তাহিরের ঘূর্ণিতে টি-টোয়েন্টিতেও জয়ে শুরু দক্ষিণ আফ্রিকার

0
38

ক্রীড়া প্রতিবেদক
ইস্ট লন্ডনে ৩৪ রানে জিতেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৬১ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১২৬ রানে থেমে যায় জিম্বাবুয়ের ইনিংস। এই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেছে ফাফ দু প্লেসির দল।
বাফেলো পার্কে মঙ্গলবার টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি দক্ষিণ আফ্রিকার। ১১ রানের মধ্যে ফিরে যান দুই ওপেনার কুইন্টন ডি কক ও অভিষিক্ত জিহান ক্লোটি।পাল্টা আক্রমণে শুরুর ধাক্কা সামাল দেন ফাফ দু প্লেসি। ৫ চার ও ২ ছক্কায় ২০ বলে ৩৪ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলে অধিনায়ক ফিরে যান মাভুটার বলে ক্যাচ দিয়ে। দু প্লেসির সঙ্গে ৪১ রানের জুটির পর ডেভিড মিলারের সঙ্গে ৮৭ রানের আরেকটি ভালো জুটি উপহার দেন ফন ডার ডুসেন। এমনিতে ওপেনার হলেও টি-টোয়েন্টিতে যে কোনো পজিশনে ব্যাট করতে পারেন তিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজের প্রথম ইনিংসে দেখালেন সেই সামর্থ্য।
১০.৫ ওভার স্থায়ী জুটিতে শান্তই ছিলেন ‘কিলার’ মিলার। স্বভাব সুলভ বিস্ফোরক ব্যাটিং করেননি। সঙ্গ দিয়ে গেছেন ফন ডার ডুসেনকে। কাইল জার্ভিসের বলে ক্যাচ দিয়ে মিলারের বিদায়ে ভাঙে চতুর্থ উইকেট জুটি। ৩৪ বলে ৩৯ রান করেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। ডুসেন পেয়েছেন ফিফটি। ৪৪ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৫৬ রানের ইনিংসে দলকে নিয়ে যান দেড়শ রানে। ৩৭ রানে ৩ উইকেট নেন জিম্বাবুয়ের পেসার জার্ভিস।
রান তাড়ায় তাহিরের ছোবলে শুরুটা ভালো হয়নি জিম্বাবুয়ে। ওয়ানডে সিরিজে ভোগানো লেগ স্পিনার নিজের প্রথম দুই ওভারে তুলে নেন ৩ উইকেট। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে তাহির বোল্ড করে দেন চামু চিবাবাকে। পরের ওভারে মিলে আরও বড় শিকার। এলবিডবিøউ হয়ে যান অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। পরের বলে কট বিহাইন্ড হয়ে ফিরেন টারিসাই মুসাকান্দা। তাহিরের হ্যাটট্রিক ঠেকানো শন উইলিয়ামস শুরু করেন কাভার দিয়ে চার হাঁকিয়ে। ব্রেন্ডন টেইলরের সঙ্গে ২৯ রানের জুটিতে খানিকটা প্রতিরোধ গড়েন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। এই জুটি ভাঙার পর বেশি দূর এগোয়নি জিম্বাবুয়ের ইনিংস। দশম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে ২১ বলে ৫ ছক্কা ও এক চারে ৪৪ রান করেন মুর। ১৬ বল বাকি থাকতে থমকে যায় জিম্বাবুয়ের ইনিংস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here