্রæত বিচার আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান। মানববন্ধন থেকে বক্তারা খুনিদের আড়াল করতে এবং হত্যার শিকার শিমুর পরিবারকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি প্রদানে তিব্র নিন্দা জানান। মানববন্ধনে বক্তা করেন, খানজাহান আলী থানা জাতীয় পার্টির আহবায়ক শেখ আনিছুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন খানজাহান আলী থানা শাখার সভাপতি মাওঃ সিরাজুল ইসলাম, সেক্রেটারী মোঃ কামরুজ্জামান, খানজাহান আলী থানা খেলাফত মসলিসের সভাপতি মুফতি আঃ জব্বার, জাপা নেতা কামরুজ্জামান রজব, ইশা আন্দোলন নেতা ফজলুল্লাহ আল মাছুম, আঃ রহিম, ছাত্র নেতা রিফাত, নিহত শিমুর পিতা হালিম হাওলাদার, নানা তোতা শেখ, মামা মাহমুদ শেখ, মা আখি বেগম। মানববন্ধনে এলাকার বিভিন্ন স্থরের মানুষ অংশগ্রহন করেন।
উল্লেখ্য সাদিয়া আক্তার শিমু(৮) দৌলতপুর থানাধীন রেলিগেট সাহেবপাড়া এলাকায় সাদিয়ার মামার বন্ধু সাদ্দামের বাসায় বেড়াতে গিয়ে ২ অক্টোবর ধর্ষণ করে নির্মম ভাবে তাকে হত্যা করা হয়। পরে প্রভাবশালী একটি মহলের যোগসাজসে শিমুর মৃত্যুকে পানিতে ডুবে অপমৃত্যু বলে চালিয়ে দিয়ে থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়। পরবর্তিতে সানজিদা আক্তার শিমুর মৃত্যুর প্রকৃত রহস্য বেরিয়ে আসলে তার নানা তোতা মিয়া বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় ধর্ষণ করে হত্যার অভিযোগ এনে সাদ্দামের শালা মোঃ হাবিবুর রহমান(২০) এবং মহেশ^ারপাশা সাহেবপাড়ার সাদ্দামের স্ত্রী শারমিনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে মামলা নং ১০, তাং ৬/১০/১৮।

কেশবপুরে সাবেক চেয়ারম্যান ও কাউন্সিলরসহ গ্রেফতার ১২
কেশবপুর প্রতিনিধি
কেশবপুর থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে নাশকতা মামলায় বিএনপি-জামায়াতের ১১ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে। অপরদিকে বুধবার দুপুরে কেশবপুর পৌর ভবন এলাকা থেকে বিএনপি সমর্থিত কমিশনার আফজাল হোসেন বাবু(৩৮)কে আটক করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে কেশবপুর থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার দুপুরে গ্রেফতারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ।
কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহিন জানান, মঙ্গলবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার নারায়নপুর পালপাড়া রাস্তার পূর্ব পার্শ্বে একটি আম বাগানের মধ্যে বিএনপি ও জামায়াতের কিছু দুস্কৃতিকারী লোক সরকারকে বেকায়দায় ফেলাসহ আইন-শৃঙ্খলা বিঘœ ও নাশকতা মূলক কর্মকান্ড করে সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার লক্ষ্যে গোপন বৈঠক হচ্ছে। তাৎক্ষনিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছাইলে পুলিশেন উপস্থিতি টের পেয়ে বোমা বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে পালানোর সময় উপজেলার মাদারডাঙ্গা গ্রামের মৃত জিন্নাত আলী মোড়লের ছেলে পাঁজিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও থানা বিএনপির নেতা মাষ্টার মকবুল হোসেন মুকুল (৪৮), আড়–য়া গ্রামের মৃত নেছার আলী সরদারের ছেলে সুফলাকাটি ইউনিয়নের জামায়াতের সেক্রেটারী রেজাউল করিম (৫০), হাড়িয়াঘোপ গ্রামের মৃত তাছের মোড়লের ছেলে ওয়ার্ড জামায়াতের সভাপতি আবদুল আহাদ (৪০), শ্রীফলা গ্রামের মৃত শহর আলী সরদারের ছেলে মজিদপুর ইউনিয়ন বিএনপির নেতা আবদুল রাজ্জাক (৪২), রাজনগর বাঁকাবর্শী গ্রামের গোলাম আলীর ছেলে পাঁজিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বজলূর রশিদ (৪৪), আলতাপোল গ্রামের মৃত রওশন আলী বিশ্বাসের ছেলে পৌর বিএনপির নেতা আবুল কালাম (৪০), ফতেপুর গ্রামের চাঁদ আলী খাঁর ছেলে ওয়ার্ড বিএনপির নেতা ইউসুফ আলী খাঁ (৪০), রামচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত আনছার আলীর ছেলে ওয়ার্ড জামায়াতের নেতা ডাক্তার আবদুল ওহাব (৪০), বালিদাহ গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে উপজেলা ছাত্র শিবিরের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান (৩৫), চিংড়া গ্রামের মৃত নওয়াব আলী সানার ছেলে সাগরদাঁড়ী ইউনিয়ন জামায়াতের নেতা রফিকুল ইসলাম সানা (৪২) ও বেতিখোলা গ্রামের মৃত হাসান শেখের ছেলে সুফলাকাটি ইউনিয়ন বিএনপির নেতা ফরিদ উদ্দীন শেখকে (৪০) গ্রেফতার করা হয়। অজ্ঞাতনামা আরও ২০/৩৫ জন পালিয়ে যায়। এঘটনায় কেশবপুর থানায় বিএনপি ও জামায়াতের কিছু নেতা কর্মীদের নামে থানায় নাশকতা মূলক কর্মকান্ড করে সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করা ও বোমা বিষ্কোরণ ঘটানোর অপরাধে মামলা করা হয়েছে (যার নং- ০৯)। গ্রেফতারকৃতদের বুধবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ।

রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বিভিন্নস্থানে মিছিল-সমাবেশ
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
বর্বোচিত গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ে মূল পরিকল্পনাকারী তারেক জিয়া সহ সকলের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করে বিভিন্নস্থানে মিছিল-সমাবেশ হয়েছে। গতকাল বুধবার আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠন এ কর্মসুচি অনুষ্ঠিত হয়।
সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগের মিছিল ও সমাবেশ : গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ে মূল পরিকল্পনাকারী তারেক জিয়া সহ সকলের সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। নেত্রীবৃন্দ রায়ের পরপরই নগরীর শীববড়ি মোড়ে এক আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা তসলিম আহম্মেদ আশা, মহানগর আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ ফজলুল হক, টিএম আরিফ, জন্নাতুর ফেরদৌস পিকুল, চ ম মুজিবুর রহমান, শেখ জাহিদুল হক, মোঃ ইউসুফ আলী খান, মোঃ জাকির হোসেন হাওলাদার, মোঃ রাজ্জাক হোসেন, আব্দুল কাইয়ুম গোড়া, এস এম রাজুল হাসান রাজু, মোঃ মোক্তার হোসেন, এজাজ পারভেজ বাপ্পী, মোঃ কামরুজ্জামান, আলী আকবর, মোঃ রুহুল আমীন খান, শিপন চৌধুরী, অ্যাডঃ শামীম আহম্মেদ পলাশ, হাজী শাহাদাৎ হোসেন, আয়ুব আলী, তোতা মিয়া, মঈনখান সেলিন, জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, মোঃ মাহবুব মম, অ্যাডঃ রাকিব সিদ্দিকী, মামুন উকিল, শেখ মাসুদ, হাজী এলাহী, রেজাউল করিম, ওয়াসিম আকরাম, ছাত্রনেতা রুমান আহম্মেদ, হামিম ইসলাম আবির, চয়ন পোদ্দার, আরজু প্রমুখ।
বটিয়াঘাটা ঃ ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার রায়কে স্বাগত জানিয়ে বটিয়াঘাটা উপজেলা ছাত্রলীগ গতকাল সকাল ১০টায় এক অবস্থান কর্মসূচী ও বিক্ষোভ মিছিল বের করে। সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক অতনু মন্ডলের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অলোক মল্লিক, পার্থ রায়, শান্তনু বিশ্বাস, পাপ্পু মহালদার, অমৃত সরকার, আশিকুর রহমান, জাবেদ মোল্লা, অর্ঘ সরকার, চয়ন মন্ডল, অনুপ মন্ডল, সুরেস রায়, মেহেদি প্রমূখ।
বাগেরহাটে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ ঃ বাগেরহাট প্রতিনিধি জানান, ২১ এ আগষ্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘোষণার পর বাগেরহাটে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ। বুধবার দুপুরে বাগেরহাট শহরের রেলরোডস্থ দলীয় কার্যালয় থেকে মিছিলটি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে তারা দলীয় কার্যালয়ের সামনে এক সমাবেশ করে। বৃষ্টির মধ্যে আনন্দ মিছিলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগ ও সেচ্ছাসেবক লীগের কয়েকশ নেতাকর্মী অংশ নেন।বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে জামায়াত বিএনপি পরিকল্পিতভাবে ওই গ্রেনেড হামলা চালিয়েছিল। ১৪ বছর পরে এই মামলার রায়ে আদালত সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ২০ জনকে মৃত্যুদন্ড দেয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করলেও মূল আসামী তারেক রহমানের মৃত্যুদন্ড না হওয়ায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারা অবিলম্বে এই রায় কার্যকর করার দাবি জানিয়েছেন।সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খান হাবিবুর রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আকতারুজ্জামান বাচ্চু, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বশিরুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের আহŸায়ক সরদার নাসির উদ্দিন প্রমূখ। এদিকে রায়কে ঘিরে বাগেরহাটে সব ধরনের বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনী কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নিয়েছে। পুলিশের পোষাক ও সাদা পোষাকধারী অন্তত ২০টি দল শহরের বিভিন্ন স্থানে টহল দিচ্ছে।
ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগের র‌্যালি ও সমাবেশ ঃ ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানান, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় লুৎফুজ্জামান বাবর ও আব্দুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনকে মৃত্যুদন্ডাদেশ ও তারেক রহমান ও হারিছ চৌধুরীসহ ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেওয়ায় ঝিনাইদহে আনন্দ র‌্যালি ও সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ।
জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বুধবার দুপুরে শহরের পোষ্ট অফিস মোড় থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে পায়রাচত্বরে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মকবুল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রানা হামিদ, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।
এসময় ক্তারা বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় দেওয়ার মধ্যে দিয়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে। তারা দ্রæত এ রায় কার্যকরের দাবি জানান।
তারেকের ফাঁসির দাবিতে যশোরের রাজপথে আওয়ামীলীগ
যশোর অফিস ঃ যশোর প্রতিনিধি জানান, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ফাঁসির রায়ের দাবিতে যশোরের রাজপথে অবস্থান নিয়েছেন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। বুধবার আদালতের রায় ঘোষণার পরপরই দলটির নেতাকর্মীরা রাস্তায় নামেন।
আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে শহরের সাধারণ মানুষের মধ্যে লিফলেট বিতরণের পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি ছিলো দলটির। এজন্য নেতাকর্মীরা বেলা ১১টার দিকে শহরের খাজুরা বাস স্টান্ডে অবস্থান নেন। কিন্তু ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায় ঘোষণার পরপরই তারা আগের কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করে শহরে মিছিল বের করেন। এছাড়া বিভিন্ন এলাকা থেকে খন্ড খন্ড মিছল এসে জড়ো হয় আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে।সেখানে অবস্থান নিয়ে নেতাকর্মীরা তারেক রহমানের ফাঁসি দাবি করে বিভিন্ন শ্লোগান দিয়েছেন।
যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু, সদস্য কাজী আলম, শহর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইমাম হাসান লাল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল, বর্তমান সভাপতি রওশন ইকবাল শাহীর নেতৃত্বে কয়েকশ’ নেতাকর্মী এখন অবস্থান কর্মসূচি পালন করে।
যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার বলেন, ’২১ আগস্টের ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ড তারেক রহমান। আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করতে আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সেদিন হত্যার পরিকল্পনা করে এই তারেক রহমান। এজন্য আমরা তার ফাঁসি দাবি করছি।’
মহানগর শ্রমিক লীগ ঃ ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে এক বিবৃতি প্রদান করেন খুলনা মহানগর শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন, সভাপতি আবুল কাশেম মোল্লা, সধারণ সম্পাদক রনজিত কুমার ঘোষ, মোঃ মোতালেব মিয়া, সৈয়দ এমদাদুল হক, শেখ মখলুকার রহমান, মোঃ নাসিরুজ্জামান, সেলিম রাজু, সাঈফ হুমায়ুন কবির, মোঃ লুৎফর রহমান, মল্লিক নওশের আলী, দুলাল মল্লিক, আলহাজ্ব মোঃ ফারুক হোসেন, মোঃ বাবুল হোসেন বাবুল, কাজী আঃ ওহাব, মোঃ জহিরুদ্দিন, আব্দুর রহিম খান, মোঃ মাহাবুব হাসান শামীম, মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, মোল্লা আজাদ আলী, আঃ রশিদ শিকদার, মোঃ আসাদুজ্জামান মুন্না, শরীফ মোর্ত্তজা আলী, মোঃ ইউনুস মুন্সী, খন্দকার রফিকুল ইসলাম, মোঃ আলাউদ্দিন, মোঃ হাবিবুর রহমান হাবি, মোঃ মতিউর রহমান, মোঃ আনিছুর রহমান, শেখ মোঃ রমজান, মোঃ মনিরুল ইসলাম, মুন্সী হেকমত আলী, হুমায়ুন কবির খান হিমু, মোঃ মোক্তাহিদুর রহমান অপু, মোঃ শরিফুল ইসলাম, তারিকুল ইসলাম বারেক, মোঃ জামাল হোসেন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, মোঃ মাহাবুব হোসেন বুলু, মোঃ আক্তার হোসেন, মোঃ শরিফুল, নাসরিন আক্তার, সাদিয়া আক্তার মুক্তা, হুমায়ুন কবির মোল্লা, জাকির হোসেন বিপ্লব, মোঃ আনিছুর রহমান, এস.এম. ইমরুল আলম, হানিফ সরদার ও জাবেদ মিয়া প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে আমরা সন্তুষ্ট হলেও, খুলনা সকল পর্যায়ের শ্রমিক সমাজের পক্ষ থেকে এই হামলার প্রধান মদদদাতা তারেক রহমানের ফাঁসির দাবি জানাই এবং রাষ্ট্রপক্ষের আপীল চাই।

দুর্যোগ এলাকায় হাইজিন সেনিটেশন বিষয়ক কর্মশালা
খবর বিজ্ঞপ্তি
স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সমূহের ক্ষমতা ও বিকেন্দ্রকরণের মাধ্যমে বাংলাদেশের দুর্যোগ এলাকায় হাইজিন, সেনিটেশন ও পানি সরবরাহ সেবা প্রদান করতে হবে। সাথে সাথে সামর্থ্য বৃদ্ধি ও ক্ষমতা বিকেন্দ্রকরণের মাধ্যমে জনগণের মালিকানা ও ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে হবে এবং টেকসই প্রযুক্তি ও ফলাফলের উপর গুরুত্ব দেওয়ার মাধ্যমে কার্যকারিতা ও দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে। গতকাল বুধবার দিনব্যাপী খুলনার আভা সেন্টারে অনুষ্ঠিত এক কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন।
কর্মশালাটি হাইসাওয়া-এসডিসি এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন হাইসাওয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ নুরুল ওসমান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার, খুলনা স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক হোসেন আলী খোন্দকার, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন এবং স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ইশরাত জাহান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাইসাওয়া’র সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মোঃ রিফাতুল ইসলাম।

প্রধানমন্ত্রীকে নগর শ্রমিক লীগের অভিনন্দন
খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনার সড়ক অবকাঠামো উন্নয়নে একনেকে ৬০৮ কোটি টাকা পাশ করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মানবতার মা, উন্নয়নের রোল মডেল, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে এক বিবৃতি প্রদান করেন খুলনা মহানগর শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন, সভাপতি আবুল কাশেম মোল্লা, সধারণ সম্পাদক রনজিত কুমার ঘোষ, মোঃ মোতালেব মিয়া, সৈয়দ এমদাদুল হক, শেখ মখলুকার রহমান, মোঃ নাসিরুজ্জামান, সেলিম রাজু, সাঈফ হুমায়ুন কবির, মোঃ লুৎফর রহমান, মল্লিক নওশের আলী, দুলাল মল্লিক, আলহাজ্ব মোঃ ফারুক হোসেন, মোঃ বাবুল হোসেন বাবুল, কাজী আঃ ওহাব, মোঃ জহিরুদ্দিন, আব্দুর রহিম খান, মোঃ মাহাবুব হাসান শামীম, মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, মোল্লা আজাদ আলী, আঃ রশিদ শিকদার, মোঃ আসাদুজ্জামান মুন্না, শরীফ মোর্ত্তজা আলী, মোঃ ইউনুস মুন্সী, খন্দকার রফিকুল ইসলাম, মোঃ আলাউদ্দিন, মোঃ হাবিবুর রহমান হাবি, মোঃ মতিউর রহমান, মোঃ আনিছুর রহমান, শেখ মোঃ রমজান, মোঃ মনিরুল ইসলাম, মুন্সী হেকমত আলী, হুমায়ুন কবির খান হিমু, মোঃ মোক্তাহিদুর রহমান অপু, মোঃ শরিফুল ইসলাম, তারিকুল ইসলাম বারেক, মোঃ জামাল হোসেন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, মোঃ মাহাবুব হোসেন বুলু, মোঃ আক্তার হোসেন, মোঃ শরিফুল, নাসরিন আক্তার, সাদিয়া আক্তার মুক্তা, হুমায়ুন কবির মোল্লা, জাকির হোসেন বিপ্লব, মোঃ আনিছুর রহমান, এস.এম. ইমরুল আলম, হানিফ সরদার ও জাবেদ মিয়া প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

বাগেরহাটে উন্নত চুলার ব্যবহার বৃদ্ধিতে অবহিতকরণ সভা
বাগেরহাট প্রতিনিধি
বাগেরহাটে উন্নত চুলার ব্যবহার বৃদ্ধি করতে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বাগেরহাট সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ইউনিসেফ, প্রাক্টিক্যাল এ্যাকশনের সহযোগিতায় উপকূলীয় উন্নয়ন সংস্থা সুপ্তি মহিলা উন্নয়ন সংস্থার আয়োজনে উন্নত চুলার ব্যবহার বৃদ্ধির মাধ্যমে কিশোর বালক বালিকাদের আয়ের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান মুজিবর রহমান। বাগেরহাট জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী এসএম শামীম আহম্মেদের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ তানজিল্লুর রহমান, মহিলা ভঅইস চেয়ারম্যান এ্যাড. পারভীন আহমেদ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিপার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ মোশারেফ হোসেন, ইউনিসেফ, খূলনা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাহিদ মাহমুদ, সুপ্তি মহিলা উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ঝিমি মন্ডল, প্রকল্প ব্যবস্থাপক মোঃ সাঈদ উর রহিম মাহাদি, সমন্বয়ক এস.এম মোতাকাব্বিরুল হক, সদর উপজেলা বিআরডিবির চেয়ারম্যান সরদার শুকুর আহমেদ, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ সমশের আলী প্রমুখ।
আয়োজকরা জানান, বাগেরহাট সদর উপজেলার ষাটগম্বুজ, কারাপাড়া ও গোটাপাড়া ইউনিয়নের ১২টি গ্রামে প্রাথমিক পর্যায়ে উন্নত চুলার ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য ১০টি বিদ্যালয়ের এক হাজার শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষন দেয়া হবে। প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত ২০ জন শিক্ষার্থীরা চেঞ্জ এজেন্ট হিসেবে কাজ করবে। এরা উন্নত চুলার ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য সচেতনতামূলক কাজ করবে। এ প্রকল্পের অধীনে এক হাজার পরিবার বিনামূল্যে উন্নত চুলা প্রদান করা হবে। সাথে সাথে ৪৫ হাজার নারী পুরুষকে উন্নত চুলার সুবিধার আওতায় আনা হবে।

বাগেরহাটে বঙ্গবন্ধুর মুড়াল স্থাপনের সিদ্ধান্ত জেলা প্রসাশনের
বাগেরহাট প্রতিনিধি
বাগেরহাটে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুড়াল স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন। এ উপলক্ষে বুধবার সকালে বাগেরহাট সার্কিট হাউসে এক প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাসের সভাপতিত্বে প্রস্তুতি সভায় বক্তব্য দেন পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ জহিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ শাহিন হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মোঃ মোজাফফর আহমেদ, বাগেরহাট প্রেসক্লাবের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শেখ আজমল হোসেন, এ্যাড. মিলন ব্যানার্জি প্রমুখ। প্রস্তুতি সভায় বাগেরহাট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি মুড়াল স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ মাসের মধ্যেই এ মুড়ালের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হবে। এ লক্ষে মুড়াল স্থাপন কমিটি, ডিজাইন কমিটি ও নির্মান কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ বছরের নভেম্বর মাসেই এ মুড়াল উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস। মুড়াল দ্রæত বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

মানবাধিকার কমিশনের মাদক বিরোধী আলোচনা
খবর বিজ্ঞপ্তি
জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশন কর্তৃক অনুমোদিত বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের, খুলনা বিভাগ, খুলনা, খুলনা সদর থানা শাখা ও হযরত ধর্মপীর (রহঃ) বৃদ্ধ নিবাস-এর যৌথ উদ্যোগে মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে শিক্ষার সাথে চরিত্র গঠন ও শিক্ষক-শিক্ষিকার ভূমিকা শীর্ষক এক আলোচনা সভা মানবাধিকার কমিশনের খুলনা বিভাগীয় সমন্বয়কারী এ্যাডভোকেট শেখ অলিউল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার, খুলনা বিভাগ, খুলনা মোহাম্মদ ফারুখ হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি), খুলনা, গোলাম মাঈনউদ্দিন হাসান, উপ-পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা খুলনা অঞ্চল, খুলনা এস কে মোস্তাফিজুর রহমান, সুপারেনটেন্টেন্ড অব পিটিআই স্বপন কুমার বিশ্বাস, বিশিষ্ট সমাজসেবক ও মানবাধিকার কমিশনারের আজীবন সদস্য সৈয়দ নজরুল ইসলাম টুটুল। অন্যান্যের মধ্যে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনÑসৈয়দা ফেরদৌসী বেগম, অচিন্ত্য কুমার মৃধা, মিহির হালদার, মোঃ জাবেদ, মোঃ হায়দার আলী, জি এম বাবুল, তাসলিমা আক্তার লিমা, শিরিনা পারভিন, জেসমিন সুলতানা সম্পা, ইলা রহমান, রাশিদা চৌধুরী, শেখ সোহেল, মোঃ আইয়ুব আলী প্রমুখ।
প্রধান অতিথি তার বক্তৃতায় বলেন, সমাজ থেকে মাদকমুক্ত করতে হলে প্রথমে পরিবার থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। সাথে সাথে ইসলাম ধর্মের আদর্শ অনুশীলন করলে সমাজ থেকে মাদকমুক্ত করা সম্ভব। প্রধান অতিথি মানবাধিকার কমিশনের সকল মহৎ কর্মের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

আলীপুর ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের আহবায়ক কমিটি গঠন
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
জাতীয় শ্রমিক লীগ সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়ন শাখার আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০ টায় সদর উপজেলা শ্রমিকলীগের কার্যালয়ে আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। মোঃ নজরুল ইসলাম কে আহবায়ক ও মোঃ আকরাম হোসেন কে সদস্য সচীব করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি গঠন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা শ্রমিক লীগের আহবায়ক আব্দুল্লাহ সরদার, সদস্য সচীব সদস্য সচিব মোঃ জাহিদ হোসেন। আরো উপস্থিত ছিলেন আলীপুর ইউনিয়ন সাংগঠনিক সম্পাদক শিক্ষক ও সাংবাদিক জাহাঙ্গীর হোসেন সহ আওয়ামীলীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

তালায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক স্কুলের অভিভাবক সমাবেশ
তালা প্রতিনিধি
তালা উপজেলার মাগুরা প্রতীক্ষা বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক স্কুলের অভিভাবক ও সুধী সমাবেশ মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্কুলের প্রতষ্ঠাতা সভাপতি ও তালা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলুর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দীন জোয়াদ্দার,অধ্যক্ষ রামপ্রসাদ দাস,মাগুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, প্রতীক্ষা ফাউন্ডেশনের পরিচালক উত্তম সেন,বিধান দাস,প্রধান শিক্ষক সন্তোষ দাস,আওয়ামী লীগ নেতা দেবাশীষ মুখ্যার্জী প্রমুখ। সমাবেশ শেষে শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়।

তালা মুক্তিযোদ্ধা কলেজের শিক্ষার্থী তামজিদের জাবিতে প্রথম স্থান
তালা প্রতিনিধি
২০১৮ সালের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) সি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় তালার শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তামজিদ হোসেন মেধা তালিকায় ১ম স্থান অধিকার করেছে। সে তালার পরানপুর গ্রামের আজিজুর রহমানের ছেলে। ইতিপূর্বে সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ম স্থান অধিকার করেছে। তাছাড়া একই মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাইকেল সরকার ও শুভ হালদার ঢাকাবিশ্ববিদ্যালয়ের খ ইউনিটেয থাক্রমে ১৯৯ ও ৮৬২তম স্কোর করেছে। তারা সকলে ২০১৮ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় সুনামের সাথে জি,পি,এ ৫ পেয়ে প্রতিষ্ঠানের মুখ উজ্জ্বল করেছে। তারা তাদের সাফল্যের জন্য অধ্যক্ষসহ শিক্ষক-কর্মচারীর কাছে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছে। এ প্রসঙ্গে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ এনামুল ইসলাম বলেন, আমরা ভাল ফলাফল এবং ভাল মানুষ গড়ে তোলার লক্ষ্যে নানান পদক্ষেপ গ্রহণ করে থাকি। তারই ধারাবাহিকতায় আজকের এই সাফল্য।

ঝিনাইদহে ফেন্সিডিলসহ মা-মেয়ে আটক
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
ঝিনাইদহ শহরের মহিলা কলেজপাড়া এলাকা থেকে ফেন্সিডিলসহ মা ও মেয়েকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার মহিলা কলেজপাড়া এলাকার মাদ্রাসা সড়কের একটি বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়।
আটকৃতরা হলো- মাগুরার পারনান্দুয়ালী গ্রামের মৃত আবু বক্করের স্ত্রী রোকেয়া বেগম (৫০) ও তার মেয়ে ফাতেমা বেগম (৩৫)। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি (অপারেশন) মহসীন হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারে মহিলা কলেজপাড়া এলাকার মাদ্রাসা সড়কের একটি বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক ক্রয়-বিক্রয় করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালিয়ে ৬০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ওই দুই জনকে আটক করে। আটককৃতরা শহরের বিভিন্ন স্থানে বাসা ভাড়া থেকে মাদক ব্যবসা করে আসছিল বলে জানায় পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় মাদক আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ফকিরহাটে ডেমনস্ট্রেসন ভেড়ার খামারের বাউন্ডারী নির্মাণ কাজের উদ্বোধন
ফকিরহাট প্রতিনিধি
বাগেরহাটের ফকিরহাটের শুকদাড়ায় অবস্থিত ডেমনস্ট্রেসন সরকারি ভেড়ার খামার এর বাউন্ডারী ওয়াল ও সাইড ডির্পারমেন্টাল এর নেআউট প্রদানের উদ্বোধন গতকাল বুধবার সকালে অফিস চত্তরে অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধান অতিথি হিসাবে এর উদ্ভোধন করেন, প্রকল্প পরিচালক ডাঃ হাবিবুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ডিএলও ডাঃ সাইফুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সহকারী পরিচালক ও মহিষ প্রজনন উন্নয়ন খামারের (ভারপ্রাপ্ত) ম্যাানেজার ডাঃ মোঃ লুৎফার রহমান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ হাসানুজ্জামান, ডেমনস্ট্রেসন সরকারী ভেড়ার খামার এর ম্যানেজার ডাঃ মোঃ মঞ্জুরুল হাসান, বেতাগা ট্রের্ডাস এর পক্ষে আনন্দ কুমার দাশ, অলিপ কুমার দাশ ও ফকিরহাট অনলাইন সাংবাদিক এ্যাসোসিয়েশনের আহবায়ক সাংবাদিক পি কে অলোক প্রমুখ। পরে প্রধান অতিথি ভেড়ার খামারের বাউন্ডারী ওয়াল ও সাইড ডিপারমেন্টাল এর নেআউট প্রদানের মাধ্যমে এর শুভ উদ্বোধন করেন।

কেশবপুরে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদযাপিত
কেশবপুর প্রতিনিধি
কেশবপুর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা শিশু একাডেমীর আয়োজনে এবং দলিত হারচয়েস প্রকল্পের সহযোগিতায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবস-২০১৮ উপলক্ষে বুধবার কন্যা শিশু সমাবেশ, র‌্যালী, দেশেরগান প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার পতœী ও উপজেলা লেডিস ক্লাবের সভাপতি শাহানাজ সুলতানার সভাপতিত্বে এবং উপজেলা শিশু বিষয়ক অফিসার বিমল কুমার কুন্ডুর পরিচালনায় উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার কানিজ ফাতেমা শেফা, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস আর সাঈদ, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার তরিকুল ইসলাম ও দলিত হারচয়েস প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক নাজমিন নাহার।

কেশবপুরে কমিউনিটি সেন্টারের উদ্বোধন
কেশবপুর প্রতিনিধি
কেশবপুর শহরের হাসপাতাল রোডে বুধবার সকালে গাজী হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্ট, গাজী কমিউনিটি সেন্টার ও আবাসিক হোটেল কিছুক্ষণ উদ্বোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গাজী গ্রæপের স্বত্তাধিকারী নাসির আহম্মেদ গাজীর সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব হাসান সাদেক, পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমিন, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর শেখ এবাদত সিদ্দিক বিপুল, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ নাহিদ হাসান, প্রজন্মলীগের জেলা সদস্য আশরাফুজ্জামান, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাবেয়া ইকবাল প্রমুখ। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাওঃ আব্দুল জলিল।

শার্শার দাদখালী মাদ্রাসার গাছ জোর করে বিক্রি করার অভিযোগ
বেনাপোল প্রতিনিধি
শার্শার কায়বা ইউনিয়নের দাদখালী মাদ্রসার ও সরকারি জমির উপর থাকা ৮ টি মেহগনী গাছ বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ করেছে ভারত বাংলাদেশ এর রুদ্রপুর সীমান্তের ঘাটমালিক আব্দুল কাদের ও তার ভগ্নিপতি গোলাম রছুল এর বিরুদ্ধে স্থানীয়রা। এছাড়া স্থানীয়রা শার্শার বাগআচঁড়া ফাঁড়িত একটি অভিযোগ ও দায়ের করেছে।
বুধবার সরেজমিনে যেয়ে দেখা গেছে দাদখালি মাদ্রাসার সামনে মেহগনি গাছের গোড়া খোচা হয়েছে ও গাছের ডালপালা কাটা হয়েছে। পাশের একটি আমগাছ কেটে সেখানে মাটি ভরাট করে রেখেছে। মাদ্রাসার সামনে যে গাছ রয়েছে এর ভিতর কিছু গাছ সরকারি রাস্তার সাথে রোপন করা হয়েছে। যে গাছ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ লাগালে ও গাছগুলি সরকারী জমির উপর রয়েছে। এবং সেই গাছ ও কাটার জন্য খোড়া হয়েছে।
কায়বা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য আসতম আলী এবং দাদাখালী গ্রামের হারুন অর রশীদ বলেন, মাদ্রাসায় বর্তমানে কোন কামিটি না থাকায় জোর করে চোরকারবারি সিন্ডিকেটের ঘাট মালিক কাদের ও তার ভগ্নিপতি গোলাম রসুল ২ লক্ষ টাকায় ৮ টি গাছ বিক্রি করে দিয়েছে। অভিযোগকারীরা বলেন মাদ্রাসায় যে কমিটি ছিল সে কমিটির কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়ে জোর পূর্বক সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তিরা গাছ বিক্রি করে ফায়দা লুটছে।
এ ব্যাপারে গোলাম রসুল এর সাথে কথা বললে সে বলে আমরা ২লাখ টাকায় কোন গাছ বিক্রি করি নাই। আমরা ৭ টি গাছ ৪০ হাজার টাকায় বিক্রি করেছি মাদ্রাসা উন্নয়ন করার জন্য। মাদ্রাসার কোন কমিটি না থাকায় সেখানে আপনারা কিভাবে এ গাছ বিক্রি করলেন এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আমরা এতটা বুঝে উঠতে পারি নাই, মাদ্রাসার চাল দিয়ে পানি পড়ে তাই গাছ বিক্রি করে তা মেরামতের জন্য বিক্রি করেছি।
ঘাট মালিক কাদেরের বাড়ি ও অনেক সময় সেখানে অপেক্ষা করার পর ও তাকে পাওয়া যায়নি।
কায়বা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ টিংকু বলেন আমি জানি মাদ্রাসায় কোন কমিটি নাই। এভাবে গাছ বিক্রি করতে পারে না। আমি তাদের বলেছি কমিটি গঠন করে রেজুলেশন করে গাছ বিক্রি করতে হবে।
এ ব্যাপারে বাগআঁচড়া পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ মামুন বলেন আমার এখানে একটি অভিযোগ এসেছে। আমরা সেখানে যেয়ে তদন্ত করে বিষয়টি দেখব।

কপিলমুনিতে আ’লীগ নেতা মনিরুলের গণসংযোগ
কপিলমুনি প্রতিনিধি
কপিলমুনিতে খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছার) সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ মোঃ নূরুল হকের পক্ষে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহবান জানিয়ে গণসংযোগ ও সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে কপিলমুনি বাজারে লিফলেট বিতরণ করেছেন খুলনা জেলা আ’লীগের সদস্য আলহাজ্ব শেখ মনিরুল ইসলাম।
বুধবার দুপুর ১২ টার দিকে কপিলমুনি বাজারের বিভিন্ন সড়কে এই লিফলেট বিতরন করেন। এসময় সাথে ছিলেন, উপজেলা আ’লীগের সাবেক সাঃ সম্পাদক মোঃ আফসার আলী, কপিলমুনি ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি যুগোল কিশোর দে, হরিঢালী ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সরদার গোলাম মোস্তফা, কপিলমুনির পুলিশিং কমিটির সভাপতি সাধন চন্দ্র ভদ্র, পুজা উদযাপন পরিষদের রতন ভদ্র, আ’লীগ নেতা ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম, পাইকগাছা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ মশিয়ার রহমান, সাঃ সম্পাদক তানজীন মোস্তাফিজ বাচ্চু, আঃ রাজ্জাক ফকির, বাবুলাল বিশ্বাস, যুবলীগ নেতা সরদার জালাল, প্রনব কান্তি মন্ডল, কপিলমুনি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান মোল্যা, সাধারন সম্পাদক আল মামুন, কলেজ ছাত্রলীগ এর সভাপতি আজমল হোসেন বাবু, সাঃ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

দেবহাটায় আইডিয়ালের উপকারভোগীদের মাঝে ফলদ চারা বিতরন
দেবহাটা প্রতিনিধি
দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়াস্থ বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা আইডিয়ালের উদ্যোগে প্রতিবছরের ন্যায় এবারো উপকারভোগী দরিদ্র পরিবারের মাঝে ফলদ চারা বিতরন করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব কার্য্যালয় প্রাঙ্গনে সকাল ১১ টায় উক্ত চারা বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দেবহাটা উপজেলার ২নং পারুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন পারুলিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড সদস্য সালাউদ্দীন শরাফী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইডিয়াল সংস্থার পরিচালক কৃষিবিদ ডাঃ নজরুলইসলাম। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন আইডিয়ালের সমন্বয়কারী শাহাদাত হোসেন। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গাছের বিশেষ ভ‚মিকা সম্পর্কে আলোকপাত করেন এবং বেশী বেশী গাছ লাগানোর জন্য উপস্থিত সকলকে উদ্বুদ্ধ করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতি গাছ রোপন করার কৌশলের পাশাপাশি গাছের পরিচর্যা ও সংরক্ষন এবং গাছের বিশেষ উপকারীতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা রাখেন। অনুষ্ঠান শেষে আইডিয়াল সংস্থার পক্ষ থেকে ২০০জন উপকারভোগীর মাঝে প্রতিজনকে ১টি আম এবং ১টি কদবেল চারা সর্বমোট ৪০০ চারা বিতরন করা হয়।

ডুমুরিয়ায় সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের বিবৃতি
ডুমুরিয়া প্রতিনিধি
কুষ্টিয়া উপজেলা সাব-রেজিষ্টার নুর মোহম্মদ শাহ কে সন্ত্রাসী কর্তৃক নৃশংস হত্যার প্রতিবাদে খুনীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবি ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা এবং মরহুমের আতœার মাগফিরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন ডুমুরিয়া সাব-রেজিষ্টী অফিস পরিবার। এরা হলেন সাব-রেজিষ্টার মোঃ মোহায়মেনুর রহমান, অফিস সহকারী জিএম সিরাজুল ইসলাম, শেখ মাসুম বিল্লাহ, প্রশান্ত কুমার মন্ডল, তপন কুমার চক্রবর্ত্তী, মোঃ মোজাফ্ফার হোসেন প্রমূখ।

রায়েন্দা পাইলট হাইস্কুলের ছাত্রদের আনন্দ র‌্যালী
শরণখোলা প্রতিনিধি
শরণখোলায় রায়েন্দা পাইলট হাইস্কুল সরকারী ঘোষণায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটি এক আনন্দ র‌্যালী করে।
গতকাল সকালে উপজেলা সদর রায়েন্দা বাজারে রায়েন্দা পাইলট হাইস্কুলের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা এ আনন্দ র‌্যালীতে অংশ নেয়। র‌্যালীটি রায়েন্দা বাজারের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এসময় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কামাল উদ্দিন আকন উপস্থিত থেকে র‌্যালীর নেতৃত্ব দেন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুলতান আহমেদ গাজী জানায়, গত ৯ অক্টোবর সরকারীকরণের ঘোষণা (জিও) দেয়। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনন্দ র‌্যালীর মাধ্যমে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে।

বেনাপোল সীমান্তে অজ্ঞান পার্টির সদস্য আটক
যশোর অফিস
বিভিন্ন পরিবহনে ভারতগামী যাত্রীদের সঙ্গে সখ্যতা করে খাবারের সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশ্রণকারী বোরহান শেখ (৪০) নামে অজ্ঞান পার্টির এক সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।
মঙ্গলবার সকালে বেনাপোল আন্তর্জাতিক বাস টার্মিনাল থেকে পোর্ট থানা পুলিশ তাকে আটক করে।
আটক বোরহান বাগেরহাট জেলার মোল্লারহাট উপজেলার চরকান্দি গ্রামের রুস্তম শেখের ছেলে।
পুলিশ ও যাত্রীরা জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সোহাগ পরিবহনে যাত্রীর ছদ্মবেশে ওঠে অজ্ঞান পার্টির সদস্য বোরহান। মাঝপথে তার পাশের সিটে বসা যাত্রীর সঙ্গে সখ্যতা করে খাবারের সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে খাওয়ান। পরে ওই যাত্রী অজ্ঞান হয়ে পড়লে সে যাত্রীর পকেট ও ব্যাগ তল্লাশি শুরু করে। এসময় পাশের সিটে বসা অন্য যাত্রীদের সন্দেহ হলে তারা বোরহানকে ধরে ফেলে। পরে বেনাপোল পৌঁছে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শাহিন জানান, ঘুমের ওষুধ জব্দ করা হয়েছে। আটকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

জাপান যাচ্ছেন যবিপ্রবির ৫ শিক্ষার্থী
যশোর অফিস
সায়েন্টিফিক ট্যুরে জাপান যাচ্ছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি (এনএফটি) বিভাগের পাঁচ জন শিক্ষার্থী। সফরে তাদের সুপারভাইজার হিসেবে থাকবেন বিশ^বিদ্যালয়ের ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন ড. মো: ওমর ফারুক। আগামী ১৪ অক্টোবর জাপানের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বেন তাঁরা।
সায়েন্টিফিক ট্যুরে যাঁরা যাচ্ছেন তাঁরা হলেন- পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগের শিক্ষার্থী ঊর্মিলা রায়, আরাফাত হোসেন রাজন, শ্রাবন্তী বিশ^াস, বিথী খাতুন এবং মো: আল-মামুন। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি, ইবারাকির আমন্ত্রণে জাপান সফরে যাবেন তারা। এই সফরের সকল আর্থিক সহায়তা দেবে জাপান সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি এজেন্সি (জেএসটি)।
এই সফরে শিক্ষার্থীরা সেদেশের পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিষয়ে অত্যাধুনিক গবেষণাগার, শিল্প ও কল-কারখানা পরিদর্শন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা, সেমিনারে অংশ নেওয়াসহ শিক্ষামূলক বিভিন্ন কর্মকাÐে অংশগ্রহণ করবেন। আগামী ২৫ অক্টোবর তাঁদের দেশে ফিরে আসার কথা রয়েছে।
জাপান সফরের সময় বাংলাদেশের যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের সঙ্গে জাপানের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি, ইবারাকির মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হবে। এ সমঝোতা স্মারকের উদ্দেশ্যে হচ্ছে দুই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মতবিনিময়, যৌথ গবেষণা, যৌথ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সভা, সিম্পোজিয়াম এবং লেকচারের আয়োজনসহ শিক্ষা ও গবেষণাকে এগিয়ে নেওয়া।

রূপসায় শ্রমিকলীগের প্রস্তুতিমূলক সভা
রূপসা প্রতিনিধি
জাতীয় শ্রমিকলীগের ৪৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে রূপসা উপজেলা শ্রমিকলীগের উদ্যোগে গত ১০ অক্টোবর বিকেল ৫টায় উপজেলা হকার্স ইউনিয়নের প্রধান কার্যালয়ে এক প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মো. মফিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. কুতুব উদ্দিনের পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন জেলা মহিলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মনিরা সুলতানা। বক্তৃতা করেন শ্রমিকলীগ নেতা ফজলু মাতুব্বার, জাহাঙ্গীর শেখ, ইসহাক শেখ, মুজাহিদ শেখ, সোহেল হোসেন লিটন, জামাল শেখ, মোতালেব হোসেন, লিপু সরদার, জাহিদ হাসান, কবির শেখ, মেহেদী হাসান, আ. রাজ্জাক খান, হায়দার আলী, রাজা, সাঈদ খান সাগর, কামরুল ইসলাম, ইশারাত হাওলাদার, শেখ আরিফুল প্রমুখ।

দুর্গোৎসব উপলক্ষে অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে বস্ত্র বিতরণ কাল
স্টাফ রিপোর্টার
দুর্গোৎসব উপলক্ষে অস্বচ্ছল মানুষের মাঝে নতন বস্ত্র বিতরণ আগামী কাল শুক্রবার। বিকেল ৪টায় বানরগাতী সার্বজনীন পূজা মন্দির প্রাঙ্গনে শ্রীমদ্ভগবদগীতা ফাউন্ডশন এর আয়োজন করেন।
প্রধান অতিথি থেকে উদ্বোধন করবেন খুলনার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার। বিশিষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ পরিষদ নগর শাখার সভাপতি শ্যামল হালদার, সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুন্ডু, কেএমপি’র সিনিয়র সহকারী কমিশনার গোপীনাথ কানজিলাল, ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলী আকবার টিপু, খুলনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুবীর রায় ও বানরগাতী সার্বজনীন পূজা মন্দির কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ মাধব চন্দ্র রায়।
সভাপতিত্ব করবেন শ্রীমদ্ভগবদগীতা ফাউন্ডশন’র সভাপতি দেবাশীষ কর্মকার এবং অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন সাধারণ সম্পাদক নিতাই বিশ্বাস।

ফুল প্রদানকারীদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ
স্টাফ রিপোর্টার
দুর্গা পূজা উপলক্ষে পূজার ফুল প্রদানকারীদের মাঝে নতুন বস্ত্র বিতরণ করা হয়। বাজার কালিমন্দিরে গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় এর আয়োজন করা হয়। কালিবাড়ি মন্দরে পূজার জন্য যে মহিলারা স্বেচ্ছায় এসে ফুল প্রদান করেন এমন অস্বচ্ছল মহিলাদের মাঝে নতুন বস্ত্র বিতরণ করা হয়। সুশান্ত ব্যানার্জী, চঞ্চল ব্যানার্জী ও উজ্জল ব্যানার্জীর ব্যবস্থাপনায় এ বস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে।
এসয় সুব্রত হালদার তপা, ভোলানাথ ভট্টচার্য ও প্রশান্ত ব্যানার্জীসহ ভক্তবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পূজা কমিটির নেতার মা ও বাবা স্মরণে প্রার্থনা সভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ নগর শাখার প্রচার সম্পাদক সুব্রত হালদার তপার মা অমিয়া বালা হালদার, বাবা শৈলেন্দ্র নাথ হালদার, বোন উমা রানী দত্ত ও রমা রানী ব্যানার্জী স্মরণে প্রার্থনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। গত মঙ্গলবার সকালে কালিবাড়ি কালিমন্দির প্রাঙ্গনে মহালয়া উৎসব উপলক্ষে এর অয়োজন করা হয়। এ সময় বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও পূজার অয়োজন করা হয়েছে।
উপস্থিত ছিলেন পূজা উদ্যাপন পরিষদ নগর শাখার সভাপতি শ্যামল হালদার, শিবচন্দ্র ব্যানার্জী, তোতন হালদার, শুশান্ত ব্যানার্জী, ভোলানাথ ভট্টচার্য, স্বপন সরকার, চঞ্চল ব্যানার্জী, উজ্জল ব্যানার্জী, প্রশান্ত ব্যানার্জী, আকাশ ব্যানার্জীসহ নেতৃবৃন্দ। পরে ভক্তদের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হয়।

বটিয়াঘাটার সুরখালী ইউনিয়ন
আওয়ামীলীগের আলোচনা সভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
২০০৪ সালে ২১শে আগস্ট বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা ও হামলায় হতাহতের ঘটনায় রায় ঘোষাণার দিন যাতে কেউ নাশকতা সৃষ্টি করতে না পারে সেলক্ষ্যে বুধবার সকাল থেকে বটিয়াঘাটার সুরখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগের নেতাকর্মীরা ছিলো সতর্ক অবস্থানে। উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শেখ মোঃ ওয়েহেদুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম ফরিদ রানা, ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বুলবুল আহম্মেদ বিপ্লবসহ নেতৃবৃন্দ ইউনিয়নের বারআড়িয়া কলেজ, স্কুল, ফাড়ি, সুন্দরমহল ও রায়পুর, মাদ্রাসা, সুরখালী, গাওঘরা স্কুলসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার পরিদর্শন ও নজরদারীতে রাখে। এদিকে ঘোষিত রায়’র প্রতি সন্তোশ প্রকাশ করে সন্ধ্যায় এক আলোচনা সভা সুরখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সভাপতি শেখ আকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ খুলনা জেলা শাখার সভাপতি এসএম ফরিদ রানা, সুরখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক রবীন্দ্রনাথ সরকার, আ’লীগনেতা ইসরাইল বিশ্বাস, সরদার জাকির হোসেন, পরিমল রায়, অশোক গোলদার, গোপাল মন্ডল, ইদ্রিস বিশ্বাস, ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বুলবুল আহম্মেদ বিপ্লব, ছাত্রলীগনেতা সাহরিয়ার সোহেল প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here