সকল আঞ্চলিক সংবাদ

0
72

এখন থেকে পাবলিক বাসেই চড়তে চান তারানা
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এখন থেকে সাধারণ যাত্রীদের সঙ্গে পাবলিক বাসে চেপে মন্ত্রণালয়ে যাওয়া-আসা করবেন বলে তার দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে।
বুধবার তারানা সচিবালয় থেকে বেরিয়ে লোকাল বাসে করে গুলশানের বাসায় যাওয়ার পর তথ্য প্রতিমন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. এনায়েত হোসেন একথা জানান।
তিনি বলেন, “আজ দুপুরে অফিস শেষে জিপিও মোড় থেকে ছয় নম্বর বাসে করে গুলশানের বাসভবনে যান প্রতিমন্ত্রী।”
সাড়ে ১২টায় রওনা দিয়ে ২টার দিকে প্রতিমন্ত্রী গুলশানের তার বাসায় পৌঁছান।
এনায়েত বলেন, “এখন থেকে তিনি (তারানা হালিম) নিয়মিত পাবলিক বাসে অফিসে আসা-যাওয়া করবেন।”
এর আগে সকালে সচিবালয়ে এক অনুষ্ঠানে তারানা সাংবাদিকদের বলেন, “চিন্তা করেছি পাবলিক বাসে চলাচল করব। পাঠাও-উবার নয়, সাধারণ বাসে অফিসে যাওয়া-আসা করব।”
এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, “আমরা উঠাতে যদি তারা (বাসচালক) সচেতন হয়।”
নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের পর সড়কে আইন মানায় নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। তবে সবাই সচেতন না হলে শৃঙ্খলা ফিরবে না বলে সব তরফ থেকেই বলা হচ্ছে।
তারানার দুই বছর আগে টিকেট কেটে লাইনে দাঁড়িয়ে বিআরসিটির একটি বাসে চড়ে সচিবালয়ে অফিস করার অভিজ্ঞতা নিয়েছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও।

শোলাকিয়ায় হামলা : পাঁচজনকে আসামি করে অভিযোগপত্র

খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। এ মামলায় ২৩ জনের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন অভিযানে ১৮ জন নিহত হয়। বাকি পাঁচজন কারাগারে আটক রয়েছে।
গতকাল বুধবার বিকালে কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশের সম্মেলনকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ।
মামলার পাঁচ আসামিরা হলো- কিশোরগঞ্জের জাহিদুল হক তানিম, গাইবান্ধা জেলার জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী, চাপাইনবাবগঞ্জের মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, গাইবান্ধা জেলার মো. আনোয়ার হোসেন, কুষ্টিয়া জেলার সবুর খান হাসান।=
উলে­খ্য, ২০১৬ সালের ৭ জালাই ঈদুল ফিতরের জামাতের আগে কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানের প্রবেশপথের আজিম উদ্দিন হাইস্কুলসংলগ্ন সবুজবাগ সংযোগ সড়কপথে জঙ্গি হামলার সময় পুলিশ ও জঙ্গি সংঘর্ষে গৃহবধূ ঝর্ণা রাণী ভৌমিক নিজ ঘরে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।
এছাড়া এ ঘটনায় জঙ্গিদের চাপাতির কোপে জহুরুল ও আনসারুল নামে দুই পুলিশ কনস্টেবল ও আবির রহমান নামে এক জঙ্গি নিহত হয় এবং ১০ পুলিশ সদস্য ও চার মুসলি­সহ ১৪ জন গুরুতর আহত হয়।

গ্রামীণ ক্যাটারারস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালকের মায়ের মৃত্যু
খবর বিজ্ঞপ্তি
গ্রামীণ ক্যাটারারস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও দোলখোলা নিবাসী পিনাকি প্রসাদ সেনের মাতা হাসি রানী সেন ইহলোক ত্যাগ করেছেন। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন নগর পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিদাতারা হলেন সভাপতি শ্যামল হালদার, সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুন্ডু, প্রচার সম্পাদক সুব্রত হালদার তপা, গোপী কিষান মুন্ধাড়া, অরবিন্দু সাহা, শিবচন্দ্র ব্যানার্জী, উজ্জল ব্যানার্জী, তোতন হালদার, চঞ্চল ব্যানার্জী, তপন সাহা, বিশ্বজিৎ দে মিঠু, বিপ্লব সাহা লব,লালা মুন্ধাড়া, দিলীপ সাহা, ননী গোপাল সাহা, শুশান্ত ব্যানার্জী, শংকর ঘোষ, বিকাশ সাহা মদন, মদন সাহা, স্বপন সরকার, মনা সাহা, বাবলু ঘোষ ও বিষু ঘোষ। নেতৃবৃন্দ শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান এবং মৃত্যু হাসি রানী সেনের আত্মার শান্তি কামনা করেন। তিনি শুক্রবার সকলকে কাদিয়ে পরপারে চলে যান।

মধুপুর ইউনিয়ন যুবলীগের নবগঠিত পরিচিত সভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
৬নং মধুপুর ইউনিয়ন যুবলীগের নবগঠিত কমিটির পরিচিতি সভা মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সংগঠনের দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তেরখাদা উপজেলা আ’লীগের প্রভাবশালী নেতা ও ৬নং মধুপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ মোঃ মোহাসিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন তেরখাদা উপজেলা আ’লীগ নেতা ও পঞ্চপল্লী আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ মোঃ ইউসুফ।
৬নং মধুপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মিনারুল ফকিরের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন মতিয়ার মোল্যা, মহিনুর ইসলাম রাজু, তরিকুল শিকদার, রফিক শিকদার, এস এম আনোয়ার হোসেন, রাসেল মল্লিক, আবু সুফিয়ান, হাসান মল্লিক, জুয়েল মোল্যা, জকু বিশ্বাস, রাজু শেখ, জসিম শিকদার, দুলালী বেগম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

দেবহাটায় দেশীয় পিস্তলসহ একজন আটক ঘটনায় মামলা
দেবহাটা প্রতিনিধি
দেবহাটায় পুলিশের অভিযানে দেশীয় পিস্তল সহ ১ জন আটক হয়েছে। আটটকৃতের নাম মোকছেদ আলী খোকা (৫৬)। সে দেবহাটা উপজেলার পুষ্পকাটি গ্রামের মৃত কেয়ামউদ্দীন গাজীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে দেবহাটা থানার এসআই ইয়ামিন আলী বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাতে দেবহাটা থানার ওসি (তদন্ত) উজ্জ্বল কুমার মৈত্র ও এসআই ইয়ামিন আলী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মোকছেদকে আটক করেন। পরে তার দেয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক পুষ্পকাটি গ্রামের সরদার বাড়ি মোড়ের জনৈক নুর ইসলামের পরিত্যক্ত ঘরের মধ্যে মাটির নিচ থেকে পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় ১০.৫০ ইঞ্চি লম্বা লোহার তৈরী দেশীয় রিভলবার উদ্ধার করেন। এ ব্যাপারে এসআই ইয়ামিন আলী বাদী হয়ে দেবহাটা থানায় মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলা নং- ০৫।
দেবহাটা থানার ওসি সৈয়দ মান্নান আলী জানান, সামনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে কিছু নাশকতাকারী সন্ত্রাসী দেশকে অস্থিতিশীল করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে এবং যারা দেশকে অশান্ত করার অপচেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে।
দেবহাটা থানার ওসি (তদন্ত) উজ্জ্বল কুমার মৈত্র জানান, আটককৃত মোকছেদ আলীর বিরুদ্ধে নাশকতা সহ বিভিন্ন অভিযোগে ইতিপূর্বে দেবহাটা থানায় ৫টি মামলা রয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

মোড়েলগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আসবাবপত্র অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার অভিযোগ
মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি
বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আসবারপত্র অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়াগেছে।
অভিযোগে জানাগেছে, ১০৬নং বি, উমাজুরি সকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের ১০টি বেঞ্চ, ২টি চেয়ার, ১টি বøাকবোর্ড ও ১টি পানির ফিল্টার নিয়ম বহির্ভূত ভাবে পূর্ব-চিপা বারইখালী গ্রামে চিপা বারইখালী বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হস্তান্তর করেন। ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা জাহানুর বেগম হলেন বি, উমাজুরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আকবর আলীর স্ত্রী। শিক্ষক আকবর আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ওই মালামালগুলো ব্যবহারের অনুপযোগী হওয়ায় শিক্ষা অফিসারের অনুমতি সাপেক্ষে ওই স্কুলে দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে ভাষান্দল গ্রামের মো: আখতারুজ্জামান (কবির) তালুকদার বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার আশীষ কুমার নন্দির কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিগত শিক্ষা অফিসারের অনুমতি ক্রমে স্থান্তরিত করা হয়েছে বলে জানান।

সাতক্ষীরায় তিন দিনব্যাপী ফ্রি হেলথ চেক আপের উদ্বোধন
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
সাতক্ষীরায় তিন দিন ব্যাপী ফ্রি হেলথ চেক আপের উদ্বোধন করা হয়েছে। র‌্যাংগস- আইশারের একটি সামাজিক উদ্যোগে বুধবার দুপুরে শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে সাজিদ এন্টার প্রাইজের সামনে উক্ত হেলথ চেকআপটি অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ফ্রি হেলথ চেক আপের ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, সাতক্ষীরার সিভিল সার্জন ডা. তাওহিদুর রহমান। এ সময় বিশেষ অথিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাতক্ষীরা বি.আর টি এর উপ-পরিচালক প্রকৌশলী তানভির আহমেদ, আইশার প্রতিনিধি ও আইশার ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার কার্ত্তিক সাহা, সাজিদ এন্টার প্রাইজের স্বত্ত¡াধিকারী শফিউল্লাহ মনি, শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল কাদের কাদু প্রমুখ।
এ সময় সেখানে র‌্যাংগস-আইশার কোম্পানীর ট্রাকের ফ্রি সার্ভিসিংসহ ট্রাক চালক ও হেলপারদের পরিবারের ফ্রি হেলথ চেক অপ করানো হয়। যা আজ বুধবার ১২ সেপ্টেম্বর থেকে চলবে ১৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার পর্যন্ত।

শরণখোলায় গবাদীপশুর উৎপাতে অতিষ্ঠ প্রশাসন পাড়া
শরণখোলা প্রতিনিধি
বাগেরহাটের শরণখোলায় ইউএনও’র নাম ভাঙ্গিয়ে গৃহ পালিত প্রায় অর্ধ শত ছাগল লালন পালন করছে কতিপয় ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারী। ওই ছাগলগুলোর উৎপাতে উপজেলা প্রশাসন পাড়ার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। যার ফলে বিভিন্ন দপ্তরের কর্মরতদের মধ্যে একপ্রকার অস্বস্তি বিরাজ করছে। বিভিন্ন অফিসের কক্ষসহ উপজেলা প্রশসন চত্বরের নানা স্থানে ছাগলগুলো যত্রতত্র মলমুত্র ত্যাগ করায় অফিস পাড়ার পরিবেশ ও সৌন্দর্য্য দিন দিন বিনষ্ট হচ্ছে। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে প্রশাসন চত্ত¡রটি অরক্ষিত থাকায় ওই ছাগলগুলোর পাশাপাশি বহিরাগতদের গরু, ছাগল, ভেড়া অবাধে প্রবেশ করে সর্বদা বিচরণ করায় ক্যাম্পাসে বিভিন্ন প্রজাতির বনজ ও ফলজ গাছপালা সাবার করে ফেলেছে। প্রশাসন কর্তা ব্যক্তিদের নাগের ডগায় এহেন ঘটনা ঘটলেও তা প্রতিকারে কেউ এগিয়ে আসছে না।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের কয়েকজন ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী সহ বিভিন্ন দপ্তরের একাধিক কর্মচারী ইউএনও’র নাম ভাঙ্গিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ওই ছাগলগুলো লালন পালন করে আসলেও ওই গবাদী পশুর জন্য কোন নির্দিষ্ট জায়গা নেই। দিন রাত সব সময়ই বিভিন্ন অফিসের বারান্দা, কক্ষ সহ ভবনগুলোর দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় রাত্রি যাপন করে। ফলে যত্রতত্র মলমুত্র ত্যাগ করায় নোংরা পরিবেশের সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে যার ভোগান্তির শিকার হতে হয় স্ব-স্ব অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের। অপরদিকে, উপজেলা পরিষদ চত্ত¡রের সৌন্দর্য্য ঠিক রাখতে পরিচ্ছন্ন কর্মী থাকলেও তাদের কোন কার্যক্রম দেখা যায় না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক দপ্তরের কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যখন যে ইউএনও দায়িত্বে থাকেন তার নাম ভাঙ্গিয়ে ওই দপ্তরের ৩ কর্মচারী বছরের পর বছর ধরে ওই ছাগল লালন পালন করে আসছে। ছাগল গুলোর উৎপাতে অফিসের কার্যক্রম সঠিকভাবে পালন করা যাচ্ছে। মল-মূত্রের দূগন্ধে অনেক অনেক দপ্তরে নাকে রুমাল চেপে অফিসের কার্যক্রম চালাতে হয়। কখনও কখনও নিজেদের উদ্যোগে সাবান, গুড়া সাবান ও স্যাভলোন দিয়ে ধুয়ে মুছে পরিস্কার করতে হয়। বিষয়টি মৌখিকভাবে নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করা হলেও এ পর্যন্ত কোন কার্যকর উদ্যোগ দেখা যায়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাস জানান, ইতিপূর্বে একবার ওই ছাগলের মালিকদে জরিমানা করে সর্তক করা হয়েছে। তবে, বিষয়টি পুনরায় দেখা হবে।

খুলনা-৬ আসনে প্রেম কুমারের পক্ষে লিফলেট বিতরণ
কয়রা প্রতিনিধি
আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশি ইঞ্জিনিয়ার প্রেম কুমার মন্ডলের পক্ষে সরকারের গত দশ বছরের উন্নয়ন সাফল্য সম্বলিত লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মোটর সাইকেল শোভাযাত্রার মাধ্যমে কয়রা ও পাইকগাছা উপজেলার শতাধিক কর্মী সমর্থক এ লিফলেট বিতরণে অংশ নেয়। মোটর সাইকেল বহরে থাকা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বিশ্বজিৎ মন্ডলের নেতৃত্বে নির্বাচনী এলাকার কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পথ সভা করেন তারা। এসব পথ সভায় পদ্মা সেতু নির্মাণ, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, মেট্রোরেল প্রকল্প, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যূৎ প্রকল্প, সমুদ্র সীমানা বিজয়, ফ্লাই ওভার নির্মাণসহ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড উপস্থিত জনসাধারণের সামনে তুলে ধরা হয়। তারা এ সময় কয়রা উপজেলার শুড়িখালি বাজার, আমাদি বাজার, ঘুগরাকাটি বাজার, গিলাবাড়ি বাজার, দেয়াড়া বাজার, বগা, পালের বাঁধ, হায়াতখালি বাজার ও কয়রা সদরের বিভিন্ন এলাকায় লিফলেট বিতরণ করেন। প্রসঙ্গত, ইঞ্জিনিয়ার প্রেম কুমার মন্ডল আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৬ আসনে প্রার্থী হতে গত কয়েক বছর ধরে এলাকার বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহনসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে অবদান রেখেছেন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রিয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক এবং চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি।

মোড়েলগঞ্জে বঙ্গবন্ধু যুব সেন্টারের গণসমাবেশকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি
মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি
বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে বঙ্গবন্ধু যুব সেন্টারের উদ্যোগে ১৫ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকেল ৩টায় গনসমাবেশকে ঘিরে প্রত্যন্ত ইউনিয়ন থেকে শুরু করে পৌর শহরজুড়ে এখন সর্বত্র আলোচনা। সোলমবাড়িয়া বালুর মাঠ সমাবেশের স্থানকে সাজানো হয়েছে সাজ সাজ রবে।
বর্তমান সরকারের উন্নয়নে ব্যাপক সফলতার কথা তুলে ধরে সমাবেশে প্রথম পর্বে রয়েছে উন্নয়নের গনসংগীত। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য, বঙ্গবন্ধু যুব সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এমআর জামিল হোসাইন এ অনুষ্ঠানের আয়োজক থাকলেও সমাবেশ মঞ্চে সভাপতিত্ব করবেন বলইবুনিয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি মাষ্টার খ.ম. লুৎফর রহমান।
গণসমাবেশে থাকবেন বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ, মুক্তিযোদ্ধা, পেশাজীবি সংগঠন, শিক্ষক, সাংবাদিক ও যুবক ছাত্রসংগঠনের মিলন মেলায় পরিনত হবে। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিটি সেক্টরে সফলতার কথা তুলে ধরা হবে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করা, পদ্ধা সেতু নির্মাণকল্পে সফলতা, বিদ্যুৎ উৎপাদনে সফলতাসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূখী পদক্ষেপের বিষয়ে আলোকপাত করা। এ সমাবেশকে সফল করার লক্ষে ইতোমধ্যে বঙ্গবন্ধু যুব সেন্টার প্রতিটি ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ মাঠ পর্যায়ে ব্যাপক তোড়জোর ও সংগঠিতভাবে কাজ করছেন।
সকলের মুখে “একটি কথা প্রার্থী দেখার দরকার নেই, ভোট দিবো শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায়”। এ সমাবেশের বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতা জামিল হোসাইন বলেন, সমাবেশের মূল লক্ষ আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শুধু রাজনৈতিক সংগঠন নয়, সকল শ্রেনী পেশার মানুষ দেশের সার্থে উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে ধরে রাখতে আবারো জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় আনবেন।

ঝিনাইদহে পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ৪৪
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
ঝিনাইদহে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৩ জামায়াত কর্মীসহ ৪৪ জন গ্রেফতার হয়েছে। মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাস জানান, জেলাব্যাপী মাদক ও নাশকতা বিরোধী বিশেষ অভিযান চালানো হচ্ছে। এর অংশ হিসেবে মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত সদর থেকে ১৬, শৈলকুপা থেকে ৮ জন, হরিণাকুন্ডু থেকে ৩, কালীগঞ্জ থেকে ৪, কোটচাঁদপুরে ৩ জামায়াত ও মহেশপুরে ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে বেশ কিছু মাদকদ্রব্য। তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা আছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী জনসভা
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আবারো ভোট দিয়ে জয়লাভ করানোর লক্ষ্যে ঝিনাইদহে নির্বাচনী জনসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে সদর উপজেলার হাটগোপালপুর বাজারে এ জনসভার আয়োজন করে পদ্মাকর ইউনিয়ন আওযামী লীগ।
পদ্মাকর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বিকাশ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. আব্দুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক ও পোড়াহাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম হিরন, হরিশংকরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান খন্দকার ফারুকুজ্জামান ফরিদ, দোগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান ফয়েজউল্লাহ ফয়েজ, ফলসি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান ফজলু, সমাজসেবক মোকছেদ আলী জোয়ার্দ্দার বিশ্বাস। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মুনীর হোসেন মুকুল।
বক্তারা, দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে আগামী সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকে ভোট দেওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহŸান জানান।

ফকিরহাটে নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনের লক্ষে পাচিং উৎসবের উদ্বোধন
ফকিরহাট প্রতিনিধি
বাগেরহাটের ফকিরহাটে পরিবেশ বান্ধব ও মানসম্মাত উপায়ে নিরাপদ খাদ্র উৎপাদনের লক্ষে উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগে পাচিং উৎসবের উদ্বোধন গতকাল বুধবার সকালে লখপুরের খাজুরা বিলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ নাছরুল মিল্লাত এর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, খুলনা অঞ্চলের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক কৃষিবিদ নিত্য রঞ্জন বিশ্বাস, বিশেষ অতিথি ছিলেন, খুলনা অঞ্চলের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (পিপি) দিপক কুমার রায়, খুলনাঞ্চলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোহন কুমার ঘোষ ও বাগেরহাট অঞ্চলের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ আফতাব উদ্দিন। উপ-সহকারী কৃষি অফিসার বিপ্লব কুমার দাস এর সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার তন্ময় কুমার দত্ত, মোসাঃ শারমীনা শামীম, লখপুর ইউনিয়ন পরিষদের প্যালেন চেয়ারম্যান-১ মোঃ আহম্মদ আলী, আঃলীগনেতা মোঃ আলমগীর হোসেন, ইউপি সদস্য হুমায়ুন কবির, উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষন অফিসার নয়ন কুমার সেন, উপ-সহকারী কৃষি অফিসার অভিজিৎ গাউন, দিপায়ন দাস, বিল্লাল হোসেন, ভাগ্য লক্ষী মন্ডল, মোঃ নাজির আহম্মেদ, প্রদীপ কুমার মন্ডল ও মোসাঃ তানিয়া রহমান প্রমুখ। এর আগে সমগ্র ধান ক্ষেতে গাছের ডাল পুতে এর উদ্ভেখাধন ও পরে খাজুরা বাসস্ট্যান্ডের পার্শ্বে বিপুল পরিমানে তাল গাছের বীজ রোপন করা হয়। এসময় শতাধিক কৃষক/কৃষানীরা উপস্থিত ছিলেন।

বেতাগায় এসডিজি বাস্তবায়নে স্থানীয় সংবাদকর্মীদের সাথে মতবিনিময়
ফকিরহাট প্রতিনিধি
বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার বেতাগা ইউনিয়ন পরিষদের ৫ম বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান, স্বশাসিত ইউনিয়ন পরিষদ এ্যাডভোকেসি গ্রæপ অব বাংলাদেশ এর প্রেসিডেন্ট ও স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ স্বপন দাশ এর প্রাণী সম্পদ বিষয়ে স্পেন ও আরব আমিরাত সফর এবং এসডিজি,এমডিজি বাস্তবায়নে স্থানীয় সংবাদকর্মিদেরও যে অগ্রনী ভুমিকা রয়েছে সে সম্পর্কে উপজেলার সকল সংবাদকর্মিদের সাথে একান্ত মতবিনিময় সভা গতকাল মঙ্গলবার সকালে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মতবিনিময় সভায় তিনি বলেন, আমাদের দেশের মত এত সুন্দর দেশে পৃথিবীর কোথাও নেই। যে দেশে একটি বীজ ফেলে দিলে গাছ হয় সে দেশের মত এত সুন্দর দেশ পৃথিবীর আর কোথাও নেই। তিনি দেশের প্রতি ভালবাসা মমতা বোধ ও দেশ প্রেমে উদার হয়ে দেশ ও জাতীর কল্যানে কাজ করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সচিব এসএম দাউদ আলী, প্রবীন সাংবাদিক মাহাবাবুর রহমান দুলু, সিনিয়র সাংবাদিক পি কে অলোক, বি.এম রাকিব হাসান, আকাশ বিশ্বাস, মোঃ ফারুক হোসেন, এইচ এম নাসির উদ্দিন, মান্না দে, এম জাকির হোসেন, ফটিক ব্যানাজী, মোঃ মাসুম শেখ, মোঃ রুবেল, মোঃ নাজমুল ইসলাম, মতিউর রহমান মোড়ল, সৈয়দ আলী, মেহেদী হাসান, আলমগীর হোসেন ও রামীম শেখ প্রমুখ।

শুভদিয়ায় মহিলা আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন
ফকিরহাট প্রতিনিধি
বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার শুভদিয়ায় মহিলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ৩নং ওয়ার্ড কমিটির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কমিটি গঠন অনুষ্ঠান গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কচুয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। মোসাঃ নাসিমা বেগমের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার দেশ ও জনগনের জন্য কাজ করছে, দেশের গরীব দুঃখী ও মেহনতী মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছে। তাই আজ আমরা বিশ্বের দরবারে একটি উন্নত জাতি হিসাবে মাথা উচু করে দাড়াতে সক্ষম হয়েছি। তিনি বলেন, এসডিজি ও এমডিজি বাস্তবায়ন করতে হলে উচ্চ শিক্ষার মান উন্নয়নে কাজ করার পাশাপাশি বাল্য বিবাহ রোধ ও মাদক মুক্ত সমাজ গঠনে সকল-কে একযোগে কাজ করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সুবির কুমার মিত্র ও যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ। ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মনিরুল ইসলাম বায়োজিত এর সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, ইউনিয়ন আঃলীগের সভাপতি ফারুকুল ইসলাম ওমর, সাঃ সঃ শেখ শহীদুল ইসলাম, উপজেলার মহিলা আঃলীগের সভাপতি মল্লিকা রানী দাশ, যুবলীগের সভাপতি শুভেন্দু রায় চৌধুরী,স্বেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য সাজ্জাত হোসেন নান্নু, ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুপ্রিয়া রানী কুন্ডু ও সাধারন সম্পাদক মাসকুরা বেগম প্রমুখ। সভা শেষে মোসাঃ লাভলী বেগম-কে সভাপতি ও মোসাঃ রেহানা বেগম-কে সাধারন সম্পাদক করেন একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তালার মাগুরা বালিকা বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে অনিয়মের অভিযোগ
তালা প্রতিনিধি
তালা উপজেলার মাগুরা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচনকে সামনে রেখে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এমনটি অভিযোগ এনে নির্বাচনের স্থগিতাদেশ চেয়ে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করেছেন বিদ্যালয়ের বর্তমান সভাপতি সুনীল কুমার দাশ।
অভিযোগে জানাগেছে, তালা উপজেলার মাগুরা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের মেয়াদ শেষ হবে আগামী অক্টোবর মাসে। তবে সভাপতি দেশের বাইরে থাকার সুযোগে তাকে বাদ দিতে নির্বাচন কমিশন তড়িঘড়ি করে তফশীল ঘোষণা করেন। প্রথম থেকেই একটি তঞ্চকিপূর্ণ কমিটি গঠনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দুলাল কুমার বিশ্বাস নানামুখি ষড়যন্ত্র শুরু করেন। যার ধারাবাহিকতায় বিদ্যালয়ের বর্তমান সভাপতি সুনীল কুমার দাশ ভারতে অবস্থান কালে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক স্থানীয় একটি প্রভাবশালী চক্রের সাথে হাত মিলিয়ে তফশীল ঘোষণার পর অভিভাবক সদস্য পদে তাদের মনোনীত ৫ জন প্রার্থীর কাছে মনোনয়ন পত্র বিক্রি করেন।
অভিযোগে প্রকাশ, তাদের মতের বাইরে অন্যান্য মনোনয়ন প্রত্যাশীদের কাছে মনোনয়ন বিক্রি না করে নানা অযুহাতে মনোনয়নপত্র বিক্রি বন্ধ করে দেয়া হয়। ইতোমধ্যে তাদের প্রতিদ্ব›িদ্ব কোন প্রার্থী না থাকায় তারা বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় নির্বাচিত হতে চলেছেন। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ মনোনয়ন প্রত্যাশীরা সভাপতি দেশে ফিরলে তার কাছে অভিযোগ করেন।
এ ঘটনায় স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সুনীল কুমার দাশ যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড বিদ্যালয় পরিদর্শকসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, মাগুরা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বরাবর নির্বাচনের স্থগিতাদেশ চেয়ে আবেদন করেছেন।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট স্কুলের প্রধান শিক্ষক দুলাল কুমার বিশ্বাস বলেন, সকল প্রকার নিয়ম কানুন মেনেই নির্বাচন প্রক্রিয়া এগিয়ে নেয়া হচ্ছে।

ডুমুরিয়ায় ৪ জুয়াড়ি জেল-হাজতে
ডুমুরিয়া প্রতিনিধি
ডুমুরিয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪ জুয়াড়িকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করেছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার আঠার মাইল বাজার এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।
পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে জুয়া খেলা অবস্থায় নরনিয়ার নুর আলীর ছেলে জুয়াড়ী আকতারুজ্জামান লিটন (৩৫), বেতাগ্রাম এলাকার রঞ্জন কর্মকারের ছেলে তপন কর্মকার (৪০), একই এলাকার হান্নান জোয়ার্দারের ছেলে ফারুক জোয়ার্দার (২৮) ও হোগলাডাংগা এলাকার খালেক শেখের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪০) কে আটক করা হয়। এ ঘটনায় জুয়া আইনে থানায় একটি মামলা শেষে আসামীদের জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

ডুমুরিয়ায় এয়াকুব শ্রেষ্ঠ সভাপতি নির্বাচিত
ডুমুরিয়া প্রতিনিধি
ডুমুরিয়ায় কুখিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোঃ এয়াকুব আলী শেখ, খরসন্ডা ক্লাষ্টারে অন্তর্ভুক্ত ২০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে শ্রেষ্ঠ সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে। গত সোমবার ্পজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তিনি শ্রেষ্ঠ সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন কুখিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, অভিভাবকবৃন্দ। এরা হলেন প্রধান শিক্ষক দেবাশীষ চন্দ্র চন্দ, শিক্ষক মামুনুর রশিদ, মশিউর রহমান মুকুল, কবিতা খানম, অনুরাধা , অভিভাবক শেখ আবু হান্নান, আবু আল জাদীদ, গোলাম মাওলা প্রমূখ।

ডুমুরিয়ায় আ’লীগনেতার গণসংযোগ
ডুমুরিয়া প্রতিনিধি
ডুমুরিয়ায় জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহ-সভাপতি, অর্থনীতিবিদ ও আওয়ামীলীগ নেতা প্রফেসর ড. মাহাবুব উল-ইসলাম গতকাল বুধবার দিনব্যাপী উপজেলার রংপুর ও রঘুনাথপুর ্ইউনিয়নের শলুয়া বাজার,কালিতল,জোড়া বটতলা, গাজীতলা, সাড়াতলা, কালিবাটি, গজেন্দ্রপুর, রুপরামপুর এলাকায় গণসংযোগ দলীয় নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে মতবিনিময় করেন। সাথে ছিলেন আ’লীগ নেতা বিনয় বৈরাগী, রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস, নিহার মন্ডল, অনিমেষ বিশ্বাস, শেখ ফজলে করিম, শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ কামরুল ইসলাম, সম সিদ্দিকুর রহমান, জসিম উদ্দিন মুক্ত, গোকুল হালদার, আঃ
আঃ জব্বার, অরিন্দম সরকার প্রমূখ।

ডুমুরিয়ায় রংপুর ইউনিয়ন শ্রমিক দলের বিবৃতি
ডুমুরিয়া প্রতিনিধি
ডুমুরিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোল্যা মোশাররফ হোসেন মফিজ ও খুলনা জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক খান ইসমাইল হোসেনসহ অন্যন্য নেতৃবৃন্দের নামে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন রংপুর ইউনিয়ন শ্রমিক দলের নেতৃবৃন্দ। এরা হলেন- মোঃ রিপন ঢালী, আবুল হাসান, আব্দুল হক গাজী, আ: আজিজ সরদার, মোঃ মামুন মোড়ল, শাহাজাহান মোল্যা, মোশাররফ হোসেন সরদার, মোঃ নাঈম সরদার, আলাউদ্দীন গাজী, মোঃ রফিক শেখ, মুকুল গাজী, সাইফুল ইসলাম সানা, আকশাদ গাইন প্রমুখ।

যশোরে আলোচিত শাহানাজ আবাসিক হোটেল সন্ত্রাসী ও মাদক বিক্রেতাদের অবাধ বিচরণ
যশোর অফিস
যশোর শহরের বহুল আলোচিত শাহানাজ আবাসিক হোটেলে অসামাজিক কার্যকলাপ, সন্ত্রাসী ও মাদক বিক্রেতাদের অবাধ বিচরণের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর বিভিন্নস্থানে দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছে হোটেল মালিক রুহুল আমিন ও তার ম্যানেজার।
পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ বন্ধ করতে স্থানীয় এক জনপ্রতিনিধির কাছে ধরনা দিচ্ছে হোটেল মালিক রুহুল আমিন। এদিকে তাদের আবাসিক হোটেল ব্যবসার আড়ালে বিভিন্ন অবৈধ কর্মকান্ডের আরো তথ্য এসেছে পত্রিকা দপ্তরে। যশোর কোতয়ালী থানা পুলিশ ও চাঁচড়া ফাঁড়ি পুলিশের নাকের ডগায় এই আবাসিক হোটেলে প্রতিনিয়ত চলছে বিভিন্ন অবৈধ কারবার। রেলস্টেশন সংলগ্ন আবাসিক এলাকা অত্যন্ত জনবহুল এলাকায় অবস্থিত এই হোটেল। এমন জনবহুল এলাকায় এই ধরণের অনৈতিকতার কারনে প্রায় সময় বিড়াম্বনায় পড়তে হচ্ছে সাধারন এলাকাবাসী ও পথচারিদের।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, যশোর শহরের রেলস্টেশন এলাকায় অবস্থিত বহুল আলোচিত শাহানাজ আবাসিক হোটেল দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন মহলকে ম্যানেজ করে হোটেলটিতে চালিয়ে আসছে অনৈতিক ব্যবসাসহ বিভিন্ন ধরণের অনৈতিক কারবার। সাপ্তাহিক ও মাসিক চুক্তি থাকার কারনে ওই হোটেলটিতে কোন অভিযানই করা হয়না। বর্তমান হোটেল কতৃপক্ষ আবাসিক হোটেলটিতে অনৈতিক ব্যবসার পরিধি আরও বাড়িয়েছে। পুলিশি কোন ঝামেলা না থাকায় হোটেলটিতে বিভিন্ন প্রকার মাদক বিক্রেতা ও সন্ত্রাসীদের রয়েছে অবাধ যাতায়াত। যশোর শহরের বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাসী, মাদক বিক্রেতাসহ অপরাধীদের আটকে পুলিশি অভিযান হলেও উক্ত হোটেলে কোন প্রকার অভিযান পরিচালিত হয় না। ফলে চিহ্নিত সন্ত্রসীরা উক্ত হোটেলটিতে অবস্থান করে বলে সুত্রটি জানায়। এ হোটেলের মালিক শংকরপুরের রুহুল আমিনও এক সময় ওই এলাকার চোরাচালান সিন্টিকেট ও সন্ত্রাসী হাসান-মিজান এর ঘনিষ্টজন হিসাবে পরিচিত সর্বজন পরিচিত। সেই সুবাদে শহরের বিভিন্ন সন্ত্রাসীদের সাথে তার সখ্যতা রয়েছে। কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়াই হোটেলটিতে চিহ্নিত সন্ত্রাসিরা রাত্রি যাপন করে।
হোটেলের ম্যানেজার কাষ্টমারের চাহিদামতো মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকা থেকে কলর্গালদের হোটেলে নিয়ে আসে। এছাড়া প্রতিদিন তিনি হোটেলে ৪/৫ জন কলর্গাল সবসময় রেখে দিব্যি ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এইসকল কর্লগার্ল ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত খদ্দেরদের মনোরজ্ঞন করে ম্যানেজারকে তার হিস্যা দিয়ে চলে যায়। আবার হোটেল মালিক ও ম্যানেজারকে অতিরিক্ত টাকা দিলেই সারারাত থাকার চুক্তিতেও কর্লগার্ল এনে দেওয়া হয়। হোটেলের এসকল অনৈতিক কারবার জোরেসোরে করতে রুহুল আমিন রাজনৈতিক দল পরিবর্তন করে বর্তমানে সরকারী দলে ভিড়ে স্থানীয় কয়েকজন ক্ষামতাসীন দলের নেতাদের ম্যানেজ করে অবাধে চালাচ্ছে তার এই অনৈতিক কারবার। স্থানীয় সাধারণ মানুষ এই হোটেলের অবৈধ কারবার বন্ধে এবং এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।
এ বিষয়ে হোটেল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য জানার জন্য হোটেলের ব্যবহৃত ০১৭১২-৬৩১৪০৩ মোবাইল নম্বরে বারবার ফোন করলে হোটেলের মালিক এবং ম্যানেজার কেউই ফোনটি রিসিভ করেননি।

যশোরে বিএনপির অনশন
যশোর অফিস
পুলিশের অনুমতি নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যশোরে মাত্র ৩০ মিনিটের অনশন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি।
কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বুধবার সকাল ১১টায় যশোর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জেলা বিএনপির উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।
জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন বলেন, কর্মসূচির অনুমতি নিয়ে পুলিশ প্রশাসন টালবাহানা শুরু করে। শেষ পর্যন্ত সকাল ১০টার দিকে কোতোয়ালি থানা থেকে জানানো হয়, বেলা ১১টা থেকে আধা ঘণ্টার জন্য কর্মসূচি পালন করা যাবে। এরপর কর্মসূচি পালনের জন্য সকালে প্রেস ক্লাবে চত্বরে মাইক ও মাদুর ঢোকানোর সময় পুলিশ বাধা দেয়। একপর্যায়ে প্রেসক্লাবের ফ্লোরে বসেই অনশন করে বিএনপির নেতাকর্মীরা।
অনশন কর্মসূচিতে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু বলেন, সরকার মানুষের সকল অধিকার কেড়ে নিয়ে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া খর্ব করেছে। একদিকে সরকার মুখে গণতন্ত্রের বুলি আওড়াচ্ছে, অন্যদিকে বিরোধদলকে কোনো সভা-সমাবেশ করতে দিচ্ছে না। বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারাগারে আটক রাখা হয়েছে। এখন অসংবিধানিকভাবে কারাগারে আদালত বসিয়ে তাকে নতুন করে জেল দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। সরকারকে অগণতান্ত্রিক পথ পরিহার করে খালেদাকে মুক্তি দিতে হবে।
অনশন কর্মসূচিতে জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুনির আহমেদ সিদ্দিকী বাচ্চু, বিএনপি নেতা সিরাজুল ইসলামসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

যশোরে ওয়ার্ল্ড ভিশনের আলোচনা সভা
যশোর অফিস
যশোরে ‘আমিই পারি শিশুর প্রতি সকল সহিংসতা বন্ধ করতে- ইট টেকস্ মি’ শীর্ষক আলোচনা ও অবহিতকরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিশুশ্রম প্রতিরোধে কাজ করা বেসরকারি সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের সাউদার্ন বাংলাদেশ রিজিওনের ‘জীবনের জন্য প্রকল্প’র আওতায় বুধবার সকালে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফ-উজ-জামান।
সভায় শিশুর প্রতি শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন বন্ধে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন জেলার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।
এতে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ‘জীবনের জন্য প্রকল্প’র আঞ্চলিক সমন্বয়কারী আফরোজা খানম সুমি। মূল বিষয় উপস্থাপন করেন ‘জীবনের জন্য প্রকল্প’র প্রজেক্ট অফিসার জাকিয়া সুলতানা। সঞ্চালনা করেন প্রকল্পের অ্যাডভোকেসি ও ট্রেনিং অফিসার অনিন্দিতা বিশ্বাস।
আলোচনায় অংশ নেন সদর উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা দীপক কুমার রায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাহামুদা খানম, ইছালী ইউপি চেয়ারম্যান এসএম আফজাল হোসেন, লেবুতলা ইউপি চেয়ারম্যান আলিমুজ্জামান মিলনসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠনের কর্মকর্তাবৃন্দ।

যশোর শিক্ষাবোর্ডে সিবিএ নির্বাচন ২৮ অক্টোবর
যশোর অফিস
আগামী ২৮ অক্টোবর যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডে কর্মচারিদের প্রতিনিধি (সিবিএ) নির্বাচনের দিন ধার্য করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) খুলনা শ্রম দপ্তরের পরিচালক মিজানুর রহমান এ ঘোষণা দেন বলে জানিয়েছেন যশোর শিক্ষাবোর্ড কর্মচারি ইউনিয়নের (২১২১) সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ আল হাবিব বাপি।
তিনি জানান, শিক্ষাবোর্ডে কর্মচারিদের নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে খুলনার শ্রম পরিচালক মঙ্গলবারে শিক্ষাবোর্ডের অফিস কর্তৃপক্ষ ও কর্মচারি প্রতিনিধিদের নিয়ে মির্টিংয় করে। মির্টিংয়ে ২৮ অক্টোবর নির্বাচনের দিন ধার্য করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবোর্ড অফিস কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধি সচিব প্রফেসর ড. মোল্লা আমীর হোসেন, যশোর শিক্ষাবোর্ড কর্মচারি ইউনিয়নের (২১২১) সভাপতি ও জেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি মুজিবুল হক, শিক্ষাবোর্ড কর্মচারি ইউনিয়নের সহ-সম্পাদক হারুন-অর-রশিদ, কোষাধ্যক্ষ সায়মা সিরাজ মিতা, সদস্য শাহজামান প্রমুখ।

শোভনালীতে দুর্নীতি দুরীকরণে করণীয় শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক
আশাশুনি প্রতিনিধি
আশাশুনি উপজেলার শোভনালীতে দুর্নীতি দূরীকরণে করণীয় শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় শোভনালী ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়নতে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্টোমি ফাইÐেশনের অর্থায়নে সাতক্ষীরা উন্নয়ন সংস্থা (সাস) এর মর্যাদা ও স্থায়ীত্বশীলতার সাথে আর্থ সামাজিক ক্ষমতায়ন (সীডস) কর্মসূচির আওতায় আয়োজিত অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন, শোভানালী ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক ম মোনায়েম হোসেন। মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন, আশাশুনি প্রেসক্লাব সভাপতি ও উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহ-সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান। বৈঠকে ইউপি সদস্য উদয় কান্তি বাছাড়, গ্রাম আদালত সহকারী কনক মন্ডল, প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়কারী মনজিল সুলতানা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে দুর্নীতি প্রতিরোধে করণীয়, প্রকল্প এলাকায় জনসংগঠনগুলো দুর্নীতি প্রতিরোধে ব্যবস্থা নিতে সচেনতা সৃষ্টি এবং দুর্নীতি প্রতিরোধে অংশগ্রহণকারীগণ দায়িত্ব সচেতন হতে পাওে সেব্যাপাওে বিস্তারিত মতবিনিময় ও আলোচনা করা হয়।

ওয়ার্ল্ড ভিশনের ইউপিজি ফ্যাসিলিটেটরদের রিফ্রেসার্স কর্মশালা
আশাশুনি প্রতিনিধি
ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ দেবহাটার উদ্যোগে ইউপিজি ফ্যাসিলিটেটরদের রিফ্রেশারস কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার পারুলিয়া সাব অফিসে আশাশুনি ইনহেল্ডার প্রোজেক্ট ওয়ার্ল্ড ভিশনের আয়োজনে দিন ব্যাপি এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। আশাশুনি ও দেবহাটা উপজেলার ৯ জন আল্ট্রা পুওর গ্র্যাজুয়েশন ফ্যাসিলিটেটরদের নিয়ে আয়োজিত কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন, ইনহেল্ডার প্রোজেক্টের প্রোগ্রাম অফিসার রফিকুল ইসলাম, জুনিয়ার প্রোগ্রাম অফিসার পল হাজরা প্রমুখ। তারা হতদরিদ্র পরিবারের মান উন্নয়ন ও অবস্থার পরিবর্তনে করণীয়তাসহ বিভিন্ন দিক সম্পর্কে আলোচনা করেন। বিশেষ করে মাল্টি মিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে কিভাবে হতদরিদ্র পরিবারের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন করা সম্ভব তার বিভিন্ন ধাপসহ বিস্তারিত আলোচনা উপস্থাপন করেন।

শোভনালী ব্রীজ-কামালকাটি-ব্যাংদহা সড়কের বেহাল দশা
মইনুল ইসলাম, আশাশুনি
আশাশুনি উপজেলার শোভনালী ব্রীজ-কামালকাটি-ব্যাংদহা সড়কের বেহাল অবস্থার কারণে জন ভোগান্তি ক্রমশ বেড়েই চলেছে। আশাশুনি উপজেলা মফস্বল এলাকা থেকে জেলা শহরের শটকাট সড়ক হিসেবে সাধারণ মানুষ এ সড়কটি ব্যবহার করে আসছে দীর্ঘদিন। জানাগেছে, আশাশুনি উপজেলার মফস্বল এলাকা কোলাঘোলা থেকে শ্রীউলা হয়ে, কালিবাড়ী বাজার হয়ে শোভনালী/নৈকাটি ব্রীজের পাশ দিয়ে এ সড়কটি দিয়ে সাধারণ মানুষ ফিংড়ী ইউনিয়নের ব্যাংদহা বাজারের উপর দিয়ে জেলা শহরে যেয়ে থাকেন। কোলাঘোলা থেকে সাতক্ষীরা পর্যন্ত মোট সড়কের মধ্যে শোভনালী ব্রীজ থেকে ব্যাংদহা বাজার পর্যন্ত সড়কটি কাঁচা হওয়ায় হালকা বৃষ্টি হলেই সাধারণ মানুষকে বহু পথ অতিক্রম করে যেতে হয় সাতক্ষীরা জেলা শহরে। এছাড়া হালকা থেকে মাঝারী বৃষ্টিপাত হলেই শোভনালী ০৯নং ওয়ার্ড বৈকারঝুটি এলাকার মানুষের ভোগান্তির অন্ত থাকে না। কাঁদা-পানির সাথে যুদ্ধ করে বাড়ী থেকে গন্তব্যস্থানে পৌঁছাতে হয় তাদের।
এব্যাপারে বৈকারঝুটি ইউপি সদস্য আজিজুর রহমান জানান, এ সড়কের পিচের কার্পেটিং এর বাজেট হয়ে আছে কিন্তু তার কোন বাস্তবায়ন নেই। অনেক বার এবিষয়ে যোগাযোগ করা হলেও কোন সুফল মেলেনি।
একাধিক এলাকাবাসী এ প্রতিবেদক জানান, কাঁদা-পানির সাথে যুদ্ধ করে তাদের সন্তানরা স্কুলে যাতায়াত করে থাকে। বর্ষাকালে কাঁদা পানিতে স্কুল ড্রেজ নোংরা হয়ে যাওয়ায় স্কুল ব্যাগে করে অনেক সময় ছাত্র ছাত্রীদের অতিরিক্ত স্কুল ড্রেজ নিয়ে যেতে হয় স্কুলে। এলাকাবাসী আরও বলেন, শোভনালী ব্রীজটি উন্মুক্ত হলেই এ সড়কটিতে সাধারণ মানুষের যাতাযাতের চাপ আরও বাড়বে বলে মনে করেন। বর্তমান সরকার যেখানে শহর থেকে গ্রামগঞ্জের প্রতিটি সড়কের উন্নয়নের কাজ করছেন, সেখানে বৈকারঝুটি এলাকার সড়কটির অবস্থা দেখে সাধারণ মানুষের মধ্যে সরকারের উন্নয়নের উপর বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হতে দেখা গেছে। বিষয়টি আমলে নিয়ে অতিদ্রæত এ গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি সংস্কার করতে সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদ কমিটি অনুমোদন
আশাশুনি প্রতিনিধি
আশাশুনিতে বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদের উপজেলা কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদের সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি এড. আল মাহমুদ পলাশ ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুর রাজ্জাকের স্বাক্ষরিত পত্রে প্রকাশ আশাশুনি উপজেলা বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদে মোঃ ইদ্রিস আলীকে আহবায়ক, স.ম. ইস্টালিন সরদার, জয়নাল আবেদীন ও ইমরান হোসেনকে যুগ্ম আহবায়ক ও আজাহারুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে ২১সদস্য বিশিষ্ট সাময়িক আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, মোঃ হাসান আলী, নজরুল ইসলাম, ইনছার আলী, বিল্পব হোসেন, ইকবল হোসেন, আরাফাত হোসেন, আব্দুল মজিদ, আব্দুর রহিম, মঈনুর রহমান, আজিজুল ইসলাম, আজগার আলী, জাহাঙ্গীর আলম, রিপন হোসেন ও বাবলুর রহমান। পরবর্তী ৩ মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করতে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

আশাশুনিতে একমাসে গ্রেফতার ৪৭৯
আশাশুনি প্রতিনিধি
আশাশুনি থানা পুলিশের চৌকশ দায়িত্বপালন ও সফল অভিযানে রেকর্ড সংখ্যক আসামী গ্রেফতার এবং অস্ত্র-গোলাবারুদ ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে। আশাশুনি থানায় নবাগত পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) বিপ্লব কুমার দেবনাথ ১৭ জুলাই ১৮ তারিখে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে থানা এলাকায় শান্তি শৃংখলা উন্নয়ন ও সার্বিক পরিবেশ অটুট রাখতে জোরদার কার্যক্রম শুরু করেন। সাথে সাথে ওয়ারেন্টের আসামী গ্রেফতারের পাশাপাশি নাশকতা, মাদকতাসক্ততা ও অন্যান্য অপরাধ দমনে সুচিন্তিত তৎপরতার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমানের পরামর্শ অনুযায়ী সার্বিক দিক বিবেচনায় রেখে এসআই, এএসআইবৃন্দকে কাজে লাগিয়ে ঈপ্সিত লক্ষ্যে উপনীত হতে স্বচেষ্ট হন। ফলে মাত্র একমাস পূর্ণ হওয়ার এক সপ্তাহ আগেই তিনি রেকর্ড সংখ্যক ওয়ারেন্টের আসামী গ্রেফতারে সক্ষম হয়েছেন। ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত থানায় ৩৮৭ জন সিআর ও জিআরভুক্ত ওয়ারেন্টের আসামী গ্রেফতার করেন। একই সাথে সাজাপ্রাপ্ত আসামী ৯ জন ও নাশকতা মামলার আসামী ৮৩ জন গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামী গ্রেফতারের পাশাপাশি দেশীয় রিভলবার ১টি, তাজাগুলি ২ রাউন্ড, হাতবোমা ৪টি উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া গাঁজা দেড় কেজি, ইয়াবা ২০ পিচ ও ৭টি চোরাই মহিষ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ জানান, আইন শৃংখলা রক্ষার্থে আমরা বর্দ্ধপরিকর। অপরাধীদের সাথে কোন আপোষ নেই। সরকারের স্বার্থ রক্ষা, জনগণের কল্যাণে কাজ করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। আমরা থানার অধীন সকলের কল্যাণের পাশাপাশি অপরাধ দমনে সর্বদা স্বচেষ্ট আছি এবং থাকতে চাই।

লখপুর ইউনিয়নের ২টি ওয়ার্ডে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সম্মেলন
ফকিরহাট প্রতিনিধি
বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার লখপুর ইউনিয়ন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে ৪নং ওয়ার্ডের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কমিটি গঠন গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় জলছত্র বটতলাস্থ দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য মোঃ রফিকুল ইসলাম রেজার সভাপতিত্বে সভার উদ্বোধন করেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক শেখ ইমরুল হাসান। প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ, বিশেষ অতিথি ছিলেন, লখপুর গ্রæপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবুল হোসেন, উপজেলা আঃলীগের সহ-সভাপতি মোঃ খলিলুর রহমান। ইউনিয়ন আঃলীগের সাধারণ সম্পাদক এম,ডি সেলিম রেজার সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, উপজেলা আঃলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখর রঞ্জন দেবনাথ, দুযোগ বিষয়ক সম্পাদক তপন দেবনাথ ভজন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য সচিব কাজি বেলাল সাইদ, জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি পুলিন বিহারী ঘোষ, ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ পারভেজ আজাদ, উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারন সম্পাদক অনিমেষ কুমার দাম ও ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। সভায় ইদ্রিস আলীকে সভাপতি ও জিসান শেখকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪নং ওয়ার্ড কমিটি গঠন অপর দিকে মোঃ আতাউর রহমানকে সভাপতি ও মামুনুর রশিদকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে ৫নং ওয়াডের্র কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কৃষক-ক্ষেতমজুর সংগ্রাম পরিষদের কৈয়া বাজারে হাট সভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
গতকাল বুধবার বটিয়াঘাটা উপজেলা কৃষকÑক্ষেতমজুর সংগ্রাম পরিষদ-এর উদ্যোগে ৫ দফা দাবীর ভিত্তিতে কৈয়া বাজারে বিকেল ৪টায় কৃষকÑক্ষেতমজুর সংগ্রাম পরিষদ বটিয়াঘাটা উপজেলার সমন্বয়ক তুলসি দাস রায়ের সভাপতিত্বে এক হাট-সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় বক্তারা প্রকৃত ‘কৃষকের হাতে জমি’Ñএই নীতির ভিত্তিতে আমূল ভূমি সংস্কার, উপজেলা ভূমি অফিসে ঘুষ-দুর্নীতি বন্ধ, প্রকৃত ভূমিহীন ক্ষেতমজুরদের খাস জমি প্রদান, পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের হয়রাণি বন্ধ ও গ্রামের গরীব মানুষের জন্য পল্লী রেশনিং ব্যবস্থা চালু করার জোর দাবী জানান। হাট-সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেনÑকৃষক-ক্ষেতমজুর সংগ্রাম পরিষদের সিপিবি জেলা সম্পাদক এ্যাড. রুহুল আমিন, কৃষক-ক্ষেতমজুর সংগ্রাম পরিষদ জেলা সদস্য মোস্তফা খালিদ খসরু, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের খুলনা জেলা নেতা কাজী দেলোয়ার হোসেন, কৃষক সমিতির নেতা অশোক সরকার, নিহার রঞ্জন গোলদার, প্রভাষক পূর্ণেন্দু বিশ্বাস, মতিলাল ঢালী, মুকুল হালদার প্রমুখ।

পিরোজপুরে মারমুখী অবস্থানে আ’লীগের দুই মনোনয়ন প্রত্যাশীর সমর্থকরা
পিরোজপুর প্রতিনিধি
আওয়ামী লীগের দুই মনোনয়ন প্রত্যাশীর সমর্থকদের মধ্যে মিছিল, পাল্টা মিছিল, ইটপাটকেল নিক্ষেপ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় গতকাল বুধবার সন্ধ্যার পর পিরোজপুর শহর উত্তপ্ত হয়ে উঠে। ঘটনার এক পক্ষে রয়েছে পিরোজপুরের পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি হাবিবুর রহমান মালেকের সমর্থকগণ। আর অন্য পক্ষে রয়েছে শেখ এ্যানী রহমানের সমর্থকরা।
গত দুই দিন ধরে উভয় গ্রæপের মধ্যে উত্তেজনা ও মারমুখী পরিস্থিতি বিরাজ করায় শহরে পুলিশি তৎপরতা ও কড়া নিরাপত্তামূলক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।
মঙ্গলবার রাতে শেখ এ্যানী রহমানের গাড়ি বহরে গুলিবর্ষণের ঘটনার পর উত্তপ্ত হয়ে উঠে শহর। এ ঘটনার প্রতিবাদে কর্মী-সমর্থকরা শহরে তাৎক্ষণিক মিছিল-সমাবেশ করে। এর প্রেক্ষিতে বুধবার বিকালে শহরের ক্লাব রোডে মেয়র সমর্থকরা মিছিল ও সমাবেশ করে। আর এ্যানী রহমান সমর্থকদের বিরুদ্ধে মেয়র সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্যের প্রতিবাদ জানায়।
সন্ধ্যার পর এ্যানী রহমানের সমর্থকরা পাল্টা মিছিল বের করলে দুই পক্ষ শহরের কেন্দ্রীয় মসজিদের মোড়ে লাঠিসোটা নিয়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় লিপ্ত হয়।একপর্যায়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপে এ্যানী রহমানের সমর্থক সুইট সিকদারসহ ৩/৪ জন আহত হন বলে জানা যায়।
এ্যানী রহমান জানান, আসন্ন নির্বাচনে পিরোজপুর-১ আসনে তার নির্বাচনী প্রচারণাকে বাঁধা দেওয়ার জন্য বিরোধী পক্ষ সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে। এ সময় তিনি পুলিশের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ আনেন।
এ ব্যাপারে পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক বলেন, শেখ এ্যানী রহমান আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না। তার সঙ্গে কোন বিরোধ নাই। তাকে দল মনোনয়ন দিলে আমরা তাকে সমর্থন দেবো। কিন্তু শহরের কিছু অখ্যাত লোক ঘোলাজলে মাছ শিকার করতে চায় তাকে সামনে রেখে।

এ ব্যাপারে পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম জিয়াউল হক জানান, বিকালে এক পক্ষের মিছিল-সমাবেশ করার খবর পুলিশের জানা থাকলেও সন্ধ্যার পর অপর পক্ষ হঠাৎ করে মিছিল বের করলে পরিস্থিতি কিছুটা উত্তপ্ত হয়। তবে পুলিশ কঠোর অবস্থান নিলে বর্তমানে শহরে শান্তিপূর্ণ অবস্থা বিরাজ করছে।

কেসিসির ৬৩৭ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা আজ
স্টাফ রিপোর্টার
খুলনা সিটি কর্পোরেপশনের (কেসিসি) চলতি অর্থ বছরের ৬৩৭ কোটি ৯ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করা হবে আজ বৃহস্পতিবার। বেলা ১১টায় নগর ভবনের শহীদ আলতাফ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে বিদায়ী মেয়র মোহাম্মাদ মনিরুজ্জামান মনি এ বাজেট ঘোষণা করবেন। বাজেটে ৪৫৫ কোটি ২০ লাখ টাকার বৈদেশিক সাহায্যপুষ্ট উন্নয়ন খাত ও সরকারি অনুদানের উপর নির্ভরশীল।
কেসিসির সূত্র জানান, সংবাদ সম্মেলনে মেয়র গত অর্থ বছরের ২৫৫ কোটি ৭৯ লাখ টাকার সংশোধিত বাজেট পেশ করবেন।
কেসিসি সূত্র জানায়, সরকার ও দাতা সংস্থা থেকে আশানুরূপ বরাদ্দ না পাওয়ার কারণে উন্নয়ন বাজেটে কাক্ষিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব হয়নি। চলতি অর্থ বছরের বাজেটে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে ১২ কোটি ৫৭ লাখ টাকা, ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা সংস্কারে ৮৩ কোটি ২২ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। নগরীর সার্বিক উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি ওয়ার্ল্ড ব্যাংক, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, জার্মান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক, ইউএনডিপি, ইউনিসেফ, এফএওসহ আন্তজার্তিক সংস্থা কাজ করছে।
বিদায়ী মেয়র মোহাম্মাদ মনিরুজ্জামান মনি বলেন, বাজেটে নতুন কোন করারোপ করা হয়নি। নগরীর সড়ক, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ জলাবদ্ধতা নিরসন, শহর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে বাজেটে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ প্রতিরোধে মশক নিধনের সঙ্গে সঙ্গে স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নেও।

বজ্রপাতে কাঁপল নগরীর মানুষ!
স্টাফ রিপোর্টার
গতকাল বুধবার দুপুর সাড়ে তিনটা। হঠাৎ খুলনার আকাশ অন্ধকারাচ্ছন্ন। মুহূর্তেই ঘনকালো মেঘ থেকে নামল অঝোর ধারায় বৃষ্টি। সঙ্গে সঙ্গে একের পর এক বিদ্যুৎ চমক এবং তীব্র গর্জনসহ বজপাত। এতে তীব্র আতঙ্কিত হয়ে পড়েন মানুষজন। তবে সন্ধ্যা পৌঁনে ৭টা পর্যন্ত বজ্রপাতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।
ভাদ্রের শেষ প্রান্তে এসে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বজ্রবৃষ্টি শ্রাবনের বৃষ্টিকেও হার মানিয়েছে। হঠ্যাৎ বৃষ্টি শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নগরজীবনে ছন্দপতন ঘটে। তুমুল বৃষ্টি আর বজ্রপাতে বিকাপে পড়েন নগরবাসী। বৃষ্টি চালাকালীন সময় নগরীর অধিকাংশ এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ।
এদিকে অবিরাম বর্ষণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে খুলনা মহানগরীর অধিকাংশ সড়কে। বিশেষ করে খুলনা নগরীর রয়্যালের মোড়, বাইতিপাড়া, শামসুর রহমান রোড, তালতলা, শান্তিধাম মোড়, মডার্ন ফার্নিচার মোড়, সাতরাস্তার মোড়, ছোট মির্জাপুর রোড, খানজাহান আলী রোড, সাউথ সেন্ট্রাল রোড, বাবুখান রোড, কেডিএ এভিনিউ। এতে পথচারী, শিক্ষার্থী ও অফিস ফেরত লোকজন চরম দুর্ভোগে পড়েন। অঝোর বৃষ্টিতে রাস্তাঘাট যানবাহন শূন্য হয়ে পড়ায় চরম দুর্ভোগে পড়ে মানুষ।
নগরীর মুসলমানপাড়ার বাসিন্দা আবুল কালাম বলেন, ‘এত তীব্র বজ্রপাত আগে কখনো দেখিনি। মনে হচ্ছিল যেন যুদ্ধক্ষেত্রের মধ্যে আছি।’
বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ্জামান বলেন, অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা, ময়লা-আবর্জনা, পানি নিষ্কাশনের খাল ভরাটের কারনে সামান্য বৃষ্টিতে নগড়জুড়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। পরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে সিটি করপোরেশনকে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে।
খুলনা আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ আমিরুল আজাদ বলেন, নগরী ও আশেপাশ এলাকায় ১৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বজ্রপাতের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে এ বজ্রবৃষ্টি হয়েছে। সমুদ্র বন্দরের জন্য কোন সংকেত নেই। তবে, নদী বন্দরের জন্য ১ নম্বর সতর্ক সংকেত রয়েছে।

সাতক্ষীরায় বজ্রপাতে দুই স্কুলছাত্রীসহ নিহত ৩
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ ও আশাশুনি উপজেলায় পৃথক বজ্রপাতের ঘটনায় দুই স্কুলছাত্রী ও এক ঘের কর্মচারী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় দগ্ধ হয়েছে আরও দুই স্কুলছাত্রী। গতকাল বুধবার বিকেল ৫টার দিকে কালিগঞ্জ উপজেলার চম্পাফুল বাজার ও আশাশুনির কাপসন্ডায় এ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলো- কালিগঞ্জের সাইহাটি গ্রামের বিল্লাল খার মেয়ে বিলকিস খাতুন (১৪), চম্পাফুল গ্রামের আকবর শেখের মেয়ে ময়না (১৪) এবং আশাশুনির কাপসন্ডার আবু বক্স গাজীর ছেলে তাছের গাজী (৩০)।
দগ্ধরা হলো- কালিগঞ্জের বালাপোতা গ্রামের রহিম শেখের মেয়ে রুবিনা (১৩) ও একই উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামের হায়দার আলীর মেয়ে সাথী (১৪)। নিহত দুই স্কুলছাত্রী ও আহতরা সবাই চম্পাফুল হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।

কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান হাফিজুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, বিকেলে তারা চার বান্ধবী একসঙ্গে স্কুলে প্রাইভেট পড়তে যাচ্ছিলো। চম্পাফুল বাজার এলাকায় পৌঁছালে বিকট শব্দে বজ্রপাত ঘটে। এতে চারজন আহত হয়। এময় স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে পার্শ্ববর্তী আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বিলকিস খাতুনকে মৃত ঘোষণা করেন। বাকি তিন জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে নেওয়ার পথে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে দগ্ধ ময়না।
এদিকে আশাশুনির খাজরা ইউপি চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম বাংলানিউজকে জানান, বিকেলে বৃষ্টির মধ্যে ঘের থেকে বাড়ি ফেরার পথে বজ্রপাতে তাছের গাজী ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

নড়াইলের বদরুদ্দোজার জামিন
নড়াইল প্রতিনিধি
মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় নড়াইলের মো. বদরুদ্দোজার জামিন মঞ্জুর করেছেন ট্রাইব্যুনাল। নিয়মিত হাজির হওয়ার শর্তে এক জামিন আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল বুধবার বিচারপতি মো. শাহীনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল এই আদেশ দেন।
ট্রাইব্যুনালে নড়াইলের মো. বদরুদ্দোজার জামিন বিষয়ে প্রসিকিউশন পক্ষে শুনানি করেন প্রসিকিউটর সাহিদুর রহমান ও রেজিয়া সুলতানা চমন। অন্যদিকে আসামিপক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মুজাহিদুল ইসলাম শাহিন। পরে প্রসিকিউটর সাহিদুর রহমান জানান, আসামি অন্যের সহযোগিতা ছাড়া চলাচল করতে পারেন না। তাই এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে জামিন দেয়া হয়েছে। দুর্ঘটনায় আক্রান্ত হয়ে তার পা ভেঙে গেছে। তবে জামিনের শর্ত পালন না করা হলে তার জামিন বাতিল করা হবে বলেও জানিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। এছাড়াও এ মামলার মোট ১২ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পিছিয়ে আগামী ১৫ অক্টোবর পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন ট্রাইব্যুনাল।
মামলার ১২ আসামির মধ্যে পাঁচজন গ্রেফতার হয়ে কারাবন্দি আছেন। তারা হলেন- আব্দুল ওয়াহাব, ওমর আলী শেখ, মো. বদরুদ্দোজা, গুলজার খান ও দাউদ শেখ। বাকি ৭ জনকে পলাতক ঘোষণা করেন ট্রাইব্যুনাল। এই সাত আসামিকে আত্মসমর্পণ করতে দুটি পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য ট্রাইব্যুনাল গত ৩০ এপ্রিল নির্দেশ দেন।
এর আগে, গত বছরের ৩ নভেম্বর ওই ১২ জনের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ ট্রাইব্যুনালে দাখিল করা হয়। পরবর্তীতে ২৬ ডিসেম্বর তা আমলে নেন ট্রাইব্যুনাল। আসামিদের বিরুদ্ধে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের পাঁচটি অভিযোগ আছে।

শতবর্ষী গাছগুলো রেখেই অক্টোবরে শুরু হচ্ছে যশোর রোডের উন্নয়ন
খুলনাঞ্চল রিপোর্ট
দুই পাশের ‘শতবর্ষী’ গাছগুলো না কেটেই অক্টোবর মাসের শেষের দিকে শুরু হচ্ছে যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের পুননির্মাণ কাজ। দুই লেনের এ মহাসড়কের কাজ শুরুর প্রায় সব প্রক্রিয়া এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।
মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এই মহাসড়ক এক সময় যশোর রোড নামে পরিচিত ছিল। এই সড়ক ধরেই ভারতে যান হাজার হাজার বাংলাদেশি শরণার্থী। এ সড়কে শরণার্থীদের ঢল নিয়ে ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ কবিতা লিখেছিলেন মার্কিন কবি অ্যালান গিন্সবার্গ।
সড়ক ও জনপথ বিভাগের যশোরের নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম মোয়াজ্জেম হোসেন সমকালকে জানান, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষায় এ মহাসড়কের পাশের প্রাচীন গাছ রেখেই উন্নয়ন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
তিনি আরো জানান, যশোর শহরের দড়াটানা থেকে বেনাপোল বন্দরের বাংলাদেশ অংশের নো-ম্যান্স ল্যান্ড পর্যন্ত ৩৮ কিলোমিটারের এ মহাসড়কটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩২৮ কোটি টাকা। দুটি প্যাকেজের মাধ্যমে কাজ চলবে।
সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্র জানায়, ইতিমধ্যে এ মহাসড়কের পুননির্মাণ কাজের দরপত্রপ্রাপ্তির পর তা মূল্যায়নের জন্যে ক্রয় কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। এবার অনুমোদন পেলেই কাজ শুরু হবে। এ প্রক্রিয়া শেষ হয়ে কাজ শুরু হতে অক্টোবরের প্রায় শেষ সময় পর্যন্ত লেগে যাবে। ২০১৯ সালের শেষে এ মহাসড়কের পুননির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে আশা করছে সড়ক বিভাগ।
উল্লেখ্য, গত বছরের মাঝামাঝি দেশের গুরত্বপূর্ণ এ মহাসড়কটি পুননির্মাণের কাজ শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সড়ক পাশের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত শতবর্ষী গাছগুলো কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত হওয়ায় এ নিয়ে আন্দোলন হয়। এক সময় তা আদালত পর্যন্ত গড়ায়। ফলে পেরিয়ে যায় অনেক সময়। অবশেষে গাছ রেখেই সড়ক উন্নয়নের সিদ্ধান্ত হয়। তারপর এ নিয়ে দরপত্র আহŸান করা হয়।
সড়ক বিভাগ জানায়, দুই লেনের এ মহাসড়কের প্রস্থ হবে সর্বোচ্চ ৩৪ ফুট। গাছ থাকার কারণে কোথাও কোথাও তা কমবে। সাড়ে চার থেকে পাঁচ ফুট গর্ত করে তা প্রথমে বালি এবং পরে বালি ও খোয়া, পাথর-বালি ও তারপর বিটুমিনাস সারফেস হবে। বিটুমিনাস সারফেসের পুরত্ব হবে ১২০ মিলিমিটার বা প্রায় ৫ ইঞ্চি।

নগর বিএনপির অনশন
বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও
সুচিকিৎসার দাবি
খবর বিজ্ঞপ্তি
বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেছেন, সরকার অন্যায়ভাবে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রেখেছে। আমরা তাঁর নিঃশর্ত মুক্তি চাই। খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া দেশের গণতন্ত্র মুক্ত হবে না। তাই তাঁকে আন্দোলনের মাধ্যমে মুক্ত করতে হবে। আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে তাঁকে নিয়ে নির্বাচনে যাব এবং জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করব। বিএনপি ও খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচন হবে না।
তিনি বলেন, সরকার আবার ষড়যন্ত্র করছে ৫ জানুয়ারি মার্কা নির্বাচন করতে। কিন্তু আমরা বলতে চাই, বাংলাদেশে আর ৫ জানুয়ারি মার্কা কোনো ভোটারবিহীন নির্বাচন হতে দেবো না। তাই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে, সেনা মোতায়েন করতে হবে, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে।
সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ সকাল ১০ টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত দলীয় কার্যালয় চত্ত¡রে নগর বিএনপি আয়োজিত প্রতিকী অনশন কর্মসূচিতে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। কর্মসূচি শেষে নগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে শরবত পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করান বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাই।
কর্মসূচি চলাকালে নজরুল ইসলাম মঞ্জু আরো বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে অসুস্থ, তাঁকে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। তিনি যেহেতু কারাগারে আছেন, তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা সরকারের দায়িত্ব। কিন্তু চিকিৎসক দল বারবার পরামর্শ দেওয়ার পরও সরকার কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তিনি বলেন, ‘সরকার বিএনপির জনসমর্থন দেখে ভীত হয়ে পড়েছে। সরকার আতঙ্কিত হয়ে এখন বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মামলা দিচ্ছে।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে আন্দোলন করতে হবে। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে এর কোনো বিকল্প নেই।
আসাদুজ্জামান মুরাদের পরিচালনায় অনশন কর্মসূচিতে সূচনা বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম। কোরআন তেলাওয়াত করেন মাঃ আঃ গফ্ফার। কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তৃতা করেন কেসিসি মেয়র মনরিুজ্জামান মনি, শাহারুজ্জামান মোর্ত্তুজা, কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, সৈয়দা নার্গিস আলী, মীর কায়সেদ আলী, মোল্লা আবুল কাশেম, সেকেন্দার জাফর উল্লাহ খান সাচ্চু, সিরাজুল ইসলাম, শাহ জালাল বাবলু, রেহানা ঈসা, স ম আঃ রহমান, শেখ জাহিদুল ইসলাম, মোঃ ফকরুল আলম, আমজাদ হোসেন, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, মোঃ মাহবুব কায়সার, নজরুল ইসলাম বাবু, মেহেদী হাসান দীপু, মুহিবুজ্জামান কচি, শফিকুল আলম তুহিন, শাহিনুল ইসলাম পাখি, আজিজুল হাসান দুলু, ইকবাল হোসেন খোকন, আজিজা খানম এলিজা, গিয়াস উদ্দিন বনি, জালু মিয়া, সাদিকুর রহমান সবুজ, শেখ সাদী, ইউসুফ হারুন মজনু, সাজ্জাদ আহসান পরাগ, সাজ্জাত হোসেন তোতন, মুর্শিদ কামাল, একরামুল হক হেলাল, হাসানুর রশিদ মিরাজ, আঃ আজিজ সুমন, শামসুজ্জামান চঞ্চল, রবিউল ইসলাম রবি, কামরান হাসান, নিয়াজ আহম্মেদ তুহিন, ইসতিয়াক উদ্দীন লাভলু, আলমগীর কবির, নাজির উদ্দীন নান্নু, হাসান মেহেদী রিজভী, জামিরুল ইসলাম, মীর কবির, ইমাম হোসেন, শামসের আলী মিন্টু, আফসার মাষ্টার, হফিজুর রহমান মনি, জহর মীর, কাজী মাহবুল হক, হাসান উল্লাহ বুলবুল, এড. মোহাম্মদ আলী বাবু, বদরুল আনাম, আবুল কালাম শিকদার, তরিকুল্লাহ, অধ্যাপক ওহেদুজ্জামান, মেসবাহ উদ্দিন মিজু, সরদার রবিউল ইসলাম রবি, মহিউদ্দিন টারজান, নেইমুল হাসান নেইম, জিএম রফিকুল ইসলাম, নাসির খান, বাচ্চু মীর, সাইমুন ইসলাম রাজ্জাক, মোস্তফা কামাল, ওহেদুর রহমান দীপু, কাজী মাহমুদ আলী, আসলাম হোসেন, মিজানুর রহমান খোকন, আরিফুল ইসলাম শাহিন, ইমতয়িাজ আলম বাবু, আবু সাঈদ শেখ, নীরু কাজী, লিটন খান, দ্বীন এলাহী, সরদার ইউনুস আলী, সাইফুল ইসলাম, মিজানুর রহমান খোকন, মেহেদী হাসান সোহাগ, বাবু মোড়ল, ওমর ফারুক, আলমগীর হোসেন, মেল্লা মুজিবর রহমান, মোঃ আলী, মাজেদা খাদুন, জাহাঙ্গীর হোসেন, খান মঈনুল হাসান মিঠু, জাকারিয়া লিটন, হেদায়েত হোসেন হেদু প্রমুখ।
কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন, ড্যাব নেতা ডা. শেখ আকতারুজ্জামান, সাংবাদিক নেতা এরশাদ আলী, সোহরাব হোসেন, খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. বজলুর রহমান, শিক্ষক নেতা অধ্যাপক শফিকুল আলম।

গণেশ পূজা আজ
খবর বিজ্ঞপ্তি
গণেশ চতুর্দশী পূজা আজ বৃহস্পতিবার। এ উপলক্ষে বড় বাজার সত্য নারায়ণ মন্দিরে বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও পূজার আয়োজন করা হয়েছে। সকাল থেকে এ কার্যক্রম শুরু হবে। নগর পূজা উদ্যাপন পরিষদের প্রচার সম্পাদক সুব্রত হালদার তপা সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

প্রার্থীদের মতবিনিময়
সোহরাওয়ার্দী বিপণী কেন্দ্রের নির্বাচনী প্রচারণা মধ্য রাত থেকে বন্ধ
স্টাফ রিপোর্টার
শহীদ সোহরাওয়ার্দী বিপণী কেন্দ্রের নির্বাচনী প্রচারণা আজ বৃহস্পতিবার মধ্য রাত থেকে বন্ধ থাকবে। তবে প্রার্থীরা ভোটারদের সাথে সার্বক্ষনিক ভাবে যোগাযোগ রক্ষা করবেন এবং মোবাইলে কৌশল বিনিময় করবেন। গতকাল বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাসের সাথে প্রার্থীরা সৌজন্য স্বাক্ষাত ও মতবিনিময় করেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অতিথিদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। তিনি বিপনী কেন্দ্র পরিদর্শণ করেন।
এ সময় খুলনা চেম্বারের পরিচালক মফিদুল ইসলাম টুটুল, মাহবুবুর রহমান, এমডি আবুল হাসান ও সাবেক পরিচালক এস এম ওবায়দুল্লাহ এবং নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী রফিকুল ইসলাম মোড়ল, সহ-সভাপতি মো. কামরুজ্জামান বেল্লাল, মো. সিরাজ উদ্দিন ও এস এম কামাল হোসেন দারা, সাধারণ সম্পাদক এস এম মুরাদ হোসেন মিঠু, সহ-সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো. শাহীন আলী ও মো. জিল্লুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ কাজী নওয়াব হোসেন সাগর এবং সদস্য মো. আবুল হাসান, শেখ রেজাউল কবির, মো. সামসুল আলম শিকদার, মো. রুহুল আমিন, মো. আসলাম, দিলীপ কুমার রায় মন্ডল, মো. হেলাল মুন্সি, এস এম শাহবুব আলম, মো. মিরাজুল ইসলাম, মো. ইনছান উল্লাহ রিংকু, মো. বেল্লাল হোসেন ও নাজমুল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
ভোটারা জানিয়েছেন, দীর্ঘ দিন পর রাহু মুক্ত হচ্ছে। ৩০বছর পর নির্বাচন হচ্ছে। ভোটারা গণতন্ত্র চর্চার সুযোগ পাচ্ছেন। বিভিন্ন প্রার্থীরা মিছিল ও সমাবেশ করছেন। ভোটারদের সাথে কুশল বিনিময় করছেন প্রার্থীরা। নির্বাচনে ৯৫ জন ভোটার রয়েছে। সকাল ৯টা থেকে ২টা পর্যন্ত বিপণী কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ চলবে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর শনিবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। খুলনা শিল্প ও বনিক সমিতির তত্বাবধানে এ নির্বাচন’র আয়োজন করা হয়।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ছিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস এবং সহকারী কমিশনার রয়েছেন ফারুক আহমেদ, মো. নজরুল ইসলাম ও জাহাঙ্গীর আলম।

নগরীর জিএমসিএইচে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প

খবর বিজ্ঞপ্তি
সাধারণ ও স¦ল্প আয়ের মানুষের চিকিৎিসা সেবা নিশ্চিতের জন্য গাজী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে (জিএমসিএইচ) ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প অব্যাহত রয়েছে। এ ক্যাম্পের মাধ্যমে মানুষ সহজেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে পারছেন।
গতকাল বুধবার এ কর্মসূচিতে ১৭৪ জনকে বিনামূল্যে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। রোটারী ক্লাব অব খুলনা মহানগরের সহযোগীতায় হাসপাতালের বর্হিবিভাগে এ সেবাকালীন ১৯জন দুঃস্থ ও অসহায় মানুষকে বিনামূল্যে ওষুধ দেয়া হয়। সকাল ৯টা-দুপুর ২টা পর্যন্ত সেবা প্রার্থীদের মধ্যে বর্হিবিভাগে শিশু ৯জন, গাইনী ২৪জন, মেডিসিন ৪২জন, সার্জারি ৯জন, অর্থপেডিক্স ১৮জন, ডেন্টাল ৪জন, চক্ষু ৩৭জন, নাক-কান-গলা ১৩, কার্ডিওলোজি ৯জন, নিউট্রশনিস্ট ৭, ইউরোলজি ৪ ও জরুরী বিভাগে ১জন পরামর্শ নেন।
২০১৫ সালের ১ জুলাই থেকে এখান থেকে মোট ৩৫ হাজার ৬৪৮জন রোগীকে বিনামূল্যে পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া বিনামূল্যে ওষুধ পেয়েছেন ৩ হাজার ৪৫জন। হাসপাতালের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
বর্তমানে এ হাসপাতাল থেকে সাধারণ রোগীরা মাত্র ১০টাকায় স্বাস্থ্য পরামর্শ ও চেকআপ করাতে পারছেন। এছাড়া স্বল্পমূল্যে রোগ নিরীক্ষার জন্য ডিএনএ ল্যাবে সেবা দেয়া হয়।

নগরীর বয়রায় স্কুল শিক্ষক তয়ন হত্যা মামলায় মাসুদ কাজী রিমান্ডে
স্টাফ রিপোর্টার
নগরীতে জমি-জমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে কিন্ডার গার্টেন স্কুল শিক্ষক কাজী তাসফিন হোসেন তয়ন (৩২) কে অপহরণের পর খুনের মামলার আসামি মো. কাজী মাসুদ (২৭)’র রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে পুলিশের ৫দিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল বুধবার মহানগর হাকিম মো. আতিকুস সামাদ ২দিন মঞ্জুর করেন। সে মুজগুন্নী পূর্বপাড়া এলাকার মৃত কাজী আবুল বাসারের ছেলে। এ মামলার এজাহারভূক্ত প্রধান আসামি কাজী মুরাদ (৩৫) পলাতক রয়েছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. মিজানুর রহমান জানান, জমি-জমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকান্ড সংগঠিত হয়েছে। যেদিন অপহরণ হয়েছে সেদিনই শ্বাসঃরোধ করে ভিকটিমকে আসামিরা হত্যা করেছে। হত্যাকান্ডের পরিকল্পনাকারীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।
মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ২৮ আগস্ট বিকলে সাড়ে ৩টার দিকে নগরীর খালিশপুরস্থ মুজগুন্নী এলাকা থেকে মুজগুন্নী আইডিয়াল মডেল স্কুলের কম্পিউটার বিভাগের শিক্ষক তাসফিন হোসেন তয়ন (৩২) অপহরণের শিকার হন। ঘটনার ১৫দিনের মাথায় ১১সেপ্টেম্বর সকালে বয়রা পুলিশ লাইনের পেছনে আনসার উদ্দিন সড়কের অদুরে একটি ডোবা থেকে তার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় খালিশপুর থানাধিন মুজগুন্নীর ইনসান গাজীর ছেলে সাইফুল গাজী (২০) ও মুজগুন্নী পূর্বপাড়া কমিশনার মোড় এলাকার মৃত কাজী আবুল বাসারের ছেলে মোঃ কাজী মাসুদ (২৭) কে গত সোমবার বিকেলে আটক করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হলে সাইফুল স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। এর আগে গত ৮সেপ্টেম্বর নিহত তয়নের পিতা মুজগুন্নী মেইন রোডের বাসিন্দা কাজী ফেরদৌস হোসেন তোতা বাদী হয়ে কাজী মুরাদের নাম উল্লেখ সহ আরো অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে খালিশপুর থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন যার নং-১২।

বিএনপি নেতা নুরুজ্জামান খোকন স্মরণে দোয়া মাহফিল
স্টাফ রিপোর্টার
রাজনীতির তৃণমূলের সংগঠক সাবেক বিএনপি নেতা মরহুম নুরুজ্জামান খোকনের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বাদ আসর নগরীর মুসলমান পাড়া রোডস্থ দারুল উলুম জামে মসজিদে এ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মহিলাদের জন্য দোলখোলাস্থ মরহুমের বাসভবনে দোয়া মাহফিলের অয়োজন করা হয়। দোয়া মহফিলে রাজনৈতিক, সামাজিক, ব্যবসায়ী, পেশাজীবী ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ শরীক হন।
উল্লেখ্য, গত শনিবার ভোর সাড়ে ৬টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় নগরীর সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।

কুমিরা পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ভবনের ছাদ ধসে দুর্ঘটনার আশঙ্কা
এস.এম মফিদুল ইসলাম, পাটকেলঘাটা
তালা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কুমিরা পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়টি এখন পাঠদানের অনুপযুক্ত হয়ে পড়েছে। ভবনের ছাদ ধসে পড়ায় এবং অব্যাহত থাকায় অজানা দুর্ঘটনার আশঙ্কায় প্রতিনিয়ত শিক্ষাগ্রহণ করে আসছে এ প্রতিষ্ঠানের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা।
জানা যায়, নারী শিক্ষায় দুরাবস্থা দেখে তাদেরকে শিক্ষিত করার মনমানসিকতা থেকে ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠান তৈরীর উদ্যোগ নেন তৎকালীন সাতক্ষীরার আলোক উজ্জলময় ব্যক্তিত্ব সাতক্ষীরা থেকে প্রথম প্রকাশিত কাফেলা পত্রিকার সম্পাদক বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মরহুম আব্দুল মোতালেব। তার হাত ধরেই এ এলাকার গুণীজনদের নিয়ে গড়ে ওঠে নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে আর শিক্ষকদের পাঠদানের আন্তরিক প্রচেষ্ঠায় উপজেলার নারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে বেশ সুনামের সাথে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিবছর এখান থেকে অসংখ্য ছাত্রীরা ভালো ফলাফল অর্জন করে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সরকারী বেসরকারী কাজে অংশগ্রহণ করছে। ১৯৯৩ সাল থেকে মাধ্যমিক শিক্ষাস্তর পর্যন্ত সকল পাবলিক পরীক্ষার কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। শিক্ষক কর্মচারী সহ সবমিলিয়ে ৩০ জন দক্ষ ব্যক্তিত্ব এখানে নিরলস শ্রম দিয়ে আসছেন। দীর্ঘ প্রাচীন প্রতিষ্ঠান হওয়ায় বিল্ডিংগুলো জরাজীর্ণ হয়ে বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে প্রায় ১ দশক। বিভিন্ন সময় সংস্কারের ছোয়া লাগালেও বর্তমানে খুটির জোর ধরে রাখা একেবারেই অসম্ভব হয়ে পড়েছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, ভবনের বিভিন্ন স্থান থেকে ছাদ ধসে পড়ছে। রডগুলো একেবারেই বেরিয়ে বাকিটুকু ধসে পড়ার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন শিক্ষকমন্ডলী ও ছাত্রীবৃন্দ। প্রতিষ্ঠানের ৬ শতাধিক ছাত্রীরা দিনের ৬/৭ ঘন্টা শ্রেণী ক্েক্ষ পাঠদান প্রতিনিয়ত হওয়ায় জীবন হানির মতো দুর্ঘটনা বিরাজমান সকলের মাঝে। মাস দুয়েক পরেই তাদের পুরো বছরের অর্জিত জ্ঞান দিয়ে বার্ষিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এসময়টিতে পাঠদানে বেশি মনোযোগী হওয়ার কথা থাকলেও অনেক অভিভাবক দুর্ঘটনার আশঙ্কায় তাদের কোমলমতি শিক্ষার্থীগণ তাদের মেয়েকে স্কুলে পাঠাতে ভয় পাচ্ছেন। বিষয়টি বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদ সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ নতুন ভবন নির্মাণের প্রতিশ্রæতি ব্যক্ত করেছেন বলে জানান বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গৌতম কুমার দাশ। তিনি আরও জানান, আয়ের কোনো উৎস না থাকায় এবং নারী প্রতিষ্ঠান হওয়ায় নিজস্ব অর্থায়নে বিল্ডিং নির্মাণ একেবারেই অসম্ভব। বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদ আন্তরিক হওয়ায় এমনকি এই আসনের সুযোগ্য এমপি মহোদয় এ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ সরেজমিনে বিদ্যালয় পরিদর্শন করেছেন এবং অতিদ্রæত নতুন ভবন নির্মাণের জোরালো দাবি বাস্তবায়নের আশ্বাস ব্যক্ত করেছেন। এ বিষয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার জানান, বিদ্যালয় ভবনের দুরাবস্থা অত্যন্ত নাজুক। নতুন ভবন নির্মাণের জোরালো দাবিটি সকলের সমন্বয়ে অতিদ্রæত বাস্তবায়নের জোর প্রচেষ্ঠা অব্যাহত রেখেছি। বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের কথা মাথায় রেখে কাজ চালিয়ে যাচ্ছি বলে জানান, তালা-কলারোয়া আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. মুস্তফা লূৎফুল্লাহ।

দৈনিক খুলনাঞ্চল পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ
পাইকগাছায় আলোচিত আশালতা ক্লিনিকের মালিক দেবাশীষকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড
মোঃ আব্দুল আজিজ, পাইকগাছা
দৈনিক খুলনাঞ্চল পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর পাইকগাছার বাঁকা বাজারের আলোচিত আশালতা ক্লিনিকের মালিক দেবাশীষ মন্ডলকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডাঃ মোঃ আব্দুল আউয়ালের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত বুধবার সকালে ক্লিনিকে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় ক্লিনিকের মালিক দেবাশীষ খালি শরীরে ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন একজন রোগীকে ইনজেকশন প্রদান করছিল। এছাড়াও ক্লিনিকের লাইসেন্সের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষা করে ডাক্তার ও নার্স ছাড়াই অবৈধভাবে ক্লিনিক পরিচালনা করার অভিযোগে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ক্লিনিকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেবাশীষ মন্ডলকে ৬ মাসের কারাদন্ড প্রদান করেন। ঘটনাস্থল থেকেই রাড়–লী ক্যাম্প পুলিশ দেবাশীষকে গ্রেফতার করে। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুজন কুমার সরকার ও পেশকার সাকিরুল ইসলাম।
উলে­খ্য, দেবাশীষ মন্ডল দীর্ঘদিন অবৈধভাবে আশালতা ক্লিনিক পরিচালনা করে আসছিল। এতে প্রতারিত হচ্ছিল সাধারণ মানুষ। বিষয়টি তুলে ধরে গত ২৬ আগস্ট খুলনা থেকে প্রকাশিত দৈনিক খুলনাঞ্চল পত্রিকার শেষের পাতায় “প্রশাসনের নির্দেশ উপেক্ষা, পাইকগাছায় আশালতা ক্লিনিকের কার্যক্রম অব্যাহত” শিরোনামে একটি সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। উক্ত সংবাদ প্রকাশেরপর আশালতা ক্লিনিকের মালিকের বিরুদ্ধে অত্র এলাকার মধ্যে প্রথমবারের মত সর্বোচ্চ আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করায় সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুর রাজ্জাক, ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডাঃ মোঃ আব্দুল আউয়াল, মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুজন কুমার সরকার সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অভিনন্দন জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্যসেবা গ্রহীতা ফোরামের নেতৃবৃন্দ।

পাইকগাছায় প্রথম নারী ইউএনও জুলিয়া সুকায়না
পাইকগাছা, প্রতিনিধি
অবশেষে আগামী দু’একদিনের মধ্যে পাইকগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসাবে যোগদান করছেন জুলিয়া সুকায়না। তিনি বর্তমানে কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় কর্মরত রয়েছেন। এ উপজেলায় জুবায়ের হোসেন চৌধুরী যোগদান করলে উপজেলার দায়িত্ব বুঝে দিয়ে আগামী দু’একদিনের মধ্যেই নবাগত ইউএনও হিসাবে পাইকগাছা উপজেলা প্রশাসনের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন ইউএনও জুলিয়া সুকায়না। উলে­খ্য, ৭/১১/১৯৮২ সাল থেকে এ পর্যন্ত অত্র উপজেলায় ২৭ জন কর্মকর্তা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দায়িত্ব পালন করেছেন। যার মধ্যে জুলিয়া সুকায়না হবে প্রথম কোন নারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার। সর্বশেষ উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন বিদায়ী ইউএনও ফকরুল হাসান। বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত ইউএনও হিসাবে দায়িত্বে রয়েছেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আব্দুল আউয়াল। এদিকে প্রথম কোন নারী ইউএনও এ উপজেলায় যোগদান করছেন এমন খবরে এলাকায় সব শ্রেণির মানুষের মধ্যে একধরণের ইতিবাচক প্রতিক্রীয়া সৃষ্টি হয়েছে। শিবসা সাহিত্য অঙ্গনের সভাপতি ও প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক সুরাইয়া বানু ডলি বলেন, দেশের সবক্ষেত্রে নারী নেতৃত্বের বিকাশ ঘটছে। এ ক্ষেত্রে আমাদের উপজেলায় প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে একজন নারী ইউএনও যোগদান করবেন এটা অনেক আনন্দের বিষয়।
নবাগত ইউএনও জুলিয়া সুকায়না জানান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার দায়িত্ব এখনো বুঝে দিতে পারিনি। আশা করছি এখান থেকে রিলিজ নিতে পারলে আগামী দু’একদিনের মধ্যে পাইকগাছায় যোগদান করতে পারবো। উপজেলায় প্রথম কোন নারী ইউএনও হিসাবে যোগদান করবেন এ জন্য তিনি নিজেকে গর্বিত মনে করছেন বলে জানান।

উন্নয়ন কমিটির নিন্দা
খবর বিজ্ঞপ্তি
নগরীর মুজগুন্নীস্থ বাসিন্দা, বিশিষ্ট সমাজসেবক কাজী ফেরদৌস হোসেন (তোতা কাজী) এর পুত্র কাজী তাসফিন হোসেন ওরফে তয়নকে নির্মমভাবে হত্যা করায় বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে। সাথে সাথে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাহফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি শেখ মোশাররফ হোসেন, মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান এবং অন্যান্য সকল নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে উক্ত ঘটনায় দোষীদের দ্রæত সনাক্ত করে তদন্তপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবি জানানো হয়, যাতে করে ভবিষ্যতে যেন আর কেউ এ ধরণের ঘৃণ্য অপরাধ করার সাহস না পায়।

পরকীয়ায় বাধা স্বামী কর্তৃক
আশাশুনিতে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় সাতক্ষীরার আশাশুনিতে স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার রাতে আশাশুনির উপজেলার বড়দল ইউনিয়নের জেলপেটুয়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।
নিহতের নাম দিপালী মন্ডল (২৫)। তিনি আশাশুনি উপজেলার বাঁকড়া গ্রামের নির্মল সরকারের মেয়ে ও জেলপেটুয়া গ্রামের মনোজিত কুমার মন্ডলের স্ত্রী।
নিহত দিপালী মন্ডলের বাবা নির্মল সরকার জানান, ৭ বছর আগে আমার মেয়ে দিপালীর সাথে বড়দল ইউনিয়নের জেলপেটুয়া গ্রামের মনোজিতের হিন্দু ধর্মীয় অনুসারে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের ঘরে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। যার বয়স এক বছর। তিনি জানান, সম্প্রতি আমার জামাই মনোজিত মন্ডল প্রতিবেশী গোয়ালডাঙ্গা গ্রামের তপন মন্ডলের মেয়ে মিতালী মন্ডলের সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি জানাজানির এক পর্যায়ে আমার মেয়ে দিপালী তার পরকিয়ায় বাধা দেয়। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে মঙ্গলবার রাতে আমার মেয়ে দিপালীকে পিটিয়ে হত্যা করে। এরপর বিষয়টি সে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য তার গলায় রশি দিয়ে ঝুলিয়ে আতœহত্যা বলে প্রচার দেয়। তিনি আরো জানান, এ ঘটনার পর থেকে আমার জামাই মনোজিত পলাতক রয়েছে।
আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার নাথ জানান, গৃহবধূ দিপালী মন্ডলের লাশ উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, আপাতত এখন একটি অপমৃত্যুর মামলা নেয়া হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের পর পিটিয়ে হত্যার বিষয়টি প্রমানিত হলে পরে হত্যা মামলা নেয়া হবে।

তাসফিন হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবি করেছে খুলনা চেম্বার
খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সাধারণ শ্রেনীর সদস্য, মেসার্স কাজি ফেরদৌস হোসেন, ৪৪নং, বয়রা গোয়ালখালী মেইন রোড, খুলনা এর স্বত্ত¡াধিকারী এবং খুলনা সম্মিলিত ব্যবসায়ী সংগঠন সমন্বয় পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক কাজী ফেরদৌস হোসেন (তোতা) এর একমাত্র পুত্র কাজী তাসফিন হোসেন (তয়ন) (৩২) গত ২৮ আগস্ট, ২০১৮ তারিখ দুর্বৃত্ত কর্তৃক নির্মমভাবে নিহত হন এবং তার ১৫ দিন পর গত ১১ সেপ্টেম্বর সকালে নগরীর বয়রা আনসার উদ্দিন সড়কের একটি ডোবা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয় (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রজিউন)। মরহুম কাজী তাসফিন হোসেন (তয়ন) বয়রার একটি স্কুলে শিক্ষকতা করতেন। তিনি সদালাপী, মিষ্টভাষী ও সমাজ সেবক ছিলেন। খুলনা চেম্বারের সভাপতি কাজি আমিনুল হক সহ পরিচালনা পরিষদ এ হত্যাকান্ডের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে হত্যাকারীদের দ্রæত গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় আনার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন। খুলনার সর্বস্তরের ব্যবসায়ী স¤প্রদায়ের পক্ষ থেকে খুলনা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি কাজি আমিনুল হক, উর্দ্ধতন সহ-সভাপতি শরীফ আতিয়ার রহমান, সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস বুলু, সহ-সভাপতি মোঃ মোস্তফা জেসান ভূট্টো, পরিচালকবৃন্দ শেখ আসাদুর রহমান, ঠাকুর মোঃ শাহ আলম, গোপী কিষণ মুন্ধড়া, আলহাজ্ব মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, আলহাজ্ব মোঃ মোশাররফ হোসেন, এম এ মতিন পান্না, কাজী মাসুদুল ইসলাম, জেড এ মাহামুদ ডন, জোবায়ের আহমেদ খান (জবা), মোঃ আবুল হাসান, মোঃ বদরুল আলম মার্কিন, মোঃ মোস্তফা কামাল পাশা, ফকির মোঃ সাইফুল ইসলাম, মোঃ সিরাজুল হক, শেখ আল্লামা ইকবাল তুহিন, শেখ মোঃ গাউসুল আজম, মোঃ মনিরুল ইসলাম মাসুম, খান সাইফুল ইসলাম, শেখ মনিরুল ইসলাম ও মোঃ মাহবুব আলম কাজী তাসফিন হোসেন এর এ অনাকাঙ্খিত মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং তার রুহের মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

নগরীতে হিন্দুদের বসতবাড়ি দখল ও হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ
খবর বিজ্ঞপ্তি
নগরীর শিববাড়ী মন্দির সংলগ্ন ফেরদৌস প্লাজার পিছনে পালপাড়ার সমর পাল, দেবাশিষ পাল, দোলন পাল ও স্বাগতা পালের পৈত্রিক বাড়িতে ভ‚মিদস্যু ফেরদৌস আমিনুল হক ও তার ভাই বাবলু শেখসহ দলবল নিয়ে হামলা ও অবৈধভাবে জমি দখলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার সকাল ১১টায় মহানগর ও জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের যৌথ উদ্যোগে শিববাড়ী মোড়ে একটি বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বেলা ১২টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে যশোর রোড হয়ে পিকচার প্যালেস মোড় ঘুরে খুলনা প্রেসক্লাবে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে গত ৪ আগস্ট দুপুরে এবং ৮ আগস্ট গভীর রাতে দুটি হিন্দু পরিবারের ওপর হামলা চালিয়ে ভাংচুর তাদের এলোপাথারি মারপিটসহ বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকির প্রতিবাদ জানানো হয়। মহানগর সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার কুন্ডুর পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের জেলা সভাপতি কৃষ্ণপদ দাশ। প্রধান অতিথি ছিলেন পূজা উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রিয় উপদেষ্টা বিজয় ঘোষ। সমাবেশে বক্তৃতা করেন রজত কান্তি দাস, পরিষদের জেলা সাধারণ সম্পাদক রবিন্দ্রনাথ দত্ত, দুলাল সরকার, উদয় নাথ মুন্সী, বিমান সাহা, তিলোক গোস্বামী, বিপ্লব মিত্র, ডাঃ শেখর রঞ্জন পাল, আশিষ কবিরাজ, রামচন্দ্র পোদ্দার, দিপক দত্ত, প্রকাশ অধিকারী, বিপ্লব সাহা লব, সুভাষ দত্ত, দেবদাষ মন্ডল দেবু, রবার্ট নিক্সন ঘোষ, বিকাশ কুমার সাহা, বিশ্বজিৎ দে মিঠু, মহাদেব সাহা, সমর পাল, রবীন্দ্রনাথ সাহা, দেবাশিষ পাল, কুমার লাল, গণেশ মল্লিক, সুশীল দাস, রতন দেবনাথ, সাগতা পাল, ভোলানাথ দত্ত, উজ্জল ব্যানার্জী, অমর কুন্ডু, সজল দাস, বাবু শীল, সত্ত রঞ্জন কুন্ডু, রাজু শীল, মৃনাল বিশ্বাস, অশোক ঘোষ, সবিতা মজুমদার, সন্ধ্যা রানী বিশ্বাস, দিপক দত্ত, সন্তোষ মজুমদার, পাপ্পু সরকার, অচিন্ত ঘরামী, মিন্টু আঢ্য, অসিত চক্রবর্তি, স্বপন চক্রবর্তি, বাদল দে, নিতাই সরদার, ইতি রানী ভট্টাচার্য্য, বিধু ভ‚ষন মন্ডল, দিলীপ পাল, অজয় কুমার দে, বিজয় কৃষ্ণ দাস, বিভার রানী করাতি, কমলা রানী পাল, রথিন্দ্রনাথ রায়, দেবাশিষ দাস, সৌরভ হাজরা, দিপ্র দাস প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা আমিনুল হক গংদের দ্বারা এই পাল পরিবারটি ওপর দিনের পর দিন নির্যাতন, বাড়িঘর ভাঙচুর ও পরিবারের সদস্যদের অমানবিকভাবে মারপিট, বৃদ্ধা স্বাগতা পালের ওপর নির্যাতন ও অন্যান্য নারীদের অকথ্য গালিগালাজ ও বাড়ি ছাড়ার হুমকির তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে এসকল ভ‚মিদস্যু সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার পূর্বক যথাযোগ্য শাস্তিসহ সমর পালের পৈত্রিক দখলকৃত জমি ছেড়ে দেওয়ার দাবি জানান। এছাড়াও সমর পাল, দেবাশিষ পাল ও দোলন পালের নামে ফেরদৌস আমিনুল হক কর্তৃক মিথ্যা ও হয়রানীমূলক মামলা দ্রæত প্রত্যাহারের দাবী জানানো হয়। ভ‚মিদস্যু আমিনুল হক গংদের সহযোগীতা করায় সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মমতাজুল হকসহ সংশ্লিষ্ট অফিসারদের শারদীয় দূর্গা পূজার আগেই থানাসহ কেএমপি থেকে প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। উক্ত দাবী দ্রæত না মানা হলে অচিরেই মহানগর ও জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে স্মারকলিপি পেশ ও গণঅনশনসহ লাগাতার কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে বলে হুশিয়ারি দেন পরিষদ নেতৃবৃন্দ।

অনিয়ম, দুর্নীতি ও দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ
মণিরামপুরের টিএইচএ আব্দুল গফ্ফারের স্টান্ড রিলিজ!
আনোয়ার হোসেন, মণিরামপুর
যশোরের মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল গফ্ফারকে স্টান্ড রিলিজ করা হয়েছে। তাকে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সংযুক্ত করা হয়েছে। গতকাল বুধবারের মধ্যে তাকে সেখানে যোগদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আর শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচএ শুভ্রা রানী দেবনাথকে মণিরামপুরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
এরআগে গত সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসক) ডা. এবিএম মুজহারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত রিলিজ অর্ডার হাতে পান আব্দুল গফ্ফার। আদেশপ্রাপ্তির তিন কর্মদিবসের মধ্যে তাকে শ্যামনগরে যোগদানের কথা বলা হয়েছিল। আদেশ অনুযায়ী পত্র পাওয়ার পর মঙ্গলবার দুপুরে তিনি আবাসিক মেডিকেল অফিসার রেহনেওয়াজের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করে এই সংক্রান্ত কাগজপত্র যশোর সিভিল সার্জনের দপ্তরে পাঠিয়েছেন। সিভিল সার্জন ডা. দিলীপ কুমার রায় এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বিষয়টি অতি গোপনীয় হওয়ায় তা গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে দেরিতে পৌঁছেছে।
ডা. আব্দুল গফ্ফার গত বছরের ২৪ আগষ্ট মণিরামপুরে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা ও দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ ওঠে গুরুত্বরভাবে।
হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানিয়েছে, আব্দুল গফ্ফারের নওয়াপাড়ায় ডর্ক্টস ক্লিনিক নামে একটি ক্লিনিক রয়েছে। ওই ক্লিনিকে মণিরামপুরের ভরতপুরের এক প্রসুতি নারীকে অপারেশন করানোর সময় পেটে গজ-বেন্ডেজ রেখে সেলাই করা হয়েছিল। একপর্যায়ে ওই নারীর মৃত্যু হয়। পরে সিভিল সার্জন গিয়ে ক্লিনিকটি বন্ধ করে দেন। বর্তমানে ক্লিনিকটি বন্ধ আছে।
অভিযোগ রয়েছে,আব্দুল গফ্ফার মণিরামপুরে যোগদানের পর থেকে প্রতিদিন হাসপাতালে আসার সময় ওই ক্লিনিকের অ্যাম্বুলেন্স সাথে নিয়ে আসতেন। এসেই ওপরে রাউন্ডে চলে যেতেন তিনি। রাউন্ডে গিয়ে গুরুত্বর রোগীদের তিনি নিজ ক্লিনিকে রেফার করতেন। আর রোগীদের কোন পরীক্ষা-নিরিক্ষার দরকার হলেও তাদের নওয়াপাড়ায় নিজের ক্লিনিকে পাঠাতেন তিনি।
এদিকে হাসপাতালের বেড খালি থাকলেও সেগুলোতে রোগী ভর্তি দেখাতে নার্সদের বাধ্য করার অভিযোগও রয়েছে আব্দুল গফ্ফারের বিরুদ্ধে। অভিযোগ করা হচ্ছে,খালি বেডে রোগী ভর্তি দেখিয়ে তাদের জন্য বরাদ্দ খাবারের টাকা তিনি আত্মসাৎ করেছেন। এছাড়া রোগীদের মাঝে নি¤œ মানের খাবার বিতরণ, দেরিতে কর্মস্থলে আসা এবং দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগতো তার বিরুদ্ধে রয়েছেই।
অভিযোগ রয়েছে, টিএইচএ আব্দুল গফ্ফার মণিরামপুর হাসপাতালে যোগদানের পর থেকে হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থায় হ-য-ব-র-ল অবস্থার সৃষ্টি হয়। নিজের বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ থাকায় তিনি কোন চিকিৎসককে দিয়ে হাসপাতালে যথাযথভাবে ডিউটি করাতে পারেননি। ফলে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের পড়তে হয়েছে বিপাকে। অনেকেই পাননি কাঙ্খিত চিকিৎসাসেবা। আবার সম্প্রতি মণিরামপুর হাসপাতাল থেকে নবজাতক গায়েব হওয়ার ঘটনার তদন্ত হলেও এখনো নবজাতকের কোন পরিচয় পাওয়া যায়নি। নবজাতকটি বেঁচে আছে নাকি মারা গেছে সেটাও যানা যায়নি। ফলে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে আব্দুল গফ্ফারকে। এসব অভিযোগে আব্দুল গফ্ফারকে মণিরামপুর ছাড়তে হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রের দাবি।
জানতে চাইলে টিএইচএ আব্দুল গফ্ফার বলেন,‘বদলীর আদেশ এসেছে। এখনও মণিরামপুর ছাড়িনি। শ্যামনগরে যাওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। যদিও তাকে বুধবার মণিরামপুরে অফিস করতে দেখা যায়নি।
যশোরের সিভিল সার্জন ডা. দিলীপ কুমার রায় বলেন,‘সোমবার রিলিজ অর্ডার হাতে পেয়েছেন আব্দুল গফ্ফার। চিঠিতে তাকে তিন কর্মদিবসের মধ্যে মণিরামপুর ছেড়ে শ্যামনগরে যোগদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই অনুযায়ী,মঙ্গলবার দুপুরে তিনি আবাসিক মেডিকেল অফিসার রেহেনেওয়াজকে দায়িত্ব বুঝে দিয়ে রিলিজ নিয়েছেন। এই সংক্রান্ত কাগজপত্র আমার অফিসে পৌঁছেছে।’

ইসলামী আন্দোলন খুলনা-২ আসনের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভা
খবর বিজ্ঞপ্তি
গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭ টায় পাওয়ার হাউজ মোড়স্থ আইএবি মিলানায়তনে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা-২ আসনের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির এক মতবিনিময় সভা কমিটির আহবায়ক ও সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হাফেজ মাওঃ অধ্যক্ষ আব্দুল আউয়ালের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মোল্লা রবিউল ইসলাম তুষারের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়।
মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগর সভাপতি ও খুলনা ৩ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী অধ্যক্ষ মাওঃ মুজ্জাম্মিল হক, নগর সহ সভাপতি মাওঃ মুজাফ্ফার হোসাইন, শেখ মোঃ নাসির উদ্দিন, সাবেক সেক্রেটারী মুফতী মাহবুবুর রহমান, মুহাম্মদ ইসমাঈল হোসেন, জয়েন্ট সেক্রেটারী মাওঃ ইমরান হোসাইন, সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম সজিব মোল্লা, আলহাজ্ব আবু তাহের, আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান, আলহাজ্ব ফজলুল করীম, আবু মোঃ বেলাল, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, গাজী ফেরদাউস সুমন, মোঃ হাফিজুর রহমান, মোঃ ইব্রাহীম খান, মোঃ নুরুজ্জামান বাবুল, মোঃ বদরুজ্জামান, হাফেজ দিদার, আলহাজ্ব আব্দুস সালাম, আলহাজ্ব মোমিনুল ইসলাম, আব্দুর জব্বার, আবু হানিফ, মোঃ ফজলুর রহমান, মোঃ মুজিবর রহমান, মোঃ আলী আক্কাস, আলহাজ্ব মোস্তফা পাটোয়ারী, এইচ এম জুনায়েদ মাহমুদ, ইঞ্জিনিয়ার এজাজ মানসুর, গাজী কামাল, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, শেখ আমিরুল ইসলাম, এসকে নাজমুল ইসলাম, মোঃ সাইফুল ইসলাম, আব্দুর রশিদ, এইচ এম খালিদ সাইফুল্লাহ, মাওঃ শরিফুল ইসলাম, মাওঃ সোহরাব হোসেন, আলহাজ্ব মতিয়ার রহমান, মোঃ রেজাউল করীম, আব্দুস সোবাহান, মোঃ বশির উদ্দিন, ডাঃ এমদাদুল হক, মোঃ আলী আকবর, আলহাজ্ব আকবর আলী পাঠান, মোঃ মোক্তার আলী, মোঃ কবির হোসেন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা ২ আসনে সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হাফেজ মাওঃ আব্দুল আউয়াল সাহেবকে বিজয়ী করার জন্য সর্বস্তরে জনগণের কাছে হাতপাখা মার্কার দাওয়াতী কাজ করা আহবান জানান।

খুবি অফিসার্স কল্যাণ পরিষদের শুভেচ্ছা বিনিময়

খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবনের সম্মেলন কক্ষে অফিসার্স কল্যাণ পরিষদের পক্ষ থেকে নতুন নিয়োগ ও আপগ্রেডেশনপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরিষদের সভাপতি শেখ মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (চলতি দায়িত্ব) টিপু সুলতান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (চলতি দায়িত্ব) শেখ শারাফাত আলী ও পরিষদের সহ-সভাপতি মোঃ তারিকুজ্জামান লিপন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দীপক চন্দ্র মন্ডল। এ সময় গ্রন্থাগারিক ড. কাজী মোকলেছুর রহমান, জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক এস এম আতিয়ার রহমান, মেডিকেল সেন্টারের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ কানিজ ফাহমিদাসহ পরিষদের বিভিন্ন পর্যায়ের সদস্যবৃন্দ, কর্মকর্তা এবং নতুন নিয়োগ ও আপগ্রেডেশনপ্রাপ্ত কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

খুবিতে বিজিই ডিসিপ্লিনের সেমিনার
খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে গতকাল বুধবার বেলা ৩ টায় বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং (বিজিই) ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে ‘অপরচুনিটিস এন্ড চ্যালেঞ্জেস ইন এগ্রিকালচারাল বায়োটেকনোলজি’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে বিজিই ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. আয়েশা আশরাফের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জীব বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর এ কে ফজলুল হক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিজিই ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. শেখ জুলফিকার হোসেন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. রাখহরি সরকার। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিজিই ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থী মোঃ তানজিমুল ইসলাম। এ সময় বিভিন্ন স্কুলের ডিন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক, ডিসিপ্লিন প্রধান, শিক্ষক ও সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

খুলনায় পাঁচ দিনব্যাপী ভ্রাম্যমাণ বইমেলার উদ্বোধন
তথ্য বিবরণী
বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের আয়োজনে এবং খুলনা জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় পাঁচ দিনব্যাপী ভ্রাম্যমাণ বইমেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠান গতকাল বুধবার বিকেলে খুলনা উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমান।
বিশ্বসাহিস্য খুলনা কেন্দ্রের সংগঠক হুমায়ুন কবির ববির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল কাদির।
পাঁচ দিনব্যাপী এই বইমেলা প্রতিদিন সকাল নয়টা হতে সন্ধ্যা পর্যন্ত সকলের জন্য উম্মুক্ত থাকবে। দেশব্যাপী ‘আলোকিত মানুষ’ গড়ার আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের বিশেষ উদ্যোগে এ ভ্রাম্যমাণ বইমেলা। এ বইমেলায় থাকবে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রকাশনাসহ দেশি-বিদেশি সকল প্রখ্যাত প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রকাশিত ১০ হাজারের বেশি বিখ্যাত বই। থাকবে দেশি-বিদেশি লেখকদের বিভিন্ন বিখ্যাত উপন্যাস, গল্পের বই, রম্যরচনা, ভ্রমণ কাহিনী, কবিতার বই, প্রবন্ধের বই, নাটকের বই, জীবনীগ্রন্থ থেকে শুরু করে ধর্ম, দর্শন, বিজ্ঞান, সায়েন্স ফিকশন, ভৌতিক উপন্যাস, রূপকথা, অনুবাদগ্রন্থ, ইতিহাস, সমাজতত্ত¡, স্বাস্থ্য-চিকিৎসা বিষয়ক, রান্নাবিষয়ক, ব্যায়ামবিষয়ক, কম্পিউটার ও ভাষা শেখার বইসহ সকল ধরনের বই এই ভ্রম্যমাণ মেলা থেকে আপনার পছন্দ ও চাহিদা অনুযায়ী বই কিনতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত সবার জন্য বাসস্থান, জমি আছে ঘর নাই
শরণখোলায় দরিদ্রদের গৃহ নির্মাণে চলছে হরিলুট
মো. আনোয়ার হোসেন, শরণখোলা
বাগেরহাটের শরণখোলায় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত সবার জন্য বাসস্থান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে, জমি আছে ঘর নাই, নিজ জমিতে গৃহ নির্মান আশ্রয়ন-২, প্রকল্পের আওতায় হতদরিদ্রদের জন্য আধাপাকা বসত ঘর নির্মাণের কাজ নিয়ে হরিলুট শুরু হয়েছে। উপজেলার চারটি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ওই প্রকল্পের ঘরগুলো নির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে। প্রতিটি ঘর ও টয়লেট নির্মানের অনুকুলে লাখ টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে সভাপতি করে ৫ সদস্যের প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির মাধ্যমে বসত ঘরের নির্মাণ কাজ চলছে উপজেলা জুড়ে। তবে নিয়মনীতি উপেক্ষা করে ঘরগুলো বন্টন করার ফলে প্রকৃত হতদরিদ্ররা এ আশ্রয়ন প্রকল্পের সুযোগ থেকে অনেকটা বঞ্চিত হয়েছেন। অনেক ক্ষেত্রে দরিদ্রদের পরিবর্তে ঘর বরাদ্দের নামের তালিকায় স্থান পেয়েছেন সমাজের বিত্তশালীরাও। সরকার দলীয় কিছু নেতা ও প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের যোগসাজসে উপজেলার কোথাও কোথাও আবার সরকারী জমিসহ অন্যের বসতবাড়িতে অনেক ভুমিহীন ব্যক্তিদের নামে ঘর বরাদ্দ দেখানো হয়েছে। এছাড়া ঘর বরাদ্দের নামে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে। এমনকি প্রাথমিক ভাবে ঘর বরাদ্দের তালিকায় কারো কারো নাম অন্তভুক্ত থাকলেও সংশ্লিষ্টদের কিছু অসাধু ব্যক্তিকে অনৈতিক সুবিধা না দেয়ায় তালিকা থেকে অনেকের নাম বাদ পড়েছে। পাশাপাশি নির্মান কাজের সাথে সংযুক্ত ঠিকাদার গ্রæপের সদস্যরা ইট, বালু, সিমেন্ট, খোয়া, ঢেউ টীন সহ অন্যান্য উপকরন বরাদ্দের চেয়ে কম ও নি¤œ মানের সরবরাহ করছেন। পাশাপাশি মালামাল পরিবহনের খরচ (কেরিং) চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে ভুক্তভোগীদের উপর। অপরদিকে, কিছু স্বার্থেন্নেষী ব্যক্তি নিজ নামে ঘর বরাদ্দ পেয়ে অন্যের নিকট বিক্রি করে দিচ্ছেন।
সরজমিনে, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় সুন্দরবন সংলগ্ন উপকুলীয় এলাকা শরণখোলা উপজেলায় দু-দফায় ৬৭২ টি ঘর হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রতিটি ঘর ও একটি টয়লেট নির্মাণের অনুকুলে ১ লাখ টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ঘর নির্মানে উপকরণ হিসাবে ইট ৫৭০টির স্থলে ৩৭০টি, সিমেন্ট ৮ ব্যাগের স্থলে ৫ ব্যাগ সহ অন্যান্য উপকরণ সঠিকভাবে দেয়া হচ্ছে না। বেড়া, জানালা ও দরজার জন্য ঢেউটিন বরাদ্দ থাকলেও তাতেও ফাঁকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক উপজেলার উত্তর কদমতলা, রাজৈর, আমড়াগাছিয়া, বগী, চালিতাবুনিয়া এলাকার কয়েকজন ভূক্তভোগী বলেন, মালামাল পরিবহনের দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের থাকলেও তা আমাদের নিজ খরচে পরিবহন করতে হয়েছে। এছাড়া ঠিকাদারগণ ইট, সিমেন্ট, খোয়া, বালু, কাঠ ইত্যাদি বরাদ্দের চেয়েও কম সরবরাহ করছে। এ নিয়ে কোন প্রশ্ন করলে উল্টো বিপদে পড়তে হয়। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ হাসানুজ্জামান পারভেজ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘর নিয়ে উপজেলা জুড়ে এক প্রকার হরিলুট চলছে। যাচাই বছাই ছাড়াই ঢালাও ভাবে ঘর বরাদ্দের তালিকা করায় প্রকৃত দরিদ্ররা অধিকাংশ ক্ষেত্রে বাদ পড়েছে। এতে প্রধানমন্ত্রীর মুল উদ্দেশ্য ব্যহত হচ্ছে। ঠিকাদার সংশ্লিষ্টরা ঘর প্রতি সর্ব সাকুল্যে ৫৫-৬০ হাজার টাকা খরচ করে নি¤œ মানের উপকরণ দিয়ে ঘর তৈরী করে যাচ্ছে।
ধানসাগর ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ মইনুল হোসেন টিপু বলেন, আমার ইউনিয়নে ঘর বরাদ্দের খবর আমার জানা নাই। যে নিয়মে ঘর নির্মাণ করার কথা তা না করে নি¤œমানের ঘর তৈরী করায় উন্নয়নমুখী সরকারের বদনাম হচ্ছে।
রায়েন্দা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগে আহবায়ক আসাদুজ্জামান মিলন বলেন, হতদরিদ্রদের মাঝে ঘর উপহার দেয়ার বিষয়টি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর একটি মহোতি উদ্যোগ। যারা দরিদ্রদের এ ঘর নির্মাণের ক্ষেত্রে অনিয়ম ও দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করছে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ নেয়া উচিত।
তবে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি লিংকন বিশ্বাস জানান, অনিয়মের বিষয়টি তার জানা নাই, তবে তদন্ত করে অনিয়ম পেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আলিয়া মাদ্রাসার উন্নয়ন পরিদর্শনে এমপি মিজান
খবর বিজ্ঞপ্তি
গতকাল বুধবার বেলা ১২টায় খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আলিয়া মাদ্রাসার গর্ভানিং বডির সভাপতি আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি খুলনা আলিয়া মাদ্রাসায় মডেল মসজিদ স্থাপনের জায়গায় পুরাতন মসজিদ ভাঙ্গার কাজ পরিদর্শন করেন। সেই সাথে তিনি মাদ্রাসার ছাত্রদের ছাত্রবাস, একাডেমিক ভবন, শিক্ষকদের কোয়াটারসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের খোজ খবর নেন।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রজব আলী সরদার, এমডিএ বাবুল রানা, আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আ খ ম জাকারিয়া, ফেরদৌস হোসেন লাবু, আসাদুজ্জামান রাসেল প্রমুখ।

হাজীদের সাথে এমপি মিজানের কুশল বিনিময়
খবর বিজ্ঞপ্তি
আলহাজ্ব ইব্রাহিম ফয়জুল্লাহর নেতৃত্বে ২১ সদস্যের হাজীদের সাথে গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় ইব্রাহীম ফয়জুল্লার বাসায় মতবিনিময় করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি। তিনি হাজীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব মো: শহিদুল ইসলাম, মাওলানা মিজান, মাওলানা আলতাফ হোসেন, আলহাজ্ব হারুনুর রশিদ, মাওলানা ওহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

নিহত শিক্ষক কাজী তয়নের বাসায় শোক জানাতে এমপি মিজান
খবর বিজ্ঞপ্তি
নগরীতে জমি-জমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে অপহরণের ১৫ দিন পর ডোবা থেকে কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শিক্ষক কাজী তাসফিন হোসেন তয়নের নিহতের সংবাদ পেয়ে ছুটে গিয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি।
এসময় তিনি শোকসন্তপ্ত পরিবারের পাশে দাড়ান এবং সেখানে কিছু সময় কাটান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ডিএম মাহফুজুর রহমান লিটন, ফেরদৌস হোসেন লাবু, কাজী রেজাউল ইসলাম, কাজী আশরাফুল ইসলাম টুটুল, কাজী রমজান প্রমুখ।
উল্লেখ্য, গত ২৮ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে নগরীর খালিশপুরস্থ মুজগুন্নী এলাকা থেকে মুজগুন্নী আইডিয়াল মডেল স্কুলের কম্পিউটার বিভাগের শিক্ষক তাসফিন হোসেন তয়ন (৩২) অপহরণের শিকার হন। এ ঘটনার ১৫ দিনের মাথায় গতকাল মঙ্গলবার সকালে বয়রা পুলিশ লাইনের পেছনে আনসার উদ্দিন সড়কের অদূরে একটি ডোবা থেকে তার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় খালিশপুর থানাধীন মুজগুন্নীর ইনসান গাজীর ছেলে সাইফুল গাজী (২০) ও মুজগুন্নী পূর্বপাড়া কমিশনার মোড় এলাকার মৃত কাজী আবুল বাসারের ছেলে মোঃ কাজী মাসুদ (২৭)-কে গত সোমবার বিকেলে আটক করা হয়। গতকাল তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হলে সাইফুল স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়।

বাণিজ্য গতিশীল করতে ভারতে বাংলাদেশি প্রতিনিধি দল
যশোর অফিস
বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য আরও গতিশীল করতে পেট্রাপোল বন্দরে বৈঠকে গেছেন বাংলাদেশি প্রতিনিধি দল।
বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ২৫ সদস্যের প্রতিনিধি দলটি ভারতে প্রবেশ করেন।
বেনাপোল স্থলবন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলে রয়েছেন, বেনাপোল কাস্টমসের সহকারী কমিশনার উত্তম চাকমা, বাংলাদেশ স্থলবন্দর এমপ্লোয়েজ ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মনির মজুমদার, বেনাপোল সিআ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন, সহ-সভাপতি নুরুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক লতা, সাবেক সিআ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সামসুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজিম উদ্দীন, দফতর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম, বন্দর বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দীন, সিআ্যান্ডএফ স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুজিবর রহমান, সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দীন, বন্দরের পণ্য খালাসকারী ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ড্রপ কমিউকেশনের প্রতিনিধি ওহিদুজ্জামান ওহিদ, এসআইএস লজেস্টিকের প্রতিনিধি সুলতান আহম্মেদ বাবু, ৮৯১ বন্দর হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গনি প্রমুখ।
জানা যায়, বেনাপোল বন্দর থেকে ভারতের বাণিজ্যিক শহর কলকাতার দূরত্ব মাত্র ৮৩ কিলোমিটার। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে প্রথম থেকেই ব্যবসায়ীদের বাণিজ্যে আগ্রহ বেশি। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে বেনাপোল বন্দর দিয়ে বাণিজ্য সম্পাদন ও যাত্রীদের যাতায়াতে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এতে প্রশাসনিক সেবা নিয়ে বিভিন্ন মহলে বিতর্ক হচ্ছে। এসব সমস্যা সমাধান নিয়ে দুই দেশের প্রশাসনিক ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের মধ্যে এ গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।
এদিকে বাংলাদেশি প্রতিনিধি দল দুপুরে বেনাপোল নোম্যান্সল্যান্ডে পৌঁছালে ভারতের পেট্রাপোল কাস্টমসের সহকারী কমিশনার রমেশ্বর মিনাসহ ব্যবসায়ী নেতারা তাদের অভ্যর্থনা জানান। পরে তারা অতিথিদের পেট্রাপোল বন্দর অডিটোরিয়ামের বৈঠকস্থলে নিয়ে যায়।

যশোরে বিদ্যুৎস্পর্শে যুবদল নেতার মৃত্যু
যশোর অফিস
যশোরে বিদ্যুৎস্পর্শে হাসান আহম্মেদ (২৫) নামে একজন যুবদল নেতার মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুরে যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগে তার মৃত্যু হয়। নিহতের মরদেহ এখন যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। হাসান আহম্মেদ যশোর সদর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি ঝুমঝুমপুর বেলেডাঙ্গা আহাদ জুট মিলের লেবার সদরদার ছিলেন। এবং সে একই গ্রামের জব্বার মোল্যার ছেলে।
ফতেপুর ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি কামাল হোসেন বাবু বলেন, হাসান আহম্মেদ আমার কমিটির যুগ্ন- সাধারণ সম্পাদক ছিল।
যশোর যুবদলের সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বলেন, হাসান আহম্মেদ আমাদের সংগঠনের একজন কর্মি ছিল। বুধবার দুপুরে সে তার নীজ বাড়িতে টেলিভিশনের ফ্লাগের তার মেরামত করছিল। এসময় সে বিদ্যুৎতায়িত হয়। এসময় পরিবারের লোকজন হাসানকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার কল্লোল কুমার সাহা একই বিভাগের ডাক্তার শফিউল্লাহ সবুজের উদ্ধিৃতি দিয়ে বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই হাসান আহম্মেদের মৃত্যু হয়েছে।

কেশবপুরে আটকের পর দুই লাখ টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ
যশোর অফিস
কেশবপুরের চিহ্নিত ভূমিদস্যু, জাল-জালিয়াতিসহ একাধিক অপকর্মের হোতা আয়ূব খানকে অবশেষে থানা পুলিশ আটক করার পর ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর কেশবপুর থানা পুলিশ তাকে পুরাতন গরুহাটার পাশ থেকে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। দুই লাখ টাকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দিয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।
থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায় থানার এস আই মেহেদী হাসান’র নেতৃত্বে একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে আয়ূব খানকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আটক করে। এরপর স্থানীয় কথিত এক ব্যক্তির মধ্যস্থতায় রাত ১১টার দিকে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। ভূমিদস্যু আয়ূব খানের পিতা মৃত ওদুদ খান ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে কেশবপুরের পীচ কমিটির সেক্রেটারী থাকাকালীন তার বিরুদ্ধে খুন, ধর্ষণ, জ্বালাও পোড়াও সহ একাধিক পরিবারের বাড়ি ও জমি দখলের অভিযোগ রয়েছে। এসময় তিনি কেশবপুর শহরস্থ যশোর-সাতক্ষীরা সড়কের পার্শ্বে মধ্যকুল নামক স্থানে অবস্থিত যশোর সড়ক ও জনপথের প্রায় ৩০ বিঘা জমি জোর পূর্বক জবর দখল করে নেয়। যুদ্ধ শেষে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা ওদুদ খানকে গুলি করে হত্যা করে। তার মৃত্যুর পর তার ছেলে আয়ূব খানের নেতৃত্বে পরিবারটি ঐ সরকারী জমি নিজেদের দখলে রেখেছে। সরকারী ঐ জমি উদ্ধারের জন্য বিভিন্ন সময় পত্র পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হলে ও তাতে কোন কাজ হয়নি। অবশেষে মধ্যকুল গ্রামবাসী ভূমিদস্যু ও যুদ্ধাপরাধী পরিবারের হাত থেকে সরকারী ঐ জমি উদ্ধারের জন্য ২০১৮ সালের ৭ জুন তারিখে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট একটি অভিযোগ করেন। নির্বাহী কর্মকর্তা এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) নির্দেশ দিলেও এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তা ফাইলবন্দী হয়ে পড়ে আছে।
অপরদিকে আয়ূব খান মধ্যকুল গ্রামের দিন মজুর জয়দেব নাথের ভিটাবাড়ী জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে বিক্রি করে টাকা ভাগাভাগির ঘটনায় আদালতের একটি মামলা থানা পুলিশ ২০১৮ সালের ১ জুলাই তারিখে তার বিরুদ্ধে একটি প্রতিবেদন দিয়েছেন। তাতে জাল জালিয়াতির ঘটনাটি সত্য বলে প্রতিবেদনে উল্ল্যেখ করা হয়েছে। যার সিআর মামলা নং- ১৩/১৮ তারিখ ০৮.১০.১৮, স্মারক নং-৬৩ তারিখ ২৮.২.১৮ইং। ধারা ৪০৯/৪২০/৪৬৫/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১/১০৯ দঃবিঃ। এছাড়া আয়ূব খানের বিরুদ্ধে থানায় সাধারন ডায়েরী সহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। যার জিডি নং- ৭৪২ তাং-১৮.০৮.১৮ইং। এদিকে আয়ূব খান ২০০৭ সালে মধ্যকুল গ্রামের সরকারী সড়কের উপর থেকে গাছ চুরির দায়ে আটক হয়ে বেশ কিছুদিন হাজতবাস শেষে জামিনে মুক্ত হয় ।
এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার এসআই মেহেদি হাসানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি দুই দিন ধরে ছুটিতে আছি। কোন আসামি আটক করেনি। আয়ুব খানকে আটকের প্রশ্নই আসে না।

বজ্রপাতে শরণখোলা ও আশাশুনিতে নিহত ৩
খুলনাঞ্চল ডেস্ক
বাগেরহাটের শরণখোলায় বজ্রপাতে এক কৃষক সহ দুটি গরু এবং সাতক্ষীরার আশাশুনিতে ২ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার এ ঘটনা ঘটে।
আশাশুনি প্রতিনিধি জানান, আশাশুনি উপজেলার সীমান্তবতী চাম্পাফুল আপ্রচ মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠের ৪ ছাত্রী বজ্রপাতে হতাহত হয়েছে। অপরদিকে উপজেলার কাপসন্ডায় বজ্রপাতে মৎস্য ঘের শ্রমিক নিহত হয়েছে। বুধবার বিকালে চাম্পাফুল দীঘির পাড়ের পুর্বপাশে বাঁশ বাগানে এবং কাপসন্ডা মৎস্য ঘেরে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। চাম্পাফুল স্কুলের অনেক শিক্ষার্থী অবঃ শিক্ষক জগন্নাথ কুমারের নিকট প্রাইভেট পড়ে। ঘটনার সময় সাঁইহাটি গ্রামের বিল্লাল খাঁর কন্যা ৮ম শ্রেণির ছাত্রী বিলকিস, তেঁতুলিয়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের কন্যা ৮ম শ্রেণির ছাত্রী সাথী, চাম্পাফুল গ্রামের আকবর শেখের কন্যা ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ময়না ও বালাপোতা গ্রামের রহিম শেখের কন্যা ৯ম শ্রেণির ছাত্রী রুবিনা প্রাইভেট পড়া শেষে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। বৃষ্টিপাত শুরু হলে তারা রঞ্জন পালের বাঁশ ঝাড়ের তলায় আশ্রয় নেয়। সেখানে তাদের উপর বজ্রপাত হলে তাদেরকে দ্রæত আশাশুনি হাসপাতালে নেওয়া হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক বিলকিসকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। সাথী, ময়না ও রুবিনাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। অপরদিকে উপজেলার খাজরা ইউনিয়নের কাপসন্ডা গ্রামের মৃত খোদাবক্স গাজীর পুত্র তাছেল গাজী (৩২) একই গ্রামের খালিদ হোসেনের মৎস্য ঘেরে কর্মচারী হিসাবে কর্মরত ছিলেন। বিকালে তিনি ঘেরের মধ্যে মাছ ধরার আটন (ঘুনি) বসাচ্ছিলেন। এসময় তার উপর বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থানেই তার মৃত্যু হয়। তিনি বাড়িতে না আসায় সন্ধ্যার দিকে খোজাখুজির পর তাকে মৃত্যুাবস্থায় ভাসতে দেখে উদ্ধার করা হয়।
শরণখোলা প্রতিনিধি জানান, বাগেরহাটের শরণখোলায় বজ্রপাতে এক কৃষক সহ দুটি গরু নিহতের খবর পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার দুপুরে আকষ্মিক এক ঝড়ের সময় এ ঘটনা ঘটে।
হাসপাতাল ও নিহতের পরিবার সুত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুরে উপজেলার হোগলপাতি গ্রামের বাসিন্দা বিমল হাওলাদারে ছেলে কৃষক বিপুল হালদার (৫০) বৃষ্টির মধ্যে তার গোয়াল ঘরে আশ্রয় নেয়। এসময় গোয়াল ঘরের পাশে হঠাৎ বজ্রপাত হলে তিনি মারত্মক আহত হন। পরে আশংকাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। অপরদিকে, একই দিন দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ রাজপুর গ্রামের মাঝের চর এলাকার বাসিন্দা কৃষক জাকির হোসেনের দুটি গরু বজ্রপাতে মারা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here